রঙ্গভূমি
 

সময়ের সঙ্গে চলতে পারাটাই থিয়েটারের সাফল্য‌

বুদ্ধিজীবী মহলে নাট্যব্যক্তিত্ব কৌশিক সেন প্রতিবাদী হিসেবেই পরিচিত। নাটক এবং সমাজ নিয়ে তাঁর চিন্তাভাবনা শুনলেন স্বস্তিনাথ শাস্ত্রী। স্বপ্নসন্ধানী ২৫ বছর পূর্ণ করল। ২৫ বছরে প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তি কী?
 স্বপ্নসন্ধানী ২৫ বছর পূর্ণ করল। ২৫ বছরে প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তি কী?
 প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তি অর্থাৎ সাফল্য ও অসাফল্যের হিসেবটা দু’ভাবে করা যায়। প্রথমত, আমার দল কতগুলো নাটক করেছে, কতগুলো হাউজফুল শো করেছে, কত টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে তার ওপর ভিত্তি করে সাফল্য-অসাফল্য বিচার করা যায়। সেরকম একটা হিসেব আমাদের এবারের পত্রিকায় দেওয়াও হয়েছে। কিন্তু আমার মনে হয়, একটা নাটকের দলের সাফল্য হল সে সময়ের সঙ্গে চলতে পেরেছে কি পারেনি সেটাই। কারণ, থিয়েটার কিন্তু থাকে না। সিনেমা থেকে যায়, গান থেকে যায়, থিয়েটার থাকে না। তাকে ভিডিও করে রাখলেও থাকে না। কারণ মঞ্চে থিয়েটার দেখে যে অভিঘাত দর্শকের ওপর পড়ে, যে মজা দর্শক পায় তা কখনই পরদায় দেখে পাওয়া যায় না। এই কারণেই সম্প্রতি একটি চ্যানেলে থিয়েটার দেখানোর যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল তা মুখ থুবড়ে পড়ল। ড্রইয়ংরুমে বসে মানুষ সিরিয়াল দেখতে পারে, থিয়েটার নয়। এভাবে থিয়েটারকে জনপ্রিয় করা যায় না।
থিয়েটার কতটা সময়োপযোগী হল তার ওপরেই নির্ভর করে তার সাফল্য। আমাদের দলের প্রথমদিকের কিছু নাটক একেবারেই ভাবনাচিন্তাহীনভাবে সিলেকশন করা হয়েছিল।
 ‘টিকটিকি’ ধরে বলছেন?
 হ্যাঁ, টিকটিকি ধরেই বলছি। ৯৭ সালে ‘প্রথম পার্থ’ থেকে আমরা চেষ্টা করেছি সময়ের সঙ্গে চলার। তাতে কেউ বলতে পারেন যে আমাদের ওমুক নাটকটা খারাপ হয়েছিল, ভালো লাগেনি, অভিনয় ভালো হয়নি। কিন্তু তবু নাটকটা সময়োপযোগী ছিল। সেটাই সাফল্য।
আর অসাফল্য হল এখনও আমরা থিয়েটার করে পেটের ভাত জোগাড় করতে পারি না। কাউকে ব্যাংকে চাকরি করতে হয়, কাউকে অন্য কোথাও, কাউকে সিরিয়াল কিংবা সিনেমা করতে হয়।
 আপনাদের দলের সবেথেকে সফল নাটক বোধহয় ‘টিকটিকি’। আপনি যেটাকে ভাবনাচিন্তাহীনভাবে বাছা হয়েছিল বলে বললেন।
 অবশ্যই। কিন্তু শুধুই ‘টিকটিকি’ নয়। ‘ম্যাকবেথ’-ও দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল। ম্যাকবেথের সর্বোচ্চ টিকিট করেছিলাম ৩০০ টাকা। প্রতিটা শোয়ে উপচে পড়ত মানুষ। কিন্তু বিশ্বাস করুন, তা সত্ত্বেও প্রোডাকশন কস্ট সামলে দলের সদস্যদের হাতে আমরা কিছু তুলে দিতে পারিনি। পরে যখন কল শো পেতে শুরু করলাম তখন সামান্য কিছু টাকা সদস্যদের দিতে পেরেছিলাম—যৎ সামান্য।
 তাহলে কি ‘কোম্পানি থিয়েটার’ নাম দিয়ে যে প্রফেশনাল থিয়েটারের কথা বলা হচ্ছে সেটাই সঠিক?
 না, একেবারেই তা নয়। কোম্পানি থিয়েটার করতে গেলে প্রথমে থিয়েটারকে একটা এসেনশিয়াল কমোডিটি করে তুলতে হবে। অর্থাৎ যে জিনিসটা ছাড়া মানুষ চলতে পারবে না। আমাদের দেশে থিয়েটার এখনও সেই স্থান নিতে পারেনি। বিদেশ কোথাও কোথাও হয়তো তা হয়েছে। তাছাড়া আরও একটা জিনিস সত্যি যে, সেই প্রাচীনকাল থেকেই থিয়েটার স্টেট স্পনসরড। প্রথমে রাজা-রাজড়াদের আনুকূল্যে চলত। তারপর জমিদাররা সেই জায়গা নিলেন। এখন চলে রাষ্ট্রের আনুকূল্যে। কিন্তু সমস্যা হল আমাদের দেশের নীতি নির্ধারকরা থিয়েটারকে কখনই সিরিয়াসলি নিলেন না। ইচ্ছে করেই এটা করা হল বা এখনও করা হচ্ছে। কারণ, থিয়েটারকে কখনও কন্ট্রোল করা যায় না। তাই সেনসরশিপের খাঁড়াটা সর্বপ্রথম নেমে আসে থিয়েটারের ওপরই। যুব সমাজকে থিয়েটার থেকে দূরে সরিয়ে রাখার চেষ্টা চলছে নানা ভাবে, নানা অছিলায়। কারণ থিয়েটারটা মানুষকে ভাবায়। আর ওরা ভাবতে দিতে চায় না। আমাদের রাজ্যেও তাই হয়েছে বারবার। কংগ্রেসি আমলে, বাম আমলে এবং এখন তৃণমূলের আমলেও তাই হচ্ছে। কেন্দ্রে মোদি সরকার আসার পর থেকে থিয়েটারের গ্রান্ট নিয়ে এত টালবাহনা শুরু হয়েছে যে আমার মনে হচ্ছে ২০১৯ সালে যদি মোদি ফের ক্ষমতায় আসেন তবে সমস্ত সিরিয়াস শিল্প চর্চাকেই বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা হবে। একমাত্র যারা ওদের হয়ে কথা বলবে তাদেরকেই ওরা টিঁকিয়ে রাখবে।
 তুলনামূলকভাবে আমাদের রাজ্যে নাটক নিয়ে সরকার বেশ দরাজ অবস্থান নিয়েছে। প্রয় ৩০০টার মতো দলকে বছরে ৫০ হাজার টাকা গ্রান্ট দেওয়া হচ্ছে...
 দাঁড়ান দাঁড়ান, এই প্রসঙ্গে একটু বলি। এই ৫০ হাজার টাকা গ্রান্ট দেওয়ার ব্যাপারটা কখন চালু হল মনে আছে আপনার? আকাদেমির সামনে বিমল বন্দ্যোপাধ্যায়কে মারা হল। যখন দলমত নির্বিশেষে ঘটনাটার নিন্দা করা উচিত ছিল। তা না করে তৈরি করা হল নাট্যস্বজন। এই নাট্যস্বজন ঠিক করতে শুরু করল কোন দল কোন ফেস্টিভ্যালে ডাক পাবে, কোন ফেস্টিভ্যালে ডাক পাবে না। সব বিষয়ে ডিকটেট করতে শুরু করল। সেই সময়ে এই ৫০ হাজার টাকার অনুদান ব্যাপারটা চালু করা হল এবং নাট্যস্বজনের অর্ন্তভুক্ত দলগুলিই তাতে অগ্রাধিকার পেল। ২০১২ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত এই অসহনীয় দমবন্ধ করা পরিস্থিতিটা চলেছিল। তারপর তো নিজেদের মধ্যেই ভাঙন ধরল। এখন বরং একটা নিশ্বাস ফেলার মতো পরিস্থিতি তাও হয়েছে। হ্যাঁ, যা বলছিলাম। প্রত্যেক সরকারই চায় একটা ঘেটো তৈরি করতে। নিজের অনুগতদের নিয়ে একটা বাহিনী। এটা বাম আমলেও ছিল। বুদ্ধদেববাবু যাঁদের শিল্পী বলে মনে কবতেন তাঁরাই সব ছিলেন। এই জমানাতেও তাই আছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় এসেই সমাজের প্রভাবশালী অংশকে কাছে টানার চেষ্টা করলেন এবং সফলও হলেন। শিল্পী, বুদ্ধিজীবী, সিনেমার স্টার, খেলোয়াড়—এঁদের। এঁদের দলে নেওয়ার সুবিধে হল, এঁরা সমাজকে প্রভাবিত করতে পারেন। এই প্রচেষ্টার অঙ্গ হল নাটকের দলগুলিকে গ্রান্ট দেওয়া। মনে করে দেখুন তখন কিন্তু পাড়ার ক্লাবগুলোকেও ২ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হচ্ছিল। একটা ছোট দল যদি বছরে ৫০ হাজার টাকা পায় তবে সে সরকার বিরোধী কোনও নাটক করবে? করতে সাহস পাবে? মুখ বন্ধ রাখবে। আমাদের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমি বাউল উৎসব, শিল্পমেলা, চলচ্চিত্র উৎসব এরকম নানা উৎসবে দেখতে পাই। কিন্তু ওঁকে কখনও নাট্যোৎসবে কিংবা নাট্য আকাদেমির পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে থাকতে দেখিনি। কারণ উনি নাটকের লোকদের বিশ্বাস করেন না। শুধু ওঁর ২১ জুলাইয়ের মঞ্চে ওঠেন যেমন দেবেশ-টেবেশ এমন দু-একজনকে ছাড়া।
 এই প্রসঙ্গে একটা কথা মনে পড়ে গেল। আপনি, দেবেশ, মনীশ, ব্রাত্য, সুমন, অর্পিতা এঁরা কিন্তু একসময়ে পরস্পরের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিলেন। সেই ঘনিষ্ঠতাটা কিন্তু আর নেই। কেন?
 রাজনৈতিক কারণে। দেখুন স্বপ্নসন্ধানীর উৎসবে আমরা কয়েকটা ছবির প্যানেল করেছিলাম। একটা প্যানেলে ছিল ‘যাঁরা আমাদের ঋদ্ধ করেছেন’ এই শিরোনামে শঙ্খ ঘোষ, সৌমিত্রদা, রুদ্রদা, বিভাসদাদের ছবি। আর একটা প্যানেলে ‘যাঁরা আমাদের উৎসাহিত করেছেন’ এই শিরোনামে দেবেশ, মনীশ, ব্রাত্য, সুমন, অর্পিতা, গৌতম এঁদের ছবি। এবং আমার স্বীকার করতে এতটুকুও দ্বিধা নেই যে যে যদি ব্রাত্যর অশালীন কিংবা গৌতম হালদারের মেঘনাদ বধ কাব্য না দেখতাম তবে নাটকের টেক্সট যে এমন হতে পারে তার কোনও ধারণাই হত না আমার। সেক্ষেত্রে প্রথম পার্থ নাটকটাই তৈরি হত না। এছাড়া বারেবারে উইংকল টুইংকল, শেষ রূপকথা, পশু খামারের মতো নাটকগুলো আমাকে অনুপ্রাণীত করেছে নতুন করে ভাবতে। কিন্তু অদ্ভুত বিষয় হল, একটা সময়ে এমনও হয়েছে যে একটি খবরের কাগজে শেখর সমাদ্দার, দেবেশ, মনীশ এঁরা লাগাতার কখনও শঙ্খ ঘোষ, কখনও সৌমিত্রদা, কখনও আমার আবার কখনও সুমনের বিরুদ্ধে লিখে গিয়েছেন। লিখতেই পারেন আমার বিরুদ্ধে। কিন্তু তাই বলে ওই ভাষায়! সেই কাগজগুলো আমার কাছে রয়েছে। আমার ধারণা এর পিছনে তৃণমূলের কোনও নেতার, যিনি নাটকের সঙ্গে যুক্ত—তাঁর ইন্ধন ছিল।
 এখন আপনার সঙ্গে এঁদের সম্পর্ক কেমন?
 আমি তো ব্রাত্যর ‘মুম্বই নাইটস’ দেখতে গিয়েছিলাম, ব্রাত্যও এসেছিল আমার ‘অ্যান্টিগোনি’ দেখতে। অর্পিতার ‘মাছি’ দেখতে গিয়েওে দেরি হওয়ায় ফিরে এসেছি। আমার নতুন নাটক অশ্বথামা আর নির্ভয়া দেখতে নিমন্ত্রণ জানিয়েছি ওঁদের। আর তাছাড়া থিয়েটারের কথা কী বলব। আমাদের দেশে এখন বাক-স্বাধীনতাটাই নেই। একজন মেয়ের ‘না’ বলার অধিকার এখনও আমাদের সমাজে স্বীকৃত নয়—তার বিয়ে, পড়াশুনো, প্রেম কোনওটাই ‘অভিভাবক’-এর সম্মতি ছাড়া হবে না। সমাজকে আমরা সেভাবে গড়ে তুলতেই পারিনি। থিয়েটার তো দূরস্থান।
13th  August, 2017
লাইক কমেন্ট শেয়ার

এখন সোস্যাল মিডিয়ার যুগ চলছে। সংবাদপত্র, সংবাদ চ্যানেলের থেকেও শক্তিশালী মাধ্যম হল ফেসবুক আর ট্যুইটার। সেই সোস্যাল মিডিয়ার পটভূমিতেই নাট্যদল ঐহিকের নতুন প্রযোজনা ‘লাইক কমেন্ট শেয়ার’।
বিশদ

13th  August, 2017
নেপথ্যে যারা

‘অভিনয়ে আগ্রহী এবং অভিনয়ে অনাগ্রহীরা আবেদন করুন।’
তারপর ছিল একটা ঠিকানা। থিয়েটার দলের নাম ‘ব্রাত্যজন’।
২০০৯ সালের শেষের দিক। একটা কাগজে এই বিজ্ঞাপনটা নজরে এল। কী করব? মনের মধ্যে প্রশ্নটা ঘুরছিল।
বিশদ

13th  August, 2017
 মন সারানি

  মন্দিরপ্রাঙ্গণে ধর্মগুরু বা পুরোহিতের সাথে এক নিম্নবর্গীয় সমাজ সংস্কারকের অন্তর্দ্বন্দের পরিপ্রেক্ষিতে ‘মন সারানি’ নাটকের ঘটনাক্রম চলতে থাকে। ধর্মগুরুরা চায় সমাজকে কুসংস্কারাচ্ছন্ন রেখে মানুষকে তাঁদের অঙ্গুলি হেলনে পরিচালনা করতে।
বিশদ

06th  August, 2017
 প্রেমের প্রকারভেদ

 প্রেম কয় প্রকার ও কী কী? যদি কাউকে এই প্রশ্ন করা হয় তবে উত্তর দেওয়ার আগে তাকে নিশ্চয়ই খানিক্ষণ মাথা চুলকোতে হবে। কারণ উত্তরটা নিশ্চিত সহজ নয়। সহজ যে নয় তা বোঝা গেল অযান্ত্রিক নাট্য সংস্থার সাম্প্রতিক প্রযোজনা ‘নিকষিত হেম কুল কুল প্রেম’ নাটকের মহলা দেখতে দেখতে।
বিশদ

06th  August, 2017
  নিয়তির নিঠুর খেলা—অয়দিপাউস

 আকর্ষণীয় এই চরিত্রটিকে নিয়ে বহুবার বহুভাবে মঞ্চস্থ হয়েছে বিভিন্ন নাটক। সম্প্রতি নববারাকপুর কোরাস এই গ্রিক ট্র্যাজেডিকে ভিত্তি করে মঞ্চস্থ করল ‘অয়দিপাউস এবং নিয়তি’ নামে একটি সাহসী নাটক। প্রযোজনাটি প্রশংসনীয়।
বিশদ

06th  August, 2017
আঁধার ঘেরা অচিন জগৎ

 কয়লাখনির গভীরে নানা বিপদ। পদে পদে মৃত্যুভয়। বঞ্চনা আর শোষন। তবু তারই মধ্যে ধেলা করে নানা মনাবিক অনুভূতি। জন্ম নেয় প্রতিবাদ। এমিল জোলার জার্মিনাল অবলম্বনে গোবরডাঙা শিল্পায়নের নতুন নাটক দেখে এলেন শিবানন্দ মুখোপাধ্যায়। বিশদ

06th  August, 2017
 মানুষের সঙ্গে মানুষের নির্বিষ সম্পর্ক মজবুত করার আহ্বান

আশ্চর্য মানুষ। আশ্চর্যে ভরা মানুষের জীবন। তাই তো বুক দিয়ে আগলে রাখা আপন মানুষগুলো যখন স্বার্থান্বেষী হয়ে বিশ্বাসঘাতকের ভূমিকা পালন করে তখন সাধের জীবনটাই যেন বিবর্ণ হয়ে যায়, বেঁচে থাকার ইচ্ছেটাও চলে যায়। বেলঘরিয়া থিয়েটার আকাদেমি প্রযোজিত ‘বিষ’ নাটকটি এমনই এক বিষম বার্তা দিয়ে বোঝাতে চেয়েছে মানুষের পারস্পরিক সম্পর্ক নির্বিষ হওয়া অত্যন্ত জরুরি। বিশদ

06th  August, 2017
নীতিকা স্মারক বক্তৃতা : বক্তা বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত

  ডি আই-এর চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি ডক্টরেট করেন। বিষয় ছিল উনবিংশ শতাব্দীর লিরিক কবিরা। তারপর শান্তিনিকেতনে সাঁওতাল পরিবারের ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া শেখানোর উদ্দেশে খোলেন একটি স্কুল। সেই স্কুল চালানোর ফাঁকে ফাঁকে বেশ কিছু হিন্দি ছোট গল্পের অনুবাদ করেন।
বিশদ

30th  July, 2017
  আনন্দময় এক নাট্য কর্মশালা

 স্বনামধন্য মৈথিলী কবি ও নাট্য ব্যক্তিত্ব বিভারানির তত্ত্বাবধানে গত ১৭ ও ১৮ ই জুন দু’দিন ব্যাপী একটি অভিনব প্রযোজনাকেন্দ্রিক নাট্য কর্মশালা সংগঠিত হয়ে গেল যাদবপুর চিত্তরঞ্জন কলোনির বকুল দত্ত সভাঘরেl মুম্বই শহরে তাঁর অভিতোকো রুম থিয়েটার নামে যে প্রতিষ্ঠানটি রয়েছে, সূচিত হল সেই রুম থিয়েটারের কলকাতা অধ্যায়l বাদল সরকারের থার্ড থিয়েটারের মতো এও যেন মঞ্চের বাইরে মানুষের আরও কাছে থিয়েটারকে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগl শুধু নাটক নয় আবৃত্তি, গান এমনকি আঁকাও কীভাবে হয়ে উঠতে পারে একটি পারফর্মিং আর্ট এবং কীভাবে আরও বেশি করে পৌঁছে যাওয়া যেতে পারে দর্শকের কাছে এই কর্মশালায় সেই ভাবনা নিয়েই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছেl বিশদ

30th  July, 2017
অর্ধেক আকাশ

 সম্প্রতি যাদবপুর মন্থন তাদের জন্মদিন উপলক্ষে মঞ্চস্থ করল নাটক ‘অর্ধেক আকাশ’। দলটি নিজে, দলের পরিচালক এবং নাট্যকার সকলেই বয়সে তরুণ। কিন্তু তাদের নাটক উপস্থাপনায় বেশ গুরুগম্ভীর ভাব রয়েছে। যদিও নাটকের বিষয়টি বহু পুরোনো এবং সাম্প্রতিককালে বহুচর্চিত, তবে বাংলা নাট্যজগতে সম্ভবত প্রথম।
বিশদ

30th  July, 2017
  চেতনার খেয়ায় নন্দন গ্রুপ

 সম্প্রতি নন্দন গ্রুপ নাট্যগোষ্ঠীর প্রযোজনায় মুক্তাঙ্গন রঙ্গালয়ে মঞ্চস্থ হল দুটি একাঙ্ক নাটক ‘শেষ খেয়া’ ও ‘চেতনা চৈতন্য’। দীর্ঘ জীবনে কত মানুষের সান্নিধ্যে আমরা আসি, কেউ বছরের পর বছর পরিচিত হয়েও অচেনা থেকে যান। কেউ বা খুব স্বল্প পরিচয়েই হয়ে ওঠেন আপন। মানুষের ব্যবহারই তার পরিচয় হয়ে ওঠে।
বিশদ

30th  July, 2017



একনজরে
 ওয়াশিংটন, ১৬ এপ্রিল: চলতি বছরসহ আগামী ২০১৮ সালে এশিয়ার উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলির মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি সাড়ে ৬ শতাংশ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। একই সময়ে বিশ্ব অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি সাড়ে ৩ শতাংশের আশপাশে থাকবে বলে ধারণা ...

 ওয়াশিংটন, ১৬ এপ্রিল: এ যাবৎকালের সবচেয়ে বড় অঙ্কের অর্থ দানের কথা ঘোষণা করলেন মাইক্রোসফট করপোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। নিজের মোট সম্পদের ৫ শতাংশ দান করলেন ...

 বিমল বন্দ্যোপাধ্যায়, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: বিষ্ণুপুরের সারদা গার্ডেনে সুদীপ্ত সেনের কয়েকশো বিঘা বেনামি সম্পত্তি হাতানোর সিন্ডিকেট চক্রের বিরুদ্ধে মুখ খোলার জেরে আক্রান্ত হয়েছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার এক অফিসার। কলেজ পড়ুয়া তাঁর ছেলেকেও মারধর করা হয়েছে। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সম্প্রতি দুর্গাপুর পুরসভা নির্বাচনে নিরাপত্তার প্রশাসনিক আশ্বাস সত্ত্বেও ব্যাপক হাঙ্গামা হয়েছে। ভোট লুট হয়েছে। পুলিশ মার খেয়েছে। নির্বাচন কমিশন ভোট চলাকালীন অভিযোগ জানানোর রাস্তা বন্ধ রেখেছিল। ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সঠিক বন্ধু নির্বাচন আবশ্যক। কর্মরতদের ক্ষেত্রে শুভ। বদলির কোনও সম্ভাবনা এই মুহূর্তে নেই। শেয়ার বা ... বিশদ



ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩২: ব্রিটিশ সাহিত্যিক ভি এস নাইপলের জন্ম
১৯৮৮: দুর্ঘটনায় মৃত পাক প্রেসিডেন্ট মহম্মদ জিয়া-উল-হক
২০০৮: ওলিম্পিকসে আটটি সোনা জিতে রেকর্ড মার্কিন সাঁতারু মাইকেল ফেল্পসের


ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.৪৫ টাকা ৬৫.১৩ টাকা
পাউন্ড ৮১.৩৭ টাকা ৮৪.১৮ টাকা
ইউরো ৭৪.০৮ টাকা ৭৬.৬৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,১৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৭,৬৭৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৮,০৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩২ শ্রাবণ, ১৭ আগস্ট, বৃহস্পতিবার, দশমী দিবা ১২/৪৩, মৃগশিরানক্ষত্র রাত্রি ১০/৫৯, সূ উ ৫/১৭/৫১, অ ৬/৩/৩৯, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪৮-৩/৩, বারবেলা ২/৫২-অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৪১-১/৫।
 ৩১ শ্রাবণ, ১৭ আগস্ট, বৃহস্পতিবার, দশমী ১০/৫৫/৫২, মৃগশিরানক্ষত্র রাত্রি ১০/২৩/৫৭, সূ উ ৫/১৫/৩৩, অ ৬/৫/২৫, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪৭/৩০-৩/১/৩১, বারবেলা ৪/২৯/১১-৬/৫/২৫, কালবেলা ২/৫২/৫৭-৪/২৯/১১, কালরাত্রি ১১/৪০/২৯-১/৪/১৫।
২৪ জেল্কদ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
  খানাকুলে বৃষ্টির জমা জল নামতেই উদ্ধার কঙ্কাল, চাঞ্চল্য
আরামবাগের খানাকুলের সবলসিংহপুর এলাকায় বৃষ্টির জমা জল নামতেই এক অপরিচিত মহিলার কঙ্কাল উদ্ধার হয়েছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

05:44:00 PM

এবার চড়াম চড়াম করে জয়ঢাক বাজবে পঞ্চায়েতেও: অনুব্রত

 আজ নলহাটিতে ১নং ওয়ার্ড ও ৮ নং ওয়ার্ডে তৃণমূলের পরাজয়ের পর, হারের কারণ অনুসন্ধান করতে এসে অনুব্রত মন্ডল মৎসমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা ও পরিকল্পনা তদারকি ও পরিসংখ্যান দপ্তরের মন্ত্রী আশিষ বন্দ্যোপাধ্যায়সহ আরও দুই তৃণমূল নেতার দায়িত্ব পালনে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি জানান, ওঁদের উপর পুরো দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়াটা ভুল হয়েছলি, ওঁদের এতটা বিশ্বাস করাটাও ভুল হয়েছিল। এবার থেকে সব বিষয়টা তিনি নি঩জেই দেখবেন বলেও জানান। পাশাপাশি এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে পঞ্চায়েত দখলের ডাকও দেন অনুব্রতবাবু। তিনি বলেন, এবার পঞ্চায়েতও চড়াম চড়াম করে জয়ঢাক বাজবে।

05:20:10 PM

এই জয় মানুষের জয়: মুখ্যমন্ত্রীর

 মানুষের জয়, যারা তৃতীয় ও চতুর্থ হওয়ার জন্য লম্ফ-ঝম্ফ করেছিল, আমি দেখলাম তারা ০.১% ভোট পেয়েছে। মানুষকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আজ ৭ পুরসভা জয়ের পর এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

05:13:08 PM

উত্তরবঙ্গে দুর্গতদের উদ্ধারে ন্যায্যমূল্যে বিমান সংখ্যা বাড়ানোর আর্জি কেন্দ্রকে

 যেহেতু উত্তরবঙ্গের সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের সড়ক ও রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, সেই সুযোগে বেশিরভাগ বিমান সংস্থা তাদের ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে রাজ্যের মুখ্যসচিব কেন্দ্রকে এই দুর্যোগের সময় দুর্গতদের উদ্ধারে ন্যায্য মূল্যে বিমানের সংখ্যা বাড়াতে অনুরোধ জানিয়েছে।

05:06:00 PM

মদন তামাং হত্যা মামালা: গুরুংকে অব্যহতি

 মদন তামাং হত্যা মামলায় বিমল গুরুংয়ের বিরুদ্ধে কোনও তথ্য প্রমানাদি না মেলায় তাঁকে এই মামলা থেকে অব্যহতি দিল বিশেষ আদালত

05:02:00 PM

 দুর্গাপুরে পুরভোটে তৃণমূল ৭৬.২৬%, বামফ্রন্ট ১২.৩%, বিজেপি ৭.৮৯%, কংগ্রেস ২.৫৩% এবং নির্দল ০.৯% ভোট পেয়েছে

04:39:00 PM