Bartaman Patrika
সাম্প্রতিক
 

তারামায়ের ছেলে বামাক্ষ্যাপা 

বহু সিদ্ধ পুরুষের সাধনক্ষেত্র তারাপীঠ। কিন্তু তারাপীঠের কথা উঠলেই যে সাধক পুরুষের নামটি মনে আসে, তিনি হলেন বামাক্ষ্যাপা। তারামায়ের ক্ষ্যাপা ছেলে বামাক্ষ্যাপা। নানা লৌকিক এবং অলৌকিক কাহিনী ছড়িয়ে আছে তাঁকে ঘিরে। তারাপীঠের অদূরে আটলা গ্রামে তাঁর জন্ম। জানা যায় বাংলা ১২৪৪ সনের শিবচতুর্দশীর রাতে তাঁর জন্ম। তিনি ছিলেন শ্রীরামকৃষ্ণের সমসাময়িক।
ঠাকুর রামকৃষ্ণের সংস্পর্শে আসার পর নরেন্দ্রনাথের একবার ইচ্ছা হয় বামাক্ষ্যাপাকে দর্শন করার। নরেন্দ্রনাথের বয়স তখন মাত্র ১৯ বছর। সেকথা তিনি তাঁর কলেজের সহপাঠী শরৎচন্দ্র চক্রবর্তীকে জানান। শরৎচন্দ্র তাঁকে বলেন, ‘তুমি তো ঠাকুরের দেখা পেয়েছো। আবার কেন সেই ব্রহ্মজ্ঞ পুরুষকে দেখতে চাও?’
ব্রহ্মজ্ঞ পুরুষদের চারটি অবস্থা বালকবৎ, জড়বৎ, উন্মাদবৎ এবং পিশাচবৎ। এই চারটি অবস্থাই ব্যামাক্ষ্যাপার মধ্যে দেখা যেত। কিন্তু ঠাকুর রামকৃষ্ণের মধ্যে পিশাচবৎ ভাবটি অনুপস্থিত ছিল। তাই বামাক্ষ্যাপাকে দেখার জন্য নরেন্দ্রনাথ আকুল হয়ে ওঠেন। শরৎচন্দ্রকে নিয়ে নরেন্দ্রনাথ চলে এলেন তারাপীঠে। দেখা হল দু’জনের। সে এক মহাসন্ধিক্ষণ। বামাক্ষ্যাপা ও নরেন্দ্রনাথ দু’জনেই দু’জনের দিকে দীর্ঘক্ষণ অপলক তাকিয়ে। আনন্দে আপ্লুত। দুজনের চোখেই জল। এক অপার আনন্দ নিয়ে ফিরলেন নরেন্দ্রনাথ। আর তাঁর সম্পর্কে বামাক্ষ্যাপা তাঁর বন্ধু শরৎচন্দ্রকে বললেন, এই যুবক একদিন ধর্মের মুখ উজ্জ্বল করবে।
বামাক্ষ্যাপা সন্দর্শনে গিয়েছিলেন বহু মনীষী। তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর। ব্রাহ্ম হলেও তিনি বামাক্ষ্যাপাকে দেখার জন্য উদগ্রীব হয়ে ওঠেন। একদিন তিনি গেলেন তারাপীঠে। দুজনার কথা হল কিছুক্ষণ। ফেরার সময় বামাক্ষ্যাপা মহর্ষিকে বললেন, ‘ফেরার পথে ট্রেন থেকেই দেখতে পাবে একটা বিশাল মাঠ। সেই মাঠের মাঝখানে আছে একটা ছাতিম গাছ আছে। তার নীচে বসে ধ্যান করবে। দেখবে মনের ভিতরে আনন্দের জ্যোতি জ্বলে উঠছে। ওখানে একটা আশ্রম বানাও দেখি। আহা, শান্তি শান্তি!’
ফেরার পথে সেই মাঠ এবং ছাতিম গাছ দেখে তিনি চমৎকৃৎ হলেন। সেখানে বসে ধ্যানে মগ্নও হলেন। সত্যিই এ এক অলৌকিক আনন্দের স্বাদ পেলেন যেন। তিনি ঠিক করলেন এখানেই তিনি আশ্রম স্থাপন করবেন। সেই স্থানই আজকের শান্তিনিকেতন।
বহু মনীষী একসময় তাঁর টানে তারাপীঠে ছুটে গিয়েছিলেন। তার মধ্যে অন্যতম হলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, আশুতোষ মুখোপাধ্যায়, চারণকবি মুকুন্দদাস প্রমুখ।
বাংলার বাঘ স্যার আশুতোষ মুখোপাধ্যায় ১৯০১ খ্রিস্টাব্দে তাঁর মা এবং স্ত্রীকে নিয়ে তারাপীঠে বামাক্ষ্যাপাকে দর্শন করার জন্য গিয়েছিলেন। আশুতোষ বামাক্ষ্যাপাকে ভক্তিভরে প্রণাম করতেই তিনি বলে উঠেছিলেন, ‘যা যা, তোর মনের ইচ্ছা পূর্ণ হবে। তুই শালা জজ হবি।’ অবাক হয়ে আশুতোষ ঠাকুরের মুখের দিকে তাকিয়ে দেখলেন। কী করে ঠাকুর তাঁর মনের কথা বুঝলেন? তিনি তো তখন হাইকোর্টের আইনজীবী। কিন্তু মনে জজ হওয়ার খুব ইচ্ছে ছিল তাঁর। ১৯০৪ সালে তিনি হাইকোর্টের জজ হন।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও একবার চারণকবি মুকুন্দদাসের সঙ্গে তারাপীঠে গিয়ে বামাক্ষ্যাপার সঙ্গে দেখা করার জন্য সারাদিন অপেক্ষা করেছিলেন। সন্ধ্যায় বামাক্ষ্যাপার সঙ্গে তাঁদের দেখা হয়। মুকন্দদাসকে দেখে বামাক্ষ্যাপা বললেন, ‘তোর ফুটুস কলটা নদীতে ফেলে দিয়ে আয়।’ উল্লেখ্য, চারণকবির কোমরে গোঁজা ঩ছিল একটা রিভলভার। তারপর তিনি রবীন্দ্রনাথকে বললেন, ‘তোর খুব নামডাক হবে।’ দুজনকে তারামায়ের প্রসাদ খাইয়ে তিনি ছেড়েছিলেন।
বামাক্ষ্যাপা যেন মায়ের আপন সন্তান। কখনও তাঁর কোলে উঠে পড়েন, কখনও তাঁর স্তন্যপান করেন, কখনও মাকে তিরস্কার করেন, আবার কখনও অবোধ শিশু সন্তানের মতো মায়ের গায়ে মূত্রত্যাগ করে দেন। সবাই হা হা করে উঠে যদি বলত, ‘এ কী করলে? মায়ের শরীর অপবিত্র করে দিলে?’ তিনি তাঁদের বলতেন, শিশুকালে মায়ের কোলে কোন ছেলে মূত্রত্যাগ করে না? তাতে কি মায়ের শরীর অপবিত্র হয়ে যায়। সাধারণ পাণ্ডা পুরোহিতরা এরপরে বামাক্ষ্যাপার বিরুদ্ধে নাটোরের রাজার কাছে অভিযোগ জানালেন। নাটোর-রাজ স্থির করলেন মূর্তিশুদ্ধির জন্য কয়েকজন ব্রাহ্মণকে পাঠাবেন। কিন্তু তা আর হল না। নাটোর-রাজ স্বপ্ন দেখলেন, তারামা তাঁকে বলছেন, আমার মূর্তিকে শোধন করার কোনও চেষ্ট করিস না। নাটোরের রানি সেকথা শুনে রাজাকে মূর্তিশোধন থেকে বিরত করলেন।
বামাক্ষ্যাপা একবার কলকাতায় এসেছিলেন। ১৮৯৮ খ্রিস্টাব্দে মহারাজা যতীন্দ্রমোহন ঠাকুরের উদ্যোগে তিনি কলকাতায় আসেন। সেবার তিনি কালীঘাটে যান মা কালীকে দর্শন করতে। আদিগঙ্গায় স্নান করে তিনি এসে দাঁড়ালেন মায়ের মূর্তির সামনে। বললেন, ‘চল মা, তোকে আমি তারামার কাছে নিয়ে যাব।’ একথা বলে যেই তিনি মূর্তি স্পর্শ করতে যাবেন, তখনই উপস্থিত ব্রাহ্মণরা বাধা দিয়ে উঠলেন। বললেন, বাইরের কাউকে তাঁরা দেবীমূর্তি স্পর্শ করতে দেবেন না। এতে বামাক্ষ্যাপার খুব কষ্ট হল। শিশুর মতো অভিমান করে বলে উঠলেন, চাই না আমি মা কালীকে। অমন রাক্ষুসে রূপ। এর থেকে আমার তারামা ভালো। আহা, আমার তারা মায়ের রূপের কী বাহার! একথা বলে তিনি মন্দির থেকে বেরিয়ে গেলেন।
এর পরে অন্যান্যরা যখন ভুল বুঝতে পেরে তাঁর কাছে গিয়ে ক্ষমা চেয়ে বললে, ঠাকুর আপনি ফিরে চলুন। আমাদের ভুল হয়েছে। আপনি মূর্তি স্পর্শ করতে পারবেন। কিন্তু তিনি আর ফিরে যাননি। মন্দির থেকে বেরিয়ে চলে যান। এমনই ছিল তাঁর গভীর অভিমান।
তারাপীঠের তারামা আর বামাক্ষ্যাপা এক হয়ে গিয়েছে। বহু মানুষের সাধনক্ষেত্র হলেও তারাপীঠ আর বামাক্ষ্যাপা আজ সমার্থক। যেভাবে দক্ষিণেশ্বর মন্দির এবং ঠাকুর রামকৃষ্ণ হয়ে আছেন। বামাক্ষ্যাপার বহু লীলার সাক্ষী তারপীঠ। মন্দির, জীবিতকুণ্ড, দ্বারকা নদী, শ্মশান সর্বত্র ছড়িয়ে রয়েছে এই যোগীপুরুষের স্মৃতি। তারাপীঠ তাই যেন মা ও ছেলের লীলাপ্রাঙ্গণ।

 সন্দীপন বিশ্বাস
13th  May, 2018
বিশ্বকাপের ম্যাসকট
জাবিভাকার জন্মকথা
সন্দীপন বিশ্বাস

পশ্চিম সাইবেরিয়ার একটা ছোট্ট শহর কিদরোভি। মস্কো থেকে অনেক দূর। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার। সেখানকার মেয়ে একাতেরিনা বোচারোভা আজ সারা বিশ্বে এক পরিচিত নাম। সে তো ওই জাবিভাকার দৌলতেই। জাবিভাকা একাতেরিনার কল্পনাপ্রসূত সৃষ্টি। সেই জাবিভাকা এবারের বিশ্বকাপের ম্যাসকট। বিশদ

03rd  June, 2018
সিলভিও গাজ্জানিগা
বিশ্বকাপের নকশার কারিগর
অরূপ দে

১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল জুরিখে ফিফা প্রেসিডেন্ট স্যার স্ট্যানলি রিউসের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি তৈরি করা হয় নতুন ট্রফির জন্য নকশা নির্বাচনের উদ্দেশ্যে। সেই কমিটি আহ্ববান করে নকশা প্রতিযোগিতার। খবর পেয়েই সিলভিও গাজ্জানিগা শুরু করলেন কাজ।
বিশদ

03rd  June, 2018
লেডি ডন

হেঁসেলের অন্ধকারে যাঁদের জীবন কাটিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। সন্তান পালন, স্বামীর সেবাই ছিল যাঁদের জীবনের আদর্শ। সেই তাঁরাই একদিন ঘোমটা ছেড়ে হাতে তুলে নিয়েছিলেন আগ্নেয়াস্ত্র। তাঁদের অঙ্গুলি হেলনে চলেছে বিরাট অপরাধের সাম্রাজ্য। এক ফোনে মুহূর্তে চলে গিয়েছে কারও প্রাণ।
বিশদ

13th  May, 2018
তারাপীঠ
মহাপীঠের ২০০ বছর 

তারাপীঠের মন্দিরের ইতিহাসকে দুশো বছরের মধ্যে আটকানো যায় না। তার ইতিহাস প্রাচীন, আবছায়া, অস্পষ্ট এক অতীতের মধ্যে মিশে আছে। একদিকে পুরাণ আর একদিকে ইতিহাস। একদিকে লোককথা, অন্যদিকে দলিল। সব মিলেই তারাপীঠের মন্দির এবং তারামায়ের কাহিনী একাকার হয়ে গিয়েছে... 
বিশদ

13th  May, 2018
রহস্যময়ী রিতা কাৎজ 
মৃণালকান্তি দাস

রিতা কাৎজ। বাংলাদেশের দুই বিদেশি নাগরিক খুন হওয়ার পর ৫২ বছরের এই মহিলাই প্রথম ট্যুইটারে দাবি করেছিলেন, এই হত্যাকাণ্ড আইএস (ইসলামিক স্টেট) ঘটিয়েছে। ঢাকার গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ২০ জনকে জবাই করে হত্যা করার পর হামলাকারীদের ছবিও প্রথম প্রকাশ করেছিল রিতা কাৎজের ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ ওয়েবসাইট।
বিশদ

06th  May, 2018
কলঙ্কিত দেশ 
কল্যাণ বসু

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর পরিসংখ্যান বলছে ২০১২ সালে গোটা দেশে নথিভুক্ত ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ২৪,৯২৩ আর ২০১৬ সালে সেটা ৩৮,৯৪৭! অর্থাৎ হ্রাস তো দূরের কথা, পাঁচ বছরে ধর্ষণের ঘটনা ৫৬ শতাংশ বেড়েছে!
বিশদ

06th  May, 2018
জঙ্গিদের থেকেও রাশিয়ার ভয় পঙ্গপালের দলকে 

সন্দীপন বিশ্বাস: ১৯৯৮ সালের ফ্রান্স বিশ্বকাপে যে লোকটা পুলিশের হাড় পর্যন্ত কাঁপিয়ে দিয়েছিল, সে হল ফরিদ মেলুক। একজন আলজিরিয়ান ইসলামিক জঙ্গি। মেলুককে বলা হতো জঙ্গিদের ঠিকানা। সারা বিশ্বের জঙ্গিদের গতিবিধি, যোগাযোগের তথ্য ছিল তার নখের ডগায়।
বিশদ

29th  April, 2018
জোটের পথে... 

২০১৯-এর আগে বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। এর মধ্যে রয়েছে বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ও। এই সব রাজ্যের ফল ২০১৯-এর সমীকরণ তৈরিতে অনেকটাই সাহায্যকরবে। কারণ বিধানসভায় বিজেপি ভালো ফল করলে, এখনকার মোদি বিরোধী হাওয়া আবার কমে যাবে। আর যদি বিজেপি হারে, তবে জোট রাজনীতির ঝড় উঠবে। লিখেছেন প্রীতম দাশগুপ্ত।
বিশদ

29th  April, 2018
জগাখিচুড়ি রাজনীতিতে
আটকে সিপিএম

বামনেতাদের শুধু ‘মমতা বিরোধিতা’ করতে করতে এ রাজ্যে বিজেপির থেকেও শক্তি কমেছে সিপিএমের। তা বারবার প্রমাণিত হচ্ছে। সিপিএম পুকুর ছেঁচে মরলেও কই খাবে সেই বিজেপিই। লিখছেন মৃণালকান্তি দাস। বিশদ

08th  April, 2018
ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ
জাবিয়াকা বনাম অ্যাকিলিস
বাকি আর ৬৭ দিন
সন্দীপন বিশ্বাস

 রাশিয়ার মাঠে যখন বিশ্বকাপ ফুটবলের লড়াই চলবে। টানটান লড়াইয়ে কাঁপবে সারা বিশ্ব। তুমুল তর্ক চলবে সারা বিশ্বের রোয়াকে, চায়ের দোকানে কিংবা ড্রয়িং রুমে। কে সেরা মেসি না রোনাল্ডো? নাকি নেইমার? তখন এর পাশাপাশি লড়াই চলবে জাবিয়াকা এবং অ্যাকিলিসের মধ্যে। নাম দুটো শুনেই প্রথমে প্রশ্ন জাগবে এরা আবার কোন দেশের ফুটবলার! সত্যি কথা বলতে কী, এরা কোনও খেলোয়াড়ই নয়।
বিশদ

08th  April, 2018
চীন সীমান্তে এখন ভারতের বড় চ্যালেঞ্জ পরিকাঠামো উন্নয়ন
দেবজ্যোতি রায়

 দৃশ্য ১: প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর সরু, জীর্ণ, খানা-খন্দে ভরা পাহাড়ি রাস্তা দিয়ে যেতেই মোবাইল ফোনের স্ক্রিনটা আচমকাই জ্বলে উঠল। ম্যান্ডারিন ভাষায় ভেসে উঠল ‘চীনে আপনাকে স্বাগত’। সঙ্গে সঙ্গে বেজিংয়ের সময়ে বদলে গেল ফোনের ঘড়ি। ভারতের থেকে যা আড়াই ঘণ্টা এগিয়ে। বিশদ

08th  April, 2018
মতামতে সোশ্যাল প্রভাব...

শুধু সোশ্যাল মিডিয়া নয়, বিভিন্ন মোবাইল অ্যাপ, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্য পলকে পড়ে ফেলে সেই সমস্ত সংস্থা। সেইমতো, গ্রাহকের মন বুঝে ‘কাস্টমাইজড’ সুবিধা তৈরি করা হয়। তথ্য চুরি বিতর্কে ঢঁু মারলেন দেবজ্যোতি রায়
বিশদ

01st  April, 2018
বন্দুকের নলে
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 ‘কেউ যদি তোমাকে আঘাত করে, তাকে ধাওয়া করো। আর হিংস্রভাবে প্রত্যাঘাত করো।’ বক্তা ডোনাল্ড ট্রাম্প। যাঁর নির্বাচনী প্রচারেই ছিল অস্ত্র সংবরণের বিরোধিতা। তাঁর সরকারেরও তাই গা নেই। মরছে কিশোর। আহত প্রজন্ম। পায়ে শেকল পরে আর বেশিদিন কিন্তু মার্কিন নাগরিকরা বসে থাকবে না... বিশদ

25th  March, 2018
পাহাড় থেকে সমুদ্র
চীনের সঙ্গে অদৃশ্য দ্বন্দ্বে ‘অ্যাডভান্টেজ ভারত’
সুদীপ্ত রায়চৌধুরী

দ্বন্দ্বটা আজকের নয়। ১৯৬২ সালেই ভারতের সীমান্ত শত্রু হয়ে ওঠে চীন। চীন তিব্বত অধিগ্রহণ করলে দু’দেশের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যেকার দ্বন্দ্বেও পরোক্ষভাবে নাক গলায় চীন। কূটনৈতিকভাবে পাকিস্তানকে মদত প্রদান শুরু করে চীন।
বিশদ

18th  March, 2018
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: প্রি-টেস্টে ফল খুব ভালো হলেও টেস্টে ফল খারাপ হয়েছিল। তাতে মনটা ভীষণ খারাপ হয়ে গিয়েছিল। তবে মনের ভিতরে জেদ চেপে বসে ভালো ...

বিএনএ, বাঁকুড়া: এ যেন ভাঙা ঘরে চাঁদের আলো। বড়জোড়ায় মোটরভ্যান চালকের ছেলে মাধ্যমিকে ৮৭শতাংশ নম্বর পেয়ে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে, বাঁকুড়া শহরে অটোচালকের মেয়ে ৯২শতাংশ নম্বর পেয়ে সকলের নজর কেড়েছে। তবে, অর্থাভাব ওই কৃতীদের উচ্চশিক্ষায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। ...

ইসলামাবাদ, ৮ জুন (পিটিআই): পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট তথা শাসক পারভেজ মোশারফের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং পাসপোর্ট বাতিল করল পাকিস্তান সরকার। সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টে এমনটাই জানা গিয়েছে। ২০০৭ ...

 নয়াদিল্লি, ৮ জুন (পিটিআই): আরএসএসের সদর দপ্তরে এসে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের বক্তব্য রাখাকে ‘দেশের সমসাময়িক ইতিহাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়’ বলে আখ্যায়িত করলেন বিজেপি নেতা ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

অত্যধিক পরিশ্রমে শারীরিক দুর্বলতা, বাহন ক্রয়ের বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। সন্তানের বিদ্যা শিক্ষায় সংশয়বৃদ্ধি। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৭০- ইংরেজ সাহিত্যিক চার্লস ডিকেন্সের মৃত্যু
১৯০০- স্বাধীনতা সংগ্রামী বিরাস মুন্ডার মৃত্যু
১৯৪৯-প্রথম ভারতীয় মহিলা আই পি এস কিরণ বেদির জন্ম
২০১১-ভারতীয় চিত্রশিল্পী মকবুল ফিদা হুসেনের মৃত্যু 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৬.৭০ টাকা ৬৮.৩৯ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৮৮ টাকা ৯২.৩৩ টাকা
ইউরো ৭৮.২১ টাকা ৮১.২১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩১,৫৫৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৯,৯৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩০,৩৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৮ জুন ২০১৮, শুক্রবার, নবমী দিবা ১/১৩, নক্ষত্র- উত্তরভাদ্রপদ রাত্রি ১১/২, সূ উ ৪/৫৫/১০, অ ৬/১৫/৪৬, অমৃতযোগ দিবা ঘ ১২/২ গতে ২/৪২ মধ্যে, রাত্রি ঘ ৮/২২ মধ্যে পুনঃ ১২/৩৯ গতে ২/৪৭ মধ্যে পুনঃ ৩/২৯ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/১৬ গতে ১১/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৬ গতে ১০/১৬ মধ্যে। 
২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৮ জুন ২০১৮, শুক্রবার, নবমী ৮/৩১/৬, উত্তরভাদ্রপদনক্ষত্র রাত্রি ৭/১০/৫৪, সূ উ ৪/৫৪/২২, অ ৬/১৫/৫৩, অমৃতযোগ দিবা ঘ ১২/১/৫০-২/৪২/৯, রাত্রি ৮/২৩/৩৫, ১২/৩৮/৫৯-২/৪৬/৪০, ৩/২৯/১৪-৪/৫৪/২০, বারবেলা ৮/১৪/৪৫-৯/৫৪/৫৬, কালবেলা ৯/৫৪/৫৬-১১/৩৫/৭, কালরাত্রি ৮/৫৫/৩০-১০/১৫/১৯। 
 
এই মুহূর্তে
অসম সীমান্তে আগ্নেয়াস্ত্র, কার্তুজ সহ গ্রেপ্তার ২ দুষ্কৃতী 

07:26:00 PM

দুপুর ৩টে পর্যন্ত শহরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ
দুপুরে ৩টে পর্যন্ত শহরের পামার ব্রিজ এলাকায় বৃষ্টি হয়েছে ৮.৬৪ ...বিশদ

04:28:00 PM

উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম স্থানাধিকারী গ্রন্থনের বাড়িতে গেলেন সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায় 

04:09:00 PM

বিধাননগর স্টেশনের কাছে ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু
বিধাননগর স্টেশনের কাছে ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে মৃত্যু হল এক ...বিশদ

03:29:22 PM

মালদহে জেলে বন্দি সংঘর্ষ, থামাতে গিয়ে আক্রান্ত রক্ষীরা 
দু'দল বন্দিদের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মালদহ জেলা সংশোধানাগার। ...বিশদ

01:38:16 PM

দার্জিলিংয়ে আরও ১ মাদক কারবারী গ্রেপ্তার 

12:57:20 PM