বিশেষ নিবন্ধ
 

ধ্বংসযজ্ঞ চলছে, কেন্দ্রেরও ভিত নড়ে উঠছে
পি চিদম্বরম

প্রাচীন প্রবাদ একরকম—‘‘দুর্ভাগ‌্য একা আসে না।’’ এখন মনে হয় যে দেবতারাও ভারতের অর্থনীতির উপর সদয় নন।
আমাদের অর্থনীতির উপর আঘাত হয়ে নামছে যেসব দুঃসংবাদ, সেগুলোর উপর নজর করা যাক:
 শেয়ারের দাম এত পড়ে গিয়েছে যে কেনাবেচার সূচক ১৫ মাস পূর্বে ফিরে গিয়েছে।
 শেয়ার ও বন্ডের মতো আর্থিক ক্ষেত্রে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা (ফরেন পোর্টফোলিয়ো ইনভেস্টরস) গত ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ৩৫,৪৬০ কোটি টাকার লগ্নি ফেরত নিয়ে গিয়েছেন। এবছর বিদেশি বিনিয়োগ ফেরত চলে গিয়েছে মোটামুটি ৯৬ হাজার কোটি টাকা মূল‌্যের। টাকার দামের পতনটা অবাধ। মার্কিন ডলারের সাপেক্ষে  উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ‌্যে টাকার দামের ভয়ংকর পতন (ওয়ার্স্ট পারফরমিং কারেন্সি) যেসব দেশের হয়েছে ভারত তাদেরই একটি। ২০১৮-তে ভারতীয় মুদ্রামানের ১৬ শতাংশ অবনমন ঘটে গিয়েছে, আরও পতনের আশঙ্কা অব‌্যাহত।
 প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত খনিজ তেলের (ব্রেন্ট) দাম বেড়ে ৭৭ মার্কিন ডলারে পৌঁছে গিয়েছে। বিশ্বজুড়ে অনিশ্চয়তা, বিশেষত মধ‌্যপ্রাচ‌্যের অস্থিরতা তেলের এমন দামবৃদ্ধির কারণ হয়ে থাকতে পারে। ভারতে পেট্রল ডিজেলের দাম প্রায় রোজ বাড়তে বাড়তে সাধারণ মানুষের কাছে এক অসহ‌নীয় বোঝায় পরিণত হয়েছে।
টাকার দাম পড়ছে, বাড়ছে জিনিসের দাম
 টাকার দামের অবনমন আর পেট্রপণ‌্যের দামবৃদ্ধি সাধারণ মানুষের পকেট ফুটো করে দিচ্ছে। তার ফলে কী হচ্ছে, অন‌্যসকল পণ‌্য ও পরিষেবার কেনাকাটায় প্রচণ্ড ধাক্কা পড়েছে।
 এবছর বৃষ্টিপাতের পরিমাণ গড়পড়তারও নীচে। প্রায় ৩৬ শতাংশ জেলা থেকে বৃষ্টিপাতে বড়সড় ঘাটতির দুঃসংবাদ পাওয়া গিয়েছে।
 চাষিরা বিদ্রোহী হয়ে উঠেছেন। বেশিরভাগ কৃষিজ পণ‌্যের দাম ঘোষিত ন‌্যূনতম সহায়ক মূল‌্যের (এমএসপি) কম। গুটিকয়েক রাজ‌্যের সামান‌্যকিছু শস‌্যসংগ্রহ কেন্দ্র আছে। এই কারণে খুব বেশি সংখ‌্যক চাষি এমএসপি’র সুবিধা পাচ্ছেন না।
 গত চার বছর যবৎ পণ‌্য রপ্তানির হালও হতাশাজনক। ২০১৩-১৪ অর্থবর্ষে ৩১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল‌্যের রপ্তানি নথিবদ্ধ হয়েছিল। এই সময়ে সেই স্তরটাও পেরতে পারেনি এনডিএ সরকার। চলতি বছরের প্রথম ছ’মাসে এই সংখ‌্যাটা তো মাত্রই ১৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

লগ্নি সামান‌্য, ঋণও মহার্ঘ
 সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকনমি’র (সিএমআইই) তথ‌্য অনুসারে জানানো যায়, ২০১৮-র দ্বিতীয় কোয়ার্টারে (জুলাই-সেপ্টম্বর) ১,৫০,০০০ কোটি টাকা মূল‌্যের নতুন বিনিয়োগ প্রস্তাবের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল, যেটা দীর্ঘদিনের গড়ের অনেক নীচে। সিএমআইই’র তথ‌্য আরও বলছে, ৫,৩৯৪টি প্রকল্প থমকে গিয়েছে।
 শিল্পে ঋণদানের বৃদ্ধির হার অনেক কসরত করে গত আগস্টে ১.৯৩ শতাংশে পৌঁছেছে। চলতি অর্থবর্ষের বেশিরভাগ মাসে ইয়ার ওভার ইয়ার (ওয়াই-ও-ওয়াই) গ্রোথ দাঁড়িয়েছে মোটে ১ শতাংশ।
 ব‌্যাঙ্কগুলোর নিকম্মা সম্পদের (নন-পারফর্মিং অ‌্যাসেটস) পরিমাণ ১০ লক্ষ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে! এই দুর্ভাগ‌্যের সঙ্গে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে যুক্ত হয়েছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নন ব‌্যাঙ্কিং ফিনান্সিয়াল কোম্পানির (এনবিএফসি) মুখ থুবড়ে পড়ার ঘটনা, সমগ্র অর্থনীতিতেই এর কালো ছায়া দেখা যাচ্ছে। দেউলিয়ার ঘটনাগুলো শম্বুক গতিতে এগচ্ছে এবং নির্দিষ্ট করে দেওয়া ১৮০ দিনের মেয়াদে একটাও বড় মামলার নিষ্পত্তি হয়নি।
 চাকরি বাকরির অবস্থা খারাপ এবং আরও খারাপ হওয়ারই আশঙ্কা হচ্ছে। সিএমআইই জানিয়েছে, গত আগস্টে বেকারির হার ছিল ৬.৩ শতাংশ, সেটা পরের মাসেই বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬.৬ শতাংশ। ১৬-৬৪ বর্ষীয় নাগরিকদের মধ‌্যে যাঁরা কর্মরত অথবা কর্মপ্রার্থী অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অবস্থান করেন, তাঁদের নিয়ে লেবার ফোর্স পার্টিসিপেশন রেট ঠিক করা হয়। একটা অর্থনীতিতে নাগরিকদের মোট বয়সের কতটা কাজের জন‌্য নিয়োজিত হচ্ছে (ওয়ার্কিং-এজ পপুলেশন) সেটা লেবার ফোর্স পার্টিসিপেশন রেট দিয়ে নির্ধারণ করা হয়। যাই হোক,লেবার পার্টিসিপেশন রেট ২০১৬-তে ছিল ৪৬+’এর বেশি। বেকারত্বের হারটা তখনই বাড়তে থাকল যখন লেবার পার্টিসিপেশন রেটটা ৪৩.২ শতাংশে নেমে এল।
ম‌্যাক্রো-ইকনমিক ইনস্টেবিলিটি
 আজকের ফিসকাল পরিস্থিতিটা উদ্বেগজনক। বাজেটের পরিপ্রেক্ষিতে নেট কর রাজস্ব আদায় বৃদ্ধির হার ১৯.১৫ শতাংশ হওয়া সত্ত্বেও চলতি বছরের এপ্রিল-সেপ্টেম্বরের মধ‌্যে গত বছরের একই সময়ের সাপেক্ষে বৃদ্ধির হার মাত্র ৭.৪৫ শতাংশ। বাজেটে ঘোষিত অঙ্কে পৌঁছনোর জন‌্য অর্থবর্ষের বাকি মাসগুলোর ভিতরে নেট ট‌্যাক্স রেভিনিউতে ২৮.২১ শতাংশের মতো বড়সড় বৃদ্ধি ঘটিয়ে ফেলার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে, যা অসম্ভবপ্রায়।
 বিলগ্নিকরণ কর্মসূচি থমকে গিয়েছে। বাজেটে ঘোষিত ৮০ হাজার কোটি টাকার লক্ষ‌্যমাত্রায় পৌঁছনোর জায়গায় ৯,৬৮৬ কোটি টাকায় গড়াগড়ি খাচ্ছে। বাজেটের এই গুরুত্বপূর্ণ খাতে কত বড় ঘাটতি রয়ে যাবে এখনও পরিষ্কার নয়।
 বাজেটে ধরে নেওয়া হয়েছিল যে এবছর রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলোর ডিভিডেন্ড থেকে ১,০৭,৩১২ কোটি টাকা সরকারের আয় হবে। পেট্রল ও ডিজেলের উপর লিটার প্রতি ১ টাকা হিসেবে তেল কোম্পানিগুলোর ঘাড়ে অক্টোবর-ডিসেম্বর কোয়ার্টারের জন‌্য মোট ৩৫০০ কোটি টাকার এক বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। ফলত, তাদের ডিভিডেন্ড বণ্টনটা কমে যাবে। এলআইসি যদি আইএল অ‌্যান্ড এফএস থেকে বেরিয়ে আসে তবে তাদের উপরেও একই বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হতে পারে।
 মূলত কম টাকা বরাদ্দ হয়েছে এরকম প্রকল্পগুলোকে সরকার ‘পুশ’ করছে। যেমন বিমা-ভিত্তিক মেডিকেল কেয়ার স্কিম, আয়ুষ্মান যোজনা প্রভৃতি। ১০ কোটি পরিবার বা ৫০ কোটি মানুষকে ‘কভার’ করার লক্ষ‌্যমাত্রা ঘোষিত হয়েছে, যতদূর জানা যাচ্ছে, টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে মাত্রই ২০০০ কোটি! কম অর্থ বরাদ্দের (আন্ডার-ফান্ডেড) অন‌্য প্রকল্পগুলোর মধ‌্যে আছে ১০০ দিনের কাজ (এমজিএনআরইজিএ), প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, পানীয় জল মিশন, স্বচ্ছ ভারত, জাতীয় স্বাস্থ‌্য মিশন এবং গ্রাম জ‌্যোতি যোজনা।
 গত সেপ্টেম্বরের শেষে কারেন্ট অ‌্যাকাউন্ট ঘাটতির (সিএডি) হিসেব পাওয়া গিয়েছে ৩৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এত বড় ঘাটতি কমার লক্ষণ দেখছি নে; বরং আশঙ্কা হচ্ছে, এই বছরটা শেষ হবে ৮০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সিএডি অথবা প্রায় ৩ শতাংশ জিডিপি হাতে নিয়ে। এই বিরূপ পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠার উপায় গত মাসে ঘোষণা করা হলেও তার মধ‌্যে দৃঢ়তার অভাব স্পষ্ট এবং কাজের কাজ কিছু হওয়ার মতো নয়।
 ফিসকাল ডেফিসিড (এফডি) এবং সিএডি’র উপর চাপ আরোপ করা হলে সুদের হার বাড়বে। বন্ডের উপর লগ্নিকারীর প্রাপ‌্য কমে যাবে। রিজার্ভ ব‌্যাঙ্ক পলিসি রেট বাড়াবার পথে যেতে পারে। যদি আশঙ্কামতো ঋণের উপর সুদের হার বাড়ে তবে মন্দা বাজারের অংশ হিসেবে বিনিয়োগকারী এবং সাধারণ উপভোক্তা উভয়েই হতাশ হবেন।
উপরের প্রতিটি ক্ষেত্রে তো বটেই, অন‌্যকিছু ক্ষেত্রেও প্রয়োজন দক্ষ অর্থনৈতিক উপদেষ্টা এবং দক্ষ ইকনমিক ম‌্যানেজারদের। ড. রঘুরাম রাজন, ড. অরবিন্দ পানাগড়িয়া এবং ড. অরবিন্দ সুব্রামনিয়ান সরে যাওয়ার পর আর একজনও আন্তর্জাতিক খ‌্যাতিসম্পন্ন অর্থনীতিবিদ নেই যাঁরা সরকারকে এই বিষয়ে পরমার্শ দিতে পারেন। আর ইকনমিক ম‌্যানেজারদের ব‌্যাপারে যত কম বলা যায় ভালো। তাঁরা দোষত্রুটি ঢাকতে আর ব্লগ লেখাতেই ব‌্যস্ত।    
এই প্রসঙ্গে ডব্লু বি ইয়েটসের কবিতার একটা লাইন আমরা মনে পড়ছে: ‘দ‌্য সেন্টার ক‌্যাননট হোল্ড’।
29th  October, 2018
পাঁচ রাজ্যের ফল কি সত্যিই মোদিজির চিন্তা বাড়িয়ে দিল? 

শুভা দত্ত: খেলা জমিয়ে দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। ‘পাপ্পু’ বলে তাঁকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের একটা জবরদস্ত জবাব দিয়ে দিয়েছেন। আগামী বছর লোকসভা ভোটের ফল যা-ই হোক, আপাতত নরেন্দ্র মোদি এবং তাঁর দলের মন্ত্রী-সান্ত্রী সেনাপতিরা যে খানিকটা চাপে তাতে সন্দেহ নেই।   বিশদ

কংগ্রেসের জয়ে বড় ভূমিকা কৃষক আন্দোলনের 
শুভময় মৈত্র

হিন্দি বলয়ের তিন রাজ্যেই বিজেপিকে হারিয়ে ক্ষমতা দখল করল কংগ্রেস। তবে তাদের দলটা তো বিজেপির মত নিয়মানুবর্তী এবং সংগঠনভিত্তিক নয়। কংগ্রেসকে ভোটে জেতায় তাদের কর্মী এবং জনগণ আর নেতা নির্বাচনের জন্যে সবাই তাকিয়ে থাকে গান্ধী পরিবারের দিকে।  বিশদ

15th  December, 2018
মোদির ভাবমূর্তির পতনই বিজেপির মূল ক্ষতি
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের ফলাফল বিজেপি’র বিপক্ষে ৫-০ হওয়া ততটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, যতটা গুরুত্বপূর্ণ জনমানসে মোদির ভাবমূর্তির পতন ঘটা। কোনও একটি বা একাধিক রাজ্যের সরকার পরিবর্তন যতটা না শাসক দলের কাছে গুরুত্বপূর্ণ, তার থেকে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ শাসক দলের নেতৃত্ব সম্পর্কে সাধারণ মানুষের নেতিবাচক ভাবনার উৎপত্তি।
বিশদ

14th  December, 2018
পাক সন্ত্রাসবাদের পাল্টা
জবাবে ভারতের জলযুদ্ধ!
মৃণালকান্তি দাস

সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর পাকিস্তানকে বিঁধতে রাষ্ট্রসঙ্ঘে নতুন শব্দবন্ধ ব্যবহার করা শুরু করেছে ভারত। কখনও বলছে ‘টেররিস্তান’, কখনও ‘বিশেষ সন্ত্রাসবাদী অঞ্চল’! তাক লাগিয়ে দেওয়ার মতো তথ্য প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক! সেই তথ্যই জানাচ্ছে, জম্মু ও কাশ্মীরে শেষ আট বছরে সব থেকে বেশি সন্ত্রাসবাদীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে এই বছরেই।
বিশদ

13th  December, 2018
Loading...
রথধ্বনি
নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ী

‘এই-সকল টানিয়া বুনিয়া বর্ণনা আমাদের কর্ণে অসম-ভূমি-পথে বাধা-প্রাপ্ত রথচক্রের ঘর্ঘর শব্দের ন্যায় কর্কশ লাগে।’ —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

আমাদের দেশের রাজনীতি এখন শতরঙ্গে ভরা। দেশের কেন্দ্রে অধিকাংশের ভোটে একটি কুনির্বাচিত গণতান্ত্রিক শাসন হঠাৎই রাজতন্ত্রে পরিণত হয়েছে। দেশের গণতান্ত্রিক প্রধান এবং দলমুখ্যকে মাঝে-মাঝেই মাথায় পাগড়ি এবং হাতে তরবারি নিয়ে ছবি তুলতে দেখছি।
বিশদ

11th  December, 2018
ভোটের পর সংসদীয় মূল‌্যবোধ কি অক্ষত থাকবে?  

পি চিদম্বরম: আপনি এই লেখাটি পড়ছেন পাঁচ রাজ‌্যে নির্বাচন শেষ হওয়ার (৭ ডিসেম্বর) তিনদিন বাদে এবং গণনার (১১ ডিসেম্বর) ঠিক আগের দিন। সুতরাং অত সতর্ক না-থাকলেও আমার চলে।   বিশদ

10th  December, 2018
Loading...
হাঁক পাড়লেই হবে? মমতার সামনে দাঁড়িয়ে লড়তে পারে এমন মুখ কোথায়?
শুভা দত্ত

এবারের লোকসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বিজেপি কটা আসন পাবে? পেতে পারে? এই মুহূর্তে বোধহয় স্বয়ং ভগবানও বলতে পারবেন না। জ্যোতিষীরা হয়তো তিথি নক্ষত্র ইত্যাদি গুনেগেঁথে কিছু একটা বলে দিতে পারেন, তবে সেটাই শেষপর্যন্ত মিলে যাবে এমন স্থির সিদ্ধান্ত একমাত্র আহাম্মক ছাড়া কেউ করবেন না। কারণ, ভোট এখনও অনেকটা দূরে।
বিশদ

09th  December, 2018
ঠিক কতটা গুরুত্বপূর্ণ রাজস্থান ভোটের ফল?

আমরা সবাই এখন ভোটফলের অপেক্ষায়। এর মধ্যে ৭ ডিসেম্বর শুক্রবার হল রাজস্থান বিধানসভার ভোট। গত বিধানসভায় ২০১৩ সালে এই তারিখ ছিল ১ ডিসেম্বর, রবিবার। সেদিন পরিবার নিয়ে জয়পুরে থাকার সুযোগ হয়েছিল। কাজের সূত্রে যে বন্ধুরা জয়পুরে থাকেন, তাঁদের সঙ্গে বারবার যোগাযোগ হচ্ছিল যাওয়ার আগে।
বিশদ

08th  December, 2018
ওয়াটার মার্কেট
সমৃদ্ধ দত্ত

বিহারের গয়া জেলার কাপাসিয়া ব্লকের গুলাড়িয়া চক গ্রামের গনৌরি কুমার আর মুসাফির মাঝি পার্লামেন্ট স্ট্রিটে দাঁড়িয়ে এক পুলিস কর্মীকে বললেন, তোমাদের এখানে যমুনা নদীটা দেখতে যাব কীভাবে? কেন? না, মানে, কেমন জল আছে একবার দেখতাম! আবার কবে আসা হবে তা তো জানি না। এরপর যখন আসব যদি শুকিয়ে যায়! পুলিস কর্মী হাসলেন।
বিশদ

07th  December, 2018
লম্বা লম্বা মূর্তি বানিয়ে কি ভাবমূর্তি ফেরানো যায়
মেরুনীল দাশগুপ্ত

 মহাপুরুষদের আজ সত্যিই মহাবিপদ! এই নরলোকে যখন তাঁরা রক্তমাংসে জীবন্ত ছিলেন মনে হয় না তখন এই মহাবিপদের আঁচটি তাঁরা পেয়েছিলেন। বিশদ

06th  December, 2018
পরিচ্ছন্নতাকে নির্বাচনী ইস্যু করার সাহস জরুরি
হারাধন চৌধুরী

গত দশকের কথা। কলকাতা থেকে দূরে দক্ষিণবঙ্গের এক জেলায় গিয়েছিলাম পঞ্চায়েত ভোটের খবর সংগ্রহের জন্য। জেলা সদরকে কেন্দ্র করে কয়েকটি ব্লকে যাতায়াতের জন্য মূলত গণপরিবহণের উপরেই ভরসা রেখেছিলাম। বলা বাহুল্য, তখন গরম কাল। একটু বাড়তি হাওয়া বাতাসের লোভে জানালার ধারের একটা সিট দখল করার জন্য কসরতও করেছি।
বিশদ

04th  December, 2018
ঢাকের সুপরিচিত শব্দ
পি চিদম্বরম

নরেন্দ্র মোদি ২০১৩-১৪ সাল থেকে দীর্ঘ পথ পেরিয়ে এসেছেন। প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী মোদি নিজেকে পরিচিত করেছিলেন বিকাশপুরুষ হিসেবে। মানে তিনি উন্নয়নের মুখ হয়ে উঠেছিলেন। ২০১৪-র মে মাসে যে ৩১ শতাংশ মানুষ বিজেপিকে ভোট দিয়েছিল তাদের একটা বড় অংশ ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’ (সবার সঙ্গে, সবার উন্নয়ন) স্লোগানে আন্দোলিত হয়েছিলেন।
বিশদ

03rd  December, 2018
Loading...
একনজরে
কলম্বো, ১৫ ডিসেম্বর (পিটিআই): ক্ষমতা দখলের দড়ি টানাটানিতে ইতি টানলেন মাহিন্দা রাজাপাকসে। শনিবার শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি। কাল, রবিবার এই দ্বীপরাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী ...

বিএনএ, রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জের পিপলানে যুবক খুনের ঘটনার তদন্তে অভিযুক্ত ধৃতকে দিয়ে শনিবার খুনের পুনর্নির্মাণ করাল পুলিস। প্রেমিকার অশ্লীল ছবি তুলে ব্ল্যাকমেল করায় এক যুবককে ...

দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ১৫ ডিসেম্বর: আরও চারটি নতুন রুটে আসতে চলেছে সেমি হাইস্পিড ট্রেন-১৮। সম্প্রতি এই ইস্যুতে রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল রেলবোর্ডের আধিকারিকদের সঙ্গে একটি বৈঠক ...

বিএনএ, বর্ধমান: মাটি উৎসবের কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গেল। ১৮ডিসেম্বর বর্ধমানে মাটিতীর্থ কৃষিকথা প্রাঙ্গণ সংলগ্ন কিষাণ মান্ডির কনফারেন্স হলে মাটি উৎসব নিয়ে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে।  ...


Loading...

আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কর্মপ্রাপ্তি বিলম্ব হবে। ব্যবসাসংক্রান্ত কাজে যুক্ত হলে ফল শুভ হবে। উপার্জন একই থাকবে। গৃহস্থান ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৭০: জার্মান সুরকার লুদভিগ ভ্যান বেটোভেনের জন্ম
১৯১৭: কল্পবিজ্ঞান লেখক আর্থার সি ক্লার্কের জন্ম
১৯২১: হুগলি নদীর নীচ দিয়ে টানেল তৈরির কাজ শুরু করল সিইএসসি
১৯৭১: বাংলাদেশে ভারতীয় বাহিনীর কাছে পাক সেনার আত্মসমর্পণ। জন্ম স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রের
২০১২: দিল্লির গণধর্ষণের ঘটনায় উত্তাল দেশ 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭১.১৪ টাকা ৭২.৮৫ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৯৩ টাকা ৯২.৩৪ টাকা
ইউরো ৭৯.৮৫ টাকা ৮২.৮৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২, ২০৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০, ৩৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩০, ৮৪০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭, ৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭, ৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার, নবমী অহোরাত্র। নক্ষত্র- উত্তরভাদ্রপদ ৫২/১৬ রাত্রি ঘ ৩/৮, সূ উ ৬/১৩/১৮, অ ৪/৫০/৪৪, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৬/৫৫ গতে ৯/৩ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ২/৪৪ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩১ গতে ৯/১৮ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৯ গতে ১/৪৬ মধ্যে পুনঃ ২/৪০ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ঘ ১০/১২ গতে ১২/৫১ মধ্যে, কালরাত্রি ঘ ১/১১ গতে ২/৫১ মধ্যে। 
২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার, নবমী রাত্রি ৩/১৭/২। উত্তরভাদ্রপদনক্ষত্র রাত্রি ১১/৫৮/১৫। সূ উ ৬/১৩/৫৯, অ ৪/৪৯/২৯, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৬/৫৬/২১ থেকে ঘ ৯/৩/২৭ মধ্যে ও ঘ ১১/৫২/৫৫ থেকে ঘ ২/৪২/২৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩০/২৩ থেকে ঘ ৯/১৭/৩৯ মধ্যে ও ১১/৫৮/২৫ থেকে ১/৪৫/৪৯ মধ্যে ও ২/৩৯/২৭ থেকে ৬/১৪/৪২ মধ্যে। বারবেলা ৮/৫২/৫১ থেকে ১০/১২/১৮ মধ্যে, কালবেলা ১০/১২/১৮ থেকে ঘ ১১/৩১/৪৪ মধ্যে ৪/৪৯/১৩ মধ্যে, কালরাত্রি ১/১২/১৮ থেকে ঘ ২/৫২/৫২ মধ্যে। 
 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা বাড়াতে দিল্লিতে ভারত-ফ্রান্স বৈঠক  
দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজবুত করতে ফ্রান্সের ইউরোপ ও বিদেশ বিষয়ক মন্ত্রী ...বিশদ

08:45:00 AM

অন্ধ্র ও তামিলনাডু উপকূলে ভারী বৃষ্টি, ঘূর্ণিঝড়ের ভ্রুকুটি
 

অন্ধ্র উপকূল ও তামিলনাডুর উত্তরাংশে আগামী দু’দিন ভারী বৃষ্টি হতে ...বিশদ

08:43:34 AM

বারাসতে সাবওয়ে তৈরিতে আজ বাতিল বহু লোকাল ট্রেন

বারাসত স্টেশনের কাছে যাত্রীদের জন্য লাইনের নীচে দিয়ে একটি সাবওয়ে ...বিশদ

08:40:00 AM

আজ ১১৭ নম্বর ওয়ার্ডে উপনির্বাচন 
আজ, রবিবার কলকাতা পুরসভার ১১৭ নম্বর ওয়ার্ডে উপনির্বাচন হবে। এই ...বিশদ

08:30:00 AM

ভূপেন হাজারিকাকে সম্মান, মূর্তি বসল অরুণাচল প্রদেশে
 

অসমিয়া সঙ্গীত জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র ভূপেন হাজারিকার মূর্তি উন্মোচিত হল। ...বিশদ

08:30:00 AM

মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হচ্ছে রাজ্য ল ক্লার্ক সংগঠন
 

বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে এবার মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হচ্ছে রাজ্য ল ক্লার্কদের ...বিশদ

08:25:00 AM

Loading...
Loading...