Bartaman Patrika
রঙ্গভূমি
 

বাংলা থিয়েটারকে জাতে তুলেছিলেন রামকৃষ্ণ

তখন বাংলা থিয়েটারের অভিনেত্রীরা আসতেন পতিতালয় থেকে। ফলে সাধারণ মানুষ থিয়েটারে আসা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। বাংলা থিয়েটার সমাজে অপাংক্তেয় হয়ে পড়েছিল। সেখান থেকে থিয়েটারকে জাতে তোলেন রামকৃষ্ণ পরমহংস। কীভাবে, তা লিখেছেন ডা. শঙ্কর ঘোষ।

দিনটি ছিল ১৮৮৪ সালের ২১ সেপ্টেম্বর রবিবার। স্টার থিয়েটারে ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণদেব সপার্ষদ গিরিশচন্দ্রের ‘চৈতন্যলীলা’ নাটক দেখতে এসেছেন। হাতিবাগানের মুখে যে স্টার থিয়েটার আমরা দেখি, এই স্টার থিয়েটার সেটি নয়। এর ঠিকানা ছিল ৬৮ নম্বর বিডন স্ট্রিট। বর্তমান সেন্ট্রাল এভিনিউ ও বিডন স্ট্রিটের উত্তরদিকের সংযোগস্থলে এই মঞ্চটি ছিল। এখন সেখান দিয়ে সেন্ট্রাল এভিনিউ’র রাস্তা চলে গেছে। দক্ষিণেশ্বর থেকে এসে উঠেছিলেন মহেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়ের বাড়িতে। সেখান থেকে স্টার থিয়েটারে। এই প্রসঙ্গে গিরিশচন্দ্রের আত্মজীবনীতে যে তথ্য পাই, ‘চৈতন্যলীলা হইতেছে, আমি থিয়েটারের বাহিরের Compund-এ বেড়াইতেছি, এমন সময়ে মহেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় নামক একজন ভক্ত আমায় বলিলেন, ‘পরমহংস থিয়েটার দেখিতে আসিয়াছেন, তাঁহাকে বসিতে দাও ভাল, নচেৎ টিকিট কিনিতেছি।’ আমি বলিলাম, ‘তাঁহার টিকিট লাগিবে না, কিন্তু অপরের টিকিট লাগিবে’। এই বলিয়া তাঁহাকে অভ্যর্থনা করিতে অগ্রসর হইতেছি, দেখিলাম, তিনি গাড়ী হইতে নামিয়া থিয়েটারের Compound মধ্যে প্রবেশ করিয়াছেন; আমি না নমস্কার করিতে করিতে তিনি অগ্রে নমস্কার করিলেন, আমি নমস্কার করিলাম, পুনর্বার তিনিও নমস্কার করিলেন, আমি আবার নমস্কার করিলাম, পুনর্বার তিনিও নমস্কার করিলেন। আমি ভাবিলাম, এই রূপই তো দেখিতেছি চলিবে। আমি মনে মনে নমস্কার করিয়া তাঁহাকে উপরে লইয়া আসিয়া একটি Box-এ বসাইলাম ও একজন পাখাওয়ালা নিযুক্ত করিয়া দিয়া শরীরের অসুস্থতা বশতঃ বাড়ি চলিয়া আসিলাম।’
থিয়েটার শুরু হল। ঠাকুর নাটক দেখতে দেখতে প্রায়ই ভাবসমাধিস্থ হয়ে পড়ছেন। থিয়েটার শেষের পর ভক্তেরা ঠাকুরকে নিয়ে গেলেন মঞ্চের পাশে অফিসঘরে। জনৈক ভক্ত জিজ্ঞাসা করলেন,‘কেমন লাগল নাটক?’ ঠাকুর জবাব দিলেন, ‘আসল নকল সব এক হয়ে গেছে।’ একে একে সবাই ঠাকুরকে প্রণাম করতে এলেন। চৈতন্যলীলার চৈতন্যরূপিণী নটী বিনোদিনী যখন এসে দাঁড়ালেন, ঠাকুর তাঁর পায়ের ওপর পড়তে যাচ্ছিলেন, ভক্তেরা অবশ্য ঠাকুরকে ধরে ফেলেছিলেন। বিনোদিনী তাঁকে প্রণাম করতেই ঠাকুর আশীর্বাদ করে বললেন, ‘মা তোর চৈতন্য হোক।’ মাথায় হাত দিয়ে বললেন, ‘বল মা, হরি গুরু, গুরু হরি।’
এমন অভিনব ঘটনার গুরুত্ব উপলব্ধি করতে হবে। কারণ সেই সময়ে কোনও ভদ্রঘরের মেয়েরা থিয়েটার পাড়ায় এসে অভিনয় করেননি। সকল অভিনেত্রীরাই এসেছেন নিষিদ্ধপল্লি থেকে। সাধারণ রঙ্গমঞ্চের প্রথম দিকে পুরুষেরাই নারী চরিত্রগুলিতে অভিনয় করতেন। মধুসূদন দত্তের পরামর্শে বেঙ্গল থিয়েটারেই প্রথম নারী চরিত্রে অভিনেত্রীদের প্রবেশ ঘটে। যখন ভদ্রঘরের মেয়ে পাওয়াই যাবে না তখন পতিতালয় থেকেই অভিনেত্রীদের আনা হতো। ফলে সেদিন থেকে ভদ্র শিক্ষিত সমাজ থিয়েটারের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক চুকিয়ে দিলেন। এমনকী থিয়েটারের নটেরা পর্যন্ত সমাজে অপাংক্তেয় হয়ে পড়লেন। এখানেই শেষ নয় কেশবচন্দ্র সেনের ‘সুলভ সমাচার’ পত্রিকার ১২৮১ বঙ্গাব্দের ১ পৌষ সংখ্যায় লেখা হল; ‘যাত্রার পরিবর্তে নাটক অভিনীত হইতে দেখিয়া আমরা মনে করিয়াছিলাম যে এতদিনের পর বিশুদ্ধ আমোদ আস্বাদ করিবার উপায় হইল। কিন্তু সে আশায় ছাই পড়িল। বেশ্যাদ্বারা অভিনয় করাইলে, নাট্যমন্দির আর বিশুদ্ধ আমোদের স্থল রহিল না।’ শুধু কি তাই ঠাকুরের খুব কাছের মানুষ রামচন্দ্র দত্ত ঠাকুরের সর্বক্ষণের সঙ্গী থাকলেও, থিয়েটারের যাননি, অশুচিতার ভয়ে। রাস্তার যে ফুটপাতে থিয়েটার আছে, সে ফুটপাত দিয়ে হাঁটতেন না স্বয়ং নরেন্দ্রনাথ। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, যিনি নারীর কল্যাণ কর্মে সমগ্র জীবন উৎসর্গ করেছিলেন, তিনিও থিয়েটারের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ত্যাগ করলেন এই অপরাধের জন্য।
সেই ভয়ঙ্কর পরিবেশে ঠাকুর এলেন, দেখলেন, আশীর্বাদ করলেন বিষবৃক্ষের বীজ যে অভিনেত্রী সম্প্রদায় তাঁদের একজনের মাথায় হাত রেখে। মহাপ্রভুর ভূমিকায় নটী বিনোদিনীর অন্তর আলোড়নকারী অভূতপূর্ব ভাবদ্যোতক সাত্ত্বিক অভিনয় ঠাকুরকে এতখানি অভিভূত ও আত্মহারা করে তুলেছিল যে, তাৎক্ষণিক মুহূর্তে ঠাকুরের দৃষ্টিতে আসল-নকল সব এক হয়ে গিয়েছে। শুধু গিরিশচন্দ্র ঘোষ কেন, বঙ্গ রঙ্গমঞ্চেরই পরমপ্রাপ্তি ঘটেছে এই ‘চৈতন্যলীলা’ নাটক থেকে। ঠাকুর সেদিন বিনোদিনীকে যে আশীর্বাদ করেছিলেন তা বিশেষ এক শিল্পীর প্রতি নয়, নবজাত রঙ্গমঞ্চেরই প্রতি গুরুর অসীম আশীর্বাদ। ভদ্র সমাজের, বিশেষ করে ব্রাহ্ম সমাজের ঘৃণায় জর্জরিত শিল্পীকুল সেই আশীর্বাণী থেকে আপন কর্তব্য ও অধিকারের নির্দেশ খুঁজে পেয়েছেন। এই শিল্পীরা যে সমাজেরই অবিভাজ্য অংশ এবং সমাজের কল্যাণ সাধনে লোকশিক্ষা দানের মাধ্যম রূপে নাটকের ভূমিকা সম্পর্কে তাঁদের দায়িত্ব সম্বন্ধে সচেতন হয়ে উঠেছেন। তাই তো শিল্পীকুল অপরিসীম শ্রদ্ধায় ঠাকুরকে গ্রহণ করেছেন মঞ্চের গুরুরূপে, দেবতারূপে। এই পরিপ্রেক্ষিতে গিরিশচন্দ্রের ‘চৈতন্যলীলা’ নাটকের অভিনয় সেইসব নীতিবাগিশ সমাজপতিদের যোগ্য প্রত্যুত্তরই দিয়েছে। শিল্পী তিনি যে সমাজভুক্তই হোন না কেন, অভিনয়ের ক্ষেত্রে তাঁর নৈপুণ্যই মোদ্দা কথা। তাই নিঃসন্দেহে বলা চলে বঙ্গ রঙ্গমঞ্চেরই ইতিহাসে ‘চৈতন্যলীলা’ এক নব অধ্যায়ের সূচনা করেছিল।
ঠাকুর দেহ রাখার পর রামচন্দ্র দত্ত স্থাপিত যোগোদ্যান তাঁর অস্থি প্রতিষ্ঠার দিন শোভাযাত্রার পুরোভাগে এসে দাঁড়িয়েছিলেন অভিনেত্রী সমাজ। তাঁরা উদার কণ্ঠে গেয়েছিলেন ‘চৈতন্যলালী’ নাটকের গান; ‘হরি মন মজায়ে লুকালে কোথায়’। ব্রাহ্মসমাজ প্রভাবিত গোঁড়ামি থেকে মুক্ত হয়ে নরেন্দ্রনাথ দেখতে গিয়েছিলেন ‘চৈতন্যলীলা’। তাঁর কণ্ঠে তখন ‘চৈতন্যলীলা’ নাটকেরই গান; ‘রাধা বই আর নেইকো আমার রাধা বলে বাজাই বাঁশী।
মানের দায়ে সেজে যোগী
মেখেছি গায় ভস্মরাশি।’
রঙ্গমঞ্চের বদ্ধ পরিবেশ থেকে ‘চৈতন্যলীলা’র গান ছড়িয়ে গেছে বাংলাদেশের পথে প্রান্তরে। ভাবতে অবাক লাগে সামান্য একটি নাটকের ভাব প্রেরণা কতভাবে কত মানুষের অন্তরে বৈরাগ্যের দীপ জ্বালাতে সক্ষম হয়েছিল।
শ্রীরামকৃষ্ণ ৬৮ নম্বর বিডন স্ট্রিটের স্টার থিয়েটারে যে নাটকগুলি দেখেছেন সেগুলি হল চৈতন্যলীলা, প্রহ্লাদচরিত, নিমাই সন্ন্যাস, দক্ষযজ্ঞ, বৃষকেতু ও বিবাহ বিভ্রাট। প্রথম পাঁচটি গিরিশচন্দ্রের লেখা, শেষেরটি রসরাজ অমৃতলাল বসু’র লেখা। যে বিনোদিনীকে তিনি প্রাণ ভরে আশীর্বাদ করেছেন, উপরিউক্ত নাটকগুলির সবক’টিতে তিনি অভিনয় করেছেন; ‘চৈতন্যলীলা’য় নিমাই, ‘প্রহ্লাদচরিতে’ প্রহ্লাদ, ‘নিমাই সন্ন্যাসে’ চৈতন্য, ‘দক্ষযজ্ঞে’ সতী, ‘বৃষকেতু’তে পদ্মাবতী, ‘বিবাহ বিভ্রাটে’ (বিলাসিনী কারফরমা)। ‘প্রহ্লাদচরিত’ দেখতে এসে ঠাকুর গিরিশকে বলছেন; ‘বা! তুমি বেশ লিখেছে না!’ গিরিশ প্রত্যুত্তরে বললেন, ‘মহাশয়, ধারণা কই? শুধু লিখে গেছি।’ ঠাকুর বললেন, ‘না, তোমার ধারণা আছে। সেই দিন তো তোমায় বললাম ভিতরে ভক্তি না থাকলে চালচিত্র আঁকা যায় না।’ অভিনয় যে লোকশিক্ষার প্রধান বাহন, একথা ঠাকুর মনেপ্রাণে বিশ্বাস করতেন, মানতেন। অভিনয়ে একসঙ্গে অনেক মানুষকে উদ্দীপিত করে তোলা যায়। গিরিশচন্দ্র রঙ্গমঞ্চের সঙ্গে সারাজীবন যুক্ত থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে লোকশিক্ষা বিতরণ করুক, ঠাকুর সর্বদা সে সম্বন্ধে গিরিশচন্দ্রকে উৎসাহ দিয়েছেন। গিরিশ একবার বললে; ‘মনে হয়, থিয়েটারগুলো আর করা কেন।’ বাধা দিয়ে শ্রীরামকৃষ্ণ বলেছিলেন, ‘না না, ও থাক, ওতে লোকশিক্ষা হবে।’ গিরিশচন্দ্রের কাছে ঠাকুর হয়ে উঠেছিলেন অবতার পুরুষ। একদিন ঠাকুরই গিরিশকে প্রশ্ন করেছিলেন, ‘তুমি আমার মধ্যে কি দেখেছ?’ গিরিশচন্দ্র নতমস্তষ্ককে করজোড়ে বলেছিলেন, ‘ব্যাস বাল্মীকি যাঁর ইয়ত্তা করতে পারেননি, আমি তাঁর কী বলতে পারি?’ এই অচল অটল বিশ্বাসে বিশ্বাসী ছিলেন মহাকবি গিরিশচন্দ্র। গিরিশচন্দ্র আরও অভিভূত এই কারণে যে, যে অভিনেত্রী সমাজ হীন, ঘৃণিত ছিলেন, পতিতপাবন তাঁদেরই একজনকে শ্রীচরণে স্থান দিয়েছেন। গিরিশচন্দ্রের স্বীকারোক্তির উল্লেখ করি,’ অনেকে আজীবন তপস্যা করিয়া যে মহাফললাভে অসমর্থ হয়, সেই চতুর্বর্গ ফলস্বরূপ শ্রীশ্রীপরমহংসদেবের পাদপদ্ম বিনোদিনী লাভ করিয়াছে।’
08th  June, 2019
তাপসদাকে আজ
বড় প্রয়োজন ছিল

তাঁকে বলা হত আলোর জাদুকর। আলোকশিল্পী হিসেবে বিশ্বজোড়া তাঁর খ্যাতি। গত ১১ সেপ্টেম্বর ছিল সেই প্রয়াত তাপস সেনের জন্মদিন। তাঁকে কাছ থেকে দেখার সুবাদে স্মৃতিচারণ করলেন প্রকাশ ভট্টাচার্য। বিশদ

14th  September, 2019
বাংলা থিয়েটার
এখন কাগুজে বাঘ

 আজকের বাংলা থিয়েটারে ব্যস্ততম অভিনেতার নাম প্রসেনজিৎ বর্ধন। তাঁর সঙ্গে কথোপকথনে শুভঙ্কর গুহ। বিশদ

14th  September, 2019
বাবলীর বাবা কি শুধু পথের কাঁটা
আকাশবাণী’র ‘কালো মেয়ের রাঙা চরণ

 জন মনোরঞ্জনে জনতার আদালতে চৌখস পালা নিয়ে হাজির হচ্ছে সোনার বাংলা যাত্রা সংস্থা। সঞ্জীব দলুই ও সঞ্জীব ভট্টাচার্য প্রযোজিত এই অপেরার পালার নাম ‘বাবা কি শুধু পথের কাঁটা’। নামটাই জানান দিচ্ছে বর্তমান সমাজ সংসার আর সিস্টেমকে ঘিরে অত্যন্ত বাস্তবমুখী এই পালা। বিশদ

14th  September, 2019
প্রতিমাসে বাংলা নাটকের মেলা 

গত ৪ সেপ্টেম্বর থেকে তৃপ্তি মিত্র নাট্যগৃহে শুরু হয়েছে বাংলা নাটকের মেলা। আয়োজক বোড়াই ইতি থিয়েটার। সঙ্গে রয়েছে কালিন্দী নাট্যসৃজন, বাঘাযতীন আলাপ, সবুজ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, সরস্বতী কলামন্দির, কোলকাতা নাট্যসেনা সহ বাংলার মোট ২৫টি নাট্যদল।  বিশদ

07th  September, 2019
অশনির নিয়মিত অভিনয়ের একযুগ 

একযুগ আগে নিয়মিত নাটক অভিনয়ের বাসনা নিয়ে একটি উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল গড়িয়ার অশনি নাট্যম সংস্থা। সেটা ছিল ২০০৭ সালের অক্টোবর মাস। গড়িয়া স্টেশন সংলগ্ন অঞ্চলের চার-পাঁচটি সমমনস্ক দলকে সঙ্গী করে কলকাতার হাজরা মোড়ের সুজাতা সদনে শুরু হয়েছিল নিয়মিত নাট্য অভিনয়।  বিশদ

07th  September, 2019
অঙ্গন ৩৩ ও ব্রাত্য বসু 

বেলঘরিয়ার অঙ্গন নাট্যদল ৩৩ বছরে পা দিল। এই উপলক্ষে নাট্যদলটির সাম্প্রতিক নাটক ‘টম অ্যান্ড জেরি’-র একটি বিশেষ প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়েছিল অ্যাকডেমি মঞ্চে। নাটকের আগে সংবর্ধনা জানানো হয় ব্রাত্য বসুকে।   বিশদ

07th  September, 2019
ধর্মের মিথ্যা বুলি আউড়ে আজও
মানুষে মানুষে দ্বন্দ্ব লাগানো হয় 

বহুবার, বিভিন্ন সময়ে মঞ্চস্থ হওয়া রবীন্দ্রনাথের ‘বিসর্জন’-কে আবার মঞ্চে ফিরিয়ে আনল ‘থেসপিয়ানস’ নাট্য সংস্থা। বহু চর্চিত, আলোচিত, এই নাটকের বিষয়। এই সময়ে দাঁড়িয়ে নাটকটির প্রাসঙ্গিকতাকে নতুন করে উপলব্ধির পথটা করে দিল থেসপিয়ানস।   বিশদ

07th  September, 2019
রাজনীতি, মূল্যবোধ পেশ হল হাসির মোড়কে 

বৃক্ক, অর্থাৎ কিডনি। মানবশরীরের একজোড়া গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এই কিডনিকে কেন্দ্রে রেখে সামাজিক ক্ষয়িষ্ণুতা, মূল্যবোধ এবং সম্পর্কের প্রেক্ষাপটে এক মজার নাটক ‘বিষবৃক্ক’। ‘সমকালীন সংস্কৃতি’র নতুন প্রযোজনা।   বিশদ

07th  September, 2019
যাত্রায় নতুন প্রজন্ম তৈরি করেছিলেন মোহিত বিশ্বাস 

যাত্রা ছিল তাঁর কাছে ধর্মের মতো। লিখেছেন সন্দীপন বিশ্বাস  বিশদ

07th  September, 2019
রাষ্ট্রের স্বৈরাচার, ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি,
নাগরিকপঞ্জি, সর্বোপরি নারীমুক্তি এককথায় মেদেয়া 

৪৩১ খ্রিষ্ট পূর্বাব্দে ইউরিপিডিস ‘মেদেয়া’র নাট্যরূপ দিয়েছিলেন। মেদেয়া এমন এক নারী, যে পুরুযাশিত সমাজে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য কখনও সমাজের বিরুদ্ধাচারণ করেছে, কখনও নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য হত্যা করতে পিছপা হয়নি। তার বিরুদ্ধে কোনও অন্যায় সহজে মেনে নেয়নি।  
বিশদ

31st  August, 2019
শেক্সপিয়র থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল 

আগামী ১৪ ও ১৫ সেপ্টেম্বর কলামন্দির প্রেক্ষাগৃহে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে গুঞ্জন’স শেক্সপিয়র থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল। প্রথমদিন সন্ধে সাতটার সময়ে মঞ্চস্থ হবে ‘ম্যাকবেথ’।
পরদিন সন্ধে ছ’টায় ‘অ্যাজ ইউ লাইট ইট’।  
বিশদ

31st  August, 2019
কুড়ি কুড়ি বছরের পার 

কুড়ি সংখ্যাটা কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনেক কম শোনায়, আবার কিছু ক্ষেত্রে অনেক বেশি।একটা ছেলে বা মেয়ের বয়স যদি কুড়ি বলা হয় তো আমরা তাকে নেহাত কমবয়সীই বলি, কিন্তু যখন একটা নাট্যদলের বয়স কুড়ি বলি, কী অদ্ভুতভাবে একটা যাপন ভেসে ওঠে চোখের সামনে।  
বিশদ

31st  August, 2019
মঞ্চেই ভ্যানিশ অভিনেতা, কখনও শূন্যে ভাসমান 

এতদিন সিনেমার পর্দায় দর্শক দেখে এসেছে স্পেশাল এফেক্টস। অভিনেতা, অভিনেত্রীরা ভ্যানিশ হয়ে যাচ্ছে, শূন্যে উঠে ভেসে বেড়াচ্ছে এসব দৃশ্য সিনেমায় জলভাত। কিন্তু মঞ্চে, নাটকে এসব দৃশ্য দেখানো মোটেই সহজ নয়।  
বিশদ

31st  August, 2019
স্টার থিয়েটারই ছিল
তাঁর কাছে তীর্থক্ষেত্র 

বিখ্যাত নট তুলসী চক্রবর্তীকে নিয়ে কলম ধরলেন ডঃ শঙ্কর ঘোষ। 

জ্যাঠামশাইয়ের হাত ধরে যে বালকটি একদা ঢুকেছিল থিয়েটার পাড়ায়, পরবর্তীকালে সেই বালকই হয়ে উঠল এক স্বনামধন্য অভিনেতা। থিয়েটার পাড়ার সেই শিল্পী তুলসী চক্রবর্তীর কথা শোনাব আজ।
বিশদ

31st  August, 2019
একনজরে
 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

বিএনএ, বর্ধমান: স্কুল থেকে অবসর নিয়েছেন ছ’বছর আগে। তাঁর বয়স এখন ৬৬ ছাড়িয়ে গিয়েছে। বয়সের হিসাবে তিনি বৃদ্ধ হলেও শারীরিক সক্ষমতায় তিনি এখনও ‘তরতাজা যুবক’।  ...

 রবীন রায়, আলিপুরদুয়ার, সংবাদদাতা: নিম্ন অসমে এনআরসি তালিকা থেকে বাদ পড়া বাঙালিদের মন ভালো নেই। তাই এনআরসির জেরে নিম্ন অসম থেকে প্রতিমারও বরাত এবার আলিপুরদুয়ারের মৃৎশিল্পীদের কাছে আসেনি। ফলে একইভাবে মন ভালো নেই এখানকার মৃৎশিল্পীদেরও। ...

সৌম্যজিৎ সাহা, কলকাতা: রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য পে কমিশনের সুপারিশ গ্রহণ করার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীরা এই কমিশনের আওতায় আসছেন কি না, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ও মানসিক কষ্ট। দূর ভ্রমণের সুযোগ। অর্থপ্রাপ্তির যোগ। যেকোনও শুভকর্মের বাধাবিঘ্ন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯১৯- অভিনেতা জহর রায়ের জন্ম
১৯২১- সাহিত্যিক বিমল করের জন্ম
১৯২৪- গায়িকা সুচিত্রা মিত্রের জন্ম
১৯৬৫- মহাকাশচারী সুনীতা উইলিয়ামসের জন্ম
 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৬৪ টাকা ৭২.৩৪ টাকা
পাউন্ড ৮৭.৭০ টাকা ৯০.৯০ টাকা
ইউরো ৭৭.৬৩ টাকা ৮০.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
18th  September, 2019

দিন পঞ্জিকা

২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পঞ্চমী ৩৪/৫৭ সন্ধ্যা ৭/২৭। ভরণী ৮/১৩ দিবা ৮/৪৫। সূ উ ৫/২৭/৪৭, অ ৫/৩৩/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ১/৩০ গতে ৩/৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/১৯ গতে ৯/৩০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৫২ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ২/৩১ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৩১ গতে ১২/৫৯ মধ্যে। 
১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পঞ্চমী ২৬/১২/৩৯ দিবা ৩/৫৬/৩৩। ভরণী ৩/৩৯/২৫ দিবা ৫/৫৫/১৫, সূ উ ৫/২৭/২৯, অ ৫/৩৫/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৭ মধ্যে ও ১/২২ গতে ২/৫৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৬ গতে ৯/২২ মধ্যে ও ১১/৪৯ গতে ৩/৬ মধ্যে ও ৩/৫৫ গতে ৫/২৮ মধ্যে, বারবেলা ৪/৪/২৯ গতে ৫/৩৫/২৯ মধ্যে, কালবেলা ২/৩৩/২৯ গতে ৪/৪/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৩১/২৯ গতে ১/০/২৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৯ মহরম 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বারুইপুরে পুলিস নিগ্রহের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৮ 

12:03:10 PM

সোনারপুরের কালিকাপুর রামকমল স্কুলে ভাঙচুর এবং চুরির ঘটনায় ধৃত ৬ যুবক 

11:55:00 AM

আলিপুরদুয়ারে পূর্ণবয়স্ক হাতির মৃত্যু 
বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের উত্তর রায়ডাক রেঞ্জের কার্তিকার জঙ্গলে একটি পূর্ণবয়স্ক ...বিশদ

11:52:00 AM

কালনায় খাদির উদ্যোগে মসলিন বস্ত্র উৎপাদন সেন্টার পরিদর্শন করলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ 

11:45:00 AM

দুর্গাপুরে লরির ধাক্কায় জখম ৭
 

দুর্গাপুর ব্যারেজের কাছে লরির ধাক্কায় জখম হলেন সাতজন। দুর্ঘটনার পর ...বিশদ

11:43:00 AM

আজ দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক মমতার
আজ দুপুর দেড়টায় দিল্লির নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দপ্তরে অমিত শাহের ...বিশদ

11:40:49 AM