শরীর ও স্বাস্থ্য
 

 কখন কতটা জল খাবেন?

পরামর্শে আর জি কর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডাঃ অপূর্ব মুখোপাধ্যায়।

জল পান আমাদের জন্য কেন জরুরি?

জল না থাকলে শরীরটাই থাকবে না! আমাদের দেহের কোষ-কলার কাজকর্ম সঠিকভাবে চালিয়ে যেতে জল অপরিহার্য। শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখতে, রেচনক্রিয়ার মাধ্যমে শরীরের ক্ষতিকর পদার্থ বার করে দিতে, সুষ্ঠুভাবে পাচনক্রিয়া পরিচালনা করতে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে, অস্থিসন্ধির নমনীয়তা রক্ষা করতে ও সর্বোপরি মস্তিষ্ক রক্ষা করার জন্য জল অপরিহার্য। এছাড়া বয়স ধরে রাখতে ও ত্বক টানটান রাখতে জলের ভূমিকা অনস্বীকার্য। এককথায় বলা যায় জল ছাড়া আমাদের দেহযন্ত্রটি অচল হয়ে পড়বে।
 দৈনিক কতটা জল প্রত্যেকের পান করা উচিত?
সাধারণত দিনে প্রত্যেকের তিন থেকে সাড়ে তিন লিটার জল পান করা উচিত। অবশ্য কে কোন ধরনের জলবায়ুতে বাস করছেন, কেমন ধরনের কাজ করছেন তার ওপরে জলপানের অভ্যাস ও পরিমাণ নির্ভর করে। গ্রীষ্মপ্রধান দেশে মানুষের ঘাম হয় বেশি। ফলে অনেকটা জল শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। অন্যদিকে যারা শীতপ্রধান দেশে বাস করেন, তাঁদের ঘাম হয় কম। তাঁদের জলপানের পরিমাণ গ্রীষ্মপ্রধান দেশে বসবাসকারী মানুষের চাইতে নিশ্চয় কম হবে। আবার কিছু মানুষ সারাদিন এসি’তে থাকেন। শরীর থেকে ঘাম ঝরে না একবিন্দু। অথচ কিছু লোককে দিনভর রৌদ্রে ঘাম ঝরিয়ে কাজ করতে হয়। স্বাভাবিকভাবেই এই শ্রেণির মানুষকে জল একটু বেশিই পান করতে হবে।
‘খুব শীঘ্রই তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি হয়ে যাবে। দৈনিক ৬ থেকে ৭ লিটার জল পান করুন’— সম্প্রতি এই ধরনের একটা মেসেজ সোশাল মিডিয়া এবং হোয়্যাটসঅ্যাপে শেয়ার হচ্ছে। আপনার মতে এই তথ্য কতটা সঠিক? দৈনিক ৬ থেকে ৭ লিটার জলপান করা কি আদৌ সম্ভব?
 বাইরের তাপমাত্রা যাই হোক না কেন, ঘাম খুব বেশি হলে বড়জোর চার লিটার জলপান করা যেতে পারে। এর চাইতে বেশি জলপানের কোনও বাস্তব কারণ নেই।
 ছোটরাও বাইরে ঘোরাঘুরি করে, ছোটাছুটি করে। এই গ্রীষ্মে তাদের কতটা জল করা দরকার?
 ছোট মানে কতটা ছোট, সেটা দেখতে হবে। সাধারণভাবে স্কুলে যায় এমন বাচ্চাদের সম্পর্কে বলা যেতে পারে। স্কুলগোয়িং বাচ্চাদের অন্তত দুই থেকে আড়াই লিটার জল পান করতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে, তারা যেন যেখান সেখান থেকে জল না খায়। সেক্ষেত্রে জলবাহিত নানা অসুখে পড়ার আশঙ্কা থেকে যায়।
বড়দেরও জলবাহিত অসুখে পড়ার আশঙ্কা থাকে। শুদ্ধ জল পান করার উপায় কী?
বিশ্বের সমস্ত উন্নত দেশে সরকারেরই দায়িত্ব থাকে জনগণকে শুদ্ধ জল সরবরাহ করার। এ দেশে বহু জায়গায় কোনও কোনও বাড়িতে জলই পৌঁছয় না! সেখানে শুদ্ধ জল সরবরাহ করা তো আরও বড় চ্যালেঞ্জ। উন্নত দেশে শহরে যে সমস্ত উৎস থেকে জল সরবরাহ হয়, সেখানে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হয়। এমনকী ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন-এর বেঁধে দেওয়া নিয়ম অনুযায়ী সেই জলের গুণমানের পরীক্ষা হয়। আমাদের দেশে সেইরকম নজরদারির ব্যবস্থা কোথায়? ফলে এ দেশের মানুষের মধ্যে হেপাটাইটিস-এ, হেপাটাইটিস-ই, টাইফয়েড, কলেরা, ডায়ারিয়া মতো জলবাহিত রোগ হয়। নজরদারির কারণেই উন্নত দেশের মানুষের মধ্যে এই রোগগুলি কম দেখা যায় আর এ দেশে বেশি হয়।
সাধারণ মানুষ কীভাবে শুদ্ধ জল পান করতে পারে?
খুব সহজে শুদ্ধ জল পাওয়ার একটাই উপায় আছে। জল ফুটিয়ে পান করা। রাতে জল ফুটিয়ে নিতে হবে। এতে জলে থাকা ব্যাকটেরিয়া মারা পড়বে। তারপর সারারাত একটা পাত্রে সেই জল রেখে ঠান্ডা করতে হবে। এর ফলে জলে থাকা অজৈব পদার্থগুলি জলের নিচে থিতিয়ে পড়বে। সকালে পাত্রে রাখা জলের নিচের অংশটুকু রেখে বাকিটা ছেঁকে পান করলেই চলবে। এছাড়া যাঁদের বাড়িতে ওয়াটার পিউরিফায়ার রাখার সামর্থ্য আছে, তাঁরা নিজের উদ্যোগে রিভার্স অসমোসিস প্রযুক্তিযুক্ত ওয়াটার পিউরিফায়ার রাখতে পারেন। তবে এই পদ্ধতি খরচসাপেক্ষ এবং অনেকটা জল নষ্ট হয়।
সাধারণ পিউরিফায়ার ব্যবহার করা কি যাবে না?
সাধারণ পিউরিফায়ারে নোংরা আটকানোর ক্ষমতা থাকলেও ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র জীবাণু ধ্বংস ও প্রতিরোধ করার ব্যবস্থা নেই।
খাওয়ার আগে জল পান করলে কি খাবার হজম ভালো সাহায্য করে?
সেরকম কোনও ব্যাপার নেই। অনেকে রোগা হওয়ার জন্য প্রতিবার খাওয়ার আগে অনেকটা জল পান করেন। এর ফলে জিভ চাইলেও অতিরিক্ত খাবার খাওয়া যায় না। তবে খাবার খাওয়ার অন্তত আধঘণ্টা পর জল পান করলে খাদ্য হজমে সুবিধা হয়।
খাবার সময়ে জলপান করলে নাকি খাদ্য ভালো হজম হয় না?
এরকম নির্দিষ্ট কোনও প্রতিবন্ধকতা নেই। খাবার খাওয়ার সময় সামান্য পরিমাণে জল পান করাই যায়। মুশকিল হল, অনেকেই সময়ের অভাবে তাড়াহুড়ো করে খান। জল দিয়ে খাবার গিলে নেন। এমন অভ্যাস ভালো নয়। খাবার চিবিয়ে খেলে তবেই হজম দ্রুত হবে। কারণ খাওয়ার সময় মুখগহ্বরে থাকা নানা গ্রন্থি থেকে এনজাইম ক্ষরিত হয়ে খাবারে মেশে। এছাড়া পাকস্থলীসহ পরিপাকতন্ত্রের বিভিন্ন অ্যাসিড, এনজাইম ক্ষরিত হয়। খাবার খেতে খেতে প্রচুর পরিমাণে জল খেলে সেগুলির কার্যকারিতা বিঘ্ন হওয়ার আশঙ্কা থাকে।
 ফল খেয়ে জল খেতে নেই কেন?
আলাদা করে কোনও কারণ নেই। ফলও তো আসলে খাবার। খাবারের সঙ্গে হজমে সাহায্যকারী অ্যাসিড, এনজাইমগুলি মিশতে হবে। সেকারণেই অনেকে ফল খাওয়ার পরেই জল খেতে নিষেধ করেন। তবে সামান্য জল পান করাই যায়।
জল খুব কম পান করলে কি কি বিপদ হতে পারে?
যে কোনও কাজেই খুব দ্রুত ক্লান্তি আসবে, কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা দেখা দেবে। হজমে সমস্যা, ওজন বৃদ্ধি পাওয়া, দ্রুত জরা আসা, নার্ভের অসুখ, কিডনি, হার্টের সমস্যা— নানা ধরনের রোগ হতে পারে। আগেই বলেছি, জল ছাড়া শরীরযন্ত্রটি অচল।
জল কম খেলে যেমন বিপদ, বেশি খেলেও কি বিপদ হয়?
অতিরিক্ত যে কোনও কিছুই শরীরের পক্ষে খারাপ। দীর্ঘদিন ধরে প্রয়োজনের বেশি জল পান করলে হাইপোথার্মিয়া দেখা দেওয়ার আশঙ্কা থাকে, সোডিয়াম পটাশিয়ামের ভারসাম্য নষ্ট হয়, পেটের ও লিভারের সমস্যা দেখা দেয়, ব্রেনসহ সারা শরীরের কোষ ফুলে যায়। এছাড়া হার্টে অতিরিক্ত চাপ পড়ে, বেড়ে যায় কিডনির কাজ । দীর্ঘ দিন এমন হতে থাকলে হার্ট ও কিডনির অসুখ হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।
কোন কোন অসুখ থাকলে জল পান নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে?
হার্টের ও কিডনির সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে জল পান করুন। বিশেষ করে কিডনির অসুখ থাকলে রোগীকে সারাদিনে হিসাব করেই জল পান করতে হবে।
কেউ ঠান্ডা জল পান করতে ভালোবাসেন, কেউ আবার গরম জল। এই ধরনের অভ্যাসের কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি শরীরে পড়ে?
চীন দেশে আগে লোকে উষ্ণ জলই পান করত। আর উষ্ণ জল পান করে তাঁদের জাতি ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, এমন খবর এখনও পর্যন্ত নেই। তা বলে ফোসকা পড়া গরম জল নিশ্চয় কেউ পান করেন না! আর ঠান্ডা জলের প্রসঙ্গে বলি, বহু মানুষ ঠান্ডা জল পান করতে পছন্দ করেন। আসলে কে, কেমন জল পান করবে তা মানুষ এবং একটা জাতির অভ্যাসের উপর নির্ভর করে।
মিনারেল ওয়াটার বোতলের জল কতটা স্বাস্থ্যকর?
সাধারণভাবে এই মিনারেল ওয়াটার প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির উপর রাষ্ট্রের কোনও নজরদারি নেই। সাম্প্রতিক কিছু সমীক্ষায় বাজারচলতি বেশকিছু মিনারেল ওয়াটারের বোতলে ব্রোমেট, ক্লোরাইড এবং ক্লোরেটের মতো অবাঞ্ছিত রাসায়নিক মিলেছে। অতএব আদৌ মিনারেল ওয়াটারের বোতল ঠিক কতটা স্বাস্থ্যকর, সেই নিয়ে প্রশ্ন রয়েই যাচ্ছে।
সাক্ষাৎকার: সুপ্রিয় নায়েক
04th  May, 2017
 বাস্তবের নায়কদের মার্ক-এর সম্মান
সায়ন নস্কর  মুম্বই থেকে ফিরে

  সাধারণের মধ্য থেকে অসাধারণ হয়ে উঠে আসা চার ব্যক্তিকে মুম্বইয়ের এক অনুষ্ঠানে ‘ইন্ডিয়াস ট্রু হিরোজ’ পুরস্কারে সম্মানিত করল ওষুধ নির্মাতা সংস্থা মার্ক নিউরোবিয়ন ফর্ট। উপস্থিত ছিলেন অভিনেত্রী ভাগ্যশ্রী, বিএসএফ-এর ডিআইজি অমিত লোধাসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানে সংস্থার পক্ষ থেকে পাঁচ শহিদ সেনা পরিবারকে সাহায্য করার কথাও জানানো হয়।
বিশদ

20th  July, 2017
 কলকাতায় জাইগোমা ইমপ্লান্ট

 মুকুন্দপুরের আমরি হাসপাতাল এবং একটি বেসরকারি সংস্থার যৌথ উদ্যোগে জাইগোমা ইমপ্লান্ট সার্জারি নিয়ে একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছিল। উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিয়েশন অফ ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জন অফ ইন্ডিয়া এবং তামিলনাড়ু ডেন্টাল কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডাঃ গুণশীলন রাজন।
বিশদ

20th  July, 2017
সিগারেট ছাড়তে আয়ুর্বেদ ও হোমিওপ্যাথি

সিগারেট, তামাকজাত দ্রব্য ও মদের নেশা ত্যাগ করা অনেকের কাছেই প্রায় অসম্ভব ব্যাপার। কিন্তু তা সম্ভবও করা যায়। কীভাবে? জানাচ্ছেন কেন্দ্রীয় সরকারের আয়ুর্বেদ গবেষণা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসাবিজ্ঞানী ডাঃ সুবলকুমার মাইতি ও ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হোমিওপ্যাথির (সল্টলেক) তামাক আসক্তি দূরীকরণ কেন্দ্রের ইনচার্জ ডাঃ প্রলয় শর্মা।
বিশদ

20th  July, 2017
  মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস সচেতন হন

 মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস নিয়ে সম্প্রতি কলকাতায় বিশেষ সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস অফ ইন্ডিয়া (এম এস এস আই) কলকাতা শাখা’র পক্ষ থেকে। অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন সংগীতশিল্পী রূপঙ্কর বাগচী সহ বহু বিশিষ্ট মানুষ।
বিশদ

06th  July, 2017
 ছোট্ট অপরাজিতার লড়াই

  শিশুদের হার্টে ফুটো হলে তখনই তাকে বুক চিরে অপারেশন করে তার ফুটো বন্ধ করে দিতেই হবে এই সিদ্ধান্তের ঠিক উলটো পথে ১৬/২ ডোভার টেরেসের বাসিন্দা রামপ্রসাদ তাঁতি ও রেখা তাঁতির শিশু কন্যার চিকিৎসা শুরু করলেন আর এন ট্যাগোর হাসপাতালের শিশু হার্ট বিশেষজ্ঞ ডাঃ দেবশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়।
বিশদ

06th  July, 2017
গাট সামিট

  সম্প্রতি কলকাতায় অনুষ্ঠিত হল দু’দিনের গাট সামিট ২০১৭। সম্মেলনটির আয়োজন করেছিল গাট চাট ক্লাব। সম্মেলনের চেয়ারম্যান ডাঃ সত্যপ্রিয় দে সরকার জানান, এই বছরের সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন ডাঃ ভবতোষ বিশ্বাস।
বিশদ

06th  July, 2017
 ইসকিমিয়া কতটা চিন্তার?

 ভারতসহ গোটা দক্ষিণ এশিয়ায় এই রোগের দাপট ক্রমশ বেড়েই চলেছে। আক্রান্ত হচ্ছে হৃদপিণ্ড, মস্তিষ্ক, পা, ফুসফুস এবং পাচন নালির মতো অঙ্গগুলি। সঠিক সময়ে চিকিৎসা না হলে ঘটে যেতে পারে বড়সড় শারীরিক বিপত্তি। তবে কয়েকটি বিষয়ে সতর্ক থাকলেই এই রোগ থেকে দূরে থাকা সম্ভব বলে জানাচ্ছেন পিয়ারলেস হসপিটাল অ্যান্ড বি কে রয় রিসার্চ ইনস্টিটিউটের কার্ডিওলজি বিভাগের ক্লিনিক্যাল ডিরেক্টর ডাঃ অঞ্জনলাল দত্ত।
বিশদ

06th  July, 2017
আইভিএফ-এ উর্বরার সাফল্য
১০০ শিশু

 বিজ্ঞানের হাত ধরেই জীবনের জয় হয়। কথায় বলে, মানবজীবনের চাইতে মূল্যবান কিছু হয় না। আর তাই হয়তো জীবনধারণের অনুভূতি এত সুন্দর। অথচ বর্তমানের ‘ফাস্ট লাইফ’-এর যুগে বহু দম্পতিই সেই অনুভূতি থেকে বঞ্চিত। ফলে প্রকৃতির সাধারণ নিয়ম মেনেই প্রত্যেক দম্পতিরই এক নতুন প্রাণের সৃষ্টি করার কথা, তা অনেক ক্ষেত্রেই সম্ভব হয় না। ফার্টিলিটি ক্লিনিক উর্বরার কাজ এমন দম্পতিদের নিয়েই।
বিশদ

29th  June, 2017
দু’সপ্তাহ কাশির সঙ্গে জ্বর? টিবি পরীক্ষা জরুরি
সচেতনতায় অ্যাপোলো

সর্দি, কাশি আর জ্বর হলে সাধারণত আমরা স্থানীয় কোনও ডাক্তারের পরামর্শ নিই। মোটামুটি সপ্তাহখানেকের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠি। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় দু’সপ্তাহ পেরিয়েও জ্বর কমছে না। এইরকম হলে অতি অবশ্যই টিউবারক্যুলোসিস বা যক্ষ্মারোগের পরীক্ষা করাতে হবে। যে কারণে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর বারবার সাধারণ মানুষকে এই ব্যাপারে সচেতন করে চলেছে।
বিশদ

29th  June, 2017
স্নানের উপকারিতা কী কী?

চারদিকে শুধু ধোঁয়া আর ধুলো। সঙ্গে জীবাণুর রাজত্ব। এমন অবস্থায় শরীর, মন, মেজাজ, স্বাস্থ্য ঠিক রাখা বেজায় কঠিন। তবে এই কাজটিকেই সহজ করে দিতে পারে স্নান। কিন্তু কীভাবে? কথা বললেন ইনস্টিটিউট অব পোস্ট গ্র্যাজুয়েট আয়ুর্বেদিক এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের অধ্যাপক ডাঃ প্রদ্যোৎবিকাশ কর মহাপাত্র।
বিশদ

29th  June, 2017
৯৯ শতাংশ ক্যানসার রোগীই মরফিন পান না

  ভারতের প্রায় ১০ লক্ষ রোগীর মরফিনের দরকার। অথচ এই বিপুল সংখ্যক রোগীর জন্য মরফিনের চাহিদা থাকলেও মোট রোগীর এক শতাংশেরও কম মানুষ মরফিন পেয়ে থাকেন। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন। যোগান পর্যাপ্ত। কিন্তু আইনের কড়াকড়ি, চিকিৎসকদের দীর্ঘদিন ধরে মরফিন ব্যবহারে অনীহা এবং রোগীর আত্মীয়স্বজনের মরফিন নিয়ে বিভিন্ন ভ্রান্ত ধারণার কারণে মরফিন পাচ্ছেন না রোগীরা।
বিশদ

22nd  June, 2017



একনজরে
ইসলামাবাদ, ২২ জুলাই (পিটিআই): পানামা পেপার ফাঁস কেলেঙ্কারিতে শেষ পর্যন্ত গদি খোয়াতে হতে পারে নওয়াজ শরিফকে। এমন আশঙ্কায় শরিফের উত্তরসূরি হিসাবে বেছে নেওয়া হল তাঁর ভাইকেই। শাহবাজ শরিফ এখন পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এবং নওয়াজের ছোট ভাই। তবে শাহবাজ শরিফ পাক ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফের শহরে তোলাবাজির অভিযোগ। পাঁচ লক্ষ টাকা তোলা চেয়ে হুমকি দেওয়ায় কলকাতার বেনিয়াপুকুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন এক প্রোমোটার। মহম্মদ ওমর ফারুখ নামে ওই প্রোমোটারের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তিন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। লালবাজার সূত্রে এই ...

দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ২২ জুলাই: জাতীয় গড়ের তুলনায় পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্বের হার বেশি। সম্প্রতি লোকসভায় কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী বন্দারু দত্তাত্রেয়’র পেশ করা রিপোর্টে প্রকাশ পেয়েছে এই তথ্য। একইসঙ্গে সংশ্লিষ্ট রিপোর্টে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী এও উল্লেখ করেছেন যে, ২০১২-১৩ আর্থিক বছরের তুলনায় ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষে ...

 সংবাদদাতা, ঘাটাল: দুই দেশের খেলা দেখার জন্য ভিড় উপচে পড়ল দাসপুর-১ ব্লকের কলোড়াতে। শনিবার পশ্চিম মেদিনীপুর ফুটি অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে কলোড়া স্কুল ফুটবল মাঠে ভারতের জাতীয় ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যাবসা সূত্রে উপার্জন বৃদ্ধি। বিদ্যায় মানসিক চঞ্চলতা বাধার কারণ হতে পারে। গুরুজনদের শরীর স্বাস্থ্য নিয়ে ... বিশদ



ইতিহাসে আজকের দিন

 ১৮৫৬- স্বাধীনতা সংগ্রামী বাল গঙ্গাধর তিলকের জন্ম
 ১৮৯৫ – চিত্রশিল্পী মুকুল দের জন্ম
 ২০০৪- অভিনেতা মেহমুদের মৃত্যু
 ২০১২- আই এন এ’ যোদ্ধা লক্ষ্মী সায়গলের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.৫৫ টাকা ৬৬.২৩ টাকা
পাউন্ড ৮১.৯৮ টাকা ৮৪.৯৬ টাকা
ইউরো ৭৩.৫৬ টাকা ৭৬.১৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
22nd  July, 2017
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,০৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৭,৫৮০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৭,৯৯৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

 ৭ শ্রাবণ, ২৩ জুলাই, রবিবার, অমাবস্যা দিবা ৩/১৬, পুনর্বসুনক্ষত্র দিবা ৯/৫৩, সূ উ ৫/৭/৫৭, অ ৬/১৮/৫, অমৃতযোগ প্রাতঃ ৬/১-৯/৩১ রাত্রি ৭/৪৫-৯/১১, বারবেলা ১০/৪-১/২২, কালরাত্রি ১/৪-২/২৬।
৬ শ্রাবণ, ২৩ জুলাই, রবিবার, অমাবস্যা ৩/৫২/৫৯, পুনর্বসুনক্ষত্র ১১/৫/৩৬, সূ উ ৫/৪/৫০, অ ৬/২০/৬, অমৃতযোগ দিবা ৫/৫৭/৫১-৯/২৯/৫৫, বারবেলা ১০/৩/৩-১১/৪২/২৮, কালবেলা ১১/৪২/২৮-১/২১/৫২, কালরাত্রি ১/৩/৪-২/২৩/৩৯।
 ২৮ শওয়াল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ভারতের জয়ের জন্য ৬ ওভারে ৩১ রান প্রয়োজন 

09:47:31 PM

ভারত ১৪৫/৩ (৩৫ ওভার) 

09:08:03 PM

ভারত ১২০/২ (৩০ ওভার) 

08:45:54 PM

ভারত ৬৯/২ (২০ ওভারে)

08:10:29 PM

ভারত ৪৩/২ (১২ ওভারে)

07:41:49 PM

ভারত ৩১/১ (৮ ওভারে)

07:26:26 PM