Bartaman Patrika
সিনেমা
 

অন্য উত্তম 

বাংলা চলচ্চিত্রে রোম্যান্টিসিজমকে এক অন্য মাত্রায় পৌঁছে দিয়েছিলেন উত্তমকুমার। কিন্তু সত্যিই কি উত্তমকুমার মানে শুধুই একজন রোম্যান্টিক নায়ক? মহানায়কের ৪০তম প্রয়াণ দিবসের দু’দিন পর অভিনেতার অন্য দিক আলোচনায় প্রীতম দাশগুপ্ত 
অনেকদিন ধরেই উত্তমকুমারকে নিয়ে ছবি করার কথা ভাবছিলেন পরিচালক সত্যজিৎ রায়। চিত্রনাট্যও রেডি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি হবে ‘ঘরে বাইরে’। সন্দীপের চরিত্রে উত্তমকে ভেবেছিলেন সত্যজিৎ। কিন্তু প্রতিষ্ঠিত নায়ক উত্তম সেই চরিত্রে অভিনয় করতে চাননি। বাংলা চলচ্চিত্রে রোম্যান্টিসিজমকে এক অন্য মাত্রায় পৌঁছে দিয়েছিলেন উত্তমকুমার। কিন্তু সত্যিই কী উত্তমকুমার মানে শুধুই একজন রোম্যান্টিক নায়ক? কেরিয়ারের একটা সময়ে পৌঁছে উত্তমকুমারও উপলব্ধি করেছিলেন, নিজেকে শুধু রোম্যান্টিক নায়ক হিসেবে তুলে ধরলে তাঁর নিজের অভিনয় প্রতিভার উপরই অবিচার করা হবে। তাই একের পর এক নানাবিধ চরিত্রে নিজেকে মেলে ধরেছিলেন তিনি। সেইজন্যই মৃত্যুর প্রায় ৪০ বছর পরেও তিনি বাঙালির এক ও একমাত্র মহানায়ক।
‘ঘরে বাইরে’তে উত্তমকুমারকে না পেলেও, স্রেফ তাঁকে ভেবেই একটি ছবির চিত্রনাট্য সাজিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়। ‘নায়ক’। অভিনেতা অরিন্দম মুখোপাধ্যায়ের প্রতিষ্ঠা পাওয়ার লড়াই। তাঁকে ঘিরে জনমানসের উন্মাদনা। একজন সুপারস্টারের জীবন সবকিছুই তুলে ধরা হয়েছিল ছবিতে। ১৯৬৬। উত্তমকুমার তখন মধ্যগগনে। ইন্দিরা হলে ছবির প্রিমিয়ার হবে। সত্যজিৎ স্পষ্টই বলে দিলেন প্রিমিয়ারে হাজির হতে হবে উত্তমবাবুকে। উত্তমও সবিনয়ে মানিকদাকে জানালেন, এই ভরদুপুরে শোয়ে তাঁর হাজির হওয়াটা ঠিক হবে না। গুরুগম্ভীর কণ্ঠে সত্যজিৎ জানিয়ে দিলেন, এটা সত্যজিৎ রায়ের ছবি। তাই তাঁকে হাজির হতেই হবে। এই খবর জানাজানি হতে দেরি হয়নি। সেদিন কেলেঙ্কারির একশেষ। রাস্তায় ভিড়। ‘গুরু’কে দেখতে হাজির অসংখ্য মানুষ। মারপিট, হাতাহাতি চলছে। হলমালিকও মানিকবাবুকে বললেন, উত্তমবাবুকে আনাটা কী ঠিক হবে। সত্যজিৎ নিজের সিদ্ধান্তে অনড়। উত্তম এলেন। সঙ্গে সঙ্গে দর্শকদের মধ্যে আলোড়ন। আর গুরু, গুরু রব। উত্তমকুমার স্টেজে এসে বললেন, এটা কিন্তু সত্যজিৎ রায়ের ছবি। এখানে এসব দয়া করে করবেন না। ব্যস দর্শক চুপ। এমনই ছিল তাঁর জনমোহিনী ভাবমূর্তি। এক লহমায় দর্শককে নিজের কথা শোনাতে বাধ্য করতে পারতেন উত্তমকুমার। সত্যজিৎ রায়ের সঙ্গে ‘চিড়িয়াখানা’ ছবিতেও অভিনয় করেছিলেন উত্তমকুমার। বাঙালির একান্ত আপন গোয়েন্দা চরিত্র ব্যোমকেশ বক্সির ভূমিকায় অভিনয় করে দর্শকের প্রশংসা আদায় করে নিয়েছিলেন উত্তমকুমার। এই ছবিতে অভিনয় করে জাতীয় পুরস্কারও পেয়েছিলেন তিনি। তবে যুগ্মভাবে। তিনি পুরস্কার ভাগাভাগি করেন উত্তমকুমারের সঙ্গেই। ‘অ্যান্টনি ফিরিঙ্গি’র জন্যও তাঁকে ওই পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল।
‘ঘরে বাইরে’ ছবিতে নেগেটিভ রোল ছিল বলে তা প্রত্যাখ্যান করেছিলেন উত্তমকুমার। কিন্তু সেই উত্তমকুমারেরই জীবনের অন্যতম সেরা অভিনয় ছিল ১৯৭৫ সালে মুক্তি পাওয়া ‘বাঘ বন্দি খেলা’ ছবিতে। পীযূষ বসুর নির্দেশনার এই ছবিতে উত্তম অভিনয় করেছিলেন ভবেশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের চরিত্রে। লম্পট, দুর্নীতিগ্রস্ত, স্মাগলিংয়ের কারবারি ভবেশকে পুলিসের হাতে ধরিয়ে দিতে চেয়েছিল তাঁর ছেলেই। আত্মঘাতী হয়ে জীবন শেষ করে দিয়েছিলেন ভবেশ। ১৯৮১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত প্রায় একই ধরনের ছবি ‘কলঙ্কিনী কঙ্কাবতী’তে রাজশেখর রায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন উত্তম।
উত্তমকুমার ছিলেন গ্রামের সরল সাদাসিধে ছেলে। শহরে এসেছেন। লড়াই করছেন। বড়লোকের মেয়ের প্রেমে পড়ছেন। নানা বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে মধুরেণ সমাপয়েত। দেশভাগের যন্ত্রণাকাতর বাঙালির কাছে হিট। এটাই ছিল রোম্যান্টিক উত্তমের ইউএসপি। কিন্তু মোটামুটি ছয়ের দশকের শেষার্ধ থেকেই নিজের ইমেজ পাল্টানোর চেষ্টা করছিলেন উত্তম। আবার ঠিক একই সময় বাংলার দর্শকের কাছে হাজির হয়েছিলেন, তাঁর প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। উত্তমও নিজেকে ভেঙেচুরে তৈরি করছিলেন। নিজের রোম্যান্টিক ইমেজের বাইরে এসে অভিনেতা হিসেবে নিজেকে তুলে ধরতে চাইছিলেন। বস্তুত, এই সময় তিনি এমন বহু ছবি করেছেন, যা শুধু তাঁর অভিনয়ের গুণেই উতরে গিয়েছে। অভিনেতা উত্তমকুমারের জীবনের একটি অসাধারণ ছবি ১৯৬৭ সালে তৈরি ‘অ্যান্টনি ফিরিঙ্গি’। পর্তুগিজ অ্যান্টনি কবিয়ালের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন উত্তম। সুনীল বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ছবি ভালোবাসার গল্প হলেও, কাহিনী বিন্যাস ও অভিনয় দক্ষতার কারণে এই ছবিতে উত্তমকে স্রেফ রোমান্টিক হিরো বলা যাবে না।
১৯৭৫ সালে উত্তমকুমার আরও দু’টি অসাধারণ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। একটি পীযূষ বসুর ‘সন্ন্যাসী রাজা’। অন্যটি অরবিন্দ মুখোপাধ্যায়ের ‘অগ্নীশ্বর’। সন্ন্যাসী রাজায় ভাওয়ালের রাজার ফিরে আসার কাহিনী অনবদ্যভাবে ফুটিয়ে তুলেছিলেন উত্তমকুমার। অগ্নীশ্বরে একজন আদর্শবাদী চিকিৎসকের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। ছবিতে একটি সরস সংলাপ ছিল। রোগীকে ডাক্তার দিয়েছেন তিনটি ডোজ। রোগী চাইছেন একটি। তখন ডাক্তার অগ্নীশ্বর বলছেন, যদি ঠাস ঠাস করে তিনটি চড় মারার দরকার হয়, তবে একটি চড়ে কাজ হবে কি?
সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছেন উত্তমকুমার। ‘ঝিন্দের বন্দি’ থেকে শুরু করে ‘অপরিচিত’, ‘স্ত্রী’, ‘দেবদাস’ সবেতেই অভিনয় দক্ষতার তুঙ্গে উঠেছিলেন বাংলার দুই ম্যাটিনি আইডল। এরমধ্যে ‘স্ত্রী’ ছবির কথা আলাদাভাবে বলতেই হয়। কারণ ওই ছবিতে উত্তমকুমার রোম্যান্টিক ইমেজ ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন। এখানেও তিনি ছিলেন মদ্যপ জমিদার (মাধব দত্ত)। কর্মচারী তরুণ ফোটোগ্রাফার (সীতাপতি)-এর সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর সম্পর্কের কথা জেনে গিয়েছিলেন। সেই টানাপোড়েন ছবিতে ফুটিয়ে তুলেছিলেন উত্তম।
মহানায়কের ছয়ের দশকের একটি ছবির কথা না বললে চরিত্রাভিনেতা উত্তমকে পাওয়া যাবে না। সেটি হল, ‘খোকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’। যে সময় তিনি ওই ছবি করেছিলেন, তখন তিনি রোম্যান্টিক নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। অথচ সেই সময় রাইচরণের মতো একটা কঠিন অথচ নন গ্ল্যামারাস রোলে তিনি ফাটিয়ে অভিনয় করেছিলেন। ১৯৬৩ সালের আরও একটি ছবি ‘শেষ অঙ্ক’। ওই ছবিতেও নিজের গ্ল্যামারাস ভাবমূর্তিকে দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন উত্তম। শুভ্রাংশুরূপী উত্তমের নেগেটিভ রোলে অভিনয় আজও দর্শক মনে রেখেছে। ১৯৫৯ সালের ছবি ‘বিচারক’-এও উত্তমকুমারকে দেখা গিয়েছে এমনই নন গ্ল্যামারাস রোলে। যিনি নিজেকে রায় দেওয়ার ব্যাপারে চরম নিরপেক্ষ মনে করতেন, সেই বিচারকই একটি বিশেষ কেসে রায় দিতে গিয়ে চরম দ্বিধায় পড়লেন। ‘ওগো বধূ সুন্দরী’ ছবির আগে হিন্দিতে মহানায়ক একটি ছবি করেছিলেন। ‘প্লট নম্বর ৫’। উত্তমকুমারের অভিনয় জীবনের অন্যতম কঠিন এক চরিত্র। সেই ছবিতে হুইলচেয়ারে উত্তম। প্রতিবন্ধী মানুষ। হুইলচেয়ারে বসেই একের পর এক খুন করতে থাকে। ভাইয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অমল পালেকর। অন্যান্য চরিত্রে ছিলেন শ্রীরাম লাগু, প্রদীপকুমার প্রমুখ। ছবিটি অবশ্য মুক্তি পেয়েছিল মহানায়কের মৃত্যুর পর।
ছয়ের দশকের শেষার্ধ থেকে শুরু করে জীবনের শেষ দিনেও উত্তমকুমার রোম্যান্টিসিজমের বাইরে নিজেকে নিয়ে এসেছেন। ‘মৌচাক’, ‘ধন্যি মেয়ে’, ‘ছদ্মবেশী’, ‘ভ্রান্তিবিলাস’, ‘ওগো বধূ সুন্দরী’র মতো কমেডি ছবিতে তাঁর অসাধারণ অভিনয় দক্ষতা দেখা গিয়েছে। উত্তমকুমার অভিনীত বেশ কয়েকটি ছবি পরে হিন্দিতে হয়েছে। এমনই একটি ছবি ‘নিশিপদ্ম’। পরে হিন্দিতে ‘অমর প্রেম’ ছবিতে ওই ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল রাজেশ খান্নাকে। সুপারস্টার রাজেশ অকপটে স্বীকার করেছিলেন, তিনি উত্তমকুমারের ধারেকাছে পৌঁছতে পারেননি। সব মিলিয়ে মৃত্যুর ৪০ বছর আজও বাঙালির স্বপ্নের নায়ক— উত্তমকুমার।
26th  July, 2019
বিশ্বনাথন আনন্দের সঙ্গে লড়াই করা রোহন এবার পরিচালনায় 

দাবার বোর্ড থেকে সরাসরি সিনেমার ফ্লোরে। তাও আবার মাত্র উনিশ বছর বয়সে। টালিগঞ্জ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ইতিহাসে এত কম বয়সে একটি পূর্ণ দৈর্ঘ্যের ছবি তৈরি করার নজির নেই। মিডিয়া সায়েন্সের ছাত্র রোহন সেন সাদাকালো ছক আঁকা চৌখুপিতে রাজা, মন্ত্রী, ঘোড়া, বোড়ে নিয়ে রীতিমত পাঙ্গা লড়েছেন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান দাবাড়ু বিশ্বনাথ আনন্দের সঙ্গে। তখন রোহন স্কুল ছাত্র। 
বিশদ

08th  November, 2019
মহানায়ক উত্তমকুমারও
যখন মানুষ

প্রিয়ব্রত দত্ত: তিনি উত্তমকুমারকে খুব কাছ থেকে দেখেছিলেন। ১৯৭২ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত। সেই আট বছরে মহানায়কের প্রিয়পাত্রও হয়ে উঠেছিলেন প্রবীর রায়। এক অন্তরঙ্গ ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়েছিল দু’জনের মধ্যে। বয়সের পার্থক্য থাকলেও কাছাকাছি থাকার সুবাদে প্রবীরবাবুর উত্তম-অভিজ্ঞতা তাই আর পাঁচ জনের থেকে আলাদা। 
বিশদ

08th  November, 2019
পুনর্জন্ম ও অলৌকিক ঘটনা
সমৃদ্ধ রাজনন্দিনী

 মানসী নাথ: কিষানগঞ্জের নীল হাভেলি সম্বন্ধে লোকমুখে নানা অলৌকিক ঘটনা শোনা যায়। এই বাড়িতে নাকি আজও প্রেতাত্মার বসবাস। সেই ভুতুড়ে বাড়িতেই কলেজ এক্সকারশনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় একদল কলেজ পড়ুয়া। 
বিশদ

01st  November, 2019
 কুড়ানি যখন কপিল শর্মার দুলহনিয়া

 প্রিয়ব্রত দত্ত: বেহালা থেকে বলিউড, পরিক্রমাটা সহজ ছিল না ‘পুজো নন্দিনী’ প্রিয়াঙ্কা মুখোপাধ্যায়ের। আচমকাই এসেছিলেন মডেলিংয়ের দুনিয়ায়। অনভিজ্ঞ প্রিয়াঙ্কা একদিন আবিষ্কার করেন তাঁকে ঘিরে রয়েছে সংবাদমাধ্যম। শুনতে চায় তাঁর কথা।
বিশদ

01st  November, 2019
 অতি সাধারণ মানুষের গল্প

  ‘বেলুনওয়ালা’ হল একজন অতি সাধারণ মানুষের গল্প। যে নিজেকে খুব সাধারণ ভাবলেও সে জানে না, কারও কাছে সে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বেলুনওয়ালা একটা স্কুলের সামনে বেলুন বিক্রি করে। সে যখন বাচ্চাদের বেলুন কিনতে দেখে তাদের মুখে হাসি দেখতে পায়, সেটাই হয় তার কাছে সবচেয়ে বড় পাওনা। বিশদ

01st  November, 2019
বাংলা ছবি পাল্টে দিতে পারে স্ক্রিন এক্স, বলছেন প্রসেনজিৎ 

টানা দশ মিনিট ধরে সিনেমাহলের তিন দিক জুড়ে সিনেমা দেখে অভিভূত প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। মুগ্ধ টলিউড সুপারস্টার বলেই ফেললেন, ‘ইশ, কাকাবাবুর কোনও কোনও দৃশ্য যদি এইরকমভাবে বানানো যায়!’ আসলে কলকাতায় সম্প্রতি আইনক্স লঞ্চ করল সিনেমা দেখার অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, ‘স্ক্রিন এক্স’।  
বিশদ

18th  October, 2019
সাঁঝবাতি উস্কে দিল আশার প্রদীপ 

প্রিয়ব্রত দত্ত: জীবনসায়াহ্নে পৌঁছন সহানুভূতি ও সঙ্গ প্রত্যাশী একাকী মানুষগুলিকে নিয়ে বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেট তৈরি করেছে ‘সাঁঝবাতি’। স্বেচ্ছায় বয়স্ক মানুষগুলির বিপদে পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার ও ভরসা দেওয়ার জন্য একটি সংগঠন। 
বিশদ

18th  October, 2019
শুভ বিজয়ার সেকাল একাল 

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যাচ্ছে বাঙালির বিজয়া দশমী। রুপোলি পর্দার তারকাদের অনুভবেও সেই বদলের আক্ষেপ। কেমন ছিল তাঁদের সাবেক বিজয়া বিলাস। আজই বা কেমন করে তাঁরা উদযাপন করেন উমার বিদায়বেলা, সেটাই উঠে এল স্মৃতিচারণায়। 
বিশদ

11th  October, 2019
 মুখ আর মুখোশের লুকোচুরি

সবটাই কি মুখোশ? মুখ বলে কি আদৌ কিছু হয়? যদি হয়, তাহলে মুখ ও মুখোশের মধ্যে ফারাক কতখানি? প্রাগৈতিহাসিক এই প্রশ্নটিকেই সামনে রেখে এবার তরুণ পরিচালক অর্ঘ্যদীপ চট্টোপাধ্যায় তৈরি করছেন আর একটি থ্রিলার ‘মুখোশ’। এটি তাঁর তৃতীয় ছবি।
বিশদ

27th  September, 2019
অন্নভোগে, মাতৃ আরাধনায়,
হোমযজ্ঞে ছবির প্রচার

মাহাত্ম্য আর মহত্বে মহীয়ান মহাপীঠ তারাপীঠের নতুন করে বর্ণনা দেওয়ার কিছু নেই। প্রত্যাশার ভিড়ে সেদিনও উপচে পড়েছিল প্রাঙ্গণ। মুখরিত জয়ধ্বনিতে ক্ষণে ক্ষণে কেঁপে উঠছিল প্রাচীন এই তীর্থভূমি। তখন দুপুর। কলকাতা থেকে পাঁচ ঘণ্টার পথ উজিয়ে এই পীঠস্থানে পা রাখতেই জানা গেল অন্নগ্রহণে বসেছেন ওঁরা।
বিশদ

20th  September, 2019
দিল্লিতে বাংলা চলচ্চিত্র উৎসব

  দ্বাদশ বাংলা চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হচ্ছে দিল্লিতে। আজ, শুক্রবার বেঙ্গল অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত এই চলচ্চিত্র উৎসবের সূচনা হবে। চলবে তিনদিন।
বিশদ

13th  September, 2019
ভালো মেয়ে, খারাপ মেয়ের গল্প

শহরের অভিজাত পানশালায় নাচ করে রিয়া ফার্নান্ডেজ। ক্লায়েন্টদের কাছে রিয়া বেশ জনপ্রিয়, সেই কারণে বাড়তি রোজগারের পথও তার কাছে উন্মুক্ত। স্বামীর সঙ্গে রিয়ার দশ বছরের বিবাহিত জীবন। তবে কোনওদিনই তাদের সম্পর্ক সুখের নয়। একদিন রাতে রিয়া যখন কাজে যাচ্ছে, ঠিক তখনই তিনজন ছেলের পাল্লায় পড়ে।
বিশদ

13th  September, 2019
 হারানো আড্ডাকে ফিরে দেখা

আড্ডা দিতে বাঙালির জুড়ি নেই। সময় পেলেই মনের মতো কারও সঙ্গে বসে পড়লেই হল। নেই বিষয়ের চিন্তা, নেই কোনও স্থান নির্বাচনের চাপ। কিন্তু আজকে ব্যস্ত জীবনস্রোতে সেই আড্ডা দিতেই কি ভুলে যাচ্ছে বাঙালি? ‘আড্ডা’ ছবিতে পরিচালক দেবায়ুষ চৌধুরী এই প্রশ্নই তুলেছেন। 
বিশদ

13th  September, 2019
বাণিজ্যিক ছবির নায়করা
এখন দ্বিধাগ্রস্ত

 বাংলা সিনেমা এখন একটা পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। বলিউডের মতোই সেখানে কনটেন্ট বনাম স্টারভ্যালুর লড়াই চলছে। আর সেই জাঁতাকলে নাভিশ্বাস উঠছে তারকা থেকে শুরু করে পরিচালক প্রযোজকের। আর সমান্তরাল ছবির তুলনায় এখন দর্শক হারানোর কোপ যে বাণিজ্যিক ছবির উপর অনেক বেশি তা মেনে নিচ্ছেন বনি সেনগুপ্ত।
বিশদ

06th  September, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, গঙ্গারামপুর: বোল্লাকালীর অন্যতম ভোগ চিনির বাতাসা তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন মিষ্টি বিক্রেতারা। শুক্রবারই মায়ের পুজো। তাই নাওয়াখাওয়া ভুলে কয়েক কুইন্টাল চিনি জাল দিয়ে তৈরি হচ্ছে কদমা, বাতাসা। দূরদূরান্ত থেকেন বোল্লাকালীর পুজো দিতে আসেন ভক্তেরা।   ...

অলকাভ নিয়োগী, বর্ধমান, বিএনএ: মুখে ‘শিল্প আমাদের ভবিষ্যৎ’ স্লোগান দিলেও বামফ্রন্ট সরকারের আমলেই বন্ধ হয়েছিল ‘বর্ধমান ডেয়ারি’। টানা ১০ বছর বন্ধ থাকার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে ওই বর্ধমান ডেয়ারি থেকে মাদার ডেয়ারিতে রূপান্তরিত হয়ে চালু হয়েছে।  ...

 নয়াদিল্লি, ১২ নভেম্বর (পিটিআই): কংগ্রেস নেতা শশী থারুরের বিরুদ্ধে জামিনযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করল দিল্লি আদালত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্য করায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। ...

সংবাদদাতা, বর্ধমান: সর্বভারতীয় স্কুল পর্যায়ের যোগাসন প্রতিযোগিতায় অনূর্ধ্ব-১৭ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে জেলার মুখ উজ্জ্বল করল সর্বশ্রী মণ্ডল। রিদমিক যোগায় প্রথম হয়ে সে সোনার মুকুট পায়। এমাসের ৪ নভেম্বর সল্টলেকের বিবেকানন্দ যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গণে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কোনও চুক্তিবদ্ধ কাজে যুক্ত হবার যোগ আছে। ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। বিবাহের যোগাযোগ ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৪০: ফরাসি ভাস্কর অগ্যুস্ত রদ্যঁর জন্ম
১৮৯৩: পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সীমান্তরেখা ডুরান্ড লাইন চুক্তি স্বাক্ষরিত
১৮৯৬: পক্ষীবিদ সালিম আলির জন্ম
১৯৪৬: পণ্ডিত মদনমোহন মালব্যের মৃত্যু  

12th  November, 2019




ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৭০ টাকা ৭২.৮৫ টাকা
পাউন্ড ৮৯.০৬ টাকা ৯৩.৩৬ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৩ টাকা ৮০.৪৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
12th  November, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৫৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৫৫৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,১০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৬ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, প্রতিপদ ৩৪/৩৬ রাত্রি ৭/৪২। কৃত্তিকা ৪০/২৩ রাত্রি ১০/১। সূ উ ৫/৫১/২৯, অ ৪/৫০/১৫, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৫ মধ্যে পুনঃ ৭/১৯ গতে ৮/৩ মধ্যে পুনঃ ১০/১৫ গতে ১২/২৭ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪২ গতে ৬/৩৪ মধ্যে পুনঃ ৮/১৯ গতে ৩/১৫ মধ্যে, বারবেলা ৮/৩৫ গতে ৯/৫৮ মধ্যে পুনঃ ১১/২১ গতে ১২/৪৩ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩৬ গতে ৪/১৪ মধ্যে।
 ২৬ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, প্রতিপদ ৩৪/২৪/৩৯ রাত্রি ৭/৩৮/৩৩। কৃত্তিকা ৪২/২৪/১১ রাত্রি ১০/৫০/২১, সূ উ ৫/৫২/৪১, অ ৪/৫০/৫২, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৭ মধ্যে ও ৭/৩০ গতে ৮/১২ মধ্যে ও ১০/২১ গতে ১২/২৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪০ গতে ৬/৩৩ মধ্যে ও ৮/১৯ গতে ৩/২৪ মধ্যে, বারবেলা ১১/২১/৪৪ গতে ১২/৪৪/০ মধ্যে, কালবেলা ৮/৩৭/১৩ গতে ৯/৫৯/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩৭/১২ গতে ৪/১৪/৫৬ মধ্যে।
১৫ রবিয়ল আউয়ল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
খড়্গপুরে নাকা চেকিংয়ের সময় এক ব্যবসায়ীর থেকে উদ্ধার হল ১৮ লক্ষ টাকা 

04:01:42 PM

যুব মোর্চার পুরসভা অভিযান ঘিরে উত্তেজনা 
যুব মোর্চার কলকাতা পুরসভা অভিযান ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা। চাঁদনি চকে ...বিশদ

03:26:39 PM

প্রধান বিচারপতির দপ্তরও আরটিআই-এর আওতায়, ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের 
সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির অফিস তথ্য জানার অধিকার (আরটিআই) আইনের ...বিশদ

03:21:00 PM

নেতাজি নগর ডে কলেজে আগুন 
নেতাজি নগর ডে কলেজে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটল। আজ দুপুরে কলেজ ...বিশদ

03:12:07 PM

কুলভূষণ যাদবকে দেওয়ানি আদালতে আবেদনের সুযোগ দেবে পাকিস্তান 
পাকিস্তানের জেলে বন্দি কুলভূষণ যাদবকে দেওয়ানি আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার সুযোগ ...বিশদ

01:46:00 PM

দুর্বল নদী বাঁধ দ্রুত মেরামতের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের 

01:07:00 PM