বিশেষ নিবন্ধ
 

সিবিআই নাটকে শেষপর্যন্ত
মমতাই কি লাভবান হলেন না?
মেরুনীল দাশগুপ্ত

নাটক? হ্যাঁ, নাটক। নাটক ছাড়া কী! বলা নেই, কওয়া নেই হঠাৎ করে রবিবারের শেষ বিকেলে কোত্থেকে চল্লিশ সিবিআই চলে এলেন, সন্ধের মুখে তাঁদের কজন জিজ্ঞাসাবাদের অছিলায় হানা দিলেন লাউডন স্ট্রিটে খোদ পুলিস কমিশনারের দরজায়, ঢোকার মুখেই কর্তব্যরত পুলিসের সঙ্গে বাধল সংঘাত, ছড়াল উত্তেজনা, কয়েক মুহূর্তের মধ্যে কলকাতা পুলিসের বড়কর্তারা হাজির, তর্ক-বিতর্ক ধস্তাধস্তি এবং শেষমেশ পুলিসের গাড়িবন্দি হয়ে দলের নেতা ডিএসপি সিবিআই ও আরও কয়েকজন শেক্সপিয়র সরণি থানায়! আর অন্যদিকে খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছুটে এলেন ঘটনাস্থলে, খোঁজখবর নিলেন পরিস্থিতির এবং মোদি সরকারের রাজনৈতিক চক্রান্তের বিরুদ্ধে তোপ দেগে ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে সে রাতেই বসে পড়লেন ধর্নায়। আবার সেই ধর্নার খবর চাউর হতেই গোটা রাজ্যে তৃণমূল নেতা-কর্মী সমর্থক মহলে তো বটেই, মমতাভক্ত সাধারণ মানুষের মধ্যেও চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল, বহু মানুষ ঘুম ফেলে এসে যোগ দিলেন ধর্নায়, উত্তেজনার পারদ উঠল তুঙ্গে। এর মধ্যেই খবর এল, নিজাম প্যালেস সিজিও কমপ্লেক্সের মতো জায়গার সিবিআই দপ্তর থেকে রাজ্য পুলিস সরেছে, নেমেছে আধাসেনা—কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার অফিসারদের নিরাপত্তায় বহাল হয়েছে বাহিনী!
আরও শোনা গেল, ঘটনায় ক্ষুব্ধ সিবিআই যাচ্ছে সুপ্রিম কোর্টে। গেল। এবং মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে নির্দেশ দিলেন, যাঁকে কেন্দ্র করে এতকিছু, কলকাতার সেই পুলিস কমিশনার রাজীব কুমারকে সিবিআইয়ের ডাকে হাজিরা দিতে হবে, তাদের সঙ্গে সহযোগিতা করতে হবে, জিজ্ঞাসাবাদের জবাব দিতে হবে। কিন্তু, কোনও অবস্থাতেই সিবিআই অফিসারেরা রাজীব কুমারের ওপর কোনও শক্তিপ্রয়োগ করতে বা তাঁকে গ্রেপ্তার করতে পারবেন না! আর মহামান্য আদালতের এই নির্দেশকে ‘নৈতিক জয়’ হিসেবে চিহ্নিত করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ধর্মতলার ধর্না তুলে নিয়ে দিল্লিতে বৃহত্তর প্রতিবাদ আন্দোলনের ডাক দিলেন। সিবিআই ততক্ষণে ফিরে গেছে ডেরায়! এর পর কী হবে সেটা সময় বলবে। কিন্তু, আপাতত সিবিআইয়ের যুদ্ধ শেষ। আদালতের নির্দেশ মানতে ৮ ফেব্রুয়ারি পুলিস কমিশনার সিবিআইয়ের কাছে যেতে চেয়েছিলেন। সিবিআই জানিয়ে দিয়েছে, ডেট ঠিক করার রাজীব কে? সিবিআই ডেট বলবে। ব্যাস্‌, হয়ে গেল।
এর আগেও কি আমরা এ রাজ্যে সিবিআইয়ের এমন অতিতৎপরতা দেখিনি? দেখেছি। হইহই করে সব আসেন, কয়েকদিন হাঁকাহাঁকি ডাকাডাকি গরম গরম মন্তব্য হাঁকেন ক্ষেত্রবিশেষে একে তাকে ধরে নিয়ে ওড়িশায় যান তারপর সব একসময় কোথায় যেন হারিয়ে যায়! হ্যাঁ, ইতিমধ্যে অবশ্য সারদা-রোজভ্যালির মতো আর্থিক বিষয়ের মামলায় কয়েকজনকে জেলেও পুরেছে সিবিআই, আবার তাঁদের অনেকে পরে জামিনে ছাড়া পেয়ে ঘরেও ফিরেছেন। একথা ঠিক, সারদা-রোজভ্যালির মতো আর্থিক কাণ্ডে এ রাজ্যের ও ভিন রাজ্যের বহু মানুষ প্রতারিত হয়েছেন, সর্বস্ব খুইয়েছেন অনেকে, একাধিক আত্মহননের ঘটনাও ঘটেছে। সেদিক থেকে প্রতারিত সর্বস্ব খোয়ানো মানুষজনের মতো শুভবুদ্ধিসম্পন্ন সকলেই চাইবেন এবং চানও যে ওইসব আর্থিক দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক সাজা হোক। কিন্তু, দোষীদের ‘সাজা’ দেওয়ার সদিচ্ছা সত্যিই কি দিল্লির মহাকর্তাদের আছে? প্রশ্ন উঠেছে বহুদিনই। উঠেছে তার কারণ, কোনও সারদা-রোজভ্যালির মতো কোনও আর্থিক কেলেঙ্কারির তদন্তই তো শেষ করতে পারেনি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা! একবার করে তাঁরা তেড়েফুঁড়ে ওঠেন, জিজ্ঞাসাবাদ ধরপাকড় চলে, সাময়িক একটা উত্তেজনা তৈরি হয়—তারপর হঠাৎ করেই যেন সব হাওয়ায় মিলিয়ে যায়! দিনের পর দিন, বছরের পর বছর সিবিআইয়ের এমন কীর্তিকাণ্ড দেখে লোকে যদি তাঁদের অভিযানকে ‘নাটক’ হিসেবে চিহ্নিত করেন, দোষ দেওয়া যাবে?
সত্যি বলতে কী, আজ যে সারদাকাণ্ড নিয়ে সিবিআই এত কাণ্ড করল তার একনম্বর অভিযুক্তকে কিন্তু পাকড়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গোয়েন্দা বাহিনী, সিবিআই নয়! এবং সেই অভিযুক্ত ও তাঁর এক সহকর্মী এখনও জেলজীবন কাটাচ্ছেন যে তার কারণ নিশ্চয়ই রাজ্যের গোয়েন্দা পুলিসের কর্মকুশলতা, মহামান্য আদালতে দাখিল করা তাঁদের অভিযোগপত্রের বলিষ্ঠতা। সিবিআই সেই কুশলতা দেখাতে পারল কই? তাঁরা যাঁদের ধরেছেন তাঁদের প্রায় সকলেই তো সাময়িকভাবে হলেও জামিন পেয়ে গেছেন! গেরো ফসকা না হলে এমনটা ঘটে? এই তো গত রবিবার শেষ বিকেল থেকে রাত অব্দি যা ঘটল তাতেও কি ওই ফসকা গেরোটাই প্রকট হয়ে উঠল না? পুলিস কমিশনারের বাড়িটা ঠিক কোন থানার সেটা পর্যন্ত সঠিকভাবে জেনে আসেননি তদন্তকারীরা? নাহলে শেক্সপিয়র সরণি থানার বদলে পার্ক স্ট্রিট থানায় কেন নথি নিয়ে যাওয়া! এভাবে কলকাতার মতো একটি মহানগরীর নগরপালের বাড়িতে ঢুকতে গেলে বাধা আসতে পারে সেটাও ভাবেননি তাঁরা! তৃতীয়ত, রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানিয়ে বুঝিয়ে এলে ক্ষতিটা কী হতো, কমিশনার পালিয়ে যেতেন? কলকাতার পুলিস কমিশনার পদাধিকারী একজন দক্ষ বিচক্ষণ অফিসারের পক্ষে সেটা সম্ভব বলে মনে করেছিলেন তদন্তকারীরা? নিশ্চয়ই না। তাহলে এমন আকস্মিকতার প্রয়োজনটা ছিল কি? শেষমেশ তো কিছুই হল না। যথা পূর্বং তা-ই রইল। জিজ্ঞাসাবাদ। স্থানটা ওড়িশা বা দিল্লি থেকে সরে গেল শিলঙে—এই যা! তার জন্য এত হুডুমদুড়ুম! এত ধস্তাধস্তি! নাটক ছাড়া কী?
দুর্নীতিমুক্ত ভারত, স্বচ্ছ ভারত গড়ার লক্ষ্যে অবিচল বলে লাগাতার বিজ্ঞাপিত নরেন্দ্র মোদি সরকারের দুর্নীতিদমন প্রকল্পে সিবিআই নিঃসন্দেহে অন্যতম সেরা হাতিয়ার। একসময় সিবিআইয়ের নাম শুনলে অনেক ৫৬ ইঞ্চিরও বুকের পাঁজরে কাঁপন ধরে যেত, গলা জিব শুকিয়ে আড়ষ্ট হয়ে যেত কথা! আজ সে দিন হয়তো গিয়েছে। সাম্প্রতিক বিতর্ক ও সংস্থার শীর্ষমহলে অপ্রীতিকর সংঘাতে হয়তো আরও বিবর্ণ হয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের একদা অরণ্যদেব মার্কা ভাবমূর্তি। তবু, আমপাবলিকের কাছে অন্তত এখনও সিবিআই তো সিবিআই-ই না? একটা জবরদস্ত জমকালো সমীহ জাগানো ব্যাপার—তাই না। কিন্তু, সেই সংস্থাকে যখন রাজ্য পুলিসের কাছে হার মানতে দেখছি আমরা (পরে তাঁরা কী করবেন সে পরের কথা। রবিবার যা দেখলাম তার পরিপ্রেক্ষিতে বলছি), দেখছি তাঁদের অফিসারদের পুলিসগাড়িতে তুলে চালান করা হচ্ছে থানায়—তখন আমাদের মনে হবে না কি যে তাঁরা নিজেদের যোগ্যতা দক্ষতা সংস্থার মানমর্যাদা ভুলে কোনও বিশেষ উদ্দেশ্যে বা কোনও বিশেষ প্ররোচনাতেই এমন হঠকারিতা দেখিয়েছেন এবং সেই প্ররোচনা রাজনীতি বিচ্ছিন্ন নয়! মনে হতে পারে না কি যে সিবিআইকে যাঁরা দিল্লির শাসকের ‘তোতাপাখি’ বলে আজকাল কটাক্ষ করেন তাঁরা কেবল অসূয়াবশতই করেন না, করার পিছনে কিছু ব্যাপারও আছে, আছেই!?
কিন্তু, মুশকিলটা হল—ভুল জায়গায় ভুল অস্ত্র প্রয়োগ করলে ফল বিপরীত হয়। পুলিস কমিশনার রাজীব কুমারের শেষপর্যন্ত কী হবে, না হবে সময় বলবে। কিন্তু প্রশ্ন হল, সিবিআই নাটকে শেষ পর্যন্ত মমতাই কি লাভবান হলেন না? রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকেই বলছেন, সিবিআইয়ের এই ‘নাটকে’ যদি কেউ লাভবান হন তবে তিনি তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সর্বভারতীয় রাজনীতিতে বিরোধীনেত্রী হিসেবে এই ঘটনা যেমন তাঁর প্রতিবাদী ভাবমূর্তির অনন্যতা ফের একবার সর্বজনসমক্ষে উজ্জ্বল করে তুলল, তেমনি বিরোধী শিবিরের মহারথীদের অকুণ্ঠ সমর্থন তাঁর দিল্লি যাত্রার পথটিও পূর্বাপেক্ষা সুগম করে তুলল। মোদি-বিরোধী অভিযানে এখন তিনিই প্রধান মুখ।
বিশেষজ্ঞদের এই অভিমত মানুন আর নাই মানুন একটা কথা পরিষ্কার, ইন্দিরা গান্ধীর স্মৃতি উসকে প্রিয়াঙ্কা ওয়াধেরাকে নামিয়ে রাহুল কংগ্রেস যে চমক দিয়েছিল, ভোট রাজনীতির আলো টানার যে চেষ্টা করেছিল রবিবার রাতের পর তাতে কিছু ভাটা পড়বেই। এবং পড়ার কারণ মমতা। মুখ্যমন্ত্রী মমতার রবিবাসরীয় মোদি-বিরোধী হুঙ্কার, রাজ্যের ওপর সিবিআইয়ের মতো সংস্থা দিয়ে চাপ সৃষ্টির মতো গুরুতর অভিযোগ এবং সেই অভিযোগ সম্বল করে দিল্লি কাঁপানোর ডাক উপেক্ষা করার সামর্থ্য যে বিরোধী শিবিরে বিশেষ কারও নেই সেটা তাঁর ধর্না মঞ্চে উপস্থিত হয়ে বা ফোনালাপে অনেকেই প্রমাণ করে দিয়েছেন। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও কিন্তু তার ব্যতিক্রম নন। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি যেদিকে গড়াচ্ছে তাতে প্রায় নিশ্চিতভাবেই বলা চলে, নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে লোকসভা মহাযুদ্ধের ময়দানে বিরোধী শিবিরের প্রধান মুখ, প্রধান সেনাপতি হিসেবে শেষ অব্দি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বীকৃতির যে সম্ভাবনা দানা বাঁধছিল রবিবারের ঘটনার পর সেটা একরকম অবশ্যম্ভাবী হয়ে উঠেছে। মোদি-বিরোধী শিবিরের নেতানেত্রীদের বক্তব্য প্রতিক্রিয়া এবং সমর্থনের তীব্রতায় তার আভাসও স্পষ্ট—অতএব সাধু সাবধান!
07th  February, 2019
যুগজাগরণে যুগাচার্য স্বামী প্রণবানন্দজি মহারাজ
স্বামী নীলেশ্বরানন্দ

যুগজাগরণ এক যুগাচার্যের সাধনসিদ্ধির প্রাক্কালীন শ্রীমুখ নিঃসৃত যুগমহাবাণী। এ জাগরণ মানব জীবনের উন্নয়ন উদ্বোধনের আকাশবার্তা। ১৯১৬ সনের পুণ্যময়ী মাঘী পূর্ণিমার শুভ লগ্নে এক সাধক সাধন সমাহিত অবস্থা থেকে উত্থিত হয়েই জগৎবাসীর কল্যাণে উৎসর্গ করলেন এক মহাআশ্বাস বাণী—এ যুগ মহাজাগরণের তথা মহাসমন্বয়ের।
বিশদ

19th  February, 2019
ইসলামাবাদের ইসলামি ঐক্যের ফাঁদে কাশ্মীর
হারাধন চৌধুরী

ঘটনাটিকে বাসি বলার সময় এখনও হয়নি। বলিউডের নামজাদা অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহের এক সংকীর্ণ মন্তব‌্যে উৎসাহিত হয়ে পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দাবি করে বসলেন, ‘‘সংখ‌্যালঘুদের সঙ্গে কেমন আচরণ করতে হয় তা মোদি সরকারকে দেখিয়ে দেবে পাকিস্তান।’’
বিশদ

19th  February, 2019
বধ্যভূমি কাশ্মীর: আমরা কি
কেবল মার খেতেই থাকব!

শুভা দত্ত

 গত বৃহস্পতিবার আবার জঙ্গি তাণ্ডবে কেঁপে উঠল ভূস্বর্গ, দেশপ্রেমিক জওয়ানদের রক্তে ভিজে গেল কাশ্মীর উপত্যকার মাটি। পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় জয়েশ জঙ্গিদের আত্মঘাতী হামলায় সিআরপিএফের ৪৪ জন জওয়ান শহিদ হলেন।
বিশদ

17th  February, 2019
শিশুদের বাজেট
শুভময় মৈত্র

 একশো ত্রিশ কোটির দেশে আশি কোটি প্রাপ্তবয়স্ক ভোটার, বাকি পঞ্চাশ কোটি বয়সে ছোট। যার ভোট নেই তার জন্যে লোকসভা নির্বাচনের মাস তিনেক আগে ভাবার সময় থাকে না শাসকদলের। সেই জন্যেই বাজেট বক্তৃতায় শিশুদের কথা খুঁজতে গেলে দূরবিন প্রয়োজন। তবে চশমা ছাড়াই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে এবারের বাজেটের বিশালাকার অক্ষরের ভীষণ চমক ‘ভিশন ২০৩০’। আজ থেকে এগারো বছর পর দেশ ঠিক কোথায় পৌঁছবে তার চালচিত্র। কোথাও কিন্তু আজকের শিশুদের কথা নেই।
বিশদ

16th  February, 2019
মার্কিন মুলুকে (-) ৬০,
সন্ধিক্ষণ কিন্তু পরিবর্তনেরই
শান্তনু দত্তগুপ্ত

পোলার ভর্টেক্সের প্রভাব কি ভারতেও পড়েছে? এবার উত্তর ভারতের দীর্ঘস্থায়ী ঠান্ডার জন্য আবহাওয়াবিদরা কিছুটা হলেও পোলার ভর্টেক্সকে দায়ী করছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পোলার ভর্টেক্স দুর্বল হয়ে ঠান্ডাটাকে আমেরিকা ও ইউরোপের উত্তরভাগে প্রবেশ করিয়ে দিয়েছে। আর তার ধাক্কায় দক্ষিণের দিকে চলে এসেছে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। এমনিতে বছরে চার থেকে ছ’টি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ভারতীয় উপমহাদেশে এসে ধাক্কা খায়। চলতি বছর সেই সংখ্যাটা সাত। যার জন্য শীতের প্রকোপ বেড়েছে ভারতে। মূলত হিমালয় এবং তার সংলগ্ন রাজ্যগুলিতে।
বিশদ

16th  February, 2019
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন এগিয়ে?
সমৃদ্ধ দত্ত

গত পাঁচ বছরে সিপিএম একবারও কি রেলমন্ত্রীর ইস্তফা দাবি করে রাস্তায় নেমেছে? পশ্চিমবঙ্গ কেন বঞ্চিত হচ্ছে, এই প্রশ্ন তুলে কখনও সিপিএমকে প্রেস কনফারেন্স করতে দেখেছে কেউ? কেন কিছু করেনি সিপিএম? কারণ এখন আর রেলমন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নয়। বিশদ

15th  February, 2019
রাফাল না সিবিআই, মোদি-বিরোধিতায় সবচেয়ে শক্তিশালী ইস্যু কোনটি?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 রাফাল ইস্যুকে সামনে রেখে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে নরেন্দ্র মোদির ভাবমূর্তির ওপর প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। ধারাবাহিকভাবে রাফাল ইস্যু প্রচারের কেন্দ্রে রাখতে পেরেছিলেন রাহুল। হিন্দি বলয়ে তিন রাজ্য—মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়-এ বিজেপি’র পরাজয়ের পিছনে অন্য সমস্ত কারণের মধ্যে রাহুল গান্ধীর তোলা রাফাল যুদ্ধ বিমান দুর্নীতির প্রচার বিজেপি’র বিরুদ্ধে গিয়েছিল বলে অনেকে মনে করেন।
বিশদ

14th  February, 2019
স্মার্ট সিটি এবং সুশাসন
রঞ্জন সেন

স্মার্ট হওয়া ভালো, কিন্তু আরও ভালো হল সুশাসিত হওয়া। আর এটা হয় না বলেই রাতারাতি স্মার্ট বলে দেগে দেশের স্মার্ট সিটিগুলিতে হঠাৎ প্রয়োজনে জরুরি পরিষেবা পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। অন্যদিকে তার প্রশস্ত রাজপথে চরে বেড়ায় গোরু। তার পরিণতিতে মানুষের প্রাণও যায়।
বিশদ

12th  February, 2019
ভোটের কৈফিয়ত
পি চিদম্বরম

একটা আত্মবিশ্বাসী সরকার স্বাভাবিক অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করত আর এটাই করা উচিত, কিন্তু আত্মবিশ্বাসের মতো জিনিসটার ঘাটতি রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের মধ্যে। শুধু বিজেপি এমপিদের বিষণ্ণ মুখগুলোর দিকে তাকান বিশেষত যাঁরা রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও উত্তরপ্রদেশ থেকে এসেছেন এবং আপনি আমার সঙ্গে একমত হবেন।
বিশদ

11th  February, 2019
ফাঁকা অভিযোগ করে বা সিবিআই জুজু দেখিয়ে কি মমতার গতিরোধ করা যাবে?
শুভা দত্ত

২০১৯ যুদ্ধের দামামা বেশ ভালোমতোই বেজে উঠেছে। বোঝাই যাচ্ছে লোকসভা ভোট আর দূরে নেই। মাঝে বড়জোর মাস দুই-আড়াই। তারপরই এসে পড়বে সেই বহু প্রতীক্ষিত মহাসংগ্রামের দিন। দেশের শাসনক্ষমতার মসনদ দখলের যুদ্ধে মুখোমুখি হবে শাসক এবং বিরোধী শিবিরের রথী-মহারথীবৃন্দ।
বিশদ

10th  February, 2019
হৃদয় গিয়েছে চুরি
অতনু বিশ্বাস

আচ্ছা, হৃদয়টাকে (হৃদপিণ্ড মানে হৃদয় ধরে নিয়ে) সত্যি সত্যিই কি কোথাও ফেলে আসা যায় না? যদি সত্যিই না যায়, কুমিরটা সেটা বিশ্বাস করল কী করে? উপকথার কুমিররা হয়তো বোকা হয়, তবে তার তথাকথিত বোকামিকে অনেক ক্ষেত্রেই আমার নেহাতই সরলতা বলে মনে হয়েছে।
বিশদ

09th  February, 2019
ন্যানো, একটি স্বপ্নের অকাল মৃত্যু
মৃণালকান্তি দাস

ভক্সওয়াগেন বিটল। যে বছর ভারতে ন্যানোর আবির্ভাব, তার ঠিক ৭০ বছর আগে বাজারে এসেছিল এই ‘পিপলস কার’। গোটা জার্মানি জুড়ে শুধু রোড নেটওয়ার্ক বাড়ানোই নয়, দেশের মানুষকে সস্তায় গাড়ি চড়ানোর স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন অ্যাডলফ হিটলার। কে না জানে, ভক্সওয়াগেন মানেই তো ‘জনতার গাড়ি’।
বিশদ

08th  February, 2019
একনজরে
 বেজিং, ১৯ ফেব্রুয়ারি (পিটিআই): ভারত ও পাকিস্তানকে সংযম দেখাতে অনুরোধ করল চীন। পুলওয়ামা হামলার প্রেক্ষিতে দু’দেশের মধ্যেকার উত্তেজনা কমাতে উদ্যোগ নিতে বলেছে বেজিং। শান্তিপূর্ণভাবে দু’পক্ষের বিবদমান ইস্যুগুলির সমাধান চেয়ে বেজিং বলেছে, যত দ্রুত সম্ভব ভারত ও পাকিস্তানের আলোচনায় বসা উচিত। ...

 সংবাদদাতা, কাটোয়া: বাবা ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কর্মরত। ছোট থেকেই মেধাবী ছাত্র হিসেবে পরিচিত কাটোয়ার কৈথন গ্রামের শাহবাজ মণ্ডল কীভাবে মাধ্যমিকের প্রশ্নফাঁস কাণ্ডে জড়িয়ে পড়ল তা ভেবে পাচ্ছেন না পরিবারের লোকজন থেকে প্রতিবেশীরা। ...

 নয়াদিল্লি, ১৯ ফেব্রুয়ারি: আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে আপাতত দু’সপ্তাহের জন্য দ্বাদশ আইপিএলের ক্রীড়াসূচি ঘোষণা করল বিসিসিআই। ২৩ মার্চ চিপকে উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ...

 শ্রীনগর ও জম্মু, ১৯ ফেব্রুয়ারি (পিটিআই): কর্তব্যের তাগিদে জয়েশ জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হতেই ছুটি বাতিল করে লড়াইয়ে যোগ দিয়েছেন ব্রিগেডিয়ার হরবীর সিং। মঙ্গলবার এই ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মরতদের সহকর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো থাকবে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথাও ব্যবহারে সংযত থাকা দরকার। ব্যবসায় ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক সামাজিক ন্যায় দিবস
১৯৪৭- ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ক্লিমেন্ট অ্যাটলি ঘোষণা করলেন, ১৯৪৮-এর জুন মাসের মধ্যে ইংরেজরা ভারত ত্যাগ করে চলে যাবে
১৯৫০- স্বাধীনতা সংগ্রামী শরৎচন্দ্র বসুর মৃত্যু
১৯৭১- স্বাধীনতা সংগ্রামী ও ফব নেতা হেমন্ত বসু শহরের রাজপথে প্রকাশ্যে খুন হলেন

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৫৯ টাকা ৭২.২৯ টাকা
পাউন্ড ৯০.৭১ টাকা ৯৩.৯৮ টাকা
ইউরো ৭৯.৪১ টাকা ৮২.৪১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৪,১০৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,৩৫৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,৮৪০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৫৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৬৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বুধবার, প্রতিপদ ২৮/৩৯ সন্ধ্যা ৫/৩৭। মঘা ৪/৩৬ দিবা ৮/০ পরে পূর্বফাল্গুনী ৫৫/১৬ শেষ রাত্রি ৫/৪। সূ উ ৬/৯/২২, অ ৫/৩১/৪২, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ মধ্যে পুনঃ ৯/৫৭ গতে ১১/২৮ মধ্যে পুনঃ ৩/১৫ গতে ৪/৪৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/২২ গতে ৮/৫৪ মধ্যে পুনঃ ১/৫৭ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৯/০ গতে ১০/২৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৫০ গতে ১/১৫ মধ্যে, কালরাত্রি ৩/০ গতে ৪/৩৫ মধ্যে।
৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বুধবার, প্রতিপদ রাত্রি ৭/২৯/৩৮। মঘানক্ষত্র ৯/২১/১৬, সূ উ ৬/১১/০, অ ৫/২৯/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪১/২৯ মধ্যে ও ৯/৫৭/১৩ থেকে ১১/২৭/৪৩ মধ্যে ও ৩/১৩/৫৬ থেকে ৪/৪৪/২৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/২০/২৫ থেকে ৮/৫২/১ মধ্যে ও ১/৫৭/১৩ থেকে ৬/১০/১২ মধ্যে, বারবেলা ১১/৫০/২০ থেকে ১/১৫/১০ মধ্যে, কালবেলা ৯/০/৪০ থেকে ১০/২৫/৩০ মধ্যে, কালরাত্রি ৩/০/৪০ থেকে ৪/৩৫/৫০ মধ্যে।
১৪ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
গোয়ালতোড়ে সরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ অভিভাবকদের 

11:14:51 AM

দিল্লিতে ভূমিকম্প, রিখটার স্কেলে মাত্রা ৪.৬ 

10:46:00 AM

শহরে ট্রাফিকের হাল 
আজ, বুধবার সকালে শহরের রাস্তাঘাটে যান চলাচল বেশ প্রভাবিত। ট্রাফিকের ...বিশদ

10:08:32 AM

তেরা টাইম আয়েগা, বিনা টিকিটের যাত্রীদের জন্য অভিনব সতর্কবার্তা রেলের
 ‘তেরা টাইম আয়েগা’। বিনা টিকিটের যাত্রীদের জন্য এভাবেই সতর্কবার্তা দিলেন ...বিশদ

09:52:50 AM

পড়ে থাকা ফ্ল্যাট বিক্রিতে
ব্যাপক সাড়া পেল রাজ্য

প্রায় এক দশক ধরে পড়ে থাক ফ্ল্যাট বিক্রিতে ব্যাপক সাড়া ...বিশদ

09:30:00 AM

‘বই ধরো, বই পড়ো’ প্রকল্প চালু করছে গ্রন্থাগার দপ্তর
নিখরচায় গ্রন্থাগারের সদস্যপদ নেওয়া যাবে। এমনই প্রকল্প চালু করছে রাজ্যের ...বিশদ

09:09:30 AM