চাষ আবাদ
 

 কোনও রকমে আলু চাষের এলাকা কভার হলেও পরিচর্যার অভাবে ফলন মার খাবে

 তন্ময় মল্লিক: বীজের দাম তলানিতে এসে ঠেকায় এবার কোনওরকমে আলু চাষের এলাকা অনেকটা কভার হয়ে গেলেও পরিচর্যা নিয়ে চাষিরা চরম সমস্যায় পড়েছেন। নোট বাতিলের ধাক্কায় খেতমজুর না পেয়ে বহু চাষি পরিবার ঘরযোগে কোনওরকমে আলু বসিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু, জমিতে সার দেওয়া, পরিচর্যা করা ঠিকমতো হচ্ছে না। কীভাবে চাষিরা চাপান দেবেন, সেচ দেবেন ও পরিচর্যা করবেন, তা ভেবে পাচ্ছেন না। ফলে, আলুর উৎপাদন ভীষণভাবে মার খাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত রাজ্যের হিমঘরগুলিতে প্রচুর আলু থেকে যাওয়ায় বাজারে ধস নামার পাশাপাশি বীজের বাজারও জোর ধাক্কা খায়। তার উপর মোদি সরকারের বড় নোট বাতিলের ধাক্কা বীজ ব্যবসায়ীদের একেবারে শুইয়ে দিয়েছে। অন্যান্য বছর যে পাঞ্জাবের বীজে হাত দিতে গেলে ছ্যাঁকা লাগার উপক্রম হয়, সেই বীজ এবার কেনার লোক ছিল না। পশ্চিম মেদিনীপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় শেষ দিকে খাওয়ার আলুর দামে বীজ বিক্রি হয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে চাষিরা আলু ফেলে না দিয়ে কোনওরকমে মাঠ চষে তা কেটে বসিয়ে দিয়েছেন। নোট বাতিলের ধাক্কায় খেতমজুর না পাওয়ায় বহু চাষি পরিবার ঘরযোগে, এমনকী আত্মীয়দের এনে আলু বসিয়েছেন। বেশিরভাগ চাষিই জমি তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় সার দিতে পারেননি। কারণ কেন্দ্রীয় সরকার নোট বাতিলের সঙ্গে সঙ্গে সমবায় ব্যাংকগুলিকেও পঙ্গু করে দিয়েছিল। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লাগাতার সমবায় ব্যাংকগুলিকে অর্থ দেওয়ার দাবি জানানোর পর নভেম্বর মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে সমবায় ব্যাংকগুলিকে রিজার্ভ ব্যাংক কিছু কিছু করে অর্থ জোগান দিতে শুরু করে। কিন্তু, তা চাহিদার তুলনায় খুবই কম। সমবায় দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, কৃষিঋণ দেওয়ার জন্য রাজ্যের সমবায় ব্যাংকগুলি ৭০০ কোটি টাকা ডিমান্ড পেশ করলেও মাত্র ১৯০ কোটি টাকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে। আলুচাষ যথেষ্ট ব্যয়বহুল চাষ। নিয়মিত সেচ দেওয়ার পাশাপাশি ধসার আক্রমণ থেকে গাছ রক্ষা করার জন্য ওষুধ স্প্রে করতে হয়। উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য দিতে হয় অনুখাদ্য। তার জন্য প্রচুর টাকার প্রয়োজন হয়। কিন্তু, সেই টাকার জোগান নেই। তাই মার খাবে পরিচর্যা। মার খাবে উৎপাদন।
তবে, নোট বাতিলের ধাক্কায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়ে গেল খেতমজুরদের। আলু বসানো, পরিচর্যা করা, বোরো রোয়ার জন্য খেতমজুর পেতে চাষিদের নাকানিচোবানি খেতে হয়। টাকা নিয়ে খেতমজুরদের পিছনে পিছনে ছুটতে হয়। এই সময় খেতমজুররা ফূরণে কাজ করে দু’টো পয়সার মুখ দেখেন। কিন্তু, নোট বাতিলের ধাক্কায় সব মাটি হয়ে গিয়েছে। চাষি থেকে সাধারণ মানুষ যখন টাকার জন্য এটিএমে, ব্যাংকে লাইন দিচ্ছেন, তখন খেতমজুররা তাঁদের বউ, বাচ্চার পেট চালানোর জন্য কোথায় যাবেন, কী করবেন ভেবে পাচ্ছেন না। দিন দশেক পর ডিসেম্বর মাস শেষ হয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস অনুযায়ী হয়তো টাকার জোগান অনেকটাই বেড়ে যাবে, সাধারণ মানুষের দুর্ভোগও হয়তো কিছুটা কমবে, কিন্তু অনাহারে, অর্ধাহারে দিন দিন রুগ্‌ণ হতে থাকা খেতমজুরদের অপুষ্টির ক্ষতে কি প্রলেপ পড়বে?
21st  December, 2016
বনাঞ্চল সংলগ্ন চাষিদের ওল চাষের পরামর্শ দিচ্ছে উদ্যানপালন দপ্তর

 রবীন রায়: পাট, ভুট্টার গাছ বড় ও বোরো ধান পাকা শুরু হতেই আলিপুরদুয়ার জেলায় বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্প, জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান এবং চিলাপাতা বনাঞ্চল সংলগ্ন গ্রামগুলিতে হাতির হানাদারি শুরু হয়েছে। তাই কৃষি দপ্তর ও উদ্যানপালন দপ্তর জঙ্গল ঘেঁষা বনবস্তি ও গ্রামবাসীদের বিকল্প চাষ হিসাবে পেয়ারা, তেজপাতা, আপেল কুল ও ওল চাষের উপর জোর দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে।
বিশদ

21st  June, 2017
তীব্র দাবদাহের পর জেলায় জেলায় ভালো বৃষ্টি
আমনের বীজতলা তৈরির কাজ এখনই সেরে ফেলতে হবে

শ্যামল হালদার: দীর্ঘদিন অনাবৃষ্টির পর জেলায় জেলায় ভালো বৃষ্টি হল। বলতে গেলে জুনের মাঝমাঝিই রাজ্যে বর্ষা ঢুকল। এই বৃষ্টিকে কাজে লাগিয়েই আমনের বীজতলা তৈরির বাকি কাজ সেরে ফেলতে হবে। তীব্র গরমে আগে যেসব বীজতলা তৈরি হয়েছিল সেচের অভাবে অনেকটাই নষ্ট গিয়েছে। মূলত বৃষ্টির অভাবেই এবারে বীজতলা তৈরির কাজ মার খেয়েছে।
বিশদ

21st  June, 2017
বর্ষায় মাছ চাষের জন্য এখন থেকেই বিল ও পুকুর পরিচর্যা জরুরি

প্রসেনজিৎ সরকার: আসন্ন বর্ষায় মাছ চাষ বেশ লাভদায়ক। শিলিগুড়ি মহকুমার মাটিগাড়া ব্লকের পাথরঘাটা, ফাঁসিদেওয়া ব্লকের রাঙাপানি ও চটহাটে মাছ চাষের উপযোগী বিল ও পুকুরগুলিকে এখন থেকেই পরিচর্যা করার পরামর্শ দিচ্ছে মৎস্য দপ্তর।
বিশদ

21st  June, 2017
বর্ষার পিয়াজ চাষে নামুন এই সময়

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: বর্ষাকালীন পিয়াজের চাষ করলে ভালো লাভ পাওয়া যেতে পারে। বর্ষাকালীন পিয়াজ চাষের জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। বর্ষাকালীন পিয়াজের সবচেয়ে ভালো জাতটি হল এগ্রিফাউন্ড ডার্ক রেড। বীজ ফেলার সময় আষাঢ়-শ্রাবণ মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত। ৫ সপ্তাহ বয়সের চারা জমিতে বসাতে হবে।
বিশদ

21st  June, 2017
আষাঢ় মাস সয়াবিন বোনার উপযুক্ত সময়

 সন্দীপ বর্মন: আষাঢ় মাস সয়াবিন বোনার উপযুক্ত সময়। সয়াবিন চাষ করে লাভবান হতে পারেন চাষিরা। এজন্য সঠিক জাতের বীজ এবং সঠিক পরিমাণ রাসায়নিক সার ও জৈব সার ব্যবহার করতে হবে। বীজ জমিতে বোনার আগে শোধন করে নিলে ভালো হয়।
বিশদ

21st  June, 2017
বেবিকর্ন চাষে আগ্রহ বাড়ছে

নবজ্যোতি সরকার: শুকনো, উঁচু এবং পতিত জমিতে অন্যতম ফসল হিসাবে কর্ন এবং বেরিকর্ন চাষে মেতে উঠেছেন উত্তর ২৪ পরগনার চাষিরা। বর্তমানে মিষ্টি কর্ন এবং মিষ্টি বেবিকর্ন এক অর্থকরী ফসল। সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে জেলা কৃষি দপ্তর।
বিশদ

21st  June, 2017
এই বৃষ্টিতে পেঁপে চাষ করুন

 সংবাদদাতা: বর্ষায় পেঁপে চাষ লাভজনক। বর্ষার শুরুতেই চাষিদের এই চাষ শুরু করা উচিত। পেঁপের জমিতে সাথী ফসল হিসাবে টম্যাটো, লংকা, মুলো এবং বেগুন চাষ করা যাবে। এইভাবে জমিতে বিভিন্ন প্রকার সবজি একসঙ্গে চাষ করে চাষিরা অনেক বেশি লাভ করতে পারবেন। অনেক এলাকায় ব্যবসায়িক ভিত্তিতে পেঁপের চাষ হয়।
বিশদ

21st  June, 2017
বর্ষাকালীন সবজির যত্ন নিন

 সংবাদদাতা: বর্ষার সময় মাঠে যে সব সবজি রয়েছে সেগুলির উৎপাদন ঠিক রাখতে জমিতে সময়মতো সার, কীটনাশক ও আগাছা পরিষ্কার প্রয়োজন। বর্ষার সময় সাধারণ জমিতে বেগুন ও ডাঁটা লাগানো যেতে পারে। অপেক্ষাকৃত উঁচু জমিতে মুলো, বরবটি ও বাঁধাকপি লাগানো যেতে পারে। বর্ষার বেগুনে কাণ্ড ও ফল ছিদ্রকারী পোকার আক্রমণ হয়।
বিশদ

21st  June, 2017
শসা চাষে লাভ ভালো

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়: অল্প সময়ে বেশি লাভ পেতে শসা চাষ করা উচিত। সারা বছরই শসার চাহিদা থাকে। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় উস্থি, বেণীপুর, হোগলা, মগরাহাট এলাকায় বর্ষাকালীন শসার চাষ শুরু হয়ে গিয়েছে। সেভেন স্টার প্রজাতির এই শসার ফলন ৩৫ দিনের মধ্যে হয়ে যায়। এই এলাকার চাষিরা জানালেন, প্রাক্‌বর্ষা ও রমজান মাস চলছে।
বিশদ

21st  June, 2017

Pages: 12345




একনজরে
 রায়পুর, ২২ জুন (পিটিআই): মাওবাদী হামলায় প্রাণ হারালেন এক পুলিশকর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে ছত্তিশগড়ের বীজাপুর জেলায়। পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার রাতে এক আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন শুক্কু গোটা (৩০) নামে ওই পুলিশকর্মী। সেই সময়ে আচমকাই একদল মাওবাদী সেখানে হামলা চালায়। ...

 বিএনএ, বারাসত: কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠল হাবড়ার ‘আবাদ সোনাকানিয়া সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতি লিমিটেডের’ ম্যানেজার ও ক্যাশিয়ারের বিরুদ্ধে। গ্রাহকদের দাবি, প্রায় চার ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বেঙ্গল কেমিকেলের বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়ায় বৃহস্পতিবার অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করল কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি দেবাংশু বসাকের নির্দেশ, ৩১ আগস্ট পর্যন্ত ওই বিক্রয় প্রক্রিয়া কার্যকর ...

সংবাদদাতা, ঘাটাল: ঘাটালের সুন্দরপুরে তিনজনকে পুড়িয়ে মারার ঘটনায় অপরাধীদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে প্রশাসন কোনওরকম ত্রুটি রাখবে না। বৃহস্পতিবার মৃতদের পরিবারকে সান্ত্বনা দিতে এসে এই আশ্বাস দেন ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের বিভিন্ন থেকে শুভ যোগাযোগ ঘটবে। হঠাৎ প্রেমে পড়তে পারেন। কর্মে উন্নতির যোগ। মাঝ মধ্যে ... বিশদ



ইতিহাসে আজকের দিন

 ১৯৪৮: সাহিত্যিক নবারুণ ভট্টাচার্যের জন্ম
 ১৯৫২: অভিনেতা ও রাজনীতিক রাজ বব্বরের জন্ম
 ১৯৫৩: রাজনীতিক শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু
 ১৯৮০: বিমান দুর্ঘটনায় রাজনীতিক সঞ্জয় গান্ধীর মৃত্যু




ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.৭০ টাকা ৬৫.৩৮ টাকা
পাউন্ড ৮০.৪২ টাকা ৮৩.২০ টাকা
ইউরো ৭০.৮৭ টাকা ৭৩.৩৯ টাকা
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,১২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৭,৬৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৮,০৪৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা

দিন পঞ্জিকা

৮ আষাঢ়, ২৩ জুন, শুক্রবার, চতুর্দশী দিবা ১১/৫০, রোহিণীনক্ষত্র দিবা ৭/৪৯ পরে মৃগশিরা শেষ রাত্রি ৪/৪৯, সূ উ ৪/৫৭/৬, অ ৬/২০/১২, অমৃতযোগ দিবা ১২/৫-২/৪৫ রাত্রি ৮/২৮ পুনঃ ১২/৪৩-২/৫০ পুনঃ ৩/৩৩-উদয়াবধি, বারবেলা ৮/১৮-১১/৩৯, কালরাত্রি ৯/০-১০/১৯।
 ৮ আষাঢ়, ২৩ জুন, শুক্রবার, চতুর্দশী ১১/১০/৪৪, রোহিণীনক্ষত্র ৭/২৮/৫১, সূ উ ৪/৫৪/৪, অ ৬/২২/১৫, অমৃতযোগ দিবা ১২/৫/১৬-২/৪৬/৫৪, ৮/২৮/৪৮, ১২/৪১/৩১-২/৪৭/৫৩, ৩/৩০/০-৪/৫৪/২১, বারবেলা ৮/১৬/৭-৯/৫৭/৮, কালবেলা ৯/৫৭/৮-১১/৩৮/৯, কালরাত্রি ৯/০/১২-১০/১৯/১১।
২৭ রমজান

ছবি সংবাদ


এই মুহূর্তে
  নাগরিক পরিষেবা দিতে ‘বন্ধু’ অ্যাপ চালু করল লালবাজার
 নাগরিকদের পরিষেবা দিতে কলকাতা পুলিশ ‘বন্ধু’ নামে একটি নয়া অ্যাপ চালু করল। এই অ্যাপের সাহায্যে মোবাইল, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্সের মতো ৩১টি সামগ্রী হারিয়ে গেলে স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে ঘরে বসেই জেনারেল ডায়েরি করা যাবে। এরজন্য আর থানায় যেতে হবে না। আবার, এই অ্যাপে ‘প্যানিক’ বোতাম রয়েছে। বিপদের সময় কেউ এই বোতামে চাপ দিলে তা কলকাতা পুলিশের কন্ট্রোল রুমে ‘১০০-ডায়াল এ ফোন যাবে। এমনকী শহরের কোথায় পার্কিংলট ফাঁকা আছে, তাও জানা যাবে এই অ্যাপের সাহায্যে। আবার আপনার হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধার হল কি না, তাও জানাবে এই অ্যাপ। গুগুল প্লে স্টোর থেকে এই অ্যাপ ডাডনলোড করা যাবে।

08:30:00 AM

 ইতিহাসে আজকের দিনে
  ১৯৪৮: সাহিত্যিক নবারুণ ভট্টাচার্যের জন্ম
 ১৯৫২: অভিনেতা ও রাজনীতিক রাজ বব্বরের জন্ম
 ১৯৫৩: রাজনীতিক শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু
 ১৯৮০: বিমান দুর্ঘটনায় রাজনীতিক সঞ্জয় গান্ধীর মৃত্যু

08:30:00 AM

  বাগনানে ফের ট্যারেন্টুলা আতঙ্ক
বাগনান থানার ঈশ্বরপুর, খালোড়সহ বিভিন্ন এলাকার মানুষ বিষাক্ত মাকড়সার আতঙ্কে তটস্থ। প্রায় প্রতিদিনই কোনও না কোনও গ্রামে কালো লোমযুক্ত লম্বা পাওয়ালা বড় বড় মাকড়সা দেখে অনেকেই ‘ট্যারেন্টুলা’ আতঙ্কে আতঙ্কিত। কয়েকদিন আগে ঈশ্বরপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে এই মাকড়সা মারা হয়। সেটি বন দপ্তরের কাছেও পাঠানো হয়। এগুলি ট্যারেন্টুলা না হলেও বিষাক্ত মাকড়সা বলে বনদপ্তর সূত্রে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরবেলা খালোড় গ্রামের স্বপন রায়ের বাড়ি থেকে এ ধরনের একটি মাকড়সা মারা হয়। এই মাকড়সা বনজঙ্গল থেকে এখন ঘরের বিছানায় চলে যাচ্ছে। বাচ্চাদের কামড়ালে বিপদের আশঙ্কা রয়েছে বলে স্থানীয় চিকিৎসকরাও মনে করছেন।

08:20:00 AM

মনের ভাব প্রকাশে এইচপি’র নোটবুক
পড়ুয়া থেকে শুরু করে পেশাদার বা চাকরিজীবী—মানুষের শিল্পীসত্তাকে উজ্জীবিত করতে দু’টি নোটবুক নিয়ে এল এইচপি। উইনডোজ ইংক ক্ষমতার নতুন কনভার্টেবল নোটবুকগুলি হল এইচপি প্যাভিলিয়ন X ৩৬০ এবং এইচপি স্পেকট্রা X ৩৬০। সংস্থা জানিয়েছে, এতে থাকছে সপ্তম জেনারেশনের প্রসেসর, আইপিএস ফুল এফএইচডি টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে, চার জিবি পর্যন্ত এনভিডিয়া ডেডিকেটেড গ্রাফিক্স কার্ড। এছাড়াও থাকছে এইচপি অ্যাক্টিভ পেন, যা উইনডোজ ইংকের সাহায্যে মনের ভাব প্রকাশে সাহায্য করবে। এতে আঁকা যাবে, লেখা যাবে বা হাইলাইট করা যাবে কোনও লেখা। সংস্থাটি জানিয়েছে, এই নোটবুকগুলির দাম ৪০ হাজার ২৯০ টাকা থেকে ১ লক্ষ ১৫ হাজার ২৯০ টাকার মধ্যে।

08:07:00 AM

  ২০২৪ সালের মধ্যে জনসংখ্যার বিচারে চীনকে টপকাবে ভারত
মাত্র সাত বছরের মধ্যেই জনসংখ্যায় চীনকে টেক্কা দেবে ভারত। বুধবার রাষ্ট্রসংঘের তরফে প্রকাশিত এক রিপোর্টে এমনই কথা বলা হয়েছে। এই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ২০৫০ সালের আগেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে টেক্কা দিয়ে জনসংখ্যার বিচারে তৃতীয় স্থানে উঠে আসতে চলেছে নাইজেরিয়া। ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্স দপ্তরের জনসংখ্যা বিভাগ সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমানে পৃথিবীর জনসংখ্যা প্রায় ৭৬০ কোটি। ২০৩০ সালের মধ্যে সেই সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াবে ৮৬০ কোটিতে। ২০৫০ সালের মধ্যে তা ছুঁয়ে ফেলবে ৯৮০ কোটি এবং ২১০০ সালের মধ্যে বিশ্বের জনসংখ্যা দাঁড়াবে ১ হাজার ১২০ কোটিতে। ২৩৩টি দেশের থেকে জনসংখ্যা বিষয়ক তথ্য সংগ্রহ করে একথা জানিয়েছেন জনসংখ্যা বিভাগের ডিরেক্টর জন উইলমথ। তিনি আরও জানিয়েছেন, আফ্রিকার জনসংখ্যা দ্রুতহারে বাড়ছে। ২০৫০ সালের মধ্যে জনসংখ্যা যত বাড়বে, তার অর্ধেকটাই বাড়বে আফ্রিকায়। অপরদিকে, ইউরোপে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ক্রমশ নিম্নগামী।

08:05:00 AM

 আজ ক. বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের অনার্সের ফল
আজ, শুক্রবার প্রকাশিত হতে চলেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্ট থ্রি’র বিএ, বিসএসসি এবং বিকমের অনার্স এবং মেজরের ফল। বৃহস্পতিবার পরীক্ষা নিয়ামক বিভাগের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এই পরীক্ষার ফলের দিকে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হয়। কারণ, এরপর সবাই স্নাতকোত্তরে ভরতি হতে দেশ-বিদেশে আবেদন করে। তাই দ্রুত ফল প্রকাশের চেষ্টা করা হয়। এই পরীক্ষায় প্রায় ৫২ হাজার প্রার্থী পরীক্ষায় বসেছিলেন। তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়েছিল ৪ এপ্রিল এবং শেষ হয় ১৭ এপ্রিল। তবে জেনারেলের ফল কবে প্রকাশিত হবে, তা এখনও ঠিক হয়নি বলেই খবর।

08:03:00 AM