Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 
 

 বর্ধমানে গাঁদাফুলের চাষ বাড়ছে। -নিজস্ব চিত্র

শীতকালীন রকমারি সব্জিচাষের প্রস্তুতি নিতে হবে এখন থেকেই
আমনে ভালো ফলন পেতে জরুরি অনুখাদ্য

ব্রতীন দাস: যে সব কৃষক এখনও মূলজমিতে আমন ধান রোয়া করেননি, তাঁদের দ্রুততার সঙ্গে ধান রোয়ার কাজ শেষ করে ফেলার পরামর্শ দিচ্ছেন কৃষি আধিকারিকরা। তাঁদের বক্তব্য, মূলসার হিসেবে একর প্রতি ৯০ কেজি হারে সিঙ্গল সুপার ফসফেট, ৩০ কেজি মিউরিয়েট অফ পটাশ, ২৪ কেজি ইউরিয়া ও ১৫০ কেজি হারে জৈবখোল প্রয়োগ করতে হবে। এই সময় আউশ ধানের জমিতে মাজরা, পাতামোড়া সহ বিভিন্ন পোকার আক্রমণের আশঙ্কা থাকে। এ ধরনের পোকা দমন করার জন্য কার্টাপ হাইড্রোক্লোরাইড ৫০ শতাংশ এসপি প্রতি লিটার জলে ১ গ্রাম হারে ব্যবহার করা যেতে পারে বলে সুপারিশ করছেন কৃষি আধিকারিকরা। বাদামি শোষক পোকা দমনে প্রয়োগ করা যেতে পারে ফিপ্রোনিল ৫ শতাংশ এসপি। প্রতি লিটার জলে প্রয়োগ করতে হবে দেড় মিলি হারে। খোলাপচা, গোড়াপচা ও ডাঁটাপচা রোগ প্রতিরোধে ব্যবহার করতে হবে ভ্যালিডামাইসিন ৩ শতাংশ এল। মাত্রা প্রতি লিটার জলে ২ মিলি। ধানের ঝলসা রোগ প্রতিরোধে কাসুগামাইসিন ৩ শতাংশ এসএল প্রতি লিটার জলে ২ মিলি হারে ও পাতায় বাদামি ছিটে দাগ রোগ প্রতিরোধে কপার হাইড্রক্সাইড ৭৭ শতাংশ ডব্লুপি প্রতি লিটার জলে ২ গ্রাম হারে প্রয়োগ করতে হবে।
শীতকালীন সব্জি চাষের জন্য এইসময় বীজতলা তৈরির কাজ শুরু করা যেতে পারে। এক মিটার চওড়া, ১৫ সেন্টিমিটার উঁচু এবং উপযুক্ত দৈর্ঘ্যের বীজতলা তৈরি করতে হবে। শোধন করে তবেই বুনতে হবে বীজ। পুষ্ট ও নিরোগ চারা রোপণ করতে হবে মূল জমিতে। ভাদ্রমাসে পেঁয়াজ, মাঝ-মরশুমি ফুলকপি, জলদি সাধারণ বাঁধাকপি, জলদি মটরশুঁটি, ফরাস-বিন এবং গাজরের বীজ বোনারও সঠিক সময়। বড় কন্দের পেঁয়াজ ১৫ বাই ১০ সেমি, ছাঁচি পেঁয়াজ ৩০ বাই ১৫ সেমি, জলদি ও মাঝারি ফুলকপি ৬০ বাই ৪৫ সেমি, মাঝারি ও নাবি জাতের ফুলকপি ৬০ বাই ৪৫ সেমি, জলদি বাঁধাকপি ৬০ বাই ৪৫ সেমি, জলদি মটরশুঁটি ৩০ বাই ১০ সেমি, লতানে ফরাস-বিন ৯০ বাই ২০ সেমি, বেঁটে ফরাস বিন ৪৫ বাই ১৫ সেমি দূরত্বে চারা বা বীজ বসাতে হবে। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. কল্যাণ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, শীতকালিন সব্জির জমি তৈরির জন্য উপযুক্ত মাত্রায় কেঁচোসার বা গোবরসার প্রয়োগ করতে হবে। হেক্টর প্রতি জৈবসার প্রয়োগের মাত্রা পেঁয়াজের ক্ষেত্রে ৫-৬ টন কেঁচোসার, ফুলকপি ও বাঁধাকপি, ফরাস বিন, গাজরের ক্ষেত্রে ১৫-২০ টন গোবরসার প্রয়োগ করতে হবে। প্রতি হেক্টর জমির জন্য পেঁয়াজে ১২০: ৬০: ১০০, ফুলকপিতে ১২৫: ৮০: ৬০, বাঁধাকপিতে ১৫০: ৮০: ৮০, মটরশুঁটিতে ২৫: ৬০: ৬০, ফরাস বিনে ৮০: ৬০: ৪০ এবং গাজরে ৫০: ৪০:৫০ কেজি নাইট্রোজেন, ফসফেট ও পটাশ সার প্রয়োগ করা উচিত।
অনুখাদ্যের অভাবজনিত কারণে সুপারিশকৃত অনুখাদ্য প্রয়োগ করা জরুরি। নাইট্রোজেন, ফসফেট ও পটাশ সারকে ইউরিয়া, সিঙ্গল সুপার ফসফেট ও মিউরিয়েট অফ পটাশে হিসেব করতে হলে ২.২, ৬.১ এ ১.৬ দিয়ে গুণ করে নিতে হবে। জলদি ও মাঝারি জাতের ফুলকপির জন্য বিঘা প্রতি ৬০-৭০ গ্রাম, জলদি বাঁধাকপির জন্য ৮০-৯০ গ্রাম, জলদি মটরশুঁটির জন্য ১০-১২ কেজি, ফরাস বিনের ১৩-১৪ কেজি এবং গাজরের জন্য দেড় কেজি থেকে দুই কেজি বীজ দরকার। মাঝারি ফুলকপির জাতগুলি হল পন্থ শুভ্র, হিসার-১, ইম্প্রুভ জাপানিজ, পুসা শরদ, পন্থ গোবি-৪, পাঞ্জাব জায়েন্ট-৩৫ অথবা ডি-৯৬, পুসা আর্লি সিন্থেটিক, পুসা হিমজ্যোতি, পুসা শুভ্র। বাঁধাকপির জাতগুলির মধ্যে গ্রিন এক্সপ্রেস, রেয়ার বল, মাস্টার এক্সপ্রেস, কৃষ্ণা, হরিরানি, ট্রপিকাল ইত্যাদি উন্নত জাত। মটরশুঁটির জলদি জাতের মধ্যে আর্কেল, হিসার হরিত, জওহর মটর-৪, হরভজন, আলাস্কা, আর্লি বাজার, মেটিওর, আসওজি, অলডারম্যান, আজাদ পি-১ প্রভৃতি উন্নত জাত। গাজরের উন্নত জাত ন্যানটিস, পুসা কেশর, পুসা মেঘালি প্রভৃতি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শ্রাবণ মাসের মধ্যে রোয়ার কাজ শেষ না হলে ভাদ্র মাসের মধ্যে আমন ধান রোয়া শেষ করে ফেলতে হবে। যাঁরা শ্রাবণ কিংবা আষাঢ় মাসের শেষে ধান রোয়া করে ফেলেছেন তাঁরা সময় বুঝে রোয়ার তিন সপ্তাহ পর বা দ্বিতীয় রোয়ার ছয় সপ্তাহ পর নিড়ানির পরে চাপান সার দেবেন। জমি তৈরি পর্বে শেষ চাষের সময় সুপারিশকৃত নাইট্রোজেন সারের এক চতুর্থাংশ, সম্পূর্ণ ফসফেট ও অর্ধেক পরিমাণ পটাশ সার দেওয়া হয়। এখন প্রথম চাপান সার হিসেবে অর্ধেক নাইট্রোজেন ও অর্ধেক পটাশ সার দিতে হবে। দ্বিতীয় চাপানের সময় বাকি এক চতুর্থাংশ নাইট্রোজেন সার প্রয়োগ করতে হবে। আগাছা দমনের জন্য চারা রোয়ার চার দিনের মাথায় প্রতি বিঘা জমির জন্য ৬০ লিটার জলে ২৫০ মিলি বুটাক্লোর ৫০ ইসি গুলে স্প্রে করা যেতে পারে। নতুবা নিড়ানির সাহায্যে বা হাত দিয়ে আগাছা তুলে ফেলতে হবে চাপান সার প্রয়োগ করার ঠিক আগে। আমন ধানে প্রথম চাপান হিসেবে বিঘা প্রতি ৬ কেজি নাইট্রোজেন এবং ৩ কেজি পটাশ এবং দ্বিতীয় চাপান হিসেবে ৩ কেজি নাইট্রোজেন প্রয়োগ করা দরকার। শ্রাবণ মাসে আখে সুপারিশকৃত চাপান সার দিয়ে ভেলি তুলে দেওয়ার কাজ শেষ হয়ে থাকলে ভাদ্রমাসে শুকনো পাতা দিয়ে কয়েক বাণ্ডিল আখ একসঙ্গে বেঁধে দেওয়ার কাজ শেষ করতে হবে, যাতে ঝড়বৃষ্টিতে আখ মাটিতে পড়ে না যায়। এইসময় আখের মাজরা পোকা ও ধসা রোগের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। জলদি আলু আশ্বিনমাস থেকে লাগানো শুরু হলেও ভাদ্রমাস থেকেও লাগানো যায়। কুফরি অশোকা, কুফরি জ্যোতি, কুফরি চন্দ্রমুখী, কুফরি জওহর জাতের আলু বীজ পরিমাণ মতো সংগ্রহ করে ফেলতে হবে। বিঘা প্রতি আড়াই থেকে তিন কুইন্টাল বীজ আলুর দরকার। বীজ আলু শোধন করে বসাতে হবে। ম্যানকোজেব ০.২৫ শতাংশ দ্রবণে ১০ মিনিট ভিজিয়ে শোধন করা যেতে পারে। বিঘা প্রতি মোট ১০ কুইন্টাল জৈবসার ও যথাক্রমে ৩০, ২০ এবং ২০ কেজি হারে নাইট্রোজেন, ফসফেট ও পটাশ সার ব্যবহার করতে হবে। শেষ চাষের সময় জৈবসার ছাড়াও বিঘা প্রতি ১০ কেজি নাইট্রোজেন এবং পুরো ফসফেট ও পটাশ সার প্রয়োগ করতে হবে। এছাড়া প্রয়োজন অনুসারে বিঘা প্রতি ৩ কেজি হারে জিঙ্ক সালফেট মূল সার হিসেবে জমিতে দিতে হবে। মনে রাখতে হবে, আলু বসানোর ২০ ও ৪০ দিনের মাথায় বাকি নাইট্রোজেন সারের অর্ধেক করে প্রয়োগ করতে হবে। আলু বসানোর সময় সারি থেকে সারির দূরত্ব হবে ৬০ সেন্টিমিটার এবং সারিতে গাছের দূরত্ব রাখতে হবে ২০ সেন্টিমিটার। ভাদ্রমাসে খরিফ ফসল হিসেবে কলাই বোনা যাবে। শ্রাবণের তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই এই কাজ শুরু করা যেতে পারে। বিঘা প্রতি তিন থেকে সাড়ে তিন কেজি বীজ লাগবে। বীজ শোধন করতে প্রতি কেজিতে ২ গ্রাম কার্বেন্ডাজিম মিশিয়ে নিতে হবে। বীজের সঙ্গে নির্দিষ্ট রাইজোবিয়াম জীবাণু সার ব্যবহার করা উচিত। কলাইয়ের উন্নত জাত সারদা, গৌতম, উত্তরা, কালিন্দী প্রভৃতি। জমি তৈরি করতে জৈবসার ছাড়াও বিঘাপ্রতি যথাক্রমে ৩, ৫ ও ৫ কেজি নাইট্রোজেন, ফসফেট ও পটাশ সার প্রয়োগ করতে হবে।
04th  September, 2019
অর্কিড রপ্তানি করছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুর 

নবজ্যোতি সরকার: অর্কিডের প্রতি মানুষের চাহিদা বেড়েই চলেছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুর ২ নম্বর ব্লকের বাখরাহাট, চক এনায়েতপুর এবং পারবেড়িয়া-জয়চণ্ডীপুরের প্রায় ১০০টি নার্সারিতে বিক্রি হচ্ছে লাকি বাম্বু, ক্যাটেলিয়া ও ফ্যালেনপসিস প্রজাতির অর্কিড। গোটা দেশে এইসব অর্কিড রপ্তানি হচ্ছে। বিদেশেও যাচ্ছে। লাকি বাম্বু ১৫০ টাকা। 
বিশদ

সরকারি মূল্যে ধান কেনার জন্য এবার ঝাড়গ্রামের প্রতিটি পঞ্চায়েতে শিবির 

রঞ্জন পাল  ঝাড়গ্রাম: সরকারি মূল্যে ধান কেনার জন্য এবার ঝাড়গ্রাম জেলাজুড়ে প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে শিবির করা হবে। দূরত্বের কথা মাথায় রেখে চাষিদের সুবিধার্থে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন।  
বিশদ

ময়নাগুড়ি ও মালবাজারে মাগুর মাছের চাষ বাড়ছে 

সোমনাথ চক্রবর্তী: মাগুর মাছ চাষের দিকে জোর দিয়েছেন ডুয়ার্সের বেশ কয়েকজন কৃষক। মাগুর মাছের হ্যাচারি বানিয়ে তাতে মাগুর মাছের ডিম থেকে বাচ্চা ফুটিয়ে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার আশায় রয়েছেন ময়নাগুড়ি ও মালবাজার ব্লকের একাধিক মৎস্যচাষি। 
বিশদ

পেঁয়াজের ৩০টি সংরক্ষণাগার হচ্ছে মালদহে 

মঙ্গলচন্দ্র ঘোষ, গাজোল: মালদহ জেলায় বেশি সংখ্যক পেঁয়াজ মজুত রাখবার জন্য সরকারি উদ্যোগে ৩০টি সংরক্ষণাগার তৈরি করা হচ্ছে। প্রাকৃতিক উপায়ে ওই সংরক্ষণাগারের একটি ঘরে মোট ২৫ মেট্রিক টন পর্যন্ত পেঁয়াজ রাখা যাবে। চাষিরাই তৈরি করছেন এই সংরক্ষণাগারগুলি। পরে অবশ্য মোট ব্যয়ের ৫০ শতাংশ দিয়ে দেওয়া হবে চাষিদের।
বিশদ

পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম চাষে ঝোঁক বাড়ছে 

ব্রতীন দাস: পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম। বাজারে ভালো দাম মেলায় চাষে ঝোঁক বাড়ছে কৃষকদের। সেপ্টেম্বর থেকে চাষ শুরু করতে হয়। তিনমাসেই ফলন পাওয়া যায়। গাছ বাঁচিয়ে রাখতে পারলে মে মাস পর্যন্ত ফলন পাওয়া সম্ভব।  
বিশদ

বাড়ির ছাদে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রজাতির গাছের বাগান করে পড়ুয়াদের চেনাচ্ছেন কাটোয়ার যুবক 

অনিমেষ মণ্ডল  কাটোয়া, সংবাদদাতা: বাড়ির ছাদে কয়েক লক্ষ টাকার বাগান করে পাড়ার খুদে পড়ুয়াদের দেশ বিদেশের গাছ চেনার পরামর্শ দিচ্ছেন পরিবেশপ্রেমী কাটোয়ার বাসিন্দা সুজন কুণ্ডু। নিজের বাড়ির ছাদে লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে দেশ বিদেশের প্রচুর ফুল ও ফলের গাছ লাগিয়েছেন তিনি। 
বিশদ

 গাঁদাফুল চাষে লাভ মিলবে ভালোই

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: প্রচলিত বিভিন্ন ফসল চাষের পাশাপাশি চাষিরা কিছুটা জমিতে গাঁদাফুলের চাষ করলে ভালো আর্থিক লাভের মুখ দেখতে পাবেন। গাঁদাফুলের চাষ গ্রীষ্ম, বর্ষা, শীত, বছরের তিন মরশুমেই করা যায়।
বিশদ

11th  September, 2019
 মালদহে বিলি করা হবে আম, লিচু, লেবু ও পেয়ারার চারা

মঙ্গল ঘোষ: পুজোর আগে মালদহের পনেরোটি ব্লকজুড়ে কৃষকদের আম, লিচু, লেবু, পেয়ারার চারা দিতে চলেছে উদ্যানপালন দপ্তর। এজন্য ওই জোর প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই এই কার্যক্রম শুরু হয়ে যাবে। সব ব্লকের একাধিক চাষি এই চারাগুলি পাওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই ওই দপ্তরে ফর্ম পূরণ করে জমা দিয়েছেন।
বিশদ

11th  September, 2019
 অশ্বগন্ধা চাষ করতে হলে মাঠে নামতে হবে চলতি মাসেই

প্রসেনজিৎ সরকার, শিলিগুড়ি: শিলিগুড়ি মহকুমায় অশ্বগন্ধা চাষে আগ্রহীদের সেপ্টেম্বর মাস থেকে জমি তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। উর্বর-অনুর্বর উভয় জমিতে অশ্বগন্ধা চাষ করা যায়। বিশেষজ্ঞদের দাবি, ভেষজ জাতীয় এই গাছ বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে উপকারী। অক্টোবর ও নভেম্বর মাস এই গাছের চারা লাগানোর উপযুক্ত সময়।
বিশদ

11th  September, 2019
 অল্প খরচে পেঁপে

সংবাদদাতা: সামান্য খরচে পেঁপে চাষ করে ভালো লাভ করা সম্ভব। চাষিরা জমিতে এই চাষ করতে পারেন। আবার বাড়িতে সামান্য জায়গা থাকলেও পেঁপে গাছ লাগানো যেতে পারে। 
বিশদ

11th  September, 2019
 অসময়ে বাজার ধরতে শরতে তরমুজ চাষ, ৬০ দিনেই ফলন

ব্রতীন দাস: তরমুজ মূলত গরমের ফল। কিন্তু, শরতেও তরমুজ ফলিয়ে বাড়তি লাভ পেতে পারেন কৃষকরা। ছটপুজোর কথা মাথায় রেখে আগাম বাজার ধরতে অসময়ে তরমুজের ভালোই চাহিদা থাকে। হাইব্রিড বিভিন্ন প্রজাতির সুবাদে পলি-মালঞ্চিং করে শরৎকালে তরমুজ ফলানো সম্ভব হচ্ছে।
বিশদ

11th  September, 2019
কান্দির বিলে জল না থাকায় মাছের আকাল, ভিনরাজ্যে মৎস্যজীবীরা

 ইন্দ্রজিৎ কর্মকার, কান্দি: বর্ষায় কম বৃষ্টি হওয়ায় পর্যাপ্ত জল নেই কান্দি মহকুমার অন্তর্গত পাটন বিল ও কারোল বিলে। ফলে ওই দুই বিল থেকে সেভাবে মাছ আমদানিও হচ্ছে না বাজারগুলিতে। তাই রুজি রোজগারে টান পড়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকার মৎস্যজীবীদের। পুজোর আগে হতাশ মৎস্যজীবীরা রুজির টানে পাড়ি দিচ্ছেন ভিনরাজ্যে।
বিশদ

11th  September, 2019
মুর্শিদাবাদে জাঁক দেওয়ার মতো জল নেই, শুকিয়ে যাচ্ছে পাট, মাথায় হাত কৃষকদের

সংবাদদাতা, বহরমপুর: সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ পেরলেও মুর্শিদাবাদ জেলার বহু জমিতে পাটগাছ দাঁড়িয়ে রয়েছে। পর্যাপ্ত জলের অভাবে এখনও পাট কাটতে পারেননি বহু চাষি। জাঁক দেওয়ার জন্য বহু জায়গায় জলাশয়ের ধারেই ডাঁই করে রাখা হয়েছে পাট। জাঁক দেওয়া পাট তোলা হলে তবেই চাষিরা ওই পাট পচাতে দিতে পারবেন।
বিশদ

11th  September, 2019
 তাপপ্রবাহে পুড়ে নষ্ট হয়েছে আমনের চারা, ফের বীজ বিলি

প্রসেনজিৎ সরকার, শিলিগুড়ি: ফাঁসিদেওয়ায় জুলাই মাসে ২০-২৫ হেক্টর জমিতে লাগানো আমন ধানের চারা পুরো নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ব্লকের উত্তর বাগদাও কিসমত, মধ্য বাগদাও কিসমত, পশ্চিম বাগদাও কিসমত, খুঁটিগছ, জালাস- নিজামতারার কাশিরাম সংলগ্ন এলাকাতে জলের অভাবে ধানের চারা নষ্ট হয়েছে। এমন অবস্থায় কৃষকদের মাথায় হাত পড়েছে।
বিশদ

04th  September, 2019

Pages: 12345

একনজরে
সংবাদদাতা, হলদিয়া: হলদিয়া শিল্পশহরে একদিন আগেই শুরু হয়ে গেল বিশ্বকর্মাপুজো। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত একাধিক বড় শিল্পসংস্থার পুজো উদ্বোধন করেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও ...

সংবাদদাতা, নবদ্বীপ: দরিদ্রতাকে উপেক্ষা করে নবদ্বীপের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র রাজ দেবনাথ রাজ্য স্কুল গেমস প্রতিযোগিতায় জিমন্যাস্টিক বিভাগে দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে। খুশির হওয়া নবদ্বীপে। ...

বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: রাজ্যবাসীকে ডেঙ্গুর বিপদ থেকে বাঁচাতে এ বছর ৪৭৫ কোটি টাকা খরচ করছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্য দপ্তর। শুধু ডেঙ্গু মোকাবিলাতেই এই বিপুল ...

বাপ্পাদিত্য রায়চৌধুরী, কলকাতা: ঠিকা কর্মীদের মাইনে নেই মাসের পর মাস। বিএসএনএলের পরিষেবা অনেকটাই নির্ভর করে তাঁদের উপর। তাই পরিষেবাও লাটে উঠেছে। মরার উপর খাঁড়ার ঘায়ের ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে অশান্তি সম্ভাবনা। মাতৃস্থানীয় কারও শরীর-স্বাস্থ্যের অবনতি। প্রেমে সফলতা। বাহন ক্রয়-বিক্রয়ের যোগ। সন্তানের বিদ্যা-শিক্ষায় উন্নতি।প্রতিকার— ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক সফটওয়্যার স্বাধীনতা দিবস
১৫০২ - কোস্টারিকা আবিষ্কার করেন ক্রিস্টোফার কলম্বাস
১৮৯৯- সাহিত্যিক ও চিন্তাবিদ রাজনারায়ণ বসুর মৃত্যু
১৯৫০- অভিনেত্রী শাবানা আজমির জন্ম
১৯৭৬- ব্রাজিলের ফুটবলার রোনাল্ডোর জন্ম
২০০৬- ফুটবলার সুদীপ চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭১.০২ টাকা ৭২.৭৩ টাকা
পাউন্ড ৮৭.৬০ টাকা ৯০.৮০ টাকা
ইউরো ৭৭.৬২ টাকা ৮০.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্থী ৩১/৫১ সন্ধ্যা ৬/১২। অশ্বিনী ৩/১১ দিবা ৬/৪৪। সূ উ ৫/২৭/৩১, অ ৫/৩৪/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৫ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৭/৫৩ মধ্যে পুনঃ ১০/১৮ গতে ১২/৪৪ মধ্যে। রাত্রি ৬/২২ গতে ৭/১০ মধ্যে পুনঃ ৮/৪৫ গতে ৩/৫ মধ্যে, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১০/০ মধ্যে পুনঃ ১১/৩১ গতে ১/১ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯ গতে ৩/৫৮ মধ্যে।
৩১ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্থী ২৪/৪০/১০ দিবা ৩/১৯/১৪। অশ্বিনী ০/৫/৪৪ প্রাতঃ ৫/২৯/২৮, সূ উ ৫/২৭/১০, অ ৫/৩৬/৩০, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৯/৩১ গতে ১১/১০ মধ্যে ও ৩/১৮ গতে ৪/৫৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৩ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ১/৩১ গতে ৫/২৭ মধ্যে, বারবেলা ১১/৩১/৫০ গতে ১/৩/১ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৯/৩০ গতে ১০/০/৪৪ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯/৩০ গতে ৩/৫৮/২০ মধ্যে। 
১৮ মহরম 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কোনও দলে যাচ্ছি না: ঊর্মিলা
কংগ্রেস ছাড়ার পর সম্ভবত শিবসেনা তাঁর পরবর্তী গন্তব্য বলে জল্পনা ...বিশদ

08:38:58 AM

ইতিহাসে আজকের দিনে
আন্তর্জাতিক সফটওয়্যার স্বাধীনতা দিবস১৫০২ - কোস্টারিকা আবিষ্কার করেন ক্রিস্টোফার কলম্বাস১৮৯৯- ...বিশদ

08:25:07 AM

৫০০ টাকার মোদির ফটো স্ট্যান্ড বিক্রি হল এক কোটিতে!
সরকারি কাজে গত ছ’মাসে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে প্রচুর উপহার ...বিশদ

08:15:00 AM

আজকের রাশিফল
মেষ: বাহন ক্রয়-বিক্রয়ের যোগ। বৃষ: অগ্নি, বিদ্যুৎ থেকে সতর্ক হওয়া ...বিশদ

08:09:27 AM

উৎসবের মরশুম শুরুর আগেই পিএফের বর্ধিত সুদের বিজ্ঞপ্তি: শ্রমমন্ত্রী
উৎসবের মরশুম শুরু হওয়ার আগেই নয়া হারে বার্ষিক সুদ পাবেন ...বিশদ

08:00:00 AM

নদীয়ায় ভুল ইনজেকশনের জেরে অসুস্থ ১০ !
নদীয়ার ধুবুলিয়া প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে ভুল ইনজেকশন দেওয়ার ...বিশদ

17-09-2019 - 08:30:55 PM