শরীর ও স্বাস্থ্য
 

 কখন কতটা জল খাবেন?

পরামর্শে আর জি কর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডাঃ অপূর্ব মুখোপাধ্যায়।

জল পান আমাদের জন্য কেন জরুরি?

জল না থাকলে শরীরটাই থাকবে না! আমাদের দেহের কোষ-কলার কাজকর্ম সঠিকভাবে চালিয়ে যেতে জল অপরিহার্য। শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখতে, রেচনক্রিয়ার মাধ্যমে শরীরের ক্ষতিকর পদার্থ বার করে দিতে, সুষ্ঠুভাবে পাচনক্রিয়া পরিচালনা করতে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে, অস্থিসন্ধির নমনীয়তা রক্ষা করতে ও সর্বোপরি মস্তিষ্ক রক্ষা করার জন্য জল অপরিহার্য। এছাড়া বয়স ধরে রাখতে ও ত্বক টানটান রাখতে জলের ভূমিকা অনস্বীকার্য। এককথায় বলা যায় জল ছাড়া আমাদের দেহযন্ত্রটি অচল হয়ে পড়বে।
 দৈনিক কতটা জল প্রত্যেকের পান করা উচিত?
সাধারণত দিনে প্রত্যেকের তিন থেকে সাড়ে তিন লিটার জল পান করা উচিত। অবশ্য কে কোন ধরনের জলবায়ুতে বাস করছেন, কেমন ধরনের কাজ করছেন তার ওপরে জলপানের অভ্যাস ও পরিমাণ নির্ভর করে। গ্রীষ্মপ্রধান দেশে মানুষের ঘাম হয় বেশি। ফলে অনেকটা জল শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। অন্যদিকে যারা শীতপ্রধান দেশে বাস করেন, তাঁদের ঘাম হয় কম। তাঁদের জলপানের পরিমাণ গ্রীষ্মপ্রধান দেশে বসবাসকারী মানুষের চাইতে নিশ্চয় কম হবে। আবার কিছু মানুষ সারাদিন এসি’তে থাকেন। শরীর থেকে ঘাম ঝরে না একবিন্দু। অথচ কিছু লোককে দিনভর রৌদ্রে ঘাম ঝরিয়ে কাজ করতে হয়। স্বাভাবিকভাবেই এই শ্রেণির মানুষকে জল একটু বেশিই পান করতে হবে।
‘খুব শীঘ্রই তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি হয়ে যাবে। দৈনিক ৬ থেকে ৭ লিটার জল পান করুন’— সম্প্রতি এই ধরনের একটা মেসেজ সোশাল মিডিয়া এবং হোয়্যাটসঅ্যাপে শেয়ার হচ্ছে। আপনার মতে এই তথ্য কতটা সঠিক? দৈনিক ৬ থেকে ৭ লিটার জলপান করা কি আদৌ সম্ভব?
 বাইরের তাপমাত্রা যাই হোক না কেন, ঘাম খুব বেশি হলে বড়জোর চার লিটার জলপান করা যেতে পারে। এর চাইতে বেশি জলপানের কোনও বাস্তব কারণ নেই।
 ছোটরাও বাইরে ঘোরাঘুরি করে, ছোটাছুটি করে। এই গ্রীষ্মে তাদের কতটা জল করা দরকার?
 ছোট মানে কতটা ছোট, সেটা দেখতে হবে। সাধারণভাবে স্কুলে যায় এমন বাচ্চাদের সম্পর্কে বলা যেতে পারে। স্কুলগোয়িং বাচ্চাদের অন্তত দুই থেকে আড়াই লিটার জল পান করতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে, তারা যেন যেখান সেখান থেকে জল না খায়। সেক্ষেত্রে জলবাহিত নানা অসুখে পড়ার আশঙ্কা থেকে যায়।
বড়দেরও জলবাহিত অসুখে পড়ার আশঙ্কা থাকে। শুদ্ধ জল পান করার উপায় কী?
বিশ্বের সমস্ত উন্নত দেশে সরকারেরই দায়িত্ব থাকে জনগণকে শুদ্ধ জল সরবরাহ করার। এ দেশে বহু জায়গায় কোনও কোনও বাড়িতে জলই পৌঁছয় না! সেখানে শুদ্ধ জল সরবরাহ করা তো আরও বড় চ্যালেঞ্জ। উন্নত দেশে শহরে যে সমস্ত উৎস থেকে জল সরবরাহ হয়, সেখানে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হয়। এমনকী ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন-এর বেঁধে দেওয়া নিয়ম অনুযায়ী সেই জলের গুণমানের পরীক্ষা হয়। আমাদের দেশে সেইরকম নজরদারির ব্যবস্থা কোথায়? ফলে এ দেশের মানুষের মধ্যে হেপাটাইটিস-এ, হেপাটাইটিস-ই, টাইফয়েড, কলেরা, ডায়ারিয়া মতো জলবাহিত রোগ হয়। নজরদারির কারণেই উন্নত দেশের মানুষের মধ্যে এই রোগগুলি কম দেখা যায় আর এ দেশে বেশি হয়।
সাধারণ মানুষ কীভাবে শুদ্ধ জল পান করতে পারে?
খুব সহজে শুদ্ধ জল পাওয়ার একটাই উপায় আছে। জল ফুটিয়ে পান করা। রাতে জল ফুটিয়ে নিতে হবে। এতে জলে থাকা ব্যাকটেরিয়া মারা পড়বে। তারপর সারারাত একটা পাত্রে সেই জল রেখে ঠান্ডা করতে হবে। এর ফলে জলে থাকা অজৈব পদার্থগুলি জলের নিচে থিতিয়ে পড়বে। সকালে পাত্রে রাখা জলের নিচের অংশটুকু রেখে বাকিটা ছেঁকে পান করলেই চলবে। এছাড়া যাঁদের বাড়িতে ওয়াটার পিউরিফায়ার রাখার সামর্থ্য আছে, তাঁরা নিজের উদ্যোগে রিভার্স অসমোসিস প্রযুক্তিযুক্ত ওয়াটার পিউরিফায়ার রাখতে পারেন। তবে এই পদ্ধতি খরচসাপেক্ষ এবং অনেকটা জল নষ্ট হয়।
সাধারণ পিউরিফায়ার ব্যবহার করা কি যাবে না?
সাধারণ পিউরিফায়ারে নোংরা আটকানোর ক্ষমতা থাকলেও ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র জীবাণু ধ্বংস ও প্রতিরোধ করার ব্যবস্থা নেই।
খাওয়ার আগে জল পান করলে কি খাবার হজম ভালো সাহায্য করে?
সেরকম কোনও ব্যাপার নেই। অনেকে রোগা হওয়ার জন্য প্রতিবার খাওয়ার আগে অনেকটা জল পান করেন। এর ফলে জিভ চাইলেও অতিরিক্ত খাবার খাওয়া যায় না। তবে খাবার খাওয়ার অন্তত আধঘণ্টা পর জল পান করলে খাদ্য হজমে সুবিধা হয়।
খাবার সময়ে জলপান করলে নাকি খাদ্য ভালো হজম হয় না?
এরকম নির্দিষ্ট কোনও প্রতিবন্ধকতা নেই। খাবার খাওয়ার সময় সামান্য পরিমাণে জল পান করাই যায়। মুশকিল হল, অনেকেই সময়ের অভাবে তাড়াহুড়ো করে খান। জল দিয়ে খাবার গিলে নেন। এমন অভ্যাস ভালো নয়। খাবার চিবিয়ে খেলে তবেই হজম দ্রুত হবে। কারণ খাওয়ার সময় মুখগহ্বরে থাকা নানা গ্রন্থি থেকে এনজাইম ক্ষরিত হয়ে খাবারে মেশে। এছাড়া পাকস্থলীসহ পরিপাকতন্ত্রের বিভিন্ন অ্যাসিড, এনজাইম ক্ষরিত হয়। খাবার খেতে খেতে প্রচুর পরিমাণে জল খেলে সেগুলির কার্যকারিতা বিঘ্ন হওয়ার আশঙ্কা থাকে।
 ফল খেয়ে জল খেতে নেই কেন?
আলাদা করে কোনও কারণ নেই। ফলও তো আসলে খাবার। খাবারের সঙ্গে হজমে সাহায্যকারী অ্যাসিড, এনজাইমগুলি মিশতে হবে। সেকারণেই অনেকে ফল খাওয়ার পরেই জল খেতে নিষেধ করেন। তবে সামান্য জল পান করাই যায়।
জল খুব কম পান করলে কি কি বিপদ হতে পারে?
যে কোনও কাজেই খুব দ্রুত ক্লান্তি আসবে, কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা দেখা দেবে। হজমে সমস্যা, ওজন বৃদ্ধি পাওয়া, দ্রুত জরা আসা, নার্ভের অসুখ, কিডনি, হার্টের সমস্যা— নানা ধরনের রোগ হতে পারে। আগেই বলেছি, জল ছাড়া শরীরযন্ত্রটি অচল।
জল কম খেলে যেমন বিপদ, বেশি খেলেও কি বিপদ হয়?
অতিরিক্ত যে কোনও কিছুই শরীরের পক্ষে খারাপ। দীর্ঘদিন ধরে প্রয়োজনের বেশি জল পান করলে হাইপোথার্মিয়া দেখা দেওয়ার আশঙ্কা থাকে, সোডিয়াম পটাশিয়ামের ভারসাম্য নষ্ট হয়, পেটের ও লিভারের সমস্যা দেখা দেয়, ব্রেনসহ সারা শরীরের কোষ ফুলে যায়। এছাড়া হার্টে অতিরিক্ত চাপ পড়ে, বেড়ে যায় কিডনির কাজ । দীর্ঘ দিন এমন হতে থাকলে হার্ট ও কিডনির অসুখ হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।
কোন কোন অসুখ থাকলে জল পান নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে?
হার্টের ও কিডনির সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে জল পান করুন। বিশেষ করে কিডনির অসুখ থাকলে রোগীকে সারাদিনে হিসাব করেই জল পান করতে হবে।
কেউ ঠান্ডা জল পান করতে ভালোবাসেন, কেউ আবার গরম জল। এই ধরনের অভ্যাসের কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি শরীরে পড়ে?
চীন দেশে আগে লোকে উষ্ণ জলই পান করত। আর উষ্ণ জল পান করে তাঁদের জাতি ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, এমন খবর এখনও পর্যন্ত নেই। তা বলে ফোসকা পড়া গরম জল নিশ্চয় কেউ পান করেন না! আর ঠান্ডা জলের প্রসঙ্গে বলি, বহু মানুষ ঠান্ডা জল পান করতে পছন্দ করেন। আসলে কে, কেমন জল পান করবে তা মানুষ এবং একটা জাতির অভ্যাসের উপর নির্ভর করে।
মিনারেল ওয়াটার বোতলের জল কতটা স্বাস্থ্যকর?
সাধারণভাবে এই মিনারেল ওয়াটার প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির উপর রাষ্ট্রের কোনও নজরদারি নেই। সাম্প্রতিক কিছু সমীক্ষায় বাজারচলতি বেশকিছু মিনারেল ওয়াটারের বোতলে ব্রোমেট, ক্লোরাইড এবং ক্লোরেটের মতো অবাঞ্ছিত রাসায়নিক মিলেছে। অতএব আদৌ মিনারেল ওয়াটারের বোতল ঠিক কতটা স্বাস্থ্যকর, সেই নিয়ে প্রশ্ন রয়েই যাচ্ছে।
সাক্ষাৎকার: সুপ্রিয় নায়েক
04th  May, 2017
প্রকাশিত হল ডাঃ সরোজ গুপ্ত রচনাসংগ্রহ

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ক্যানসার বিশেষজ্ঞ ও ঠাকুরপুকুর ক্যানসার হসপিটালের প্রাণপুরুষ ডাঃ সরোজ গুপ্তর স্মরণে সম্প্রতি নন্দন-৪ প্রেক্ষাগৃহে দে’জ পাবলিশিং থেকে এই প্রথম প্রকাশিত হল অঞ্জন গুপ্ত ও ডাঃ অর্ণব গুপ্ত সম্পাদিত একটি গল্পের বই ‘ডাঃ সরোজ গুপ্ত রচনাসংগ্রহ’।
বিশদ

25th  May, 2017
ছেলেমেয়ের মন বুঝবেন কীভাবে?

ছেলেবেলা পেরিয়ে কৈশোর। মাঝবেলায় যৌবনের ছায়া। দেখতে দেখতে কেটে যায় অনেকটা সময়। এমন বাড়ন্ত বেলার ছেলেমেয়েদের চলাফেরা, ভাবনা-চিন্তার সঙ্গে অভিভাবকের তীব্র মতান্তর সৃষ্টি হওয়ার ঘটনা এখন ঘরে ঘরে। এই সময় ছেলেমেয়ের মনের নাগাল পাওয়া বেজায় ভার। কিন্তু কীভাবে মালুম হবে তাদের ইচ্ছা-অনিচ্ছার তারতম্য? কেমনভাবে খোঁজ মিলবে ওদের লুকিয়ে রাখা অনুভূতি? জানালেন পিজি হাসপাতালের ইনস্টিটিউট অব সাইকিয়াট্রি বিভাগের ডিরেক্টর ডাঃ প্রদীপ সাহা।
বিশদ

25th  May, 2017
দুর্গাপুরে বিরল রোগের চিকিৎসা

ফুফফুসের বিরল রোগ ‘হাইপারসেনসিটিভিটি নিউমোনাইটিস’ আক্রান্ত রোগীকে সুস্থ করেল দুর্গাপুরের আইকিউ সিটি নারায়াণা মাল্টিস্পেশালিটি হাসপাতাল। বয়স ৩২-এর শায়িদা তারানাম একসপ্তাহ ধরে তীব্র শ্বাসকষ্টে ভুগছিলন। চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখেন, স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক কম পরিমাণ অক্সিজেন শারিদার রক্তে রয়েছে।
বিশদ

18th  May, 2017
কুসুমদেবী ডেন্টালের দন্ত পরীক্ষা শিবির

বারাকপুরের স্টেম ওয়ার্ল্ড স্কুলে সম্প্রতি নিখরচায় দন্ত পরীক্ষা শিবিরের আয়োজন করেছিল কুসুমদেবী সুন্দরলাল দুগার জৈন ডেন্টাল কলেজ ও হাসপাতাল। বিদ্যালয়ের ২৫০ ছাত্র এবং তাদের অভিভাবকের মুখগহ্বরের পরীক্ষা করেন হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।
বিশদ

18th  May, 2017
বন্ধ্যাত্বের কারণগুলি কী কী?

সন্তানহীনতার সমস্যা যখন ক্রমবর্ধমান, যার বীজ রোপন হয় শৈশবেই। আধুনিক জীবনযাত্রা অনেকটাই দায়ী এর জন্য। তবে হতাশ হবেন না, আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতিতে সম্ভব হয়েছে ইনফার্টিলিটি সমস্যার সমাধান। পরামর্শে উর্বরা আইভিএফ এর ল্যাপারোস্কোপিক গাইনোকলজিস্ট অ্যান্ড আইভিএফ স্পেশালিস্ট ডঃ ইন্দ্রাণী লোধ।
বিশদ

18th  May, 2017
 ওষুধের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা

  অ্যাসোসিয়েশন অব ফিজিশিয়ান অব ইন্ডিয়া’র (এপিআই) পশ্চিমবঙ্গ শাখার তরফে কলকাতায় শিক্ষামূলক চিকিৎসা বিষয়ক এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। মূলত বিভিন্ন অসুখ সারানোর ওষুধগুলির সাম্প্রতিকতম ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করাই ছিল এই সভার উদ্দেশ্য।
বিশদ

11th  May, 2017
 হ্যানিম্যানের হোমিওপ্যাথি বিতর্ক সভা

  ভক্তদের দাবি, হোমিওপ্যাথিই যে কোনও রোগের সঠিক চিকিৎসা পদ্ধতি। খুব ধীরে ধীরে অসুখ নিরাময় করে। কিন্তু মানুষ চান দ্রুত নিরাময়। তাই স্বাভাবিক নিয়মেই উঠে এসেছে একটি প্রশ্ন। হোমিওপ্যাথি কি আদৌ বিজ্ঞানসম্মত? এই দাবির কতটা সত্যতা আছে?
বিশদ

11th  May, 2017
 টিটেনাস

আমরা জানি কাচে বা জং ধরা লোহায় শরীরে কোনও জায়গা কেটে গেলে টিনেনাস রোগের ব্যাকটেরিয়া দেহে প্রবেশ করে। এমন ভাবনা মোটেই সঠিক নয়। যে কোনও ধরনের কাটাছেঁড়া বা পোড়া থেকেও এই ব্যাকটেরিয়া শরীরে ঢোকার আশঙ্কা থেকে যায়। আর শুধু একটা ইঞ্জেকশনে টিটেনাসের ব্যাকটেরিয়া মরে না। এই ভ্যাকসিন নেওয়ার নির্দিষ্ট নিয়ম আছে। সেগুলো জানা ছোট-বড় সবার কর্তব্য। 
বিশদ

11th  May, 2017
সোয়াইন ফ্লু সতর্কতা প্রয়োজন
ডাঃ দ্বৈপায়ন মজুমদার

ছোটবেলায় আমরা সর্দি, জ্বর, কাশিকে তেমন পাত্তাই দিতাম না । সর্দি, জ্বর মানে স্কুল থকে কয়েকদিনের মুক্তি, আর বড় হলে অফিসে কিছু দিনের ছুটি । কিন্তু বছর কয়েক আগে ‘সোয়াইন ফ্লু’ নামটা শোনার পর থেকে ব্যাপারটা আর অত সহজ সরল থাকল না । ফ্লু শব্দটির সঙ্গে আমরা অনেকে পরিচিত হলেও ‘সোয়াইন ফ্লু’ নামটা আমাদের কাছে নতুন ছিল । কিছুটা গুজব, কিছুটা বাস্তব থেকে জন্ম নিল আতঙ্ক । ২০০৯ এ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অসুখের ব্যাপকতা লক্ষ করে একে প্যানডেমিক ঘোষণা করেছিল ।
বিশদ

04th  May, 2017
জীবনদায়ী ওআরএস

  ওআরএস কী?
 ওর‌্যাল রিহাইড্রেশন সল্ট সলিউশন বা ওআর এস-এর ব্যবহার চলে আসছে বহুকাল ধরেই। বিভিন্ন দেশের চিকিৎসাশাস্ত্রে, খ্রিস্টজন্মের আগে, এমনকী আমাদের প্রাচীন ভারতীয় চিকিৎসায়ও উল্লেখ মিলেছে এর।
 কখন দরকার পড়ে ওআরএস?
বিশদ

27th  April, 2017



একনজরে
সিওল, ২৯ মে: তিন সপ্তাহের মধ্যে ফের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালালো উত্তর কোরিয়া। জাপানের দাবি, ক্ষেপণাস্ত্রটি তাদের অর্থনৈতিক অঞ্চলে আছড়ে পড়েছে। স্কাড মিসাইলটি ৪৫০ কিলোমিটার আকাশপথ ...

 মুম্বই, ২৯ মে (পিটিআই): শেয়ার বাজারের ঊর্ধ্বগতি চলছেই। এদিন মুম্বই শেয়ার বাজারের সূচক সেনসেক্স ৩১ হাজার ১০৯ পয়েন্টে শেষ হয়েছে। গত তিন দিন ধরেই সেনসেক্স ঊর্ধ্বমুখী। তিনদিনে ৮০০ পয়েন্টেরও বেশি উঠেছে সূচক। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পাহাড় জয়ের স্বপ্নে এবার হাত মেলাল দুই বাংলা। কলকাতার পর্বতারোহী সত্যরূপ সিদ্ধান্ত এবং বাংলাদেশের মুসা ইব্রাহিম একযোগে অভিযান শুরু করলেন ওশিয়ানিয়া মহাদেশের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ কারস্টেইনৎস পিরামিড ওরফে পুনসাক জয়া-র উদ্দেশ্যে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফরেনসিক রিপোর্ট তৈরির শ্লথতা নিয়ে অভিযোগ রয়েছে বিস্তর। আর সেকারণেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে দ্রুত ফরেনসিক রিপোর্ট তৈরির জন্য এক বছর আগে পুলিশকে দেওয়া হয়েছিল চারটি গাড়ি। এই গাড়িগুলি ফরেনসিক রিপোর্ট তৈরির উপযোগী যাবতীয় পরিকাঠামোয় সজ্জিত। ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যাবসাসূত্রে উপার্জন বৃদ্ধি। বিদ্যায় মানসিক চঞ্চলতা বাধার কারণ হতে পারে। গুরুজনদের শরীর স্বাস্থ্য ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৪৪: ইংরেজ লেখক আলেক্সজান্ডার পোপের মৃত্যু
১৭৭৮: ফ্রান্সের লেখক এবং দার্শনিক ভলতেয়ারের মৃত্যু
১৯১২: বিমান আবিষ্কারক উইলবার রাইটের মৃত্যু
১৯১৯: জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘নাইট’ উপাধি ত্যাগ
১৯৪৫: অভিনেতা ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৫০: অভিনেতা পরেশ রাওয়ালের জন্ম
২০১৩: চিত্র পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের মৃত্যু




ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.৭০ টাকা ৬৫.৩৮ টাকা
পাউন্ড ৮১.৩৮ টাকা ৮৪.১৮ টাকা
ইউরো ৭০.৮৭ টাকা ৭৩.২৩ টাকা
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,৩৪৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৭,৮৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৮,২৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৪০০ টাকা

দিন পঞ্জিকা

 ১৬ জ্যৈষ্ঠ, ৩০ মে, মঙ্গলবার, পঞ্চমী দিবা ৮/৪৭, পুষ্যানক্ষত্র দিবা ১১/৫৭, সূ উ ৪/৫৫/৪৯, অ ৬/১২/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৪ পুনঃ ৯/২১-১২/০ পুনঃ ৩/৩১-৪/২৫, বারবেলা ৬/৩৬-৮/১৫ পুনঃ ১/১৩-২/৫৩, কালরাত্রি ৭/৩২-৮/৫৩।
১৫ জ্যৈষ্ঠ, ৩০ মে, মঙ্গলবার, পঞ্চমী ২/১৯/৫, পুষ্যানক্ষত্র অপরাহ্ণ ৫/২৮/৪৩, সূ উ ৪/৫৪/৪৫, অ ৬/১২/৩৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৪/১৯, ৯/২০/৪২-১২/০/১৬, ৩/৩৩/২-৪/২৬/১৩ রাত্রি ৬/৫৫/২৫, ১১/৫৫/৫-২/৩/৩১, বারবেলা ৬/৩৪/২৯-৮/১৪/১৩, কালবেলা ১/১৩/২৪-২/৫৩/৮, কালরাত্রি ৭/৩২/৫২-৮/৫৩/৮।
৩ রমজান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পদার্থবিদ্যা নিয়ে গবেষণার ইচ্ছে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম অর্চিষ্মান পাণিগ্রাহীর 
চিকিৎসক বা ইঞ্জিনিয়ার নয়। গবেষক হতে চায় এবছর উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম স্থান অধিকারি হুগলি কলেজিয়েট স্কুলের অর্চিষ্মান পাণিগ্রাহী। পদার্থবিদ্যা নিয়ে গবেষণা করার ইচ্ছে রয়েছে তাঁর। ২০১৫ সালে মাধ্যমিকে দ্বিতীয় হয়েছিল অর্চিষ্মান। উচ্চ মাধ্যমিকে তার থেকেও ভালো ফল করায় স্বাভাবিকভাবেই খুশি সে। 

11:00:40 AM

চিকিৎসক হতে চায় উচ্চ মাধ্যমিকে তৃতীয় বাঁকুড়া জেলা স্কুলের সুরজিৎ লোহার 

10:54:51 AM

উচ্চ মাধ্যমিকে তৃতীয় (৯৭.৮%) শুভম সিংহ ও সুরজিৎ লোহার (বাঁকুড়া জেলা স্কুল) 

10:49:32 AM

উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম অর্চিষ্মাণ পানিগ্রাহি ( হুগলি কলেজিয়েট স্কুল) 

10:45:00 AM

উচ্চ মাধ্যমিকে দ্বিতীয় (৯৮.৪%) ময়াঙ্ক চট্টোপাধ্যায় (মাহেশ শ্রীরামকৃষ্ণ বিদ্যাভবন), উপমন্যু চক্রবর্তী (নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন) 

10:39:06 AM

সাফল্যের নিরিখে শীর্ষে পূর্ব মেদিনীপুর 

10:15:00 AM






বিশেষ নিবন্ধ
এবারই প্রথম নয়, ’৯৯-এ কারগিল যুদ্ধেও পাক সেনারা নৃশংসতার নজির রেখেছিল
সীমান্তরক্ষায় অনেকদিন কাটানো পোড়খাওয়া এক ক্যাপ্টেন একদিন দার্শনিকের ঢঙে বললেন, আমরা এটুকুই বুঝি—যুদ্ধক্ষেত্রে জীবন মানে ...
 লালবাজার অভিযান: মমতার চালে বিজেপি মাত!
শুভা দত্ত: সিপিএমের নবান্ন অভিযানের ধাঁচে লালবাজার অভিযান করে রাজ্যবাসীকে চমকে দিতে চেয়েছিল রাজ্য বিজেপি। ...
 হুট বলতে ফুট কাটার অসুখ
 সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়: আমার এক বন্ধু প্রায়ই ভারী অদ্ভুত অদ্ভুত কথা বলে। যেমন, জ্বর-জ্বালা, বুক ধড়ফড়ানি, ...
নদী তুমি কার
বিশ্বজিৎ মুখোপাধ্যায়: ১৯৪৭ সালে দ্বিখণ্ডিত স্বাধীনতা কেবলমাত্র মানুষকে ভাগ করেনি, প্রাকৃতিক সম্পদেও ভাঙনের সাতকাহন সূচিত ...
চীন, পাকিস্তান বেজিংয়ে ফাঁকা মাঠ পেয়ে গেল ভারতের কূটনৈতিক ভুলের কারণে
কুমারেশ চক্রবর্তী: মাত্র কিছু দিন আগে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা আইসিসি’র এক ভোটে ৯-১ ভোটে ...