Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

বেনোজলের রাজনীতি
তন্ময় মল্লিক

আজ দুনিয়ার সব শক্তির থেকে অনেক বেশি পাওয়ারফুল রাজনীতি। তাই যখন কোনও দুর্বল বিরোধীরও শাসক হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়, তখনই তাকে ঘিরে ভন ভন করে মৌমাছির দল। তবে, রাজনৈতিক মৌমাছির চরিত্রটা সম্পূর্ণ উল্টো। এরা মধু সংগ্রহ করে না, মধুর লোভেই ঘুরে বেড়ায়। ঘুরপাক খায় খাওয়ার লোভে। লক্ষণীয় বৈশিষ্ট্য, এদের কখনও উদর পূর্তি হয় না। কারও কারও নজরে, এরাই রাজনীতির ‘বেনোজল’। আবার বেনোজল জলাশয় বদলাতে বদলাতে সমুদ্রে গিয়ে পড়লেই হয়ে যায় নোনাজল। নোনাজল পেটে গেলে বমি অথবা বদহজম, আর চাষের জমিতে ঢুকলে ফসল নষ্ট। বেনোজল শব্দটার মধ্যে কেমন যেন একটা শ্লেষ লুকিয়ে রয়েছে। শ্লেষ বা ব্যঙ্গ যাই বলা হোক না কেন, বেনোজলের গুরুত্ব অস্বীকার করা খুবই কঠিন। বিশেষ করে যাঁরা রাজনীতি করেন তাঁদের কাছে এই ‘বেনোজল’ অতীব মহার্ঘ। কারণ বেনোজলেই পুকুর, ডোবা, জলাশয় কেমন যেন টইটম্বুর হয়ে যায়। বেশ একটা ভরা ভরা ভাব। অনেকটা ভরাভর্তি সংসারের মতো। তবে এই বেনোজলের স্রোতেই ভেসে আসে বোয়াল, রাঘব বোয়ালের দল। বেনোজলের চাপে পুকুর উপচে গেলে সেই জলের সঙ্গে বেরিয়ে যায় সার, খোল খাইয়ে বড় করা রুই, কাতলার দল। তখন নিজের সম্পদ অন্যের হয়ে যায়। বেনোজল যেমন একদিকে ভরে দেয়, তেমনই অনেক সময় কেড়েও নেয়। তবে, পুকুরপাড় জাল দিয়ে ঘিরে দিতে বোয়ালের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে পারলে লাভ নিশ্চিত। তা না হলে বোয়াল পুকুরের রুই, কাতলা পেটস্থ করে ফের বেনোজলের স্রোতে ভেসে যায় নতুন ঠিকানায়।
এই মুহূর্তে বঙ্গ রাজনীতিতে বহুল চর্চিত শব্দটি হল ‘বেনোজল’। লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে গেরুয়া শিবিরের আশাতীত সাফল্যের পর রাজনীতির কারবারিরা বিজেপির বাজার ধরার চেষ্টায় মরিয়া। তার মধ্যে খুচরো কারবারি যেমন আছে, তেমনই আছে পাইকারি কারবারিও। প্রতিদিন রাজ্যের কোনও না কোনও প্রান্তে তৃণমূল, সিপিএম এবং কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের ঘটনা ঘটেই চলেছে। নেতাদের ওজন অনুযায়ী দিল্লি, কলকাতা ও জেলায় যোগদানের জন্য ম্যারাপ বাঁধা হচ্ছে। তবে দিল্লির ক্রেজটা একটু বেশি।
তবে লাভপুরের তৃণমূল মনিরুল ইসলামের যোগদানের পর বিজেপিতে ক্ষোভ-বিক্ষোভ তৈরি হওয়ায় বিষয়টা একটু ঘেঁটে গিয়েছে। যাঁরা বাঁচার জন্য পড়ি কি মরি করে ঝাঁপ দেওয়ার জন্য তৈরি হয়ে গিয়েছিলেন, তাঁরা আপাতত ব্রেক কষেছেন। কারণ এক গোষ্ঠীর হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দিলে অন্য গোষ্ঠীর শীর্ষ নেতৃত্ব ‘ভেটো’ দিয়ে দিচ্ছে। ফলে একবুক স্বপ্ন নিয়ে নতুন দলে যোগ দেওয়ার পর কেউ চাপে পড়ে পদত্যাগ করছেন, কেউ আবার যোগদানের পর নতুন দলে গুরুত্ব না পেয়ে কারও কারও ‘ঘরওয়াপসি’ও হচ্ছে। তাই অনেকেই আরও একটু দেখে নিতে চাইছেন। নিদেনপক্ষে আগামী পুরসভা ভোট পর্যন্ত। কারণ এখনও কী হয়, কী হয় একটা ভাব তাঁদের মনের মধ্যে গুর গুর করছে। তাঁরা ভাবছেন, শেষ মুহূর্তে হাওয়া যদি কোনও কারণে ঘুরে যায় তাহলে ‘জাতও যাবে, পেটও ভরবে না।’
তবে, এসব হওয়ার কারণে যোগদান পর্বে ছেদ পড়েছে এমনটা ভাবার কোনও কারণ নেই। বেনোজলের স্রোত অব্যাহত। কারণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাটমানি ফিরিয়ে দেওয়ার যে নির্দেশ দিয়েছেন তাতে তৃণমূলের বহু চুনোপুঁটি থেকে রাঘব বোয়ালের প্রাণ ওষ্ঠাগত হওয়ার জোগাড়। বিজেপি ও সিপিএমের প্রাক্তনীদের উস্কানিতে চলছে বিক্ষোভ কর্মসূচি। আর সেই জনরোষ থেকে বাঁচতে কাটমানিতে উদরপূর্তি করা নেতাদের একটা বড় অংশ নিরাপদ আশ্রয় হিসেবে গেরুয়া শিবিরকেই বেছে নিতে চাইছে। কারণ তারা ভাবছে, এই মুহূর্তে গেরুয়া পাঞ্জাবি আর গেরুয়া টিপ সব চেয়ে বড় রক্ষাকবচ। আর গেরুয়া শিবির এখন গঙ্গাজলের চেয়েও পবিত্র। একবার গায়ে মেখে নিতে পারলেই ওঁ শান্তি।
প্রশ্ন উঠেছে, দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূল নেতাদের বিজেপিতে যোগদানকে ঘিরে। তৃণমূলের প্রাক্তন জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র জেলা পরিষদের সভাধিপতি সহ ১০ জন সদস্যকে নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ফলে জেলা পরিষদ এখন বিজেপির। তৃণমূলের স্টাইলে নির্বাচনে না জিতেও জেলা পরিষদ দখলের দৌলতে গেরুয়া শিবিরের শ্রীবৃদ্ধি অবশ্যই হয়েছে। কিন্তু গৌরব বৃদ্ধি হয়নি। দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূলের নেতারা বিজেপিকে এরাজ্যে প্রথম জেলা পরিষদ দখলের সম্মান এনে দিয়েছেন ঠিকই। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, কাটমানি ফেরতের কী হবে?
যোগদানের আগে কাটমানি ইস্যুতে দক্ষিণ দিনাজপুরে জেলা পরিষদের সদস্যদের বাড়ির সামনে যে বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল তা থেমে গেল কেন? তাহলে যোগদানের আগে যে বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল, সেটা কি ভুল ছিল? নাকি বিজেপির গঙ্গাজলে সবই পবিত্র হয়ে গেল? বহু জায়গায় পঞ্চায়েত প্রধান সহ তৃণমূলের অধিকাংশ সদস্য বিজেপিতে চলে যাচ্ছেন। সেখানেও কি ‘গঙ্গাজল’ কাজ করছে?
একটা কথা মনে রাখা দরকার, বেনোজলের সঙ্গে মাছ যেমন আসে, তেমনি আসে সাপখোপ, বোয়াল। বোয়াল পুকুরে ঢুকে গেলে রুই, কাতলারাও রেহাই পায় না। বোয়ালের দাঁত ভীষণ ধারালো, খিদেও প্রচুর। তাই বেনোজলের পুকুর ভর্তিতে যাঁরা আহ্লাদিত হচ্ছেন, তাঁদের একবার বোয়ালদের বিপদটাও ভাবা দরকার।
বেনোজল পুকুরে ঢুকে যাওয়ায় স্বচ্ছ জলও ঘোলা হয়ে যাচ্ছে। বিষয়টা আদিরা মেনে নিতে পারছেন না। ২০১১ সালের পর তৃণমূলে এমনটাই ঘটেছিল। রাজ্যে পরিবর্তনের পর সিপিএম সহ বামেদের স্রোত আছড়ে পড়েছিল। দলকে বড় করার আশায় তৃণমূলের নেতারা শুধু দরজা খুলেই দেননি, অতিথি জ্ঞানে আপ্যায়নও করেছিলেন। লাভপুরে মনিরুল ইসলাম সহ প্রায় গোট ফরওয়ার্ড ব্লকটাই তৃণমূলে ঢুকে গিয়েছিল। একই ঘটনা ঘটেছিল নানুরেও। ফরওয়ার্ড ব্লক থেকে যোগ দেওয়া অভিজিৎ সিংহ ওরফে রাণা তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর তিনিই হয়ে ওঠেন অনুব্রত মণ্ডলের ছায়াসঙ্গী ও প্রধান পরামর্শদাতা। আর তাতেই অনুব্রতবাবুর সঙ্গে দূরত্ব বাড়তে থাকে শেখ শাহনওয়াজ, তাঁর ভাই কাজল শেখের মতো তৃণমূলের দুর্দিনের নেতা-কর্মীদের।
এমনকী, আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো অধ্যাপক মানুষও আত্মসম্মান বজায় রাখার জন্য কুঁকড়ে থাকতেন। এনিয়ে আদি তৃণমূলীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ছিল। এটা কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়, রাজ্যের প্রতিটি জেলায় এমন অজস্র উদাহরণ রয়েছে যেখানে জার্সি বদলে বামেরাই হয়ে উঠেছিলেন ঘাসফুল শিবিরের নিয়ন্ত্রক।
‘লাল তৃণমূলে’র দাপটে দমবন্ধ হতে বসা আদি তৃণমূলীরাই বিভিন্ন এলাকায় পঞ্চায়েত ভোটে কোথাও নির্দল দাঁড় করিয়েছিলেন, কোথাও তলে তলে বিজেপিকে সমর্থন করেছিলেন। পঞ্চায়েত ভোটে বিক্ষুব্ধরা যে বীজ রোপন করেছিলেন, লোকসভা ভোটে সেটাই হয়েছে মহীরুহ।
বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সম্ভবত বিপদটা কিছুটা হলেও উপলব্ধি করেছেন। তাই তিনি বোয়ালদের দলে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে পুকুর পাড়ে জাল দেওয়ার একটা চেষ্টা করছেন। কেশপুরের আনন্দপুরে এক জনসভায় তাঁর ভাষণে অন্তত তেমন মনোভাবই প্রকাশ পেয়েছে। তিনি বলেছেন, ‘দল বাড়াতে হলে তৃণমূলকে ভাঙতে হবে। তাই তৃণমূল থেকে যাঁরা আসছেন তাঁদের নিতে হবে। কিন্তু, টাকাটা মিটিয়ে আসতে হবে।’
গত লোকসভা ভোটের নিরিখে তৃণমূল কংগ্রেসের এক ধাক্কায় ১২টি আসন কমে গেলেও শতাংশের বিচারে ভোট বেড়েছে। সাধারণত কোনও দলের ভোট বাড়লে ভাঙন হয় না। কিন্তু, লোকসভা ভোটের পর বিভিন্ন জেলায় তৃণমূলের নেতারা বিজেপিতে যাচ্ছেন এবং যাওয়ার মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছেন। তৃণমূল থেকে বিজেপিতে মূলত দু’ধরনের নেতা কর্মী যাচ্ছেন। একটা অংশ যাঁরা দীর্ঘদিন দলে কোণঠাসা। ‘কাটমানি নেতাদের’ বিরুদ্ধে জেলা ও রাজ্য নেতৃত্বকে জানিয়েও কিছু করতে পারছিলেন না, তাঁরা যাচ্ছেন। আর যাচ্ছেন তাঁরাই, যাঁরা কাটমানি ও কমিশনের দৌলতে আজ জমি, বাড়ি, গাড়ির মালিক। তাঁরা বাঁচার তাগিদে বিজেপিতে ভিড়ছেন।
দ্বিতীয় পর্যায়ের নেতাদের মধ্যে বেনোজলে গা ভাসানোর আকাঙ্ক্ষা প্রবল। কারণ রাজনীতিই এঁদের পেশা। ক্ষমতার সঙ্গে না থাকলে সংসার টানাই দায়। বিলাসিতা তো দূর অস্ত। এই সব কাটমানি নেতার একটাই পলিসি, এলো মেলো করে দে মা, লুটেপুটে খাই।
নব্যদের নিয়ে বিজেপির আদিরা কী ভয়ঙ্কর চাপে এবং অশান্তিতে আছে, তা একটা ঘটনার কথা উল্লেখ করলেই কিছুটা মালুম হবে। বর্ধমান স্টেশন এলাকায় একদা সিপিএমের অ্যাকশন স্কোয়াডের লিডার বলে পরিচিত খোকন সেন ও তাঁর অনুগামীরা কিছুদিন আগে বিজেপিতে যোগ দেন। তার দু’দিনের মধ্যে বিজেপির যুবমোর্চার জেলা সভাপতি শ্যামল রায়ের সঙ্গে খোকনবাবুর লড়াই লেগে যায়। উভয় গোষ্ঠীর গণ্ডগোল এমন চরমে ওঠে যে, বিজেপি জেলা অফিসে গুলি পর্যন্ত চলে। তার জের হিসেবে শ্যামল রায়ের বাড়িতে হামলা হয়।
জেলায় জেলায় নব্যদের নিয়ে বিজেপির আদিদের ক্ষোভ রয়েছে। আর এই ক্ষোভের অন্যতম কারণ যোগদানকারীদের বেশিরভাগই এক সময় হয় সিপিএমের হার্মাদ বাহিনীর সদস্য ছিলেন, অথবা তৃণমূলের ‘কাটমানি নেতা’। তাই এই সব নেতাকে নিয়ে স্বচ্ছ রাজনীতির স্লোগান মানুষ বিশ্বাস করবে না। উল্টে লোকসভা ভোটে যাঁরা নীরবে সমর্থন করেছিলেন, তাঁরা ফের নিঃশব্দেই মুখ ফিরিয়ে নেবেন।
‘ফ্লোটিং ভোট’ যে মুখ ঘুরিয়ে নিতে পারে, সেটা বিজেপির পোড়খাওয়া নেতারা বুঝতে পারছেন। তাঁরা বলছেন, ভোটের ফল প্রকাশের পর যাঁরা আসছেন তাঁরা কেউই বিজেপির আদর্শের জন্য আসছেন না, আসছেন বাঁচার তাগিদে। কেউ কেউ লুটেপুটে খাওয়ার অভ্যাস বজায় রাখার আশায়। তাই দলের বৃদ্ধির কথা ভেবে লকগেট খুলে দিয়ে অবাধে বেনোজল ঢোকার সুযোগ করে দিলে পরিণতি ভালো নাও হতে পারে। কারণ অতি বৃদ্ধি অনেক সময় ক্যান্সারের লক্ষণ হয়ে থাকে।
13th  July, 2019
এনআরসি, সংখ্যালঘু ভোট ও বিজেপি
তন্ময় মল্লিক

‘এবার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের আরও বেশি করে বিজেপির ছাতার তলায় নিয়ে আসতে হবে। সেই মতো গ্রহণ করতে হবে যাবতীয় কর্মসূচি।’ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়েই বিজেপির বঙ্গ নেতৃত্বকে এই কথাগুলি যিনি বলেছিলেন তিনি আর কেউ নন, ‘গেরুয়া শিবিরের চাণক্য’ অমিত শাহ।
বিশদ

সরকারি চাকরির মোহে আবিষ্ট সমাজ
অতনু বিশ্বাস

সমাজ বদলাবে আরও। আমি বা আপনি চাইলেও, কিংবা গভীরভাবে বিরোধিতা করলেও। সরকারি বা আধা-সরকারি চাকরির নিরাপত্তার চক্রব্যূহ ক্রমশ ভঙ্গুর হয়ে পড়বে আরও অনেকটা। এবং দ্রুতগতিতে। গোটা পৃথিবীর সঙ্গে তাল মিলিয়ে এ এক প্রকারের ভবিতব্যই। একসময় আমরা দেখব, চাকরি বাঁচাতে গড়পড়তা সরকারি চাকুরেদেরও খাটতে হচ্ছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকুরেদের মতো। সরকারি চাকরির নিশ্চিন্ত আশ্রয়ের নিরাপত্তার ‘মিথ’ ভেঙে চুরচুর হয়ে পড়বে। এবং সে-পথ ধরেই ক্রমে বিদায় নেবে পাত্রপাত্রী চাই-য়ের বিজ্ঞাপন থেকে ‘সঃ চাঃ’ নামক অ্যাক্রোনিম।
বিশদ

আলোচনার অভিমুখ
সমৃদ্ধ দত্ত

 প্রাচীন বিশ্বের বিভিন্ন সভ্যতায় দেখা যায় সম্রাটরা অসীম ক্ষমতার অধিকারী প্রমাণ করার জন্য অতি প্রাকৃতিক শক্তি সম্পন্ন হিসেবে নিজেদের প্রতিভাত করতেন। এর ফলে প্রজা শুধু সম্রাটকে যে মান্য করত তাই নয়, ভয়ও পেত, সমীহ করত। প্রাচীন মিশরে শতাব্দীর পর শতাব্দীর ধরে ফারাওরা নিজেদেরই ঈশ্বর হিসেবে ঘোষণা করতেন।
বিশদ

20th  September, 2019
হিন্দু বাঙালির বাড়ি ভাঙছে, হারাচ্ছে দেশ 
শুভময় মৈত্র

জয় গৃহশিক্ষকতা করেন, বাড়ি সিঁথি মোড়ের কাছে, বরানগরে। নিজেদের তিরিশ বছরের পুরনো বাড়ি, সারানোর প্রয়োজন। একান্নবর্তী পরিবার, দাদা বড় ইঞ্জিনিয়ার। তিনি আর একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন কাছেই। 
বিশদ

20th  September, 2019
বাংলায় এনআরসি বিজেপির স্বপ্নের পথে কাঁটা হয়ে দাঁড়াবে না তো 
মেরুনীল দাশগুপ্ত

লোকসভা ভোটে অপ্রত্যাশিত ফলের পর বাংলার বিজেপি রাজনীতিতে যে জমকালো ভাবটা জেগেছিল সেটা কি খানিকটা ফিকে হয়ে পড়েছে? পুজোর মুখে এমন একটা প্রশ্ন কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের আমজনতার মধ্যে ঘুরপাক খেতে শুরু করেছে। 
বিশদ

19th  September, 2019
জন্মদিনে এক অসাধারণ নেতাকে কুর্নিশ
অমিত শাহ

 আজ, মঙ্গলবার আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ৬৯তম জন্মদিন। অল্প বয়স থেকেই মোদিজি নিজেকে দেশের সেবায় উৎসর্গ করেছেন। যৌবন থেকেই তাঁর মধ্যে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর উন্নয়নে কাজের একটি প্রবণতা লক্ষ করা যায়। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণের কারণে মোদিজির শৈশবটা খুব সুখের ছিল না। বিশদ

17th  September, 2019
ব্যাঙ্ক-সংযুক্তিকরণ কতটা সাধারণ মানুষ এবং সামগ্রিক ব্যাঙ্কব্যবস্থার উন্নতির স্বার্থে?
সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়

অনেকগুলি ব্যাঙ্ক সংযুক্ত করে দেশে সরকারি ব্যাঙ্কের সংখ্যা কমিয়ে আনা হল আর সংযুক্তির পর চারটি এমন বেশ বড় ব্যাঙ্ক তৈরি হল, আকার আয়তনে সেগুলিকে খুব বড় মাপের ব্যাঙ্কের তকমা দেওয়া যাবে। এসব ঘোষণার পর অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য, এতে দেশের অর্থনীতির খুব উপকার হবে।  
বিশদ

16th  September, 2019
রাজনীতির উত্তাপ কি পুজোর আমেজ
জমে ওঠার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে?
শুভা দত্ত

 পরিস্থিতি যা তাতে এমন কথা উঠলে আশ্চর্যের কিছু নেই। উঠতেই পারে, উঠছেও। বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসবের মুখে প্রায় প্রতিদিনই যদি কিছু না কিছু নিয়ে নগরী মহানগরীর রাজপথে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে, পুলিস জলকামান, লাঠিসোঁটা, কাঁদানে গ্যাস, ইটবৃষ্টি, মারদাঙ্গা, রক্তারক্তিতে যদি প্রায় যুদ্ধ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় এবং তাতে সংশ্লিষ্ট এলাকার জনজীবন ব্যবসাপত্তর উৎসবের মরশুমি বাজার কিছু সময়ের জন্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে তবে এমন কথা এমন প্রশ্ন ওঠাই তো স্বাভাবিক।
বিশদ

15th  September, 2019
আমেরিকায় মধ্যবয়সের
সঙ্গী সোশ্যাল মিডিয়া
আলোলিকা মুখোপাধ্যায়

যে বয়সে পৌঁছে দূরের আত্মীয়স্বজন ও পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ক্রমশ আগের মতো সম্ভব হয় না, সেই প্রৌঢ় ও বৃদ্ধ-বৃদ্ধার জীবনে ইন্টারনেট এক প্রয়োজনীয় ভূমিকা নিয়েছে। প্রয়োজনীয় এই কারণে যে, নিঃসঙ্গতা এমন এক উপসর্গ যা বয়স্ক মানুষদের শরীর ও মনের উপর প্রভাব ফেলে। বিশদ

14th  September, 2019
মোদি সরকারের অভূতপূর্ব কাশ্মীর পদক্ষেপ পরবর্তী ভারতীয় কূটনীতির সাফল্য-ব্যর্থতা
গৌরীশঙ্কর নাগ

 এই অবস্থায় এটা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, ৩৭০ ধারা বিলোপ পর্বের প্রাথমিক অবস্থাটা আমরা অত্যন্ত উৎকণ্ঠার মধ্য দিয়ে অতিক্রম করেছি।
বিশদ

14th  September, 2019
ব্যর্থতা নয়, অভিনন্দনই
প্রাপ্য ইসরোর বিজ্ঞানীদের
মৃণালকান্তি দাস

 কালামের জেদেই ভেঙে পড়েছিল ইসরোর রোহিনী। না, তারপরেও এ পি জে আব্দুল কালামকে সে দিন ‘ফায়ার’ করেননি ইসরোর তদানীন্তন চেয়ারম্যান সতীশ ধাওয়ান! বলেননি, ‘দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল কালামকে’! তার এক বছরের মধ্যেই ধরা দিয়েছিল সাফল্য। ধাওয়ানের নির্দেশে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন সেই কালাম-ই। তাঁর কথায়, ‘ওই দিন আমি খুব গুরুত্বপূর্ণ পাঠ পেয়েছিলাম। ব্যর্থতা এলে তার দায় সংস্থার প্রধানের। কিন্তু,সাফল্য পেলে তা দলের সকলের। এটা কোনও পুঁথি পড়ে আমাকে শিখতে হয়নি। এটা অভিজ্ঞতা থেকে অর্জিত।’ বিশদ

13th  September, 2019
রাষ্ট্রহীনতার যন্ত্রণা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ভিক্টর নাভরস্কি নিউ ইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনের লাইনে দাঁড়িয়ে আবিষ্কার করলেন, তিনি আচমকাই ‘রাষ্ট্রহীন’ হয়ে পড়েছেন। কারণ, তাঁর দেশ ক্রাকোজিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলির কাছে মানবিকতার নিরিখে ক্রাকোজিয়ার আর কোনও ‘অস্তিত্ব’ নেই।
বিশদ

10th  September, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: শুক্রবার সকালে সাঁকরাইলের ডেল্টা জুটমিলের পরিত্যক্ত ক্যান্টিন থেকে নিখোঁজ থাকা এক শ্রমিকের মৃতদেহ উদ্বার হল। তাঁর নাম সুভাষ রায় (৪৫)। তাঁকে খুন করা হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন। ...

 ওয়াশিংটন, ২০ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): আমেরিকার রাস্তায় ফের প্রকাশ্যে বন্দুকবাজের তাণ্ডব। গুলিতে একজন প্রাণ হারিয়েছেন এবং আরও পাঁচজন জখম হয়েছেন। পুলিস জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ১০টা নাগাদ কলম্বিয়া হাইটস এলাকায় ওই ঘটনা ঘটেছে। জায়গাটি হোয়াইট হাউস থেকে খুব বেশি দূরে নয় বলেও ...

 ইন্দোনেশিয়া, ২০ সেপ্টেম্বর: দ্বিতীয় ভারতীয় ব্যাডমিন্টন প্লেয়ার হিসেবে এশিয়ান টেবল টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলেন জি সাথিয়ান। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারতের টপ র‌্যাঙ্কিং সাথিয়ান ১১-৭, ১১-৮, ১১-৬ পয়েন্টে হারালেন উত্তর কোরিয়ার আন-জি সংকে। ...

 দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ২০ সেপ্টেম্বর: যাদবপুর-কাণ্ডে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে রিপোর্ট দেবে বঙ্গ বিজেপি। আজ এ কথা জানিয়েছেন বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সহনেতা সুরেশ পূজারি। তিনি বলেছেন, ‘যে রাজ্যে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরই কোনও নিরাপত্তা নেই, সেই ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর ভালো যাবে না। সাংসারিক কলহবৃদ্ধি। প্রেমে সফলতা। শত্রুর সঙ্গে সন্তোষজনক সমঝোতা। সন্তানের সাফল্যে মানসিক ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস
১৮৬৬: ব্রিটিশ সাংবাদিক, ঐতিহাসিক ও লেখক এইচ জি ওয়েলসের জন্ম
১৯৩৪: জাপানের হনসুতে টাইফুনের তাণ্ডব, মৃত ৩ হাজার ৩৬ জন
১৯৪৭: মার্কিন লেখক স্টিফেন কিংয়ের জন্ম
১৯৭৯: ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার ক্রিস গেইলের জন্ম
১৯৮০: অভিনেত্রী করিনা কাপুর খানের জন্ম
১৯৮১: অভিনেত্রী রিমি সেনের জন্ম
১৯৯৩: সংবিধানকে অস্বীকার করে রাশিয়ায় সাংবিধানিক সংকট তৈরি করলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন
২০০৭: রিজওয়ানুর রহমানের মৃত্যু
২০১৩: কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে ওয়েস্ট গেট শপিং মলে জঙ্গি হামলা, নিহত কমপক্ষে ৬৭

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.১৯ টাকা ৭২.৭০ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৪৪ টাকা ৯১.১২ টাকা
ইউরো ৭৬.২৬ টাকা ৮০.৩৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৭,৯৯০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,০৪৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৫৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ৩৭/১২ রাত্রি ৮/২১। রোহিণী ১৪/৪৩ দিবা ১১/২২। সূ উ ৫/২৮/২৩, অ ৫/৩১/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৫ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪১ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ৬/৫৯ মধ্যে পুনঃ ১/০ গতে ২/৩০ মধ্যে পুনঃ ৪/০ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৭/১ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৯ গতে উদয়াবধি।
৩ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ২৫/২২/২১ দিবা ৩/৩৭/৫। রোহিণী ৭/১/২৪ দিবা ৮/১৬/৪৩, সূ উ ৫/২৮/৯, অ ৫/৩৩/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৫/৩৩ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ১/১/২৯ গতে ২/৩২/৯ মধ্যে, কালবেলা ৬/৫৮/৪৯ মধ্যে ও ৪/২/৪৯ গতে ৫/৩৩/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/২/৪৯ মধ্যে ও ৩/৫৮/৪৯ গতে ৫/২৮/২৮ মধ্যে।
২১ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
অস্কারে মনোনীত গালি বয় ছবির নাম 

06:03:00 PM

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে মারধর
স্কুলের ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় এক যুবককে লাঠি-রড দিয়ে ...বিশদ

05:22:00 PM

মুর্শিদাবাদে আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেপ্তার ১ 
আজ সকালে মুর্শিদাবাদের পাহাড়ঘাটি মোড় থেকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ সফিকুল ইসলাম ...বিশদ

05:13:00 PM

দীঘায় ডুবন্ত ব্যক্তিকে উদ্ধার করল নুলিয়া
 

দীঘার সমুদ্রে তলিয়ে যাওয়ার মুখে এক পর্যটককে উদ্ধার করল নুলিয়া। ...বিশদ

05:05:00 PM

রায়গঞ্জে বাজ পড়ে মৃত্যু মহিলার, আহত আরও ১
রায়গঞ্জে বাজ পড়ে মৃত্যু হল এক মহিলা শ্রমিকের। গুরুতরভাবে জখম ...বিশদ

04:46:00 PM

সুরঞ্জন দাসকে দেখতে হাসপাতালে শিক্ষামন্ত্রী
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ ...বিশদ

03:39:30 PM