অন্দরমহল
 

মহিলা বিজ্ঞানী অর্চনা শর্মা 

ভারতে এমন কয়েকজন বিশিষ্ট মহিলা রয়েছেন, যাঁরা তাঁদের গবেষণা বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের দ্বারা পুরুষ প্রধান বিশিষ্ট জগতে নিজেদের আলোচলনার কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছেন ড. অর্চনা শর্মা তাঁদের মধ্যে একজন।
তিনি ১৯৩২ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন।
তাঁর পিতা ও পিতামহ উভয়েই শিক্ষক ছিলেন। মা’ও স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। তাঁর জন্মের পর সন্তান পালনকেই প্রাধান্য দিয়ে তাঁর মা জীবিকা ত্যাগ করেন।
অর্চনা শর্মা স্কুলে গিয়ে শিক্ষা গ্রহণের পরিবর্তে বাড়িতেই মা’র কাছে পড়াশুনা করতেন। সেই সময় রাজস্থানের পরিবেশ অত্যন্ত রক্ষণশীল ছিল। মেয়েরা বাইরে গিয়ে পরীক্ষা দেবে, সেটা সম্ভব ছিল না। তাই তিনি মা’র কাছে পড়াশোনা করে পাটনা থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেন। পরে অবশ্য রাজস্থান থেকেই আইএসসি ও বিএসসি পাশ করার পর, কলকাতায় এসে উদ্ভিদবিদ্যা নিয়ে ১৯৫১ সালে এমএসসি পাশ করেন। ১৯৫৫ সালে তিনি পিএইচডি ও ১৯৬১ সালে ডিএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিএসসি প্রাপক দ্বিতীয় মহিলা ছিলেন। সারাজীবন ধরেই তিনি শিক্ষা ক্ষেত্রে অসামান্য প্রতিভার সাক্ষর রেখেছেন।
কর্মজীবনের প্রথমে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের রিসার্চ স্কলার এবং ফেলো হিসেবে পার্টটাইম ক্লাস নিতেন। পরে পুরোপুরি যোগ দিয়েছিলেন ১৯৭১ সালে।
১৯৭২ সালে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের অন্তর্গত সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড স্টাডি ইন সেল অ্যান্ড ক্রোমোজোম রিসার্চের জেনেটিক্সের প্রফেসর হিসেবে যোগ দেন। ১৯৮০ সালে তিনি উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান নিযুক্ত হন।
কর্মজীবনে তিনি পুরুষ প্রধান জগতে বিভিন্ন বাধার সম্মুখীন হলেও, নিজস্ব বুদ্ধিবলে অতি সহজে সকল বাধাকে অতিক্রম করেছেন।
কর্মজীবনে তিনি নিবেদিত প্রাণ শিক্ষক ছিলেন। গবেষক হিসেবেও তিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। ক্রোমোজোমের গঠন-সম্পর্কিত তাঁর গবেষণা বর্তমান বিশ্বেও ব্যবহৃত হচ্ছে। এই বিষয়ে তাঁর বহু গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়।
স্বাভাবিকভাবেই সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাঁর গবেষণার ক্ষেত্রেও নতুন নতুন বিষয় এসেছে। পরিবেশ দূষণের যে ক্ষেত্রগুলি মানুষের স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর তিনি নানাভাবে সেগুলি বিশ্লেষণ করার চেষ্টা করেছেন।
সাইটোজেনেটিক্স, হিউম্যান জেনেটিক্স এবং এনভায়রনমেন্টাল মিউটোজেনেসিস সংক্রান্ত গবেষণার কাজে তাঁর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ৫০জন গবেষকের গবেষণার কাজে তিনি সুপারভাইজার ছিলেন। তাঁর গবেষণা সংক্রান্ত ও রিভিউ সংক্রান্ত পত্রের সংখ্যা ৩০০-র উপরে। তিনি আটটি বইয়ের রচয়িতা এবং ১৫টি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সাময়িক পত্রের বিশেষ সংখ্যা তিনি সম্পাদনা করেছেন।
ব্যক্তিগত জীবনে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অরুণকুমার শর্মাকে বিবাহ করেন। তাঁদের মিলিত অধ্যবসায় ও গবেষণার ফল, তাঁদের অন্যতম খ্যাতিসম্পন্ন গ্রন্থ ক্রোমোজোম টেকনিক্স—থিয়োরি অ্যান্ড প্রাকটিস। গ্রন্থটি ১৯৬৫ সালে লন্ডন থেকে প্রকাশিত হয়েছিল।
অর্চনা শর্মার নিজের ক্ষেত্রে বইটিকে একটি ক্লাসিক আখ্যা দেওয়া যায়। ১৯৬৫, ১৯৭২ ও ১৯৮০ সালে এর তিনটি সংস্করণের প্রকাশই তা প্রমাণ করে।
সারাজীবন ধরে তিনি অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন। বহু গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা তাঁকে বহুবিধ পদ ও উপাধি দিয়ে সম্মানিত করেছে। ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল সায়েন্স একাডেমি (ইনসা), ইন্ডিয়ান অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্সেস (ইন্ডিয়া)-এর তিনি ফেলো হয়েছেন।
১৯৮৬-৮৭ সালে তিনি ইন্ডিয়ান সায়েন্স কংগ্রেসের সাধারণ সভাপতি হিসেবে নিযুক্ত হন। এছাড়াও তিনি ইন্টারন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্স (জার্মানি ১৯৯০)-এর এবং ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল সায়েন্স অ্যাকাডেমি কাউন্সিলের সদস্য ছিলেন।
১৯৭৪ সালে অধ্যাপক অরুণকুমার শর্মার সঙ্গে যুগ্মভাবে ইউনিভার্সিটি গ্রান্ট কমিশনের জীববিজ্ঞানের প্রথম জে.সি. বোস পুরস্কার পান। ১৯৭৬ সালে তিনি শান্তিস্বরূপ ভাটনগর পুরস্কার পান। ১৯৮০ সালে ইউ.জি.সি-র জাতীয় অধ্যাপকের সম্মান তিনি লাভ করেন। ১৯৮৩-তে এফ.আই.সি.সি.আই পুরস্কার পান। ১৯৮৪-তে ইন্ডিয়ান বোটানিক্যাল সোসাইটি দ্বারা প্রদত্ত বীরবল সাহানি পদক পান। এই সময়ই তিনি পদ্মভূষণ পান। ১৯৯১ সালে ইন্ডিয়ান সায়েন্স কংগ্রেস অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা প্রদত্ত আশুতোষ মুখার্জি পদক পান।
শুধুমাত্র গবেষণা বা শিক্ষকতাই নয়, বিজ্ঞান সম্পর্কিত বহু প্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক কাজকর্মের সঙ্গেও তিনি সক্রিয়ভাবে যুক্ত ছিলেন। সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্চ কাউন্সিল (ডি.এস.টি) এবং এনভায়রনমেন্টাল রিসার্চ কাউন্সিল (মিনিস্ট্রি অফ এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ফরেস্ট)-এর নীতি ও সিদ্ধান্ত পরিচালনা করার গোষ্ঠীর তিনি অন্যতম সদস্য ছিলেন। ইউনেসকো-র ভারত সরকারের বিজ্ঞান সংক্রান্ত গবেষণায় যোগাযোগ এবং পারস্পরিক সমঝোতার ক্ষেত্রেও তিনি যুক্ত ছিলেন। এগুলি ছাড়াও বিজ্ঞান ও কারিগরি সংক্রান্ত ইউ.জি.সি.ডি.এস. টি.ডি.বি.টি এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কমিটির সঙ্গেও তিনি যুক্ত ছিলেন।
ডঃ অর্চনা শর্মার খ্যাতিমান জীবনের চির অবসান ঘটে ২০০৮ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি। তিনি শিক্ষকতার ক্ষেত্রে, গবেষণার ক্ষেত্রে, অন্যান্য যে সকল প্রতিষ্ঠানের তথা কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন—সকল বিষয়েই একনিষ্ঠ ছিলেন।
ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে তিনি অসম্ভব ভালোবাসা ও প্রশংসা পেয়েছিলেন।
তিনি বাড়িতে পড়াশুনার ফাঁকে ফাঁকে ভজন শুনতেন। অত্যন্ত ধার্মিক ও মানবিকগুণসম্পন্ন ছিলেন অর্চনা।
বিজ্ঞান জগতে তাঁর অবদান বৈজ্ঞানিক দিক থেকে তো বটেই, সামাজিক ক্ষেত্রেও স্বীকৃতির দাবি রাখে। সফল নারী হিসেবে তাঁর ভূমিকা বিশেষভাবেই উল্লেখযোগ্য।
প্রীতি বসু 
18th  March, 2017
 বৈশাখে বাঙালি মেনু

চিংড়ি মাছ দিয়ে মোচার ঘণ্ট
উপকরণ: মাঝারি সাইজের মোচা ১টি, কুচো চিংড়ি ৪০০ গ্রাম, নারকেল আধ ফালি, আদাবাটা ১টেবিল চামচ, জিরেগুঁড়ো ৩ চা চামচ, ধনেগুঁড়ো ২ চা চামচ, টমেটোবাটা  কাপ, তেজপাতা ২টি, আলু ২টি, গোটা গরমমশলা ফোড়নের মতো, পাঁচফোড়ন  চা চামচ, নুন, হলুদ, শুকনোলংকা ১টি, কাঁচালংকা ২/৩ টি, চিনি স্বাদমতো, সরষের তেল প্রয়োজন মতো, ঘি ২ চা চামচ।
বিশদ

22nd  April, 2017
 রাজকীয় মারাঠি ভোজ

বাঙালিদের সঙ্গে মারাঠিদের খুব মিল। দুই রাজ্যের নববর্ষের দিনটিও বেশ কাছাকাছি। গত ২৮ মার্চ ছিল মারাঠি নববর্ষ— গুড়ি পারোয়া। আমাদের মতো মারাঠিরাও দিনটি উপভোগ করেন ট্র্যাডিশনাল খানা-পিনা আর নাচা-গানায়। শিরডির সাঁইবাবার মন্দিরের কাছেই দৈবিক হোটেল। হোটেলটির মালটি ক্যুইজিন রেস্তরাঁ ‘আহান’। ‘গ্র্যান্ড মারাঠা থালি’ এদের সিগনেচার। এই থালিতে নানারকম ট্র্যাডিশনাল মারাঠি মেনু সাজানো থাকে। দৈবিক হোটেলের সিগনেচার ডিশ ‘গ্র্যান্ড মারাঠা থালি’ থেকে বিশেষ সাতটি পদের রেসিপি সংকলনে
সোমা লাহিড়ী।
বিশদ

22nd  April, 2017
 নববর্ষে বাঙালিয়ানায় বাঙালি খানা

আজ পয়লা বৈশাখ। শুভ নববর্ষ ১৪২৪। নববর্ষের এই পুণ্য লগ্নে কলকাতার নামকরা হোটেল রেস্তরাঁয় জমে উঠেছে মহাভোজের আয়োজন। কোথায় কেমন খাওয়াদাওয়া তারই খবরে কমলিনী চক্রবর্তী। 
হোটেলের মিথ রেস্তরাঁয় ১৪ থেকে ১৬ এপ্রিল চলবে বাঙালির ভুরিভোজ। মেনুতে পাবেন মোচার চপ, বেগুনি, মাছ ভাজা, দই কাতলা, পিয়াজ দিয়ে আলু পোস্ত, নারকেলি ছোলার ডাল, মাটন কষা ইত্যাদি। 
বিশদ

15th  April, 2017
হোটেলে রেস্তরাঁয় নববর্ষের নতুন মেনুর সাজ

মাত্র এক সপ্তাহের অপেক্ষা। তারপরেই বাংলা ১৪২৪-কে স্বাগত জানানোর পালা। নতুন বছরকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত কলকাতার হোটেল ও রেস্তরঁাগুলোও। কোথায় কেমন মেনু তার খবরে কমলিনী চক্রবর্তী।
বিশদ

08th  April, 2017
সুস্থ থাকুন ডায়াবেটিক ফুডের সঙ্গে

ব্লাড সুগার বেশি বলে সুখাদ্য থেকে বঞ্চিত থাকতে হবে এমন ধারণা ভ্রান্ত। সুস্বাদু ডায়াবেটিক রেসিপি রইল আপনাদের জন্য
বিশদ

08th  April, 2017
লাভ রুম রেস্তরাঁয় খাবারের নানা রূপ 

রেস্তরাঁর নাম ‘লাভ রুম’। পেট কেয়ার রেস্তরাঁ এটি। কনসেপ্টটা অভিনব। এখানে আপনি পোষ্য নিয়ে খেতে যেতে পারেন অনায়াসে। এখানেই শেষ নয়। পোষ্যদের জন্য আছে নানারকম খাবার। বিশদ

25th  March, 2017
শুক্তোর নানা স্বাদ 

মৌরলা মাছের শুক্তো
উপকরণ: মৌরলা মাছ ৫০ গ্রাম, বেগুন ৩৫০ গ্রাম (ছোট করে কাটা), কাঁচকলা ১ টি, শিম ২০০ গ্রাম, রাঙা আলু ২০০ গ্রাম, সরষের তেল ১০০ গ্রাম, হলুদ ২ চামচ (চা), সরষে বাটা ৩০ গ্রাম, ঘি সামান্য, আদাবাটা ২ চামচ, মেথি ফোড়নের জন্য।
বিশদ

25th  March, 2017
পোস্ত বাহার 

শিম পোস্ত
শিম ২০০ গ্রাম, পোস্তবাটা ৫০ গ্রাম, কাঁচালংকা ৫টা, নুন স্বাদমতো, তেল পরিমাণ মতো, বেসন ৪ চা চামচ, চালের গুঁড়ো ২ চামচ, কালোজিরে  চা চামচ।
বিশদ

25th  March, 2017
স্বপ্নের দেশ মুন্সিয়ারি 

অনির্বচনীয় নৈঃশব্দ্যের মাঝে নিজেকে চিনে নেওয়া, খুঁজে পাওয়া। সব মিলিয়ে এক স্বপ্নের দেশ মুন্সিয়ারি। বর্ণনায় সন্দীপ বসু। 
বিশদ

18th  March, 2017
চরিত্র যেমন সাজ তেমন 

পয়লা বৈশাখ মুক্তি পেতে চলেছে পরিচালক কৌশিক গাঙ্গুলির ছবি বিসর্জন। ছবির পোশাক পরিকল্পনায় রয়েছেন অভিনেত্রী, পরিচালক, কৌশিক-জায়া চূর্ণী গাঙ্গুলি। খবরে চৈতালি দত্ত। 
বিশদ

18th  March, 2017


একনজরে
 সিমলা, ২৭ এপ্রিল (পিটিআই): দেশের ছোট ছোট শহরগুলিকে বিমান পরিষেবায় জুড়ে ফেলার উদ্দেশ্য নিয়ে ‘উড়ে দেশ কা আম নাগরিক’ বা ‘উড়ান’ প্রকল্প হাতে নিয়েছিল কেন্দ্রীয় ...

 প্যারিস, ২৭ এপ্রিল: ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটে জয়ী ইমানুয়েল ম্যাক্রন ও তার স্বর্ণকেশী স্ত্রী ব্রিগেট বিজয় মিছিলে হাঁটলেন হাতে হাত ধরে। মঞ্চে উঠে ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আলিপুরে একটি বেসরকারি হাসপাতাল ভাঙচুরের ঘটনায় মূল অভিযুক্তও জামিন পেয়ে গেল। তার নাম মহম্মদ সাকিলউদ্দিন। বৃহস্পতিবার আলিপুরের মুখ্য বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট সৌগত ...

সংবাদদাতা, মাথাভাঙা: বৃহস্পতিবার চ্যাংরাবান্ধার সর্দারপাড়ায় সীমান্ত এলাকার জনৈক শিক্ষকের বাড়ির পাশে বোমা পড়ে থাকাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। ঘটনাস্থলে বিএসএফ ও রাজ্য পুলিশের আধিকারিকরা চলে আসেন। শিলিগুড়ি থেকে বম্ব স্কোয়াডকেও ডাকা হয়। ওই শিক্ষককে চ্যাংরাবান্ধায় অবস্থিত বিএসএফ ক্যাম্পে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতির সূচনা। ব্যবসায়ীদের উন্নতির আশা রয়েছে। বিদ্যার্থীদের সাফল্যযোগ আছে। আত্মীয়দের সঙ্গে মনোমালিন্য দেখা দেবে। ... বিশদ



ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৫: ইতালির রাষ্ট্রপ্রধান মুসোলিনিকে হত্যা করা হল
১৯৪৭: বাংলাদেশের লেখক হুমায়ুন আজাদের জন্ম
১৯৮২: অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিকের জন্ম



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.২৫ টাকা ৬৪.৯৩ টাকা
পাউন্ড ৮১.১২ টাকা ৮৩.৯২ টাকা
ইউরো ৬৮.৬৩ টাকা ৭১.১০ টাকা
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,২৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৭,৭৯৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৮,২১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৯০০ টাকা

দিন পঞ্জিকা

১৪ বৈশাখ, ২৮ এপ্রিল, শুক্রবার, দ্বিতীয়া দিবা ১০/২৯, কৃত্তিকানক্ষত্র দিবা ১/৩৯, সূ উ ৫/১০/১৪, অ ৫/৫৮/৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৪ পুনঃ ৭/৪৪-১০/১৮ পুনঃ ১২/৫১-২/৩২ পুনঃ ৪/১৫-অস্তাবধি রাত্রি ৭/২৮-৮/৫৭ পুনঃ ২/৫৭-৩/৪১, বারবেলা ৮/২২-১১/৩৪, কালরাত্রি ৮/৪৫-১০/১০।
১৪ বৈশাখ, ২৮ এপ্রিল, শুক্রবার, দ্বিতীয়া ১/২০/৬, কৃত্তিকানক্ষত্র অপরাহ্ণ ৪/৩৮/৩১, সূ উ ৫/৯/২৯, অ ৫/৫৮/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫১/৫৯, ৭/৪৩/১৫-১০/১৭/০, ১২/৫০/৪৬-২/৩৩/১৬, ৪/১৫/৪৭-৫/৫৮/১৭, রাত্রি ৭/২৭/২৭-৮/৫৭/১৬, ২/৫৫/১৫-৩/৩৯/৫৯, বারবেলা ৮/২১/৪১-৯/৫৭/৪৭, কালবেলা ৯/৫৭/৪৭-১১/৩৩/৫৩, কালরাত্রি ৮/৪৬/৫-১০/৯/৫৯।
১ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
 দিল্লি ১৫ ওভারে ১৩১/২

05:11:56 PM

 দিল্লি ১২ ওভারে ৯৭/১

04:59:04 PM

দিল্লি ৫ ওভারে ৪৮/১ 

04:26:47 PM

মুর্শিদাবাদে পথ দুর্ঘটনায় বাইক আরোহীর মৃত্যু, উত্তেজনা 

04:15:00 PM

সিউড়িতে সোনার দোকানে ডাকাতির ঘটনায় ধৃত ১ 
বীরভূমের সিউড়িতে সোনার দোকানে দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ধৃতের কাছ থেকে সোনা, হীরের গয়না উদ্ধার করা হয়েছে বলে সাংবাদিক বৈঠকে জানান জেলা পুলিশ সুপার সুধীর কুমার নীলকান্তম। 

04:11:54 PM

আইপিএল: টসে জিতে ফিল্ডিং নিল কলকাতা

 আজ আইপিএল-এ কলকাতা নাইট রাইডার্স বনাম দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং-এর সিদ্ধান্ত অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরের

03:49:23 PM






বিশেষ নিবন্ধ
 বাজেট হাসপাতাল তৈরি দূরদর্শী সিদ্ধান্ত, আগামীদিনে অগ্রাধিকার পাক জেলাও
নিমাই দে: এমন একটা প্রতিযোগিতার বাজারে, যেখানে সরকার বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মৌচাকে ঢিল মারতে নামছে, সেখানে ...
 অরুণাচলে চীনকে ঠেকাতে তৎপর সতর্ক ভারত
গৌরীশঙ্কর নাগ: আমরা ধরে নিয়েছিলাম তিব্বতের ওপর চীনের অধিকার যদি আমরা স্বীকার করে নিই, তাহলে ...
তোর্সা নদীই কি জলবণ্টনের স্থায়ী সমাধান?
গিরিজাশঙ্কর চট্টোপাধ্যায়: তিস্তা জলবণ্টন চুক্তি নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে নানাবিধ কূটনৈতিক আলোচনা হয়ে গেল ...
ভারত-বাংলাদেশ অভিন্ন নদীগুলির জলপ্রবাহ সমস্যা ও সমাধান
মোঃ তারিকুজ্জামান রেজা: বাংলাদেশ ও ভারত দুটি বন্ধু প্রতিবেশী রাষ্ট্র। এ দুই রাষ্ট্রের সম্পর্ক রক্তের ...
কেন্দ্রকে বাদ দিয়ে তাজপুরে বন্দর নির্মাণ হবে অসার ও অযৌক্তিক
উৎপল চৌধুরি : এটা সত্যি যে, একদিন কলকাতা বন্দরের সামগ্রিক পণ্য খালাস বাড়ানো ও বন্দরের ...