Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

 তেষ্টার জলও কেউ দিতে চাইত না ছোট্ট আম্বেদকরকে

 অচ্ছ্যুৎ দলিত সম্প্রদায়ে জন্মেছিলেন আমাদের দেশের সংবিধানের রূপকার ডঃ ভীমরাও আম্বেদকর। আজ তাঁর জন্মদিন। দলিতদের জন্য সারা জীবন লড়াই করে আসা
এই মানুষটিকে নিয়ে লিখেছেন সঞ্জয় চট্টোপাধ্যায়।


ছেলেটি ছিল অত্যন্ত গরিব, দলিত পরিবারের। ভারতে তখন ব্রিটিশ শাসন চলছে। সেই সময় সমাজে জাতপাতের ভেদাভেদ ছিল অত্যন্ত প্রকট। ছেলেটি দলিত ছিল বলে ক্লাসে উচ্চবর্ণের ছাত্রদের সঙ্গে তার বসার অনুমতি ছিল না। তাকে বসতে হত ক্লাসের বাইরে। মেঝেতে পেতে বসার জন্য সে বাড়ি থেকে বস্তা নিয়ে যেত। তেষ্টা পেলে জলের পাত্র ছোঁয়ারও অধিকার ছিল না। কিছুটা দূরত্ব রেখে উচ্চবর্ণের কেউ এসে জল ঢেলে দিত। ছেলেটির জন্য এই কাজটি করতেন স্কুলের চাপরাশি। তিনি স্কুলে না এলে সেদিন ছেলেটি আর জল পেত না। পরে বড় হয়ে এই অবস্থাকে সে বর্ণনা করেছিল ‘পিওন নেই, জল নেই’ বলে। কে জানত? এই ছেলেটিই একদিন ভারতবর্ষের সংবিধানের রূপকার হবে!
ছেলেটির পুরো নাম— ডঃ ভীমরাও রামজি আম্বেদকর। ১৮৯১ সালের ১৪ এপ্রিল (অর্থাৎ আজকের দিনে) তিনি অধুনা মধ্যপ্রদেশের এক সেনা শিবিরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন পরিবারের কনিষ্ঠ সন্তান। তাঁর বাবা রামজি মালোজি সাকপাল সেনাবাহিনীতে সুবেদার ছিলেন। ১৮৯৪ সালে রামজি সাকপাল অবসর নেন। তার দু’বছর পর পুরো পরিবার সাতারায় চলে যায়। এর কিছুদিন পর মা ভীমাবাই মারা যান। আম্বেদকররা তাই মাসির কাছে মানুষ হতে থাকেন। আম্বেদকর যে গরিব মাহার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন, তখন সমাজে তা অস্পৃশ্য জাতি হিসেবে গণ্য হত। চিরকাল তাই তিনি সামাজিক বৈষম্যতা, হিন্দুধর্মের চতুর্বর্ণ পদ্ধতি এবং অস্পৃশ্যতার বিরুদ্ধে লড়াই করে গিয়েছেন। অম্পৃশ্যদের সামাজিক অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সামাজিক স্বাধীনতার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন। তিনি ছিলেন ভারতের জাতীয়তাবাদী এবং দলিত আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা। ছেলেবেলা থেকেই তিনি ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র। সামাজিক বৈষম্যের শিকার হলেও শিক্ষাদীক্ষায় তিনি সমসাময়িক সকলকে ছাপিয়ে যেতে সমর্থ হন। কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং লন্ডনের স্কুল অব ইকনমিক্স থেকে তিনি আইনের ডিগ্রি লাভ করেন। আইন, অর্থনীতি এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞানে তাঁর গবেষণা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে এক ঐতিহাসিক দলিল হিসেবে রয়ে গিয়েছে। ভারতের ইতিহাস তাঁকে একজন জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা, দার্শনিক, চিন্তাবিদ, নৃতত্ত্ববিদ, অর্থনীতিবিদ, ঐতিহাসিক এবং রাষ্ট্রবিপ্লবী হিসেবে মনে রেখেছে। ১৯৫৬ সালে তিনি বৌদ্ধধর্ম গ্রহণ করেন। বৌদ্ধ আন্দোলনকারী হিসেবেও তাঁর বিরাট ভূমিকা ছিল। ‘বাবাসাহেব’ নামেই তিনি জনপ্রিয় ছিলেন।
তাঁর আসল পদবি ছিল আম্বাভাদেকর। তা এসেছিল গ্রামের (মহারাষ্ট্রের রত্নগিরি জেলার আম্বাভাদে) নাম থেকে। তাঁর ব্রাহ্মণ শিক্ষক মহাদেব আম্বেদকর তাঁর প্রতি অত্যন্ত স্নেহপরায়ণ ছিলেন। তিনিই খুশি হয়ে স্কুলের খাতায় তাঁকে নিজের পদবি (আম্বেদকর) দেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী ও কৃতী ছাত্র। ১৯০৭ সালে আম্বেদকর প্রবেশিকা পরীক্ষায় সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়ে প্রথম অস্পৃশ্য হিসেবে বম্বে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ১৯১২ সালে তিনি বম্বে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক হন। এলফিনস্টোন কলেজে পড়ার সময় বরোদার মহারাজা তৃতীয় সায়াজি রাও গায়কোয়াড়ের কাছ থেকে তিন বছরের জন্য তিনি মাসিক (১১.৫০ পাউন্ড) বৃত্তি পান। এই বৃত্তির সুবাদে স্নাতকোত্তর স্তরে অধ্যাপনার জন্য ১৯১৩ সালে (২২ বছর) তিনি নিউইয়র্কের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যান। ১৯১৫ সালের জুনে তিনি অর্থনীতিতে এমএ হন। অর্থনীতি ছাড়া তাঁর অন্যান্য বিষয় ছিল সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, দর্শনশাস্ত্র এবং নৃতত্ত্ববিজ্ঞান। এই সময় তাঁর গবেষণালব্ধ প্রবন্ধ ‘প্রাচীন ভারতের ব্যবসা-বাণিজ্য’ প্রকাশিত হয়। ১৯১৬ সালে তাঁর দ্বিতীয় গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ ‘ন্যাশনাল ডিভিডেন্ড অব ইন্ডিয়া— আ হিস্টোরিক অ্যান্ড অ্যানালিটিক্যাল স্টাডি’ প্রকাশিত হয়। প্রখ্যাত নৃতত্ত্ববিদ অধ্যাপক আলেকজান্ডার গোল্ডেনউইজার কর্তৃক আয়োজিত সেমিনারের আগে তিনি ‘কাস্টস ইন ইন্ডিয়া: দেয়ার মেকানিজম, জেনেসিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট’ বিষয়ক পত্র পাঠ করেন। উচ্চস্তরে আইনের পাঠ নেওয়ার জন্য তিনি ১৯১৬ সালের অক্টোবরে লন্ডনের ‘Gray's Inn’-এ ভর্তি হন। পাশাপাশি, লন্ডনের স্কুল অব ইকনমিক্সে তাঁর গবেষণা শুরু করেন। তিন বছরের বৃত্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় ১৯১৭ সালের জুন মাসে তিনি ভারতে ফিরে আসতে বাধ্য হন। তাঁর সংগ্রহে থাকা মূল্যবান বইগুলি যে জাহাজে পাঠিয়েছিলেন, এক জার্মান সাবমেরিনের আক্রমণে সেটি ডুবে যায়। অপরদিকে, তাঁর গবেষণামূলক কাজ চার বছরের মধ্যে জমা দিয়ে দেশে ফিরে আসার জন্য তাঁকে সুযোগ দেওয়া হয়। অবশেষে, ১৯২৭ সালে তিনি অর্থনীতিতে পিএইচডি হন।
বম্বে হাইকোর্টে আইনজীবী হিসেবে কাজ করার সময়েই অস্পৃশ্যদের শিক্ষিত করে তোলা এবং তাদের উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ শুরু করেন আম্বেদকর। তাই তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ‘বহিষ্কৃত হিতকারিণী সভা’। তাঁর ‘সত্যাগ্রহ’ এক গণআন্দোলনের রূপ নেয়। দলিতদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াইকে গতি দিতে তিনি তিনটি পাক্ষিক পত্রিকা শুরু করেছিলেন। সেগুলি হল— মূক নায়ক, বহিষ্কৃত ভারত এবং ইক্যুয়ালিটি জনতা। সাধারণ মানুষ যাতে ভেদাভেদ ভুলে সর্বত্র পানীয় জল সংগ্রহ করতে পারেন, তার জন্য উদ্যোগী হন। ছেলেবেলায় তিনি যে ভেদাভেদের শিকার হয়েছিলেন, তা যেন ভবিষ্যৎ প্রজন্মের আর কাউকে মোকাবিলা করতে না হয়, এর জন্য তিনি জনমত গঠনে সফল হন। তিনি প্রাচীন হিন্দু গ্রন্থ ‘মনুস্মৃতি’-র বিধানের বিরোধিতা করেন। প্রতিবাদ স্বরূপ ১৯২৭ সালের ২৫ ডিসেম্বর তিনি ও তাঁর অনুগামীরা মনুস্মৃতির কপি পোড়ান। সেই থেকে আম্বেদকরের অনুগামী এবং দলিতদের কাছে এই দিনটি ‘মনুস্মৃতি দহন দিন’ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। ১৯৩০ সালে নাসিকে আম্বেদকরের নেতৃত্বে প্রায় ১৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক কালারাম মন্দির সত্যাগ্রহে অংশ নেন। যদিও এই শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের মন্দিরে ঢোকার সুযোগ মেলেনি। মন্দিরের দরজা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় প্রথমবার দেব দর্শনের সুযোগ থেকে তাঁরা বঞ্চিত হন। আম্বেদকর বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে এবং মুসলিম সমাজে মহিলাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতেও সরব হয়েছিলেন।
আম্বেদকর ১৯৩৫ সালে বম্বের সরকারি আইন কলেজের অধ্যক্ষ পদে নিযুক্ত হন। দু’বছর তিনি এই দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৩৬ সালে তিনি নিজের রাজনৈতিক দল ‘ইন্ডিপেনডেন্ট লেবার পার্টি’-র প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৩৭ সালে বম্বের নির্বাচনে ১৩টি সংরক্ষিত এবং ৪টি অসংরক্ষিত আসনের মধ্যে তাঁর দল যথাক্রমে ১১ এবং ৩টিতে জয়ী হয়। ১৯৩৬ সালের ১৫ মে তাঁর ‘অ্যানিহিলেশন অব কাস্ট’ বইটিতে তিনি তথাকথিত হিন্দু গুরুদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন। ১৯৫৫ সালে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি মহাত্মা গান্ধীর কড়া সমালোচনা করেছিলেন। কারণ, গান্ধী ইংরাজি কাগজগুলিতে ভারতের জাতিভেদ প্রথার বিরুদ্ধে কলম ধরলেও গুজরাতি কাগজগুলিতে এই প্রথার সমর্থন করেছিলেন।
আম্বেদকর ছিলেন স্বাধীন ভারতের প্রথম আইনমন্ত্রী। সংবিধানের খসড়া কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সাফল্যের সঙ্গেই পালন করেছিলেন তিনি। ভারতের সংবিধান রচনার ক্ষেত্রে তাঁর উল্লেখযোগ্য অবদান রয়েছে। আগাগোড়া তিনি সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদের বিরোধিতা করে গিয়েছেন তিনি। এই ধারায় কোনও রাজ্যকে বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়। যেমন, জম্মু-কাশ্মীর। কিন্তু শেষপর্যন্ত চাপের মুখে নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে তিনি সংবিধানে এই ধারা অন্তর্ভূক্ত করতে বাধ্য হন। ১৯৫২ সালে ভারতের প্রথম সাধারণ নির্বাচনে তিনি উত্তর বম্বে আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। কিন্তু, কংগ্রেসের নারায়ণ কাজরোলকরের কাছে তিনি পরাজিত হন। এরপর তিনি রাজ্যসভার সদস্য হন। ১৯৫৬ সালের ৬ ডিসেম্বর দিল্লির বাড়িতে এই মহান ব্যক্তি প্রয়াত হন। ভারতীয় সংবিধানের রূপকারকে তাঁর অনবদ্য অবদানের জন্য ১৯৯০ সালে মরণোত্তর ‘ভারতরত্ন’ সম্মান প্রদান করা হয়। আপামর ভারতবাসী গভীর শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতার সঙ্গে তাঁকে চিরদিন স্মরণ করে আসছে, আসবে।
ছবি : সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে
14th  April, 2019
কাগাড়ু
স্বস্তিনাথ শাস্ত্রী

 কিন্তু নিত্যকে বিজয়মাল্যে ভূষিত করার বদলে স্যার চেয়ার থেকে উঠে তাড়াতাড়ি সরে যেতে গিয়ে চেয়ারের পায়ায় ঠোক্কর খেয়ে প্রায় পড়ে যাচ্ছিলেন। কোনওমতে টেবিলের কোনাটা ধরে সামলে নিলেন। তারপর প্রচণ্ড জোরে চিৎকার করে বললেন, গেট আউট! আই সে গেট আউট!! স্যারের চিৎকারে আমরা সবাই বেশ ভয় পেয়ে গেলাম। বিশদ

18th  August, 2019
 আনন্দ চন্দ্রিকায় নবদুর্গা

  প্রতি বছরের মতোই এবছরও আনন্দ চন্দ্রিকায় উৎসবের ছোঁয়া লেগেছে। সাংস্কৃতিক সংস্থা ও কত্থক নৃত্যের শিক্ষাকেন্দ্র আনন্দ চন্দ্রিকার কর্ণধার অমিতা দত্ত জানান এবছর তাঁরা নবদুর্গার ওপর একটি ওয়ার্কশপের আয়োজন করেছেন। কলকাতার দুঃস্থ শিশুদের নিয়ে এই উৎসবের আয়োজন করেছেন অমিতা দত্ত। বিশদ

18th  August, 2019
হিলি গিলি হোকাস ফোকাস

 চলছে নতুন বিভাগ হিলি গিলি হোকাস ফোকাস। এই বিভাগে জনপ্রিয় জাদুকর শ্যামল কুমার তোমাদের কিছু চোখ ধাঁধানো আকর্ষণীয় ম্যাজিক সহজ সরলভাবে শেখাবেন। আজকের বিষয় প্রিয় পানীয়-র চ্যালেঞ্জ! বিশদ

18th  August, 2019
ক্ষুদিরামের ছেলেবেলা 

আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার শহিদ ক্ষুদিরাম বসু। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়। 
বিশদ

11th  August, 2019
স্বাধীনতা দিবস 

আমাদের স্বাধীনতা দিবস
‘স্বাধীনতা হীনতায় কে বাঁচিয়ে চায় হে, কে বাঁচিতে চায়’— কবির এই বাণী সর্বাংশে সত্য। আকাশের নক্ষত্র থেকে মাটির ক্ষুদ্রতম প্রাণটি পর্যন্ত স্বাধীনতা চায়।
অজস্র রক্তপাতের মূল্যে ছিনিয়ে আনে স্বাধীনতা।  
বিশদ

11th  August, 2019
ইস্কুলে বায়োস্কোপের সমাপ্তি অনুষ্ঠান 

সম্প্রতি ‘ইস্কুলে বায়োস্কোপ’-এর সমাপ্তি অনুষ্ঠান হয়ে গেল। সস ব্র্যান্ড কমিউনিকেশনসের উদ্যোগে সাহিত্য অ্যাকাডেমির সহযোগিতায় প্রায় ২০ দিন ধরে বিভিন্ন স্কুলে এই ‘ইস্কুলে বায়োস্কোপ’ অনুষ্ঠানটি চলেছিল। 
বিশদ

04th  August, 2019
সোনার লক্ষ্যে ছুটে চলেছেন ধিং এক্সপ্রেস 

বড় হয়ে কী হবি?— ছোট্ট বন্ধুরা, তোমরা নিশ্চয়ই প্রায়ই এমন প্রশ্নের সম্মুখীন হও। আবার কখনও কখনও নিজেরাও মনে মনে চিন্তা কর, বড় হয়ে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ক্রিকেটার, ফুটবলার, কবি, সাহিত্যিক, গায়ক বা অভিনেতা হব। কিন্তু, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই চিন্তা মনে দানা বাঁধে পারিপার্শ্বিক তারকাদের পারফরম্যান্স বা সাফল্যে প্রভাবিত হয়ে।  
বিশদ

04th  August, 2019
চাঁদের হাসি বাঁধ ভাঙার অপেক্ষা 

মঙ্গলযান-২ চাঁদে পা রাখবে ৪৮তম দিনে। মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে কোন পথে কীসের খোঁজে সে এগিয়ে চলেছে চাঁদের উদ্দেশ্যে, সে বিষয়ে তোমাদের জানানোর জন্য কলম ধরেছেন ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউট, কলকাতার রাশিবিজ্ঞানের অধ্যাপক অতনু বিশ্বাস। 
বিশদ

04th  August, 2019
শুরু হয়েছে সানফিস্ট কলকাতা স্কুল ফুটবল লিগ 

তোমাদের একটি ভালো খবর দিই। গতবারের মতো এবারও শুরু হয়েছে সানফিস্ট কলকাতা স্কুল ফুটবল লিগ (কে এস এফ এল)। এটি দ্বিতীয় সংস্করণ। কে এস এফ এল লিগ শুরু হয়েছে গত বছর থেকে।   বিশদ

28th  July, 2019
মার্কশিট
মাধ্যমিকে চলতড়িৎ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায় 

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় ভৌতবিজ্ঞান। 
বিশদ

28th  July, 2019
রুকু ও ছেলেটি 

বিজলি চক্রবর্তী: টলটল পায়ে ট্রাম রাস্তার ধারে এসে রুকু দাঁড়াল। রাস্তা কীভাবে পার হতে হয় সে এখন বুঝতে পারে। মায়ের পেছন পেছন এখন যায় না। দুধ খেয়ে পেট ভর্তি করে রুকু মাকে ছেড়ে একাই রাস্তায় চলে এসেছে।   বিশদ

28th  July, 2019
স্পাইসি অ্যালফানসো ও ওয়াটারমেলন ফেটা স্যালাড 

তোমাদের জন্য চলছে একটি আকর্ষণীয় বিভাগ ছোটদের রান্নাঘর। এই বিভাগ পড়ে তোমরা নিজেরাই তৈরি করে ফেলতে পারবে লোভনীয় খাবারদাবার। বাবা-মাকেও চিন্তায় পড়তে হবে না। কারণ আগুনের সাহায্য ছাড়া তৈরি করা যায় এমন রেসিপিই থাকবে তোমাদের জন্য। এবার সেরকমই দুটি জিভে জল আনা রেসিপি দিয়েছেন ওয়াটস আপ ক্যাফে রেস্তরাঁর শেফ দেবব্রত রায়। 
বিশদ

21st  July, 2019
কলকাতায় ডাবর ওডোমসের ডেঙ্গু-মুক্তি প্রচারাভিযান 

আজ তোমাদের একটা ভালো খবর দিই। ডাবর ইন্ডিয়া লিমিটেডের ওডোমস ব্র্যান্ড ভারতকে ডেঙ্গুমুক্ত করতে একটি বিশেষ প্রচারাভিযানের উদ্যোগ নিয়েছে। নাম দেওয়া হয়েছে ‘#মেকিংইন্ডিয়াডেঙ্গুফ্রি’। উদ্যোগটিকে সফল করতে ওডোমসের বিশেষজ্ঞ দল ভারতে বিভিন্ন জায়গায় প্রায় দশ লক্ষ অফিসকর্মীর কাছে পৌঁছেছিলেন।   বিশদ

21st  July, 2019
বিস্ময়কর নদী 

নদীর জল হবে স্বচ্ছ ও নীলাভ। আমরা ছোটবেলা থেকে এমন কথাই পড়েছি বইয়ের পাতায়। দেখেছিও তাই। বাস্তবের সঙ্গে কল্পনার রং মেলে না ঠিকই। কিন্তু আজ যেসব নদীর গল্প তোমাদের বলব, শুনলে মনে হবে রূপকথার গল্প। পৃথিবীতে এমন কিছু নদী আছে যার জলের রং প্রকৃতির আপন খেয়ালে তৈরি। কোনওটা বা মানুষের দুষ্কর্মের ফলে অন্য রং ধারণ করেছে। কোনওটির আবার গতিপথ এতটাই অদ্ভুত যে অবাক হতে হয়। এই নদীগুলির কথা জানলে সত্যিই মনে হবে, বিপুলা এ পৃথিবীর কতটুকু জানি। অদ্ভুত এই পাঁচটি নদীর রোমাঞ্চকর গল্প শুনিয়েছে সৌম্য নিয়োগী।  
বিশদ

21st  July, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: তৃতীয় প্রজন্মের ‘গ্র্যান্ড আই টেন নিয়োস’ গাড়ি বাজারে আনল হুন্ডাই মোটর ইন্ডিয়া লিমিটেড। সংস্থাটি জানিয়েছে, ‘নিয়োস’ কথাটির অর্থ আরও বেশি। সেই শব্দটির যথোপযুক্ত ব্যবহার হয়েছে এই হ্যাচব্যাক গাড়িটিতে, দাবি হুন্ডাইয়ের। ...

 কুলিজ (অ্যান্টিগা), ২০ আগস্ট: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট খেলতে নামার আগে কিছুটা স্বস্তি পেলেন অজিঙ্কা রাহানে। গত দু’বছর ধরে তাঁর ব্যাটে কোনও সেঞ্চুরি নেই। টেস্ট দলে তাঁর পায়ের তলার জমি ক্রমাগত আলগা হচ্ছিল। রাহানে বুঝতে পারছিলেন, লাল বলে জাতীয় ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বদলি হওয়া বিভিন্ন রাজ্য কর্মী সংগঠনের পদাধিকারীদের ফের কলকাতার সচিবালয়ে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই সিপিএম প্রভাবিত কো-অর্ডিনেশন কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর দুই সদস্য ও তৃণমূল প্রভাবিত কর্মী সংগঠনের কোর কমিটির এক সদস্যকে উত্তরবঙ্গ থেকে কলকাতায় ফেরানো হয়েছে। ...

সংবাদদাতা, কাঁথি: কাঁথির তাজপুর গ্রামীণ হাটের জমিতে স্থায়ী দোকানঘর নির্মাণের প্রক্রিয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষের জেরে উত্তেজনা ছড়ায়। এই ঘটনায় দু’পক্ষের আটজন কমবেশি জখম হন। পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে নিগ্রহের শিকার হন খোদ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিও।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের উচ্চবিদ্যার ক্ষেত্রে মধ্যম ফল আশা করা যায়। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার ক্ষেত্রে সাফল্য আসবে। ব্যবসাতে যুক্ত ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩১: গায়ক বিষ্ণু দিগম্বর পালুসকরের মৃত্যু
১৯৭২: বন সংরক্ষণ আইন চালু হল
১৯৭৮: ভিনু মানকড়ের মৃত্যু
১৯৮৬: জামাইকার স্প্রিন্টার উসেইন বোল্টের জন্ম
১৯৯৫: ভারতের নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী সুব্রহ্মণ্যম চন্দ্রশেখরের মৃত্যু
২০০৬: প্রখ্যাত সানাইবাদক ওস্তাদ বিসমিল্লা খানের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৭৯ টাকা ৭২.৪৯ টাকা
পাউন্ড ৮৫.৩৭ টাকা ৮৮.৫১ টাকা
ইউরো ৭৭.৯৪ টাকা ৮০.৯৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, পঞ্চমী ০/২৯ প্রাতঃ ৫/৩১। অশ্বিনী ৪৮/৪০ রাত্রি ১২/৪৭। সূ উ ৫/১৯/২, অ ৬/০/৫২, অমৃতযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে পুনঃ ৯/৩৩ গতে ১১/১৪ মধ্যে পুনঃ ৩/২৮ গতে ৫/৯ মধ্যে, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১০/৫ মধ্যে পুনঃ ১১/৪০ গতে ১/১৫ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩০ গতে ৩/৫৪ মধ্যে।
৩ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, ষষ্ঠী ৫৩/৫৮/৩০ রাত্রি ২/৫৩/৩১। অশ্বিনীনক্ষত্র ৪২/৯/৫৩ রাত্রি ১০/১০/৪, সূ উ ৫/১৮/৭, অ ৬/৩/৪৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৯/৩১ গতে ১১/১০ মধ্যে ও ৩/১৮ গতে ৪/৫৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৩ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ১/৩১ গতে ৫/১৮ মধ্যে, বারবেলা ১১/৪০/৫৫ গতে ১/১৬/৩৭ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৯/৩১ গতে ১০/৫/১৪ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯/৩১ গতে ৩/৫৩/৪৯ মধ্যে। 
১৯ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
অসমের পর মহারাষ্ট্র, মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ৫১ লক্ষ টাকা দান অমিতাভ বচ্চনের 
অসমের মতো মহারাষ্ট্রেও বন্যা কবলিতদের সাহায্যার্থে এগিয়ে এলেন বিগ বি। ...বিশদ

20-08-2019 - 05:24:59 PM

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাৎ রাজ্যপাল জগদীপ ধানকরের 
পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হওয়ার পর প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাৎ ...বিশদ

20-08-2019 - 04:58:00 PM

ব্রাজিলে ১৮ বাসযাত্রীকে পণবন্দি করল এক বন্দুকবাজ 

20-08-2019 - 04:57:51 PM

সদর স্ট্রিটে ২.৪৪ কোটি টাকার সোনা সহ ধৃত ৪ 

20-08-2019 - 04:47:02 PM

৭৪ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

20-08-2019 - 03:55:31 PM

খিদিরপুর ও কালীঘাট ব্রিজে ভারী যান নিষিদ্ধ 

20-08-2019 - 03:50:00 PM