বিশেষ নিবন্ধ
 

কলকাতার মেয়র বদল: দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষায় মমতার মাস্টার স্ট্রোক
শুভা দত্ত

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে যাঁরা চেনেন তাঁরা জানেন দলের ভাবমূর্তি ও দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষার ক্ষেত্রে তিনি কখনও কোনও আপস করেন না। দলীয় শৃঙ্খলা ভাঙলে বা ভাঙার চেষ্টা করলে, সে তিনি যত বড় নেতা বা নেত্রীই হোন, শাস্তি তাঁকে পেতেই হয়। দলীয় শৃঙ্খলার প্রশ্নে কাউকে রেয়াত করেন না তিনি। এবং তথ্যভিজ্ঞজনেরা বলেন, দলে শৃঙ্খলা রক্ষার ব্যাপারে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা প্রথমাবধিই কঠোর এবং অবিচল। আলাদা করে নাম করছি না, তবে দলের শৃঙ্খলা ভেঙে অতীতে যে তৃণমূলের একাধিক নামজাদা নেতানেত্রী কড়া শাস্তির মুখে পড়েছেন তা প্রায় সকলেই জানেন। সেই শাস্তি সামলাতে সামলাতে তাঁদের অনেকের রাজনৈতিক জীবন কার্যত অন্ধকার হয়ে গিয়েছে। আজ তাঁদের মুখগুলো আর তেমন দেখাই যায় না। দেখা গেলেও সেগুলোকে মনে হয় তাঁদের উজ্জ্বল অতীতের ছায়ামাত্র।
অবশ্য, সেটাই স্বাভাবিক। কারণ, তৃণমূলে যাবতীয় আলোর উৎস একটাই—মমতা, জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আকাশের সূর্যের মতো তাঁর আলোতেই আলোকিত ছোট বড় মাঝারি—বাকি সব মুখ। তো কোনও মুখের ওপর থেকে কোনও কারণে তাঁর আলো সরে গেলে সেই মুখটা যে অন্ধকারে ডুবে যাবে তাতে আশ্চর্য কী? আর অন্ধকারের আড়ালে বেশিদিন থাকলে মানুষের মনেও সে মুখের ছবিটা ঝাপসা হবে। হবেই। কারণ, মানুষ স্বভাবগতভাবে ভুলো। ভালো-মন্দ প্রিয়-অপ্রিয় দুঃখ-শোক উপকার—কোনও কিছুই বেশিদিন মনে রাখে না, রাখতে পারে না। আজকের এই চরম ব্যস্ততার দিনে তো কথাই নেই—সকালের কথা রাত অব্দি মনে রাখতেই হিমশিম মানুষ!
এমন পরিস্থিতিতেই আপাতত মমতার সঙ্গ ছাড়লেন মন্ত্রী ও মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। কেন ছাড়লেন সে বিশ্লেষণে যাচ্ছি না। সেটা একান্তভাবেই তাঁর ব্যক্তিগত ব্যাপার। এবং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গও যে তিনি চিরকালের মতো ত্যাগ করলেন এমন চূড়ান্ত কথাও বলছি না। রাজনীতির ক্ষেত্রে তেমনটা বলা মনে হয় না খুব বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ, রাজনীতিতে অসম্ভব বা শেষ বলে কিছু নেই। কিন্তু, এই মুহূর্তে মিডিয়ায় সংবাদপত্রে ঘটনা পরম্পরা দেখেশুনে পড়ে রাজ্যবাসী এটুকু বুঝেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সুদীর্ঘকালের সুখদুঃখের সঙ্গী, অন্যতম আস্থাভাজন লড়াকু নেতা, ‘মমতা দিদি’র স্নেহাস্পদ কাননের সঙ্গে আপাতত দল ও দলনেত্রীর একটা গুরুতর বিচ্ছেদ ঘটে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতার নির্দেশে মন্ত্রী এবং মেয়র পদ থেকে ইতিমধ্যেই ইস্তফা দিয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। নিজে থেকে বিধায়ক সমেত অন্য পদও ছাড়তে চেয়েছেন। এই বিচ্ছেদের ঘটনার সঙ্গেই উঠে এসেছে তাঁর কিছু অপ্রীতিকর পারিবারিক ও ব্যক্তিগত প্রসঙ্গ। মিডিয়া কাগজ মারফত সেসব খবরও আজ রাজ্যে কারও অজানা নয়।
অবশ্য, এই বিচ্ছেদ রাতারাতি ঘটেনি। অনেকদিন ধরেই এই বিচ্ছেদের পটভূমি তৈরি হচ্ছিল। বিচ্ছেদ ঠেকাতে তৃণমূলের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতা অনেক চেষ্টাও করেছেন। তার চেয়েও বড় কথা, স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একাধিকবার শোভনবাবুকে বোঝাবার চেষ্টা করেছেন। তাঁর দায়দায়িত্ব এবং দলীয় শৃঙ্খলার কথা স্মরণ করিয়ে প্রিয় ‘কানন’কে আজকের এই চূড়ান্ত অবাঞ্ছিত পরিস্থিতি থেকে দূরে রাখতে চেষ্টা চালিয়েছেন। তথ্যভিজ্ঞমহল সূত্রে খবর তেমনই। কিন্তু, ভবি তাতেও ভোলেনি। শোভনবাবু তাঁর সিদ্ধান্তে অবিচল থেকেছেন। শেষপর্যন্ত, উপায়ন্ত না দেখে বেদনাদায়ক সিদ্ধান্তটি নিতে হয়েছে দলনেত্রী মমতাকে। ভোটের মুখে দলের ভাবমূর্তি এবং দলীয় শৃঙ্খলাকে গুরুত্ব দিতে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন তিনি। এবং কলকাতার পরবর্তী মেয়র হিসেবে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের মনোনয়নে সম্মতি দিয়েছেন।
রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, শোভনবাবুকে ছেঁটে ফেলা এবং তাঁর জায়গায় ফিরহাদ অর্থাৎ ববি হাকিমকে মেয়র হিসেবে প্রজেক্ট করাটা রাজনৈতিক দিক থেকে তো বটেই, দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষার ক্ষেত্রেও মমতার মাস্টার স্ট্রোক। কারণ, এতদ্বারা তিনি বুঝিয়ে দিলেন, যত প্রিয় এবং যোগ্যই হোন দলের স্বার্থ ও দলীয় শৃঙ্খলার ঊর্ধ্বে কেউ নন। মন্ত্রী মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের আচরণে মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা যে বিশেষ বিব্রত বোধ করছিলেন তাতে সন্দেহ নেই। বিব্রত হওয়ার যথেষ্ট কারণও ছিল। শোভনের ঘটনা নিয়ে সিপিএম কংগ্রেস বিজেপি’র মতো বিরোধীদের বাড়তি কটু-কাটব্য কটাক্ষের মোকাবিলা করতে হচ্ছিল তাঁকে। এখন এই এত বড় ভোটের মুখে দলীয় রাজনৈতিক স্বার্থের দিক থেকে সেটা মোটেই প্রীতিকর হচ্ছিল না। বিরোধীদের লাগাতার অপপ্রচারে সাধারণ মানুষের কাছেও একটা ভুল বার্তা যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছিল। তাই, সাময়িকভাবে স্নেহ প্রীতি ভুলে পদক্ষেপ তাঁকে করতেই হয়েছে। তাছাড়া, মোদিবিরোধী জাতীয় রাজনীতিতে এখন অন্যতম মুখ্য ভূমিকায় তিনি। কিছুদিন আগে চন্দ্রবাবু নাইডুর মতো হেভিওয়েট নেতা এসে প্রকারান্তরে সে কথাই ঘোষণা করে গিয়েছেন। সেই সঙ্গে, মমতার নিজস্ব ফেডারেল ফ্রন্টও আছে। সেটা নিয়েও বিস্তর ভাবনাচিন্তা করতে হচ্ছে তাঁকে। আছে রাজ্যের উন্নয়ন চিন্তা, নানান সমস্যা। সব মিলিয়ে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী, তৃণমূল সুপ্রিমোর এখন দম ফেলবার সময় নেই। এমন অবস্থায় শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মতো একজন বিশ্বাসভাজন দক্ষ সহকর্মীর এহেন কাণ্ডে মমতা অসন্তুষ্ট হবেন তাতে আশ্চর্য কী?
তবে, অসন্তোষের বশে কোনও হটকারী সিদ্ধান্ত নেননি তিনি। কারণ, তিনি মমতা। রাজনৈতিক দূরদৃষ্টি হোক কি বাস্তবতার বোধ—তিনি যে এ রাজ্যের বিরোধীদের চেয়ে কোটি যোজন এগিয়ে—ফিরহাদ হাকিমকে মেয়র করার নিদান দিয়ে সত্যি বলতে কী আবার তার প্রমাণ দিলেন। রাজনৈতিক তথ্যভিজ্ঞদের অনেকেই মনে করছেন, মন্ত্রী এবং প্রাক্তন মেয়র সুব্রত মুখোপাধ্যায় ছাড়া এই মুহূর্তে কলকাতা মহানগরীর দায়িত্ব সামলানোর জন্য সবদিক থেকে ফিরহাদ, ববিই যোগ্যতম। কারণ, ববি হাকিম পুরসভা বিষয়ে দীর্ঘ অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এবং তৃণমূল সরকারে নগরোন্নয়ন দপ্তরের একজন সফল মন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় ইতিমধ্যেই রাজ্যের বহু উন্নয়ন পরিকল্পনা সফলভাবে রূপায়িত করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, ববি আর পাঁচজনের চেয়ে অনেক সংযত-বাক এবং রাজনৈতিক বুদ্ধি-কৌশলেও অনেক দড়। ফলে, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মতো হেভিওয়েটের বিদায় নিয়ে পুরমহলের আনাচকানাচের আবেগ-আলোড়নগুলোকে সামলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে নগরোন্নয়নের কাজ শুরু করতেও তাঁর সময় লাগবে না। সেদিক থেকেও ববির নির্বাচন যথার্থ বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকে। এহেন ববির মেয়র পদে আনুষ্ঠানিক যোগদান এখন কেবল সময়ের অপেক্ষা। তার জন্য প্রয়োজনীয় আইন সংশোধনও হয়ে গিয়েছে। শুধু তাই নয়, মমতার এই মাস্টার স্ট্রোকের আর একটি দিকও আছে। স্বাস্থ্য দপ্তরের মেয়র পারিষদ অতীন ঘোষকে ডেপুটি করে মমতা কলকাতা উত্তরের মানুষজনের ‘অভিমান’ও মুছে দিলেন। এতদিন শোনা যেত, দিদি মমতা নাকি উত্তরের চেয়ে দক্ষিণ কলকাতাকে বেশি গুরুত্ব দেন। ভালোর সিংহভাগ দক্ষিণে চলে যায়। আর তাই নিয়ে সূক্ষ্ম একটা অভিমান কলকাতা উত্তরের বাতাসে ভেসে বেড়াত। এবার পুরসভার স্বাস্থ্য দপ্তরের দক্ষ মেয়র পারিষদ অতীনবাবুকে ডেপুটি মেয়রের আসনে বসিয়ে মমতা সেই অভিমান কার্যত মুছে দিলেন। রাজনৈতিক দিক থেকেও এই সিদ্ধান্ত যে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ তা বলার অপেক্ষা রাখে না।
তার চেয়েও বড় কথা, ববিকে মেয়র পদে এনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা কলকাতা পুরসভার ইতিহাসে একটি অনন্য নজির গড়লেন। এই প্রথম মহানগরীর একজন সংখ্যালঘু নেতা কলকাতার মেয়র হচ্ছেন। এটা কি কম বড় কথা? অথচ আশ্চর্য এই, তাঁর নির্বাচন নিয়ে সিপিএম কংগ্রেস থেকে বিজেপি—সকলেই আক্রমণ শানিয়ে যাচ্ছে। সকলের আক্রমণের লক্ষ্য অবশ্য শেষ পর্যন্ত সেই মমতা! মেয়র পদে ফিরহাদের মনোনয়ন নিয়ে সিপিএম কংগ্রেস আইনি প্রশ্ন তুলছে, সংশোধিত পুর আইনের সাংবিধানিক বৈধতা নিয়ে বিতর্ক বাধাচ্ছে। আর বিজেপি’র কেউ কেউ তো ঠারেঠোরে সেই চিরচেনা জিগির তুলে হাওয়া গরম করার চেষ্টা করছে। এসব কি রাজ্যের পক্ষে যথেষ্ট দুর্ভাগ্যের নয়? কলকাতার মহানাগরিকের আসনে কোন ধর্ম কোন জাতের মানুষ বসছেন মমতার এই সম্প্রীতির রাজ্যে—এটা কি আলোচ্য হতে পারে! পারে না, কিন্তু হচ্ছে। হোক। তাতে রাজ্যবাসী মানুষজন যে বিশেষ কান দিচ্ছেন না সে ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত। বরং, মেয়র পদে ফিরহাদ হাকিমের মনোনয়নকে তাঁরা মমতার ‘মাস্টার-স্ট্রোক’ বলেই মনে করছেন। রাজ্যের পথেঘাটে সাধারণের মন্তব্য থেকে তেমন প্রতিক্রিয়ার আভাসই মিলছে বলে খবর। এ রাজ্যের বাতাবরণে সেটাই তো স্বাভাবিক—তাই না?
25th  November, 2018
শিশুদের বাজেট
শুভময় মৈত্র

 একশো ত্রিশ কোটির দেশে আশি কোটি প্রাপ্তবয়স্ক ভোটার, বাকি পঞ্চাশ কোটি বয়সে ছোট। যার ভোট নেই তার জন্যে লোকসভা নির্বাচনের মাস তিনেক আগে ভাবার সময় থাকে না শাসকদলের। সেই জন্যেই বাজেট বক্তৃতায় শিশুদের কথা খুঁজতে গেলে দূরবিন প্রয়োজন। তবে চশমা ছাড়াই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে এবারের বাজেটের বিশালাকার অক্ষরের ভীষণ চমক ‘ভিশন ২০৩০’। আজ থেকে এগারো বছর পর দেশ ঠিক কোথায় পৌঁছবে তার চালচিত্র। কোথাও কিন্তু আজকের শিশুদের কথা নেই।
বিশদ

মার্কিন মুলুকে (-) ৬০,
সন্ধিক্ষণ কিন্তু পরিবর্তনেরই
শান্তনু দত্তগুপ্ত

পোলার ভর্টেক্সের প্রভাব কি ভারতেও পড়েছে? এবার উত্তর ভারতের দীর্ঘস্থায়ী ঠান্ডার জন্য আবহাওয়াবিদরা কিছুটা হলেও পোলার ভর্টেক্সকে দায়ী করছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পোলার ভর্টেক্স দুর্বল হয়ে ঠান্ডাটাকে আমেরিকা ও ইউরোপের উত্তরভাগে প্রবেশ করিয়ে দিয়েছে। আর তার ধাক্কায় দক্ষিণের দিকে চলে এসেছে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। এমনিতে বছরে চার থেকে ছ’টি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ভারতীয় উপমহাদেশে এসে ধাক্কা খায়। চলতি বছর সেই সংখ্যাটা সাত। যার জন্য শীতের প্রকোপ বেড়েছে ভারতে। মূলত হিমালয় এবং তার সংলগ্ন রাজ্যগুলিতে।
বিশদ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন এগিয়ে?
সমৃদ্ধ দত্ত

গত পাঁচ বছরে সিপিএম একবারও কি রেলমন্ত্রীর ইস্তফা দাবি করে রাস্তায় নেমেছে? পশ্চিমবঙ্গ কেন বঞ্চিত হচ্ছে, এই প্রশ্ন তুলে কখনও সিপিএমকে প্রেস কনফারেন্স করতে দেখেছে কেউ? কেন কিছু করেনি সিপিএম? কারণ এখন আর রেলমন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নয়। বিশদ

15th  February, 2019
রাফাল না সিবিআই, মোদি-বিরোধিতায় সবচেয়ে শক্তিশালী ইস্যু কোনটি?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 রাফাল ইস্যুকে সামনে রেখে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে নরেন্দ্র মোদির ভাবমূর্তির ওপর প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। ধারাবাহিকভাবে রাফাল ইস্যু প্রচারের কেন্দ্রে রাখতে পেরেছিলেন রাহুল। হিন্দি বলয়ে তিন রাজ্য—মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়-এ বিজেপি’র পরাজয়ের পিছনে অন্য সমস্ত কারণের মধ্যে রাহুল গান্ধীর তোলা রাফাল যুদ্ধ বিমান দুর্নীতির প্রচার বিজেপি’র বিরুদ্ধে গিয়েছিল বলে অনেকে মনে করেন।
বিশদ

14th  February, 2019
স্মার্ট সিটি এবং সুশাসন
রঞ্জন সেন

স্মার্ট হওয়া ভালো, কিন্তু আরও ভালো হল সুশাসিত হওয়া। আর এটা হয় না বলেই রাতারাতি স্মার্ট বলে দেগে দেশের স্মার্ট সিটিগুলিতে হঠাৎ প্রয়োজনে জরুরি পরিষেবা পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। অন্যদিকে তার প্রশস্ত রাজপথে চরে বেড়ায় গোরু। তার পরিণতিতে মানুষের প্রাণও যায়।
বিশদ

12th  February, 2019
ভোটের কৈফিয়ত
পি চিদম্বরম

একটা আত্মবিশ্বাসী সরকার স্বাভাবিক অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করত আর এটাই করা উচিত, কিন্তু আত্মবিশ্বাসের মতো জিনিসটার ঘাটতি রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের মধ্যে। শুধু বিজেপি এমপিদের বিষণ্ণ মুখগুলোর দিকে তাকান বিশেষত যাঁরা রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও উত্তরপ্রদেশ থেকে এসেছেন এবং আপনি আমার সঙ্গে একমত হবেন।
বিশদ

11th  February, 2019
ফাঁকা অভিযোগ করে বা সিবিআই জুজু দেখিয়ে কি মমতার গতিরোধ করা যাবে?
শুভা দত্ত

২০১৯ যুদ্ধের দামামা বেশ ভালোমতোই বেজে উঠেছে। বোঝাই যাচ্ছে লোকসভা ভোট আর দূরে নেই। মাঝে বড়জোর মাস দুই-আড়াই। তারপরই এসে পড়বে সেই বহু প্রতীক্ষিত মহাসংগ্রামের দিন। দেশের শাসনক্ষমতার মসনদ দখলের যুদ্ধে মুখোমুখি হবে শাসক এবং বিরোধী শিবিরের রথী-মহারথীবৃন্দ।
বিশদ

10th  February, 2019
হৃদয় গিয়েছে চুরি
অতনু বিশ্বাস

আচ্ছা, হৃদয়টাকে (হৃদপিণ্ড মানে হৃদয় ধরে নিয়ে) সত্যি সত্যিই কি কোথাও ফেলে আসা যায় না? যদি সত্যিই না যায়, কুমিরটা সেটা বিশ্বাস করল কী করে? উপকথার কুমিররা হয়তো বোকা হয়, তবে তার তথাকথিত বোকামিকে অনেক ক্ষেত্রেই আমার নেহাতই সরলতা বলে মনে হয়েছে।
বিশদ

09th  February, 2019
ন্যানো, একটি স্বপ্নের অকাল মৃত্যু
মৃণালকান্তি দাস

ভক্সওয়াগেন বিটল। যে বছর ভারতে ন্যানোর আবির্ভাব, তার ঠিক ৭০ বছর আগে বাজারে এসেছিল এই ‘পিপলস কার’। গোটা জার্মানি জুড়ে শুধু রোড নেটওয়ার্ক বাড়ানোই নয়, দেশের মানুষকে সস্তায় গাড়ি চড়ানোর স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন অ্যাডলফ হিটলার। কে না জানে, ভক্সওয়াগেন মানেই তো ‘জনতার গাড়ি’।
বিশদ

08th  February, 2019
সিবিআই নাটকে শেষপর্যন্ত
মমতাই কি লাভবান হলেন না?
মেরুনীল দাশগুপ্ত

 নাটক? হ্যাঁ, নাটক। নাটক ছাড়া কী! বলা নেই, কওয়া নেই হঠাৎ করে রবিবারের শেষ বিকেলে কোত্থেকে চল্লিশ সিবিআই চলে এলেন, সন্ধের মুখে তাঁদের কজন জিজ্ঞাসাবাদের অছিলায় হানা দিলেন লাউডন স্ট্রিটে খোদ পুলিস কমিশনারের দরজায়, ঢোকার মুখেই কর্তব্যরত পুলিসের সঙ্গে বাধল সংঘাত, ছড়াল উত্তেজনা, কয়েক মুহূর্তের মধ্যে কলকাতা পুলিসের বড়কর্তারা হাজির, তর্ক-বিতর্ক ধস্তাধস্তি এবং শেষমেশ পুলিসের গাড়িবন্দি হয়ে দলের নেতা ডিএসপি সিবিআই ও আরও কয়েকজন শেক্সপিয়র সরণি থানায়!
বিশদ

07th  February, 2019
উন্নয়নের সঙ্গে যথেষ্ট আর্থিকশৃঙ্খলা অর্জিত হয়েছে
দেবনারায়ণ সরকার

সোমবার অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র ২০১৯-২০ অর্থবর্ষের রাজ্য বাজেট পেশ করলেন। এই বাজেটে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লক্ষ ৩৭ হাজার ৯৬৪ কোটি টাকা। গত বছরের অনুমিত বাজেটের তুলনায় এটা ২১ শতাংশেরও বেশি। রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৬৪ হাজার ৩২৭ কোটি টাকা। 
বিশদ

05th  February, 2019
গাদকারি মাহাত্ম্য
পি চিদম্বরম

নীতিন গাদকারি একজন অন‌্যধরনের রাজনীতিক। তাঁর নিজের স্বীকার অনুযায়ী, তিনি একজন ভোজনরসিক, তিনি হাল ফ‌্যাশনের পোশাক পরেন এবং দেখে মনে হয় জীবনটাকে উপভোগও করেন। তিনি পাবলিক ফাংশনে ভাষণ দিতে পছন্দ করেন এবং এমনভাবে কথা বলেন যেন দুনিয়ার কে কী ভাবল তাতে তাঁর যায় আসে না।
বিশদ

04th  February, 2019
একনজরে
মণীন্দ্র নারায়ণ সিংহ, জলপাইগুড়ি, বিএনএ: শর্তসাপেক্ষে অবশেষে জলপাইগুড়ির বালাপাড়ায় ট্রাক টার্মিনাস নির্মাণের জন্য জমি মাপজোক করতে দিলেন চাষিরা। অত্যাধুনিক ট্রাক টার্মিনাসের জন্য প্রস্তাবিত সরকারি জমিতে ...

 নয়াদিল্লি, ১৫ ফেব্রুয়ারি (পিটিআই): দিল্লির ক্রিকেট সংস্থা ডিডিসিএ-র সঙ্গে মানহানির মামলায় মিটমাট হয়ে গিয়েছে তাঁদের। শুক্রবার দিল্লি হাইকোর্টকে একথা জানালেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা বিজেপির সাসপেন্ড হওয়া এমপি কীর্তি আজাদ। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যজুড়ে চরমে উঠল কেবল টিভি সমস্যা। গ্রাহকদের একটা বড় অংশ অভিযোগ করছে, তারা টিভিতে হাতে গোনা কয়েকটি চ্যানেল ছাড়া পছন্দের চ্যানেল দেখতে পাচ্ছে না। এদিকে, যাঁরা নয়া নিয়মে চ্যানেল দেখার জন্য ফর্ম পূরণ করে টাকা জমা দিয়েছেন, ...

সংবাদদাতা, কাঁথি: এক নাবালিকাকে অপহরণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত যুবকের বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে জুনপুট কোস্টাল থানার পুলিস। পুলিস জানিয়েছে, ধৃতের নাম হারাধন সিং। তার বাড়ি সংশ্লিষ্ট থানার গোপালচক গ্রামে। শুক্রবার কাঁথি মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে ১৪দিন জেল ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চবিদ্যায় ভালো ফল হবে। কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে সুযোগ আসবে। কোনও প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। ব্যবসায় যুক্ত ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৪: পরিচালক দাদাসাহেব ফালকের মৃত্যু
১৯৫৬: বিজ্ঞানী মেঘনাদ সাহার মৃত্যু
১৯৫৯: মার্কিন টেনিস খেলোয়াড় জন ম্যাকেনরোর জন্ম 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৯ টাকা ৭২.১৯ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৭০ টাকা ৯২.৯৪ টাকা
ইউরো ৭৮.৯৫ টাকা ৮২.১২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৩,৭০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩১,৯৭৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,৪৫৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার, একাদশী ১২/৫ দিবা ১১/২। আর্দ্রা ৩২/১৩ রাত্রি ৭/৫। সূ উ ৬/১২/৮, অ ৫/২৯/৩২, অমৃতযোগ দিবা ৯/৫৮ গতে ১২/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৮/১ গতে ১০/৩৪ মধ্যে পুনঃ ১২/১৬ গতে ১/৫৮ মধ্যে পুনঃ ২/৪৯ গতে ৪/৩০ মধ্যে। বারবেলা ৭/৩৬ মধ্যে পুনঃ ১/১৫ গতে ২/৪০ মধ্যে পুনঃ ৪/৫ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ৪/৩৬ গতে উদয়াবধি।
৩ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার, একাদশী প্রাতঃ ৬/৪১/২ পরে দ্বাদশী রাত্রিশেষ ৪/৪৩/৫৪। আর্দ্রানক্ষত্র ৩/৩৬/২৭, সূ উ ৬/১৩/১৬, অ ৫/২৭/৪২, অমৃতযোগ দিবা ৯/৫৮/১৮ থেকে ১২/৫৮/৪ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/০/৫৩ থেকে ১০/৩৪/৩ মধ্যে ও ১২/১৬/১১ থেকে ১/৫৮/১৮ মধ্যে ও ২/৪৯/২১ থেকে ৪/৩১/২৮ মধ্যে, বারবেলা ১/১৪/৫৫ থেকে ২/৩৯/১১ মধ্যে, কালবেলা ৭/৩৭/৫২ মধ্যে ও ৪/৩/২৭ থেকে ৫/২৭/৪২ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/৩/২৬ মধ্যে ও ৪/৩৭/১৩ থেকে ৬/১২/৫৭ মধ্যে। 
১০ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
গোপীবল্লভপুরে নদীতে স্নান করতে নেমে তলিয়ে গেল এক কিশোর 

15-02-2019 - 06:37:00 PM

ভুয়ো কোম্পানি খুলে রাজ্যজুড়ে প্রতারণার জাল, ধৃত ৭
গৃহঋণ থেকে চাকরির টোপ দিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন অংশে প্রচুর মানুষকে ...বিশদ

15-02-2019 - 04:12:00 PM

৬৭ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

15-02-2019 - 04:11:35 PM

পুলওয়ামায় হামলা: নদীয়া, হাওড়ার শহিদ জওয়ানদের বাড়িতে আসছেন দু’জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী 

15-02-2019 - 04:03:51 PM

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার জেরে উত্তপ্ত জম্মু, পুড়ল ১৫টি গাড়ি 

15-02-2019 - 03:08:00 PM

মাঝেরহাটে সিইএসই অফিসে আগুন, ঘটনাস্থলে দমকলের ৩টি ইঞ্জিন 

15-02-2019 - 03:03:00 PM