প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 

বাহুবলীর নেপথ্যে

যাবতীয় রেকর্ড ভেঙে সদর্পে ছুটে চলেছে বাহুবলীর বিজয়রথ। প্রথম দিনের কালেকশনই ছিল প্রায় ১২২ কোটি। লাইট, ক্যামেরা, সাউন্ড, অ্যাকশন এবং ভিস্যুয়াল এফেক্ট। ছবির অভাবনীয় সাফল্যের নেপথ্যে কিন্তু রয়েছে আরও অনেক কিছু।

শান্তনু দত্তগুপ্ত:
 দু’জনে একসঙ্গে বসে ব্রেকফাস্ট করছেন... জেমস ক্যামেরন, আর আর্নল্ড সোয়ারজেনেগার। আলোচ্য বিষয়বস্তু হল, টার্মিনেটর ছবির সিক্যুয়েল। আর্নল্ড ভীষণভাবে বোঝানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন, আর ক্যামেরনও কিছুতে মানবেন না।... ‘জেমস, তুমি ভুলে যাচ্ছ, আমি এখানে একটা টার্মিনেটর! আমি কাউকে মারব না, এটা কী করে হয়?’ জেমস ক্যামেরন কিন্তু মানলেন না। এই টার্মিনেটরকে তিনি তৈরি করছেন রক্ষাকর্তা হিসাবে। অর্থাৎ সে ক্ষত্রিয়ধর্ম পালন করবে। আর তার উলটোদিকে থাকবে টি-১০০০। এমন এক অদ্ভূত তরল দিয়ে তৈরি, যাকে কাটা যায় না, ভাঙা যায় না, আগুনে পোড়ানো যায় না। টি-১০০০ বানানোর আগে ক্যামেরন ‘আত্মা’র কনসেপ্টের মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন কি না জানা নেই, তবে সে সময় তিনি যা বানিয়েছিলেন, তা আজও বিস্মৃত হয়নি। টানটান চিত্রনাট্যের সঙ্গে ভিস্যুয়াল এফেক্টের দুরন্ত মেলবন্ধন। ভারতবাসী দেখেছে আর ভেবেছে, আহা, আমরা কবে পারব!
যদি ভাবেন, শুধু ভিস্যুয়াল এফেক্টের কথা হচ্ছে, তা কিন্তু নয়। এখানে প্রসঙ্গ গোটা প্যাকেজ। চিত্রনাট্য, অভিনয়, দর্শককে কৌতূহলী করে তোলা, প্রচারের এমন কিছু স্ট্র্যাটেজি, যা মানুষকে শুধুমাত্র ওই ছবি নিয়েই ভাবতে... চর্চা করতে বাধ্য করবে। আর জেমস ক্যামেরনের গল্প শোনানোর একটা নির্দিষ্ট ধারা ছিল। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তিনি ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রের পরবর্তী কালটা আগে দেখিয়ে তার থেকে ফ্ল্যাশব্যাকে যেতেন। যাতে দর্শক বুঝতে পারত, এই লোকটা বা এই মহিলারই গল্প হচ্ছে। ওই লাইন ড্রইংয়ের উপরই এঁকে ফেলা যেত গোটা ক্যানভাসটা। যেমনটা দেখেছি আমরা টার্মিনেটরের জন কনারকে। টাইটানিকের রোজকে। কিন্তু যদি চিত্রনাট্যটাই সেই চরিত্র হয়? আর তার উপর ভর করে ছবিটা গোটা দুনিয়ায় মারমার কাটকাট ফেলে দেয়? তাহলে কী বলা যাবে একে? ফ্লুক, লাক নাকি কৌশল? উঁহুঁ, বোধহয় কোনওটাই নয়। এখানে কৃতিত্ব যদি কারও হয়ে থাকে, তাহলে তা পরিচালকের মস্তিষ্কের। শুধু শুধু কি আর করণ জোহর বলেছেন, এই দশকটা হতে যাচ্ছে এস এস রাজামৌলির! আর হবে নাই বা কেন? বাহুবলীকে প্রচারের আলোয় আনার বেশ কয়েক বছর আগে থেকে পরিচালক শুধুই এই ছবিতে ডুবে গিয়েছিলেন। এর কাহিনি, চিত্রনাট্যকে আরও ধারালো করে তোলা, প্রত্যেকটা বিভাগ নিয়ে আলাদা করে সময় দেওয়া এবং সেগুলোকে নিখুঁত করে তোলা। এত পরিশ্রমের মূল্য শেষমেশ মিলতে বাধ্য। কারণ, এ তো শুধু স্বপ্ন ছিল না! ছিল পুরোদস্তুর পরিকল্পনা। ২০১৩ সালে প্রজেক্টে হাত দেওয়ার আগেই ছবির দণ্ডমুণ্ডের সব কর্তারা ঠিক করে নিয়েছিলেন কীভাবে এগতে হবে। তার জন্য যা যা করার, করেছিলেন তাঁরা। এমনকী, মুম্বইয়ের এক নামজাদা এজেন্সিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল... যেভাবে হোক, বাহুবলীকে একটা জাতীয় ছবি বানাতে হবে। ন্যাশনাল ফিল্ম। যা তামিল ও তেলুগুতে শ্যুটিং হবে, আর ডাব হবে হিন্দি, মালায়লম, ইংরেজি, ফরাসি আর জাপানি ভাষায়।
আর তার জন্য অবশ্য সবার আগে দরকার ছিল সর্বজনসাধারণের অন্তর পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে, এমন কাহিনি। কোথায় মিলবে এমন রসদ? রাজামৌলি জানতেন, সে মশলা ভারতের মাটিতেই পাওয়া যাবে। যে মাটি থেকে রামায়ণ, মহাভারতের মতো বটবৃক্ষের জন্ম হয়েছে, তাকে কি আর গল্পের জন্য সাগরপাড়ে তাকাতে হয়? তাই তো এই গল্পে আছে সিংহাসন নিয়ে ভাইয়ে ভাইয়ে লড়াই, পুত্রস্নেহে অন্ধ এক পিতা, ভারতজোড়া সাম্রাজ্য, এক নারীচরিত্র নিয়ে যুদ্ধপরিস্থিতি, বিশ্বাসঘাতকতা, পিতামহ ভীষ্মের মতো কাটাপ্পা এবং সত্যের জয়। সবটাই খুব সুচারুভাবে বুনেছেন রাজামৌলি। বাহুবলী নামে এক চরিত্রকে নিয়ে সিনেমা হলেও প্রচারে কিন্তু তার আধিপত্য ছিল না। বরং মানুষের মনে একটা প্রশ্ন ঢুকিয়ে দেওয়া, কী এমন হয়েছিল যে, একটি সদ্যোজাতকে বাঁচাতে প্রাণ দিতে হল রানিকে? অর্থাৎ স্ক্রিপ্ট। দক্ষিণে প্রভাস স্টার হতে পারেন, কিন্তু আসমুদ্রহিমাচলে ক’জন তাঁর নামটাই বা জানতেন? তাঁর অভিনীত ক’টা ছবি বাহুবলীর আগে পর্যন্ত বাড়ি বসে দেখেছিলেন? আজ কিন্তু নামটা বিলক্ষণ পরিচিত। কারণ একটাই। চিত্রনাট্য। এরপর কী হতে চলেছে, দর্শক ঠাহর করতে পারবে না। স্ক্রিপ্টই তো এখানে সুপারহিরো! এই কথাটাই বলছিলেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম স্টাডিজের অধ্যাপক সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়... ‘চমক। পরের দৃশ্যে কী চমক লুকিয়ে আছে, সেটার টানেই দর্শক ভেসে যাবে। সিনেমায় দার্শনিকতার যুগ বোধহয় শেষ হল।’ সত্যি, চেনা গল্পকে অচেনাভাবে বলার মুন্সিয়ানা সবার থাকে না। তার উপর নতুনত্ব আমদানি। অনেকেই হয়তো জানেন না, বাহুবলীর জন্য একটা নতুন মৌলিক ভাষার আবিষ্কার হয়েছিল। কিলিকি। যা ছিল কালকেয় উপজাতির ভাষা। প্রায় সাড়ে সাতশো শব্দ, আর ৪০টার মতো ব্যকরণের নিয়ম বানানো হয়েছিল এই ভাষায়। মাত্র ২৫ হাজার সেনা দিয়ে যে এক লক্ষ নৃশংস যোদ্ধার বিরুদ্ধে মাহেস্মতি লড়াইয়ে নেমেছিল, তারা কথা বলত কিলিকি ভাষায়। এর আগে ‘গেম অব থ্রোনস’-এ ডোথার্কি এবং ‘লর্ড অব দ্য রিংস’ ছবির এলভিস ভাষা ছাড়া এমন প্রয়াস নজরে আসেনি। ছবির ভিস্যুয়াল এফেক্টের জন্য দেশি-বিদেশি ১৭টা সংস্থাসহ আরও অনেকে কাজ করেছে (প্রথম বাহুবলীতেই হাজার পাঁচেক ভিএফএক্স শট ছিল)। প্রোডাকশন শুরু হওয়ার আগের এক বছর ধরে ২৫ জন শিল্পীর হাতে প্রায় ১৫ হাজার স্কেচ হয়েছে... বিভিন্ন দৃশ্য কীভাবে শ্যুট হবে, তার খসড়া। ফ্লোরে প্রায় ২ হাজার স্টান্টম্যান। সত্যিই বাহুবলীয়ান পরিশ্রম। কাজেই ভারতীয় ছবির ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বাজেট হওয়াটা অস্বাভাবিক কী! যদিও এই ২৫০ কোটি টাকা তুলতে বেশি সময় লাগেনি প্রযোজকের। শুধু শেষে ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন আরও একটা প্রশ্ন, বাহুবলীকে কেন মারল কাটাপ্পা? দু’বছর ধরে এই একটা উত্তরের খোঁজেই হন্যে হয়ে বেরিয়েছে দর্শককূল। যারা প্রথম বাহুবলী দেখেননি, তাঁরাও প্রশ্নটা জেনেছেন এবং উত্তরের জন্য ব্যাকুল হয়েছেন। কনক্লুশন দেখতে যাওয়ার আগে প্রথম পার্ট দেখে তারপর স্বস্তিতে হলমুখো হওয়ার নজির গত এক হপ্তায় কম নেই!
স্বীকার করতেই হবে, দুর্দান্ত এক চরিত্র বানিয়েছেন রাজামৌলি... কাটাপ্পা। গোটা কাহিনিটার ভিত কাঁধে করে বয়েছে এই চরিত্র। আরও সঠিকভাবে বলতে গেলে কাটাপ্পা নামের পিছনে লুকিয়ে থাকা অভিনেতা সত্যরাজ। চেন্নাই এক্সপ্রেসে দীপিকা পাড়ুকোনের বাবাকে এমন একটা চরিত্রে দেখে চিনতে অসুবিধা অনেকেরই হয়েছিল। কিন্তু একবার বাহুবলীতে কাটাপ্পাকে দেখা লোকজন কখনও ভুলবেন বলে তো মনে হয় না। এটাও ছিল রাজামৌলির আর একটা মাস্টারস্ট্রোক। ভীষ্ম আমৃত্যু ধর্মচ্যুত হননি। কাটাপ্পাও হলেন না। চিত্রনাট্যের এই মোচড়টাও কিন্তু মোক্ষম দিয়েছেন পরিচালক। গোটা বিষয়টাকেই নিয়ে গিয়েছেন লার্জার দ্যান লাইফের জায়গায়। এর জন্য কী না করতে হয়েছে তাঁকে! শোনা যায়, প্রভাস এবং রানা দাগ্গুবতীর জন্য দেড় কোটি টাকা খরচ করে একটি জিম বানানো হয়েছিল। যেখানে শরীরচর্চার পাশাপাশি মহাভারতীয় যুদ্ধের প্রশিক্ষণও চলেছে পুরোদমে। পরিশ্রমের ফল তো মিষ্টি হবেই। ফোর্বস ম্যাগাজিনে পর্যন্ত বাহুবলীর ৩৮০ দিনের ম্যারাথন শ্যুটিং শিডিউলের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে লরেন্স অব আরাবিয়ার।
সহজ কথা সহজভাবে বলেছেন রাজামৌলি। এটা তাঁর সাফল্যের ইউএসপি। যাকে বলে মুহূর্ত তৈরি করা, এই কার্যে তিনি অবশ্যই সিদ্ধহস্ত। প্রথম পর্বে মহেন্দ্র বাহুবলীকে ২৫ বছর পর আবিষ্কার মাত্রই হাঁটু ভেঙে বসে কাটাপ্পার আত্মসমর্পণই হোক, কিংবা দ্বিতীয় পর্বে বিদ্যুতের চমকে অপেক্ষারত রাজমাতার দেখতে পাওয়া বাহুবলীর ঘাতককে। এই মুহূর্তগুলোই বাহুবলীকে অমর করবে। শেখর কাপুর কি আর বিনা কারণে বলেছেন, ‘মুম্বইয়ের ফিল্ম নির্মাতাদের মধ্যে রাজামৌলির মতো সাহস দেখি না!’ এই সাহসের টানেই তো সাধারণ মানুষও দুঃসাহসী হয়ে উঠতে পারেন। ম্যানেজ করতে পারেন বসকে। বলতে পারেন, ২০ দিন ধরে আধ ঘণ্টা করে বেশি কাজ করব। কিন্তু বাহুবলী ২ যেদিন মুক্তি পাবে, সেদিন হাফ ডে’র পর ছুটি দিতে হবে। যাব সিনেমা দেখতে। মুম্বইয়ের সেই সংস্থার বস ছুটিও দিয়েছেন। এখানেই সাফল্য রাজামৌলির। সর্বজনের ছবি, জাতীয় ছবি হতে পেরেছে তাঁর বাহুবলী।
প্রথম পর্বের প্রচারে বিশ্বের বৃহত্তম ৫০ হাজার বর্গফুটের পোস্টার বানিয়ে গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম তুলেছিল বাহুবলী। দ্বিতীয় পর্বটি মুক্তি পেয়েছে ৮ হাজার স্ক্রিনে। প্রথম দিনেই প্রায় ১২২ কোটি। সব রেকর্ড গুঁড়িয়ে দিয়ে প্রভাস আজ গোটা দেশের স্টার। আর জগৎসভায় চলচ্চিত্রের শ্রেষ্ঠ আসনের লক্ষ্যে ভারতের ব্যাটন বাহুবলীর হাতে...। আমরাও পারি। জয় মাহেস্মতি। উঁহুঁ, একটু ভুল হয়ে গেল।
জয় হিন্দ।
 গ্রাফিক্স: সোমনাথ পাল
07th  May, 2017
খাতা দেখা 

বসন্ত কড়া নাড়লেই বুঝতে হবে মা-উমা খুব দূরে নেই। অর্থাৎ মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিক। ভাবা যায়, একটা রাজ্যে মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৮ লক্ষের বেশি? আর এই দুই পরীক্ষা শেষ হতেই রাজ্যের আনাচে কানাচে হাজার হাজার স্কুল টিচারের গৃহকোণে শুরু হয়ে যায় কুটির শিল্প—খাতা দেখা।
বিশদ

28th  May, 2017
র‌্যানসামওয়্যার এবং বিটকয়েন 

দেবজ্যোতি রায়: ‘এত দ্রুতগতিতে প্রযুক্তির উন্নতি ঘটছে যে এই আগ্রাসন গোটা মানবজাতিকে নিঃশেষ করে দিতে পারে। বংশপরম্পরাকে রক্ষা করতে গেলে যুক্তি ও কারণ দিয়ে এতে লাগাম দিতে হবে।’ প্রযুক্তির রকেটসম অগ্রগতি নিয়ে সম্প্রতি এক সেমিনারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন পৃথিবীখ্যাত বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিনস। এর জন্য বিভিন্ন দেশের সরকারকে এগিয়ে আসার আরজিও জানিয়েছিলেন কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই প্রফেসর তথা পদার্থবিদ।
বিশদ

21st  May, 2017
আবাসন আইন 

১ মে দেশজুড়ে চালু হয়েছে আবাসন সংক্রান্ত আইন ‘দি রিয়েল এস্টেট (রেগুলেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট) অ্যাক্ট। চলতি কথায় ‘রেরা’। কেন্দ্রীয় আইনটির উপর ভিত্তি করে রাজ্যগুলির নিজস্ব বিধি রা রুল তৈরি করার কথা। কী পরিস্থিতি রয়েছে এই আইন নিয়ে? আইনটির সুবিধাগুলিই বা কী কী? দেখে নেওয়া যাক আইনের খুঁটিনাটিগুলি। 
বিশদ

14th  May, 2017
রিকশ থেকে টোটো

বাজারের থলে হাতে নিয়ে খেঁাজ পড়ে তার। সন্তান হঠাৎ জ্বরে পড়লেও ডাক্তারখানা যেতে যে সেই ভরসা। বাহক থেকে চালক হওয়ার দীর্ঘ সফরে রিকশ চিরকাল সঙ্গী মধ্য ও নিম্নবিত্তের। কালের বিবর্তনে তার আগে ‘ই’ স্বরবর্ণ জুড়েছে। তবু এই টোটোর আমলে সুর কাটেনি রিকশ রোমান্টিকতার
বিশদ

30th  April, 2017
খাঁসাহেব 

সমৃদ্ধ দত্ত: মার্চ মাসের সকাল সাড়ে ১০টা এমনিতে দিল্লিতে বেশ আরামদায়ক ওয়েদার। সেদিন ৫ মার্চ আবার বেশ ঠান্ডা হাওয়াও ছিল। ইন্ডিয়ান হ্যাবিট্যাট সেন্টারে আয়ান আলি বাঙ্গাশ আসনে বসেই গুরুগম্ভীর আবহটি কাটিয়ে বেশ হালকা মুড নিয়ে এলেন। একটু আগে ঘোষিকা সিরিয়াস ভঙ্গিতে শ্রোতৃমণ্ডলীকে বলেছেন, সরোদ বাদনের মাঝখানে করতালি না দেওয়াই শ্রেয়। 
বিশদ

23rd  April, 2017
 স্মৃতির রেলপথে

 ওই রেললাইন দিয়ে আরও একবার ট্রেন ছুটবে। শিয়ালদহ থেকে ছেড়ে পৌঁছে যাবে খুলনা। ওই রেলরুটে আরও একবার মিলবে দুই বাংলা। যা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল স্বাধীনতার আগে। সেই স্মৃতির পথেই আজ ফিরে দেখা।
বিশদ

16th  April, 2017
 অপেক্ষায়

 উদ্দালক ভট্টাচার্য: এ যে ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি। এ প্রজন্মের ক’জন আর দেখেছে এই ট্রেনকে? জন্ম থেকে হয় বাপ-ঠাকুরদার মুখে শোনা, কিংবা চোখে দেখা ওই রেললাইনটা। স্মৃতির আঁচ উসকে হঠাৎ এল খবর, আবার জুড়তে চলেছে ভারত-বাংলাদেশ। ওই রেললাইনের মাধ্যমেই। আবার শিয়ালদহ থেকে রেল ছুটবে... পৌঁছে যাবে খুলনা পর্যন্ত। অনেকের মতো ওই ব্যক্তির পরিবারও একদিন দেশভাগের আবহে ছিন্নমূল হয়ে উঠে এসেছিল এপারে।
বিশদ

16th  April, 2017
মিথভঙ্গ? 

পদবি কি তার ধার ও ভার দুই-ই হারাচ্ছে? মোদি জমানায় আজ এই চরম প্রশ্নের মুখে কংগ্রেস। আর স্পষ্ট করে বলতে গেলে গান্ধী ও নেহরু পরিবার। সৌজন্যে রাহুল গান্ধী। কেন এখনও আসরে নেই প্রিয়াঙ্কা? তিনিও নিছক রূপকথা নন তো? 
বিশদ

09th  April, 2017
আগুনের সঙ্গে লড়াই 

‘পদ্মশ্রী’ বিপিন গণোত্রা: আগুনে বড় ভয় ছিল দাদার। নিজে তো দূরে থাকতেনই, আমাদেরও সবসময় সাবধান করতেন। দাদার মতো নির্বিবাদী লোক খুব বেশি দেখিনি। খেরু প্লেসে মোটর পার্টসের একটা দোকান ছিল। দোকান, আর বাড়ি... এই ছিল দাদার রুটিন।
বিশদ

02nd  April, 2017
অগ্নীশ্বরের সন্ধানে 

সুপ্রিয় নায়েক: ডাক্তারির ফাইনাল পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে ছেলেটি। মেডিকেল কলেজের কমন রুমে সে নিয়ে জোর আলোচনা। অথচ ছেলেটিরই দেখা নেই। পাশ করার খবর পেয়েই সে চলে গিয়েছে গ্রামের বাড়িতে।
বিশদ

26th  March, 2017



একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ২৮ মে: জেশপ কারখানার পুনরুজ্জীবনের দাবিতে রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হলেন সংস্থার কর্মীরা। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে জেশপের আইএনটিটিইউসি প্রভাবিত শ্রমিক-কর্মচারী সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শ্রীকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি জেশপ অধিগ্রহণ করেছিলেন। ...

 সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: ছিঁচকে চোরের উপদ্রবে আলিপুরদুয়ার জংশনের রেল কোয়ার্টারের আবাসিকরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। রাতে তো বটেই দিনের বেলাতেও ফাঁকা কোয়ার্টারে ঢুকে ছিঁচকে চোররা অত্যন্ত গোপনে অপারেশন করে চোখের নিমেষে বেপাত্তা হয়ে যাচ্ছে। ...

ওয়াশিংটন, ২৮ মে: প্যারিস জলবায়ু চুক্তির প্রতি নিজেদের সমর্থন জানাল শিল্পোন্নত সাত দেশের জোট জি-সেভেন এর ছ’টি রাষ্ট্র। তবে এই চুক্তিতে আমেরিকা অবস্থান পরিষ্কার করেননি ...

 বিএনএ, মেদিনীপুর: রেশনের মালপত্র পাচারের চেষ্টার অভিযোগে গোয়ালতোড়ের নলবনা গ্রামে এক ডিলারের বাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখাল গ্রামবাসীরা। শনিবার রাতে ওই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। অভিযুক্ত রেশন ডিলার সমীর দত্তের বাড়ি ভাঙচুর করার পাশাপাশি তাঁকে মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে শুভ। যোগাযোগ রক্ষা করে চললে কর্মলাভের সম্ভাবনা। ব্যাবসা শুরু করলে ভালোই হবে। উচ্চতর ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৮৩- স্বাধীনতা সংগ্রামী বিনায়ক দামোদর সাভারকারের জন্ম
১৯২৩- রাজনীতিক ও তেলুগু দেশম পার্টির প্রতিষ্ঠাতা এনটি রামা রাওয়ের জন্ম
২০১০- পশ্চিমবঙ্গে জ্ঞানশ্বেরী এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় অন্তত ১৪১জনের মৃত্যু

28th  May, 2017



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.৭৪ টাকা ৬৫.৪২ টাকা
পাউন্ড ৮১.৭৫ টাকা ৮৪.৭২ টাকা
ইউরো ৭১.০৭ টাকা ৭৩.৬০ টাকা
27th  May, 2017
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,৩৪৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৭,৮৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৮,২৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৫০০ টাকা
28th  May, 2017

দিন পঞ্জিকা

১৫ জ্যৈষ্ঠ, ২৯ মে, সোমবার, চতুর্থী দিবা ১১/৭, পুনর্বসুনক্ষত্র দিবা ১/২৫, সূ উ ৪/৫৫/৫৯, অ ৬/১১/৪৭, অমৃতযোগ দিবা ২/২৮-১০/১৪ রাত্রি ৯/৪-১১/৫৫ পুনঃ ১/২১-২/৪৭, বারবেলা ৬/৩৬-৮/১৫ পুনঃ ২/৫২-৪/৩২, কালরাত্রি ১০/১৩-১১/৩৪।
১৪ জ্যৈষ্ঠ, ২৯ মে, সোমবার, চতুর্থী অপরাহ্ণ ৪/১৫/৪৭, পুনর্বসুনক্ষত্র সন্ধ্যা ৬/৩৬/১০, সূ উ ৪/৫৪/৫০, অ ৬/১২/১৫, অমৃতযোগ দিবা ৮/২৭/২৯-১০/১৩/৪৮ রাত্রি ৯/৩/৩৬-১১/৫৪/৫৮, ১/২০/৩৮-২/৪৬/১৯, বারবেলা ২/৫২/৫৪-৪/৩২/৩৪, কালবেলা ৬/৩৪/৩১-৮/১৪/১১, কালরাত্রি ১০/১৩/১৩-১১/৩৩/৩৩।
২ রমজান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে গাড়ির ধাক্কা, মৃত ৩ 
উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে গাড়ির ধাক্কায় তিনজনের মৃত্যু হল। জখম হয়েছেন একজন। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটে ইসলামপুরের রামগঞ্জে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর। 

01:32:00 AM

রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালে রোগী উধাও, উত্তেজনা 
এক রোগীর বেপাত্তা হয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালে। হাসপাতালের অ্যাসিসট্যান্ট সুপারকে হেনস্তার অভিযোগে আটক করা হয়েছে তিনজনকে। 

28-05-2017 - 09:24:00 PM

আমেরিকার মিসিসিপিতে বন্দুকবাজের হামলায় মৃত কমপক্ষে ৮, অভিযুক্ত ধৃত 

28-05-2017 - 08:57:00 PM

ম্যাঞ্চেস্টারে আত্মঘাতী বিস্ফোরণের ঘটনায় ব্রিটেনে ধৃত ২৫ বছরের এক যুবক 

28-05-2017 - 08:55:00 PM

শ্রীলঙ্কায় বন্যা: ত্রাণসামগ্রী নিয়ে কলম্বো পৌঁছাল ভারতীয় নৌসেনা জাহাজ আইএনএস শার্দূল

28-05-2017 - 03:21:58 PM

পার্কস্ট্রিটে কর্পোরেশন ব্যাংকে আগুন, ঘটনাস্থলে ৪টি দমকলের ইঞ্জিন
রবিবার দুপুরে পার্কস্ট্রিটে কর্পোরেশন ব্যাংকে আগুন। ঘটনাস্থলে ৪টি দমকলের ইঞ্জিন। এখনও আগুন জ্বলছে ব্যাংকে ভিতরে। এলাকায় ব্যাপক ধোঁয়া। প্রায় ৪০ মিনিট ধরে আগুন জ্বলছে। দমকল ও পুলিশ কর্মীরা ব্যাংকের শাটার খোলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ঘটনাস্থলে কলকাতা পুলিশের ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট টিমের আধিকারিকরা। যদিও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে দমকলের পক্ষ থেকে। দমকল কর্মীদের অনুমান কর্পোরেশন ব্যাংকের সার্ভার রুম থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে।

28-05-2017 - 03:20:24 PM






বিশেষ নিবন্ধ
 লালবাজার অভিযান: মমতার চালে বিজেপি মাত!
শুভা দত্ত: সিপিএমের নবান্ন অভিযানের ধাঁচে লালবাজার অভিযান করে রাজ্যবাসীকে চমকে দিতে চেয়েছিল রাজ্য বিজেপি। ...
 হুট বলতে ফুট কাটার অসুখ
 সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়: আমার এক বন্ধু প্রায়ই ভারী অদ্ভুত অদ্ভুত কথা বলে। যেমন, জ্বর-জ্বালা, বুক ধড়ফড়ানি, ...
নদী তুমি কার
বিশ্বজিৎ মুখোপাধ্যায়: ১৯৪৭ সালে দ্বিখণ্ডিত স্বাধীনতা কেবলমাত্র মানুষকে ভাগ করেনি, প্রাকৃতিক সম্পদেও ভাঙনের সাতকাহন সূচিত ...
চীন, পাকিস্তান বেজিংয়ে ফাঁকা মাঠ পেয়ে গেল ভারতের কূটনৈতিক ভুলের কারণে
কুমারেশ চক্রবর্তী: মাত্র কিছু দিন আগে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা আইসিসি’র এক ভোটে ৯-১ ভোটে ...
ভুলে যাওয়ার রাজনীতি
 সমৃদ্ধ দত্ত: আমাদের প্রিয় গুণ হল ভুলে যাওয়া। রাজনৈতিক নেতানেত্রীরা সেটা জানেন। তাই তাঁদের খুব ...