Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

ভগিনী নিবেদিতা ও ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম

ভগিনী নিবেদিতা ভারতের মাটিতে বিপ্লববাদের ভিত গড়ে তুলেছিলেন। নিবেদিতার পূর্ব নাম মার্গারেট এলিজাবেথ নোব্‌ল। তৎকালীন সমাজের বিদগ্ধ, স্বনামধন্য লেখক, বৈজ্ঞানিক, শিক্ষাবিদ, রাজনীতিবিদদের সঙ্গে মার্গারেটের স্বতঃস্ফূর্ত মেলামেশা, নিত্য ওঠাবসা ছিল। কিছুদিনের মধ্যেই তিনি লন্ডনের বুদ্ধিজীবী মহলে এক স্থান দখল করে নেন। চার্চের অধীনে প্রথাগত ধর্মজীবনকে তিনি মন থেকে মেনে নিতে পারেননি। ধর্ম সম্বন্ধে বিভিন্ন বইপত্র পড়ে প্রকৃত ধর্মজীবনের পথ খুঁজতে চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু কিছুতেই শান্তি না পেয়ে ক্রমশ হতাশ হয়ে পড়ছিলেন। তাঁর এই হতাশা দূর হল স্বামী বিবেকানন্দের আবির্ভাবে। স্বামীজির ধর্ম ব্যাখ্যা ও ব্যক্তিত্বে মার্গারেট মুগ্ধ হলেন। মার্গারেট স্বামীজিকে গুরু বলে বরণ করে নিলেন। দুঃখ-দারিদ্রপূর্ণ, কুসংস্কারাচ্ছন্ন, পরাধীন যে ভারতবর্ষ চোখের সামনে রয়েছে তার আড়ালে আছে আধ্যাত্মিকতার ঐশ্বর্যে পূর্ণ ত্যাগ ও তপস্যাময় এক মহান ভারতবর্ষ। চিরন্তন ভারতবর্ষের সেই অতুলনীয় রূপ স্বামীজি মার্গারেটের সামনে তুলে ধরলেন। ভারতবর্ষকে ভালোবাসতে শুরু করলেন মার্গারেট, ভারতীয় জীবন গ্রহণের দুর্নিবার আগ্রহ তাঁর মধ্যে জেগে উঠল।
স্বামীজি ভরতবর্ষে ফিরে আসার পর নিবেদিতাকে অনেকগুলি চিঠি দিয়েছিলেন— উদ্দেশ্য পত্র বিনিময়ের মধ্য দিয়ে নিবেদিতাকে প্রস্তুত করা।
১৮৯৮ সালের ২৮ জানুয়ারি মার্গারেট ভারতের মাটিতে পা রাখলেন। ওই বছরের ২৫ মার্চ স্বামীজি মার্গারেটকে ব্রহ্মচর্য ব্রতে দীক্ষা দিলেন। তাঁর নাম দিলেন ‘নিবেদিতা’। ওই দিন স্বামীজি নিবেদিতাকে বলেছিলেন, ‘ভবিষ্যৎ ভারতসন্তানদের কাছে তুমি একাধারে জননী, সেবিকা ও বন্ধু হয়ে ওঠ।’ তাই নিবেদিতার একমাত্র উদ্দেশ্য হল ভারতবর্ষের সেবা করা। ভারতের আধ্যাত্মিকতার আদর্শ জগৎকে চিরকাল কল্যাণের পথ দেখাবে। তাই তাঁর ভারতসেবা আসলে ছিল সমগ্র মানবজাতির সেবা।
রামকৃষ্ণ সঙ্ঘের সঙ্গে যুক্ত হয়ে নানাবিধ মানবসেবায় নিজেকে নিয়োজিত করলেন। কিন্তু পরবর্তীকালে তিনি উপলব্ধি করলেন যে, ভারতবর্ষে নারীশিক্ষার প্রচলন অত্যন্ত প্রয়োজন। পরাধীন ভারতবর্ষের সামাজিক কুসংস্কারগুলিকে মুক্ত করতে হলে ঘরে ঘরে নারীশিক্ষার উদ্যোগ নেওয়া উচিত। সেই সঙ্গে ভারতবর্ষকে স্বাধীন করতে হবে। সে সময় বহু বিপ্লবী যেমন অরবিন্দ ঘোষ, বারীন ঘোষ, বিপিন পাল, ভূপেন্দ্রনাথ দত্ত (বিবেকানন্দের ছোট ভাই) নিবেদিতার কাছে আসতেন স্বাধীনতা সংগ্রামের ব্যাপারে নানা আলোচনা করতে। তিনি বিভিন্নভাবে তাঁদের সাহায্য করতেন। ১৯০২ সালের অক্টোবর মাসে নিবেদিতা বক্তৃতা দিতে বরোদা গিয়েছিলেন। তাঁকে স্টেশনে অভ্যর্থনা জানাতে এসেছিলেন শ্রীঅরবিন্দ। শ্রীঅরবিন্দ ইতিমধ্যে নিবেদিতার লেখা ‘কালী দি মাদার’ বইটি পড়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন। শ্রীঅরবিন্দ তখন সবেমাত্র বিপ্লবীদের নিয়ে গুপ্ত সমিতি গঠন করেছেন। শ্রীঅরবিন্দের কাছ থেকে গুপ্ত সমিতির সম্পর্কে সব কিছু জেনে নিবেদিতা বরোদার মহারাজার সঙ্গে দেখা করে গুপ্ত সমিতিকে সাহায্য করার জন্য অনুরোধ করলেন। পরবর্তীকালে দেখা যায় যে, শ্রীঅরবিন্দের হাতে গুপ্ত সমিতির যে দলটি ছিল, নিবেদিতা হাতে-কলমে সে দলটিকে পরিচালনা করেছিলেন।
১৯০৫ সালে বাংলাদেশে বঙ্গভঙ্গের বিরুদ্ধে যে আন্দোলনের সূচনা হয় তা পরে ব্যাপকভাবে স্বদেশিয়ানা এবং বিদেশি বয়কট আন্দোলনে পরিণত হয়। নিবেদিতা এই আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে যোগ দেন। ওই বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে লর্ড কার্জন তাঁর বক্তৃতাকালে প্রাচ্য দেশবাসীর সত্যতা সম্বন্ধে কটাক্ষ করে বলেন, ‘প্রাচ্য অপেক্ষা প্রতীচ্যের লোকদের নিকটে সত্য বিশেষ আদৃত।’ সভায় উপস্থিত বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি লর্ড কার্জনের এই উক্তিতে অপমানবোধ করলেন, কিন্তু কেউই তার প্রতিবাদ করলেন না। নিবেদিতা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। নিবেদিতা ক্রোধে, অপমানে উত্তেজিত হয়ে পড়লেন।
অমৃতবাজার পত্রিকার কার্যালয় ছিল বাগবাজারে, সেখানে নিবেদিতা থাকতেন। লর্ড কার্জনের বক্তৃতার আপত্তিকর অংশ ও তাঁর লেখা বইয়ের মিথ্যা বিবৃতির অংশ পাশাপাশি রেখে একটি প্রতিবাদপত্র ছাপার জন্য দিলেন। পরের দিন অমৃতবাজার পত্রিকায় প্রতিবাদপত্রটি ছাপা হয়। ১৪ ফেব্রুয়ারি পুনরায় প্রতিবাদপত্রটি স্টেটসম্যান পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। লর্ড কার্জনের বিরুদ্ধে দেশবাসীর মনে যে গভীর ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছিল তার কিছুটা প্রশমিত হল।
১৯০৭ সালে যুগান্তরের মামলায় বিপ্লবী প্রবন্ধ লেখার জন্য ভূপেন্দ্রনাথ দত্তকে গ্রেপ্তার করে। ভূপেন্দ্রনাথের পক্ষে নিবেদিতা জামিনদার হয়েছিলেন। ইতিমধ্যে ব্রিটিশ গোয়েন্দা বাহিনী নিবেদিতাকে সন্দেহের চোখে দেখতে লাগল। এই সময়ে জাতীয় নেতাদের পরামর্শে নিবেদিতা গ্রেপ্তার এড়াতে ভারতবর্ষ থেকে লন্ডনে পাড়ি দেন। আয়ারল্যান্ড ও আমেরিকা ঘুরে তিনি ১৯০৯ সালে ‘মিসেস মার্গট’ ছদ্মনামে জগদীশচন্দ্র বসুর সঙ্গে পুনরায় ভারতে ফিরে আসেন। নিবেদিতার অনুপস্থিতিতে বিপ্লবী আন্দোলন কিছুটা স্থিমিত হয়েছিল।
মাত্র এক দশকের মধ্যে তিনি যে জীবন দর্শন দেখিয়ে গিয়েছেন তা দেশবাসী শ্রদ্ধাবনত চিত্তে স্মরণ করে।
ড. অচিন্ত্যকুমার মাইতি
10th  August, 2019
মহাষ্টমী পুজো

 মহাষ্টমী পুজোর দিন সকালে পুরোহিত আচমন করে মায়ের পুজো শুরু করেন। আসনশুদ্ধি, ভূতশুদ্ধি, মাতৃকান্যাস, প্রাণায়াম, পীঠন্যাস সমাপ্ত করে মাকে দন্তকাষ্ঠ নিবেদন করেন। তারপর শুরু হয় মায়ের মহাস্নান।
বিশদ

মহাপূজার আঙিনায়
বলিদান

 মহাপূজার অন্যতম অঙ্গ বলিদান। বলি শব্দের অর্থ উপহার। দেবীভাগবতের মতে, একমাত্র দেবী পূজাতেই বলিদান সম্মত। অন্যত্র নয়। কারণ ব্রহ্মবিদ্যাস্বরূপিণী দেবী আমাদের স্বরূপনিরোধক এই ঘোর জীববুদ্ধি নাশ করে ব্রহ্মকারা বৃত্তিতে প্রকাশমান হন। তাই মহাদেবী বলিপ্রিয়া।
বিশদ

সেকাল একালের
আগমনী আড্ডা

দুর্গা পুজো মানেই নতুন পোশাক, খাওয়া-দাওয়া, রাত জেগে ঠাকুর দেখা আর নির্ভেজাল আড্ডা। আড্ডা পরিকল্পনাও থাকে নানারকম। আড্ডাবাজ বাঙালির আড্ডার আসর বসে পাড়ার পুজো, বাড়ির পুজো, বা আবাসনের পুজোমণ্ডপে। নব্য প্রজন্মের কেউ বা পছন্দ করে ঘুরে বেড়িয়ে আড্ডা দিতে। বিশদ

মহিলা মৃৎশিল্পী
ঠাকুর গড়েন চায়না পাল

 ছোটবেলায় আঁকতে ভীষণ ভালোবাসতেন চায়না। পেন বা পেন্সিল দিয়ে পাতার পর পাতা ঠাকুর দেবতার ছবি আঁকতেন তিনি। টানা টানা চোখওয়ালা সাবেকি ঠাকুরের মুখ ভরে যেত তাঁর খাতার পাতায়। বাবা যখন ঠাকুর গড়তেন সেটাও হাঁ করে দেখতেন চায়না। বিশদ

উৎসবের ভোজ, ভোজের উৎসব 

ভোরের প্রথম আলোয় শিউলি ফুলের মন মাতানো মিষ্টি গন্ধই শুধু নয়, ভোরের বাতাসেও অকারণ পুলকের স্পন্দন। পাড়ায় পাড়ায় বাঁশ আর কাপড়ের স্তূপ। যেন উৎসবের আর উৎসাহের জোয়ার। মায়ের আগমনী বার্তা বয়ে নিয়ে আসে এইসব খুঁটিনাটির অনুষঙ্গগুলো।   বিশদ

14th  September, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী 

সুস্মিতা রুদ্রপাল মিত্র: এক দশক মানে প্রায় বারো বছর হয়ে গেল সুস্মিতা রুদ্রপাল মিত্র প্রতিমা তৈরি করা শুরু করেছেন। সুস্মিতার বেড়ে ওঠা কুমোরটুলির এক মৃৎশিল্পীর পরিবারে। বাড়িতে বাবা-দাদাদের কাজ দেখতে দেখতে বড় হয়েছেন সুস্মিতা।  বিশদ

14th  September, 2019
মহাসপ্তমী পুজোর রীতি ও আচার 

দুর্গাপুজোর মহাসপ্তমী। এই দিন প্রথমে গৃহকর্তা পুরোহিতকে কাপড় ও নানা দ্রব্য দিয়ে বরণ করে নেবেন। তারপর নবপত্রিকা স্নান। গঙ্গা বা কোনও জলাশয়ে নবপত্রিকাকে স্নান করিয়ে নতুন কাপড় পরিয়ে যথাযথ মন্ত্র উচ্চারণ করে দুর্গামণ্ডপে প্রতিষ্ঠা করা হয়।   বিশদ

14th  September, 2019
মহাপূজার আঙিনায় 

মহাস্নানের পর আরম্ভ হয় দেবীর পুজো। আরাধনার প্রথম ধাপ সুস্থ দেহ ও স্থির মন। সর্বাগ্রে এটি করা প্রয়োজন, না করলে দেবতার অধিষ্ঠান হতে পারে না। শ্রীরামকৃষ্ণদেব বলতেন, ‘প্রতিমায় আবির্ভাব হতে গেলে তিনটি জিনিসের দরকার— প্রথম পূজারীর ভক্তি, দ্বিতীয় প্রতিমার সৌন্দর্য, তৃতীয় গৃহস্বামীর ভক্তি।’  বিশদ

14th  September, 2019
 শহর জুড়ে আজ পুজোর মরশুম

নরম শিউলি ফুলের মতো মিষ্টি রোদ ছেয়ে আছে শহর জুড়ে। চাঁদার বই হাতে উদ্যোক্তাদের ইতিউতি উপস্থিতি, বেমক্কা জ্যাম, শপিং মল থেকে ফুটপাতে উপচানো ভিড় দেখেই অনুমান করা যায় শহর জুড়ে আজ পুজোর মরশুম। উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠা শহরবাসী এখন কেনাকাটা করেন চুটিয়ে।
বিশদ

07th  September, 2019
 বোধনে মহাষষ্ঠী

মহাষষ্ঠীতে হয় মা দুর্গার বোধন। সকালবেলায় তিথি দেখে ষষ্ঠীপুজো হয়ে থাকলেও তিথি অনুযায়ী সন্ধেবেলায় বিল্ববৃক্ষতলে হয় দেবীর বোধন। তখন শুদ্ধাচারে, শুদ্ধাসনে, শুদ্ধবস্ত্র পরিধান করে স্বস্তিবাচন ও পাপাপনোদন করেন পুরোহিত। তিনি ঊর্ধ্ব, অধঃ পার্শ্বদ্বয় ভালো করে দেখেন ও শান্ত চিত্তে কুশ, তিল, ফল, পুষ্প দিয়ে জলপূর্ণ তাম্রপাত্র গ্রহণ করেন।
বিশদ

07th  September, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী কাকলি পাল

দু’ হাজার তিন সাল। কালীপুজোর ঠিক আগের ঘটনা। মৃৎশিল্পী কাকলি পালের স্বামী ঠাকুর তৈরির বায়না নিয়ে আসার পরের পরের দিন হঠাৎ ব্রেন স্ট্রোকে মারা যান। তখন কাকলির বড় মেয়ের বয়স সাত এবং ছোট মেয়ের এক। দুটো মেয়েকে নিয়ে কাকলি অথৈ জলে পড়েছিল।
বিশদ

07th  September, 2019
মহাপূজার আঙিনায়

মা আনন্দময়ীর আগমন। বর্ষে বর্ষে আসেন তিনি। আমাদের ঘরে-বাইরে তাঁর ছড়ানো সংসারে। শারদীয়া দেবীর আবির্ভাবের মধ্য দিয়েই জাতির আত্মশক্তির উদ্বোধন। ব্রত-পার্বণ উৎসবময় ভাবালোকে মাতৃমূর্তির এই আবির্ভাব।   বিশদ

07th  September, 2019
 ঋণ নিয়ে রোজগেরে মেয়েরা

গ্রামের মহিলাদের ঋণ দিয়ে রোজগেরে করে তুলছে ভিলেজ ফিনানসিয়াল সার্ভিস। কীভাবে এই পথে ঋণ নিয়ে রোজগেরে হয়ে ওঠা যায় তারই উপায় জানালেন সংস্থার কর্ণধার। প্রতিবেদনে কমলিনী চক্রবর্তী।
বিশদ

31st  August, 2019
কুড়ির তারুণ্যে ভরা ল্যা ক মে

পাঁচদিনের ‘ল্যাকমে ফ্যাশন উইক উইন্টার-ফেস্টিভ ২০১৯’-র এবারের আসরও ছিল জমজমাট। এবছর কুড়িতে পা দিল ল্যাকমে ফ্যাশন উইক। কুড়ির অভিজ্ঞতা গায়ে মেখে তারুণ্যে ভরা ল্যাকমের আসর থেকে নতুন নতুন ফ্যাশনধারার সন্ধান দিলেন আমাদের মুম্বই প্রতিনিধি দেবারতি ভট্টাচার্য।
বিশদ

31st  August, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: শুক্রবার সকালে সাঁকরাইলের ডেল্টা জুটমিলের পরিত্যক্ত ক্যান্টিন থেকে নিখোঁজ থাকা এক শ্রমিকের মৃতদেহ উদ্বার হল। তাঁর নাম সুভাষ রায় (৪৫)। তাঁকে খুন করা হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন। ...

 গুয়াহাটি, ২০ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): এনআরসির বিরোধিতায় শুক্রবার অসমজুড়ে ১২ ঘণ্টার বন্ধ পালন করা হয়। অল কোচ রাজবংশী স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (একেআরএসইউ)-এর ডাকা ওই বন্঩ধে এদিন স্বাভাবিক ...

বিএনএ, রায়গঞ্জ: দুই শিক্ষাকর্মীর বদলির প্রতিবাদে ছাত্র আন্দোলনে শুক্রবার উত্তাল হল রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে অঙ্ক ও কম্পিউটার অ্যান্ড ইনফর্মেশন সায়েন্স বিভাগের সামনে কয়েকশ’ ছাত্রছাত্রী ...

 ইন্দোনেশিয়া, ২০ সেপ্টেম্বর: দ্বিতীয় ভারতীয় ব্যাডমিন্টন প্লেয়ার হিসেবে এশিয়ান টেবল টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলেন জি সাথিয়ান। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারতের টপ র‌্যাঙ্কিং সাথিয়ান ১১-৭, ১১-৮, ১১-৬ পয়েন্টে হারালেন উত্তর কোরিয়ার আন-জি সংকে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর ভালো যাবে না। সাংসারিক কলহবৃদ্ধি। প্রেমে সফলতা। শত্রুর সঙ্গে সন্তোষজনক সমঝোতা। সন্তানের সাফল্যে মানসিক ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস
১৮৬৬: ব্রিটিশ সাংবাদিক, ঐতিহাসিক ও লেখক এইচ জি ওয়েলসের জন্ম
১৯৩৪: জাপানের হনসুতে টাইফুনের তাণ্ডব, মৃত ৩ হাজার ৩৬ জন
১৯৪৭: মার্কিন লেখক স্টিফেন কিংয়ের জন্ম
১৯৭৯: ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার ক্রিস গেইলের জন্ম
১৯৮০: অভিনেত্রী করিনা কাপুর খানের জন্ম
১৯৮১: অভিনেত্রী রিমি সেনের জন্ম
১৯৯৩: সংবিধানকে অস্বীকার করে রাশিয়ায় সাংবিধানিক সংকট তৈরি করলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন
২০০৭: রিজওয়ানুর রহমানের মৃত্যু
২০১৩: কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে ওয়েস্ট গেট শপিং মলে জঙ্গি হামলা, নিহত কমপক্ষে ৬৭

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.১৯ টাকা ৭২.৭০ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৪৪ টাকা ৯১.১২ টাকা
ইউরো ৭৬.২৬ টাকা ৮০.৩৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৭,৯৯০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,০৪৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৫৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ৩৭/১২ রাত্রি ৮/২১। রোহিণী ১৪/৪৩ দিবা ১১/২২। সূ উ ৫/২৮/২৩, অ ৫/৩১/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৫ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪১ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ৬/৫৯ মধ্যে পুনঃ ১/০ গতে ২/৩০ মধ্যে পুনঃ ৪/০ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৭/১ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৯ গতে উদয়াবধি।
৩ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ২৫/২২/২১ দিবা ৩/৩৭/৫। রোহিণী ৭/১/২৪ দিবা ৮/১৬/৪৩, সূ উ ৫/২৮/৯, অ ৫/৩৩/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৫/৩৩ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ১/১/২৯ গতে ২/৩২/৯ মধ্যে, কালবেলা ৬/৫৮/৪৯ মধ্যে ও ৪/২/৪৯ গতে ৫/৩৩/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/২/৪৯ মধ্যে ও ৩/৫৮/৪৯ গতে ৫/২৮/২৮ মধ্যে।
২১ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
অনুমতি বাতিল, তবুও মিছিল করবেন প্রাথমিক শিক্ষকরা
আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষকদের নবান্ন অভিযানের অনুমতি দেয়নি পুলিস। এমনই ...বিশদ

08:15:00 AM

এলআইসি-তে মানুষের বিশ্বাসকে ভাঙছে বিজেপি, কটাক্ষ প্রিয়াঙ্কার
জীবন বিমা নিগমের (এলআইসি) উপর মানুষের বিশ্বাসকে ভেঙে দিচ্ছে মোদি ...বিশদ

08:15:00 AM

আজকের রাশিফল
মেষ: সন্তানের সাফল্যে মানসিক সন্তুষ্টি। বৃষ: ব্যবসায়িক সাফল্য। মিথুন: সৃষ্টিশীল কাজে প্রভূত উন্নতি। ...বিশদ

08:09:17 AM

অযোধ্যা মামলায় সোমবার থেকে রোজ একঘণ্টা বেশি শুনানি সুপ্রিম কোর্টে
শুনানি শেষ করতে হবে আগামী ১৮ অক্টোবরের মধ্যে। অযোধ্যার রাম ...বিশদ

08:00:00 AM

ইতিহাসে আজকের দিনে
আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস১৮৬৬: ব্রিটিশ সাংবাদিক, ঐতিহাসিক ও লেখক এইচ জি ...বিশদ

07:50:00 AM

বাংলায় হচ্ছে না এনআরসি: মমতা
বাংলায় কোনও এনআরসি হবে না। আজ এভাবেই রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করলেন ...বিশদ

20-09-2019 - 06:59:00 PM