Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

ফকির পাকিস্তানের ছদ্মবেশ

ভারতের বিরুদ্ধে একনাগাড়ে মহড়া যুদ্ধ, জঙ্গি তালিম, তাদের আশ্রয়দান ও আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠীগুলিকে আর্থিক ও সামরিক সাহায্যদানের খয়রাতি চালাতে গিয়ে খেয়ালই নেই যে জাতীয় অর্থনীতির জাহাজ পাহাড়ে ধাক্কা খেয়ে ফুটো হয়ে গিয়েছে। আর সে কারণেই এখন জাহাজের ভার কমাতে পাপের বোঝা সাগরের জলে ফেলে হাল্কা হতে চাইছে পাক সামরিক বাহিনী। বেড়াল বলে মাছ খাব না, আঁশ ছোঁব না— নীতি নিয়ে হঠাৎ করে প্রতিরক্ষা খাতে খরচ কমানোর সিদ্ধান্তে পাক সেনাবাহিনী কী বার্তা দিতে চলেছে তা একমাত্র তারাই জানে। এমনকী এর নেপথ্যে আসলে কোন সত্যটা লুকিয়ে রয়েছে, তাও ব্রহ্মাই জানেন।
পাক সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গোফুর বলেছেন, দেশের প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তার সঙ্গে কোনওরকম আপস না করেই বাজেট বরাদ্দে রাশ টানছে সেনাবাহিনী। অনুন্নত এলাকার সার্বিক উন্নয়নে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করতে স্বেচ্ছায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে বাজেটে কত পরিমাণ অর্থ কাটছাঁট করা হবে, তা নিয়ে কিছু স্পষ্ট করেননি গোফুর। লোকে বলে পাক প্রধানমন্ত্রী ও সেখানকার সরকারকে নাকি আসলে চালনা করে সেনাবাহিনীর দপ্তর। সে কারণে বাহিনীর এই ‘সদাচারী’ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে পাক সরকারও। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, অভূতপূর্ব সিদ্ধান্ত। দেশের আর্থিক সঙ্কটের মোকাবিলায় সেনাবাহিনীর এই সিদ্ধান্ত সহায়ক হয়ে উঠবে। উদ্বৃত্ত অর্থ দারিদ্র্য দূরীকরণে কাজে লাগানো হবে। সংবাদ মাধ্যমগুলি বলছে, ইমরানের সরকার বিশেষভাবে জোর দিতে চলেছে উপজাতি অধ্যুষিত এলাকা ও বালুচিস্তান প্রদেশের সামগ্রিক উন্নয়নে। ইমরান নিজেও বলেছেন, এবার বাজেটে বালুচিস্তান সহ দেশের পিছিয়ে পড়া এলাকার উন্নয়নে বেশি করে অর্থ বরাদ্দ করা হবে। পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি বলেছেন, দেশের বর্তমান আর্থিক পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনীর ব্যয় সঙ্কোচনের পদক্ষেপ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সরকার ও সেনার এমন মেলবন্ধনই পারে সঙ্কটের সুনামি থেকে দেশকে উদ্ধার করতে।
পাক অর্থনীতির এই দুর্দশার অন্যতম কারণ হিসেবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, দেশের অভ্যন্তরীণ গড় উৎপাদন (জিডিপি)-এর একটা বড় অংশ প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দ করে পাকিস্তান। ২০১৮ সালে জিডিপির ৪ শতাংশই এই খাতে বরাদ্দ করা হয়েছিল। যা ২০০৪ সালের পর সর্বোচ্চ। আর সেই সূত্রেই বিশ্বের ২০টি ব্যয়বহুল সেনাবাহিনীর তালিকায় ঢুকে পড়ে পাকিস্তান। ওই বছর প্রতিরক্ষা খাতে পাকিস্তানের বাজেট বরাদ্দ ছিল এক হাজার ১৪০ কোটি মার্কিন ডলার। জাতীয় অর্থনীতির এই দুর্দশা মোচনে ইমরান বহুদিন ধরেই বিভিন্ন মহলে দরবার করছিলেন। আর তাতে খানিকটা সহৃদয়তা দেখিয়ে আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ) সম্প্রতি পাকিস্তানকে দেউলিয়া হওয়ার হাত থেকে পরিত্রাণ দিতে ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে। আইএমএফই বলেছে, পাকিস্তান এই মুহূর্তে কঠিন আর্থিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে রয়েছে। উৎপাদনের ঘাটতি, মুদ্রাস্ফীতি এবং দুর্বল আন্তর্জাতিক সম্পর্কের কারণে পাকিস্তানের এই হাল বলেও তারা মনে করে। শুধু তাই নয়, আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে এই শর্তে যে, পাকিস্তান যাতে ব্যবসার অনুকূল পরিবেশ গড়ে তোলে। এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে আরও শক্তিশালী করে তোলে। এমনকী সরকারি কাজে স্বচ্ছতা ও সামাজিক খাতে ব্যয়বৃদ্ধি করে। কেননা, এর আগের অভিজ্ঞতাগুলি থেকে দেখা গিয়েছে যে, পাকিস্তান ধারদেনা করে বিদেশ থেকে টাকা এনেও তা দিয়ে জঙ্গি মদত ও সেনাবাহিনীর অস্ত্রশস্ত্র কিনতে খরচ করেছে। বহু বার এনিয়ে পাকিস্তানকে সতর্কও করেছে আন্তর্জাতিক জোটগুলি। ভারত একাধিকবার রাষ্ট্রসঙ্ঘ সহ আন্তর্জাতিক মঞ্চগুলিতে পাকিস্তানের এহেন আচরণ নিয়ে সরব হয়েছে। কিন্তু, ভবি ভোলার নয়, পাকিস্তানকে কিছুতেই বাগে আনা যায়নি।
কিন্তু, এখন দারিদ্র্যের গলাজলে পৌঁছে গিয়ে সম্বিত ফিরেছে পাক সরকারের। তাই হঠাৎ করে সাধু সাজার চেষ্টা। আইএমএফের পূর্বাভাস ছিল যে ২০১৮ সালের থেকে এই আর্থিক বছরে পাকিস্তানের আর্থিক বৃদ্ধির হার ৫.২ শতাংশ থেকে কমে ২.৯ শতাংশে নেমে আসবে। প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক উপদেষ্টা আবদুল হাফিজ শেখ তো বলেই দিয়েছিলেন, বিদেশি ঋণের পরিমাণ ৯ হাজার কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছে। এবং রপ্তানির পরিমাণ গত পাঁচ বছরে আশ্চর্যজনকভাবে কমছে। সুতরাং, এই অবস্থায় ব্যয় সঙ্কোচনের পথে হাঁটা ছাড়া পাকিস্তানের সামনে আর কোনও গত্যন্তর নেই। সে কারণেই তাদের এই ‘ফকিরি’ বেশ ধরার নাটক।
07th  June, 2019
দেশের অর্থনীতির অধোগতি সামলানোই এখন চ্যালেঞ্জ 

নর্থ ব্লকের দোতলার এক কোণে অর্থমন্ত্রীর টেবিলে তিনি বৈঠকে বসেছেন আগেও। তখন তিনি অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির প্রতিমন্ত্রী। এখন সেই অরুণ জেটলির ছেড়ে যাওয়া চেয়ারেই বসেই প্রথম পরীক্ষার মুখোমুখি হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন নির্মলা সীতারামন। ৫ জুলাই বাজেট পেশ করবেন তিনি।  
বিশদ

সাধু উদ্যোগে রাজনীতি নয়

মুসলিম মহিলাদের সমানাধিকার এবং নিরাপত্তার খাতিরে ‘তিন তালাক’ বিল নিয়ে এই দফাতেও রীতিমতো প্রতিরোধ গড়ে তুলছে বিরোধী দলগুলি। প্রথম মোদি সরকারের শেষ সংসদ অধিবেশনে এই বিল পাশ করানো নিয়ে কম টালবাহানা হয়নি! লোকসভায় পাশ হলেও রাজ্যসভায় গিয়ে বিরোধীদের চাপাচাপিতে বিলটি আটকে যায়।
বিশদ

23rd  June, 2019
দুর্নীতির ব্যাধি ছড়িয়ে রয়েছে আমাদের সমাজেরই শিকড়ে

 দুর্নীতি শব্দটি মনে হয় দেশকাল নিরপেক্ষ। রামায়ণের কাল থেকে এ পর্যন্ত দুর্নীতির নানান রকমফের হয়েছে। রাজা-মন্ত্রী থেকে শুরু করে দেবদেবী এমনকী মুনিঋষিদেরও দুর্নীতির কাহিনী পুরাণে রয়েছে। ফলে, সাধারণ মানুষ তো কোন ছার! স্বাধীনতার পর থেকে ‘জনতার সরকার’ ক্ষমতায় আসা ইস্তক কংগ্রেসের দুর্নীতির কথা সর্বজনবিদিত।
বিশদ

22nd  June, 2019
দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর মমতা

 আমাদের দেশে রাজনীতির সঙ্গে দুর্নীতির সম্পর্ক নতুন নয়। কারণ নির্বাচনের মাধ্যমে যে জনপ্রতিনিধিদের হাতে সরকারি ক্ষমতা দেওয়া হয় তাঁরা কোনও-না-কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত। সরকারি ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার সুবাদে জনপ্রতিনিধিরা পরোক্ষে বিপুল টাকা নাড়াচাড়া করার সুযোগ পেয়ে যান।
বিশদ

21st  June, 2019
বাংলায় দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে শিক্ষার সঙ্গে চাকরির সম্পর্কগত ধারণা  

প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মূল লক্ষ্য হল কর্মসংস্থান—এমন কাজের সুযোগ যা শিক্ষা বা প্রশিক্ষণের সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ হবে; উপযুক্ত সম্মান মিলবে এবং যোগ্যতা অনুসারে অর্থ উপার্জন সম্ভব হবে। কর্মসংস্থানের জন্য শাস্ত্রে বাণিজ্যকেই অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। কিন্তু, বাণিজ্য বা ব্যবসা করতে যে-ধরনের ব্যক্তিগত পরিকাঠামো প্রয়োজন তা সাধারণ পরিবারগুলির থাকে না। 
বিশদ

20th  June, 2019
গণতন্ত্রের ভিত আরও মজবুত 

আপনি আচরি ধর্ম পরেরে শিখাও। কথাটা আমাদের বহু রাজনৈতিক ব্যক্তির ক্ষেত্রে কি খাটে? মনে হয়, অনেক সময়ই খাটে না। সংসদের ভিতরেই হোক বা বাইরে তাঁদের কেউ কেউ মাঝেমধ্যেই এমন আচরণ করে বসেন, যা আর যা-ই হোক, সৌজন্যের পরিচয় দেয় না।  বিশদ

19th  June, 2019
বহু প্রতীক্ষার স্বস্তি 

জট কাটল। আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন জুনিয়র ডাক্তাররা। আশা করা যায়, এবার চিকিৎসা পরিষেবা স্বাভাবিক হবে। দুশ্চিন্তা অনেকটাই কাটল রোগী ও তাঁদের আত্মীয়-পরিজনদের। সপ্তাহব্যাপী আন্দোলন চলার পর মুখ্যমন্ত্রী ও জুনিয়র ডাক্তারদের আলোচনা ফলপ্রসূ হওয়ায় বহু প্রতীক্ষিত স্বস্তি মিলল।  
বিশদ

18th  June, 2019
সন্ত্রাসমুক্তিই লক্ষ্য মোদির

 পাকিস্তান এবং সন্ত্রাস। আন্তর্জাতিক মঞ্চে এটাই যে নরেন্দ্র মোদির অন্যতম লক্ষ্য হতে চলেছে, তা স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী। কিরঘিজস্তানের রাজধানী বিশকেকে অনুষ্ঠিত সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন সম্মেলনে মোদি বললেন, যে দেশ সন্ত্রাসে অর্থ জোগাচ্ছে, সমর্থন দিচ্ছে... জবাবদিহি করতে হবে সেই দেশকে।
বিশদ

16th  June, 2019
পে কমিশন ও রাজ্য
কর্মীদের আশা-আকাঙ্ক্ষা

লোকসভা ভোটের পর থেকে বিজেপির নেতৃত্বে গোটা রাজ্যে যে ডামাডোল শুরু হয়েছে, তাতে চাকরিজীবী মধ্যবিত্তের পকেটে গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো হুল ফোটাচ্ছে কাঁচা আনাজ ও মাছ বাজারের অগ্নিমূল্য।
বিশদ

15th  June, 2019
ব্যাঙ্ক প্রতারণা অর্থনীতির বিপদ

আধুনিক অর্থনীতির বুনিয়াদ বহুলাংশে ব্যাঙ্কনির্ভর। মানুষের কষ্টার্জিত অর্থের সঞ্চয় থেকে ঋণগ্রহণ—কোনোটাই আজ ব্যাঙ্কের বাইরে ভাবা যায় না। ব্যবসায়িক লেনদেন এবং দেশে বিদেশে টাকা প্রেরণ কিংবা গ্রহণ প্রভৃতির জন্যও ব্যাঙ্ক একটি অপরিহার্য প্রতিষ্ঠান।
বিশদ

14th  June, 2019
চিকিৎসা থামিয়ে প্রতিবাদ নয়

 মরণাপন্ন রোগীদের হাসপাতালের ভিতরে আনা ঠেকাতে দু’টি গুরুত্বপূর্ণ গেট আটকে পাহারা দিচ্ছেন জুনিয়র ডাক্তাররা! ভিতরে বন্ধ আউটডোর, ইমার্জেন্সিসহ চিকিৎসার সব ধরনের পরিষেবা! এমনই এক ভয়ঙ্কর ছবি দেখল কলকাতা। ঘটনাটি মঙ্গলবারের। ঘটনাস্থল নীলরতন সরকার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল—উন্নত চিকিৎসা পরিষেবার জন্য সারা রাজ্যের অন্যতম সেরা ভরসা।
বিশদ

13th  June, 2019
মানুষের সঙ্গে, মানুষের পাশে 

হাতে আর খুব বেশি সময় নেই। ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে জিতে ফিরতে হলে যেখানে যা ঘাটতি আছে তা পূরণ করার কাজ এখনই শুরু করা দরকার। এবারের লোকসভা নির্বাচনে শতকরা হিসেবে ভোটের হার তৃণমূলের না কমলেও এই রাজ্যে বহু মানুষের মধ্যে বিজেপিকে সমর্থনের প্রবণতা যে দেখা দিয়েছে তা অস্বীকার করার নয়।  বিশদ

12th  June, 2019
বন্ধ হোক খুনোখুনি, রক্তপাত

রাজনীতি মানে তো নীতির রাজা। অর্থাৎ যে নীতি শুধুই মানুষের কল্যাণ করবে। যে নীতির মধ্যে থাকবে না আগ্রাসী ও দখলদারী মনোভাব। সেই নীতিতে হিংসার কোনও স্থান নেই। কিন্তু সময় বদলে গিয়েছে। এখন রাজনীতি মানে রাজার নীতি। রাজাই হলেন সর্বোচ্চ ক্ষমতাবান ব্যক্তি। তিনি যা মনে করবেন, সেটাই হবে।
বিশদ

11th  June, 2019
ব্যাঙ্ক জালিয়াতিতেও রেকর্ড!

 টাকা অরক্ষিত রাখলে লুট হতে পারে—একথা কে না জানেন। তাই ক্রমাগত কমতে থাকা সুদের হার সত্ত্বেও আমাদের গচ্ছিত টাকা রাষ্ট্রের নির্ধারিত সিন্দুকেই রাখি, শুধুমাত্র নিরাপত্তার সুবন্দোবস্তের কথা মাথায় রেখে। সেই রাজকোষই যদি চুরি হয়ে যায়, তার দায় নেবে কে?
বিশদ

10th  June, 2019
মোদির বিদেশ কূটনীতি

একটা দেশ প্রভাকরণ জমানার পর চলতি বছর ইস্টারে সন্ত্রাসের পুনর্জন্মের সাক্ষী হয়েছে। জঙ্গি হামলায় প্রায় আড়াইশো নিরপরাধ মানুষের মৃত্যুর পর তার রেশ কাটিয়ে এখনও বেরতে পারেনি তারা। শ্রীলঙ্কা। আর একটা দেশ কয়েক বছরের রাজনৈতিক টানাপোড়েন কাটিয়ে ফের অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক স্তরে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। মালদ্বীপ।
বিশদ

09th  June, 2019
সম্মান ফিরে পেলেও দেওয়ালের লিখন পড়তে পারছেন রাজনাথ

 ব্যাপক শোরগোল ও বিতর্কের পর আপাতত নিজের গুরুত্ব কিছুটা হলেও ফিরে পেলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। বৃহস্পতিবার বেলা গড়াতেই রটে যায় অমিত শাহের গুরুত্ব বাড়াতে এবং নরেন্দ্র মোদির যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে মন্ত্রিসভার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত আটটি কমিটিতেই তাঁকে স্থান দেওয়া হয়েছে।
বিশদ

08th  June, 2019
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ইস্ট-ওয়েস্ট পথে বাণিজ্যিকভাবে ট্রেন চালানোর চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য ‘কমিশনার অব রেলওয়ে সেফটি’ (সিআরএস)-র কাছে আবেদনের করল ‘কলকাতা মেট্রো রেল কর্পোরেশন লিমিটেড’ (কেএমআরসিএল)। সংস্থা সূত্রের খবর, কয়েকদিন আগে সিআরএসের কাছে এই আবেদন করা হয়েছে।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভারত সরকার এবং জাপানের যৌথ উদ্যোগে বেঙ্গালুরুতে গত বছর গড়ে ওঠে জাপান-ইন্ডিয়া স্টার্ট আপ হাব। সেখানে সাফল্য পাওয়ার পাশাপাশি ওই হাব রাজ্যের অন্যত্র নিয়ে আসার উদ্যোগ নেওয়া শুরু হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে যাতে এমন হাব তৈরি করা যায়, তার ...

সংবাদদাতা, রঘুনাথপুর: শনিবার রাতে পাড়া থানার পুলিস ঝাপড়া গ্রামে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের মৃতদেহ উদ্ধার করে। তাঁর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পুলিস জনিয়েছে, মৃতের নাম বাণেশ্বর কুমার সাহাবাবু(৮২)।   ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে চলা লাক্সারি ট্যাক্সির ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে চিঠি দিলেন মালিকরা। ‘লাক্সারি ট্যাক্সি অ্যাসোসিয়েশন (ওয়েস্ট বেঙ্গল)’-এর পক্ষ থেকে সম্প্রতি এই চিঠি দেওয়া হয়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ আছে। সরকারি বা আধাসরকারি ক্ষেত্রে কর্ম পাবার সুযোগ আছে। ব্যর্থ প্রেমে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৮৩- অস্ট্রীয়-মার্কিন পদার্থ বিজ্ঞানী ভিক্টর ফ্রান্সিস হেসের জন্ম
১৯০৮- প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট গ্রোভার ক্লিভল্যান্ডের মৃত্যু
১৯৫০- বাংলাদেশি কবি তথা মুক্তিযোদ্ধা আবিদ আনোয়ারের জন্ম
১৯৮৭- আর্জেন্তিনার ফুটবলার লায়োনেল মেসির জন্ম
 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯৫ টাকা ৭০.৬৪ টাকা
পাউন্ড ৮৭.১২ টাকা ৯০.৩১ টাকা
ইউরো ৭৭.৪০ টাকা ৮০.৩৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
22nd  June, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৪,৫৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,৭৮০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৩,২৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,৯৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,০৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
23rd  June, 2019

দিন পঞ্জিকা

৯ আষা‌ঢ় ১৪২৬, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, সপ্তমী ৫৩/৯ রাত্রি ২/১৩। পূর্বভাদ্রপদ ৫৫/১১ রাত্রি ৩/২। সূ উ ৪/৫৭/১৩, অ ৬/২০/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৮/৩১ গতে ১০/১৮ মধ্যে। রাত্রি ৯/১০ গতে ১২/০ মধ্যে পুনঃ ১/২৫ গতে ২/৫০ মধ্যে, বারবেলা ৬/৩৭ গতে ৮/১৮ মধ্যে পুনঃ ২/৫৯ গতে ৪/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৯ গতে ১১/৩৯ মধ্যে। 
৮ আষাঢ় ১৪২৬, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, সপ্তমী ৪৬/৭/৫৫ রাত্রি ১১/২৩/২৬। পূর্বভাদ্রপদনক্ষত্র ৫০/২৩/৩২ রাত্রি ১/৫/২১, সূ উ ৪/৫৫/৫৬, অ ৬/২৩/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৮/৩৫ গতে ১০/২৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/১৩ গতে ১২/৩ মধ্যে ও ১/২৮ গতে ২/৫৪ মধ্যে, বারবেলা ৩/১/৪৫ গতে ৪/৪২/৩৩ মধ্যে, কালবেলা ৬/৩৪/৫৪ গতে ৮/১৭/৫২ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/২০/৪৭ গতে ১১/৩৯/৪৯ মধ্যে।
 
মোসলেম: ২০ শওয়াল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বিশ্বকাপ: আফগানিস্তানকে ২৬৩ রানের টার্গেট দিল বাংলাদেশ 

06:55:20 PM

বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ ১৯৩/৪ (৪০ ওভার) 

06:10:23 PM

দেউলিয়া বরিস বেকার, নিলামে উঠল ট্রফি 
কিংবদন্তি জার্মান লন টেনিস প্লেয়ার বরিস বেকার দেউলিয়া। না, মোটেই ...বিশদ

06:01:43 PM

বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ ১৪৩/৩ (৩০ ওভার) 

05:22:32 PM

বিজেপিতে যোগ দিলেন আরও দুই তৃণমূল নেতা 
বিজেপিতে যোগ দিলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা প্রবীণ ...বিশদ

05:16:00 PM

বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ ১০৩/২ (২০ ওভার) 

04:41:32 PM