Bartaman Patrika
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

গরমে টক খাবেন কেন?

 লিখেছেন ভারত সরকারের আয়ুর্বেদ গবেষণা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসা বিজ্ঞানী ডাঃ সুবলকুমার মাইতি

গরমের দিনে টক খাবারের নাম মনে পড়লে জিভে জল আসে বৈকি! অন্য ঋতুগুলিতে টকের তেমন সমাদর নেই। আয়ুর্বেদ মতে রস ৬টি—মধুর, অম্ল, লবণ, তিক্ত, কটু, কষায়, আর এগুলির সমন্বয়ে শরীরে বায়ু-পিত্ত-কফের বৃদ্ধি-হ্রাস হয়ে শরীরকে সুস্থ ও অসুস্থ করে তুলতে পারে। তাই সব ঋতুতে কম-বেশি ৬টি রসের ব্যবহার শরীরের পক্ষে খুবই উপযোগী।
টক খাবার বলতে সাধারণত যেসব দ্রব্যের নাম মনের আনাচে-কানাচে ঘুরঘুর করতে থাকে, তার মধ্যে টক দই বাদ দিলে, বাকি রইল কিছু টক ফল, মোটামুটি সেগুলি হল— কাঁচা আম, কাঁচা ও পাকা তেঁতুল, কাঁচা ও পাকা চালতা, যে কোনও প্রকারের লেবু, কামরাঙা, আমড়া, জলপাই, কাঁচা ও পাকা কয়েতবেল, টোপাকুল, নোয়াড় বা শিলাকুল, চেরি প্রভৃতি। অসম সহ পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে আমচুরের মতো ব্যবহৃত হয় অম্লবেতস ফল। এছাড়া কাঁচা-পাকা আনারসও এই তালিকায় এসে যায়। একেবারে শেষে আলোচনা করব টক দই।
এবারে সংক্ষিপ্ত আকারে এগুলির গুণাগুণ, ব্যবহারিক পদ্ধতি ও উপকারিতা সম্বন্ধে আলোচনা করা যাক—
১. কাঁচা আম: এই ফলে ভিটামিন সি, প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট, ফ্যাট, সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, কপার, বিটা ক্যারোটিন, ফাইবার, নায়াসিন, থায়ামিন, রাইবোফ্লাভিন, আয়রন, ম্যাঙ্গানিক, জিঙ্ক, আলফা ক্যারোটিন প্রভৃতি থাকে। কাঁচা আমে থাকে সাইট্রিক অ্যাসিড, ম্যালিক অ্যাসিড, টারটারিক অ্যাসিড। ফলে এটি রক্তে অম্ল ও ক্ষারের সমতা রক্ষা করে। চরক সংহিতায় বলা হয়েছে—কচি আম রক্তপিত্তকর, মধ্যবয়সি আম পিত্তকর। পরবর্তীকালের সমীক্ষাতে দেখা যায়—কচি আম অম্ল, কষায়,রুচিকর, বায়ু ও পিত্তবর্ধক।
কাঁচা আমের মুখের কাছে যে আঁঠা থাকে, তা ভালোভাবে ধুয়ে খেতে হবে। খুব বেশি খাওয়া ভালো নয়। গর্ভাবস্থায় কাঁচা আম না খাওয়া ভালো।
দক্ষিণ বঙ্গে কাঁচা আম দিয়ে শোল মাছ খাওয়ার চল খুব বেশি। এই সময় প্রত্যেকটি হোটেলেও পাওয়া যায়। আমাদের প্রিয় কবির এটি বড়ই প্রিয় ছিল।
কাঁচা আম—লবণ, কাঁচা লঙ্কা ছেঁচাতে সামান্য সর্ষে তেল মিশিয়ে রোদে বসিয়ে রাখতে হয়। দুপুরের এক ফাঁকে তারিয়ে তারিয়ে খাওয়ার একটা আলাদা আমেজ আছে। এটি ক্লান্তি ও পিপাসা দূর করে, হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু কাঁচা আম বেশি খেলে পেট ব্যথা, বদহজম, আমাশা, ঠোঁটে ও মুখে প্রদাহ হতে পারে। গরমের দিনে কাঁচা-মিঠে আম খাওয়া বড়ই উপাদেয়। কাঁচা আম থেকে আমসি, আচার, আমচুর, কাসুন্দি, মোরব্বা, তেল আম, গোটা আমের সরষে আম প্রভৃতি তৈরি হয়। ডালে কাঁচা আম খাওয়া বা আম পোড়ার শরবত খুবই স্বাস্থ্যপ্রদ। শেষে বলি—আম গাছের আদি জন্মস্থান ভারতভূমি, তাই তো বিশ্ব স্বীকৃত নাম—ম্যাগনিফেরা ইন্ডিকা।
২. কাঁচা ও পাকা তেঁতুল: সারাবছর খেতে পারেন। অত্যধিক রুচিকর হজমে সহায়ক, তবে অল্প পরিমাণে খেতে হয়। রাতের দিকে না খাওয়াই ভালো। পুরাতন পাকা তেঁতুল খাদ্যগুণে ও ঔষধি গুণে অধিক সমৃদ্ধ; লবণের ক্ষতিকর প্রভাবকে তেঁতুল নষ্ট করতে পারে, সেজন্য লবণাক্ত অঞ্চলের লোকেরা তেঁতুল বেশি খেয়ে থাকেন। পুরাতন তেঁতুল অর্শ, আমাশা, প্রস্রাবের দোষে, কোলেস্টেরল বৃদ্ধিতে, পেটের রোগে, দাহ-প্রশমনে, সর্দি-কাশিতে, অগ্নিমান্দ্য ও অরুচিতে বিশেষ কার্যকর। তবে যাঁরা প্রকৃত অর্থে অম্বলের রোগে ভোগেন, তাঁরা সাবধানে খাবেন নতুবা খাবেন না। তেঁতুলে থাকে টারটারিক ও ম্যালিক অ্যাসিড।
৩. কাঁচা ও পাকা চালতা: চালতায় ম্যালিক অ্যাসিড থাকে। ফলটি মধুর অম্ল-কষায় ধর্মী, রুচিকর, মুখশোধক, পিত্ত ও শ্লেষ্মার বিকারে কার্যকর এবং হৃদয়ের বলকারক। গুড়, রাঙালু, মূলো প্রভৃতি দিয়ে চালতার অম্বল বা টক তৈরি করা যায়। চাটনি ও মোরব্বা খুবই সুস্বাদু।
৪. যে কোন প্রকারের লেবু: (পাতি, কাগজি, গোঁড়া, টাবা, শরবতি, কমলা, গন্ধরাজ) প্রভৃতি। এগুলির সাধারণ গুণ হল—অম্লরস, বায়ুনাশক, অগ্নিদ্দীপক, পাচক ও লঘু। এছাড়া এক একটি জাতের লেবুর বিশেষ বিশেষ গুণ থাকে। খাওয়ার পদ্ধতিও আলাদা। বাতাবি, কমলা ফলের মতো খাওয়া যায়। বাকিগুলো কোনটা ভাতে, ডালে, শরবতে ব্যবহৃত হয়। কমবেশি সবগুলিতে ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, প্রোটিন প্রভৃতি থাকে। গরমের দিনে লবণ-চিনি-লেবুর রস দিয়ে তৈরি পানীয় শরীরের জলীয়াংশের ভারসাম্য রক্ষা করে। লেবুর আচার সারাবছর খাওয়া যেতে পারে। পাতিলেবু-কাগজি লেবু সারাবছরই কম বেশি পাওয়া যায়।
৫. কামরাঙা: কাঁচা ফল স্বাদে অম্ল, পাকা ফল মধুর ও অম্ল স্বাদের, পিত্তবর্ধক, বলকারক, রুচিকর। এটিতে প্রোটিন, ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট, আয়রন, ভিটামিন-এ ও অন্যান্য কিছু খনিজ পদার্থ রয়েছে। এটির চাটনি, আচার, সরবত প্রভৃতি খুবই উপাদেয়।
৬. আমড়া (দেশি বা টক আমড়া): কাঁচা আমড়া স্বাদে অম্ল, গুরুপাক, রুচিকর ও বায়ুনাশক। পাকা আমড়া মধুর ও কষায় রস, রুচিকর, স্নিগ্ন, বলকারক, শুক্রবর্ধক ও বহুমূত্র রোগে হিতকর। আমড়ার চাটনি বা অম্বল তৃপ্তিদায়ক এছাড়া দেশি মিষ্টি আমড়া ও থাইল্যান্ডের আমড়া পাওয়া যায়।
৭. জলপাই: এই ফলে সাইট্রিক অ্যাসিড থাকে। আমাশা ও অতিসারে এটির চাটনি বা অম্বল উপকারী।
৮. কাঁচা ও পাকা কয়েতবেল: কাঁচায় কষায়ধর্মী, ধারক ও লঘু। পাকায় বায়ু-পিত্ত নাশক, গুরু, অম্ল কষায় রস, ধারক, পিপাসা নাশক। উভয়ই সহজে হজম হয় না। বিভিন্নভাবে আচার, চাটনি করে সামান্য খাওয়া যায়। তবে এটি রুচিপ্রদ ও বলকারক।
৯. টোপা কুল: কাঁচায় খেলে কফ ও পিত্ত বৃদ্ধি করে, তাই খাওয়া নিষেধ। পাকলে অম্লমধুর, তখন সেটি বায়ু-পিত্তের দোষ দূর করে। রুচিকর ও বলকারক। লবণ সহযোগে আচার তৈরি করে দীর্ঘদিন রাখা যায়। পাকা ফলের টক বা চাটনি উপাদেয় খাদ্য।
১০. নোয়াড় বা শিলাকুল/লবলী: এই ফলটির গরমের দিনে ফলন বেশি। চাটনি করে লোকে খায়। স্বাদে অম্ল-মধুর- কষায় রস সমৃদ্ধ। স্বভাবে রুক্ষ ও গুরু হলেও কফ ও পিত্তনাশক, রুচিকর, অশ্মরী (মূত্রপাথুরী) ও অর্শনাশক। দুপুরে ভাত খাওয়ার পর ২/৩টি ফল লবণ সহযোগে কাঁচায় খেলে সহজে হজম হয়।
১১. চেরি: পার্বত্য এলাকার গাছ হলেও নিম্নভূমিতে ভালোভাবে জন্মে ও ফল দেয় চেরি গাছ। এই গরমে খেতে পারেন কাঁচা আম সহ চাটনি বানিয়ে। ফলটি পিত্ত নিঃসারক ও বিরেচন ধর্মী, স্বাদে অম্লমধুর, পাকস্থলীর পক্ষে খুবই উপকারী। মুখ ও ফুসফুসের রোগনাশক, রুচিকর, তৃষ্ণা-বমি-হিক্কা প্রশমিত করতে পারে। এছাড়া এটি মস্তিষ্কের পক্ষে খুবই ভালো।
১২. আম্লবেতস: এখানে অসম থেকে আসা থৈকলের কথাই বলছি। ওখানকার লোকেরা সারাবছর খেয়ে থাকেন। অনেকটা আমের সাইজের ফল, কাঁচায় কেটে আমচুরের মতো তৈরি করেন। শুকনো আমচুর মতো থৈকল খেতে অম্ল স্বাদের, রুচিকর, হৃদয়ের বলকারক, অজীর্ণ, আমাশা, তৃষ্ণা, পেট ফাঁপা, গ্রহণী প্রভৃতি রোগে প্রযোজ্য। থৈকলের টক বা চাটনি উপাদেয় খাদ্য। এই ফলটি থ্যালাসিমিয়া রোগ প্রতিকারে কার্যকর।
 টক কীভাবে খাবেন— খেতে পারেন আনারসের চাটনি, তাতে মেশাতে পারেন কাঁচা আম আর পোনা মাছের ডিম। পোস্ত বাটা ও পুরাতন তেঁতুলের টক বা চাটনি খেতে পারেন। ডালে কাঁচা আম বা পুরাতন তেঁতুল মেশালেও টক ডাল তৈরি হয়। পাকা চালতা ও রাঙালু—গুড় দিয়ে অম্বল, কাঁচা তেঁতুলের সময় তার টক বা অম্বল— কত রকমেরই না টকের কাহিনী। এছাড়া টক পালং ও টক শুষুনি (আমরুল শাক) দিয়ে উপাদেয় চাটনি বানানো যায়। গরমে টক শুষুনি আপনা থেকেই বাগানে জন্মে।
 টক দই: মিষ্টি দই-এর উপকারিতা নেই বললেই চলে। পেটের সমস্যা বৃদ্ধি করে। বরং টক দইতে যে ব্যাকটেরিয়াগুলো থাকে, সেগুলোকে প্রোবায়োটিক ব্যাকটেরিয়া বলা হয়। দই তৈরির সময় এগুলি তৈরি হয় এবং শরীরে গিয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
টক দইতে থাকে—ক্যালশিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, জিঙ্ক, প্রোটিন, ভিটামিন-বি১২, ফলিক অ্যাসিড প্রভৃতি। দুধের তুলনায় দইতে ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স ও ফলিক অ্যাসিড বেশি থাকে।
আয়ুর্বেদের বিচারে—গোরু, মহিষ, ছাগল প্রভৃতির দুধের মধ্যে গোরুর দুধের দধি বা দই সর্বোৎকৃষ্ট। এটি হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, বায়ুনাশক, রুচিকারক, বলকারক, পুষ্টিকারক ও শুক্রবর্ধক আরও নানা প্রকারের গুণসম্পন্ন।
গরমের দিনে টক দই ফেটিয়ে ঘোল বা লস্যি করে খেলে উপকার মেলে। তবে মনে রাখবেন, মাছ-মাংস-ডিম প্রভৃতির যে কোন একটি দিয়ে আহার করলে, সঙ্গে সঙ্গে দই প্রভৃতি না খেয়ে ৩-৪ ঘণ্টা পরে খাওয়া উচিত। নিত্য দই সেবনে শরীর তরতাজা থাকে, মনোবল বৃদ্ধি পায়, কর্মক্ষমতা বাড়ে, হৃদয়ের বল বৃদ্ধি করে। তাছাড়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তো বৃদ্ধি হয়ই নানাভাবে খাওয়া যেতে পারে। ঘরে পাতা সামান্য টক হওয়া দই খাওয়া সবচেয়ে ভালো এবং নিরাপদ।
09th  May, 2019
কখন কোন পরীক্ষা করাবেন?

যে কোনও ধরনের অসুখ প্রতিরোধে আগাম কিছু স্বাস্থ্যপরীক্ষা করিয়ে নিলে আখেরে লাভ আমাদেরই। পরামর্শে সিরাম অ্যানালিসিস সেন্টারের চেয়ারম্যান সঞ্জীব আচার্য এবং প্যাথোলজিস্ট ডাঃ আর এন চক্রবর্তী।
বিশদ

16th  May, 2019
পোষ্যের হাসপাতাল

 কলকাতায় সাতদিন ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকে এমন পোষ্য হাসপাতাল নেই বললেই চলে। এবার সেই অভাব পূরণ করতে চলেছে অ্যাডভান্সড পেট কেয়ার।
বিশদ

16th  May, 2019
হ্যানিম্যানের জন্মদিন পালন

 বসিরহাট হোমিওপ্যাথিক প্র্যাকটিসনার্স ওয়েলফেয়ার ফোরামের উদ্যোগে সম্প্রতি হ্যানিম্যানের ২৬৪ তম জন্মজয়ন্তী পালন ও বসিরহাট মহকুমা হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক সম্মেলন হয়ে গেল। সেখানে হ্যানিম্যানের জীবন ও কাজ নিয়ে আলোচনা করেন ডাঃ নিশার হোসেন।
বিশদ

16th  May, 2019
নিঃসঙ্গ বয়স্কদের জন্য

সন্তানরা বিভিন্ন কারণে বিদেশে বা দেশেরই অন্যত্র বসবাস করছেন। বৃদ্ধ বাবা-মা রয়ে গিয়েছেন বাড়িতে একা। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে শারীরিক সমস্যা বাড়লেও তাঁদের সঠিক দেখাশোনার লোক নেই। এবার এই সমস্যার সমাধান নিয়ে এল জ্যাপ কুরে নামক এক সংস্থা।
বিশদ

16th  May, 2019
মিউজিক থেরাপি কর্মশালা

রোগীকে সুস্থ করে তুলতে ওষুধের সঙ্গে বিশেষ কার্যকরী ভূমিকা নেয় সঙ্গীতও। সম্প্রতি এই বিষয়টি নিয়ে ঠাকুর’স মিউজিক অ্যান্ড মুভমেন্ট থেরাপি রিসার্চ সেন্টার (কলকাতা), এনএডিএ সেন্টার অব মিউজিক থেরাপি (চেন্নাই) ও ইন্ডিয়ান মিউজিক থেরাপি অ্যাসোসিয়েশনের (বেঙ্গালুরু) উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হল ‘ইন্ডিয়ান মিউজিক থেরাপি’ কর্মশালা।
বিশদ

16th  May, 2019
ক্যান্সারের চ্যালেঞ্জ

 বিশ্ব জুড়ে ক্যান্সার প্রায় মহামারীর আকার নিয়েছে। দিন দিন বেড়ে চলেছে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা। এই জটিল পরিস্থিতিতে ঠাকুরপুকুরের সরোজ গুপ্ত ক্যান্সার সেন্টার ও রিসার্চ ইনস্টিটিউট-এর তরফে ক্যান্সার চিকিৎসার বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনার আয়োজন করা হয়েছিল।
বিশদ

16th  May, 2019
হিমোফিলিয়া সচেতনতায়

সম্প্রতি চলে গেল ওয়ার্ল্ড হিমোফেলিয়া ডে। চিকিৎসা সংক্রান্ত কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত মানুষেরা হিমোফিলিয়া অসুখটি নিয়ে খুবই চিন্তিত। কারণ এই অসুখের বিশেষ কোন চিকিৎসা এখনও বেরয়নি। অথচ এদেশের অসংখ্য মানুষ এই রোগে আক্রান্ত। বংশগত এই অসুখে আক্রান্ত ব্যক্তির দেহে রক্ত সঠিকভাবে জমাট বাঁধতে পারে না। ফলস্বরূপ শরীরের বিভিন্ন পেশি ও অস্থিসন্ধিতে ক্রমাগত রক্তক্ষরণ হয়। রোগী ক্রমশ চলচ্ছক্তিহীন হয়ে পড়েন।
বিশদ

09th  May, 2019
১০০০ দিনের উদ্যোগ

লিওনার্দ থমসন নামের এক বাচ্চা ছেলে ডায়াবেটিসের কবলে পড়ে প্রায় মরণাপন্ন। চিকিৎসক বান্টিং এবং মেডিক্যালের ছাত্র বেস্ট মিলে বাচ্চাটিকে ইনসুলিন ইঞ্জেকশন দিলেন। ধরা দিল সাফল্য। ১৫ দিনের মধ্যে বাচ্চাটির রক্তে সুগারের মাত্রা উল্লেখযোগ্য হারে নেমে যায়। সেটা ছিল ১৯২২ সাল।
বিশদ

09th  May, 2019
ডায়াবেটিস আপডেট ২০১৯

 কলকাতা ডায়াবেটিস অ্যান্ড এন্ডোক্রিনোলজি ফোরাম-এর পক্ষ থেকে ‘ডায়াবেটিস আপডেট ২০১৯, কলকাতা’ নামক একটি আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছিল। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়, ডায়াবেটিসের আধুনিকতম চিকিৎসা কলকাতার সমস্ত চিকিৎসকদের সামনে তুলে ধরতেই এই আলোচনাসভা আয়োজন করা হয়েছিল।
বিশদ

09th  May, 2019
 থ্যালাসেমিয়া সচেতনতায় গান

 ৮ মে ছিল বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস। সেই উপলক্ষ্যে সিরাম থ্যালাসেমিয়া প্রিভেনশন ফেডারেশনের তরফে এক সপ্তাহ ব্যাপী একগুচ্ছ পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল। সংস্থার তরফে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানানো হয়, গোটা বছরই মানুষকে এই রোগের বিষয়ে আমরা সচেতন করে থাকি।
বিশদ

09th  May, 2019
বিশেষ মানুষটি কি আপনাকে পছন্দ করে? বুঝে নিন দেহের ভঙ্গিমা দেখে 

সাইকিয়াট্রিস্টরা বলেন, পছন্দের মানুষটির সঙ্গে কথা বলার সময় আমাদের শরীরের ভাবভঙ্গিমা বদলে যায়। সেই বদলে যাওয়া ভঙ্গিমার দিকে খেয়াল রাখলেই ধরা যায় পছন্দের মানুষটি আদৌ আপনার প্রতি আগ্রহী কিনা।   বিশদ

02nd  May, 2019
গরমের সর্দি-কাশি
থেকে বাঁচবেন কীভাবে?

গ্রীষ্মে ফুটছে গোটা রাজ্য। সকাল সকাল চড়ছে তাপমাত্রার পারদ। বেলা বাড়তেই সূর্যের দাপটে অসহ্য পরিস্থিতি। বাড়ির বাইরে পা রখালেই মিনিট দুয়েকেই ঘেমে নেয়ে স্নান। আর মিনিট দশেকের মধ্যে মাথার চাঁদি ফাটার জোগার! সবমিলিয়ে গরমে ভাজা ভাজা অবস্থা।
বিশদ

02nd  May, 2019
ইয়ারফোন লাগিয়ে গান শোনেন?
জেনে নিন কী বিপদ অপেক্ষা করছে

আপনি কি কানে ইয়ারফোন গুঁজে, গান শুনতে শুনতে ঘুমের কোলে ঢলে পড়েন? তাহলে এখনই সাবধান হোন। এই অভ্যাস থুড়ি বদ অভ্যাস কিন্তু আপনার জীবন সংশয়ের কারণ হতে পারে। যেমনটি ঘটল সম্প্রতি মালয়েশিয়ার এক কিশোরের সঙ্গে।
বিশদ

02nd  May, 2019
হিট স্ট্রোক এড়াবেন কীভাবে?

গোটা রাজ্যটাই যেন ভুবনডাঙার মাঠ হয়ে গিয়েছে। দিগন্তবিস্তৃত শহর যেন সেই খাঁ খাঁ মাঠের মতোই পুড়ছে! উত্তপ্ত জমিনের জায়গায় বাইপাসের কালো পিচ বিলোচ্ছে উষ্ণতা। রোদে বেরলেই চকিতে ঝলসে দিচ্ছে রোদ! একটু সতর্ক না হয়ে চললেই বিপদ। হতে পারে হিট স্ট্রোকের মতো ঘটনা। কীভাবে সামলাবেন খর প্রহরের উত্তাপ? জানাচ্ছেন অ্যাপোলো গ্লেনিগলস হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ফিজিশিয়ান এবং রিউম্যাটোলজিস্ট ডাঃ শ্যামাশিস বন্দ্যোপাধ্যায়।
বিশদ

25th  April, 2019
একনজরে
 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

বিএনএ, চুঁচুড়া: ভাড়াবাড়ির বাথরুম থেকে বুবাই ঘোষ (৩৬) নামে এক যুবকের গলার নলিকাটা দেহ উদ্ধার করল পুলিস। বাড়ির মালিকের কাছ থেকে খবর পেয়ে সোমবার রাতে ...

বাংলা নিউজ এজেন্সি: মাধ্যমিকে সম্ভাব্য মেধা তালিকায় পূর্ব বর্ধমান জেলার চারজন এবং পশ্চিম বর্ধমানের এক পড়ুয়া জায়গা করে নিল। বর্ধমান বিদ্যার্থীভবন বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্র সাহিত্যিকা ...

 নয়াদিল্লি, ২১ মে (পিটিআই): নির্বাচনী প্রচারে প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীকে একাধিকবার টেনে এনে কংগ্রেসকে নিশানা করেছিলেন। কখনও বফর্স কেলেঙ্কারির প্রসঙ্গ টেনে রাজীব গান্ধীকে ‘ভ্রষ্টাচারী নম্বর ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

গোপন প্রেম, গোপন থাকবে না। ব্যবসায়ীদের জন্য সময়টি ভালো, বয়স্করা একটু সাবধানী হবেন। ঠান্ডা লাগা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৫৪৫: সম্রাট শেরশাহের মৃত্যু
১৭৭২: রাজা রামমোহন রায়ের জন্ম
১৮৫৯: গোয়েন্দা শার্লক হোমসের স্রস্টা স্টটিশ সাহিত্যিক আর্থার কোনান ডয়েলের জন্ম
১৮৮৫: ফরাসি সাহিত্যিক ভিক্টর হুগোর মৃত্যু
১৯৪০: ক্রিকেটার এরাপল্লি প্রসন্নর জন্ম
১৯৪৬: আইরিশ ফুটবলার জর্জ বেস্টের জন্ম
২০০৪: ১৭তম প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ডঃ মনমোহন সিংয়ের শপথ গ্রহণ

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯২ টাকা ৭০.৬১ টাকা
পাউন্ড ৮৭.১৮ টাকা ৯০.৩৮ টাকা
ইউরো ৭৬.৫০ টাকা ৭৯.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,০৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৪৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩০,৯০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৬,২৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৬,৩৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২২ মে ২০১৯, বুধবার, চতুর্থী ৫৮/১৮ রাত্রি ২/৪১। পূর্বাষাঢ়া অহোরাত্র। সূ উ ৪/৫৭/৫৩, অ ৬/৮/৩০, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৭ গতে ১১/৭ মধ্যে পুনঃ ১/৪৪ গতে ৫/১৫ মধ্যে। রাত্রি ৯/৪৫ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৫ গতে ১/২১ মধ্যে, বারবেলা ৮/১৬ গতে ৯/৫৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৩৩ গতে ১/১২ মধ্যে, কালরাত্রি ২/১৫ গতে ৩/৩৭ মধ্যে।
৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২২ মে ২০১৯, বুধবার, চতুর্থী ৫৪/৪৯/৫ রাত্রি ২/৫২/৫৯। পূর্বাষা‌ঢ়ানক্ষত্র ৬০/০/০ অহোরাত্র, সূ উ ৪/৫৭/২১, অ ৬/১০/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৬ গতে ১১/১০ মধ্যে ও ১/৫০ গতে ৫/২৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৮ গতে ১/২২ মধ্যে, বারবেলা ১১/৩৪/১ গতে ১/১৩/১১ মধ্যে, কালবেলা ৮/১৫/৪১ গতে ৯/৫৪/৫১ মধ্যে, কালরাত্রি ২/১৫/৪১ গতে ৩/৩৬/৩১ মধ্যে।
১৬ রমজান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ঘেরাও মুক্ত হলেন বিশ্বভারতীর উপাচার্য 

04:21:49 PM

১৪০ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স 

03:52:18 PM

ধূপগুড়ির বিএমওএইচ-এর বিরুদ্ধে এফআইআর করার অভিযোগে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হল স্বাস্থ্য দপ্তরের এক চুক্তিভিত্তিক কর্মীকে 

03:03:00 PM

জম্মু ও কাশ্মীরের পুঞ্চে আইইডি বিস্ফোরণ, শহিদ ১ জওয়ান, জখম ৭ 

01:31:14 PM

২১ ঘণ্টা ধরে অবরুদ্ধ বিশ্বভারতীর উপাচার্য এবং অধ্যাপকরা 
ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে ছাত্র আন্দোলনে জেরে ২১ ঘণ্টা ধরে অবরুদ্ধ ...বিশদ

01:27:28 PM

বর্ধমানের শাঁখারিপুকুর এলাকায় গাড়ি-লরির মুখোমুখি সংঘর্ষ, মৃত ২ 

01:23:08 PM