Bartaman Patrika
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

এনসেফালাইটিসের বিপদ
সামলাবেন কীভাবে?
সমস্যা যখন ছোটদের

ডাঃ অপূর্ব ঘোষ  শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ
এনসেফেলন কথার অর্থ হল মস্তিষ্ক। আর আইটিস কথার অর্থ প্রদাহ (ইনফেকশন)। এই দু’টি শব্দকে একত্রে করে এনসেফালাইটিস শব্দটি তৈরি হয়েছে। অর্থাৎ এনসেফালাইটিস হল মস্তিষ্কের প্রদাহ।
ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, অটোইমিউন (শরীর নিজেই নিজের বিরুদ্ধে লড়ছে) ইত্যাদি নানা কারণে মানুষ এনসেফালাইটিসে আক্রান্ত হতে পারেন। আবার অনেকসময় এনসেফালাইটিসে আক্রান্ত হওয়ার সঠিক কারণ খুঁজে পাওয়া যায় না। রোগের নেপথ্য কারণ খুঁজে না পাওয়া রোগীর সংখ্যাও নেহাত কম নয়। বিগত দশকে কানাডায় হওয়া একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল, প্রায় ৬০ শতাংশ এনসেফালাইটিস আক্রান্তের রোগের নেপথ্য কারণ খুঁজে বের করা যায় না। তবে গত কয়েক বছরে চিকিৎসাব্যবস্থা অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে। এখন অনেক ধরনের অ্যান্টিবডি টেস্টের মাধ্যমে রোগ নির্ণয় সহজ হয়েছে। ফলে আগের তুলনায় ইদানীং এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার কারণ অনেক বেশি সংখ্যায় নির্ণয় করা সম্ভব হচ্ছে। কিন্তু এত অধুনিকীকরণের পরও একটা বৃহৎ অংশের রোগীর এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার কারণ খুঁজে পাওয়া যায় না। এটা অবশ্যই চিন্তার।
ইতিমধ্যেই বিহারের একটি নির্দিষ্ট অঞ্চল জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে এনসেফালাইটিসের আতঙ্ক। প্রায় একশোর বেশি শিশু এই রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছে। বিভিন্ন সূত্র থেকে নানা রকম তথ্য উঠে আসলেও, এখনও বিহারের এনসেফালাইটিসের নেপথ্য কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে কারণ খুঁজে বের করার সবরকম চেষ্টাই চলছে। সেইমতো কাজে লেগে পড়েছেন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা।
আসলে এই ধরনের ইনফেকশাস ডিজিজগুলি সবসময়ই একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে। কারণ ভাইরাসের আক্রমণ হয় নির্দিষ্ট অঞ্চল জুড়ে। এই যেমন কিছুদিন আগেই একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলের মানুষ নিপা ভাইরাস, অ্যাডিনো ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাই আজকের বিহারেও ঠিক তেমনই অবস্থা। একটি নির্দিষ্ট ভৌগলিক অঞ্চলের মানুষ এনসেফালাইটিসে আক্রান্ত হচ্ছে। এক্ষেত্রে শুধু রোগের কারণ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ব্যস, তফাত শুধু এইটুকুই।
রোগ লক্ষণ
 এই রোগের অন্যতম লক্ষণ হল জ্বর। এনসেফালাইটিসে আক্রান্ত প্রায় ৮০ শতাংশ রোগীরই জ্বর থাকে  একটা বড় অংশের রোগীর খিঁচুনি হতে দেখা যায়  অনেকসময় কিছু নিউরোলজিক্যাল লক্ষণও দেখা দিতে পারে। যেমন— হাত কাজ করছে না, পা কাজ করছে না, ঘাড় তোলা সম্ভব হচ্ছে না ইত্যাদি। এগুলিকে বিজ্ঞানসম্মত ভাষায় ফোকাল নিউরোলজিক্যাল সাইন বলে  প্রায় ৫০ শতাংশ রোগীর সচেতনতা (কনশাসনেস) অনেকটা কমে যায়  অনেক সময় রোগীর কোনও নার্ভ প্যারালিসিস হতে পারে  এছাড়াও আরও অনেক ক্লিনিক্যাল লক্ষণ রয়েছে।
এক্ষেত্রে রোগের প্রাথমিক লক্ষণ খুঁজে চিকিৎসার অধীনে আসলে বাচ্চার সম্পূর্ণ সেরে ওঠার আশা সবথেকে বেশি। বাচ্চা অচেতন হয়ে যাচ্ছে, জ্বর কমার পরও বাচ্চা অহেতুক কেঁদে যাচ্ছে ইত্যাদি হল এনসেফালাইটিসের প্রাথমিক লক্ষণ। তাই বাচ্চার মধ্যে এমন লক্ষণ দেখতে পেলেই আর সময় নষ্ট না করে চিকিৎসকের কাছে পৌঁছান।
রোগ নির্ণয়
বিভিন্ন ধরনের এনসেফালাইটিসের নিজস্ব নিজস্ব চরিত্র রয়েছে। এমআরআই, ইইজি, লাম্বার পাংচার, লাম্বার পাংচার অ্যানালিসিস, রক্তপরীক্ষা ইত্যাদি মাধ্যমে এই রোগের কারণ খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা চলে। তবে যেমনটা বলা হয়েছিল, এত পরীক্ষা করার পরও অনেকক্ষেত্রেই রোগের কারণ বের করা সম্ভব হয় না।
চিকিৎসা কী?
‌এই রোগের নির্দিষ্ট কোনও চিকিৎসা নেই। আক্রান্তকে মূলত সাপোর্টিভ ট্রিটমেন্ট দিতে হয়। রোগীর হৃদ্‌গতি, রক্তচাপ, মাথার ভিতরের প্রেশার, ফ্লুইড, শরীরের ইলেকট্রোলাইটস ব্যালান্স ইত্যাদি নজরে রাখতে হয়। পাশাপাশি লক্ষণভিত্তিক চিকিৎসা যেমন জ্বর হলে জ্বরের চিকিৎসা, খিঁচুনি হলে তার চিকিৎসা ইত্যাদি করে যেতে হবে। রোগী কোমায় চলে গিয়ে থাকলে সেই মতো চিকিৎসা করা দরকার।
আবার বেশকিছু ধরনের এনসেফালাইটিসের চিকিৎসা রয়েছে। হারপিক্স সিমপ্লেক্স ভাইরাস থেকে হওয়া এনসেফালাইটিসের আলাদা করে চিকিৎসা রয়েছে। আবার মাইক্রোপ্লাজমা এনসেফালাইটিসে আক্রান্ত হলে অ্যাজিথ্রোমাইসিন জাতীয় ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। অটোইমিউন এনসেফালইটিসের রোগীকে স্টেরয়েডের মাধ্যমে চিকিৎসা করলে সমস্যার সমাধান সম্ভব।
ভারতে এখন স্ক্রাব টাইফাস রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। অনেকসময় এই রোগে আক্রান্তকেও এনসেফালাইটিসের মতো লক্ষণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দেখা যায় রোগীর জ্বর, সচেতনতার অভাব রয়েছে। তবে এক্ষেত্রে বেশিরভাগ রোগীরই গায়ে র‌্যাশ বেরতে দেখা যায়। তবে আশার বিষয় হল, এই রোগের নির্দিষ্ট চিকিৎসা রয়েছে। প্রয়োজন শুধু সঠিক রোগ নির্ণয়ের।
বর্ষা এল মানেই চারদিকে ডেঙ্গুতে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়বে। সমস্যা হল, এই রোগে থেকেও ডেঙ্গু এনসেফালাইটিস, ডেঙ্গু মেনিনগো এনসেফালইটিসের মতো সমস্যা দেখা দেয়।
বাচ্চাদের জটিলতা বেশি কেন?
যে কোনও শারীরিক সমস্যাই বাচ্চাদের উপর বেশি প্রভাব ফেলে। কারণ তাদের দেহের রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা কম থাকে। এনসেফালাইটিসের ক্ষেত্রেও ঠিক তাই হয়। প্রধানত বাচ্চাদের গঠনরত মস্তিষ্ক, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকার মতো বিষয়গুলির কারণেই বাচ্চাদের এই রোগ থেকে সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা কয়েকগুণ বেড়ে যায়।
রোগ প্রতিরোধে
জাপানিজ এনসেফালাইটিসের টিকা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে কোনও বয়সের মানুষ চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে এই টিকা নিতে পারেন। এছাড়া অন্যান্য ভাইরাস থেকেও এই রোগে মানুষ আক্রান্ত হতে পারেন। তাই যেই সকল ভাইরাসের টিকা বাজারে প্রচলিত, বিশেষজ্ঞের মত নিয়ে সেই টিকা নিলে রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে। এছাড়া নির্দিষ্ট অঞ্চলে এনসেফালাইটিস ছড়িয়ে পড়লে সেই অঞ্চলের বাসিন্দাদের অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে।
আর অবশ্যই এই বর্ষায় মশার কামড় থেকে বাচ্চাকে দূরে রাখার চেষ্টা করতে হবে। বাড়ির আশপাশে জল জমতে না দেওয়া, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, বাচ্চাকে হাত-পা ঢাকা জামা কাপড় পড়ানো, মশারি ব্যবহার, চিকিৎসকের পরামর্শমতো মশা প্রতিরোধী ক্রিম, রোল অন, লোশন ইত্যাদি ব্যবহার করা যেতে পারে।
লিখেছেন সায়ন নস্কর
 
27th  June, 2019
ডায়েটে জব্দ ডায়াবেটিস 

ডায়াবেটিস হওয়া মানেই কিন্তু খাবার খাওয়া বন্ধ নয়। যদি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মানুষের রক্তে সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকে, সেক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মেনে সব খাবারই খাওয়া যায়। ডায়াবেটিস রোগীর প্রথম প্রশ্নই থাকে, আলু কি বন্ধ? এর উত্তর, সুগার নর্মাল রেঞ্জে থাকলে দিনে ২০ থেকে ৩০ গ্রাম আলু খেতে পারা যায়।
বিশদ

14th  November, 2019
ডায়াবেটিক ফুট থেকে সাবধান!

‘ইফ ইউ কমিট ওয়ান মিসটেক বাই নট নোইং ইট, দেন ইউ কমিট টেন মিসটেকস বাই নট লুকিং ইনটু ইট।’ অনবদ্য এই কথাটি বলেছিলেন প্রাক্তন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল। ডায়াবেটিস বা মধুমেহ বা চলতি কথায় সুগার রোগে এই কথাটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। 
বিশদ

14th  November, 2019
সুগারে চোখের যত্ন 

ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি কী?
রেটিনা হল চোখের পিছনের ভাগের নার্ভ সমষ্টি। এই অংশই বাইরের আলোকে রূপান্তরিত করে বৈদ্যুতিক সংকেতে। আমাদের মস্তিষ্ক এই সংকেতমালা বিশ্লেষণ করে তৈরি করে চিত্র। এই চিত্রই আমরা দেখি! রেটিনার উপরে অসংখ্য রক্তনালিকা বা ব্লাড ভেসেলস থাকে। 
বিশদ

14th  November, 2019
সুগার কন্ট্রোলে শীতের সব্জি 

ফুলকপি: অনেকেই জানে না যে ফুলকপিতে প্রচুর ভিটামিন সি পাওয়া যায়। এছাড়া আছে ক্যালশিয়াম, পটাশিয়াম, আয়রন, ডায়েটারি ফাইবার এবং ফোলেট। অর্থাৎ সব্জি বা চিকেনের সঙ্গে ফুলকপি খেলে ডায়াবেটিসের ডায়েট হিসেবে অনবদ্য।
বিশদ

14th  November, 2019
ডায়াবেটিসে কিডনির অসুখ 

দেখা গিয়েছে, অন্তত ৩০ থেকে ৪০ শতাংশের বেশি টাইপ ওয়ান বা টাইপ টু ডায়াবেটিক রোগী কিডনির অসুখে ভোগেন। ডায়াবেটিসে কিডনি বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ডায়াবেটিক নেফ্রোপ্যাথি ছাড়াও কিডনির সংক্রমণের মাত্রা বেড়ে যায়। 
বিশদ

14th  November, 2019
সুগার থেকে হার্টের অসুখ 

আমেরিকান ডায়াবেটিস সোসাইটির তথ্য বলছে, বিশ্বে রোজ প্রতি ২১ সেকেন্ডে একজন মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছেন। একজন প্রাপ্তবয়স্ক ডায়াবেটিস-আক্রান্ত মানুষের আকস্মিক মৃত্যুর আশঙ্কা একজন সুস্থ মানুষের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ। এই মুহূর্তে প্রতি তিনজন মানুষের মধ্যে একজনের জীবনের কোনও একটি পর্যায়ে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। 
বিশদ

14th  November, 2019
স্ট্রোকের রোগীকে ৪ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতালে আনুন 

চলতি বছরের ৩ নভেম্বর পঞ্চমীর রাতে তীব্র স্ট্রোকে আক্রান্ত হন ৫৮ বছর বয়সি সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়। কথা জড়িয়ে যাওয়া, শরীরের ডানদিক বিকল হওয়ার মতো লক্ষণও ফুটে ওঠে তাঁর শরীরে। সেই রাতেই তাঁকে আনা হয় অ্যাপোলো গ্লেনিগলস হাসপাতালে। তৎক্ষণাৎ শুরু হয়ে যায় চিকিৎসা।
বিশদ

07th  November, 2019
ব্রেস্ট ক্যান্সারের লক্ষণ চিনুন 

পরামর্শে হাওড়ার নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালের কনসালটেন্ট ব্রেস্ট অঙ্কো সার্জেন ডাঃ নেহা চৌধুরী।  বিশদ

07th  November, 2019
নিয়মিত ধ্যান করুন, বলছেন অ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসকরাও 

ধ্যান বা মেডিটেশন শব্দটা শুনলেই চোখের সামনে ভেসে উঠে পদ্মাসনে বসে থাকা মুনি-ঋষিদের ছবি। কেননা ধ্যান সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা খুবই কম। আসলে ধ্যান হল এমন একটি উপায়, যার মাধ্যমে মনের উপর নিয়ন্ত্রণ আনা হয়। মনকে প্রশিক্ষিত করা হয়। ধ্যানের মাধ্যমে নতুন ও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি তৈরি করা যায়। মানুষের মন সর্বদাই একসঙ্গে অনেক কিছু চিন্তা করে। ধ্যানের মাধ্যমে একটি বিষয়ে মনোনিবেশ করার অভ্যাস তৈরি হয়। কিন্তু, আজকের আধুনিক চিকিৎসাশাস্ত্রে তথা অ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থায় ধ্যান কতটা বিজ্ঞানসম্মত? কতটাই বা উপকারী ‘মেডিটেশন ইন মেডিকেশন’? সে বিষয়েই আলোকপাত করছেন তিন ক্ষেত্রের তিন বিশিষ্ট চিকিৎসক। 
বিশদ

07th  November, 2019
ধ্যান করলে কী কী লাভ? 

সমস্ত রোগের উৎস আসলে রিপু। রিপুর আধার হল শরীর। শরীরকে চালনা করে মন। শরীর থেকে মনকে আলাদা করে ফেললেই রিপুর উপর আসবে নিয়ন্ত্রণ! আর মনকে নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রয়োজন ধ্যানের অভ্যেস। পরামর্শে যোগবিশারদ প্রেমসুন্দর দাস 
বিশদ

07th  November, 2019
ঘুম না এলে
কী করবেন?

 আমাদের শরীরের ভিতরে রয়েছে কয়েক হাজার ঘড়ি! হার্টের যে কোষগুলি রয়েছে, সেই কোষগুলি নির্দিষ্ট সময় মেনে কাজ করে, একইরকমভাবে লিভার, প্যাংক্রিয়াসের কোষগুলিরও কাজ করার এবং কাজ বন্ধ করার নির্দিষ্ট সময় আছে। বিশদ

31st  October, 2019
 খাবার যখন বিষ!

  নিম্নমানের খাদ্যাভ্যাস আয়ু কমাচ্ছে আমাদের। প্রতিদিন যে নিম্নমানের খাদ্য খাই, তাতে ফি বছর এক কোটিরও বেশি মানুষ প্রাণ হারাচ্ছেন। তাও আবার অকালে। এক চিকিৎসা সাময়িকীতে প্রকাশিত তথ্য থেকে এমনটাই জানা গিয়েছে। ধূমপানের পাশাপাশি রোজকার কিছু খাবারও আমাদের অকালমৃত্যুর পিছনে অনুঘটকের কাজ করে।
বিশদ

31st  October, 2019
বোকাবাক্সে স্মৃতিনাশ!

প্রতিদিন সাড়ে তিন ঘণ্টার বেশি সময় টেলিভিশন দেখলে বয়স্ক মানুষদের স্মৃতিশক্তি কমে যেতে পারে! এমনই জানানো হয়েছে এক গবেষণায়। ৫০ বছরের বেশি বয়সি সাড়ে তিন হাজার মানুষের ওপর বিজ্ঞানীরা এই গবেষণাটি চালিয়েছেন।
বিশদ

31st  October, 2019
বাজি পোড়ানোর সময়
কী কী সাবধানতা নেবেন?

পুজোর সিজন এখন শুরু হয় গণেশপুজো থেকে। বিশ্বকর্মা, দুর্গা, লক্ষ্মী, ছট, কালী হয়ে জগদ্ধাত্রীতে এসে শেষ হয়। প্রতি পুজোতেই এখন কমবেশি বাজি-পটকা ফাটে, কালীপুজোতে যা ভয়ঙ্কর রূপ নেয়।
বিশদ

24th  October, 2019
একনজরে
মাইসুরু, ১৮ নভেম্বর: রবিবার মাইসুরুতে একটি বিয়েবাড়িতে যোগ দিতে গিয়ে আততায়ীর হামলায় গুরুতর জখম হলেন কর্ণাটকের কংগ্রেস বিধায়ক তনভির সাইত। তাঁর উপর ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় এক ব্যক্তি। ...

ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: দু’টি পরীক্ষার মধ্যে দু-একদিন করে ছুটি থাকবে বলে আগেই ঘোষণা করেছিলেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শয়নে স্বপনে এখন শুধুই গোলাপি টেস্ট। যার উন্মাদনা কেবল সমর্থকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যেও। দেশের মাটিতে প্রথমবার ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভ কিছু বিলম্ব হবে। প্রেম-ভালোবাসায় সাফল্য লাভ ঘটবে। বিবাহযোগ আছে। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় থেকে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩৮: সমাজ সংস্কারক কেশবচন্দ্র সেনের জন্ম
১৮৭৭: কবি করুণানিধান বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯১৭: ভারতের তৃতীয় প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর জন্ম
১৯২২: সঙ্গীতকার সলিল চৌধুরির জন্ম
১৯২৮: কুস্তিগীর ও অভিনেতা দারা সিংয়ের জন্ম
১৯৫১: অভিনেত্রী জিনাত আমনের জন্ম 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৮৪ টাকা ৭২.৫৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.০৬ টাকা ৯৪.৩৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৮৫ টাকা ৮০.৮১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৫৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৬০৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,১৫৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ২৪/১১ দিবা ৩/৩৬। অশ্লেষা ৩৮/৩৮ রাত্রি ৯/২২। সূ উ ৫/৫৫/২২, অ ৪/৪৮/২৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪০ মধ্যে পুনঃ ৭/২৩ গতে ১১/০ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৬ গতে ৮/১৯ মধ্যে পুনঃ ৯/১১ গতে ১১/৪৯ মধ্যে পুনঃ ১/৩৪ গতে ৩/১৯ মধ্যে পুনঃ ৫/৫ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/১৬ গতে ৮/৩৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৩ গতে ২/৫ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭ গতে ৮/৫ মধ্যে। 
২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ১৯/২৬/৫২ দিবা ১/৪৩/৫৬। অশ্লেষা ৩৬/১/৪১ রাত্রি ৮/২১/৫১, সূ উ ৫/৫৭/১১, অ ৪/৪৮/১৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫০ মধ্যে ও ৭/৩০ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৮ গতে ৮/২১ মধ্যে ও ৯/১৪ গতে ১১/৫৪ মধ্যে ও ১/৪১ গতে ৩/২৮ মধ্যে ও ৫/১৪ গতে ৫/৫৮ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৮/৩৬ গতে ৮/৪০/১ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৩/১৫ গতে ২/৫/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭/৪ গতে ৮/৫/৪০ মধ্যে।
২১ রবিয়ল আউয়ল  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দিল্লিতে ভূমিকম্প 

07:07:50 PM

বুধেরহাটে অ্যাসিড খেয়ে আত্মঘাতী বধূ 
স্বামীর সঙ্গে অশান্তির জেরে অ্যাসিড খেয়ে আত্মঘাতী হলেন এক বধূ। ...বিশদ

06:22:42 PM

মালদহের প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

06:13:00 PM

বিধানসভায় পালিত হবে সংবিধান দিবস 
২৬ এবং ২৭ নভেম্বর রাজ্য বিধানসভায় পালিত হবে সংবিধান দিবস। ...বিশদ

03:59:00 PM

প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দিতে মালদহে পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

03:58:52 PM

ডেঙ্গুতে পাঁচ বছরের এক শিশুকন্যার মৃত্যু 
ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল পাঁচ বছরের এক শিশুকন্যার। মৃতের ...বিশদ

02:28:49 PM