Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ছুটির ফাঁদে
অতনু বিশ্বাস

ছুটির ফাঁদে পড়েছে সূর্যোদয়ের দেশটা। জাপান। হঠাৎ করে পড়ে পাওয়া চোদ্দো আনার মত দশদিনের অতিরিক্ত ছুটি জুটেছে জাপানিদের। আর সেই ছুটি নিয়ে করবেটা কী, তা বুঝতেই পারছে না হোক্কাইডো থেকে হাটেরুমা পর্যন্ত সকল জাপানবাসী।
ব্যাপারটা একটু খোলসা করা যাক। এমনিতে জাপানিদের বেশ খানিকটা দুর্নামই আছে ‘ওয়ার্কঅ্যাহলিক’ বা কাজে আসক্ত বলে। কর্মে আসক্তি সে দেশের জাতীয় বৈশিষ্ট্যই বলা চলে। তার ফলশ্রুতিতেই বোধকরি দ্বিতীয় মহাযুদ্ধে গুঁড়িয়ে যাওয়া একটা দেশের ধ্বংসস্তূপের মধ্য দিয়ে জেগে ওঠে উন্নয়নের আর সমৃদ্ধির ফিনিক্স। প্রযুক্তির হাত ধরে। মার্কিন দানবের ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলে সে।
৩০ এপ্রিল অবসর নিচ্ছেন জাপান সম্রাট আকিহিতো। এমনিতে জাপান সম্রাটরা সাধারণত অবসর বড় একটা নেন না। (কোন দেশের কোন সম্রাটই বা নেন!) তাঁরা স্বপদে থাকেন আমৃত্যু। গত দুই শতাব্দীর মধ্যে আকিহিতোই প্রথম জাপান সম্রাট যিনি সরে যাচ্ছেন পদ থেকে। অনেকটা অবশ্য স্বাস্থ্যের কারণেই। সেই সঙ্গে অবসান হচ্ছে ‘হেইসেই’ যুগের। নতুন রাজা হবেন আকিহিতোর জ্যেষ্ঠ পুত্র নারুহিতো। সূত্রপাত হবে ‘রেইয়া’ যুগের। যাই হোক, রাজার অবসর গ্রহণ উপলক্ষে (আর নতুন রাজার অভিষেকের জন্যে) দশ দিনের ছুটি দিচ্ছে জাপান। রীতিমত সংসদে অনুমোদন করেই। (ছুটি দিতে গেলেও সংসদের অনুমোদন! একটা যুদ্ধবিধ্বস্ত একরত্তি দ্বীপরাষ্ট্রের আধ শতাব্দীর মধ্যে পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতিতে পরিণত হতে গেলে বোধকরি এমনটা দরকার।) শুনতে দশদিন লাগলেও আসলে কিন্তু ছুটিটা মাত্র দু'দিনের। ৩০ এপ্রিল আকিহিতোর অবসর, আর ১ মে নারুহিতোর অভিষেক। ‘গোল্ডেন উইক’ নামক প্রথাগত ছুটি আর দুজোড়া শনি-রবি জুড়ে গিয়ে এই ছুটিটা বড় হয়ে গিয়েছে, এই যা। কিন্তু সেই ছুটি নিয়ে মস্ত বড় হইচই।
জাপান ধনী দেশ হলেও ফুরসতের অভাবে জাপানিদের বিদেশে বেড়াতে যাবার সুযোগ বেশ কম। অনেকে তাই এই বিরল সুযোগে বেড়াতে যাচ্ছেন বিদেশে। অনেকেই আবার মস্ত ঝঞ্ঝাটে পড়েছেন। তাঁরা জানেনই না কি করে এতবড় ছুটি কাটাতে হয়। বন্ধ ক্রেসগুলি, বন্ধ বাচ্চাদের স্কুল, নার্সারি। তাহলে দিনভর বাচ্চাদের রাখবে কে? বিশেষ করে বাবা-মা দু’জনে চাকুরে হলে, তারা তো এভাবে বাচ্চা সামলাতে একেবারেই অভ্যস্ত নয়। ওদিকে কোথাও বেড়াতে যাওয়াও সহজ নয়। সব জায়গা ভিড়ে ভর্তি। সেটাও স্বস্তির নয় অনেকের কাছে। হোটেল ইত্যাদি বেড়ানোর আনুষঙ্গিক খরচও বেড়ে গেছে এই ছুটির ধাক্কায়। খুব স্বাভাবিক ভাবেই। অনেক মাস আগে থেকেই হলিডে প্যাকেজ, হোটেল, এইসব বুক করে রেখেছে অনেকে।
‘আবাহি শিমবান’ নামে এক সংবাদপত্র আবার উদ্যোগ নিয়ে এক সমীক্ষা করিয়েছে। তাতে দেখা গিয়েছে, মাত্র ৩৫ শতাংশ জাপানি কিন্তু খুশি এই পড়ে পাওয়া ছুটি পেয়ে। আর অখুশি অনেক বেশি। ৪৫ শতাংশ। বাকিরা বোধহয় জানেই না যে, ছুটি পেলে খুশি হতে হয়, নাকি অখুশি। ‘জাপান টাইম’’-এর এক সমীক্ষায় আবার দেখা যাচ্ছে যে, লম্বা ছুটির ফলে সবাই বাড়িতে বসে থাকলে গৃহস্থালির কাজ যাবে অনেকটাই বেড়ে। সেটা কে সামলাবে? সেই আশঙ্কাতেও অখুশি অনেকে। আবার ‘হেইসেই’ যুগের সমাপ্তি আর ‘রেইয়া’ যুগের শুরুতে স্মারক বিক্রি হচ্ছে দেদার। সেই স্মারক কিনতে চায় অনেক রাজভক্ত জাপানবাসী। কিন্তু তাতে খরচের ধাক্কা আছে। তাতেও অখুশি অনেকে।
মোটের উপর ছুটির ফলে অখুশি হবার কারণ অনেক রকম। যেমন, ধরা যাক, সাধারণ লোকের তো ছুটি। তাই তারা বেড়াতে যাবে, যাবে সিনেমা-থিয়েটার দেখতে, ছুটবে বিনোদন পার্কে। খেতে ছুটবে রেস্তরাঁয়। কিন্তু স্বাভাবিক ভাবেই ছুটি নেই ট্যুরিজমের সঙ্গে যুক্ত লোকজনের। হোটেল ব্যবসা, বিনোদন ব্যবসা, রেস্তরাঁ কিংবা পিৎজা বা ফাস্টফুড স্টলের কর্মীদের। এদের বরং কাজ অনেকটাই বাড়বে এই দেশজোড়া ছুটির ফলে। থাকবে না দম ফেলবার ফুরসত। তাতে আবার অখুশি এরা।
আচ্ছা, আমাদের দেশের সংগঠিত ক্ষেত্রের চাকুরেদের কথা একটু ভাবা যাক এ প্রসঙ্গে। (অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের কথা অবশ্য এ আলোচনায় আসবে না। অন্ন সংস্থানের জন্য তাদের বেশিরভাগকে অবশ্যই মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হয়। আক্ষরিক অর্থেই।) এটা স্বীকার করে নেওয়াই ভালো, মোটের উপর আমরা ঠিক কাজ-পাগল নই। কোনও নিন্দুক আমাদের ওয়ার্কঅ্যাহলিক বলুক দেখি। ওই জাপানিদের যেমন বলে। আসলে আমাদের বেশিরভাগ লোকই হয়তো একটু ঢিলেঢালা। আর কর্ম-সংস্কৃতিটাও তেমনই। ছুটি পেলেই ‘আমার ছুটি’ বলে ছুট লাগানো আমাদের মজ্জায় মজ্জায়। শুন্ডি থেকে হল্লা পর্যন্ত। এমনকী ছুটি না-থাকলেও কাজের মধ্যে ছুটিকে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে দেওয়ায় আমাদের বিরল স্বাভাবিক নৈপুণ্য। তাতে কাজ দাঁড়িয়ে থাকে থমকে, জমে ওঠে ফাইলের পাহাড়। এ একেবারে অতি-চেনা দৃশ্য। অফিসে অফিসে। আবার ফাইল যখন টেবিল ছাড়িয়ে কম্পিউটারে জমা হচ্ছে, সেই আজকের দিনে ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে গিয়ে হামেশা জানা যায়, লিঙ্ক নেই। সুতরাং কাজ বন্ধ। আমাদের ছুটি-বান্ধব কালচারে সত্যি সত্যিই সেই লিঙ্ক আছে না নেই, জানার কোনও উপায়ও নেই সাধারণ গ্রাহকের। কিন্তু কর্ম-সংস্কৃতির সঙ্গে আমাদের ‘লিঙ্ক’টা সত্যিই বড় একটা নেই। এটাই বাস্তব।
পদার্থবিদ্যার ক্লাসে পড়েছিলাম, প্রযুক্ত বলের অভিমুখে প্রযুক্ত বলের সঙ্গে সরণের গুণফল হচ্ছে ‘কাজ’-এর পরিমাণ। অর্থাৎ আমি যদি একটা পাহাড়কে ঠেলে গলৎঘর্ম হই, কিন্তু পাহাড়টা একবিন্দুও না সরে, তবে আমার ‘কাজ’-এর পরিমাণ শূন্য। সামাজিক স্তরে ‘কাজ’কেও তাই বিচার করতে হবে দেশের, সমাজের উন্নয়নের মাপকাঠিতে। যেমন অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির সূচক আর তার বৃদ্ধির অভিমুখ দিয়ে। প্রচেষ্টাটা কীভাবে চলেছে, তার মাপকাঠিতে নয়। আমাদের শ্যাওলা-ধরা সমাজের ক্ষেত্রে এই সরণটা কিন্তু বড্ড কম। তাই কাজটাকে আতশ কাচ দিয়েও খুঁজে পাওয়া কষ্টকর হয়ে যায়।
যাই হোক, অনেকটা সে কারণেই ভাবলাম যে, পড়ে পাওয়া ছুটির ফাঁদে হাঁসফাঁস করতে থাকা জাপানিদের কিংকর্তব্যবিমূঢ় অবস্থার কথা ঘটা করে জানানো উচিত আমাদের জনগণকে। জাপানিদের দেখে আমাদের ‘কাজ’ করতে শেখা প্রয়োজন, নাকি আমাদের দেখে ওদের ‘আজ আমাদের ছুটি ওভাই’ বলতে শেখাটা জরুরি, সেটাও আলোচনার বিষয়বস্তু হতে পারে। আচ্ছা, জাপানিরা তো একটা উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল পাঠাতে পারে আমাদের দেশে, কাজ আর ছুটিকে কী করে মিশিয়ে দিতে হয়, তা শেখার জন্য।
সেদিন বিকেলেই আমার এক সহকর্মী বেশ উৎসাহ নিয়ে জানালো যে, এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহে তিনদিন ছুটি—সোম, বুধ, শুক্র—পয়লা বৈশাখ, মহাবীর জয়ন্তী, গুড ফ্রাইডে। তাই মাঝে দু’দিন ক্যাজুয়াল লিভ নিয়ে নিলেই একটানা ন’দিন ছুটি। বেশ মজা করে তার খানিকটা বেড়ানোতে, আর বাকিটা রিলাক্স করে কাটানো যাবে। খবরটা শুনেই মনটা কিন্তু বেশ খুশি খুশি হয়ে উঠল।
 ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউট, কলকাতার রাশিবিজ্ঞানের অধ্যাপক। মতামত ব্যক্তিগত
13th  April, 2019
আসনের হিসেবে সবথেকে দুর্দশা বামেদের
শুভময় মৈত্র

অনেকবার আলোচনা হয়েছে এই পরিসংখ্যান, তবুও এবারের লোকসভা নির্বাচনের ফল জানতে উদগ্রীব ভোটপিপাসুদের সামনে ২০১৪-তে বিজেপি ঠিক কীভাবে ক্ষমতায় এসেছিল সে হিসেব অবশ্যই আকর্ষণীয়। সেই পরিসংখ্যানে দু’ভাগে ভাগ করা যায় ভারতকে। এক ভাগে তারা আসন পেয়েছিল আশি শতাংশ, আর অন্য ভাগে তাদের আসনের সংখ্যা ভীষণ কম।
বিশদ

ভোটবাংলা: তৃতীয় পর্ব শেষে দু’-একটি জিজ্ঞাসা
মেরুনীল দাশগুপ্ত

বাংলার ভোটে হিংসা কোনও নতুন ব্যাপার তো নয়। কিন্তু, এবার প্রথম থেকেই ভোটের পরিবেশ পরিস্থিতি একটু আলাদা বলেই মনে হয়েছে। একদিকে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ব্যাপক টহলদারি, নির্বাচন কমিশনের পর্যবেক্ষকদের নজরদারি এবং অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিস প্রশাসনের সক্রিয়তা সহযোগিতায় সাধারণ মানুষজনের মনের ভোটভীতিও অনেকটাই প্রশমিত দেখিয়েছে। ফলে, ভোট প্রচারে যুযুধান পক্ষের নেতানেত্রীর তরজায় উত্তেজনার পারদ যতই চড়ুক, একটা সৌহার্দের পরিবেশে ভোট শেষ হবে এমন প্রত্যাশা বেড়ে উঠছিল মানুষের মধ্যে। মঙ্গলবারের মর্মান্তিক ঘটনা তাতে একটা ধাক্কা দিয়েছে।
বিশদ

সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে ভোট
শুভা দত্ত

 সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে দু’টি দফার ভোটগ্রহণ ইতিমধ্যে সমাপ্ত। এই নির্বাচনে সাত দফায় ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ৯০ কোটি মানুষ। এক্ষেত্রে একটি প্রাসঙ্গিক তথ্য হল, এখন দেশে ৫৬ কোটি মানুষ ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত। তাদের সিংহভাগ তরুণ-তরুণী। তারা নিয়মিত ফেসবুক, ট্যুইটার আর হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে খবর দেওয়া নেওয়া করে।
বিশদ

23rd  April, 2019
মোদিজি বনাম ইস্তাহার
পি চিদম্বরম

ভারতে প্রতিটি লোকসভার নির্বাচনই অনন‌্য, এমনকী যদি প্রধান দুই প্রতিপক্ষ পুরনোও থাকে। একটি কারণ হল, দুটি নির্বাচনের মাঝে প্রধান দুই প্রতিপক্ষ বাদে বাকি রাজনৈতিক দলগুলি তাদের অবস্থান বদলে ফেলে।
বিশদ

22nd  April, 2019
জনতার এখন একটাই জিজ্ঞাসা: এই
শান্তি শেষপর্যন্ত বজায় থাকবে তো?
শুভা দত্ত

 দ্বিতীয় দফাও শেষ। লোকসভা ভোটযুদ্ধের দ্বিতীয় পর্বও মোটের ওপর শান্তিতেই মিটল। গত বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং জলপাইগুড়ি ও রায়গঞ্জ—এই তিন আসনে ভোটের লড়াইতে একমাত্র ব্যতিক্রম হয়ে রইল উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া! বাংলার ভোটে রক্তারক্তি, মারামারি, বোমাগুলি, খুনোখুনি কোনও নতুন কথা নয়।
বিশদ

21st  April, 2019
কংগ্রেস তো পরিবারকেন্দ্রিক দল, বাকিরা?
মৃণালকান্তি দাস

‘কংগ্রে একটি পরিবারকেন্দ্রিক দল। কংগ্রেসের বেশিরভাগ সভাপতিই নেহরু-গান্ধী পরিবার থেকে এসেছেন। এটা থেকেই বোঝা যায়, এই দলে গণতন্ত্র নেই, একটা বিশেষ পরিবারই এই দল চালায়। বছরের পর বছর ধরে এই পরিবার শুধু নিজেদের উন্নতির কথা ভেবেছে, দেশের উন্নতির কথা ভাবেনি।’
বিশদ

21st  April, 2019
প্রতিবেশীর চোখে ভারতের নির্বাচন
গৌরীশঙ্কর নাগ

বস্তুত আশ্চর্যজনক হলেও পাকিস্তানের তরফে ভারতের নির্বাচনকে সর্বদাই দেখা হয়েছে তাদের জাতীয় স্বার্থের নিরিখে, বিশেষত কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে ঘুঁটি সাজানোর ‘গেম প্ল্যান’ হিসেবে। প্রসঙ্গত স্মরণীয়, ১৯৬২ সালের সীমান্ত-সংঘাতের পর থেকে কাশ্মীরের ৩৮,০০০ বর্গকিমি চীনের দখলে রয়েছে। তদুপরি ১৯৬৩ সালে চীনের সঙ্গে সীমান্ত-বোঝাপড়ার মাধ্যমে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের ৫,১৮০ বর্গ কিমি চীনকে ছেড়ে দেয়। এখন ভারতের হাতে থাকা অবশিষ্টাংশও পাকিস্তান কব্জা করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। তাই ভারতের লোকসভা নির্বাচন পাকিস্তানের কাছে মুসলিমপক্ষীয় বা মুসলিম-বিরোধী এমন অক্ষ গঠনের তাৎপর্যের নিরিখে নয়; পাকিস্তান এ ব্যাপারে অবহিত যে, ভারতে মুসলিম জনসংখ্যা ১৭.২২ কোটি (২০১১ সেনসাস অনুযায়ী)। সেক্ষেত্রে পাক হামলায় মুসলিম জনগোষ্ঠীর নিরাপত্তাও ক্ষুণ্ণ হতে পারে।
বিশদ

20th  April, 2019
তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ও
বিরোধীদের অনৈক্য
রঞ্জন সেন

এবারের ভোটে ফিরে এসেছে এক পুরনো বিতর্ক। তা হল কোনটা ঠিক—একদলীয় শাসন না বহুদলীয় সরকার? আমাদের দেশ দুরকম অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়েই গিয়েছে। দুরকম শাসনেরই স্বপক্ষে ও বিপক্ষে বলার মত নানা কথা আছে। তাই এককথায় এর উত্তর দেওয়া কঠিন। কারণ মানুষ দুরকম সরকারেরই ভালো-খারাপ দুটি দিকই দেখেছেন।
বিশদ

20th  April, 2019
মধ্যবিত্তের ভোটচর্চা 

সমৃদ্ধ দত্ত: ভোট নিয়ে সবথেকে বেশি গল্প কারা করে? মধ্যবিত্ত। ভোট নিয়ে সারাদিন বন্ধুবান্ধব আর পরিচিতদের সঙ্গে ঝগড়া কারা করে? মধ্যবিত্ত। যে নেতানেত্রীরা তাঁদের চেনেনই না, তাঁদের হয়ে জানপ্রাণ দিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে ছোটবেলার বন্ধু কিংবা আত্মীয়স্বজন অথবা পরিচিত ফ্যামিলি ফ্রেণ্ডকে আক্রমণ করে কারা? মধ্যবিত্ত।  বিশদ

19th  April, 2019
কংগ্রেসের নির্বাচনী প্রচার নিয়ে কিছু সহজ প্রশ্ন
শুভময় মৈত্র

সপ্তদশ লোকসভা গঠনের লক্ষ্যে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে গেল ১১ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার। সাত দফায় চলবে এই ভোট, ১৯ মে পর্যন্ত। তারপর ২৩ তারিখ ভোটফল। মোদি সরকার আবার ক্ষমতায় ফিরে আসবে কিনা সেটাই এবারের মূল প্রশ্ন। আপাতত বিভিন্ন সমীক্ষা যা খবর দিয়েছে তাতে সেই আশা একেবারে অলীক নয়।
বিশদ

18th  April, 2019
সেই প্রশ্নগুলির জবাব মিলছে না কেন?
মোশারফ হোসেন 

দেশজুড়ে রাজনীতির ময়দানে এই মুহূর্তে গনগনে আঁচ। রাজনীতির মাটি গরম। রাজনীতির বাতাস গরম। কারণ দেশে ভোট যে শুরু হয়ে গিয়েছে! ভোটগ্রহণ সব মিলিয়ে সম্পন্ন হবে সাত দফায়।  
বিশদ

16th  April, 2019
দুটি ইস্তাহারের গল্প
পি চিদম্বরম

গত ৮ এপ্রিল বিজেপির নির্বাচনী ইস্তাহার প্রকাশ হল কোনও প্রকার তূর্যনিনাদ ছাড়াই। বিজেপির পক্ষে এই যে নম্রতা একেবারে অস্বাভাবিক! বিজেপির নরম হওয়ার অনেক কারণ ছিল। 
বিশদ

15th  April, 2019
একনজরে
 বাপ্পাদিত্য রায়চৌধুরী, কলকাতা: বিদেশি পর্যটক টানার ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থা মোটেই খারাপ নয়। কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রকের সর্বশেষ হিসেব বলছে, দেশে যত বিদেশি পর্যটক পা রাখেন, তার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ ষষ্ঠ স্থানে। এমনকী কেরল বা গোয়া— পর্যটন সংক্রান্ত আলোচনায় যে অঙ্গরাজ্যগুলির নাম আগে ...

  সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: ফালাকাটায় আলিপুরদুয়ার জেলার প্রথম স্টেডিয়াম নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। ফালাকাটার টাউন ক্লাবের মাঠে এই স্টেডিয়াম তৈরি হচ্ছে। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে স্টেডিয়ামের কাজ শুরু হওয়ায় ফালাকাটা সহ জেলার ক্রীড়া মহলে খুশির হাওয়া ছড়িয়েছে। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পশ্চিম ত্রিপুরা লোকসভা কেন্দ্রের ভোটের যাবতীয় নথি পরীক্ষা করলেন নির্বাচন কমিশন নিযুক্ত বিশেষ পর্যবেক্ষক বিনোদ জুৎসি। বুধবার আগরতলায় পশ্চিম ত্রিপুরা জেলার জেলাশাসকের দপ্তরে ওই লোকসভা কেন্দ্রের ভোটের পর্যালোচনাব বিশেষ বৈঠক ডাকা হয়। ...

বিএনএ, কোচবিহার: কোচবিহারে জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্দরে নানা জটিলতার জেরে রাজ্যস্তরের বিভিন্ন খেলায় অংশ নিতে গিয়ে হোঁচট খাচ্ছেন জেলার কৃতী খেলোয়াড়দের একাংশ। একটি প্রতিযোগিতায় জেলা থেকে একাধিক টিম পাঠানো হচ্ছে। কিন্তু একটা টিমকে মান্যতা দিচ্ছে রাজ্য ক্রীড়া সংস্থা। এনিয়ে দু’পক্ষের ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ক্লান্তি। প্রিয়জনের বিপথগামিতায় অশান্তি ও মানহানির আশঙ্কা। সাংসারিক ক্ষেত্রে মতানৈক্য এড়িয়ে চলা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪০: মার্কিন অভিনেতা আল পাচিনোর জন্ম
১৯৬৮: গায়ক ওস্তাদ বড়ে গুলাম আলি খানের মৃত্যু
১৯৬৯: ফুটবলার আই এম বিজয়নের জন্ম
১৯৮৭: সঙ্গীতশিল্পী অরিজিৎ সিংয়ের জন্ম

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯৮ টাকা ৭০.৬৭ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৭১ টাকা ৯১.৯৮ টাকা
ইউরো ৭৬.৮৪ টাকা ৭৯.৭৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,০৭৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৪৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩০,৮৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,২৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭,৩৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১১ বৈশাখ ১৪২৬, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ষষ্ঠী ১৮/৫৫ দিবা ১২/৪৭। পূর্বাষাঢ়া ৩৮/৩১ রাত্রি ৮/৩৭। সূ উ ৫/১২/৪৮, অ ৫/৫৬/৪০, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪২ গতে ২/৫৭ মধ্যে, বারবেলা ২/২৪ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৩৪ গতে ১২/৫৮ মধ্যে।
১১ বৈশাখ ১৪২৬, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ষষ্ঠী ২৩/২৪/২৫ দিবা ২/৩৫/৭। পূর্বাষাঢ়ানক্ষত্র ৪২/৫৩/২ রাত্রি ১০/২২/৩৪, সূ উ ৫/১৩/২১, অ ৫/৫৭/৫৩, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪০ গতে ২/৫৩ মধ্যে, বারবেলা ৪/২২/১৯ গতে ৫/৫৭/৪৯ মধ্যে, কালবেলা ২/৪৬/৪৫ গতে ৪/২২/১৯ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৩৫/৩৭ গতে ১/০/৪ মধ্যে।
১৯ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আমেথিতে নির্বাচনী প্রচারে স্মৃতি ইরানি 

01:02:00 PM

হাজরায় লিফটের মধ্যে মহিলার শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেপ্তার ১ 

12:58:00 PM

বাগডোগরায় আইওসির পরিত্যক্ত গোডাউনে আগুন, ঘটনাস্থলে দমকল কর্মীরা 

12:55:00 PM

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় তামিলনাড়ু, পুদুচেরিতে প্রবল বৃষ্টির আশঙ্কা 

12:50:00 PM

আজ বিকালে কলকাতা সহ পাশ্ববর্তী এলাকায় ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা

12:47:00 PM

বারাণসীতে কংগ্রেস প্রার্থী হলেন অজয় রাই 

12:12:00 PM