Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

মমতার ‘আচ্ছে দিন’ আনার ডাক মোদিজির চাপ কি বাড়িয়ে দিল?
শুভা দত্ত

মমতার ‘আচ্ছে দিন’ আনার ডাক মোদিজির চাপ কি বাড়িয়ে দিল?
‘আচ্ছে দিন’। এই একটি প্রতিশ্রুতিতেই মজে গিয়েছিল গোটা দেশ। দুর্নীতিমুক্ত শিল্পে ঝলমল বেকারবিহীন একটা ভারত গড়ে উঠবে, গরিব মানুষ দু’বেলা পেটপুরে খেতে পাবে, মধ্যবিত্তের সংসারের ওপর থেকে করের বোঝা সমেত আর্থিক চাপগুলো কিছুটা হলেও হালকা হবে, স্বাস্থ্য শিক্ষা সমেত যাবতীয় পরিষেবা দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ সাধারণ মানুষের আয়ত্তে আসবে—‘আচ্ছে দিনে’র প্রতিশ্রুতিকে ঘিরে এমন কত কত স্বপ্নই না দেশের মানুষের মনে সেদিন জেগে উঠেছিল! স্বাধীনতার পর দেশের সরকারের কাছ থেকে একমাত্র বঞ্চনাই যাঁদের প্রাপ্তি সেই পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর গরিব মানুষেরাও ‘আচ্ছে দিনে’র ডাক শুনে নতুন করে আশায় বুক বেঁধেছিলেন। শিল্পায়নে দেশের অন্যতম সেরা রাজ্য গুজরাতের ‘মুখ্যমন্ত্রী’, বিজেপির প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী নরেন্দ্র মোদির নাটকীয় ভাষণ, আচ্ছে দিন আনার দৃঢ় প্রতিশ্রুতি তাঁদের মনে মনে জেগে ওঠা স্বপ্নগুলোকে ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের মুখে যেন আরও মোহময় আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছিল। ভিড় ঠাসা জমজমাট সব সভায় ওই বিশাল পুরুষের জোরালো কণ্ঠের প্রতিশ্রুতিতে সত্যি বলতে কী, দেশের আমজনতা সেদিন অবিশ্বাস করার মতো কোনও কারণই খুঁজে পাননি।
বরং, শিল্পোন্নত গুজরাতের উজ্জ্বল মডেলের দিকে চেয়ে তাঁরা বিশ্বাস করেছিলেন, দেশ শাসনের দায়িত্ব পেলে নরেন্দ্র মোদি ভারতের ভোল বদলে দেবেন। কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ আমলের দুর্নীতি, বেকারি, শিল্পক্ষেত্রে মন্দা, লাগাতার মূল্যবৃদ্ধি, শাসন শৃঙ্খলার অভাবের মতো জঞ্জাল যন্ত্রণা হটিয়ে নতুন ভারত গড়ে দেবেন মোদিজি। দেশের মানুষের ঘরে ঘরে নেমে আসবে আচ্ছে দিন। এবং সেই আশায় ভর করেই গোটা দেশ সমর্থন উজাড় করে দিয়েছিল নরেন্দ্র মোদির ভোটবাক্সে—রেকর্ড আসন জিতে দিল্লির মসনদে গিয়ে বসেছিলেন মোদিজি।
তারপর দেখতে দেখতে গড়িয়ে গেছে চার বছরেরও বেশি। সামনে এসে পড়েছে আর একটা লোকসভা ভোট। ২০১৯ সালের সেই ভোটযুদ্ধের প্রস্তুতি নিয়ে শাসক-বিরোধী দুই শিবিরেই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। জনমনোরঞ্জনের তাগিদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং তাঁর প্রধান সেনাপতি অমিত শাহ নানান কায়দাকৌশলের রাজনীতি নিয়ে নেমে পড়েছেন আমজনতার মাঝে। পৃথিবীর সবচেয়ে লম্বা সর্দার প্যাটেলের মূর্তি বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। ওই মূর্তি বসানো নিয়ে স্থানীয়ভাবে কিছু অসন্তোষ মাথাচাড়া দিয়েছে ঠিকই কিন্তু তাতে কর্ণপাত করছে না শাসকদল। বরং, নোটবন্দি, নীরব-চোকসি-মালিয়ার লুঠ থেকে রাফাল-বিতর্ক, সিবিআই কাণ্ড—সব চাপা দিয়ে ঐক্য সংহতি উন্নতি প্রগতির উন্নত ভারত, স্বচ্ছ ভারত ডিজিটাল ইন্ডিয়ার রূপকার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্যাপক সাফল্য জাহির করতে ভোটের বাজারে ওই বিশাল মূর্তি স্থাপনের অতুল কীর্তিকেও দেশবাসীর সামনে তুলে ধরতে চাইছেন তাঁরা।
অন্যদিকে, বিরোধীরাও বসে নেই। চন্দ্রবাবু নাইড়ুর হাত ধরে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী মোদি-বিরোধী জোটকে আরও বড় এবং আরও শক্তিশালী করে তোলার জোরদার উদ্যোগ শুরু করে দিয়েছেন। এমনকী সেই জোটে প্রকারান্তরে শরিক হতে সিপিএমও যে বিশেষ আগ্রহী সেটা ক’দিন আগে কংগ্রেসের সঙ্গে ভোটবন্ধুত্বের বার্তা দিয়ে পার্টির রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র প্রকাশ্য সভাতেই জানিয়ে দিয়েছেন। এর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ফেডারেল ফ্রন্ট তো আছেই। এবং মমতার এই ফেডারেল ফ্রন্টই যে শাসক বিজেপি’র দ্বিতীয়বার দিল্লি জয় এবং সেইসূত্রে মোদিজি’র দ্বিতীয়বারের প্রধানমন্ত্রিত্বের পথে সবচেয়ে বড় কাঁটা হতে পারে—এমন আশঙ্কার কথা ইতিমধ্যেই নাকি গেরুয়া শিবিরে পৌঁছে দিয়েছে রাজনৈতিক তথ্যভিজ্ঞমহল!
সেজন্য আপাতত মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে সবদিক থেকে সন্তুষ্ট রাখার একটা কেন্দ্রীয় চেষ্টাও নাকি বলবৎ হয়েছে। তবে, তাতে মমতাকে কতটা গলানো যাবে তা নিয়ে সংশয় যথেষ্ট। রাজনৈতিক তথ্যভিজ্ঞজনেদের অনেকে মনে করছেন, আসন্ন ভোটযুদ্ধের ময়দানে এ রাজ্যে তো বটেই, অন্যত্রও মুখ্যমন্ত্রী তথা জননেত্রী মমতার প্রভাব প্রতিপত্তি এবং সৎ-স্বচ্ছ ভাবমূর্তির কড়া টক্কর অপেক্ষা করছে দেশের শাসক বিজেপি’র জন্য। সেই টক্কর মোকাবিলার জন্যও নাকি আলাদা প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে পদ্মশিবিরে। অবশ্য, বড় ভোটের কিছু মাস আগে থেকে শাসক-বিরোধী দুই শিবিরের পরিস্থিতি এমনই হয়ে থাকে। একটা যুদ্ধ যুদ্ধ ভাব, কথার লড়াই, মন্তব্য, বাক-বিতণ্ডা। এমন সব দৃশ্য সকলের কাছেই খুব পরিচিত।
কিন্তু, ক’দিন আগে এই পরিচিত দৃশ্যে একটা বড় ঝটকা লেগেছে, রাজ্যবাসী তো বটেই, দেশের বাকি এলাকার সাধারণ মানুষও হয়তো সেই ঝটকা কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছেন। অবশ্য ঝটকার মূল্য লক্ষ পাবলিক ছিল না, ছিলেন স্বয়ং মোদিজি! মোদিজির প্রতিশ্রুতিকে হাতিয়ার করে মোদিজিকেই ঝটকা দিয়েছেন মমতা! গত লোকসভা ভোটে নরেন্দ্র মোদির অন্যতম বড় এবং প্রভাবশালী প্রতিশ্রুতি ছিল ‘আচ্ছে দিন’। কিন্তু, দেশের মানুষ আজ ভালোই জানেন, আচ্ছে দিনের স্বপ্ন শেষপর্যন্ত স্বপ্নই থেকে গেছে। বাস্তবে আচ্ছে দিনের আরাম দূরে থাক, খেয়ে-পরে সংসার পরিজন নিয়ে বেঁচেবর্তে থাকাটাই দিনের পর দিন কঠিন থেকে কঠিনতর হয়ে উঠেছে! হবে না কেন? দেশের পরিস্থিতিটা দেখুন! টাকার দাম পড়তির দিকে, তার জেরে ব্যবসাবাণিজ্যে মন্দা, শিল্প কর্মসংস্থানের অভাবে ক্রমবর্ধমান বেকারি, ডিজেল, পেট্রল কেরোসিনের লাগাতার মূল্যবৃদ্ধি, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, জীবনদায়ী ওষুধের অগ্নিমূল্য, জমা টাকায় সুদ নামছে আর জাতীয়তাবাদ ধর্ম ইত্যাদির নামে দেশজুড়ে অশান্তি খুনোখুনিতে রক্তাক্ত দেশ! এমন পরিস্থিতিতে আচ্ছে দিনের স্বপ্ন ফিকে হবে না? হবে এবং হয়েওছে।
এই ফিকে স্বপ্নকেই ফের উজ্জ্বল করে তুলে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মমতা। এবং তাঁর মা-মাটি-মানুষের বাংলাকেই এই স্বপ্নকে সাকার করে তোলার দায়িত্ব দিয়েছেন! গত বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গের সভায় মমতার আচ্ছে দিন আনার এই আহ্বান সঙ্গতকারণেই আলোড়ন ফেলে দিয়েছে রাজনৈতিক মহলে। অনেকেই বলছেন, মোদিজির অস্ত্রে তিনি মোদিজিকেই ঘায়েল করেছেন। কারণ, দেশের মানুষ আজ বুঝে গেছেন, মোদি সরকার দুর্নীতি থেকে মূল্যবৃদ্ধি কিছুই নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেনি, পারছে না। রাফাল এবং সিবিআই কাণ্ডের পর সেটা আরও স্পষ্ট। এরপর ভারতবাসীর জন্য আচ্ছে দিনের স্বপ্ন বাস্তবায়িত করা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পক্ষে খুব সহজ নয়, সম্ভব কতটা, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠে গেছে। সেক্ষেত্রে মমতার ওপর মানুষের আস্থা অনেক বেশি।
কারণ, পশ্চিমবঙ্গে পর পর দু’দফা নির্বাচন জিতেছেন তিনি এবং জিতেছেন বিপুল ভোটে ও আসনে। বিধানসভায় বিরোধীরা কার্যত লিলিপুট আজ। কিন্তু, এমন বড় বড় দুটি জয় পেয়েও মমতা তাঁর একটি প্রতিশ্রুতিও ভোলেননি। একেবারে শুরুর দিন থেকে আজ অবধি মা-মাটি-মানুষের সার্বিক উন্নয়নে সিপিএমের শাসনে রুগ্‌ণ হতশ্রী বাংলার মুখে নতুন করে শক্তি ও সাফল্যের হাসি ফুটিয়েছেন তিনি। কন্যাশ্রী প্রকল্পকে তুলে নিয়ে গেছেন বিশ্বমানে। শিক্ষা-স্বাস্থ্য সমেত যাবতীয় পরিষেবা গ্রামের গরিব মানুষের নাগালের মধ্যে পৌঁছে দিয়েছেন। এমনকী নানা সরকারি অনুদান দিয়ে পিছিয়ে পড়া আর্থিকভাবে দুর্বল ঘরের ছেলেমেয়েদের উচ্চশিক্ষা থেকে খেলাধুলো, স্বনির্ভর কর্মসংস্থান থেকে বিয়ে সব ক্ষেত্রে যথোপযুক্ত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত জঙ্গলমহল থেকে দার্জিলিং পাহাড় তাঁর চেষ্টায় আজ রাজনৈতিক উপদ্রব মুক্ত, উন্নয়নশীল। পাশাপাশি রাজ্যজুড়ে শিল্পায়নেও সাড়া পড়ে গেছে। মুখ্যমন্ত্রী পৃথিবীর নানা প্রান্ত থেকে উন্নত প্রযুক্তির শিল্প আনতে গত কয়েক বছর ধরে যে অক্লান্ত চেষ্টা চালিয়ে চলেছেন আজ তার ফলও একটু একটু করে পেতে শুরু করেছে এই রাজ্য। এমন পরিস্থিতিতে আচ্ছে দিন আনার ডাক
দিয়েছেন মমতা। এখন প্রশ্ন হল, মমতার ‘আচ্ছে দিন’ আনার ডাক মোদিজির চাপ কি বাড়িয়ে দিল?
দিল কি না আমরা জানি না। তবে, মমতার মতো উদ্যোগী এবং সফল একজন মুখ্যমন্ত্রী যখন আচ্ছে দিন আনার ডাক দিচ্ছেন—বাংলাকে সে দায়িত্ব
কাঁধে তুলে নিতে বলছেন—মানুষ কিন্তু বিশ্বাস করবে। অবশ্যই করবে। বলছেন, রাজনৈতিক তথ্যভিজ্ঞরাই। ঠিক সেই কারণেই করবে যে কারণে ২০১৪ সালে আজকের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বিশ্বাস করেছিল দেশ। সেদিন দেশের মানুষের চোখে ছিল মোদিজির শিল্পোন্নত ‘গুজরাত মডেল’ আর আজ তার জায়গায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশ্বজয়ী ‘বাংলা মডেল’। গুজরাত মডেলে আস্থা রেখে হতাশ রাজ্য তথা দেশের মানুষ যদি আজ মমতার ‘বাংলা মডেলে’র পক্ষে দাঁড়ায় অবাক হওয়ার কী আছে?
04th  November, 2018
ধর্মের বেশে ভোটব্যাঙ্ক!
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 

দুপুর গড়িয়ে বিকেলের পথে। তারিখটা ২৭ মে, ১৯৬৪। দিল্লির রাজপথে কালো মাথার ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা নেই। আর ভিড়ের বেশিরভাগেরই গতিমুখ তিনমূর্তি ভবনের দিকে। সেখানে শায়িত জওহরলাল নেহরু। শেষযাত্রায় প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানাতে হাজির গ্র্যানভিল অস্টিনও। মার্কিন ছাত্র। থিসিস লিখছেন ভারতের সংবিধানের উপর। তাই আগ্রহটা বাকিদের থেকে একটু বেশিই।  
বিশদ

পরিবেশ নিরুদ্দেশ 
রঞ্জন সেন

খবরের কাগজে দেখলাম, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, সন্ত্রাস ও জলবায়ু পরিবর্তন মানব সভ্যতার সামনে বড় বিপদ। বাতাসে কার্বন নিঃসরণ বাড়ে এমন কোনও কাজ তিনি করেন না। কার্বন নিঃসরণের বিপদ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর এমন সতর্কতা খুব ভালো লাগল।  
বিশদ

এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলার
বামফ্রন্ট এবং তার প্রার্থীতালিকা
শুভময় মৈত্র

এ দেশে বামপন্থার ইতিহাস আজকের নয়। প্রায় একশো বছর আগে ১৯২৫ সালের বড়দিনের ঠিক পরের তারিখেই কানপুরে কমিউনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়ার (সিপিআই) প্রতিষ্ঠা হয়েছিল বলে শোনা যায়। সিপিএমের আবার অন্য তত্ত্বও আছে। তাদের একাংশের মতে ১৯২০ সালের ১৭ অক্টোবর তাসখন্দে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির পথ চলা শুরু।
বিশদ

21st  March, 2019
গত বিধানসভার ফল রাজ্যে এবারের লোকসভার ভোটে কী ইঙ্গিত রাখছে?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী
 

২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বেশ কয়েক মাস ধরে চলছে জনমত সমীক্ষার কাজ। ভারতের মতো বৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশে যেখানে ৯০ কোটি ভোটার রয়েছেন সেখানে এই বিপুল সংখ্যক মানুষের মনের খোঁজ পাওয়া সমীক্ষকদের পক্ষে কতটুকু সম্ভব তা নিয়ে বিস্তর বিতর্ক রয়েছে—বিশেষ করে ৯০ কোটি ভোটার যেখানে জাত, ধর্ম, অঞ্চলে বিভক্ত।  
বিশদ

19th  March, 2019
মোদিজির বালাকোট স্বপ্ন 

পি চিদম্বরম: গত ১০ মার্চ, রবিবার নির্বাচন কমিশন রণতূর্য বাজিয়ে দিল। সরকারকে শেষবারের মতো ‘ফেভার’ও করল তারা। নির্বাচন ঘোষণাটিকে সাধারণ মানুষ মুক্তির শ্বাসের মতো গ্রহণ করল: আর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ঘটা নেই, আর অর্ডিন‌্যান্স নেই এবং নেই কিছু নড়বড়ে সরকারি স্কিমের বেপরোয়া সূচনা।  বিশদ

18th  March, 2019
আধাসেনা নামিয়ে কি ভোটযুদ্ধে
মমতাকে ঘায়েল করা যাবে?

শুভা দত্ত 

রাজ্যে ভোটের হাওয়া গরম হচ্ছে। জেলায় জেলায় শাসক এবং বিরোধী—দুই শিবিরের প্রচারও একটু একটু করে গতি পাচ্ছে। মন্দিরে পুজো দিয়ে প্রার্থীদের অনেকেই নেমে পড়েছেন জনসংযোগে। দেওয়াল লেখাও চলছে জোরকদমে। ভোটপ্রার্থীদের সমর্থনে পোস্টার ব্যানার দলীয় পতাকাও দেখা দিতে শুরু করেছে চারপাশে।  
বিশদ

17th  March, 2019
তীব্র জলসঙ্কট হয় মানুষের কারণে
খেসারত দিতে হবে মানুষকেই 
মৃন্ময় চন্দ

নদী বিক্রি? আজব কথা, তাও কি হয় সত্যি? ছত্তিশগড় তখনও নয় স্বয়ংসম্পূর্ণ রাজ্য, কুলকুল করে বয়ে চলেছে ‘শেওনাথ’ নদী। ১৯৯৮ সালে মধ্যপ্রদেশ সরকার ২৩ কিমি দীর্ঘ ‘শেওনাথ’ নদীটিকে ৩০ বছরের লিজে হস্তান্তর করল স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে।  বিশদ

16th  March, 2019
সংরক্ষণের রাজনীতি, রাজনীতির সংরক্ষণ 
রঞ্জন সেন

আগে ব্যাপারটা বেশ সহজ ছিল, সিপিএম, সিপিআই মানেই শ্রমিক-কৃষক- মধ্যবিত্তদের দল, কংগ্রেস উচ্চবিত্তদের দল, বিজেপি অবাঙালি ব্যবসায়ী শ্রেণীর দল। এই সরল শ্রেণীবিভাগ এখন অচল। বাম আমলে আমরা দেখেছি, টাটাদের মতো শিল্পপতিরাও বামেদের বেশ বন্ধু হয়ে গেছেন।   বিশদ

16th  March, 2019
সন্ত্রাসবাদীদের চক্রব্যূহে ফেঁসে
রয়েছেন ইমরান খান
মৃণালকান্তি দাস

২০১৩ সালে মার্কিন বাহিনীর ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছিলেন পাকিস্তানি তালিবান কম্যান্ডার ওয়ালি-উর-রেহমান। প্রতিবাদে ফেটে পড়েছিলেন ইমরান খান। সেদিন ট্যুইট করে বলেছিলেন, ‘ড্রোন হামলায় শান্তিকামী নেতা ওয়ালি-উর-রেহমানকে হত্যার মাধ্যমে প্রতিশোধ, যুদ্ধ ও মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হল যোদ্ধাদের। একদমই মানতে পারছি না।’
বিশদ

15th  March, 2019
অথ শ্রীমহাভারত কথা
গৌরী বন্দ্যোপাধ্যায়

আবার এক মহাভারত যুদ্ধ সমাগত। রণবাদ্য বাজিয়ে যুদ্ধের দিনক্ষণ ঘোষিত হয়েছে, আকাশে-বাতাসে সেই যুদ্ধের বার্তা ভাসছে, প্রস্তুতি চলছে নানা স্তরে, সর্বত্র সাজ সাজ রব উঠে গেছে। বাদী, সম্বাদী, বিবাদী সব দলই নানা উপায়ে নিজেদের শক্তি বৃদ্ধি করে চলেছে। সাম, দান, দণ্ড, ভেদাদি প্রতিটি উপায়ই সমাজের নানা স্তরে নানাভাবে পরীক্ষিত হচ্ছে।
বিশদ

14th  March, 2019
ভোটজয়ে যুদ্ধের ভাবাবেগের একাল সেকাল
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 পুলওয়ামার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রত্যাঘাত এবং পাকিস্তানের এফ-১৬ বিমানের আক্রমণ প্রতিহত করা, কোনও শর্ত ছাড়াই উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে পাকিস্তানের খপ্পর থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মুক্ত করে এনে ভারত যে শৌর্যের প্রদর্শন করেছে তা বিরাট গর্বের।
বিশদ

12th  March, 2019
গোঁফ দিয়ে যায় চেনা?
অতনু বিশ্বাস

 উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনের অকুতোভয় সাহসিকতা আর কর্তব্যনিষ্ঠায় মোহিত ভারতবাসী। তারা খুঁজতে চায় সেই রসায়নের গূঢ় তত্ত্ব। সুকুমারী দুনিয়ার হেড অফিসের বড়বাবু তো সেই কবেই বলেছেন, গোঁফ দিয়েই নাকি চেনা যায় আমাদের সব্বাইকে। তবু, ছেলেবেলা থেকে এনিয়ে সন্দেহ আমার পুরোদস্তুর।
বিশদ

12th  March, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: এক বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ওঠার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দারুণভাবে ফিরে আসার জন্য আইপিএলের মঞ্চকেই বেছে নিয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার। প্রস্তাব ছিল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজ খেলার। কিন্তু নির্বাচকদের তিনি সটান না বলে দেন। ...

সংবাদদাতা, হরিরামপুর: শুক্রবার বিজেপি’র হরিরামপুর মণ্ডল কমিটির পক্ষ থেকে প্রার্থীর নামে দেওয়াল লিখন শুরু করা হয়। বৃহস্পতিবারই বালুরঘাট লোকসভা আসনে সুকান্ত মজুমদারের নাম বিজেপি প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে। এদিন মণ্ডল কমিটির সদস্যরা রং তুলি নিয়ে দেওয়াল লেখার কাজ শুরু করেন। ...

দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ২২ মার্চ: আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দার্জিলিংয়ে প্রার্থী বাছাই করতেই হিমশিম খাচ্ছে বিজেপি। যার ফলে দার্জিলিংকে বাদ রেখেই বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের ২৮টি লোকসভা আসনে ...

বেজিং, ২২ মার্চ (পিটিআই): চীনের জিয়াংশু প্রদেশে রাসায়নিক সার কারখানায় বিস্ফোরণে শুক্রবার মৃত বেড়ে দাঁড়াল ৪৭। আহত ৯০ জনের হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। বৃহস্পতিবার ইয়ানচেং শিল্প ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

মানসিক অস্থিরতা দেখা দেবে। বন্ধু-বান্ধবদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখা দরকার। কর্মে একাধিক শুভ যোগাযোগ আসবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব আবহাওয়া দিবস
১৯১০: রাজনীতিক রামমনোহর লোহিয়ার জন্ম
১৯৩১: বিপ্লবী ভগৎ সিংয়ের ফাঁসি
১৯৮৬ - কঙ্গনা রানাওয়াত, ভারতীয় অভিনেত্রী।
১৯৯৫: কবি শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.১৫ টাকা ৬৯.৮৪ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৭৭ টাকা ৯২.১৯ টাকা
ইউরো ৭৬.৬৭ টাকা ৭৯.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,৩৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৬৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১,১৪৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
21st  March, 2019

দিন পঞ্জিকা

৮ চৈত্র ১৪২৫, ২৩ মার্চ ২০১৯, শনিবার, তৃতীয়া ৪২/৫ রাত্রি ১০/৩৩। চিত্রা ৮/২৭ দিবা ৯/৫। সূ উ ৫/৪২/১৯, অ ৫/৪৪/৪৭, অমৃতযোগ দিবা ৯/৪৪ গতে ১২/৫৬ মধ্যে। রাত্রি ৮/৮ গতে ১০/৩২ মধ্যে পুনঃ ১২/৮ গতে ১/৪৩ মধ্যে পুনঃ ২/৩১ গতে ৪/৭ মধ্যে। বারবেলা ৭/১২ মধ্যে পুনঃ ১/১৩ গতে ২/৪৪ মধ্যে পুনঃ ৪/১৪ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৭/১৪ মধ্যে পুনঃ ৪/১১ গতে উদয়াবধি। 
৮ চৈত্র ১৪২৫, ২৩ মার্চ ২০১৯, শনিবার, তৃতীয়া রাত্রি ২/২/৮। চিত্রানক্ষত্র ১২/০/৩৩, সূ উ ৫/৪২/৩৭, অ ৫/৪৩/৫৭, অমৃতযোগ দিবা ৯/৪৩/৪ থেকে ১২/৫৫/২৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/৭/৪১ থেকে ১০/৩১/২৫ মধ্যে ও ১২/১৮/১৪ থেকে ১/৪৩/৪ মধ্যে ও ২/৩০/৫৮ থেকে ৪/৬/৪৮ মধ্যে, বারবেলা ১/১৩/২৭ থেকে ২/৪৩/৩৭ মধ্যে, কালবেলা ৭/৪৩/৪৭ মধ্যে ও ৪/১৩/৪৭ থেকে ৫/৪৩/৫৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/১৩/৪৭ মধ্যে ও ৪/১১/৫৯ থেকে ৫/৪১/৩৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৫ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শহরে ট্রাফিকের হাল 
আজ, শনিবার সকালে শহরের একাধিক রাস্তায় যানজট রয়েছে। অফিস টাইমের ...বিশদ

10:00:00 AM

আজ মালদহে রাহুল গান্ধীর প্রথম নির্বাচনী সভা  
আজ, শনিবার মালদহের চাঁচলের কলমবাগানে জনসভা করতে আসছেন সর্বভারতীয় কংগ্রেস ...বিশদ

09:45:07 AM

ফেমা আইনে গিলানিকে ১৪ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা ইডির
বিদেশি মুদ্রা আইনে (ফেমা) তদন্তে নেমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী ...বিশদ

09:30:00 AM

আজ শুরু আইপিএল
অপেক্ষা মাত্র আর কয়েক ঘণ্টার। মহাধুমধাম করে শনিবার চেন্নাই সুপার ...বিশদ

09:21:06 AM

আজ থেকে আসানসোলে ভোটপ্রচারে নামছে সব দলই

আজ, শনিবার থেকে আসানসোলে ভোটের ময়দানে জোরকদমে প্রচারে নামছে সব ...বিশদ

09:04:20 AM

রূপশ্রী চালু রাখতে সায় কমিশনের
বিয়ের সময় কন্যাসন্তানদের আর্থিক সাহায্য দেওয়ার সরকারি প্রকল্প ‘রূপশ্রী’ চালু ...বিশদ

09:00:00 AM