Bartaman Patrika
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

হিট স্ট্রোক এড়াবেন কীভাবে?

 পরিবেশের উষ্ণতা এবং মানব শরীর
 সুস্থ অবস্থায় যে কোনও মানবদেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা থাকে ৩৭ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের আশপাশে। অবশ্য ১ ডিগ্রি এদিক-ওদিক হতে পারে। এছাড়া শারীরিক অসুস্থতা, এক্সারসাইজ করার পরে তাপমাত্রার খানিক হেরফের হয়। এইসমস্ত শর্ত ছাড়াও রয়ে যায় পরিবেশের উত্তাপ। পরিবেশ উষ্ণ হতে শুরু করলে, আমাদের শরীরেও তার প্রভাব পড়ে। দেহের উত্তাপ স্বাভাবিকের তুলনায় বাড়তে থাকে। তবে আমাদের শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক রাখার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে। এই ব্যবস্থার নাম ‘থার্মোস্ট্যাট’। পরিবেশের তাপমাত্রার সঙ্গে দেহের তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করলে এই থার্মোস্ট্যাট পদ্ধতি নিজস্ব ব্যবস্থায় ত্বকে আরও বেশি করে রক্ত সরবরাহ বাড়িয়ে দেয়। ফলে রক্ত থেকে তাপ বাইরের পরিবেশে বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকে। একইসঙ্গে শরীর বাড়ায় ঘামের ক্ষরণ। কারণ ঘাম বেরলেই শরীর থেকে লীন তাপ বেরিয়ে যাবে এবং শরীর ঠান্ডা হবে। এই প্রক্রিয়াকে বলে হিট লস। মুশকিল হল, থার্মোস্ট্যাট পদ্ধতিরও তো একটা সীমাবদ্ধতা আছে। পরিবেশ মারাত্মক রকমের উষ্ণ হয়ে পড়লে হিট লস বা তাপ ছাড়ার থেকে তাপ গ্রহণের মাত্রা বেশি হয়ে যায়। এর ফলেই দেখা দেয় বিভিন্ন ধরনের শারীরিক অসুস্থতা।
শরীরের নিয়ন্ত্রণ
স্বাভাবিক পরিবেশে শরীরের তাপমাত্রার প্রধান উৎস কিন্তু আসলে দেহের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা। চিকিৎসা পরিভাষায় যাকে বলা হয় মেটাবলিক হিট। শরীরে বিভিন্ন জৈবরাসায়নিক ক্রিয়াকলাপ এবং সারাদিন কাজকর্মের ফলশ্রুতিতে উৎপন্ন হওয়া তাপ হল শরীরের অভ্যন্তরীণ উষ্ণতার উৎস। বিকিরণ, পরিচলন এবং ঘাম দ্বারা বাষ্পীভবনের মাধ্যমে অতিরিক্ত উষ্ণতা শরীর থেকে বেরিয়ে যায়।
আশপাশে উত্তপ্ত ধাতু বা অন্য কোনও বস্তু থাকলে, সরাসরি স্পর্শ ছাড়াই তার মাধ্যমে শরীর উত্তপ্ত হতে পারে। আবার শীতল কোনও বস্তু থাকলে তাপ নির্গতও হতে পারে বিকিরণ পদ্ধতির মাধ্যমে। তবে কোনও বস্তুর উষ্ণতা ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি থাকলে কোনওরকম বিকিরণ হয় না।
অন্যদিকে শরীরের সংস্পর্শে থাকা বাতাসের মাধ্যমে পরিচলন পদ্ধতিতে উষ্ণতার দেওয়া-নেওয়া হয়ে থাকে। পরিচলন পদ্ধতিতে তাপের আদানপ্রদান নির্ভর করে বাতাসের উষ্ণতার সঙ্গে ত্বকের উষ্ণতার পার্থক্য এবং বাতাসের গতির উপর।
অন্যদিকে ঘামের বাষ্পীভবনের দ্বারাও শরীর তাপ ছাড়ে ও শরীর ঠান্ডা হয়। মুশকিল হল উষ্ণ এবং জলীয়বাষ্প বেশি আছে এমন পরিবেশে ঘাম বেরলেও শরীর ঠান্ডা হয় না, কারণ বাতাস আগে থেকেই আর্দ্র হয়ে থাকে। পরিবেশে নতুন করে জলীয়বাষ্প যোগ হওয়ার সুযোগ থাকে না। অথচ উষ্ণ পরিবেশ ও শুকনো আবহাওয়ায় শরীর ঘাম নির্গত করে শরীর ঠান্ডা করতে পারে।
এছাড়া শ্বসনকার্যের মাধ্যমেও শরীরের তাপমাত্রার সামান্য আদানপ্রদান হয় বইকি।
তাপমাত্রা বাড়লে কী হয়—
পরিবেশের তাপমাত্রা, স্বাভাবিক তাপমাত্রার তুলনায় বাড়তে শুরু করলে শরীরে বিভিন্ন ধরনের উপসর্গ দেখা দেওয়ার আশঙ্কা থাকে—
 অস্বাস্তি বাড়ে  কোনও কাজে মনোযোগ দিতে সমস্যা হয়  কায়িক শ্রমের প্রয়োজন হয় এমন কাজ করতে বেশ কষ্ট হয়।
তাপমাত্রা যত বাড়ে ততই অন্যান্য গুরুতর সমস্যা হতে শুরু করে। দেখা যাক সেগুলি কী কী—
হিট ইডিমা: আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়াটা শরীরের ধর্ম। কিন্তু যাঁদের শরীর আবহাওয়ার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে বসে তাঁদেরই বেশি সমস্যা হয়। হিট ইডিমা হল, গোড়ালিতে একধরনের ফোলাভাব। অবশ্য শীতল আবহাওয়ায় দু’তিনদিন থাকলেই আপনাআপনিই এই ফোলাভাব কমে যায়।
হিট র‌্যাশ: খুব গরম আবহাওয়ায় থাকতে শুরু করলে ত্বকে লাল লালা দানা দানা আকারের র‌্যাশ বেরতে শুরু করে। র‌্যাশ বেরনোর সঙ্গে ত্বকে জ্বালাভাবও থাকতে পারে। মুশকিল হয় যখন ঘর্মগ্রন্থির মুখগুলি ময়লা জমে বন্ধ হয়ে যায়। ত্বকের মৃত কোষ এবং স্টেফ এপিডারমাইটিস নামের জীবাণু ত্বকের লোমকূপের মুখ বন্ধ করে দেয়। উষ্ণ আবহাওয়ায় প্রতিনিয়ত শরীরে ঘাম তৈরি হতে থাকে। কিন্তু ঘর্মগ্রন্থির মুখ বন্ধ থাকায় সেই ঘাম বের হতে পারে না। ফলে ঘর্মগ্রন্থির মুখটি লাল ফুসকুড়ি বা দানার আকারে ফুলে ওঠে, যাকে আমরা ঘামাচি বলি। সাধারণত পিঠে ও ঘাড়ে ঘামাচি দেখা দেয়।
হিট ক্র্যাম্পস: এককথায় শরীরের বিভিন্ন পেশিতে ব্যথা ও টান ধরার সমস্যা। সাধারণত ঘামের সঙ্গে শরীর থেকে নুন বেরিয়ে যাওয়ার কারণে মাসলে টান ধরে। এই কারণেই, গ্রীষ্মকালে দীর্ঘক্ষণ বাইরে রোদে ঘোরাঘুরি করলে পেশিতে টান ধরে।
হিট এগজশ্চন: মারাত্মক রকমের ঘাম হলে শরীর থেকে প্রয়োজনীয় জল এবং নুন বেরিয়ে যায়। ফলে শরীরে দেখা দেয় অপরিসীম ক্লান্তি, দুর্বলতা। সঙ্গে থাকতে পারে ঘোলাটে দৃষ্টি, মাথা ঘোরা, দুর্দমনীয় তৃষ্ণা, বমি বা বমিভাব, মাথা যন্ত্রণা, ডায়ারিয়া, মাসল ক্র্যাম্প, শ্বাসের টান, প্রবল শারীরিক অস্বস্তি, হাতে ও পায়ে অসাড়ভাব। এই সমস্যার একমাত্র চিকিৎসা হল ঠান্ডা জায়গায় রোগীকে স্থানান্তরিত করা। একইসঙ্গে রোগীকে দিতে হবে ঠান্ডা শরবত, ফলের রস, ওআরএস ইত্যাদি।
হিট সিনকোপি: খর বেলায় ভোটের লাইনে, খোলা মাথায় দীর্ঘক্ষণ রোদে দাঁড়িয়ে থাকতে থাকতে কারও মাথা ঘুরছে? আর হঠাৎ চেতনা লোপ পেয়েছে? এমন হলে বুঝতে হবে রোগী হিট সিনকোপি-এর সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছেন। সাধারণত, উষ্ণ পরিবেশে, ব্রেনে প্রয়োজনের তুলনায় রক্ত কম সরবরাহ হলে এমন সমস্যা দেখা দেয়। আসলে উষ্ণ পরিবেশে ঘাম হবেই। আর ঘামের সঙ্গে শরীর থেকে প্রয়োজনীয় তরল বেরিয়ে যায়। ফলে রক্তচাপ কমতে শুরু করে। তার উপর, দীর্ঘক্ষণ ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকার ফলে রক্ত পায়ের দিকে চলে যায়। দরকার মতো রক্ত ব্রেনে পৌঁছতে পারে না। এই সমস্যা সমাধানে সাধারণত রোগীকে শীতল পরিবেশে কিছুক্ষণ রাখলেই তিনি সুস্থ বোধ করেন।
এবার আসা যাক সবচাইতে মারাত্মক এবং প্রাণঘাতী সমস্যায়, যার নাম হিট স্ট্রোক।
হিট স্ট্রোক: কোনও ব্যক্তির শরীরের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের তুলনায় বেশি হলেই বিপদ। ওই ব্যক্তির হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।
হিট স্ট্রোক দু’ধরনের হয়। ক্লাসিকাল এবং এক্সারশিওনাল।
ক্লাসিকাল হিট স্ট্রোক-এর ক্ষেত্রে দেখা যায়, দীর্ঘক্ষণ প্রবল রোদে উষ্ণ পরিবেশে ঘোরাঘুরি করার পরে শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে যায় এবং ওই ব্যক্তি হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। ক্লাসিকাল হিট স্ট্রোকের ক্ষেত্রে আক্রান্তের দেহে ঘাম হয় খুব সামান্য অথবা ঘাম হয় না বললেই চলে। সাধারণত বাচ্চা এবং দীর্ঘস্থায়ী কোনও অসুখে ভুগছেন এমন মানুষের ক্ষেত্রে এই ধরনের হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে।
অন্যদিকে এক্সারশনাল হিট স্ট্রোকের ক্ষেত্রে আক্রান্ত ব্যক্তির দেহে প্রবল ঘাম দেখা যায়। সাধারণত উষ্ণ পরিবেশে দীর্ঘসময় ধরে কায়িক শ্রম করার ফলে এই ধরনের হিট স্ট্রোক হয়।
হিট স্ট্রোক খুব মারাত্মক ধরনের শারীরিক সমস্যা। বিশেষ করে ব্রেন, কিডনির ও হার্টের প্রবল ক্ষতি হয় হিট স্ট্রোকে।
হিট স্ট্রোকের লক্ষণ: দেহের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে থাকে  ত্বকের রং লাল হয়ে যেতে পারে  যন্ত্রণার চোটে মাথা দপদপ করে  রোগীর আচরণে পরিবর্তন হয়। রোগীকে দিশেহারা লাগে। প্রচণ্ড উৎকণ্ঠা দেখা দেয় রোগীর মধ্যে। কথা জড়িয়ে যায়। প্রলাপও বকতে পারেন  বমি হতে পারে  দেখা যেতে পারে খিঁচুনি, এমনকী রোগী কোমায় চলে যেতে পারেন।
কী করবেন:
খর দুপুরে কোনও ব্যক্তি হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হলে প্রথমেই তাঁকে বাঁচানোর জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে। কারণ হিট স্ট্রোক হল আপৎকালীন পরিস্থিতি। ব্যবস্থা নিতে সামান্য দেরি হলে রোগীর প্রাণহানি ঘটা আশ্চর্য নয়। তাই—
 রোগীকে রোদ থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে শীতল স্থান বা ছায়ায় শোওয়ান  যথাসম্ভব অতিরিক্ত জামাকাপড় খুলে দিন  রোগীর দেহ শীতল করার জন্য গায়ে ঠান্ডা জল ঢালতে পারেন। খুব ভালো হয় কোনও বড় টবে ঠান্ডা জলে শুইয়ে দিতে পারলে। সঙ্গে ফ্যান চালিয়ে দিন। রোগীর মাথায়, ঘাড়ে, কানের নীচে, ভিজে তোয়ালে জড়িয়ে রাখুন। সারা গায়ে আইস প্যাক ঘষতে পারেন। একটু সুস্থ হলে রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যান।
অধিক উষ্ণতায় অসুস্থ হয়ে পড়ার ঝুঁকি কাদের বেশি—
 স্থূলকায় মানুষের শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সমস্যা হয়। ফলে গ্রীষ্মকালে মোটা মানুষের বেশি কষ্ট হয়।
 ৪৫ বছর এবং তাঁর ঊর্ধ্বের বয়সের মানুষের। কারণ এই বয়সের পর থেকে শরীরে বিভিন্ন ধরনের অসুখ বাসা বাঁধতে শুরু করে। বিশেষ করে, শরীর ফিট না থাকলে তাপমাত্রার হেরফেরে খুবই কষ্ট হয়।
 হার্টের রোগ, হাঁপানি এবং ফুসফুসের অসুখ, অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপে ভোগা রোগীর ঝুঁকি বেশি।
 কিছু কিছু গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পুরুষদের তুলনায় মহিলারা তাপমাত্রার হেরফেরে বেশি কষ্ট পান।
গ্রীষ্মের সমস্যা থেকে বাঁচতে কী করবেন?
 গরমের দিনে বাইরে বেরিয়ে কাজ করার থাকলে সকাল সকাল কাজ সারার চেষ্টা করুন। দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৩টে পর্যন্ত কোনও কাজ করতে যাবেন না।
 খর প্রহরে রোদে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হলে, সঙ্গে রাখুন ছাতা, জলের বোতল। খুব ভালো হয় বোতলে নুন চিনির জল গুলে নিয়ে যেতে পারলে। আরও ভালো হয় জলে ওআরএস গুলে নিয়ে গেলে। একলিটার জলে ১ প্যাকেট ওআরএস গুলে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন।
 হালকা রঙের সুতির জামকাপড় পড়ুন যাতে ঘাম হলে সহজেই তা বাষ্পীভূত হতে পারে। বেশি জামাকাপড় পরে থাকা মানেই ঘাম বাষ্পীভূত হতে পারবে না। শরীর ঠান্ডাও হবে না।
 এখন সকলেই সানবার্নের শিকার হচ্ছেন। সানবার্ন হলে তা কিন্তু ত্বকের তাপনিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা কমিয়ে আনে। তাই রোদে বেরতে হলে সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করুন।
 এসি থেকে হুট করে উষ্ণ পরিবেশে বা উষ্ণ পরিবেশ থেকে হুট করে এসি-তে ঢুকবেন না। ছায়াঘেরা জায়গায় মিনিট দশেক দাঁড়িয়ে শরীরের উষ্ণতা পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিন।
 গ্রীষ্মের সময় খোলা পার্কিং লটে বদ্ধ গাড়িতে বেশিক্ষণ থাকবেন না। বিশেষ করে বাচ্চা এবং বয়স্কদের এই পরিস্থিতিতে রাখা উচিত নয়। বদ্ধ গাড়ি খুব দ্রুত উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। ফলে হিট স্ট্রোকের আশঙ্কা বেড়ে যায়।
 মদ্যপান করে কখনওই গ্রীষ্মের দিনে বাইরে বেরিয়ে কাজ করতে যাবেন না। কারণ অ্যালকোহল শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের প্রক্রিয়াকে বাধা দেয়।
লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক
25th  April, 2019
মোবাইল, ল্যাপটপ, টিভি
বাচ্চাদের কতটা ক্ষতি করছে?

‘টেলিভিশন, মোবাইলে তো কতই জানার জিনিস থাকে’ এই বলে বেচারি অরিত্র দেখা শুরু করেছিল টেলিভিশনের জ্ঞান-বিজ্ঞানের প্রোগ্রাম! আজ তার ১২ বছর বয়সে, বাবা-মা তাকে নিয়ে ছুটছেন ডাক্তারের কাছে। টেলিভিশনের নেশায় তার লেখাপড়া লাটে উঠেছে। লুকিয়ে লুকিয়ে সে রাতে বাবা-মা’র মোবাইল থেকে টেলিভিশনের প্রোগ্রাম দেখতে শুরু করেছে।
বিশদ

18th  July, 2019
বাসন মাজলে কমে মানসিক চাপ

বিভিন্ন কারণে সবাই কমবেশি মানসিক চাপে ভুগছেন। শরীরেও এর কু-প্রভাব পড়ে। উদ্বেগ আর মানসিক চাপ থেকে অনিদ্রা, হজমের সমস্যা, উচ্চ রক্তচাপ, এমনকী স্নায়ুর নানা সমস্যা দেখা দেয়। তাই শরীর সুস্থ রাখতে উদ্বেগ বা মানসিক চাপ আগে দূর করা দরকার।
বিশদ

18th  July, 2019

এক পাত্রে মিলেমিশে খাওয়া নয়

কাউকে ভালোবাসেন ভালো কথা, কিন্তু তাঁর শরীরে বসবাস করা রোগ-জীবাণুর প্রতি কি ভালোবাসা থাকা উচিত? একেবারেই না। যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ক্যারোলাইনার ক্লেমসন ইউনিভার্সিটির খাদ্যবিজ্ঞানী অধ্যাপক ডাউসন বলেছেন, আমরা নিজেদের অজান্তেই বহু বিপজ্জনক কাজ করে চলি।
বিশদ

18th  July, 2019
 নারায়ণা হাওড়ায় পেট সিটি স্ক্যান

নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতাল, হাওড়ায় চালু হল পেট সিটি স্ক্যান। সংস্থার পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, পোজিট্রন এমিশন টোমোগ্রাফি (পেট) টেস্টে রেডিওট্রেসার নামে এক ধরনের রেডিওঅ্যাক্টিভ পদার্থ, একটি বিশেষ ধরনের ক্যামেরা এবং একটি কম্পিউটারের সাহায্যে শরীরের অঙ্গ বা কোষের কার্যকারিতার মূল্যায়ন করা হয়।
বিশদ

18th  July, 2019
 আই কিউ সিটি’র জনকল্যাণ প্রকল্প

 মণিদেবী ঝুনঝুনওয়ালা জনকল্যাণ ট্রাস্ট এবং দুর্গাপুরের আই কিউ সিটি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নাম জনকল্যাণ প্রকল্প। বিশদ

18th  July, 2019
মুখের ক্যান্সার সচেতনতায় 

 অ্যাসোসিয়েশন অব ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জেন অব ইন্ডিয়া (এওএমএসআই) ৫০ বছর পূর্ণ করল। এই উপলক্ষে সংস্থার রাজ্য শাখার পক্ষ থেকে গোলপার্ক অঞ্চলে একটি পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছিল।
বিশদ

18th  July, 2019
 শিশুদের বাঁকা পায়ের চিকিৎসা

কিছু শিশুর জন্মগত পায়ের গঠন বাঁকা থাকে। এই সমস্যার নাম হল ক্লাবফুট প্রবলেম বা চক্রপদ সমস্যা। তবে এখনও মানুষের মধ্যে ক্লাবফুট নিয়ে সচেতনতার অভাব রয়েছে। পাশাপাশি বিভিন্ন কারণে বিগত ১৫ থেকে ১৬ বছর এর চিকিৎসায় সাফল্যের হারও ছিল কম।
বিশদ

18th  July, 2019
 আই কিউ সিটি’র জনকল্যাণ প্রকল্প

  মণিদেবী ঝুনঝুনওয়ালা জনকল্যাণ ট্রাস্ট এবং দুর্গাপুরের আই কিউ সিটি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নাম জনকল্যাণ প্রকল্প।
বিশদ

18th  July, 2019
ফুলে কীটনাশক, শিশুদের বিপদ!

ফুল সবাই ভালোবাসলেও, ফুল থেকেই হতে পারে ভয়ানক বিপদ। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ইকুয়েডরের ফুলবাগান সন্নিহিত এলাকায় বসবাসরত ছেলেমেয়েদের ওপর গবেষণা করেছেন। বিশদ

18th  July, 2019
 ডেঙ্গু, সোয়াইন ফ্লু ও এনকেফেলাইটিসের চিকিৎসায় হোমিওপ্যাথি

ডেঙ্গু জ্বর ভেক্টর বাহিত একটি গুরুতর সংক্রমণ যা চারটি ভিন্ন ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি হয়। এই ভাইরাস সংক্রমিত হয় এডিস ইজিপটাই মশার দ্বারা। ডেঙ্গু জ্বর সৃষ্টিকারী ভাইরাসটির চারটি সেরোটাইপ রয়েছে। ডেন-১, ২, ৩ এবং ৪।
বিশদ

11th  July, 2019
 ডেঙ্গু ও এনকেফেলাইটিসের মশা চিনুন

 এডিস ইজিপ্টাই এবং এডিস অ্যালবোপিকটাস মশার মাধ্যমেই ডেঙ্গুর ভাইরাস মানুষের দেহে প্রবেশ করে। ভারত সহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিস্তীর্ণ এলাকায় এই দু’ধরনের মশার দেখা মেলে। এছাড়াও পানামা, মেক্সিকো এবং আফ্রিকার বিভিন্ন দেশেও এই দু’ধরনের মশা দেখতে পাওয়া যায়। বিশদ

11th  July, 2019
মনের সুস্থতায় ফর্টিসের উদ্যোগ

ফর্টিস হাসপাতাল আনন্দপুরের ডিপার্টমেন্ট অব মেন্টাল হেল্‌থ অ্যান্ড বিহেভিওয়াল সায়েন্সের পক্ষ থেকে একটি একাঙ্ক নাটক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রায় ২০টি স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিল।
বিশদ

11th  July, 2019
বিধান ভবনে বিধান স্মরণ 

ডাঃ বিধান চন্দ্র রায়ের জন্ম ও মৃত্যু দিনে তাঁকে স্মরণ করে বর্তমান সমাজে তিনি আরও কত বেশি প্রাসঙ্গিক তা বোঝানোর জন্যেই এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সম্প্রতি বিধান ভবনে বিধান মেমোরিয়াল ট্রাস্ট আয়োজিত এই আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন এই ট্রাস্টেরই চেয়ারম্যান সোমেন মিত্র। 
বিশদ

04th  July, 2019
হোমিও প্রতিষ্ঠানেও পালিত যোগের দিন 

পঞ্চম আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত হল ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হোমিওপ্যাথিতে (সল্টলেক)। প্রতিষ্ঠানে এদিন সকাল সাড়ে নটা থেকেই ছাত্রছাত্রী এবং চিকিৎসকরা জমায়েত হন। এরপর সারাদিনে দু’টি পর্যায়ে ছাত্রছাত্রীরা যোগার কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে।  
বিশদ

04th  July, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: এবারই প্রথম হাওড়ার শৈলেন মান্না স্টেডিয়ামে ডুরান্ড কাপের ৬টি ম্যাচ হবে। এর আগে হাওড়ায় এই রকম সর্বভারতীয় ম্যাচ হয়নি। তাই নতুন করে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে শৈলেন মান্না স্টেডিয়াম। এর জন্য হাওড়া পুরসভা জোরকদমে স্টেডিয়ামের পরিকাঠামোগত উন্নয়নে বিশেষ ...

ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

 ওয়াশিংটন, ২৩ জুলাই: প্রাক্তন আল-কায়েদা প্রধান ওসামা বিন লাদেনকে খতম করা নিয়ে নতুন দাবি করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। লাদেন যে পাকিস্তানে ছিল, তার খতমের ...

 মুম্বই, ২৩ জুলাই: জন্মদিনে উপহার ১০১ টাকা। এক গরিব মহিলা শ্রমিকের কাছ থেকে এই উপহার পেয়ে কেঁদে ফেললেন মহারাষ্ট্রে মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। ওই মহিলার নাম ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। কর্মক্ষেত্রে কোনও বিরূপ অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। বিদ্যার্থীর শুভ ফল লাভ হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮০২- ফরাসি লেখক আলেকজান্দার দুমার জন্ম
১৮৭০- সাহিত্যিক কালীপ্রসন্ন সিংহের মৃত্যু
১৮৮৪- ‘হিন্দু পেট্রিয়টে’-র সম্পাদক কৃষ্ণদাস পালের মৃত্যু
১৮৯৮- সাহিত্যিক তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৩৭- অভিনেতা মনোজ কুমারের জন্ম
১৯৪৫- উইপ্রোর কর্ণধার আজিম প্রেমজির জন্ম
১৯৬৯- আমেরিকান অভিনেত্রী ও সঙ্গীতশিল্পী জেনিফার লোপেজের জন্ম
১৯৮০- মহানায়ক উত্তম কুমারের মৃত্যু
২০০৩- অভিনেতা শমিত ভঞ্জের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.২০ টাকা ৬৯.৮৯ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৪০ টাকা ৮৭.৫৪ টাকা
ইউরো ৭৫.৮৭ টাকা ৭৮.৮০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৫,৪২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৩,৬১০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৪,১১৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪১,১৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪১,২৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৪ জুলাই ২০১৯, বুধবার, সপ্তমী ৩২/২৩ অপঃ ৬/৫। রেবতী ২৬/২৪ দিবা ৩/৪২। সূ উ ৫/৮/৯, অ ৬/১৭/৫৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৩ মধ্যে পুনঃ ৯/৩১ গতে ১১/১৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৪০ গতে ৫/২৬ মধ্যে। রাত্রি ৭/১ গতে ৯/১১ মধ্যে পুনঃ ১/৩১ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/২৫ গতে ১০/৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৩ গতে ১/২২ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৬ গতে ৩/৪৭ মধ্যে।
৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৪ জুলাই ২০১৯, বুধবার, সপ্তমী ২২/২১/১৭ দিবা ২/২/৫৯। রেবতীনক্ষত্র ১৯/৪২/৮ দিবা ১২/৫৯/১৯, সূ উ ৫/৬/২৮, অ ৬/২১/১৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৭ মধ্যে ও ৯/৩২ গতে ১১/১৬ মধ্যে ও ৩/৩৫ গতে ৫/১৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৫৫ গতে ৯/৭ মধ্যে ও ১/৩২ গতে ৫/৭ মধ্যে, বারবেলা ১১/৪৩/৫৩ গতে ১/২৩/১৪ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৫/১০ গতে ১০/৪/৩২ মধ্যে, কালরাত্রি ১/২৫/১০ গতে ৩/৪৫/৪৯ মধ্যে।
 ২০ জেল্কদ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
নানুরে বিজেপি কর্মীদের মারধরের অভিযোগ 
দলীয় সভায় যাওয়ায় বিজেপি কর্মীদের মারধরের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বুধবার ...বিশদ

01:41:23 PM

মেদিনীপুরে বিজেপি কর্মীর বাড়িতে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ 
এক বিজেপি কর্মীর বাড়ি ভাঙচুর করে তাতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার ...বিশদ

01:35:00 PM

মারিশদায় বধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার 
এক বধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য পূর্ব মেদিনীপুরের ...বিশদ

01:14:37 PM

নদীয়ার হাঁসখালির ময়ূরহাটে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষ, জখম ৬ 

01:06:06 PM

প্রিন্সেপ স্ট্রিটে ঝাঁঝালো গ্যাসের গন্ধ, আতঙ্ক 
ঝাঁঝালো গ্যাসের গন্ধে আতঙ্ক ধর্মতলার প্রিন্সেপ স্ট্রিট চত্বরে। গতকাল রাতে ...বিশদ

12:36:34 PM

ইতিহাসে আজকের দিনে 
১৮০২- ফরাসি লেখক আলেকজান্দার দুমার জন্ম১৮৭০- সাহিত্যিক কালীপ্রসন্ন সিংহের মৃত্যু১৮৮৪- ...বিশদ

11:31:35 AM