Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

সাধু ও গৃহস্থ

সকলেই যদি সাধু হবে, তো গৃহস্থ হবে কে? সাধু হওয়া সহজ কথা নয়; লক্ষ লক্ষ গৃহস্থের মধ্যে একজন সাধু হয়। গেরুয়া পরলেই সাধু হওয়া যায় না। ঠিক ঠিক বৈরাগ্য চাই, সংযম, ত্যাগ, তপস্যা চাই—তবে সাধু হওয়া যায়। তেমনি, গৃহস্থ হলেই হলো না। বিয়ে করে কতকগুলো ছেলে-পিলে হলে, আর খুব টাকা কামাতে পারলেই গৃহস্থ হল না। যে গৃহস্থ এই-সব ধন-দৌলত, ছেলেপিলে থাকা সত্ত্বেও ভগবানের জন্য ব্যস্ত, ঐ-সবে তার মন নেই; সেই ঠিক ঠিক গৃহস্থ। গৃহস্থ সত্‌, শান্ত, জ্ঞান-পিপাসী হবে, আর সেই ঠিক আদর্শ গৃহী। আদর্শ গৃহী, আর সাচ্চা সাধু-এক।
ভগবানের জন্য ষোল-আনা ত্যাগ করার নাম হচ্ছে সন্ন্যাস। গীতাতে এ-সব কথা আছে। গেরুয়া পরলেই সন্ন্যাসী হয় না; অনেক ত্যাগ তপস্যার দরকার। তোমরা হয়তো বলবে—এত যে সন্ন্যাসী দেখছি, তারা কি সকলেই ভগবানের জন্য ষোল-আনা ত্যাগ করেছে? না—তা করতে পারেনি; তবে এরা চেষ্টা করছে তাঁর জন্য সর্বত্যাগী হতে, তাঁকে মনেপ্রাণে ভালবাসতে। তাঁর দায় হলে এক মুহূর্তে ঠিক ঠিক সন্ন্যাসী হয়ে যেতে পারে। আর দেখ, একটা ভাল উদ্দেশ্য নিয়ে লোকে সন্ন্যাস নেয়। আর কিছু না হোক, সদ্‌ভাবে জীবনটা কাটিয়ে দিতে চেষ্টা করে, কারো অনিষ্ট করতে যায় না। এটা কি কম কথা! যুবা বয়সই সাধন-ভজনের ঠিক সময়; এ সময়টা আলস্যে কাটিও না, সাধন-ভজন করে তাঁকে লাভ কর, মানুষ হও। যদি সাধন-ভজন না করতে পার, তবে কোন সত্‌ কাজ কর, কারও অনিষ্ট করো না। পরচর্চা করো না, তার চেয়ে ঘুমান ভাল।
যার সাধু স্বভাব সে কখনও অসাধু ভাব আনতে পারে না। তার মনে কখনও অমন প্রবৃত্তি হয় না। সে কোন কাজ গোপন করে করতে চায় না, যা করে সব প্রকাশ্যে সে নির্ভীক-চিত্ত সিংহের মত দুনিয়ার কাউকেও ভয় করে না। আর কেনই বা করবে? কারো অনিষ্ট করে না, কারো চর্চায় থাকে না, সত্—কপটতা নেই, কেনই বা (ভয়) করবে?
ছেলের বাপ হলেই হল? তোমার যে দায়িত্ব আছে—যে পর্যন্ত ছেলে সাবালক না হয়। ছেলের ভালমন্দ তোমার উপর নির্ভর করছে। বাপ-মায়ের দোষেই ছেলে খারাপ হয়। তারা কি জানে?—যেমন শিক্ষা পাবে, তেমনই হবে। সেজন্য বাপ-মাকে খুব সাবধানে চলাফেরা, কথাবার্তা কইতে হয়। কারণ বাপ-মাকেই ছেলে বেশী নকল করে। ছেলে সাবালক হয়ে গেলে—নিশ্চিন্ত; তখন সে নিজের কর্মের জন্য নিজেই দায়ী, বাপ-মার আর কোন ‘দায়’ থাকে না। কিন্তু এ ঘোর দায়িত্ব কটা লোক বুঝে? ছেলেগুলো কোন প্রকারে খেতে-পরতে পেলেই যথেষ্ট হল—এই ভাল। আরে, মানুষের আকার হলেই কি মানুষ হয়? মানুষের আকারে অনেক দানা-দৈত্যও আছে—পশু আছে। দশটা দানা-দৈত্যের মতো ছেলের চেয়ে একটা ‘মানুষ’ ভাল। ছেলেদের আর দোষ কি? তাদের মানুষ করলে তবে তো মানুষ হবে? ছেলেকে মানুষ করতে হলে বাপ-মাকে আগে মানুষ হতে হবে—তবে হবে। এই দায়িত্ব-জ্ঞান কি অমনি হয়, কত সত্‌-সঙ্গ করতে হয়, আদর্শ পুরুষদের জীবন দেখতে হয়, কত সব চেষ্টা করতে হয়, তবে হয়। যার এ দায়িত্ব-জ্ঞান আছে সেই মানুষ। আমার ছবি ‘অমুক’ পূজো করছে। তা সে পূজো না করলে আমার আর স্বর্গে যাওয়া হবে না! আমার ছবি পূজা করে কি হবে? তাঁকে (ঠাকুরকে) পূজো কর, যাতে কল্যাণ হবে। ত্রৈলঙ্গস্বামী কত যে কষ্ট (তপস্যা) করেছেন, তা তোমরা কি বুঝবে? তাঁকে যারা ভক্তি-শ্রদ্ধা করে, পূজো করে, তাদের কল্যাণ হবেই। তিনি (ঠাকুর) বলতেন—‘‘ত্রৈলঙ্গস্বামী সব্‌঩সে পার। শরীর সাধারণের মতো, কিন্তু কর্ম মানুষের মতো নয়। শিবত্ব প্রাপ্ত হয়েছেন। বিশ্বনাথ আর ত্রৈলঙ্গস্বামী অভেদ।’’
মাস্টার মহাশয় খুব পণ্ডিত লোক; ওঁর দরুন কত লোকের কল্যাণ হয়েছে, আর এখনও হচ্ছে। ‘কথামৃত’ পড়ে কত লোকে ঠাকুরকে জানতে পাচ্ছে। মাস্টার মহাশয়ের বয়স হয়ে আসছে, এখন তাঁর দয়ার শরীর ভাল থাকলেই বাঁচোয়া। এ-সব লোক যতদিন সংসারে থাকে সংসারের কল্যাণ।
সত্‌লোক অপরের দুঃখ দেখলে দুঃখিত হয়; আর যদি শক্তিতে কুলোয় তো যতটুকু পারে দুঃখ দূর করতে চেষ্টা করে। কিন্তু অসৎলোক অন্যের দুঃখে আনন্দিত হয়, হাসে; বলে—কর্মফলে ভুগছে। জানে না—তারও একদিন অমনি দুঃখ হতে পারে। এ-সব অতি নীচ জীবের কথা। মানুষের ধর্ম হচ্ছে—পরস্পরের দুঃখ দূর করতে চেষ্টা করা, পরস্পরের কল্যাণ কামনা করা। মহাপুরুষদের জীবন দেখলে এ সব বুঝতে পারবে।
স্বামী সিদ্ধানন্দ-সংগৃহীত স্বামী অদ্ভুতানন্দের সত্‌কথা থেকে
02nd  January, 2019
জীবন 

ভগবানকে কর তুমি তোমার জীবনের কেন্দ্র। তোমার শরীরের প্রতিটি অণু-পরমাণুতে যৌবন আসিয়া ডাক ছাড়িতেছে,—‘‘আমি আসিয়াছি।’’ তুমিও তাহার সঙ্গে সঙ্গে ডাক ছাড়িয়া বলিতে সমর্থ হও,—‘‘আমার দেহ-মন্দিরে ভগবানও আসিতেছেন।’’ যৌবনকে তুমি সম্বর্দ্ধনা কর, তোমার জীবনের বসন্তকে তুমি ব্যর্থ যাইতে কেন দিবে? 
বিশদ

অমৃতকথা 

শুরুতেই মনে রাখা দরকার যে আমাদের জীবনের এক তৃতীয়াংশেরও বেশী ঘুমের মধ্যে কেটে যায়—কাজেই, যে সময়টা ঘুমে অতিবাহিত করি তার সম্বন্ধে বিশেষভাবে আমাদের দৃষ্টি দেওয়া উচিত। শারীরিক নিদ্রার কথাই বলছি, কেননা যখন দেহ ঘুমিয়ে পড়ে তখন আমাদের সারা সত্তা ঘুমিয়ে পড়ে বিশ্বাস করলে ভুল হবে।  বিশদ

18th  March, 2019
জীবন 

তোমার জীবনের অর্ঘ্য ভগবানের পায়ে অর্পণ কর। ইহা তোমার জীবনের প্রথম এবং প্রধান কর্ত্তব্য। তার পরে ইহা নির্ম্মাল্য হইয়া জগতের প্রতিজনের সংস্পর্শে আসুক। অকপটে যে জীবন ভগবানে উৎসর্গীকৃত হইয়াছে, সে জীবনের সংস্পর্শে যে যখনি আসুক, নির্ম্মাল্যের পবিত্রতাকে সম্মান করিয়া চলিতে সে বাধ্য হইবে। 
বিশদ

17th  March, 2019
ভগবান্‌

একমাত্র ভগবানে বিশ্বাস করিলেই যে সব গোল মিটিয়া যায়। সাধুদের তোমার প্রতি কৃপা আছেই জানিবে। আর ভগবান্‌ অন্তর্য্যামী, তিনি সকলই দেখিতেছেন। সরল অকপটভাবে তাঁহার কাছে সমস্ত আব্‌দার আবেদন করিবে। আপন হ’তেও আপন তিনি, তোমার প্রার্থনা শুনিবেই শুনিবেন। তাঁহাকে আশ্রয় করিয়া সাধন ভজন করিতে থাক। তাঁহার কৃপা লাভ করিয়া কৃতার্থ হইয়া যাইবে।  বিশদ

16th  March, 2019
আহার-শুদ্ধি

 মানুষের যে স্বাভাবিক বৃত্তি, স্থিতি, ভাব তৈরী হয় সেটি তৈরী হওয়ার পিছনে কিছু কারণ থাকে, তার মধ্যে আহারও একটি কারণ। কথিত আছে যে, ‘‘যেমন অন্ন খাবে, তেমন মন হবে।’’ সুতরাং আহার যত সাত্ত্বিক হয়, মানুষের বৃত্তিও ততই সাত্ত্বিক হয় অর্থাৎ সাত্ত্বিক বৃত্তি গড়ে তুলতে সাহায্য করে সাত্ত্বিক আহার।
বিশদ

15th  March, 2019
অহংকার

বর্ষাকালে বায়ুর দ্বারা চালিত হইয়া মেঘ যেমন শত অনর্থের সৃষ্টি করে, সেই প্রকাপে মহাশক্তিশালী অহংকার মূলসহিত কর্তিত হইলেও মনের দ্বারা যদি ক্ষণকালের জন্যও স্মৃত হয় তো পুনরায় বাঁচিয়া উঠিয়া শত শত চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। সংযত করার পর অহংকাররূপ শত্রুকে বিষয়চিন্তার আর কোন অবকাশ দিবে না।
বিশদ

14th  March, 2019
অমৃতকথা 

প্রশ্ন: ভাল দিন আর খারাপ দিন কোন্‌঩টি?
উত্তর: ‘যদচ্যুতকথালাপরসপীযূষবর্জিতম্‌।
তদ্দিনং দুর্দিনং মন্যে মেঘাচ্ছন্নৎ ন দুর্দিনম্‌।।’ —(শ্রীমদ্‌ভাগবতম্‌)   বিশদ

13th  March, 2019
‘মন্দির’

সত্যকে জানবার জন্য অথবা নিরাকার-ব্রহ্মে একাত্ম হবার জন্য এই মুহূর্তে যে সহজ-সরল অধ্যায় বা সোপানের প্রয়োজন, তা হল মন্দির। সংস্কৃতের ‘মদিঙ্‌’ ধাতুগত শব্দ থেকে ‘মন্দির’ শব্দ নিরূপিত হয়েছে। যার অর্থ হল—যেখানে দেব-দেবীর ঐকান্তিক স্ততি-বন্দনা করা হয়।
বিশদ

12th  March, 2019
অমৃতকথা 

ভগবান সর্বময়। সংসারীর পক্ষে তাঁর জীবমূর্তিকে সেবা ও দানই পরম সাধন। কাঠ, পাথর—এসবও জীব (সুপ্ত চৈতন্য)। পশু, পাখি, কীট, পতঙ্গকেও সেবা করবেন। বৃক্ষলতাকে জল দেবেন। এই কাজগুলো ভক্তিভরে করবেন—যেমন ঠাকুরকে স্নান করান—এই ভাব নিয়ে।  বিশদ

11th  March, 2019
 শাস্ত্র

 শ্রীরামকৃষ্ণ বলতেন: ‘‘শাস্ত্র পড়ে হদ্দ অস্তিমাত্র বোধ হয়।’’ আবার বলেছেন: ‘‘শাস্ত্রে আভাসমাত্র পাওয়া যায়।’’ শাস্ত্র পথনির্দেশক বৈ তো নয়। শ্রীরামকৃষ্ণ বলেছেন: ‘‘শাস্ত্র, বই এসব কেবল ঈশ্বরের কাছে পহুঁছিবার পথ বলে দেয়।’’
বিশদ

10th  March, 2019
উপনিষদ

 মিথ্যার এই আবরণকে ভাঙবার জন্য ঔপনিষদী ধারায় কোনো কৃত্রিম উপায়ের আশ্রয় নিতে বলা হয়নি। প্রকৃতির স্বাভাবিক ধারায় চেতনার আকুঞ্চন-প্রসারণ, গুটিয়ে আনা ও ছড়িয়ে পড়ার দিকে দৃষ্টি রেখেই এই আবরণ মুক্ত করার প্রয়াস দেখতে পাই উপনিষদে।
বিশদ

09th  March, 2019
 রামকৃষ্ণের উপদেশ

  সর্বোচ্চ আধ্যাত্মিক তত্ত্বালোকে পরিস্নাত হওয়াতে অধিকারি-বিশেষে প্রদত্ত শ্রীরামকৃষ্ণের উপদেশগুলির মধ্যে দেখা যায় একটা সুস্পষ্ট ক্রম। তিনি বলতেন: ‘‘যার পেটে যা সয়।’’ উত্তম অধিকারী নরেন্দ্রনাথকে তিনি অদ্বৈতবাদের উপদেশ দিতেন, এবং সহায়ক গ্রন্থ ‘অষ্টাবক্রসংহিতা’ প্রভৃতি অধ্যয়ন করতে বলতেন। বিশদ

08th  March, 2019
অমৃতকথা 

সদ্‌গুরুর আশ্রয় পাওয়ার অর্থ কি?
ভগবৎ শক্তির আশ্রয় পাওয়া।
যত লোক সৃষ্টিকাল হইতে সদ্‌গুরুর আশ্রয় পাইয়াছে সকলে কি একই শক্তি পাইয়াছে?  বিশদ

07th  March, 2019
বৈষ্ণবীয় তন্ত্র

বৈষ্ণবীয় তন্ত্রে শরীরের যেটা শেষ অস্থি তার নাম কুল। এইখানে শায়িত যে জীবভাব, তাকে শাক্ত তন্ত্রে বলে কুলকুণ্ডলিনী, বৈষ্ণবীয় তন্ত্রে বলে রাধা আর সহস্রারস্থিত পরম শিবকে বলে কৃষ্ণ। সাধনার দ্বারা সেই কুলকুণ্ডলিনীকে ওপরে তুলতে হয়, সেটা হ’ল রাধা-কৃষ্ণের মিলন। এই যে ওপরে ওঠা, এর সঙ্গে সাধনার কতকগুলো গূ‌ঢ় তত্ত্ব রয়েছে।
বিশদ

06th  March, 2019
আধ্যাত্মিক শক্তি

সমাজের ভিতরে যে আধ্যাত্মিক শক্তি ক্রিয়া করিতেছে, তাহার বিকাশের ফলেই সামাজিক শুভ পরিবর্তনগুলি সংঘটিত হইতেছে। এই শক্তিগুলি দুদৃঢ় এবং সুসংবদ্ধ হইলে সমাজও নিজেকে তদনুরূপ গড়িয়া তুলিবে। প্রত্যেককেই যেমন নিজের মুক্তির জন্য চেষ্টা করিতে হয় এবং তা ছাড়া উপায় নাই, প্রত্যেক জাতি সম্বন্ধেও একই কথা।
বিশদ

05th  March, 2019
পাশ্চাত্ত্যবাসিনী

মনে পড়ে, বেদন-সুন্দর এক প্রভাত। দূর পাশ্চাত্ত্যের অধিবাসিনী এসে সেদিন জানালো প্রার্থনা: ‘‘মা, আমি বড় কাতর আছি। আমার একটি মেয়ে, বড়ো ভালো মেয়ে, তাহার কঠিন পীড়া হইয়াছে। তাই মা, আপনার করুণা ভিক্ষা করিতে আসিয়াছি। আপনি দয়া করিবেন, মেয়েটি যেন ভালো হয়।’’
বিশদ

04th  March, 2019
একনজরে
সেভিয়া, ১৮ মার্চ: দুই দলের শেষ সাক্ষাৎকারে জোড়া গোল করেও বার্সেলোনার হার বাঁচাতে পারেননি লায়োনেল মেসি। রবিবার যেন তারই মধুর প্রতিশোধ নেওয়ার সংকল্প বুকে নিয়ে ...

সৌম্যজিৎ সাহা, কলকাতা: প্রায় সব কাজেই এখন নারী-পুরুষের মধ্যে ভেদাভেদ প্রায় মুছে গিয়েছে। তা কাজকর্মই হোক কিংবা খেলাধুলো। সবেতেই পুরুষদের সঙ্গে সমানতালে পা মেলাচ্ছেন মহিলারা। তবে চাকরি পেতে বেশ মরিয়া তাঁরা। তাই দেশের মধ্যে কেন্দ্রীয় চাকরির পোর্টালে নাম নথিভুক্তকরণের ক্ষেত্রে ...

মৃণালকান্তি দাস: শুক্রবার রাত মানেই তো আনন্দের রাত। এই রাতে নিউজিল্যান্ডের কোনও শহর এমনিতেই ঘুমায় না। আর এই শুক্রবারটা তো ছিল ১৭ মার্চ। সেন্ট পিটার্স ...

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: মহিলাদের ভোটদানে উৎসাহিত করতে এবার লোকসভা ভোটে মালদহ জেলায় মোট ৫০টি মহিলা পরিচালিত বুথ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই জেলার বিভিন্ন ব্লক থেকে মহিলা পরিচালিত বুথের তালিকা জেলা নির্বাচন দপ্তরে এসে জমা পড়েছে। ওই তালিকা ধরে জেলা নির্বাচন দপ্তরের ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চবিদ্যার ক্ষেত্রে বাধার মধ্য দিয়ে অগ্রসর হতে হবে। উচ্চতর বিদ্যার ক্ষেত্রে শুভ ফল পাবে। কর্মপ্রার্থীদের ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩৭- প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট গ্রোভার ক্লিভল্যান্ডের জন্ম
১৯০১- সাহিত্যিক ও পরিচালক শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৩৯- প্রাক্তন ইংরেজ ফুটবলার রন অ্যাটকিনসনের জন্ম
১৯৭৪- কবি বুদ্ধদেব বসুর মৃত্যু 

18th  March, 2019
ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৭.৯০ টাকা ৬৯.৫৯ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৬৩ টাকা ৯২.৯০ টাকা
ইউরো ৭৬.৩৯ টাকা ৭৯.৩৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,২৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৬৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১,১০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,৮৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭,৯৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ চৈত্র ১৪২৫, ১৯ মার্চ ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ২১/২১ দিবা ২/১৯। মঘা ৩৩/১৬ রাত্রি ৭/৫। সূ উ ৫/৪৬/৭, অ ৫/৪৩/২১, অমৃতযোগ দিবা ৮/৯ গতে ১০/৩৩ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৬ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/২০ গতে ৪/৫৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩১ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৬ গতে ১১/২১ মধ্যে পুনঃ ১/৪৫ গতে ৩/২১ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৬ গতে ৮/৪৬ মধ্যে পুনঃ ১/১৪ গতে ২/৪৪ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/১৩ গতে ৮/৪৩ মধ্যে। 
৪ চৈত্র ১৪২৫, ১৯ মার্চ ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১২/২/২২। মঘানক্ষত্র সন্ধ্যা ৫/২২/১৬, সূ উ ৫/৪৬/৩৩, অ ৫/৪২/২৫, অমৃতযোগ দিবা ৮/৯/৪৩ থেকে ১০/৩২/৫৫ মধ্যে ও ১২/৫৬/৪ থেকে ২/৩১/৩১ মধ্যে ও ৩/১৯/১৪ থেকে ৪/৫৪/৪১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩০/৪২ মধ্যে ও ৮/৫৫/৩১ থেকে ১১/২০/২১ মধ্যে ও ১/৪৫/১১ থেকে ৩/২১/৪৬ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৬/২ থেকে ৮/৪৫/৩১ মধ্যে, কালবেলা ১/১৩/৫৮ থেকে ২/৪৩/২৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/১২/৫৬ থেকে ৮/৪৩/২৭ মধ্যে। 
মোসলেম: ১১ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
নির্বাচনে সরকারি কর্মচারীদের নিরাপত্তার জন্য দেওয়া হোক কেন্দ্রীয় বাহিনী, দাবি কর্মচারী পরিষদের

01:15:00 PM

চুঁচুড়ায় নিখোঁজ শিক্ষকের দেহ উদ্ধার

প্রাথমিক স্কুল শিক্ষকের দেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল চু্ঁচুড়ার ফুলপুকুর ...বিশদ

11:35:00 AM

প্রয়াত অভিনেতা রমেন রায়চৌধুরী

প্রয়াত হলেন বাংলা সিনেমার অভিনেতা রমেন রায়চৌধুরী। বয়স হয়েছিল ৭৫ ...বিশদ

10:29:55 AM

শহরে ট্রাফিকের হাল

আজ, মঙ্গলবার সকালে শহরের রাস্তাঘাটে যান চলাচল মোটের উপর স্বাভাবিক। ...বিশদ

10:17:42 AM

তৃণমূলকে আক্রমণ করে গান রেকর্ড, বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের  

10:06:11 AM

ফের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন পাকিস্তানের, আখনুর সেক্টর সীমান্তে পাক সেনার গোলাগুলি 

09:56:00 AM