বিশেষ নিবন্ধ
 

ধ্বংসযজ্ঞ চলছে, কেন্দ্রেরও ভিত নড়ে উঠছে
পি চিদম্বরম

প্রাচীন প্রবাদ একরকম—‘‘দুর্ভাগ‌্য একা আসে না।’’ এখন মনে হয় যে দেবতারাও ভারতের অর্থনীতির উপর সদয় নন।
আমাদের অর্থনীতির উপর আঘাত হয়ে নামছে যেসব দুঃসংবাদ, সেগুলোর উপর নজর করা যাক:
 শেয়ারের দাম এত পড়ে গিয়েছে যে কেনাবেচার সূচক ১৫ মাস পূর্বে ফিরে গিয়েছে।
 শেয়ার ও বন্ডের মতো আর্থিক ক্ষেত্রে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা (ফরেন পোর্টফোলিয়ো ইনভেস্টরস) গত ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ৩৫,৪৬০ কোটি টাকার লগ্নি ফেরত নিয়ে গিয়েছেন। এবছর বিদেশি বিনিয়োগ ফেরত চলে গিয়েছে মোটামুটি ৯৬ হাজার কোটি টাকা মূল‌্যের। টাকার দামের পতনটা অবাধ। মার্কিন ডলারের সাপেক্ষে  উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ‌্যে টাকার দামের ভয়ংকর পতন (ওয়ার্স্ট পারফরমিং কারেন্সি) যেসব দেশের হয়েছে ভারত তাদেরই একটি। ২০১৮-তে ভারতীয় মুদ্রামানের ১৬ শতাংশ অবনমন ঘটে গিয়েছে, আরও পতনের আশঙ্কা অব‌্যাহত।
 প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত খনিজ তেলের (ব্রেন্ট) দাম বেড়ে ৭৭ মার্কিন ডলারে পৌঁছে গিয়েছে। বিশ্বজুড়ে অনিশ্চয়তা, বিশেষত মধ‌্যপ্রাচ‌্যের অস্থিরতা তেলের এমন দামবৃদ্ধির কারণ হয়ে থাকতে পারে। ভারতে পেট্রল ডিজেলের দাম প্রায় রোজ বাড়তে বাড়তে সাধারণ মানুষের কাছে এক অসহ‌নীয় বোঝায় পরিণত হয়েছে।
টাকার দাম পড়ছে, বাড়ছে জিনিসের দাম
 টাকার দামের অবনমন আর পেট্রপণ‌্যের দামবৃদ্ধি সাধারণ মানুষের পকেট ফুটো করে দিচ্ছে। তার ফলে কী হচ্ছে, অন‌্যসকল পণ‌্য ও পরিষেবার কেনাকাটায় প্রচণ্ড ধাক্কা পড়েছে।
 এবছর বৃষ্টিপাতের পরিমাণ গড়পড়তারও নীচে। প্রায় ৩৬ শতাংশ জেলা থেকে বৃষ্টিপাতে বড়সড় ঘাটতির দুঃসংবাদ পাওয়া গিয়েছে।
 চাষিরা বিদ্রোহী হয়ে উঠেছেন। বেশিরভাগ কৃষিজ পণ‌্যের দাম ঘোষিত ন‌্যূনতম সহায়ক মূল‌্যের (এমএসপি) কম। গুটিকয়েক রাজ‌্যের সামান‌্যকিছু শস‌্যসংগ্রহ কেন্দ্র আছে। এই কারণে খুব বেশি সংখ‌্যক চাষি এমএসপি’র সুবিধা পাচ্ছেন না।
 গত চার বছর যবৎ পণ‌্য রপ্তানির হালও হতাশাজনক। ২০১৩-১৪ অর্থবর্ষে ৩১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল‌্যের রপ্তানি নথিবদ্ধ হয়েছিল। এই সময়ে সেই স্তরটাও পেরতে পারেনি এনডিএ সরকার। চলতি বছরের প্রথম ছ’মাসে এই সংখ‌্যাটা তো মাত্রই ১৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

লগ্নি সামান‌্য, ঋণও মহার্ঘ
 সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকনমি’র (সিএমআইই) তথ‌্য অনুসারে জানানো যায়, ২০১৮-র দ্বিতীয় কোয়ার্টারে (জুলাই-সেপ্টম্বর) ১,৫০,০০০ কোটি টাকা মূল‌্যের নতুন বিনিয়োগ প্রস্তাবের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল, যেটা দীর্ঘদিনের গড়ের অনেক নীচে। সিএমআইই’র তথ‌্য আরও বলছে, ৫,৩৯৪টি প্রকল্প থমকে গিয়েছে।
 শিল্পে ঋণদানের বৃদ্ধির হার অনেক কসরত করে গত আগস্টে ১.৯৩ শতাংশে পৌঁছেছে। চলতি অর্থবর্ষের বেশিরভাগ মাসে ইয়ার ওভার ইয়ার (ওয়াই-ও-ওয়াই) গ্রোথ দাঁড়িয়েছে মোটে ১ শতাংশ।
 ব‌্যাঙ্কগুলোর নিকম্মা সম্পদের (নন-পারফর্মিং অ‌্যাসেটস) পরিমাণ ১০ লক্ষ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে! এই দুর্ভাগ‌্যের সঙ্গে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে যুক্ত হয়েছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নন ব‌্যাঙ্কিং ফিনান্সিয়াল কোম্পানির (এনবিএফসি) মুখ থুবড়ে পড়ার ঘটনা, সমগ্র অর্থনীতিতেই এর কালো ছায়া দেখা যাচ্ছে। দেউলিয়ার ঘটনাগুলো শম্বুক গতিতে এগচ্ছে এবং নির্দিষ্ট করে দেওয়া ১৮০ দিনের মেয়াদে একটাও বড় মামলার নিষ্পত্তি হয়নি।
 চাকরি বাকরির অবস্থা খারাপ এবং আরও খারাপ হওয়ারই আশঙ্কা হচ্ছে। সিএমআইই জানিয়েছে, গত আগস্টে বেকারির হার ছিল ৬.৩ শতাংশ, সেটা পরের মাসেই বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬.৬ শতাংশ। ১৬-৬৪ বর্ষীয় নাগরিকদের মধ‌্যে যাঁরা কর্মরত অথবা কর্মপ্রার্থী অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অবস্থান করেন, তাঁদের নিয়ে লেবার ফোর্স পার্টিসিপেশন রেট ঠিক করা হয়। একটা অর্থনীতিতে নাগরিকদের মোট বয়সের কতটা কাজের জন‌্য নিয়োজিত হচ্ছে (ওয়ার্কিং-এজ পপুলেশন) সেটা লেবার ফোর্স পার্টিসিপেশন রেট দিয়ে নির্ধারণ করা হয়। যাই হোক,লেবার পার্টিসিপেশন রেট ২০১৬-তে ছিল ৪৬+’এর বেশি। বেকারত্বের হারটা তখনই বাড়তে থাকল যখন লেবার পার্টিসিপেশন রেটটা ৪৩.২ শতাংশে নেমে এল।
ম‌্যাক্রো-ইকনমিক ইনস্টেবিলিটি
 আজকের ফিসকাল পরিস্থিতিটা উদ্বেগজনক। বাজেটের পরিপ্রেক্ষিতে নেট কর রাজস্ব আদায় বৃদ্ধির হার ১৯.১৫ শতাংশ হওয়া সত্ত্বেও চলতি বছরের এপ্রিল-সেপ্টেম্বরের মধ‌্যে গত বছরের একই সময়ের সাপেক্ষে বৃদ্ধির হার মাত্র ৭.৪৫ শতাংশ। বাজেটে ঘোষিত অঙ্কে পৌঁছনোর জন‌্য অর্থবর্ষের বাকি মাসগুলোর ভিতরে নেট ট‌্যাক্স রেভিনিউতে ২৮.২১ শতাংশের মতো বড়সড় বৃদ্ধি ঘটিয়ে ফেলার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে, যা অসম্ভবপ্রায়।
 বিলগ্নিকরণ কর্মসূচি থমকে গিয়েছে। বাজেটে ঘোষিত ৮০ হাজার কোটি টাকার লক্ষ‌্যমাত্রায় পৌঁছনোর জায়গায় ৯,৬৮৬ কোটি টাকায় গড়াগড়ি খাচ্ছে। বাজেটের এই গুরুত্বপূর্ণ খাতে কত বড় ঘাটতি রয়ে যাবে এখনও পরিষ্কার নয়।
 বাজেটে ধরে নেওয়া হয়েছিল যে এবছর রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলোর ডিভিডেন্ড থেকে ১,০৭,৩১২ কোটি টাকা সরকারের আয় হবে। পেট্রল ও ডিজেলের উপর লিটার প্রতি ১ টাকা হিসেবে তেল কোম্পানিগুলোর ঘাড়ে অক্টোবর-ডিসেম্বর কোয়ার্টারের জন‌্য মোট ৩৫০০ কোটি টাকার এক বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। ফলত, তাদের ডিভিডেন্ড বণ্টনটা কমে যাবে। এলআইসি যদি আইএল অ‌্যান্ড এফএস থেকে বেরিয়ে আসে তবে তাদের উপরেও একই বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হতে পারে।
 মূলত কম টাকা বরাদ্দ হয়েছে এরকম প্রকল্পগুলোকে সরকার ‘পুশ’ করছে। যেমন বিমা-ভিত্তিক মেডিকেল কেয়ার স্কিম, আয়ুষ্মান যোজনা প্রভৃতি। ১০ কোটি পরিবার বা ৫০ কোটি মানুষকে ‘কভার’ করার লক্ষ‌্যমাত্রা ঘোষিত হয়েছে, যতদূর জানা যাচ্ছে, টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে মাত্রই ২০০০ কোটি! কম অর্থ বরাদ্দের (আন্ডার-ফান্ডেড) অন‌্য প্রকল্পগুলোর মধ‌্যে আছে ১০০ দিনের কাজ (এমজিএনআরইজিএ), প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, পানীয় জল মিশন, স্বচ্ছ ভারত, জাতীয় স্বাস্থ‌্য মিশন এবং গ্রাম জ‌্যোতি যোজনা।
 গত সেপ্টেম্বরের শেষে কারেন্ট অ‌্যাকাউন্ট ঘাটতির (সিএডি) হিসেব পাওয়া গিয়েছে ৩৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এত বড় ঘাটতি কমার লক্ষণ দেখছি নে; বরং আশঙ্কা হচ্ছে, এই বছরটা শেষ হবে ৮০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সিএডি অথবা প্রায় ৩ শতাংশ জিডিপি হাতে নিয়ে। এই বিরূপ পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠার উপায় গত মাসে ঘোষণা করা হলেও তার মধ‌্যে দৃঢ়তার অভাব স্পষ্ট এবং কাজের কাজ কিছু হওয়ার মতো নয়।
 ফিসকাল ডেফিসিড (এফডি) এবং সিএডি’র উপর চাপ আরোপ করা হলে সুদের হার বাড়বে। বন্ডের উপর লগ্নিকারীর প্রাপ‌্য কমে যাবে। রিজার্ভ ব‌্যাঙ্ক পলিসি রেট বাড়াবার পথে যেতে পারে। যদি আশঙ্কামতো ঋণের উপর সুদের হার বাড়ে তবে মন্দা বাজারের অংশ হিসেবে বিনিয়োগকারী এবং সাধারণ উপভোক্তা উভয়েই হতাশ হবেন।
উপরের প্রতিটি ক্ষেত্রে তো বটেই, অন‌্যকিছু ক্ষেত্রেও প্রয়োজন দক্ষ অর্থনৈতিক উপদেষ্টা এবং দক্ষ ইকনমিক ম‌্যানেজারদের। ড. রঘুরাম রাজন, ড. অরবিন্দ পানাগড়িয়া এবং ড. অরবিন্দ সুব্রামনিয়ান সরে যাওয়ার পর আর একজনও আন্তর্জাতিক খ‌্যাতিসম্পন্ন অর্থনীতিবিদ নেই যাঁরা সরকারকে এই বিষয়ে পরমার্শ দিতে পারেন। আর ইকনমিক ম‌্যানেজারদের ব‌্যাপারে যত কম বলা যায় ভালো। তাঁরা দোষত্রুটি ঢাকতে আর ব্লগ লেখাতেই ব‌্যস্ত।    
এই প্রসঙ্গে ডব্লু বি ইয়েটসের কবিতার একটা লাইন আমরা মনে পড়ছে: ‘দ‌্য সেন্টার ক‌্যাননট হোল্ড’।
29th  October, 2018
বধ্যভূমি কাশ্মীর: আমরা কি
কেবল মার খেতেই থাকব!

শুভা দত্ত

 গত বৃহস্পতিবার আবার জঙ্গি তাণ্ডবে কেঁপে উঠল ভূস্বর্গ, দেশপ্রেমিক জওয়ানদের রক্তে ভিজে গেল কাশ্মীর উপত্যকার মাটি। পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় জয়েশ জঙ্গিদের আত্মঘাতী হামলায় সিআরপিএফের ৪৪ জন জওয়ান শহিদ হলেন।
বিশদ

শিশুদের বাজেট
শুভময় মৈত্র

 একশো ত্রিশ কোটির দেশে আশি কোটি প্রাপ্তবয়স্ক ভোটার, বাকি পঞ্চাশ কোটি বয়সে ছোট। যার ভোট নেই তার জন্যে লোকসভা নির্বাচনের মাস তিনেক আগে ভাবার সময় থাকে না শাসকদলের। সেই জন্যেই বাজেট বক্তৃতায় শিশুদের কথা খুঁজতে গেলে দূরবিন প্রয়োজন। তবে চশমা ছাড়াই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে এবারের বাজেটের বিশালাকার অক্ষরের ভীষণ চমক ‘ভিশন ২০৩০’। আজ থেকে এগারো বছর পর দেশ ঠিক কোথায় পৌঁছবে তার চালচিত্র। কোথাও কিন্তু আজকের শিশুদের কথা নেই।
বিশদ

16th  February, 2019
মার্কিন মুলুকে (-) ৬০,
সন্ধিক্ষণ কিন্তু পরিবর্তনেরই
শান্তনু দত্তগুপ্ত

পোলার ভর্টেক্সের প্রভাব কি ভারতেও পড়েছে? এবার উত্তর ভারতের দীর্ঘস্থায়ী ঠান্ডার জন্য আবহাওয়াবিদরা কিছুটা হলেও পোলার ভর্টেক্সকে দায়ী করছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পোলার ভর্টেক্স দুর্বল হয়ে ঠান্ডাটাকে আমেরিকা ও ইউরোপের উত্তরভাগে প্রবেশ করিয়ে দিয়েছে। আর তার ধাক্কায় দক্ষিণের দিকে চলে এসেছে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। এমনিতে বছরে চার থেকে ছ’টি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ভারতীয় উপমহাদেশে এসে ধাক্কা খায়। চলতি বছর সেই সংখ্যাটা সাত। যার জন্য শীতের প্রকোপ বেড়েছে ভারতে। মূলত হিমালয় এবং তার সংলগ্ন রাজ্যগুলিতে।
বিশদ

16th  February, 2019
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন এগিয়ে?
সমৃদ্ধ দত্ত

গত পাঁচ বছরে সিপিএম একবারও কি রেলমন্ত্রীর ইস্তফা দাবি করে রাস্তায় নেমেছে? পশ্চিমবঙ্গ কেন বঞ্চিত হচ্ছে, এই প্রশ্ন তুলে কখনও সিপিএমকে প্রেস কনফারেন্স করতে দেখেছে কেউ? কেন কিছু করেনি সিপিএম? কারণ এখন আর রেলমন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নয়। বিশদ

15th  February, 2019
রাফাল না সিবিআই, মোদি-বিরোধিতায় সবচেয়ে শক্তিশালী ইস্যু কোনটি?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 রাফাল ইস্যুকে সামনে রেখে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে নরেন্দ্র মোদির ভাবমূর্তির ওপর প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। ধারাবাহিকভাবে রাফাল ইস্যু প্রচারের কেন্দ্রে রাখতে পেরেছিলেন রাহুল। হিন্দি বলয়ে তিন রাজ্য—মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়-এ বিজেপি’র পরাজয়ের পিছনে অন্য সমস্ত কারণের মধ্যে রাহুল গান্ধীর তোলা রাফাল যুদ্ধ বিমান দুর্নীতির প্রচার বিজেপি’র বিরুদ্ধে গিয়েছিল বলে অনেকে মনে করেন।
বিশদ

14th  February, 2019
স্মার্ট সিটি এবং সুশাসন
রঞ্জন সেন

স্মার্ট হওয়া ভালো, কিন্তু আরও ভালো হল সুশাসিত হওয়া। আর এটা হয় না বলেই রাতারাতি স্মার্ট বলে দেগে দেশের স্মার্ট সিটিগুলিতে হঠাৎ প্রয়োজনে জরুরি পরিষেবা পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। অন্যদিকে তার প্রশস্ত রাজপথে চরে বেড়ায় গোরু। তার পরিণতিতে মানুষের প্রাণও যায়।
বিশদ

12th  February, 2019
ভোটের কৈফিয়ত
পি চিদম্বরম

একটা আত্মবিশ্বাসী সরকার স্বাভাবিক অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করত আর এটাই করা উচিত, কিন্তু আত্মবিশ্বাসের মতো জিনিসটার ঘাটতি রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের মধ্যে। শুধু বিজেপি এমপিদের বিষণ্ণ মুখগুলোর দিকে তাকান বিশেষত যাঁরা রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও উত্তরপ্রদেশ থেকে এসেছেন এবং আপনি আমার সঙ্গে একমত হবেন।
বিশদ

11th  February, 2019
ফাঁকা অভিযোগ করে বা সিবিআই জুজু দেখিয়ে কি মমতার গতিরোধ করা যাবে?
শুভা দত্ত

২০১৯ যুদ্ধের দামামা বেশ ভালোমতোই বেজে উঠেছে। বোঝাই যাচ্ছে লোকসভা ভোট আর দূরে নেই। মাঝে বড়জোর মাস দুই-আড়াই। তারপরই এসে পড়বে সেই বহু প্রতীক্ষিত মহাসংগ্রামের দিন। দেশের শাসনক্ষমতার মসনদ দখলের যুদ্ধে মুখোমুখি হবে শাসক এবং বিরোধী শিবিরের রথী-মহারথীবৃন্দ।
বিশদ

10th  February, 2019
হৃদয় গিয়েছে চুরি
অতনু বিশ্বাস

আচ্ছা, হৃদয়টাকে (হৃদপিণ্ড মানে হৃদয় ধরে নিয়ে) সত্যি সত্যিই কি কোথাও ফেলে আসা যায় না? যদি সত্যিই না যায়, কুমিরটা সেটা বিশ্বাস করল কী করে? উপকথার কুমিররা হয়তো বোকা হয়, তবে তার তথাকথিত বোকামিকে অনেক ক্ষেত্রেই আমার নেহাতই সরলতা বলে মনে হয়েছে।
বিশদ

09th  February, 2019
ন্যানো, একটি স্বপ্নের অকাল মৃত্যু
মৃণালকান্তি দাস

ভক্সওয়াগেন বিটল। যে বছর ভারতে ন্যানোর আবির্ভাব, তার ঠিক ৭০ বছর আগে বাজারে এসেছিল এই ‘পিপলস কার’। গোটা জার্মানি জুড়ে শুধু রোড নেটওয়ার্ক বাড়ানোই নয়, দেশের মানুষকে সস্তায় গাড়ি চড়ানোর স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন অ্যাডলফ হিটলার। কে না জানে, ভক্সওয়াগেন মানেই তো ‘জনতার গাড়ি’।
বিশদ

08th  February, 2019
সিবিআই নাটকে শেষপর্যন্ত
মমতাই কি লাভবান হলেন না?
মেরুনীল দাশগুপ্ত

 নাটক? হ্যাঁ, নাটক। নাটক ছাড়া কী! বলা নেই, কওয়া নেই হঠাৎ করে রবিবারের শেষ বিকেলে কোত্থেকে চল্লিশ সিবিআই চলে এলেন, সন্ধের মুখে তাঁদের কজন জিজ্ঞাসাবাদের অছিলায় হানা দিলেন লাউডন স্ট্রিটে খোদ পুলিস কমিশনারের দরজায়, ঢোকার মুখেই কর্তব্যরত পুলিসের সঙ্গে বাধল সংঘাত, ছড়াল উত্তেজনা, কয়েক মুহূর্তের মধ্যে কলকাতা পুলিসের বড়কর্তারা হাজির, তর্ক-বিতর্ক ধস্তাধস্তি এবং শেষমেশ পুলিসের গাড়িবন্দি হয়ে দলের নেতা ডিএসপি সিবিআই ও আরও কয়েকজন শেক্সপিয়র সরণি থানায়!
বিশদ

07th  February, 2019
উন্নয়নের সঙ্গে যথেষ্ট আর্থিকশৃঙ্খলা অর্জিত হয়েছে
দেবনারায়ণ সরকার

সোমবার অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র ২০১৯-২০ অর্থবর্ষের রাজ্য বাজেট পেশ করলেন। এই বাজেটে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লক্ষ ৩৭ হাজার ৯৬৪ কোটি টাকা। গত বছরের অনুমিত বাজেটের তুলনায় এটা ২১ শতাংশেরও বেশি। রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৬৪ হাজার ৩২৭ কোটি টাকা। 
বিশদ

05th  February, 2019
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হানায় শহিদ ৪৯ জন আধাসেনা জওয়ানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর তাগিদ অবশ্যই ছিল। কিন্তু সেই সঙ্গে চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে ...

সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: শুক্রবার জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানে গণ্ডার শুমারীর প্রথম দিনে বাইসনের গুঁতোয় ভয় পেয়ে ঘাবড়ে গিয়ে বিট অফিসার ও মাহুতকে ফেলে দিয়ে পিঠে দড়িতে বাঁধা রাইফেল নিয়ে জঙ্গলের ভিতরে হারিয়ে যাওয়া কুনকি হাতি শ্রীমন্তের শনিবার হদিশ মিলল।  ...

 ইসলামাবাদ, ১৬ ফেব্রুয়ারি: ইমরান খান জমানায় নয়া পাকিস্তান। রাষ্ট্রসঙ্ঘ ঘোষিত জঙ্গি। ভারতের অন্যতম মোস্ট ওয়ান্টেড। ২৬/১১ মুম্বই হামলার মাস্টারমাইন্ড। এহেন হাফিজ সইদ এবার সাংবাদিকতার পাঠ দেবে। লাহোরে এই নতুন স্কুল ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জেল থেকে আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় জেএমবি জঙ্গি কওসরকে ‘ছিনতাই’ করার পরিকল্পনা ভেস্তে দিল কলকাতা পুলিসের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ)। তার আগেই ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বেশি বন্ধু-বান্ধব রাখা ঠিক হবে না। প্রেম-ভালোবাসায় সাফল্য আসবে। বিবাহ যোগ আছে। কর্ম পরিবেশ পরিবর্তন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৯৯: কবি জীবনানন্দ দাশের জন্ম
১৯৬৩: আমেরিকান বাস্কেটবল খেলোয়াড় ও অভিনেতা মাইকেল জর্ডনের জন্ম
১৯৮৭ - ভারতীয় কার্টুনিস্ট অসীম ত্রিবেদীর জন্ম।
২০০৯: সঙ্গীত শিল্পী মালবিকা কাননের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৯ টাকা ৭২.১৯ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৭০ টাকা ৯২.৯৪ টাকা
ইউরো ৭৮.৯৫ টাকা ৮২.১২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
16th  February, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৩,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,১১৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,৫৯৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, রবিবার, দ্বাদশী ৪/৫৭ দিবা ৮/১০ পরে ত্রয়োদশী ৫৬/৩৮ রাত্রি ৪/৫১। পুনর্বসুনক্ষত্র ২৬/২৫ অপঃ ৪/৪৬। সূ উ ৬/১১/২৯, অ ৫/৩০/৫০, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৭ গতে ৯/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/১০ গতে ৮/৫২ মধ্যে। বারবেলা ১০/২৬ গতে ১/১৫ মধ্যে, কালরাত্রি ১/২৬ গতে ৩/১ মধ্যে।
৪ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, রবিবার, ত্রয়োদশী রাত্রি ২/৩৩/১৫। পুনর্বসুনক্ষত্র ২/১৩/৫৩, সূ উ ৬/১২/৫৭, অ ৫/২৮/১২, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৭/৫৮ থেকে ৯/৫৮/২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/১০/১০ থেকে ৮/৫২/৮ মধ্যে, বারবেলা ১০/২৬/১১ থেকে ১১/৫০/৩৪ মধ্যে, কালবেলা ১১/৫০/৩৪ থেকে ১/১৪/৫৯ মধ্যে, কালরাত্রি ১/২৬/১০ থেকে ৩/১/৪৬ মধ্যে।
১১ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আই লিগ: ইস্ট বেঙ্গল- চার্চিল ব্রাদার্স ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র 

07:10:04 PM

আই লিগ: ইস্ট বেঙ্গল ১- চার্চিল ব্রাদার্স ১ (৭৮ মিনিট) 

06:52:14 PM

আই লিগ: ইস্ট বেঙ্গল ০- চার্চিল ব্রাদার্স ১ (৬৮ মিনিট) 

06:42:37 PM

আই লিগ: ইস্ট বেঙ্গল ০- চার্চিল ব্রাদার্স ০ (বিরতি) 

06:00:22 PM

বাঁকুড়ার পাত্রসায়রে জেসিবির নীচে চাপা পড়ে ৩ শিশুর মৃত্যু, উত্তেজনা 

05:08:47 PM

লাভপুর অপহরণ কাণ্ডে যুবতীর বাবাকেই গ্রেপ্তার করল পুলিস 

04:20:15 PM