Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

আলসেখানার বাসিন্দা থেকে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা
মৃণালকান্তি দাস

বাংলাদেশের ভোটে ৩০০ আসনে তিনিই ছিলেন মুখ! দুর্নীতির জালে আটকে পড়া, পাকিস্তান প্রেমে মত্ত আর ধর্মীয় উগ্রবাদে আস্থা রাখা বিরোধীদের সঙ্গে লড়াইটাও ছিল তাঁর একার। নির্বাচনের আগাগোড়া আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। জানিয়ে দিয়েছিলেন, তাঁর দল আওয়ামি লিগ ফের জিতবে। ভোটের দিনও তাঁর মুখে ছিল তৃপ্তির হাসি। বড় নিশ্চিন্তভাবে বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের উপর আমার বিপুল আস্থা। মানুষ আমাদের সঙ্গে রয়েছে। জনগণের ভোটেই আমরা নির্বাচিত হব।’ হয়েছেও তাই।
১৯৫৮ সালে আইয়ুব খানের সামরিক শাসন জারির পর ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের বাড়িতে তল্লাশির সময় তাঁর প্রিয় পুতুলটিও পুড়িয়ে ছারখার করে দিয়েছিল পাক বাহিনী। ১১ বছরের মেয়েটি আজও ভোলেনি সেদিনের যন্ত্রণার কথা। ছোটবেলায় ছিলেন কিছুটা অগোছালো প্রকৃতির। নিজের ঘরে এককোণে মাথাগুঁজে গান শুনতে আর বই পড়তেই ভালো লাগত তাঁর। নিজের ঘরে নিজের মতো। বাড়ির সকলে সেই ঘরের নাম দিয়েছিল ‘আলসেখানা’। ছোট বোন শেখ রেহানা বলেন, ‘আমার খুব মন চায়, আজ যদি মাকে বলতে পারতাম তোমার হাসু আর আলসেখানায় থাকে না। বনানী কবরস্থানে গিয়ে ভাবি, তাঁকে যদি এখনও চিঠি লিখতে পারতাম!’
কী লিখতেন রেহানা? তাঁর আপার আলসেখানার বাসিন্দা থেকে রাষ্ট্রনায়ক হয়ে ওঠার কাহিনী? যে কাহিনীর সঙ্গে জড়িয়ে একটা গোটা পরিবার হারানোর চরম দুঃখ। একের পর এক হামলার পরও বেঁচে থাকা। হাহাকার। আত্মোপলব্ধি।
প্রধানমন্ত্রী সত্তার চেয়েও আজও তাঁর কাছে মুখ্য পিতার কন্যা পরিচয়টুকুই। মুজিব কন্যা। জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল, সেই ১৯৭৫-র ১৫ আগস্ট। ভোরের আলো ফোটার আগেই ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর বাড়ি পরিণত হয়েছিল এক টুকরো নরকে। নরপিশাচদের গুলি থেকে রেহাই পাননি মহিলা-শিশু, মুজিব পরিবারের কেউই। বঙ্গবন্ধু মুজিবর রহমানকেও খুন করা হয়েছিল সেদিন। উদ্দেশ্য, ভারতকে বার্তা দেওয়া। বহু ভারতীয় গোয়েন্দাকর্তার আক্ষেপ, বঙ্গবন্ধুকে বাঁচানো যায়নি এটা শুধু নবজাতক এক রাষ্ট্রের নয়, ভারতেরও ব্যর্থতা। ভাগ্যক্রমে দু’বোনই তখন বেলজিয়ামের ব্রাসেলসে। সেই একেকটি গুলির আওয়াজ যেন জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত নাড়িয়ে দেয়। আজও। এরপর দুই বোনের স্বজনহীন জীবন কাটানো। বহু বছর। প্রসঙ্গ উঠলেই মুজিব কন্যা বারবার বলেন, সেদিন ইন্দিরা গান্ধীর তথা ভারতের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার কথা।
আজও ৩২ নম্বর বাড়িতে গেলে দরজার পাশে তিনি ঠায় দাঁড়িয়ে থাকেন। নির্বাক। দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে বলেন, ‘এখানেই, এই জায়গাতেই আমার ভাই শেখ রাসেল প্রথম হাঁটা শুরু করে।’ বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য যে পরিবারটার এত ত্যাগ, সেই পরিবারের গল্পে তিনি স্মৃতিকাতর হয়ে যান। শেখ রেহানার এখনও মাঝে মাঝে মনে হয়, পুরো ব্যাপারটা যদি স্বপ্ন হতো? কেবল এক দুঃস্বপ্ন? ‘ডিকেন্সের একটা বই ছিল। টেল অব টু সিটিজ। দুই বোন রিপাবলিকান। কাঁটা দিয়ে উল বুনছে। আর ওদের যারা অত্যাচার করত তাদের কথা ভাবছে। তো যখন শেষ উলটি বুনল তখন বলল, থার্টি টু। মানে ক’জনকে মারছে সেটা গুনছিল দুই বোন মিলে। তো আমি দিল্লিতে থাকতে আপাকে বলতাম, আপা, আমরা এরকম করব। তখন কিন্তু তুমি আমাকে কিছু বলতে পারবে না। আপা বলত, মাথা ঠান্ডা কর, মাথা ঠান্ডা কর।’ রেহানার আপা আজও মাথা ঠান্ডা রেখেই বলেন, ‘মৃত্যুকে ভয় পাই না। মৃত্যুর আগে মরতেও রাজি নই। যতক্ষণ জীবন আছে, ততক্ষণ মানুষের জন্য কাজ করে যাব।’
দেশটাকে নতুন করে গড়তে চান। হেলায় যুদ্ধপরাধীদের ফাঁসিতে লটকে দেন। ইমরানদের জামাত প্রেম তাঁকে টলাতে পারেননি। ২০১৬ সালের গুলশান হামলার পর জঙ্গি দমনের সাফল্য তো সকলের জানা। তাঁর বিদেশনীতিতে ভারত চিরকাল ছিল নির্ণায়ক স্থানে। আজও আছে। ভোটের ময়দান থেকে কূটনীতির ময়দান, সর্বত্র বলেন, ‘আমরা কোনও জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দিই না, আশ্রয় দিই না কোনও জঙ্গিকেও। উগ্র সাম্প্রদায়িকতার স্থান এই দেশে নাই।’ এই ভোটেও ঘোষণা করেছিলেন, ‘বাংলাদেশের ভূখণ্ডে ভারতবিরোধী কোনও শক্তিকে মাথা তুলতে দেব না।’
তাঁর জীবন মানেই এক পিতৃহারা কন্যার বেড়ে ওঠার গল্প। নিজের দেশের হাল ধরার কাহিনী। শেখ হাসিনা। ১৯৮১-র ১৭ মে ঝড়-ঝঞ্ঝা-বৃষ্টিস্নাত দিনে বাংলাদেশের মাটিতে ফিরে এসেছিলেন তিনি। তারপর? মাথায় ঘোমটা কখন যেন হয়ে গিয়েছে ট্রেডমার্ক। হাতের বালাটা থেকে মাঝে মাঝে হীরক-বিচ্ছুরণ। মুখে একটা স্মিত হাসি। সে হাসির মধ্যেই লুকিয়ে অদ্ভুত এক উষ্ণতা। তা হতে পারে আতিথেয়তার, সৌজন্যের বা কৃতজ্ঞতার। যাঁর মমতার হাত ছুঁয়ে গিয়েছে সুনামগঞ্জ থেকে সুন্দরবন, কুতুবদিয়া থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত বিস্তৃত বাংলাদেশের প্রতিটি জনপদ। শুধু জল ও স্থলই নয়, অন্তরীক্ষেও আজ বাংলাদেশের গৌরবময় বিচরণ। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়েও এক টুকরো বাংলাদেশ স্থাপন করে সেদেশের আত্মবিশ্বাস ও সাহসকে গগনচুম্বী করেছেন। বাংলাদেশ আজ সম্ভাবনাময় একটি দেশ। বিশ্বের বিভিন্ন অর্থনৈতিক সংস্থার সমীক্ষায় পূর্বাভাস দেওয়া হচ্ছে, বাংলাদেশের এই উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ ২০৫০ সালের আগেই বিশ্বের অর্থনৈতিক শক্তিধর রাষ্ট্রের তালিকায় ২৩ নম্বর স্থানে পৌঁছে যাবে। বাংলাদেশ আজ তলাবিহীন ঝুড়ির দেশ নয়। রাষ্ট্রসঙ্ঘও স্বীকার করে নিয়েছে বাংলাদেশের অগ্রগতি ।
পাশে আছে ভারতও। গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে। এই সম্পর্কের গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন ঘটেছিল ২০১৫ সালে। যখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ সফরে যান। দীর্ঘদিনের ঝুলে থাকা ছিটমহল, ভূমি ও সমুদ্রসীমা বিরোধের নিষ্পত্তি ঘটে এই সফরেই। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ওই সফরে আকাশ, তথ্য ও প্রযুক্তি, ইলেক্ট্রনিকস, সাইবার নিরাপত্তা, অসামরিক পারমাণবিক বিদ্যুৎসহ ৯০টির বেশি দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এছাড়া দুই দেশের বাণিজ্য ৭ বিলিয়ন থেকে বর্তমানে ৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে বৃদ্ধি পায়। মোদি প্রতিবেশী এই দুই দেশ সম্পর্ককে ‘সোনালি অধ্যায়’ বলেই মন্তব্য করেছিলেন।
আত্মবিশ্বাসী হওয়ার মতো কাজও করেছেন হাসিনা। গত ১০ বছর হাসিনা ক্ষমতায় থাকার কারণে বাংলাদেশ আজ জিডিপি ৭.৮ শতাংশ। মুদ্রাস্ফীতি ৬-এর নীচে। বাস্তবায়ন করেছেন ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন। খাদ্য উৎপাদন প্রায় ৩.৬ কোটি টন। বৈদেশিক মুদ্রা মজুত ৩৩ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি। গুদামে মজুত খাদ্যের পরিমাণ প্রায় ১৭ লাখ টন। বাংলাদেশ এখন খাদ্যশস্য বিদেশে রপ্তানি করার পর্যায়ে পৌঁছেছে। বার্ষিক উন্নয়ন বাজেট ১.৭০ লাখ কোটি টাকা। বছরের প্রথম সপ্তাহে শিক্ষার্থীদের হাতে ৩৫ কোটি বই বিনামূল্যে সরবরাহ করে। প্রায় ১৫ হাজার গ্রামীণ স্বাস্থ্যকেন্দ্র চালু। সাধারণ মানুষ অ্যান্টিবায়োটিকের মতো ওষুধও বিনামূল্যে পেয়ে থাকেন। সরকারি শিক্ষা ও স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে বিপ্লব সংগঠিত হয়েছে। দারিদ্র্যসীমা আজ ৪৮ থেকে ২৩ ভাগে নামিয়ে আনা হয়েছে। একজন কৃষি মজুর দৈনিক যা আয় করে তা দিয়ে ১০ কেজি চাল কেনা সম্ভব। একজন রিকশা শ্রমিক এখন ১০ হাজার টাকা মাসে আয় করে। মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা দেওয়া হচ্ছে। পথেঘাটে ভিক্ষুকের সংখ্যা অনেক কমে এসেছে। দেশের মাদ্রাসাগুলিতেও তথ্যপ্রযুক্তির ছোঁয়া, সেখানেও উন্নত জীবনের, ভালো জীবনের আকাঙ্ক্ষা। দেশের প্রায় ৯৪ শতাংশ বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছে বিদ্যুৎ। ষোলো কোটি মানুষের মধ্যে তেরো কোটি মানুষের হাতে মোবাইল ফোন। ল্যাপটপ ব্যবহার করছে শতকরা ষাট ভাগের উপর ছাত্রছাত্রী। আর বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রায় শতভাগ।
বাংলাদেশের রাজনীতিতে শেখ হাসিনার উত্থান অনেকটাই রূপকথার ফিনিক্স পাখির মতো। আগুনের ছাই থেকে উঠে এসে তিনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন বাংলাদেশের। মানুষ চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছেন দেশ নিজের অর্থে পদ্মা সেতু তৈরি করছে। সেতুর দুপাড়ের জমি কিনছে বড় বড় শিল্পগোষ্ঠী। কর্মসংস্থান হবে হাজার হাজার তরুণের। দক্ষিণ চট্টগ্রামের মানুষ দেখছে সেখানে তৈরি হচ্ছে বিদ্যুৎ হাব, তৈরি হচ্ছে কয়লাবন্দর। দেশে নতুন যে সমুদ্রবন্দর হয়েছে, পায়রাবন্দরের কাজ এখনও আংশিক শুরুই হয়নি, তাতেই ওই এলাকা বদলে গিয়েছে।
তবুও একটাই শঙ্কা, যে ভয়ঙ্কর সংখ্যাগরিষ্ঠতায় বিএনপি, জামাত, ঐক্যফ্রন্ট, রব, মান্না, কাদের সিদ্দিকী, তারেক রহমান, খালেদা জিয়া খড়কুটোর মত ভেসে গিয়েছেন, সেই জোয়ারে যেন গণতন্ত্র, মানবাধিকারও ভেসে না যায়। কারণ, নিরাশার খবরও তো আছে। ছাত্রলিগের গুন্ডামি। নেতাদের দাদাগিরি। সর্বোপরি হেফাজতের সঙ্গে মাখামাখি। কে না জানে, বেকারত্ব যখন সরাসরি আঘাত হানে পেটে, তখন ধর্ম সেখানে সিঁধ কাটে। যদি চোরাপথে ধর্মীয়স্বত্বাকে বাঙালিয়ানার উপর ঠাঁই দেন, বিডিআর বিদ্রোহের থেকেও ভয়াবহ হবে পরিণাম। শেখ হাসিনা কথা দিয়েছেন, সংখ্যালঘু-কল্যাণে মন্ত্রক গড়বেন। হাজার হাজার তরুণের কাজের ব্যবস্থা করবেন।
মুজিবকন্যার কথায়, তিনি চ্যালেঞ্জ নিতে ভয় পান না। তাঁর রাজনীতি নিজের জন্য নয়, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নেই তাঁর এই পথচলা। সূর্য ওঠার আগেই ঘুম থেকে উঠে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের পরিকল্পনা শুরু করেন। ‌আজও।
03rd  January, 2019
মোদিজির বালাকোট স্বপ্ন 

পি চিদম্বরম: গত ১০ মার্চ, রবিবার নির্বাচন কমিশন রণতূর্য বাজিয়ে দিল। সরকারকে শেষবারের মতো ‘ফেভার’ও করল তারা। নির্বাচন ঘোষণাটিকে সাধারণ মানুষ মুক্তির শ্বাসের মতো গ্রহণ করল: আর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ঘটা নেই, আর অর্ডিন‌্যান্স নেই এবং নেই কিছু নড়বড়ে সরকারি স্কিমের বেপরোয়া সূচনা।  বিশদ

আধাসেনা নামিয়ে কি ভোটযুদ্ধে
মমতাকে ঘায়েল করা যাবে?

শুভা দত্ত 

রাজ্যে ভোটের হাওয়া গরম হচ্ছে। জেলায় জেলায় শাসক এবং বিরোধী—দুই শিবিরের প্রচারও একটু একটু করে গতি পাচ্ছে। মন্দিরে পুজো দিয়ে প্রার্থীদের অনেকেই নেমে পড়েছেন জনসংযোগে। দেওয়াল লেখাও চলছে জোরকদমে। ভোটপ্রার্থীদের সমর্থনে পোস্টার ব্যানার দলীয় পতাকাও দেখা দিতে শুরু করেছে চারপাশে।  
বিশদ

17th  March, 2019
তীব্র জলসঙ্কট হয় মানুষের কারণে
খেসারত দিতে হবে মানুষকেই 
মৃন্ময় চন্দ

নদী বিক্রি? আজব কথা, তাও কি হয় সত্যি? ছত্তিশগড় তখনও নয় স্বয়ংসম্পূর্ণ রাজ্য, কুলকুল করে বয়ে চলেছে ‘শেওনাথ’ নদী। ১৯৯৮ সালে মধ্যপ্রদেশ সরকার ২৩ কিমি দীর্ঘ ‘শেওনাথ’ নদীটিকে ৩০ বছরের লিজে হস্তান্তর করল স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে।  বিশদ

16th  March, 2019
সংরক্ষণের রাজনীতি, রাজনীতির সংরক্ষণ 
রঞ্জন সেন

আগে ব্যাপারটা বেশ সহজ ছিল, সিপিএম, সিপিআই মানেই শ্রমিক-কৃষক- মধ্যবিত্তদের দল, কংগ্রেস উচ্চবিত্তদের দল, বিজেপি অবাঙালি ব্যবসায়ী শ্রেণীর দল। এই সরল শ্রেণীবিভাগ এখন অচল। বাম আমলে আমরা দেখেছি, টাটাদের মতো শিল্পপতিরাও বামেদের বেশ বন্ধু হয়ে গেছেন।   বিশদ

16th  March, 2019
সন্ত্রাসবাদীদের চক্রব্যূহে ফেঁসে
রয়েছেন ইমরান খান
মৃণালকান্তি দাস

২০১৩ সালে মার্কিন বাহিনীর ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছিলেন পাকিস্তানি তালিবান কম্যান্ডার ওয়ালি-উর-রেহমান। প্রতিবাদে ফেটে পড়েছিলেন ইমরান খান। সেদিন ট্যুইট করে বলেছিলেন, ‘ড্রোন হামলায় শান্তিকামী নেতা ওয়ালি-উর-রেহমানকে হত্যার মাধ্যমে প্রতিশোধ, যুদ্ধ ও মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হল যোদ্ধাদের। একদমই মানতে পারছি না।’
বিশদ

15th  March, 2019
অথ শ্রীমহাভারত কথা
গৌরী বন্দ্যোপাধ্যায়

আবার এক মহাভারত যুদ্ধ সমাগত। রণবাদ্য বাজিয়ে যুদ্ধের দিনক্ষণ ঘোষিত হয়েছে, আকাশে-বাতাসে সেই যুদ্ধের বার্তা ভাসছে, প্রস্তুতি চলছে নানা স্তরে, সর্বত্র সাজ সাজ রব উঠে গেছে। বাদী, সম্বাদী, বিবাদী সব দলই নানা উপায়ে নিজেদের শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। সাম, দান, দণ্ড, ভেদাদি প্রতিটি উপায়ই সমাজের নানা স্তরে নানাভাবে পরীক্ষিত হচ্ছে।
বিশদ

14th  March, 2019
ভোটজয়ে যুদ্ধের ভাবাবেগের একাল সেকাল
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 পুলওয়ামার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রত্যাঘাত এবং পাকিস্তানের এফ-১৬ বিমানের আক্রমণ প্রতিহত করা, কোনও শর্ত ছাড়াই উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে পাকিস্তানের খপ্পর থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মুক্ত করে এনে ভারত যে শৌর্যের প্রদর্শন করেছে তা বিরাট গর্বের।
বিশদ

12th  March, 2019
গোঁফ দিয়ে যায় চেনা?
অতনু বিশ্বাস

 উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনের অকুতোভয় সাহসিকতা আর কর্তব্যনিষ্ঠায় মোহিত ভারতবাসী। তারা খুঁজতে চায় সেই রসায়নের গূঢ় তত্ত্ব। সুকুমারী দুনিয়ার হেড অফিসের বড়বাবু তো সেই কবেই বলেছেন, গোঁফ দিয়েই নাকি চেনা যায় আমাদের সব্বাইকে। তবু, ছেলেবেলা থেকে এনিয়ে সন্দেহ আমার পুরোদস্তুর।
বিশদ

12th  March, 2019
যুদ্ধ বনাম শান্তি এবং বাঙালি মগজের অবস্থান
 

শুভময় মৈত্র: সকালবেলা দুধের ডিপোয় গভীর আলোচনা। পলিথিনবন্দি দুশো গ্রাম দই আর পাঁচশো মিলিলিটার গুঁড়ো গোলা দুধ কিনতে গিয়ে মহা বিপদে পড়তে হল। একটু আধটু লিখি সেকথা যাঁরা জানেন তাঁরা ঘিরে ধরে বললেন যে যুদ্ধ নিয়ে লিখুন যত খুশি, তবে নিজের মাথা বিক্রি করে নয়। অর্থাৎ বক্তব্য খুব পরিষ্কার। যুদ্ধের পক্ষে বা বিপক্ষে যাই লিখুন না কেন, সেটার পিছনে যেন নিজের ধান্দা না থাকে।   বিশদ

11th  March, 2019
জাতীয়তা-বিরোধী সংবাদপত্র! 

পি চিদম্বরম: রাফাল বিতর্ক থামবে না! পুলওয়ামায় জঙ্গিহামলা এবং অতঃপর ভারতীয় বায়ুসেনার প্রত‌্যাঘাতের কারণে বিতর্কটা যদি যবনিকার আড়ালে চলে গিয়ে থাকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিই সেটাকে মঞ্চের মাঝখানে এনে ফেলেছেন প্ররোচনামূলক মন্তব‌্য করে—‘‘আমাদের যদি রাফাল যুদ্ধবিমান থাকত ...।’’  বিশদ

11th  March, 2019
মমতার নামে কুৎসা করে
বাংলার ভোট জেতা যাবে?
শুভা দত্ত

 কুৎসা ছাড়া কী? মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশপ্রেমিক নন! তিনি সেনার মর্যাদা গৌরব বোঝেন না! তিনি পাকিস্তানের হয়ে কথা বলছেন! এসব কুৎসা ছাড়া কী? আমাদের রাজ্যে তো বটেই, গোটা দেশেও কি কেউ এক মুহূর্তের জন্য বিশ্বাস করবে এইসব? এমনকী মমতার অন্ধ বিরোধীরাও কি এমন কথা মানবে?! অসম্ভব।
বিশদ

10th  March, 2019
মিথ্যা‌ই সত্য
সমৃদ্ধ দত্ত

 এই যে কোনও আধুনিক সভ্যতার উপকরণ নির্মাণেই আমরা পশ্চিমি দেশের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারছি না এটাই কি শেষ কথা? ভারত কি সত্যিই কোনও আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডিং-এই এক নম্বর নয়? এটা ভুল ধারণা। আমরা এক নম্বর স্থান পেয়েছি একটি আন্তর্জাতিক ইস্যুতে। সেটি হল ফেক নিউজ।
বিশদ

08th  March, 2019
একনজরে
 করাচি, ১৭ মার্চ (পিটিআই): রবিবার পাকিস্তানের অশান্ত বালুচিস্তান প্রদেশে রেললাইনে বিস্ফোরণে দুই মহিলা সহ চারজন প্রাণ হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন আটজন। বিস্ফোরকটি রাখা ছিল বালুচিস্তানের ডেরা মুরাদ জামালি এলাকায়। দুষ্কৃতীদের লক্ষ্য ছিল রাওয়ালপিন্ডি থেকে কোয়েটাগামী যাত্রীবাহী জাফর এক্সপ্রেস। ...

 তিরুপতি, ১৭ মার্চ (পিটিআই): রবিবার ভোরে তিরুমালার বেঙ্কটেশ্বর মন্দির চত্বর থেকে এক দম্পতির তিন মাসের বাচ্চা চুরি হয়েছে। তামিলনাড়ুর ভিল্লুপুরমের বাসিন্দা এই দম্পতি যখন ঘুমিয়ে ছিলেন, তখনই তাঁদের শিশুটি চুরি হয়। গত তিন বছর ধরেই এই দম্পতি এখানে গলার হার, ...

 বাপ্পাদিত্য রায়চৌধুরী, কলকাতা: কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রক গোটা দেশের প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের তথ্য প্রকাশ করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, দু’বছরেরও কম সময়ে বিদেশি বিনিয়োগের অঙ্ক ২৫ গুণ বাড়িয়ে নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। ...

সংবাদদাতা, রানাঘাট: ভোটার তালিকায় অবৈধভাবে দু’জনের নাম তোলার অভিযোগে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হাঁসখালি থানার শিবচন্দ্রপুর এলাকায়। পঞ্চায়েত প্রধানের দেওয়া শংসাপত্র নকল করে ও ভুয়ো বাবা সাজিয়ে ভারতীয় নাগরিকত্বের প্রমাণপত্র বানিয়ে দেওয়ারও অভিযোগ উঠেছে খোদ বিএলও-র (বুথ লেভেল অফিসার) বিরুদ্ধে।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে শুভ। যোগাযোগ রক্ষা করে চললে কর্মলাভের সম্ভাবনা। ব্যবসা শুরু করলে ভালোই হবে। উচ্চতর ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩৭- প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট গ্রোভার ক্লিভল্যান্ডের জন্ম
১৯০১- সাহিত্যিক ও পরিচালক শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৩৯- প্রাক্তন ইংরেজ ফুটবলার রন অ্যাটকিনসনের জন্ম
১৯৭৪- কবি বুদ্ধদেব বসুর মৃত্যু 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৪৮ টাকা ৭০.১৭ টাকা
পাউন্ড ৯০.২২ টাকা ৯৩.৫০ টাকা
ইউরো ৭৭.৪০ টাকা ৭৯.৯৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
16th  March, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২, ৪৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০, ৮০৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১, ২৬৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮, ০৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮, ১৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
17th  March, 2019

দিন পঞ্জিকা

৩ চৈত্র ১৪২৫, ১৮ মার্চ ২০১৯, সোমবার, দ্বাদশী ২৯/৫১ সন্ধ্যা ৫/৪৪। অশ্লেষা ৩৯/৫৭ রাত্রি ৯/৪৬। সূ উ ৫/৪৭/৫, অ ৫/৪২/৫২, অমৃতযোগ দিবা ৭/২১ মধ্যে পুনঃ ১০/৩৩ গতে ১২/৫৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩১ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১১/২১ গতে ২/৩৩ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৬ গতে ৮/৪৬ মধ্যে পুনঃ ২/৪৪ গতে ৪/১৩ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৫ গতে ১১/৪৫ মধ্যে। 
৩ চৈত্র ১৪২৫, ১৮ মার্চ ২০১৯, সোমবার, দ্বাদশী ২/২৬/৫০। অশ্লেষানক্ষত্র রাত্রি ৭/৩/২৪, সূ উ ৫/৪৭/৩২, অ ৫/৪২/১, অমৃতযোগ দিবা ৭/২২/৪৮ মধ্যে ও ১০/৩৩/২০ থেকে ১২/৫৬/১৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩০/২৩ থেকে ৮/৫৫/২৯ মধ্যে ও ১১/২৯/৩৫ থেকে ২/৩৪/৪ মধ্যে, বারবেলা ২/৪৩/২৪ থেকে ৪/১২/৪৩ মধ্যে, কালবেলা ৭/২৬/৫১ থেকে ৮/৪৬/৯ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৪/৫ থেকে ১১/৪৪/৪৬ মধ্যে। 
১০ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ছত্তিশগড়ের দান্তেওয়াড়ায় আইইডি বিস্ফোরণ, জখম ৫ সিআরপিএফ জওয়ান 

06:48:58 PM

কলকাতা বিমানবন্দরে ২ জন রোহিঙ্গা সহ গ্রেপ্তার ৩ 

06:24:00 PM

অনুব্রতর মন্তব্য নিয়ে রিপোর্ট তলব কমিশনের  
অনুব্রত মণ্ডলের মন্তব্য নিয়ে বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গোধারা বসুর কাছে ...বিশদ

05:35:12 PM

সল্টলেকে গাড়ির ধাক্কায় জখম এক সাইকেল আরোহী  

05:00:00 PM

নেদারল্যান্ডসের উৎরেষ্ট শহরে বন্দুকবাজের হামলা, হত ১, জখম বেশ কয়েকজন

04:11:00 PM

৭১ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স 

03:54:21 PM