Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

ভারতের প্রথম মহিলা বিচারপতি 

সেকালের পুরুষতান্ত্রিক সমাজে পুরুষদের দিকে লক্ষ্য রেখেই সব ব্যবস্থাপনা হত। কিন্তু পুরুষতান্ত্রিকতার সম্পূর্ণ অবসান না হলেও দিন যত এগিয়েছে ততই মহিলারাও অগ্রগণ্য হয়েছে। বিভিন্নরকম ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে নারীকেন্দ্রিকতাও সমাজে স্থান পেয়েছে। নারীর এহেন ক্ষমতায়নের পিছনে রয়েছে নতুন নতুন আইন ব্যবস্থা ও নারীর অদম্য পরিশ্রম ও অধ্যবসায়। পুরুষরা নানানরকম বাধার সৃষ্টি করলেও, নারীদের উদ্যমের কাছে হার মানতে বাধ্য হচ্ছেন।
পূর্বে বিচারালয়গুলি পুরুষদের একচেটিয়া ছিল। কিন্তু ক্রমশ নারীরাও বিচারালয়গুলিতে প্রবেশ করছেন ও যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছেন। এমনকী বিচারপতির পদও অলঙ্কৃত করছেন।
ভারতের বিচার ব্যবস্থার শীর্ষস্থানে রয়েছে সুপ্রিম কোর্ট ও রাজ্যগুলিতে রয়েছে হাই কোর্ট। কোর্টগুলি বিভিন্ন আঞ্চলিক কোর্টের সাহায্যে বিচার ব্যবস্থা পরিচালনা করেন।
আগেই বলেছি পূর্বে পুরুষরাই কোর্টের কাজকর্ম করতেন। কিন্তু ক্রমশ মহিলারাও ওই সকল কাজকর্ম করছেন ও যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছেন।
এবার বলি সুপ্রিম কোর্ট ও হাই কোর্টের প্রথম দুই মহিলা বিচারপতি কথা। ভারতের সুপ্রিম কোর্টের প্রথম মহিলা বিচারপতি হয়েছিলেন ফতিমা বিবি।
তিনি কেরালার ভারতীয় রাজ্য এভালকাড়ের পাঠানমখিতায় ১৯২৭ সালের ৩০ এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম আনাভিত্তিল মিয়া সাহেব ও মা খাদেজ বিবি।
ফতিমা বিবি পাঠানমখিতার ক্যাথলিক স্কুলে প্রথম পড়াশোনা করেন, পরে তিরুবনন্তপুরম ইউনিভার্সিটি থেকে গ্র্যাজুয়েশন করেন এবং তিরুবনন্তপুরম সরকারি আইন কলেজ থেকে আইন পাশ করেন।
১৯৫০ সালের ১৪ নভেম্বর ফতিমা বিবিকে অ্যাডভোকেট হিসাবে নথিভুক্ত করা হয়। তিনি কেরালার নিম্নবিচার বিভাগে কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯৫৮ সালের মে মাসে তিনি উপ সমন্বয়কারী জুডিসিয়াল পরিষেবাতে নিযুক্ত হন। ১৯৬৮ সালে তিনি উপসমন্বয়কারী বিচারক এবং ১৯৭২ সালে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং ১৯৭৪ সালে জেলা ও দায়রা জজ হিসাবে পদোন্নতি লাভ করেন।
পরে তিনি আয়কর আপিল ট্রাইবুনালের বিচারক সদস্য হন ও পরে তাঁকে হাই কোর্টের বিচারক হিসেবে নিযুক্ত করা হয়। পরবর্তীকালে হাই কোর্টের বিচারপতি পদ থেকে অবসর গ্রহণের পর সুপ্রিম কোর্টের বিচারকের পদে উন্নীত হন।
১৯৯৭ সালে তিনি তামিলনাড়ুর গভর্নর হন। গভর্নর হিসেবে তিনি মাদ্রাসা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের দায়িত্বও পালন করেছিলেন। তাঁর দীর্ঘ কর্মজীবনের দায়িত্বগুলি যথেষ্ট নিষ্ঠার সঙ্গেই তিনি পালন করেছেন। ফলে তাঁকে বহু বিতর্কের সম্মুখীন হতে হয়েছে। নারী হওয়ার জন্য যথেষ্ট প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হয়েছে। কিন্তু তিনি নিজ দক্ষতায় সব বিতর্কের অবসান ঘটিয়েছিলেন ও সব প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছিলেন।
বাংলার মেয়ে জ্যোতির্ময়ী নাগও পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বেড়া ডিঙিয়ে নিজ উদ্যম ও অধ্যাবসায়ের জোরে কলকাতা হাই কোর্টের প্রথম মহিলা বিচারপতি হয়েছিলেন।
জ্যোতিমর্য়ী নাগ অবিভক্ত বাংলার ঢাকা জেলায় ১৯২১ সালের ২১ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম ব্রজেন্দ্রলাল মিত্র ও মাতার নাম শান্তিলতা মিত্র। স্বামী হীরেন্দ্রচন্দ্র নাগ।
লোরেটো হাউসে তাঁর শিক্ষা জীবন শুরু হয়। পরে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা আশুতোষ কলেজ ও আইন কলেজে পড়াশোনা করেন। ইংরাজি সাহিত্য ও আইন দুটো বিষয়ই তাঁর প্রিয় ছিল।
বহরমপুর কলেজে তিনি কিছুদিন অধ্যাপনা করেছিলেন। কিন্তু দেশের আইনকে সাধারণ মানুষের প্রয়োজনে কাজে লাগানোর প্রয়োজনে তিনি আইনব্যবসার পথকেই বেছে নিয়েছিলেন।
দেশের আইনকে সাধারণ মানুষের প্রয়োজনে কাজে লাগানোর জন্য যেসব বিচারপতি সারা জীবন সংগ্রাম করে গেছেন তাঁদের মধ্যে অগ্রগণ্য জ্যোতিমর্য়ী নাগ। তিনি কলকাতা হাই কোর্টের প্রথম মহিলা বিচারপতি ছিলেন। জ্যোতির্ময়ী স্বীকৃতি অর্জন করেছিলেন ঠিকই, কিন্তু অনেক বাধার পাহাড় ডিঙিয়ে, অনেক কাঁটা বিছানো পথ পেরিয়ে তবেই তিনি যোগ্যতার বলে এই যশ পেয়েছেন।
শুধুমাত্র মহিলা হওয়ার অপরাধেই তাঁকে সিনিয়র আইনজীবীদের দরজায় দরজায় ঘুরতে হয়েছে, তাঁদের অধীনে প্র্যাকটিস করবার জন্য। তিনি হার মানেননি। ফলে শেষপর্যন্ত শুধু মহিলা বিচারপতিই নন, তিনিই প্রথম মহিলা অ্যাডভোকেট হিসেবে এই পেশা গ্রহণ করেছিলেন। তাঁর আগে অন্য কোনও মহিলা আইনজীবীই প্র্যাকটিস করার জন্য কলকাতা হাই কোর্টে নাম নথিভুক্ত করেননি।
জ্যোতির্ময়ী কলকাতা হাই কোর্টে যুক্ত হওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই প্রখ্যাত আইনজীবী অজিত দত্তের কাছে তাঁর জুনিয়র হিসেবে একটি বিখ্যাত মামলার সত্তয়াল করেন। প্রসিদ্ধ দমদম-বসিরহাট মামলার অভিযুক্ত চারজন বিপ্লবীর পক্ষে তিনি দাঁড়ান। সেই মামলায় তাঁর তীক্ষ্ণ ইংরাজি ভাষার যুক্তিজাল তাঁকে বিশেষভাবে প্রচারের আলোয় নিয়ে আসে। ফৌজদারি আদালতে এরপরও যে তিনি খুব সহজভাবে প্রতিষ্ঠিত হতে পেরেছিলেন, তা নয়। দীর্ঘ শ্রম, অধ্যাবসায়, নিষ্ঠা এবং কাজের প্রতি সততার মাধ্যমে তিনি নিজেকে দক্ষ ও যোগ্য আইনজীবী হিসেবে তুলে ধরেছেন। তিনি প্রমাণ করেছেন, একজন মহিলা আইনজীবীও একজন পুরুষ আইনজীবীর সমকক্ষ হতে পারেন।
১৯৭৭ সালে তিনি কলকাতা হাই কোর্টের প্রথম মহিলা বিচারপতি মনোনীত হন। ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত তিনি এই গুরুদায়িত্ব সুসম্পন্ন করেছেন। তাঁর বর্ণময় কর্মজীবনে সততা ও কর্মদক্ষতার ছাপ ফেলতে পেরেছেন। স্বকীয়তায় উজ্জ্বল ছিল তাঁর কর্মজীবন তথা কর্মজগৎ। খুব সহজভাবেই তিনি পুরষ সহকর্মীদের সঙ্গে কাজ করেছেন ও তাঁদের সমকক্ষ হয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছিলেন।
হাই কোর্টে যখন তিনি যুক্ত হন তখন এলাকার মহিলা ফেডারেশনের কর্মীদের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ স্থাপিত হয়। সেই সূত্র ধরে তিনি নানা ধরনের সেবামূলক কাজে এই সংগঠনকে সক্রিয়ভাবে সাহায্য করেছেন।
খরা, বন্যা প্রভৃতি নানান প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে মহিলা ফেডারেশন যখন ত্রাণের কাজ সংগঠিত করেছে, তখন তিনি উদার হাতে সাহায্য করেছেন। মহিলা সমিতির সভাসমিতির কাজেও তাঁর উৎসাহ ছিল। মেয়েদের আইন সম্পর্কে সচেতন করবার জন্য তাঁদের সমস্যার কথা শুনতেন এবং সেগুলির প্রতিকারের জন্য কী আইনি সাহায্য পাওয়া যায় সেগুলিরও বিশদ ব্যাখ্যা করে বলে দিতেন।
১৯৭৫ সালে তিনি মহিলা ফেডারেশনের পশ্চিমবঙ্গ শাখার সহ সভানেত্রী হন, তারপরই তিনি হাই কোর্টের বিচারক হন। কিন্তু সেই কারণে সাধারণ মেয়েদের সঙ্গে তাঁর আচরণের কোনও পরিবর্তন ঘটেনি। ১৯৭৮ সালে তিনি ভারতীয় মহিলা ফেডারেশনের সভানেত্রী হয়ে মস্কোয় বিশ্ব নারী সম্মেলনে যান।
বিচারক পদ থেকে অবসর গ্রহণের পর তিনি দক্ষিণ কলকাতা আইন কলেজের অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন। একদিন তিনি মন্তব্য করেছিলেন, দেশে যে আইন আছে তা দিয়েও সাধারণ মানুষের জন্য, নারী ও শিশুদের জন্য অনেক কিছু করা যায়। তাই ভালো আইনজ্ঞ তৈরি করাও দেশের অন্যতম কর্তব্য।
আইন কলেজের দায়িত্বভার গ্রহণ করে এটিই তার প্রধান লক্ষ্য ছিল। কলেজের অধ্যক্ষের পদ ছেড়ে দেওয়ার পর তিনি আরও একটি বৃহৎ কাজের সঙ্গে যুক্ত হন, ক্রেতা সুরক্ষা ফোরামের তিনি সভানেত্রী হন।
১৯৮২ সালে তিনি মহিলা ফেডারেশন পশ্চিমবঙ্গ শাখার সভানেত্রী হন। আমৃত্যু তিনি ওই পদেই ছিলেন।
১৯৯৭ সালের ১৬ মে কলকাতাতেই তাঁর মৃত্যু হয়। শুধু বিচারক হিসেবে নয়, মানবিকতার আধার হিসেবেও তিনি মানুষের হৃদয়ে থাকার যোগ্য।
প্রীতি বসু 
13th  July, 2019
মহাষ্টমী পুজো

 মহাষ্টমী পুজোর দিন সকালে পুরোহিত আচমন করে মায়ের পুজো শুরু করেন। আসনশুদ্ধি, ভূতশুদ্ধি, মাতৃকান্যাস, প্রাণায়াম, পীঠন্যাস সমাপ্ত করে মাকে দন্তকাষ্ঠ নিবেদন করেন। তারপর শুরু হয় মায়ের মহাস্নান।
বিশদ

মহাপূজার আঙিনায়
বলিদান

 মহাপূজার অন্যতম অঙ্গ বলিদান। বলি শব্দের অর্থ উপহার। দেবীভাগবতের মতে, একমাত্র দেবী পূজাতেই বলিদান সম্মত। অন্যত্র নয়। কারণ ব্রহ্মবিদ্যাস্বরূপিণী দেবী আমাদের স্বরূপনিরোধক এই ঘোর জীববুদ্ধি নাশ করে ব্রহ্মকারা বৃত্তিতে প্রকাশমান হন। তাই মহাদেবী বলিপ্রিয়া।
বিশদ

সেকাল একালের
আগমনী আড্ডা

দুর্গা পুজো মানেই নতুন পোশাক, খাওয়া-দাওয়া, রাত জেগে ঠাকুর দেখা আর নির্ভেজাল আড্ডা। আড্ডা পরিকল্পনাও থাকে নানারকম। আড্ডাবাজ বাঙালির আড্ডার আসর বসে পাড়ার পুজো, বাড়ির পুজো, বা আবাসনের পুজোমণ্ডপে। নব্য প্রজন্মের কেউ বা পছন্দ করে ঘুরে বেড়িয়ে আড্ডা দিতে। বিশদ

মহিলা মৃৎশিল্পী
ঠাকুর গড়েন চায়না পাল

 ছোটবেলায় আঁকতে ভীষণ ভালোবাসতেন চায়না। পেন বা পেন্সিল দিয়ে পাতার পর পাতা ঠাকুর দেবতার ছবি আঁকতেন তিনি। টানা টানা চোখওয়ালা সাবেকি ঠাকুরের মুখ ভরে যেত তাঁর খাতার পাতায়। বাবা যখন ঠাকুর গড়তেন সেটাও হাঁ করে দেখতেন চায়না। বিশদ

উৎসবের ভোজ, ভোজের উৎসব 

ভোরের প্রথম আলোয় শিউলি ফুলের মন মাতানো মিষ্টি গন্ধই শুধু নয়, ভোরের বাতাসেও অকারণ পুলকের স্পন্দন। পাড়ায় পাড়ায় বাঁশ আর কাপড়ের স্তূপ। যেন উৎসবের আর উৎসাহের জোয়ার। মায়ের আগমনী বার্তা বয়ে নিয়ে আসে এইসব খুঁটিনাটির অনুষঙ্গগুলো।   বিশদ

14th  September, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী 

সুস্মিতা রুদ্রপাল মিত্র: এক দশক মানে প্রায় বারো বছর হয়ে গেল সুস্মিতা রুদ্রপাল মিত্র প্রতিমা তৈরি করা শুরু করেছেন। সুস্মিতার বেড়ে ওঠা কুমোরটুলির এক মৃৎশিল্পীর পরিবারে। বাড়িতে বাবা-দাদাদের কাজ দেখতে দেখতে বড় হয়েছেন সুস্মিতা।  বিশদ

14th  September, 2019
মহাসপ্তমী পুজোর রীতি ও আচার 

দুর্গাপুজোর মহাসপ্তমী। এই দিন প্রথমে গৃহকর্তা পুরোহিতকে কাপড় ও নানা দ্রব্য দিয়ে বরণ করে নেবেন। তারপর নবপত্রিকা স্নান। গঙ্গা বা কোনও জলাশয়ে নবপত্রিকাকে স্নান করিয়ে নতুন কাপড় পরিয়ে যথাযথ মন্ত্র উচ্চারণ করে দুর্গামণ্ডপে প্রতিষ্ঠা করা হয়।   বিশদ

14th  September, 2019
মহাপূজার আঙিনায় 

মহাস্নানের পর আরম্ভ হয় দেবীর পুজো। আরাধনার প্রথম ধাপ সুস্থ দেহ ও স্থির মন। সর্বাগ্রে এটি করা প্রয়োজন, না করলে দেবতার অধিষ্ঠান হতে পারে না। শ্রীরামকৃষ্ণদেব বলতেন, ‘প্রতিমায় আবির্ভাব হতে গেলে তিনটি জিনিসের দরকার— প্রথম পূজারীর ভক্তি, দ্বিতীয় প্রতিমার সৌন্দর্য, তৃতীয় গৃহস্বামীর ভক্তি।’  বিশদ

14th  September, 2019
 শহর জুড়ে আজ পুজোর মরশুম

নরম শিউলি ফুলের মতো মিষ্টি রোদ ছেয়ে আছে শহর জুড়ে। চাঁদার বই হাতে উদ্যোক্তাদের ইতিউতি উপস্থিতি, বেমক্কা জ্যাম, শপিং মল থেকে ফুটপাতে উপচানো ভিড় দেখেই অনুমান করা যায় শহর জুড়ে আজ পুজোর মরশুম। উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠা শহরবাসী এখন কেনাকাটা করেন চুটিয়ে।
বিশদ

07th  September, 2019
 বোধনে মহাষষ্ঠী

মহাষষ্ঠীতে হয় মা দুর্গার বোধন। সকালবেলায় তিথি দেখে ষষ্ঠীপুজো হয়ে থাকলেও তিথি অনুযায়ী সন্ধেবেলায় বিল্ববৃক্ষতলে হয় দেবীর বোধন। তখন শুদ্ধাচারে, শুদ্ধাসনে, শুদ্ধবস্ত্র পরিধান করে স্বস্তিবাচন ও পাপাপনোদন করেন পুরোহিত। তিনি ঊর্ধ্ব, অধঃ পার্শ্বদ্বয় ভালো করে দেখেন ও শান্ত চিত্তে কুশ, তিল, ফল, পুষ্প দিয়ে জলপূর্ণ তাম্রপাত্র গ্রহণ করেন।
বিশদ

07th  September, 2019
মহিলা মৃৎশিল্পী কাকলি পাল

দু’ হাজার তিন সাল। কালীপুজোর ঠিক আগের ঘটনা। মৃৎশিল্পী কাকলি পালের স্বামী ঠাকুর তৈরির বায়না নিয়ে আসার পরের পরের দিন হঠাৎ ব্রেন স্ট্রোকে মারা যান। তখন কাকলির বড় মেয়ের বয়স সাত এবং ছোট মেয়ের এক। দুটো মেয়েকে নিয়ে কাকলি অথৈ জলে পড়েছিল।
বিশদ

07th  September, 2019
মহাপূজার আঙিনায়

মা আনন্দময়ীর আগমন। বর্ষে বর্ষে আসেন তিনি। আমাদের ঘরে-বাইরে তাঁর ছড়ানো সংসারে। শারদীয়া দেবীর আবির্ভাবের মধ্য দিয়েই জাতির আত্মশক্তির উদ্বোধন। ব্রত-পার্বণ উৎসবময় ভাবালোকে মাতৃমূর্তির এই আবির্ভাব।   বিশদ

07th  September, 2019
 ঋণ নিয়ে রোজগেরে মেয়েরা

গ্রামের মহিলাদের ঋণ দিয়ে রোজগেরে করে তুলছে ভিলেজ ফিনানসিয়াল সার্ভিস। কীভাবে এই পথে ঋণ নিয়ে রোজগেরে হয়ে ওঠা যায় তারই উপায় জানালেন সংস্থার কর্ণধার। প্রতিবেদনে কমলিনী চক্রবর্তী।
বিশদ

31st  August, 2019
কুড়ির তারুণ্যে ভরা ল্যা ক মে

পাঁচদিনের ‘ল্যাকমে ফ্যাশন উইক উইন্টার-ফেস্টিভ ২০১৯’-র এবারের আসরও ছিল জমজমাট। এবছর কুড়িতে পা দিল ল্যাকমে ফ্যাশন উইক। কুড়ির অভিজ্ঞতা গায়ে মেখে তারুণ্যে ভরা ল্যাকমের আসর থেকে নতুন নতুন ফ্যাশনধারার সন্ধান দিলেন আমাদের মুম্বই প্রতিনিধি দেবারতি ভট্টাচার্য।
বিশদ

31st  August, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ২০ সেপ্টেম্বর: চলতি ২০১৯-২০ আর্থিক বছরে দেশের মাইক্রো-ফিনান্স ইন্ডাস্ট্রি ২ লক্ষ ৫০ হাজার কোটি টাকার গণ্ডি অতিক্রম করবে। স্ব-ধন ‘ভারত মাইক্রো-ফিনান্স রিপোর্ট, ২০১৯’-এ প্রকাশ পেয়েছে এই তথ্য। ...

 দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ২০ সেপ্টেম্বর: যাদবপুর-কাণ্ডে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে রিপোর্ট দেবে বঙ্গ বিজেপি। আজ এ কথা জানিয়েছেন বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সহনেতা সুরেশ পূজারি। তিনি বলেছেন, ‘যে রাজ্যে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরই কোনও নিরাপত্তা নেই, সেই ...

 ওয়াশিংটন, ২০ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): আমেরিকার রাস্তায় ফের প্রকাশ্যে বন্দুকবাজের তাণ্ডব। গুলিতে একজন প্রাণ হারিয়েছেন এবং আরও পাঁচজন জখম হয়েছেন। পুলিস জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ১০টা নাগাদ কলম্বিয়া হাইটস এলাকায় ওই ঘটনা ঘটেছে। জায়গাটি হোয়াইট হাউস থেকে খুব বেশি দূরে নয় বলেও ...

 গুয়াহাটি, ২০ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): এনআরসির বিরোধিতায় শুক্রবার অসমজুড়ে ১২ ঘণ্টার বন্ধ পালন করা হয়। অল কোচ রাজবংশী স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (একেআরএসইউ)-এর ডাকা ওই বন্঩ধে এদিন স্বাভাবিক ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর ভালো যাবে না। সাংসারিক কলহবৃদ্ধি। প্রেমে সফলতা। শত্রুর সঙ্গে সন্তোষজনক সমঝোতা। সন্তানের সাফল্যে মানসিক ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস
১৮৬৬: ব্রিটিশ সাংবাদিক, ঐতিহাসিক ও লেখক এইচ জি ওয়েলসের জন্ম
১৯৩৪: জাপানের হনসুতে টাইফুনের তাণ্ডব, মৃত ৩ হাজার ৩৬ জন
১৯৪৭: মার্কিন লেখক স্টিফেন কিংয়ের জন্ম
১৯৭৯: ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার ক্রিস গেইলের জন্ম
১৯৮০: অভিনেত্রী করিনা কাপুর খানের জন্ম
১৯৮১: অভিনেত্রী রিমি সেনের জন্ম
১৯৯৩: সংবিধানকে অস্বীকার করে রাশিয়ায় সাংবিধানিক সংকট তৈরি করলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন
২০০৭: রিজওয়ানুর রহমানের মৃত্যু
২০১৩: কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে ওয়েস্ট গেট শপিং মলে জঙ্গি হামলা, নিহত কমপক্ষে ৬৭

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.১৯ টাকা ৭২.৭০ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৪৪ টাকা ৯১.১২ টাকা
ইউরো ৭৬.২৬ টাকা ৮০.৩৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৭,৯৯০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,০৪৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৫৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ৩৭/১২ রাত্রি ৮/২১। রোহিণী ১৪/৪৩ দিবা ১১/২২। সূ উ ৫/২৮/২৩, অ ৫/৩১/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৫ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪১ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ৬/৫৯ মধ্যে পুনঃ ১/০ গতে ২/৩০ মধ্যে পুনঃ ৪/০ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৭/১ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৯ গতে উদয়াবধি।
৩ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ২৫/২২/২১ দিবা ৩/৩৭/৫। রোহিণী ৭/১/২৪ দিবা ৮/১৬/৪৩, সূ উ ৫/২৮/৯, অ ৫/৩৩/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৫/৩৩ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ১/১/২৯ গতে ২/৩২/৯ মধ্যে, কালবেলা ৬/৫৮/৪৯ মধ্যে ও ৪/২/৪৯ গতে ৫/৩৩/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/২/৪৯ মধ্যে ও ৩/৫৮/৪৯ গতে ৫/২৮/২৮ মধ্যে।
২১ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ
আজ রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দিল আলিপুর ...বিশদ

08:21:33 PM

ফের সিএবি প্রেসিডেন্ট সৌরভ
আরও একবার সিএবি-র প্রেসিডেন্ট হলেন সৌরভ গঙ্গোপাধধ্যায়। আজ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ...বিশদ

07:39:27 PM

অস্কারে মনোনীত ছবি-গালি বয়

06:03:00 PM

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে মারধর
স্কুলের ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় এক যুবককে লাঠি-রড দিয়ে ...বিশদ

05:22:00 PM

মুর্শিদাবাদে আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেপ্তার ১ 
আজ সকালে মুর্শিদাবাদের পাহাড়ঘাটি মোড় থেকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ সফিকুল ইসলাম ...বিশদ

05:13:00 PM

দীঘায় ডুবন্ত ব্যক্তিকে উদ্ধার করল নুলিয়া
 

দীঘার সমুদ্রে তলিয়ে যাওয়ার মুখে এক পর্যটককে উদ্ধার করল নুলিয়া। ...বিশদ

05:05:00 PM