দক্ষিণবঙ্গ

টোপ দিয়ে বাড়িতে ঢুকে লুট পাঁচ লক্ষ

নিজস্ব প্রতিনিধি, আসানসোল: ভাগ্য ফিরবে জড়িবুটিতে। দূর হবে সংসারের অশান্তি, আর্থিক অনটন। উন্নতি তখন আটকানোর সাধ্যি কার! কে না চায়, আরও বেশি স্বাচ্ছন্দ্য, আরও বেশি বিলাস বৈভব?
আসানসোল উত্তর থানার কন্যাপুর ফাঁড়ি এলাকা বাসিন্দা মা-ছেলেও তাই চাইতেন। স্বভাবতই আগুন্তুক এক সাপুড়ের এমন টোপ হাতছাড়া করেননি তাঁরা।  তাঁকে আদর-যত্ন করে বাড়ির অন্দরমহলে নিয়ে যান। তার পরেই কেরামতি শুরু ওই সাপুড়ের। জড়িবুটি দিয়ে তুকতাক। সে চলে যেতেই আক্কেল গুড়ুম মা-ছেলের। বাড়ি থেকে লুট পাঁচ লক্ষ টাকা! সঞ্চয়ের প্রায় সর্বস্ব খুইয়ে তাঁরা ছুটলেন থানায়। দায়ের করলেন অভিযোগ।  তদন্তে নেমে পূর্ব বর্ধমানের আউসগ্রাম থানা এলাকা থেকে ওই ঠগবাজ সাপুড়েকে গ্রেপ্তার করে পুলিস। তদন্তকারীদের দাবি, একদা অত্যন্ত দরিদ্র ছিল সাপুড়ে। এখন তার বিশাল বাড়ি। মানুষ ঠকানোর টাকাতেই  তার এই উন্নতি। 
তদন্তে উঠে এসেছে শুধু আসানসোল নয়, ধৃত সাপুড়ের নিয়মিত যাতায়াত রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর ও বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুরেও।  দুই  জায়গার মানুষককে বেমালুম বোকা বানিয়ে টাকা হাতিয়েছে। আসানসোল উত্তর থানার পুলিসের দাবি, কুসংস্কারে আচ্ছন্ন এমনও অনেক মানুষ রয়েছেন,  যাঁরা বিশ্বাস করেন তন্ত্র সাধনা। জুড়িবুটির মাহাত্ম্য। এগুলি করলে  টাকা বেড়ে যায়। সেই অন্ধবিশ্বাসকে কাজে লাগিয়েও ওই সাপুড়ে প্রতারণার ফাঁদও পেতেছিল এই বলে—‘আমার কাছে টাকা রাখলে এক মাসের মধ্যে দ্বিগুণ করে ফিরিয়ে দেব।’ 
আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিসের ডিসি কুলদীপ সোনাওয়ানে বলেন, ‘আসানসোল উত্তর থানার গাড়ুই এলাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা চুরি যায়। সুকৌশলে টাকা লুট করার অভিযোগে আউসগ্রাম থানা এলাকা থেকে এক সাপুড়েকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একাধিক অপরাধের সঙ্গে তার যুক্ত থাকার সূত্র মিলছে।’
কয়েক মাস আগে কন্যাপুর ফাঁড়ি এলাকায় ওই সাপুড়ে হাজির হয়। সেখানকার গাড়ুই এলাকায় মা ও ছেলে একটি বাড়িতে থাকেন। তাঁরা বলছিলেন, ‘একদিন সকালে সাপুড়ে বাড়ির দরজায় আসে। বাড়িতে নানা সমস্যা রয়েছে বলে নিজের থেকে বলতে শুরু করে।  জড়িবুটির ক্ষমতাতেই সব ঠিক হয়ে যাবে বলেও আমাদের আশ্বস্ত করে।’ এরপরই  তাকে ঘরের ভিতরে অভ্যর্থনা করে আনা হয়। ছেলেকে জল আনতে বলার পর গৃহকর্ত্রীর কাছে চা খাওয়ার আবদার করে ওই সাপুড়ে। মা  ও ছেলে চোখের আড়াল হতেই বাড়িতে থাকা ব্যাগ ভর্তি পাঁচ লক্ষ টাকা নিয়ে চম্পট দেয় সে। বেশ কিছুদিন পর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মা ও ছেলে। পুলিস তদন্তে নেমে আউসগ্রাম থানার কারাটিয়া গ্রাম থেকে  হারাধন মাল নামে ওই সাপুড়েকে গ্রেপ্তার করা হয়। শনিবার রাতে চলে দীর্ঘ জেরা। রবিবার তাকে আসানসোল আদালতে তুলে টিআ‌‌ই প্যারেড করানোর আর্জি জানানো হয়। বিচারক অভিযুক্তকে জেল হেফাজতে পাঠায়। 
এক দিনের জেরাও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গিয়েছে বলে পুলিসের দাবি। অভিযোগকারিরা বোকা বানিয়ে টাকা লুট করার কথা বললেও অভিযুক্তর দাবি, জেনে বুঝেই তার হাতে ৫ লক্ষ টাকা দিয়েছিল মা ও ছেলে। তাঁদের সে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল এক মাসের মধ্যেই টাকা দ্বিগুণ হবে। টিআই প্যারেডের পর পুলিস অভিযুক্তকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে অভিযোগকারির সঙ্গে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করতে চায়। তদন্তকারী অফিসারের দাবি, অভিযুক্ত স্বীকার করেছে পূর্ব মেদিনীপুর, বাঁকুড়া সহ একাধিক জেলায় সে টাকা লুট করেছে। এবারই প্রথম পুলিসের জালে ধরা পড়ল।  
9Months ago
কলকাতা
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

পড়ে গিয়ে দেহে আঘাত লাগতে পারে। নিকট আত্মীয়ের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি। আয় যোগ শুভ।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৭২ টাকা৮৪.৪৬ টাকা
পাউন্ড১০৬.৬৭ টাকা১১০.১৯ টাকা
ইউরো৮৯.৪৯ টাকা৯২.৬৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা