Bartaman Patrika
গল্পের পাতা
 

পুন্য ভূমির পুন্য ধুলোয়
ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায় 

মৈহর পীঠ, পর্ব-১৫
মৈহর হল মধ্যপ্রদেশের সাতনা জেলা তহশিলের এক প্রসিদ্ধ দেবীস্থান। একান্ন পীঠের অন্তর্গত পীঠ না হলেও উপপীঠ। এখানে সতীর দেহাংশ নয় কণ্ঠহার পড়েছিল। এই পুণ্যভূমিতেই ত্রিকূট পর্বতের চূড়ায়। সতীমাঈ কি হার। তাই থেকেই মাঈহার, মৈহার ও বর্তমানে মৈহর।
রেলওয়ে স্টেশন থেকে ত্রিকূট পর্বতের এই দেবীস্থানের দূরত্ব পাঁচ কিলোমিটার। স্টেশন ও বাসস্ট্যান্ড থেকে মন্দিরমার্গে যাওয়ার জন্য অটো, টেম্পো, ট্রেকার ও রিকশর অভাব নেই। সারা বছরই এখানে যাত্রীর ভিড় লেগেই থাকে।
এই মহাতীর্থে যাওয়ার জন্য হাওড়ার দিক থেকে উপযুক্ত ট্রেন হল ভায়া এলাহাবাদ মুম্বই মেল। স্টেশনের বাইরে প্রচুর হোটেল ও লজের ব্যবস্থা আছে। আমি অবশ্য হাওড়ার দিক থেকে এখানে আসিনি। এসেছিলাম জব্বলপুর হয়ে। আধারতলি, দেউরি, গোসলপুর, সিহোরা, কাটনি হয়ে মৈহরে।
স্টেশন সংলগ্ন লজে আশ্রয় নিয়ে স্নানাদিকৃত্য সেরে দশ টাকার অটোয় মাতা মন্দির রোডে ত্রিকূট পর্বতের পাদদেশে এলাম। বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে এখানে যেন মেলার প্রস্তুতি। মোচাকৃতি সুউচ্চ পর্বত। উচ্চতা ৬০০ ফুট। এই পাহাড়ে ওঠার সিঁড়ির সংখ্যা এক হাজার এক। তবে কিনা দুরারোহ চড়াই। তাই রোপওয়েরও ব্যবস্থা আছে। যাতায়াতের ভাড়া সত্তর টাকা।
ত্রিকূট পাহাড়ের পাদদেশে এক রমণীয় উদ্যানে এসে মন মোহিত হয়ে গেল। উদ্যানের মধ্যস্থলে আছে উন্নত দেবীস্তম্ভ। সেখানেই রয়েছে পরপর সাজানো নবদুর্গার মন্দির। কালো পাথরের এইসব মূর্তিগুলো সত্যই অনবদ্য। এই স্থানটি আদিশক্তি স্থান মন্দির নামে পরিচিত। এই নবদুর্গা হলেন— শৈলপুত্রী, ব্রহ্মচারিণী, চন্দ্রঘণ্টা, কুষ্মাণ্ডা, স্কন্দমাতা, কাত্যায়নী, কালরাত্রি, মহাগৌরী ও সিদ্ধিদাত্রী।
নবদুর্গা দর্শনের পর পর্বতারোহণ। তবে প্রথমেই বলে রাখি দুর্বল ও অশক্ত লোকের পক্ষে পাহাড়ে ওঠার চেষ্টা না করাই ভালো। রোপওয়েই তাঁদের জন্য উপযুক্ত।
পর্বতের উচ্চস্থানে রেলিং ঘেরা সরু সিঁড়ি বেয়ে মন্দিরে প্রবেশ করতে হয়। আমিও সেইভাবে দর্শন করলাম। তবে কি না দেবীতীর্থ হলেও দেবী এখানে ত্রিগুণাত্মিকা। তিনি অম্বা বা দুর্গা নন। তিনি মহালক্ষ্মী, মহাকালী ও মহাসরস্বতী রূপে বিরাজমান। সরস্বতী বা সারদা নামে পূজিতা।
শোনা যায়, এই তীর্থভূমির পবিত্র স্থানটি দীর্ঘকাল লোকচক্ষুর অন্তরালে ছিল। মৈহরের রাজা দুর্জন সিং এক রাতে স্থানটি আবিষ্কার করেন। দেবী এক বৃদ্ধার বেশে রাজাকে স্বপ্ন দেন, ‘হে রাজন! আমি আদ্যাশক্তি মা সারদা। আমি কখনও কালী রূপে বিরাজ করে অশুভ শক্তি নাশ করি, কখনও সম্পদের অধিষ্ঠাত্রী মহালক্ষ্মী হই, আবার কখনও বা বিদ্যার অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতী রূপে আমি জ্ঞানদায়িনী হই। এই পর্বতশিখরে আমার অধিষ্ঠান। এখানে আমার কণ্ঠহার পতিত হয়েছে। তা‌ই এই পর্বত আমার প্রিয় স্থান। এই পর্বতে যে গুহা সেই গুহার আশপাশে আমার একটি শিলাময় মূর্তি আছে। ওই মূর্তি যেখানে আছে ঠিক সেখানেই একটি মন্দির ও মন্দিরে আসার জন্য রাস্তা তৈরি করিয়ে দিলে রাজ্যের প্রজারা এখানে এসে আমার পূজা বা আরাধনা করতে পারবে। কেউ ভক্তিভরে আমার শরণ নিলে আমি অবশ্যই তার মনোবাসনা পূর্ণ করব।’
স্বপ্নাদেশ পেয়ে রাজা মন্দির এবং যাতায়াতের পথ তৈরি করিয়ে প্রজাদের কাছে দেবী মহিমা প্রকাশ করলেন। রাজ্য এবং রাজ্যের বাইরে থেকে যাত্রীরা এসে তখন থেকে নিয়মিতভাবে পূজা দিতে লাগলেন মা সারদার।
এখানে মা সারদার প্রাচীন মূর্তির নীচে দেবনাগরী অক্ষরে যে শিলালেখটি আছে তাই থেকে জানা যায় ১৪৯৪ বছর আগে বিক্রম সংবত ৫৫৯ (৪২৪ শকে) চৈত্র মাসের কৃষ্ণপক্ষে চতুর্দশীর দিন মঙ্গলবারে (ইসবী সন ৫০২) তোরমান হুন শাসনকালে নূপুলদেব দ্বারা মা সারদার এই শিলামূর্তির প্রাণ প্রতিষ্ঠা হয়েছিল।
খাজুরাহোর মন্দির প্রতিষ্ঠারও ৫৫০ বছর আগে এখানেও একটি ছোট্ট মন্দির ছিল। পরবর্তীকালে যা সম্পূর্ণভাবে লয়প্রাপ্ত হয়।
দেবীর চরণতলে আর একটি শিলালেখ আছে। যেটি লম্বায় ১৫ ইঞ্চি এবং চওড়ায় ৩ ইঞ্চি। অপর শিলালেখটি লম্বায় ৩৪ ইঞ্চি ও চওড়ায় ৩১ ইঞ্চি। এই শিলালেখটি তৎকালীন সময়ের সুবিখ্যাত দামোদর পণ্ডিতের। তাঁকে বলা হতো সরস্বতীর বরপুত্র। কলির ব্যাসদেব হিসেবেও গণ্য ছিলেন তিনি।
মৈহরে আসার আগে বেশ কয়েকবার বুন্দেলখণ্ডে চারধারির কাছে মাহোবাতে মহাবীর আলহা ও উদলের প্রভাব শুনে এসেছি। আলহার মর্মর মূর্তিও দেখেছি মাহোবাতে। এখানে এসে শুনলাম সেই আলহা মা সারদার এমনই ভক্ত ছিলেন যে একবার একনাগাড়ে ১২ বছর ধরে এই ত্রিকূট পর্বতে বসে তপস্যা করেন।
মৈহরে দেখার মতো অনেক মন্দির আছে। এর মধ্যে রামমন্দির, চণ্ডী মন্দির, গায়ত্রী মন্দির উল্লেখযোগ্য। সাতনা রোডে ‘বড়ীমাঈ কি শক্তি পীঠ’ও দেখার মতো। তবে আমার কাছে যেটির আকর্ষণ সবচেয়ে বেশি তা হল সরস্বতীর বরপুত্র আলাউদ্দিন খান সাহেবের বসতবাড়িটি দেখা। মৈহর শহরে হাঁটাপথের দূরত্বে আলাউদ্দিন, আলি আকবর ও পণ্ডিত রবিশংকরের স্মৃতিধন্য, মা সারদার কৃপাধন্য এই বাড়িও এক তীর্থভূমি। মৈহর পীঠের মা সারদার কৃপা পেলে মানুষ বিশ্বজয়ীও হতে পারে। অথচ আশ্চর্য! অনেক তীর্থযাত্রীই এই স্থানটি সম্বন্ধে তেমন অবহিত নন।
(ক্রমশ)
অলংকরণ : সোমনাথ পাল 
16th  June, 2019
পুণ্য ভূমির পুণ্য ধূলোয়
মরুতীর্থের দেবী, পর্ব ২০
ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়

 আমার বারো বছর বয়সের সময় বাবা-মায়ের সঙ্গে তীর্থযাত্রায় গিয়ে দ্বারকা থেকে ফেরার পথে ভাটিয়া স্টেশনে নেমে সমুদ্রের খাড়ি পার হতে হয়েছিল। ওখান থেকে গন্তব্য ছিল সুদামাপুরী (পোরবন্দর)। পথে যেতে যেতে এক জায়গায় বাসযাত্রীরা সবাই নেমে পড়লেন এক জাগ্রতা দেবীকে দর্শন করবার জন্য।
বিশদ

ছায়া আছে কায়া নেই
অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়

 একদিন মিউগেন্স সাহেবকে বললাম, আমি বাড়িতে মাঝে মাঝে মিডিয়াম হয়ে ‘স্পিরিটের’ সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু খুব ভালো পারছি বলে মনে হচ্ছে না। মিউগেন্স সাহেবের গম্ভীর মুখের দিকে তাকিয়ে আবার বললাম, — অথচ বিলেতের কাগজে পড়েছি, এফিসিয়েন্ট মিডিয়ামের সাহায্যে তারা একান্ত আপনজনের স্পিরিট নিয়ে আসছে....
বিশদ

এমনি বরষা ছিল সেদিন
ছন্দা বিশ্বাস

দশ দিন হতে চলল অর্ণব ঠাকুরপোকে পাওয়া যাচ্ছে না। অনিকেতের ছেলেবেলার বন্ধু অর্ণব। আমার বিয়ের পরে বেশ কয়েকবার আমাদের বাড়িতে এসেছে। তারপর বহুদিন আর দেখা হয়নি। মাঝখানে হঠাৎ একদিন এসেছিল আমাদের বাড়িতে। সেও বেশ কিছুদিন হতে চলল। অনিকেত শুনলাম থানায় একটা মিসিং ডায়েরি করেছে।
বিশদ

14th  July, 2019
পুণ্য ভূমির পুণ্য ধূলোয় 
গিরিতীর্থ হিংলাজ, পর্ব-১৯

 এবার গিরিতীর্থ হিংলাজে যাওয়া যাক। ভারতের বিভিন্ন স্থানে বিশেষ করে গুজরাত প্রদেশে হিংলাজ মাতার মন্দির আছে। তবে সে সবের সন্ধান আমার জানা নেই। দৈবকৃপায় আমি যে দুটি স্থানে গিয়ে পড়েছিলাম তারই বর্ণনা দেব। বিশদ

14th  July, 2019
ছায়া আছে কায়া নেই
অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়

 প্যারীচাঁদ মিত্র সেইসময় কলিকাতার বেঙ্গল লাইব্রেরির (বর্তমানে জাতীয় গ্রন্থাগার) সম্পাদক ছিলেন। স্ত্রীর মৃত্যুর পর তিনি পরলোক চর্চা নিয়ে অতিশয় মেতে উঠলেন। লাইব্রেরির সংগ্রহশালায় থাকা পরলোকতত্ত্ব সম্বন্ধীয় বিভিন্ন পুস্তক ও প্রবন্ধাদি পাঠ করতে শুরু করলেন। বিশদ

14th  July, 2019
ছায়া আছে কায়া নেই

অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়: জোড়াবাগান থানার বিপরীতে নিমতলার বিখ্যাত মিত্র বাড়ির এই দুপুরের সময়টা বউদের বড়ই ব্যস্ততার মধ্যে কাটে। এই বাড়ির প্রখ্যাত, রাশভারী শ্বশুরমশাই পুজো সেরে এখনই খেতে বসবেন।   বিশদ

07th  July, 2019
পুণ্য ভূমির পুণ্য ধুলোয়
অমরকণ্টক  পর্ব-১৮

ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়: বিন্ধ্যপর্বতের যে অংশটির নাম মেকল বা মৈকল, তীর্থভূমি নর্মদার সেই স্থানই অমরকণ্টক। শুধু তীর্থভূমি নয়, অমরকণ্টক হল সৌন্দর্যের খনি। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বর্ণনাতীত।  বিশদ

07th  July, 2019
শাল-পিয়ালের চুপকথা 

সুপর্ণা সেনগুপ্ত: পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চল বাগমুণ্ডি। আকাশ যেখানে গল্প করে মেঘের সঙ্গে। ঘন জঙ্গল, পাহাড় আর ঝর্ণা ঘেরা ছোট ছোট গ্রাম, আঁকা থাকে নীল আকাশের ক্যানভাসে। বর্ষায় সেখানে নদীর জল ছাপিয়ে যায়।   বিশদ

07th  July, 2019
পুণ্য ভূমির পুণ্য ধুলোয় 

ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়: মধ্যপ্রদেশের গুণা জেলায় সুন্দরী চান্দেরিতে এক বনময় পর্বতের গুহায় দেবী জাগেশ্বরীর অধিষ্ঠান। ইনি শুধু দেবী নন, মহাদেবী। মাত্র ২০০ মিটার উঁচু এই দুর্গ শহরের আকর্ষণ ঐতিহাসিক গুরুত্ব, দেবী মহিমা ও লোভনীয় চান্দেরি শাড়ির জন্য।  বিশদ

30th  June, 2019
ছায়া আছে কায়া নেই 

অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়: ঋষি এবং তাঁর স্ত্রী খুব ভালো মিডিয়াম— এই কথাটা শুনে শরৎচন্দ্র হাসতে হাসতে ভাইয়ের কাছে জানতে চাইলেন, তুমি কী করে জানলে তাঁরা খুব ভালো মিডিয়াম?
গিরীন্দ্রনাথ বললেন, আমি এবং আমার বন্ধু রায়সাহেব হরিসাধন মুখোপাধ্যায় তাঁদের সঙ্গে প্ল্যানচেটে বসেছিলাম। বিশদ

30th  June, 2019
মোম জোছনা 

সঞ্জয় রায়: ‘হেই, হ্যাট্‌-হ্যাট্‌-হ্যাট্‌, যাঃ যাঃ-যাঃ। উঃ, দ্যাকো দিকিনি উঠোনটা খালি খালি নোংরা করে। অ্যাই, যাঃ-যাঃ-যাঃ।’ কুসুম সক্কালবেলায় হাঁসের দলটাকে উঠোন থেকে তাড়াচ্ছিল। দীননাথ দাওয়ায় বসে কুসুমের ছলকে পড়া যৌবনটাকে জরিপ করছিল।  বিশদ

30th  June, 2019
পুণ্য ভূমির পুণ্য ধুলোয়
সিদ্ধপীঠ জলপা, পর্ব-১৬
ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়

 মৈহরপীঠ দর্শনের পর সে রাতটা মৈহরেই কাটালাম। পরদিন সকাল সাড়ে সাতটার ইন্টারসিটি এক্সপ্রেসে ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই কাটনিতে। মধ্য রেলওয়ের কাটনি একটি গুরুত্বপূর্ণ জংশন স্টেশন। এ যাত্রায় আমি ঘরমুখো হব বলেই কাটনিতে এলাম। কেন না এখানে ট্রেন একটু বেশিক্ষণ দাঁড়ায় তাই।
বিশদ

23rd  June, 2019
ছায়া আছে কায়া নেই
১৬
অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়

 গিরীন্দ্রনাথ সরকার। সাহিত্যিক হিসেবে তেমন খ্যাতি অর্জন করতে না পারলেও, তিনি ছিলেন একজন প্রখ্যাত ভূপর্যটক। পৃথিবীর প্রায় সব দেশই তাঁর ঘোরা ছিল। বহুকাল তিনি সরকারি কন্ট্রাক্টর হিসেবে ব্রহ্মদেশে কাজ করেছিলেন। আর এইসময়ই তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের।
বিশদ

23rd  June, 2019
ছায়া আছে কায়া নেই
অপূর্ব চট্টোপাধ্যায় 

১৫
নিস্তব্ধ নির্জন ঘর, দেবতা বিশ্রাম করছেন খাটে। ঘরের এককোণে চুপ করে বসে আছেন মতিলাল। প্রদীপটা তখনও মিটমিট করে জ্বলছে। সময় যেন আর কাটতেই চাইছে না। মাঝে একটু তন্দ্রাচ্ছন্ন মতো হয়ে পড়েছিলেন মতিলাল। সেই রেশ কাটাতে তিনি ঘরের ভেতর পায়চারি করতে শুরু করলেন।  
বিশদ

16th  June, 2019
একনজরে
 ওয়াশিংটন, ২০ জুলাই (পিটিআই): আন্তর্জাতিক চাপের মুখে মুম্বই হামলার মূলচক্রী হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করেছে পাকিস্তান। এরপরেও পাকিস্তানের উপর থেকে সন্দেহ যাচ্ছে না আমেরিকার। ট্রাম্প প্রশাসনের প্রবীণ এক কর্তাব্যক্তি শুক্রবার জানিয়েছেন, আগেও হাফিজকে গ্রেপ্তার করেছিল ইসলামাবাদ। ...

সংবাদদাতা, বালুরঘাট: বালুরঘাট শহরের বিভিন্ন রাস্তায় গবাদিপশুর বিচরণ বেড়ে যাওয়া ব্যাপক সমস্যার পড়েছেন পথচলতি সাধারণ মানুষ। শহরের যত্রতত্র গোরু, ছাগল ঘোরাঘুরি করলেও সেসব ধরে সংশ্লিষ্ট মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ...

 বিএনএ, চুঁচুড়া: প্রায় ২৪ ঘণ্টা পরে হুগলির চাঁপদানির ডালহৌসি জুটমিলে কাজ শুরু হল। শুক্রবার বিকেলে একাংশের কর্মী কাজ বন্ধ করে দেন। তারপর রাতে কারখানার সমস্ত কর্মী কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলেন। কর্মীদের অভিযোগ, কারখানার উৎপাদন বাড়ানোর জন্য বেশি সময় ধরে কাজের ...

পল্লব চট্টোপাধ্যায়, কলকাতা: তিনিই যোগ্যতম। বাণিজ্য শাখার স্কুল শিক্ষক হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন ২০০১ সালের ৩০ জুলাই। কিন্তু, কম যোগ্যতাসম্পন্নদের স্কুলে শিক্ষক পদে রেখে দেওয়া হলেও তাঁর চাকরি বিগত ১৮ বছরেও অনুমোদিত হয়নি। তাঁর মামলা সূত্রে দেওয়া কলকাতা হাইকোর্টের একাধিক ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চবিদ্যার ক্ষেত্রে ভালো ফল হবে। ব্যবসায় যুক্ত হলে খুব একটা ভালো হবে না। প্রেমপ্রীতিতে বাধাবিঘ্ন। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯২০: মা সারদার মৃত্যু
১৮৬৩: কবি, গীতিকার ও নাট্যকার দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের জন্ম
১৮৯৯: লেখক বনফুল তথা বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৫৫: প্রাক্তন ক্রিকেটার রজার বিনির জন্ম
২০১২: বাংলাদেশের লেখক হুমায়ুন আহমেদের মূত্যু 

20th  July, 2019
ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৭.৯৫ টাকা ৬৯.৬৪ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৭৭ টাকা ৮৭.৯২ টাকা
ইউরো ৭৬.১০ টাকা ৭৯.০৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
20th  July, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৫,৫২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৩,৭০৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৪,২১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৫৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৬৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার, চতুর্থী ১৬/২২ দিবা ১১/৪০। শতভিষা ৫/৪৫ দিবা ৭/২৫। সূ উ ৫/৬/৫২, অ ৬/১৮/১৬, অমৃতযোগ প্রাতঃ ৫/৫৯ গতে ৯/৩১ মধ্যে। রাত্রি ৭/৪৫ গতে ৯/১১ মধ্যে, বারবেলা ১০/৪ গতে ১/২২ মধ্যে, কালরাত্রি ১/৩ গতে ২/২৪ মধ্যে।
৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার, চতুর্থী ৯/২৬/৩১ দিবা ৮/৫২/১৬। শতভিষানক্ষত্র ২/০/৪৮ প্রাতঃ ৫/৫৩/৫৯, সূ উ ৫/৫/৪০, অ ৬/২১/৪৭, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪ গতে ৯/৩২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪১ গতে ৯/৮ মধ্যে, বারবেলা ১০/৪/১৩ গতে ১১/৪৩/৪৪ মধ্যে, কালবেলা ১১/৪৩/৪৪ গতে ১/২৩/১৪ মধ্যে, কালরাত্রি ১/৪/১২ গতে ২/২৪/৪২ মধ্যে।
১৭ জেল্কদ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মোদি সরকার সুটকেস বিনিময়ের সংস্কৃতিতে বিশ্বাসী নয়: নির্মলা
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকার সুটকেস বিনিময়ের সংস্কৃতিতে আস্থা রাখে না। ...বিশদ

08:56:54 AM

ফ্লিপকার্টে পুরস্কারের ‘টোপ’ দিয়ে টাকা আত্মসাৎ
ফ্লিপকার্টের নাম করে প্রতারণা, জালিয়াতি এবং টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ...বিশদ

08:50:39 AM

রাষ্ট্রপতির সফরসঙ্গী হিসেবে আফ্রিকা যাচ্ছেন দিলীপ ঘোষ
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সুপারিশে লোকসভার একমাত্র সদস্য হিসেবে রাষ্ট্রপতি রামনাথ ...বিশদ

08:50:00 AM

‘সি সি’ না নিলে মিলবে না ফ্ল্যাটের রেজিস্ট্রেশন
পুরসভার দেওয়া ‘কমপ্লিশন সার্টিফিকেট’ বা সিসি না দেখে ফ্ল্যাট কিনবেন ...বিশদ

08:45:00 AM

মাতৃদুগ্ধ প্রদানের ঘর তাজমহলে 
লক্ষ লক্ষ মানুষ শাহজাহানের তৈরি প্রেম সমাধি তাজমহল দেখতে আসেন। ...বিশদ

08:44:07 AM

বৃদ্ধ আইফেল 
প্যারিসের অন্যতম আকর্ষণ আইফেল টাওয়ার। ৭৩০০ টন ওজনের ও ৩২৪ ...বিশদ

08:37:22 AM