Bartaman Patrika
সাম্প্রতিক
 

তারামায়ের ছেলে বামাক্ষ্যাপা 

বহু সিদ্ধ পুরুষের সাধনক্ষেত্র তারাপীঠ। কিন্তু তারাপীঠের কথা উঠলেই যে সাধক পুরুষের নামটি মনে আসে, তিনি হলেন বামাক্ষ্যাপা। তারামায়ের ক্ষ্যাপা ছেলে বামাক্ষ্যাপা। নানা লৌকিক এবং অলৌকিক কাহিনী ছড়িয়ে আছে তাঁকে ঘিরে। তারাপীঠের অদূরে আটলা গ্রামে তাঁর জন্ম। জানা যায় বাংলা ১২৪৪ সনের শিবচতুর্দশীর রাতে তাঁর জন্ম। তিনি ছিলেন শ্রীরামকৃষ্ণের সমসাময়িক।
ঠাকুর রামকৃষ্ণের সংস্পর্শে আসার পর নরেন্দ্রনাথের একবার ইচ্ছা হয় বামাক্ষ্যাপাকে দর্শন করার। নরেন্দ্রনাথের বয়স তখন মাত্র ১৯ বছর। সেকথা তিনি তাঁর কলেজের সহপাঠী শরৎচন্দ্র চক্রবর্তীকে জানান। শরৎচন্দ্র তাঁকে বলেন, ‘তুমি তো ঠাকুরের দেখা পেয়েছো। আবার কেন সেই ব্রহ্মজ্ঞ পুরুষকে দেখতে চাও?’
ব্রহ্মজ্ঞ পুরুষদের চারটি অবস্থা বালকবৎ, জড়বৎ, উন্মাদবৎ এবং পিশাচবৎ। এই চারটি অবস্থাই ব্যামাক্ষ্যাপার মধ্যে দেখা যেত। কিন্তু ঠাকুর রামকৃষ্ণের মধ্যে পিশাচবৎ ভাবটি অনুপস্থিত ছিল। তাই বামাক্ষ্যাপাকে দেখার জন্য নরেন্দ্রনাথ আকুল হয়ে ওঠেন। শরৎচন্দ্রকে নিয়ে নরেন্দ্রনাথ চলে এলেন তারাপীঠে। দেখা হল দু’জনের। সে এক মহাসন্ধিক্ষণ। বামাক্ষ্যাপা ও নরেন্দ্রনাথ দু’জনেই দু’জনের দিকে দীর্ঘক্ষণ অপলক তাকিয়ে। আনন্দে আপ্লুত। দুজনের চোখেই জল। এক অপার আনন্দ নিয়ে ফিরলেন নরেন্দ্রনাথ। আর তাঁর সম্পর্কে বামাক্ষ্যাপা তাঁর বন্ধু শরৎচন্দ্রকে বললেন, এই যুবক একদিন ধর্মের মুখ উজ্জ্বল করবে।
বামাক্ষ্যাপা সন্দর্শনে গিয়েছিলেন বহু মনীষী। তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর। ব্রাহ্ম হলেও তিনি বামাক্ষ্যাপাকে দেখার জন্য উদগ্রীব হয়ে ওঠেন। একদিন তিনি গেলেন তারাপীঠে। দুজনার কথা হল কিছুক্ষণ। ফেরার সময় বামাক্ষ্যাপা মহর্ষিকে বললেন, ‘ফেরার পথে ট্রেন থেকেই দেখতে পাবে একটা বিশাল মাঠ। সেই মাঠের মাঝখানে আছে একটা ছাতিম গাছ আছে। তার নীচে বসে ধ্যান করবে। দেখবে মনের ভিতরে আনন্দের জ্যোতি জ্বলে উঠছে। ওখানে একটা আশ্রম বানাও দেখি। আহা, শান্তি শান্তি!’
ফেরার পথে সেই মাঠ এবং ছাতিম গাছ দেখে তিনি চমৎকৃৎ হলেন। সেখানে বসে ধ্যানে মগ্নও হলেন। সত্যিই এ এক অলৌকিক আনন্দের স্বাদ পেলেন যেন। তিনি ঠিক করলেন এখানেই তিনি আশ্রম স্থাপন করবেন। সেই স্থানই আজকের শান্তিনিকেতন।
বহু মনীষী একসময় তাঁর টানে তারাপীঠে ছুটে গিয়েছিলেন। তার মধ্যে অন্যতম হলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, আশুতোষ মুখোপাধ্যায়, চারণকবি মুকুন্দদাস প্রমুখ।
বাংলার বাঘ স্যার আশুতোষ মুখোপাধ্যায় ১৯০১ খ্রিস্টাব্দে তাঁর মা এবং স্ত্রীকে নিয়ে তারাপীঠে বামাক্ষ্যাপাকে দর্শন করার জন্য গিয়েছিলেন। আশুতোষ বামাক্ষ্যাপাকে ভক্তিভরে প্রণাম করতেই তিনি বলে উঠেছিলেন, ‘যা যা, তোর মনের ইচ্ছা পূর্ণ হবে। তুই শালা জজ হবি।’ অবাক হয়ে আশুতোষ ঠাকুরের মুখের দিকে তাকিয়ে দেখলেন। কী করে ঠাকুর তাঁর মনের কথা বুঝলেন? তিনি তো তখন হাইকোর্টের আইনজীবী। কিন্তু মনে জজ হওয়ার খুব ইচ্ছে ছিল তাঁর। ১৯০৪ সালে তিনি হাইকোর্টের জজ হন।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও একবার চারণকবি মুকুন্দদাসের সঙ্গে তারাপীঠে গিয়ে বামাক্ষ্যাপার সঙ্গে দেখা করার জন্য সারাদিন অপেক্ষা করেছিলেন। সন্ধ্যায় বামাক্ষ্যাপার সঙ্গে তাঁদের দেখা হয়। মুকন্দদাসকে দেখে বামাক্ষ্যাপা বললেন, ‘তোর ফুটুস কলটা নদীতে ফেলে দিয়ে আয়।’ উল্লেখ্য, চারণকবির কোমরে গোঁজা ঩ছিল একটা রিভলভার। তারপর তিনি রবীন্দ্রনাথকে বললেন, ‘তোর খুব নামডাক হবে।’ দুজনকে তারামায়ের প্রসাদ খাইয়ে তিনি ছেড়েছিলেন।
বামাক্ষ্যাপা যেন মায়ের আপন সন্তান। কখনও তাঁর কোলে উঠে পড়েন, কখনও তাঁর স্তন্যপান করেন, কখনও মাকে তিরস্কার করেন, আবার কখনও অবোধ শিশু সন্তানের মতো মায়ের গায়ে মূত্রত্যাগ করে দেন। সবাই হা হা করে উঠে যদি বলত, ‘এ কী করলে? মায়ের শরীর অপবিত্র করে দিলে?’ তিনি তাঁদের বলতেন, শিশুকালে মায়ের কোলে কোন ছেলে মূত্রত্যাগ করে না? তাতে কি মায়ের শরীর অপবিত্র হয়ে যায়। সাধারণ পাণ্ডা পুরোহিতরা এরপরে বামাক্ষ্যাপার বিরুদ্ধে নাটোরের রাজার কাছে অভিযোগ জানালেন। নাটোর-রাজ স্থির করলেন মূর্তিশুদ্ধির জন্য কয়েকজন ব্রাহ্মণকে পাঠাবেন। কিন্তু তা আর হল না। নাটোর-রাজ স্বপ্ন দেখলেন, তারামা তাঁকে বলছেন, আমার মূর্তিকে শোধন করার কোনও চেষ্ট করিস না। নাটোরের রানি সেকথা শুনে রাজাকে মূর্তিশোধন থেকে বিরত করলেন।
বামাক্ষ্যাপা একবার কলকাতায় এসেছিলেন। ১৮৯৮ খ্রিস্টাব্দে মহারাজা যতীন্দ্রমোহন ঠাকুরের উদ্যোগে তিনি কলকাতায় আসেন। সেবার তিনি কালীঘাটে যান মা কালীকে দর্শন করতে। আদিগঙ্গায় স্নান করে তিনি এসে দাঁড়ালেন মায়ের মূর্তির সামনে। বললেন, ‘চল মা, তোকে আমি তারামার কাছে নিয়ে যাব।’ একথা বলে যেই তিনি মূর্তি স্পর্শ করতে যাবেন, তখনই উপস্থিত ব্রাহ্মণরা বাধা দিয়ে উঠলেন। বললেন, বাইরের কাউকে তাঁরা দেবীমূর্তি স্পর্শ করতে দেবেন না। এতে বামাক্ষ্যাপার খুব কষ্ট হল। শিশুর মতো অভিমান করে বলে উঠলেন, চাই না আমি মা কালীকে। অমন রাক্ষুসে রূপ। এর থেকে আমার তারামা ভালো। আহা, আমার তারা মায়ের রূপের কী বাহার! একথা বলে তিনি মন্দির থেকে বেরিয়ে গেলেন।
এর পরে অন্যান্যরা যখন ভুল বুঝতে পেরে তাঁর কাছে গিয়ে ক্ষমা চেয়ে বললে, ঠাকুর আপনি ফিরে চলুন। আমাদের ভুল হয়েছে। আপনি মূর্তি স্পর্শ করতে পারবেন। কিন্তু তিনি আর ফিরে যাননি। মন্দির থেকে বেরিয়ে চলে যান। এমনই ছিল তাঁর গভীর অভিমান।
তারাপীঠের তারামা আর বামাক্ষ্যাপা এক হয়ে গিয়েছে। বহু মানুষের সাধনক্ষেত্র হলেও তারাপীঠ আর বামাক্ষ্যাপা আজ সমার্থক। যেভাবে দক্ষিণেশ্বর মন্দির এবং ঠাকুর রামকৃষ্ণ হয়ে আছেন। বামাক্ষ্যাপার বহু লীলার সাক্ষী তারপীঠ। মন্দির, জীবিতকুণ্ড, দ্বারকা নদী, শ্মশান সর্বত্র ছড়িয়ে রয়েছে এই যোগীপুরুষের স্মৃতি। তারাপীঠ তাই যেন মা ও ছেলের লীলাপ্রাঙ্গণ।

 সন্দীপন বিশ্বাস
13th  May, 2018
কোলিন্দার ‘সুন্দর’ মুখের আড়ালে! 

কখনও টিমের জন্য গলা ফাটাচ্ছেন, কখনও ফুটবলারদের সঙ্গে মেতে উঠছেন উদ্দাম সেলিব্রেশনে। দেখে কে বলবে তিনিই ছোট্ট দেশটার প্রথম নাগরিক। প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্রাবার কিতারোভিচ। পাপারাৎজিরা কেন তাঁর পিছু ছাড়ে না? তিনি নাকি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গেও খুনসুঁটি করতে ছাড়েন না! র‌্যাকিটিচ, মডরিচদের ফুটবল স্কিলে যখম সম্মোহিত ক্রীড়া দুনিয়া, তখন ক্রোটদের সুন্দরী প্রেসিডেন্টের প্রাণোচ্ছলতায় মজেছে নেট দুনিয়া।
বিশদ

22nd  July, 2018
ভালোবাসার শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ
রাশিয়া থেকে ফিরে
সন্দীপন বিশ্বাস

সেন্ট পিটার্সবার্গ যেমন ইতিহাসের শহর, তেমনই ভালোবাসারও শহর। এই শহরের প্রাসাদে, নদীতে, গির্জায়, মেট্রোয়, পথে পথে মিশে আছে এক রোমান্টিসিজম। তাকে দেখা যায়, অনুভব করা যায়। প্রেমের শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ। জার শাসকদের সময় ছুঁয়ে আজ পর্যন্ত এই শহর দেখেছে বহু প্রেম। সেই প্রেম কখনও সফল, কখনও রক্তাক্ত, কখনও ব্যর্থ, কখনও বা সেই প্রেম এনে দিয়েছে মৃত্যুর গন্ধ।
বিশদ

22nd  July, 2018
থাই শিশুদের নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে আগ্রহী হলিউড 

ঘটনা অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। ১৭ দিন পর থাইল্যান্ডের বিপজ্জনক গুহায় আটকে পড়া কিশোরদের উদ্ধার করেছেন দুঃসাহসী ডুবুরিরা। চিয়াং রাই হাসপাতালের বেডে মুখে মাস্ক ও হাসপাতালের গাউন পরা অবস্থায় রয়েছে তারা।
বিশদ

15th  July, 2018
ইতিহাসের সন্ধানে... 
সেন্ট পিটার্সবার্গে
(রাশিয়া থেকে ফিরে সন্দীপন বিশ্বাস)

জুন, জুলাই মাসের এই সময়টায় সেন্ট পিটার্সবার্গে সূর্যের আলস্য দেখার মতো। অস্ত যেতে যেন মন চায় না তার। সারাদিন মাথার উপর জ্বলছে তো জ্বলছেই। ঘড়িতে তখন সাড়ে এগারোটা বেজে গেল। সেটাকে রাত বলব কিনা বুঝতে পারছি না! তখন পশ্চিমের আকাশে সূয্যিমামার অনিচ্ছার ডুব।
বিশদ

15th  July, 2018
হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে 

হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে!
বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের লড়াইয়ে বেলজিয়ামের সঙ্গে মুখোমুখি হয় জাপান। দুর্দান্ত খেলে দু’গোলে এগিয়েও যায় তারা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই তিনটে গোল দিয়ে জাপানকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় বেলজিয়াম।
বিশদ

08th  July, 2018
ভলগা নদীর তীরে... 
রাশিয়া থেকে সোমনাথ বসু

উলিৎসা সেমাশকো থেকে হাঁটাপথেই গোর্কি মিউজিয়াম। সেখানে সংরক্ষিত রয়েছে ‘মা’ উপন্যাসের খসড়া। এমনকী প্রথম মুদ্রিত বইও। দুই খণ্ডে লেখা ‘মা’ বিপ্লবের আগমনি বার্তা ছড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাশিয়ায়। সরল মানবিকতা থেকে গোর্কি উত্তীর্ণ হন শ্রেণী-মানবিকতায়। উৎপল দত্ত এ‌ই উপন্যাসের একটি অংশকে নিয়ে লিখেছিলেন ‘মে দিবস’ নাটক...
বিশদ

08th  July, 2018
বিশ্বকাপের ম্যাসকট
জাবিভাকার জন্মকথা
সন্দীপন বিশ্বাস

পশ্চিম সাইবেরিয়ার একটা ছোট্ট শহর কিদরোভি। মস্কো থেকে অনেক দূর। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার। সেখানকার মেয়ে একাতেরিনা বোচারোভা আজ সারা বিশ্বে এক পরিচিত নাম। সে তো ওই জাবিভাকার দৌলতেই। জাবিভাকা একাতেরিনার কল্পনাপ্রসূত সৃষ্টি। সেই জাবিভাকা এবারের বিশ্বকাপের ম্যাসকট। বিশদ

03rd  June, 2018
সিলভিও গাজ্জানিগা
বিশ্বকাপের নকশার কারিগর
অরূপ দে

১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল জুরিখে ফিফা প্রেসিডেন্ট স্যার স্ট্যানলি রিউসের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি তৈরি করা হয় নতুন ট্রফির জন্য নকশা নির্বাচনের উদ্দেশ্যে। সেই কমিটি আহ্ববান করে নকশা প্রতিযোগিতার। খবর পেয়েই সিলভিও গাজ্জানিগা শুরু করলেন কাজ।
বিশদ

03rd  June, 2018
লেডি ডন

হেঁসেলের অন্ধকারে যাঁদের জীবন কাটিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। সন্তান পালন, স্বামীর সেবাই ছিল যাঁদের জীবনের আদর্শ। সেই তাঁরাই একদিন ঘোমটা ছেড়ে হাতে তুলে নিয়েছিলেন আগ্নেয়াস্ত্র। তাঁদের অঙ্গুলি হেলনে চলেছে বিরাট অপরাধের সাম্রাজ্য। এক ফোনে মুহূর্তে চলে গিয়েছে কারও প্রাণ।
বিশদ

13th  May, 2018
তারাপীঠ
মহাপীঠের ২০০ বছর 

তারাপীঠের মন্দিরের ইতিহাসকে দুশো বছরের মধ্যে আটকানো যায় না। তার ইতিহাস প্রাচীন, আবছায়া, অস্পষ্ট এক অতীতের মধ্যে মিশে আছে। একদিকে পুরাণ আর একদিকে ইতিহাস। একদিকে লোককথা, অন্যদিকে দলিল। সব মিলেই তারাপীঠের মন্দির এবং তারামায়ের কাহিনী একাকার হয়ে গিয়েছে... 
বিশদ

13th  May, 2018
রহস্যময়ী রিতা কাৎজ 
মৃণালকান্তি দাস

রিতা কাৎজ। বাংলাদেশের দুই বিদেশি নাগরিক খুন হওয়ার পর ৫২ বছরের এই মহিলাই প্রথম ট্যুইটারে দাবি করেছিলেন, এই হত্যাকাণ্ড আইএস (ইসলামিক স্টেট) ঘটিয়েছে। ঢাকার গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ২০ জনকে জবাই করে হত্যা করার পর হামলাকারীদের ছবিও প্রথম প্রকাশ করেছিল রিতা কাৎজের ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ ওয়েবসাইট।
বিশদ

06th  May, 2018
কলঙ্কিত দেশ 
কল্যাণ বসু

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর পরিসংখ্যান বলছে ২০১২ সালে গোটা দেশে নথিভুক্ত ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ২৪,৯২৩ আর ২০১৬ সালে সেটা ৩৮,৯৪৭! অর্থাৎ হ্রাস তো দূরের কথা, পাঁচ বছরে ধর্ষণের ঘটনা ৫৬ শতাংশ বেড়েছে!
বিশদ

06th  May, 2018
জঙ্গিদের থেকেও রাশিয়ার ভয় পঙ্গপালের দলকে 

সন্দীপন বিশ্বাস: ১৯৯৮ সালের ফ্রান্স বিশ্বকাপে যে লোকটা পুলিশের হাড় পর্যন্ত কাঁপিয়ে দিয়েছিল, সে হল ফরিদ মেলুক। একজন আলজিরিয়ান ইসলামিক জঙ্গি। মেলুককে বলা হতো জঙ্গিদের ঠিকানা। সারা বিশ্বের জঙ্গিদের গতিবিধি, যোগাযোগের তথ্য ছিল তার নখের ডগায়।
বিশদ

29th  April, 2018
জোটের পথে... 

২০১৯-এর আগে বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। এর মধ্যে রয়েছে বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ও। এই সব রাজ্যের ফল ২০১৯-এর সমীকরণ তৈরিতে অনেকটাই সাহায্যকরবে। কারণ বিধানসভায় বিজেপি ভালো ফল করলে, এখনকার মোদি বিরোধী হাওয়া আবার কমে যাবে। আর যদি বিজেপি হারে, তবে জোট রাজনীতির ঝড় উঠবে। লিখেছেন প্রীতম দাশগুপ্ত।
বিশদ

29th  April, 2018
একনজরে
 শ্রীনগর, ১৯ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করার পর কেটে গিয়েছে ৪৬ দিন। এখনও থমথমে উপত্যকা। স্বাভাবিক হয়নি সাধারণ জীবনযাত্রা। উপত্যকাজুড়ে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা:শতবর্ষে বাঙালির সেরা উৎসব শারদোৎসবের সঙ্গে যুক্ত হতে চাইছে ইস্ট বেঙ্গল। আসন্ন দুর্গাপুজোয় বিভিন্ন ক্যাটেগরিতে কর্পোরেট ধাঁচে ইস্ট বেঙ্গল পুরস্কার দেবে। এই পুরস্কারে বিচারক হিসাবে থাকবেন দলের প্রাক্তন অধিনায়করা।  ...

 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

সংবাদদাতা, হরিরামপুর: ৭৫ বছর বয়স হয়ে গেল, এখনও বার্ধক্য ভাতা মেলে না। আর কবে পাব? জেলাশাসককে হাতের কাছে পেয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন মতিউর রহমান। বৃহস্পতিবার ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

অতি সত্যকথনের জন্য শত্রু বৃদ্ধি। বিদেশে গবেষণা বা কাজকর্মের সুযোগ হতে পারে। সপরিবারে দূরভ্রমণের যোগ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৮: চিত্রপরিচালক মহেশ ভাটের জন্ম
২০০৪: চিত্রপরিচালক সলিল দত্তের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৯ টাকা ৭২.১৯ টাকা
পাউন্ড ৮৭.৩৭ টাকা ৯০.৫৬ টাকা
ইউরো ৭৭.২৬ টাকা ৮০.২৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,০৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,০৯০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৬৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৭০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৫,৮০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ষষ্ঠী ৩৬/৪৯ রাত্রি ৮/১২। কৃত্তিকা ১২/৯ দিবা ১০/২০। সূ উ ৫/২৮/৫, অ ৫/৩২/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৫ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৬/১৯ গতে ৯/৩০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৫২ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১১/৩০ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৩০ গতে ১০/০ মধ্যে।
২ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ষষ্ঠী ২৬/২৪/৫৪ অপঃ ৪/১/৪৮। কৃত্তিকা ৫/৫৮/১ দিবা ৭/৫১/২, সূ উ ৫/২৭/৫০, অ ৫/৩৪/৩০, অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৭ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৬ মধ্যে ও ৩/৪৩ গতে ৫/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৬ গতে ৯/২২ মধ্যে ও ১১/৪৯ গতে ৩/৬ মধ্যে ও ৩/৫৫ গতে ৫/২৮ মধ্যে, বারবেলা ৮/২৯/৩০ গতে ১০/০/২০ মধ্যে, কালবেলা ১০/০/২০ গতে ১১/৩১/২০ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৩২/৫০ গতে ১০/২/৪ মধ্যে।
২০ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
  মোদির বিমানের জন্য আকাশপথ ব্যবহারের আবেদন খারিজ পাকিস্তানের
 নয়াদিল্লি, ১৮ সেপ্টেম্বর: আগামী ২১ থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর আমেরিকা সফর ...বিশদ

19-09-2019 - 09:41:00 PM

শিয়ালদহে সোনার বার সহ ধৃত ৩ বাংলাদেশি
শিয়ালদহ স্টেশনের কাছ থেকে আটটি সোনার বার সহ তিনজন বাংলাদেশিকে ...বিশদ

19-09-2019 - 08:26:30 PM

রায়গঞ্জে ক্লাসরুমের সিলিং ফ্যান ভেঙে জখম ছাত্রী 
ক্লাসরুমের সিলিং ফ্যান ভেঙে জখম হলেন এক ছাত্রী। ঘটনাটি ঘটে ...বিশদ

19-09-2019 - 07:33:51 PM

অক্টোবরে ফের ব্যাঙ্ক ধর্মঘট
এবার দেশজুড়ে ব্যাঙ্ক ধর্মঘটের ডাক দিল কর্মী সংগঠনগুলি। ব্যাঙ্কগুলির সংযুক্তিকরণ ...বিশদ

19-09-2019 - 07:25:49 PM

নাবালককে যৌন নির্যাতন, যাবজ্জীবন সাজা যুবকের
যৌন নির্যাতনের ঘটনায় আজ এক যুবককে দোষী সাব্যস্ত করল কালনা ...বিশদ

19-09-2019 - 04:40:00 PM

৪৭০ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

19-09-2019 - 04:24:39 PM