Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ভোট ও বুথ-ফেরত সমীক্ষার হাল-হকিকত
অতনু বিশ্বাস

ছ’সপ্তাহ-ব্যাপী লোকসভা নির্বাচন। সাত দফায়। তারও প্রায় পাঁচ সপ্তাহ আগে থেকে প্রচার, ইত্যাদি। আর এখন এক ক্লান্তিকর সময়কালের পরিসমাপ্তিতে অপেক্ষ্যমান জনগণ। কলেজ ক্যাম্পাসের মধ্যে ঢুকে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার মত অনভিপ্রেত ঘটনার অভিঘাতে বিমূঢ়, রাজনৈতিক চাপান-উতোর আর হানাহানিতে দীর্ণ, এবং সুদীর্ঘ ভোটপর্বের শেষে গোটা ভারতবর্ষ এখন তাকিয়ে আছে বৃহস্পতিবারের দিকে। সেদিন ইভিএম-এর ভোট গুণে ঠিক হবে পরের পাঁচ বছরের ভারত-ভাগ্য-বিধাতা হবে কে, বা কোন দল বা দলগুলি। দমবন্ধ করা এই মাঝের তিন-চারটে দিন কাক্কেশ্বর কুচকুচের হাতে আছে শুধু পেনসিল। যা দিয়ে শ্লেটে আঁকিবুকি কেটে করা যেতে পারে সমস্ত রকমের সম্ভাবনা আর অসম্ভাবনার জটিল দশমিক আর ত্রৈরাশিকের অঙ্ক। আর সেই অঙ্ক করতে সাহায্য করার জন্যে ছাত্রবন্ধু শিক্ষক হিসেবে হাজির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, টিভি চ্যানেল আর সংবাদপত্র। তাদের বুথ-ফেরত সমীক্ষার ফলাফল নিয়ে। ইংরেজিতে যাকে বলে ‘এক্সিট পোল’।
কিন্তু বিভিন্ন সংস্থার করা এই বুথ-ফেরত সমীক্ষার ফলগুলি অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের সাহায্য করার চাইতে অনেক বেশি করে গুলিয়ে দেয় আমাদের অঙ্কের যোগ-বিয়োগ। যেমন ধরা যাক, এ বারেই প্রধান এক ডজন এক্সিট পোলের হিসেব মিলিয়ে দেখছি, এনডিএ-র আসন-সংখ্যা সেখানে ২৭৭ থেকে ৩৫২-র মধ্যে, ইউপিএ-এর ক্ষেত্রে তা ৮২ থেকে ১৩২-এর মধ্যে। এক এক সংস্থার হিসেব এক এক রকমের। এবং তাদের মধ্যে বিস্তর ফারাক। ২৭৭ আর ৩৫২-র মধ্যে পার্থক্যটা প্রায় ১৪ শতাংশ। আবার ধরা যাক, উত্তর প্রদেশের ক্ষেত্রে ইন্ডিয়া টুডে-অ্যাক্সিসের হিসেবে বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোটকে দেওয়া হয়েছে ৮০টির মধ্যে ৬২-৬৮টি আসন। ওদিকে এবিপি-নিয়েলসেনের হিসেবে এই জোটকে প্রথমে ২২টি আসন দিয়ে পরে করা হয়েছে ৩৫টি। এর মধ্যে কোন হিসেবটাকে জনগণ বেশি গুরুত্ব দেবে? পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে যেমন কোনও এক্সিট পোল বিজেপিকে দিয়েছে ১১টি আসন, আবার কোনও সমীক্ষা দিয়েছে ২৩টি। পার্থক্যটা কিন্তু বিস্তর। প্রায় ২৯ শতাংশ। তাই জনসাধারণ দ্বিধা-দ্বন্দ্বে ঘুরপাক খাবে এ ক’দিন। এবং সেই সঙ্গে এটাও গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন, এমন হবে নাতো যে এদের কারও হিসেবই মিলল না শেষ পর্যন্ত? এক্সিট পোলের ভুল হবার ইতিহাস যে বড্ড দীর্ঘ এবং ক্লান্তিহীন। যেমন হয়েছিল ২০১৫-র দিল্লি বিধানসভার ক্ষেত্রে। কেউই পূর্বাভাস দিতে পারেনি আম আদমি পার্টির ৭০-এর মধ্যে ৬৭টি আসন পাবার মত বিপুল জয়ের। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় এই সমীক্ষাগুলি যে কোনও দলের বিপুল জয়কে ঠিকঠাক ধরতে পারে না অনেক ক্ষেত্রেই। আবার ভুলটা উল্টো দিকেও হয়। অনেক সময় বিজয়ীকে আন্দাজ করতে পারে না। ২০১৫-তে বিহারে নীতীশ কুমারের জয়ের পূর্বাভাসে ব্যর্থ হয়েছে অধিকাংশ বুথ-ফেরত সমীক্ষা।
এক্সিট পোলের সূত্রপাত হয় বিখ্যাত মার্কিন পোলস্টার ওয়ারেন মিটোওস্কি-র হাত ধরে। ১৯৬৭ সালে। তাই এক্সিট পোলের ইতিহাস মোটামুটি আধ শতাব্দীর। প্রথম এক্সিট পোলটা হয়েছিল সিবিএস নিউজের হয়ে। আমেরিকার কেন্টাকি-র এক স্থানীয় নির্বাচনে। উদ্দেশ্যটা নিশ্চয়ই ছিল নির্বাচন এবং ফল প্রকাশের অন্তর্বর্তী সময়ে খানিকটা উত্তেজনার জোগান দেওয়া। কিন্তু ডেটা বা তথ্য সংগ্রহ করে তা নিয়ে কোনও কিছুর পূর্বাভাস করতে গেলে বেশ খানিকটা রাশিবিজ্ঞানের তত্ত্ব আর তার প্রয়োগ প্রয়োজন। আর সেখানেই ভুল হয় সাধারণ ভাবে।
যেমন দেশের মধ্য থেকে কিছু কেন্দ্র যদৃচ্ছ ভাবে (র‍্যান্ডমলি) বেছে নিয়ে তাদের মধ্য থেকে আবার বাছতে হয় কিছু ভোটকেন্দ্র। কিন্তু এই বাছাটাই কি ঠিক ভাবে করে উঠতে পারে অধিকাংশ সমীক্ষক সংস্থা? দেশের প্রায় আধাআধি বুথই তো সংবেদনশীল। সেগুলিতে কি সঠিক অনুপাতে পৌঁছায় সমীক্ষকরা? ভোটকেন্দ্রগুলিতে যারা ভোট দিয়ে বের হয় তাদের জিজ্ঞেস করার কথা, তারা কাকে ভোট দিয়ে এলেন। তাও আবার সবাইকে নয়। একটা নির্দিষ্ট প্যাটার্ন মেনে, যেমন হয়তো প্রত্যেক পঞ্চম ভোটারকে, জিজ্ঞেস করতে হবে। সমস্যা হল অত্যুৎসাহী অন্য ভোটারটা স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এগিয়ে আসতে পারে সমীক্ষায় অংশ নিতে। তবু অগ্রাহ্য করতে হবে তাদের। এসব কি মানা হয় ঠিকঠাক?
এখানেই কিন্তু শেষ নয়। যাদের জিজ্ঞেস করা হবে তারা সবাই যে অমনি গড়গড় করে বলে দেবে তাদের ভোটটা কাকে দিয়ে এসেছে, তেমনটা হবে না কিছুতেই। কারও মধ্যে দ্বিধা কাজ করবে, কারও বা অবিশ্বাস। অনেকে আবার এসব সমীক্ষায় অংশ নিতে লজ্জা বা অস্বস্তি পায়। তাই অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে, কোনও বিশেষ রাজনৈতিক দলের সমর্থকরা সমীক্ষায় অংশ নিতে বা তাদের মতামত প্রকাশে বেশি আগ্রহী। ওদিকে অপর কোনও দলের সমর্থকরা খুব বেশি তাদের মতামত দিতে চাইছে না। কিন্তু সমীক্ষকের পক্ষে সেটা বোঝা সম্ভব নয় কিছুতেই। তাই সমীক্ষায় কোনও দলের সমর্থন হয়ে গেল বেশি, বাস্তবে হয়তো ততটা সমর্থন নেই সে দলের। ব্রিটেনে যেমন কনজার্ভেটিভ দলের সমর্থকরা কম অংশ নেয় এ ধরনের সমীক্ষায়। একে বলে ‘শাই টোরি ফ্যাক্টর’। আমেরিকায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনের সময়ও অনেক ট্রাম্প সমর্থক এক্সিট পোলে অংশ নেয়নি বলে সমাজ-বিজ্ঞানীদের ধারণা।
এ সবের মিলিত প্রভাবে এক্সিট পোলের যাত্রাপথ, বিশেষ করে গত দু’দশকের সাফল্যের ইতিহাসটা, বেশ নড়বড়ে। বিশ্ব জুড়েই। আমেরিকার ২০০০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফ্লোরিডার মত নিয়ন্ত্রক রাজ্যে এক্সিট পোল এগিয়ে রেখেছিল আল গোরে-কে। জিতলেন জর্জ বুশ। ২০০৪ সালে আবার জন কেরি সাড়ে ছয় শতাংশ ভোটে এগিয়ে ছিলেন বুশের থেকে। কিন্তু জিতলেন আবার বুশ। এই ফলের ব্যাখ্যা দিতে মার্কিন সমাজ-বিজ্ঞানীরা আজও হিমশম খেয়ে চলেছেন।
ভারতের ক্ষেত্রেও বুথ-ফেরত সমীক্ষার হতাশ করা পারফরম্যান্স দেখেছি আমরা সাম্প্রতিক অতীতে। ২০০৪ সালে এক্সিট পোলগুলি বাজপেয়ির জয়ের পূর্বাভাস করে। কিন্তু এনডিএ পায় মাত্র ১৮৭টি আসন। ২০০৯তে এক্সিট পোলগুলি মোটের উপর আবার অনুমান করে এনডিএ-র জয়। ফলাফল হয় উল্টো। ২০১৪তে এক্সিট পোলগুলিতে গণ্ডগোল হয় অন্য দিকে। অধিকাংশ পোলই এনডিএ-র জয়ের পূর্বাভাস করেছিল, এটা ঠিক। তবে তাদের বেশির ভাগই অনুমান করতে পারেনি যে এনডিএ ৩৩৬টি আসন পেয়ে ওরকম বিপুল জয় পেতে পারে। তাই, মোটের উপর আমাদের পক্ষে এক্সিট পোলগুলিকে চোখ বন্ধ করে ভরসা করা কঠিন। আর ভরসা করলেই বা কোন সংস্থার পোলে ভরসা করব, সেটাও পরিষ্কার নয়।
অথচ এক্সিট পোলের বিশ্বাসযোগ্যতা এরকম ছিল না একেবারে। ২০০৩ সালে জর্জিয়ার নির্বাচনের পরে নির্বাচনে প্রতারণার অভিযোগ জোরদার হয়। যার মূলে ছিল এক্সিট পোলের সঙ্গে মূল ফল একেবারে না মেলা। এর ফলশ্রুতিতে হয় ‘গোলাপ বিপ্লব’ (‘রোজ রেভোলিউশন’)। আর শেষে এডুয়ার্ড শেভোর্নাৎজে-র পদত্যাগ। দুঃখের বিষয় এই যে, এক্সিট পোলের সেই বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়ে যেতে বসেছে। বিশ্ব জুড়েই। আর তার মূলে অবশ্যই বেশ কিছু পোলস্টারের অযোগ্য এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন বুথ-ফেরত সমীক্ষা।
আমরা জানি সবই। তবু, বুথ-ফেরত সমীক্ষাগুলি নিয়েই নাড়াচাড়া করব এ ক’দিন। বিশ্বাস-অবিশ্বাস আর দ্বিধা-দ্বন্দ্বের দোলাচলে ঘুরপাক খাওয়া। আসলে এত সংস্থা এত রকমের পূর্বাভাস দিয়েছে, ২৩ তারিখ ভোটের ফল বেরলে তাদের কোনটা যে মিলবে, আর কোনটা নয়, এমনকী কোনওটাই আদপে মিলবে কিনা, বলা প্রায় অসম্ভব। আপনি যার জয় চাইছেন (রাজ্যে বা কেন্দ্রে), তার আসন-সংখ্যা বুথ-ফেরত সমীক্ষাগুলিতে পূর্বাভাস করা আসন-সংখ্যার চাইতে বেশিও হতে পারে, আবার কমও হতে পারে। আবার মিলেও যেতে পারে কোনওটার সঙ্গে। কিন্তু আমাদের মনেই পড়বে না যে, কার পূর্বাভাস কতটা মিলল, আর কারটা কতটা ভুল। তবু, আগামী ভোটগুলিতে— মহারাষ্ট্র, হরিয়ানা, ঝাড়খণ্ড, দিল্লি কিংবা বিহারে—আমরা আবার এক্সিট পোলের হিসেব নিয়ে পড়ব। নির্বাচন এবং তার ফল—এর মধ্যবর্তী দম-বন্ধ-করা ‘স্যান্ডউইচ’ সময়সীমায় এটাই যে সবচেয়ে বড় বিনোদন।
 ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউট, কলকাতার রাশিবিজ্ঞানের অধ্যাপক। মতামত ব্যক্তিগত
21st  May, 2019
হিন্দু বাঙালির বাড়ি ভাঙছে, হারাচ্ছে দেশ 
শুভময় মৈত্র

জয় গৃহশিক্ষকতা করেন, বাড়ি সিঁথি মোড়ের কাছে, বরানগরে। নিজেদের তিরিশ বছরের পুরনো বাড়ি, সারানোর প্রয়োজন। একান্নবর্তী পরিবার, দাদা বড় ইঞ্জিনিয়ার। তিনি আর একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন কাছেই। 
বিশদ

বাংলায় এনআরসি বিজেপির স্বপ্নের পথে কাঁটা হয়ে দাঁড়াবে না তো 
মেরুনীল দাশগুপ্ত

লোকসভা ভোটে অপ্রত্যাশিত ফলের পর বাংলার বিজেপি রাজনীতিতে যে জমকালো ভাবটা জেগেছিল সেটা কি খানিকটা ফিকে হয়ে পড়েছে? পুজোর মুখে এমন একটা প্রশ্ন কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের আমজনতার মধ্যে ঘুরপাক খেতে শুরু করেছে। 
বিশদ

জন্মদিনে এক অসাধারণ নেতাকে কুর্নিশ
অমিত শাহ

 আজ, মঙ্গলবার আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ৬৯তম জন্মদিন। অল্প বয়স থেকেই মোদিজি নিজেকে দেশের সেবায় উৎসর্গ করেছেন। যৌবন থেকেই তাঁর মধ্যে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর উন্নয়নে কাজের একটি প্রবণতা লক্ষ করা যায়। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণের কারণে মোদিজির শৈশবটা খুব সুখের ছিল না। বিশদ

17th  September, 2019
ব্যাঙ্ক-সংযুক্তিকরণ কতটা সাধারণ মানুষ এবং সামগ্রিক ব্যাঙ্কব্যবস্থার উন্নতির স্বার্থে?
সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়

অনেকগুলি ব্যাঙ্ক সংযুক্ত করে দেশে সরকারি ব্যাঙ্কের সংখ্যা কমিয়ে আনা হল আর সংযুক্তির পর চারটি এমন বেশ বড় ব্যাঙ্ক তৈরি হল, আকার আয়তনে সেগুলিকে খুব বড় মাপের ব্যাঙ্কের তকমা দেওয়া যাবে। এসব ঘোষণার পর অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য, এতে দেশের অর্থনীতির খুব উপকার হবে।  
বিশদ

16th  September, 2019
রাজনীতির উত্তাপ কি পুজোর আমেজ
জমে ওঠার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে?
শুভা দত্ত

 পরিস্থিতি যা তাতে এমন কথা উঠলে আশ্চর্যের কিছু নেই। উঠতেই পারে, উঠছেও। বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসবের মুখে প্রায় প্রতিদিনই যদি কিছু না কিছু নিয়ে নগরী মহানগরীর রাজপথে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে, পুলিস জলকামান, লাঠিসোঁটা, কাঁদানে গ্যাস, ইটবৃষ্টি, মারদাঙ্গা, রক্তারক্তিতে যদি প্রায় যুদ্ধ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় এবং তাতে সংশ্লিষ্ট এলাকার জনজীবন ব্যবসাপত্তর উৎসবের মরশুমি বাজার কিছু সময়ের জন্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে তবে এমন কথা এমন প্রশ্ন ওঠাই তো স্বাভাবিক।
বিশদ

15th  September, 2019
আমেরিকায় মধ্যবয়সের
সঙ্গী সোশ্যাল মিডিয়া
আলোলিকা মুখোপাধ্যায়

যে বয়সে পৌঁছে দূরের আত্মীয়স্বজন ও পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ক্রমশ আগের মতো সম্ভব হয় না, সেই প্রৌঢ় ও বৃদ্ধ-বৃদ্ধার জীবনে ইন্টারনেট এক প্রয়োজনীয় ভূমিকা নিয়েছে। প্রয়োজনীয় এই কারণে যে, নিঃসঙ্গতা এমন এক উপসর্গ যা বয়স্ক মানুষদের শরীর ও মনের উপর প্রভাব ফেলে। বিশদ

14th  September, 2019
মোদি সরকারের অভূতপূর্ব কাশ্মীর পদক্ষেপ পরবর্তী ভারতীয় কূটনীতির সাফল্য-ব্যর্থতা
গৌরীশঙ্কর নাগ

 এই অবস্থায় এটা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, ৩৭০ ধারা বিলোপ পর্বের প্রাথমিক অবস্থাটা আমরা অত্যন্ত উৎকণ্ঠার মধ্য দিয়ে অতিক্রম করেছি।
বিশদ

14th  September, 2019
ব্যর্থতা নয়, অভিনন্দনই
প্রাপ্য ইসরোর বিজ্ঞানীদের
মৃণালকান্তি দাস

 কালামের জেদেই ভেঙে পড়েছিল ইসরোর রোহিনী। না, তারপরেও এ পি জে আব্দুল কালামকে সে দিন ‘ফায়ার’ করেননি ইসরোর তদানীন্তন চেয়ারম্যান সতীশ ধাওয়ান! বলেননি, ‘দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল কালামকে’! তার এক বছরের মধ্যেই ধরা দিয়েছিল সাফল্য। ধাওয়ানের নির্দেশে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন সেই কালাম-ই। তাঁর কথায়, ‘ওই দিন আমি খুব গুরুত্বপূর্ণ পাঠ পেয়েছিলাম। ব্যর্থতা এলে তার দায় সংস্থার প্রধানের। কিন্তু,সাফল্য পেলে তা দলের সকলের। এটা কোনও পুঁথি পড়ে আমাকে শিখতে হয়নি। এটা অভিজ্ঞতা থেকে অর্জিত।’ বিশদ

13th  September, 2019
রাষ্ট্রহীনতার যন্ত্রণা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ভিক্টর নাভরস্কি নিউ ইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনের লাইনে দাঁড়িয়ে আবিষ্কার করলেন, তিনি আচমকাই ‘রাষ্ট্রহীন’ হয়ে পড়েছেন। কারণ, তাঁর দেশ ক্রাকোজিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলির কাছে মানবিকতার নিরিখে ক্রাকোজিয়ার আর কোনও ‘অস্তিত্ব’ নেই।
বিশদ

10th  September, 2019
জাতির গঠনে জাতীয় শিক্ষানীতি
গৌরী বন্দ্যোপাধ্যায়

 অভিধান অনুসরণ করে বলা যায়, পঠন-পাঠন ক্রিয়াসহ বিভিন্ন অভিজ্ঞতালব্ধ মূল্যবোধের বিকাশ ঘটানোর প্রক্রিয়াই শিক্ষা। জ্ঞানকে বলা হচ্ছে অভিজ্ঞতালব্ধ প্রতীতি। শিক্ষা দ্বারা অর্জিত বিশেষ জ্ঞানকে আমরা বিদ্যা বলি। কালের কষ্টিপাথরে যাচাই করে মানুষ আবহমান কাল ধরে নিজ অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞানরাশিকে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য পুস্তকের মধ্যে লিখে সঞ্চিত করে গেছে।
বিশদ

09th  September, 2019
আন্তর্জাতিক সম্পর্কের শতবর্ষে ভারত প্রান্তিক রাষ্ট্র থেকে প্রথম দশে, লক্ষ্য শীর্ষস্থান
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সমাপ্তির মুখে উড্রো উইলসন সমেত বিশ্বের তাবড় নেতারা প্রথম বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহতা দেখে শঙ্কিত হয়ে পড়েন। যুদ্ধের রাহুর গ্রাস থেকে এই সুন্দর পৃথিবীকে কীভাবে রক্ষা করা যায় তা নিয়ে তাঁরা চিন্তিত ছিলেন। উইলসন বুঝতে পেরেছিলেন মানুষের মগজে রয়েছে যুদ্ধের অভিলাষ। যুদ্ধভাবনা মুছে ফেলে শান্তিভাবনা প্রতিষ্ঠা করা দরকার।
বিশদ

09th  September, 2019
পুজোর মুখে বিপর্যয়: ঘরে বাইরে

 দুর্ঘটনা বিপর্যয় তো আর জানান দিয়ে আসে না! নেপালের ভূমিকম্প কি আমাদের আয়েলার মতো প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে কত মানুষ ঘর-সংসার সব হারিয়ে রাতারাতি সর্বস্বান্ত হয়েছেন, কত সংসার উজাড় হয়ে গেছে—শত চেষ্টাতেও সেই ক্ষত পুরোটা পূরণ করা গিয়েছে কি? যায়নি। এই বউবাজারে রশিদ জমানার সেই ভয়ানক বিস্ফোরণের পর কত লোকের কত সর্বনাশ হয়েছিল—কজন তার বিহিত পেয়েছিলেন? মেট্রো রেলের সুড়ঙ্গ কাটতে গিয়ে সেপ্টেম্বরের শুরুতে বউবাজারে বাড়ি ধসে যে ক্ষতি বাসিন্দাদের হল তাতে তাই ‘অপূরণীয় ক্ষতি’ বললে কিছুমাত্র ভুল হয় না। বিশদ

08th  September, 2019
একনজরে
বিএনএ, মেদিনীপুর: মঙ্গলবার মেদিনীপুর সদর ব্লকের মহারাজপুর এলাকায় বিজেপির মিছিলের ঘটনায় জেলা সম্পাদক অরূপ দাস সহ বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মীর নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।   ...

 রবীন রায়, আলিপুরদুয়ার, সংবাদদাতা: নিম্ন অসমে এনআরসি তালিকা থেকে বাদ পড়া বাঙালিদের মন ভালো নেই। তাই এনআরসির জেরে নিম্ন অসম থেকে প্রতিমারও বরাত এবার আলিপুরদুয়ারের মৃৎশিল্পীদের কাছে আসেনি। ফলে একইভাবে মন ভালো নেই এখানকার মৃৎশিল্পীদেরও। ...

বিএনএ, বর্ধমান: স্কুল থেকে অবসর নিয়েছেন ছ’বছর আগে। তাঁর বয়স এখন ৬৬ ছাড়িয়ে গিয়েছে। বয়সের হিসাবে তিনি বৃদ্ধ হলেও শারীরিক সক্ষমতায় তিনি এখনও ‘তরতাজা যুবক’।  ...

নয়াদিল্লি, ১৮ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): উৎসবের মরশুমে সুখবর। বুধবার রেলকর্মীদের জন্য ৭৮ দিনের উৎপাদনভিত্তিক বোনাস ঘোষণা করল কেন্দ্র। এদিন মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর সাংবাদিক বৈঠক করেন প্রকাশ জাভরেকর ও নির্মলা সীতারামন।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ও মানসিক কষ্ট। দূর ভ্রমণের সুযোগ। অর্থপ্রাপ্তির যোগ। যেকোনও শুভকর্মের বাধাবিঘ্ন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯১৯- অভিনেতা জহর রায়ের জন্ম
১৯২১- সাহিত্যিক বিমল করের জন্ম
১৯২৪- গায়িকা সুচিত্রা মিত্রের জন্ম
১৯৬৫- মহাকাশচারী সুনীতা উইলিয়ামসের জন্ম
 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৬৪ টাকা ৭২.৩৪ টাকা
পাউন্ড ৮৭.৭০ টাকা ৯০.৯০ টাকা
ইউরো ৭৭.৬৩ টাকা ৮০.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
18th  September, 2019

দিন পঞ্জিকা

২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পঞ্চমী ৩৪/৫৭ সন্ধ্যা ৭/২৭। ভরণী ৮/১৩ দিবা ৮/৪৫। সূ উ ৫/২৭/৪৭, অ ৫/৩৩/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ১/৩০ গতে ৩/৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/১৯ গতে ৯/৩০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৫২ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ২/৩১ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৩১ গতে ১২/৫৯ মধ্যে। 
১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পঞ্চমী ২৬/১২/৩৯ দিবা ৩/৫৬/৩৩। ভরণী ৩/৩৯/২৫ দিবা ৫/৫৫/১৫, সূ উ ৫/২৭/২৯, অ ৫/৩৫/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৭ মধ্যে ও ১/২২ গতে ২/৫৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৬ গতে ৯/২২ মধ্যে ও ১১/৪৯ গতে ৩/৬ মধ্যে ও ৩/৫৫ গতে ৫/২৮ মধ্যে, বারবেলা ৪/৪/২৯ গতে ৫/৩৫/২৯ মধ্যে, কালবেলা ২/৩৩/২৯ গতে ৪/৪/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৩১/২৯ গতে ১/০/২৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৯ মহরম 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আলিপুরদুয়ারে পূর্ণবয়স্ক হাতির মৃত্যু 
বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের উত্তর রায়ডাক রেঞ্জের কার্তিকার জঙ্গলে একটি পূর্ণবয়স্ক ...বিশদ

11:52:00 AM

কালনায় খাদির উদ্যোগে মসলিন বস্ত্র উৎপাদন সেন্টার পরিদর্শন করলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ 

11:45:00 AM

দুর্গাপুরে লরির ধাক্কায় জখম ৭
 

দুর্গাপুর ব্যারেজের কাছে লরির ধাক্কায় জখম হলেন সাতজন। দুর্ঘটনার পর ...বিশদ

11:43:00 AM

আজ দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক মমতার
আজ দুপুর দেড়টায় দিল্লির নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দপ্তরে অমিত শাহের ...বিশদ

11:40:49 AM

মালদহে দুর্ঘটনার কবলে বাস, জখম বহু 
মালদহের হবিবপুর ব্লকের হুড়া বাড়িতে দুর্ঘটনাগ্রস্ত বেসরকারি বাস। দুর্ঘটনায় জখম ...বিশদ

11:37:00 AM

ফের বাড়ল পেট্রল, ডিজেলের দাম 
ফের ঊর্ধ্বমুখী পেট্রল, ডিজেলের দাম। নতুন দাম অনুযায়ী দিল্লিতে পেট্রল ...বিশদ

11:18:09 AM