বিশেষ নিবন্ধ
 

 বৈশাখী ভাবনায় অশনি সংকেত

সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়: দু’তিন বছর ধরে এই নতুন উপদ্রবটা শুরু হয়েছে। একটু-আধটু কথা, ছোটখাট দাবি উঠেছিল। কিন্তু বিশেষ কেউ খুব একটা পাত্তা দেয়নি। এবার ব্যাপারটা একটু বেশিই পেকে গিয়েছে। দাবিটা এবার আরও জোরালোভাবে উঠেছে। কেউ কেউ এর মধ্য দিয়ে অশনি সংকেতের আভাস পাচ্ছে।
আমি বাংলাদেশের কথা বলছি। সেখানে বাংলা নববর্ষ উদ্‌যাপন এবারেও ধুমধামের সঙ্গে পালিত হয়েছে। কিন্তু গলায় একটা কাঁটা খচখচ করছে তো করছেই। একটা সংশয় মনের মধ্যে চাগিয়ে উঠছে। বাঙালির একান্ত এই প্রাণের উৎসব, যা কিনা আদ্যন্ত অসাম্প্রদায়িক, আগামীদিনে তা নিরুপদ্রবে পালন করা যাবে তো?
এমন আশঙ্কার কারণ অনেক। বছর দুয়েক আগে উগ্র ধর্মীয় সংগঠনগুলি জিগির তোলে, পয়লা বৈশাখ আদ্যন্ত হিন্দু বাঙালিদের উৎসব। এর সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই। সম্পর্ক তো দূরের কথা, পয়লা বৈশাখ উদ্‌যাপন নাকি ইসলাম বিরোধী। দাবিটাকে সে সময় বিশেষ কেউ আমল দেয়নি। বরং গোটা বাংলাদেশ ১৪ এপ্রিলের ভোর থেকে রাজপথে নেমে এসেছিল।
বর্ণাঢ্য রঙিন শোভাযাত্রায় ঝলমল করে উঠেছিল দেশের প্রতিটি নগর প্রান্তর। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইয়া বড় বড় মুখোশ নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়। এবারেও হল। পয়লা বৈশাখের মঙ্গল শোভাযাত্রাকে ইউনেসকো বিশ্ব ঐতিহ্য হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এ এক অনন্য সম্মান। সুন্দরবন ও মঙ্গল শোভাযাত্রা দুই বিশ্ব ঐতিহ্য আজ বিপন্নতার মুখোমুখি। সন্দেহ নেই বড় সংকট। বড় দুশ্চিন্তা।
বাংলাদেশে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী কউমি মাদ্রাসায় পড়ে। এই কউমি মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠানই হেফাজতে ইসলাম। তারা মনে করে (এবং বিশ্বাসও), পয়লা বৈশাখ উদ্‌যাপন ইসলামি সংস্কৃতির সঙ্গে মেলে না। শুধু তাই নয়, তাদের মতে, এটি একটি আদ্যন্ত হিন্দু উদ্‌যাপন। হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে জামাত ইসলামের সম্পর্ক কিছু কিছু ক্ষেত্রে আম ও দুধের মতো। জামাত ইসলামির নায়েব আমিরের একটা বিবৃতি কাগজে পড়লাম। তিনি বলেছেন, ‘মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয় হিন্দু সমাজে শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিনে। তারা তাদের বিশ্বাস অনুযায়ী মঙ্গলের প্রতীক হিসেবে পেঁচা, রামের বাহক হিসেবে হনুমান, দুর্গার বাহক হিসেবে সিংহ, দেবতা হিসেবে সূর্য এবং অন্যান্য প্রাণী ও পশুর মুখোশ নিয়ে ওই দিন শোভাযাত্রা করে। ওঁর মতে, এর সঙ্গে বাংলা নববর্ষের কোনও সম্পর্ক নেই।’
এই মনোভাব এবার পয়লা বৈশাখের আগে বাংলাদেশের একাংশকে বেশ প্রভাবিত করেছে। বাংলাদেশের সুন্দরতম অঞ্চল চট্টগ্রামে চৈত্র সংক্রান্তির দিন একটা ঘটনা ঘটল। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা বর্ষবরণের জন্য রাস্তার ধারে দেওয়ালচিত্র এঁকেছিলেন। রাতের অন্ধকারে ইসলামি মৌলবাদী শক্তি সেই অনুপম শিল্পের ওপর পোড়া মোবিলের কালো পোঁচ লেপে দেয়। প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ফের হাতে তুলে নেন রং-তুলি। নতুন করে তাঁরা রাঙিয়েই শুধু তোলেননি নতুন দেওয়াল, সেই সঙ্গে দেশজোড়া প্রতিবাদে কণ্ঠও মেলান। পালিত হয় নববর্ষ, মৌলবাদীদের ধিক্কার জানানোর মধ্য দিয়ে।
প্রগতিশীল ও শুভ চিন্তার মানুষজন এই মনোভাবকেই আগামী দিনের বড় বিপদ হিসাবে দেখছেন। এই ভাবনাচিন্তার কারণও আছে।
সামরিক শাসক হুসনে মোবারক এরশাদ বাংলাদেশের সাপ্তাহিক ছুটির দিন রবিবার থেকে সরিয়ে শুক্রবার করে দেন। কী কারণে এটা তিনি করেছিলেন, কাদের সন্তুষ্ট করতে তা বলে না দিলেও চলে। তাঁরই আমলে পয়লা বৈশাখের দিনটি ১৪ এপ্রিল নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়। গত আট বছরেরও বেশি সময় ধরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিকাশ ঘটানোর মধ্য দিয়ে শেখ হাসিনা দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন। স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি যারা যুদ্ধ অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিল, তাদের বিচার শেষে সাজা দিচ্ছেন। কিন্তু এই হাসিনাকেই সমালোচিত হতে হচ্ছে সচেতন নাগরিক সমাজের কাছে, যাঁরা রাজনৈতিকভাবে তাঁর সমর্থক। সমালোচিত হচ্ছেন, কারণ দেশের মৌলবাদীদের চাপে পড়ে তিনি এমন কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যা এই সংকীর্ণ চেতনার বিকাশের সহায়ক এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী। ভোটের চিন্তাই এমন সিদ্ধান্তের কারণ বলে যাঁরা মনে করেন, তাঁদের ব্যাখ্যায় খুব একটা ভুল আছে বলে হাসিনার একনিষ্ঠ সমর্থকেরাও মনে করেন না। বস্তুত, হাসিনার এই আত্মসমর্পণ তাঁদের কাছে রহস্যময়।
প্রথম সিদ্ধান্তটি এই বছরের একেবারে গোড়ায় নেওয়া। মৌলবাদীরা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে স্কুল শিক্ষার টেক্সট বইয়ে বেশ কিছু পরিবর্তনের দাবি জানায়, যা নাকি ‘ইসলাম বিরোধী’। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে আঁকড়ে বেড়ে ওঠা বিস্মিত নাগরিক সমাজ দেখল, বাংলা টেক্সট বই থেকে একটার পর একটা কবিতা, গল্প ছেঁটে দেওয়া হল। ক্লাস ওয়ানের ছেলেমেয়েরা আজন্মকাল ধরে যেখানে ‘অ’-এ অজগর আসছে তেড়ে শিখে আসছে, এই প্রথম তারা ‘ও’-এর ক্ষেত্রে ওল খেয়ো না ধরবে গলা আর পড়বে না। ‘ও’-এ ওল-এর স্থান নিয়েছে ‘ওড়না’, যা মুসলমান মেয়েদের কাছে ‘মাস্ট’। তারা পড়বে ‘ও’-তে ওড়না চাই। প্রশ্ন উঠেছিল, ক্লাস ওয়ানে ওড়নার প্রয়োজনীয়তা কোথায়? তাছাড়া ওড়না তো শুধু মেয়েদের। ছেলেদের সঙ্গে এর কী সম্পর্ক? হেফাজতের জবাব ছিল, ওড়না মুসলমান সংস্কৃতির সঙ্গে সংগতিপূর্ণ। অতএব বিতর্কের অবকাশ থাকা উচিত নয়।
ক্লাস সিক্সের ছেলেমেয়েদের উত্তর ভারত ঘুরে একটা লেখার বিষয় বহুকাল ধরে চালু ছিল। সেটা বদলে গেল। ফিরে এসেছে সৈয়দ মুজতবা আলির ‘নীলনদ আর পিরামিডের দেশে’। নবম ও দশম শ্রেণিতে বাদ গিয়েছে মঙ্গলকাব্যের ‘আমার সন্তান’, সঞ্জীবচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘পালামৌ’, বাউলের ওপর লেখা ‘সময় গেলে সাধন হবে না’। পঞ্চম শ্রেণিতে বদলানো হয় হুমায়ুন আজাদের ‘বই’ ও গোলাম মোস্তাফার ‘প্রার্থনা’ কবিতা। হেফাজতের অভিযোগ, হুমায়ুন আজাদ ‘স্বঘোষিত নাস্তিক’। এই হুমায়ুন আজাদই আক্রান্ত হয়েছিলেন উগ্রবাদীদের হাতে। অষ্টম শ্রেণির পাঠ্যপুস্তক থেকে বাদ দেওয়া হয় উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরীর লেখা ‘রামায়ণ কাহিনি’র আদিকাণ্ড ও শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘লালু’ গল্প। কেন? না, রামায়ণের সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই, আর, ‘লালু’ গল্পে পাঁঠা বলির নিয়ম-কানুন শেখানো হয়েছে। হেফাজতের ২১ জন কেন্দ্রীয় নেতা যৌথ বিবৃতিতে বলেছিলেন, ‘স্কুল পাঠ্যপুস্তকে মুসলিম ছাত্রছাত্রীদের নাস্তিক্যবাদ ও হিন্দুতত্ত্বের পাঠ দেওয়া হচ্ছে। তাদের পড়ানো হয় গোরুকে মায়ের সসম্মান দিয়ে ভক্তি করতে, পাঁঠাবলির নিয়মকানুন, হিন্দু বীরদের কাহিনি, দেব-দেবীর নামে প্রার্থনা, হিন্দু তীর্থস্থান ভ্রমণ করার বিষয়।’
এই দাবির নিট রেজাল্ট? এই বছরের স্কুল পাঠ্যবইয়ের আমূল পরিবর্তন। সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণির ১৫ লাখ পাঠ্যপুস্তক ছেপে বেরনোর পর দেখা গেল ‘রামায়ণ কাহিনি’ ও ‘লালু’ তাতে রয়ে গিয়েছে। সোয়া চার কোটি টাকা খরচে ছাপা ১৫ লাখ বই জলাঞ্জলি দিয়ে নতুন করে ফের বই ছাপানো হল। হেফাজতে দেখা দিল যুদ্ধজয়ের উন্মাদনা। শেখ হাসিনার নামে তারা জয়ধ্বনি দিল!
তারা কিন্তু ওখানেই থেমে থাকেনি। এই সেদিন তারা দাবি তোলে, সুপ্রিম কোর্টের সামনে যে-ভাস্কর্য সম্প্রতি স্থাপিত হয়েছে, তা তুলে দিতে হবে।
এই সেদিন আমি ভাস্কর্যটা দেখতে গেলাম। শাড়ি পরা চোখ বাঁধা দণ্ডায়মান এলোকেশী এক নারী। বাঁ হাঁটু সামান্য ভাঙা, সামনের দিকে এগনোর ভঙ্গি। তার ডান হাতে খোলা তরোয়াল, বাঁ হাতে দাঁড়িপাল্লা। দুটি পাল্লা সমান সমান। একচুলও ঝুঁকে নেই কোনওটা। মৌলবাদীদের দাবি গ্রিক দেবীর আদলে ভাস্কর্যটি গড়া এবং তা ইসলাম বিরোধী। অতএব অবিলম্বে তা সরিয়ে ফেলা হোক।
হাসিনা দাবিটি শুনলেন এবং পত্রপাঠ তা খারিজ করলেন না। বরং তাঁর কণ্ঠস্বরে সমর্থনের আভাস একটু যেন পাওয়া গেল। হেফাজতের প্রধান শাহ আমেদ শফির সঙ্গে দেখা করে তাঁকে পাশে বসিয়ে হাসিনা বললেন, ‘আমি নিজেও ওই ভাস্কর্য পছন্দ করিনি। ওটা নাকি গ্রিক ভাস্কর্য। তাই যদি হবে তাহলে শাড়ি কেন? আর গ্রিক ভাস্কর্যই বা এখানে কেন? হাস্যকর। যা হোক, আমি প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আলোচনা করব। ধৈর্য ধরুন। এ নিয়ে অযথা হইচই করবেন না।’
কেন হাসিনা পাঠ্যপুস্তকে পরিবর্তন আনলেন? কেন ভাস্কর্য নিয়ে এমন কথা বললেন? ভোট বড় বালাই বলে? কই তিনি তো সংস্কৃতিমন্ত্রী নাট্যব্যক্তিত্ব আসাদুজ্জামান নুরের মতো বলতে পারতেন, ‘হেফাজত যেভাবে একটার পর একটা দাবি জানাচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে বাংলাদেশ যেন ইসলামি গণতন্ত্র, গণপ্রজাতন্ত্রী দেশ নয়!’ পয়লা বৈশাখ পালন না-করার দাবি হাসিনার সরকার খারিজ করেছেন। এটা যদি আপাতত সুখের কথা হয়, পাঠ্যপুস্তকের বদল তাহলে চিন্তার কথা। একবার যা ও দেশে বদলায় তা আর কখনও ঘুরে আসে না। দেশের রফতানিকারকেরা চাইলেও শুক্রবারের বদলে রবিবার ছুটির দিন হিসেবে ফেরানো যাবে না। স্থাপত্য প্রত্যাহারের দাবিটা যে মানা হবে না, তাও জোর দিয়ে বলা যাবে না। কে জানে, এইভাবে কোনও এক দিন মৌলবাদীদের চাপে পয়লা বৈশাখ, পয়লা ফাল্গুন উদ্‌যাপনও চৌপাট হয়ে যায় কি না? গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ হয়ে ওঠে ইসলামি প্রজাতন্ত্র? প্রতিষ্ঠিত হয় শরিয়তি আইন?
আরশিনগরের পড়শিরা ১৪২৪-এর প্রথম প্রভাত দুশ্চিন্তামুক্ত রাখতে পারল না।
16th  April, 2017
লুক ইস্ট থেকে অ্যাক্ট ইস্ট: কী পেলাম
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

২০১৪ সালে ক্ষমতায় এসে ওই বছরই ১২ নভেম্বর আসিয়ান-ভারত যৌথ সম্মেলনের বক্তৃতায় নরেন্দ্র মোদি উল্লেখ করেছিলেন দেশের অভ্যন্তরে অর্থনৈতিক বিকাশ, শিল্পায়ন এবং বাণিজ্যের ক্ষেত্রে যেমন নতুন জোয়ার এসেছে তেমনি ভারতের বিদেশনীতিতে ‘লুক ইস্ট’ পলিসি ‘অ্যাক্ট ইস্ট’ পলিসিতে রূপান্তরিত হয়েছে।
বিশদ

বাংলার রসগোল্লা—মেড ইন চায়না
হারাধন চৌধুরী

আলী সাহেব বাঙালিকে শুনিয়েছিলেন তাঁর ঝান্ডুদার গল্প। পাঠক জানেন, ঝান্ডুদা মস্ত ব্যবসায়ী। যাচ্ছিলেন লন্ডন। বিলেতবাসী এক বন্ধুকন্যার জন্য সঙ্গে এনেছিলেন বাংলার টিনজাত কিছু রসগোল্লা। পথে ইতালির ভেনিস বন্দরে নামতে হয়। এরপর সেখানকার কাস্টমস অফিসে চেকিংয়ের সময় সেই কয়েক পাউন্ড রসগোল্লার জন্য যে আক্কেলগুড়ুম হবে তা তাঁর কল্পনায় ছিল না।
বিশদ

গুম-নিখোঁজ ও পরমানন্দ মন্ত্রণালয়
সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়

বাংলাদেশে ‘লিট ফেস্ট’ শুরু ও শেষ হল। সেই কারণে কি না জানি না, অরুন্ধতী রায়ের দ্বিতীয় উপন্যাস ‘দ্য মিনিস্ট্রি অব আটমোস্ট হ্যাপিনেস’ হুট করে সংবাদপত্রে চর্চার কেন্দ্রে উঠে এল। এই মুহূর্তে বাংলাদেশের অত্যন্ত জনপ্রিয় সাহিত্যিক ও সাংবাদিক, আমার অতি ঘনিষ্ঠ ও প্রিয় আনিসুল হক এই উপন্যাসের বাংলা নাম দিয়েছেন ‘পরমানন্দ মন্ত্রণালয়’।
বিশদ

19th  November, 2017
লন্ডন, এডিনবরা এবং মমতা
শুভা দত্ত

দুর্গাপুজোর দিন যত এগিয়ে আসে, আনন্দটা তার সঙ্গে সমানুপাতিক হারে বাড়ে। এ আমাদের বাঙালি সংস্কৃতির চিরন্তন সত্য। আর মা দুর্গাকে ঘিরে সেই উৎসবের রামধনু রং ফিকে হতে শুরু করে নবমীর সন্ধ্যা থেকেই। আজ বাদে কাল দশমী। মায়ের ফিরে যাওয়ার পালা।
বিশদ

19th  November, 2017
চীনের প্রেসিডেন্ট বনাম ভারতের ডিফেন্স রিসার্চ
প্রশান্ত দাস

জিনপিং দেশের বিখ্যাত বিজ্ঞানীদের বললেন—আমাদের সমাজতন্ত্র দেশকে তরতর করে এগিয়ে নিয়ে চলেছে। এগিয়ে চলেছে আমাদের অর্থনীতি। কিন্তু গত পাঁচ বছরে আপনারা ক’টি অবিশ্বাস্য অস্ত্র দিতে পেরেছেন সেনাদের? ভারতের ডিআরডিও কী করে পৃথিবীতে দু’নম্বর রিসার্চ সেন্টার হল? কী নেই আপনাদের? যা যা চাই, তালিকা পাঠান। যতদিন না আমরা ডিআরডিও-কে ছাপিয়ে যেতে পারছি, ততদিন আমরা নিজেদের এশিয়ার মধ্যে এক নং বলতে পারব না।
বিশদ

18th  November, 2017
রাজ্যের লাইব্রেরিগুলিকে বাঁচাতেই হবে
পার্থজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

মনে পড়ছে গত ডিসেম্বরের কথা। বীরভূম জেলার সরকারি বইমেলার আয়োজন হয়েছিল সিউড়িতে, ইরিগেশন কলোনির মাঠে। আমি উদ্বোধক, মঞ্চে জেলার মন্ত্রীরা, সঙ্গত কারণেই উপস্থিত ছিলেন গ্রন্থাগারমন্ত্রীও। মঞ্চে বসেই সিদ্দিকুল্লা চৌধুরীর সঙ্গে পরিচয়, আলাপচারিতা।
বিশদ

18th  November, 2017
মোদির আমলে শিশুদের খিদের যন্ত্রণা তীব্র, কারণ শিশু ও মহিলা উন্নয়নে গুরুত্ব কম
দেবনারায়ণ সরকার

কেন্দ্রীয় সরকারের গত ৩ বছরের বাজেটের তথ্য সার্বিকভাবে বিচার করলে দেখা যাচ্ছে কেন্দ্রীয় বাজেটে মোট ব্যয় যেখানে ২১ শতাংশের বেশি বেড়েছে (টাকার অঙ্কে অতিরিক্ত প্রায় ৩ লক্ষ ৫১ হাজার কোটি টাকা), সেখানে মহিলা ও শিশু উন্নয়নে ব্যয় কপর্দকও বাড়েনি, বরং প্রায় ১ শতাংশ কমেছে। একইভাবে মহিলা ও শিশু উন্নয়ন ব্যয় বাজেটের মোট ব্যয়ের ১ শতাংশের অনেক নীচে নেমেছে। মোদ্দা কথা হল, যে দেশের কেন্দ্রীয় বাজেটে মহিলা ও শিশু উন্নয়নের ব্যয় বাজেটে মোট ব্যয়ের ১ শতাংশেরও কম এবং এই ব্যয় মোদির জমানায় যেহেতু আরও কমছে, সেই দেশে রোজ রাতে খালি পেটে শুতে যাওয়া শিশুদের সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধিটাই স্বাভাবিক। তাই ভারতে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে অপুষ্টিও।
বিশদ

17th  November, 2017
ডেঙ্গু: রাজনীতি ছেড়ে হাত মিলিয়ে কাজের সময়
অনিরুদ্ধ কর

অবিলম্বে একটা স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর বা নিয়মাবলী প্রকাশ করতে হবে সরকারের তরফে। সরকারি নির্দেশ মানতে বাধ্য সকল সরকারি বেসরকারি ও প্রাইভেট চিকিৎসা কেন্দ্র। অতীতের দিকে নজর দিলে দেখা যাবে বার্ড ফ্লু বা সোয়াইন ফ্লু-র সময় সরকারের তরফে এমন নিয়মাবলী প্রকাশ করা হয়েছিল। চিকিৎসাব্যবস্থায় কী কী থাকতে হবে এবং কোথায় থাকবে তাও বলে দেওয়া হয়েছিল। ফ্লু-র ওষুধ একমাত্র সরকার দিত। খোলাবাজারে মিলত না সেই ওষুধ। কারণ সেক্ষেত্রে ওষুধ নিয়ে কালোবাজারি এবং চড়া দামে ওষুধ বিক্রি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যেত। এছাড়া একটি রাজ্যস্তরের কমিটি ছিল পর্যালোচনার জন্য।
বিশদ

17th  November, 2017
প্যারিস, পরিবেশ এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষী ভারত
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 পরিবেশ মানে হল যেখানে সেখানে থুতু না ফেলা। মন্তব্যটি আমারই এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুর। এবং কী ভয়ঙ্কর সাবলীল স্বীকারোক্তি। যে দেশে ৩০ কোটি মানুষ এখনও দারিদ্রসীমার নীচে বসবাস করেন, যেখানে সাক্ষরতা বলতে বোঝানো হয় নিজের নাম সই করতে পারা, সেখানে সচেতনতার প্রাথমিক পাঠটা এমন একটা মন্তব্য দিয়ে শুরু করলে মন্দ কী!
বিশদ

16th  November, 2017
সার্ধশতবর্ষের শ্রদ্ধাঞ্জলি টেম্‌স থেকে গঙ্গা: ভগিনী নিবেদিতার দার্শনিক যাত্রা
জয়ন্ত কুশারী

 আয়ারল্যান্ডের স্বল্প জনবসতি শহর ডুং গানন। স্যামুয়েল রিচমন্ড নোবেল নামে এক ধর্মযাজক ও তাঁর ভক্তিমতী স্ত্রী মেরি ইসাবেল হ্যামিলটন বাস করেন এই শহরে। এঁরা সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের কাছে করজোড়ে প্রার্থনা করেন সুখপ্রসবে প্রথম সন্তানটি হলে তাঁরা ঈশ্বরের চরণেই সদ্যোজাতকে সমর্পণ করবেন।
বিশদ

16th  November, 2017
নোট বাতিল: উত্তরপ্রদেশের ভোট, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক এবং চে গুয়েভারা
শুভময় মৈত্র

নোট বাতিলের কারণ এবং ফল সংক্রান্ত আলোচনা দেখে, শুনে এবং পড়ে জনগণ এই বিষয়ে যথেষ্ট অবহিত, হয়তো বা কিছুটা ক্লান্তও বটে। বিজেপি সরকার কেন এই সিদ্ধান্ত নিলেন, এর কী কী ভুল ভ্রান্তি আছে, দেশের কী ক্ষতি হল, সাধারণ মানুষ ঠিক কতটা ভুগলেন এই নিয়ে আমরা যতটা আলোচনা করেছি সেই পরিমাণটা সময় এবং সম্পদের হিসেবে পাঁচশো আর হাজার টাকার মোট বাতিল নোটের মূল্যের থেকে বেশিও হয়ে যেতে পারে।
বিশদ

14th  November, 2017
বুকে লাল গোলাপের সেই মানুষটির কথা আজ খুব মনে পড়ছে
মোশারফ হোসেন

স্বপনদা বলত, পচার চাই। বুঝলে ভায়া, পচারটাই আসল। বাঁকুড়া মানুষ স্বপনদা র-ফলা উচ্চারণ করতে পারত না। তার মুখে ‘প্রচার’ শব্দটা ‘পচার’ হয়েই বেরত। আগ্রার ভঁপু চক্কোত্তিও একই কথা বলেছিলেন। ভঁপুবাবুর সঙ্গে আমার আলাপ হয়েছিল ১৯৯৩ সালে। এরকমই এক নভেম্বরে। উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা ভোটের খবর করতে গিয়ে।
বিশদ

14th  November, 2017
একনজরে
সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: আলিপুরদুয়ার জেলার বক্সা পাহাড়ের ১৩টি পাহাড়ি গ্রাম এবং সমতলে থাকা সান্তলাবাড়ি ও জয়ন্তীকে নিয়ে বক্সাদুয়ার নামে একটি আলাদা করে গ্রাম পঞ্চায়েত গঠনের দাবিতে বিজেপি আন্দোলনে নামার প্রস্তুতি নিয়েছে। ...

 শ্রীনগর, ২০ নভেম্বর (পিটিআই): ফের কাশ্মীরে বাবা-মায়ের আবেদনে সাড়া দিয়ে বাড়ি ফিরল জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেওয়া এক যুবক। দক্ষিণ কাশ্মীরের বাসিন্দা ওই যুবকের নাম, ঠিকানা ...

রাতুল ঘোষ: প্রিয়দার স্মৃতি ক্রমশ ঝাপসা হয়ে আসার মুহূর্তে গত দু’দিন হঠাৎ নিদারুণভাবে উজ্জ্বল হয়ে উঠেছিল। আর এর নেপথ্যে ছিল কয়েকদিন আগে একটি সূত্রে পাওয়া ...

বিএনএ, বহরমপুর: মুর্শিদাবাদ জেলা থেকে লোহার সামগ্রী পাচার হচ্ছে পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোলে। শনিবার ১০টন লোহার সামগ্রী সমেত দু’জনকে গ্রেপ্তার করার পর এমনই তথ্য হাতে পেয়েছে রঘুনাথগঞ্জ থানার পুলিস। ধৃতদের জেরা করে পুলিস লোহা পাচার চক্রের মূল পান্ডার নাম জানতে পেরেছে। ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

প্রেম-প্রণয়ে কিছু নতুনত্ব থাকবে যা বিশেষভাবে মনকে নাড়া দেবে। কোনও কিছু অতিরিক্ত আশা না করাই ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব টেলিভিশন দিবস
১৬৯৪: ফরাসি দার্শনিক ভলতেয়ারের জন্ম
১৯৭০: নোবেলজয়ী পদার্থবিদ চন্দ্রশেখর বেঙ্কটরামনের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৪.২০ টাকা ৬৫.৮৮ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৯০ টাকা ৮৭.৭৯ টাকা
ইউরো ৭৫.৪৪ টাকা ৭৮.০৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩০,১৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৮,৬৩৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৯,০৬৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ অগ্রহায়ণ, ২০ নভেম্বর, সোমবার, দ্বিতীয়া রাত্রি ৯/৩৬, নক্ষত্র-জ্যেষ্ঠা রাত্রি ১২/৪৮, সূ উ ৫/৫৬/২৫, অ ৪/৪৮/৪, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/২৩ মধ্যে পুনঃ ৮/৫০ গতে ১১/০ মধ্যে। রাত্রি ঘ ৭/২৬ গতে ১০/৬ মধ্যে পুনঃ ২/২৭ গতে ৩/১৯ মধ্যে, বারবেলা ঘ ৭/১৮ গতে ৮/৪০ মধ্যে পুনঃ ২/৫ গতে ৩/২৬ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৪ গতে ১১/২২ মধ্যে।
৩ অগ্রহায়ণ, ২০ নভেম্বর, সোমবার, দ্বিতীয়া রাত্রি ৭/৪২/২৮, জ্যেষ্ঠানক্ষত্র ১১/৫৫/৩৬, সূ উ ৫/৫৬/৫৮, অ ৪/৪৬/৫৮, অমৃতযোগ দিবা ৭/২৩/৩৮, ৮/৫০/১৮-১১/০/১৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৪/৫৮-১০/৫৫/১৮, ২/২৫/৩৭-৩/১৮/১৮, বারবেলা ২/৪/২৮-৩/২৬/৪৩, কালবেলা ৭/১৮/১৩-৮/৩৯/২৮, কালরাত্রি ৯/৪৩/১৩-১১/২১/৫৮। 
৩০ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
 কালিয়াগঞ্জে দাশমুন্সি ভবন ঘুরে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় কালিয়াগঞ্জের দলীয় পার্টি অফিসে। এরপর সেখান থেকে নিয়ে আসা হয় রায়গঞ্জে। এখানে কংগ্রেস কার্যালয়ে অগুন্তি সমর্থক ও প্রিয়জনদের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের পর অন্ত্যেষ্টির জন্য শ্মশানের উদ্দেশ্যে রওনা হবে।

07:25:00 PM

কলকাতায় গ্রেপ্তার ৩ জন আল কায়দা জঙ্গি
আজ কলকাতা স্টেশন থেকে ৩ জন আল কায়দা ...বিশদ

06:07:00 PM

 কালিয়াগঞ্জের উদ্দেশ্যে শেষযাত্রায় প্রিয়
প্রিয়রঞ্জনের মরদেহ দিয়ে হেলিকপ্টার পৌঁছাল রায়গঞ্জে। সেখান থেকে ...বিশদ

05:16:00 PM

  ফের সাংবাদিক খুন ত্রিপুরায়
মাস দুয়েকের মধ্যে ফের সাংবাদিক খুনের ঘটনা ঘটল ত্রিপুররায়। এবার ...বিশদ

05:13:45 PM

ট্রেনের সময়সূচি বদল 
ডাউন ট্রেন দেরিতে আসার কারণে

১৩০০৯ আপ হাওড়া-দেরাদুন ...বিশদ

04:02:00 PM