Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

রাজনীতি কবে মানুষের হবে

কল্যাণকামী রাষ্ট্রের লক্ষ্য হল নাগরিকদের জীবনযাত্রার মান একটু উন্নত করার ব্যবস্থা করা। ভারত হল বৃহত্তম গণতন্ত্র। আমাদের রাষ্ট্রে নাগরিককল্যাণের দায়িত্ব ন্যস্ত হয়েছে নির্বাচিত সরকারের উপর। এদেশে কেন্দ্রে এবং রাজ্যে রাজ্যে সরকার তৈরি হয় বহু দলীয় নির্বাচনের মাধ্যমে। সাধারণভাবে পাঁচ বছর অন্তর প্রতিটি দল নিজ নিজ নীতি কর্মসূচিকে সামনে রেখে মানুষের কাছে হাজির হয়। এর মধ্যে যে দল বা জোট শাসকের আসনে থাকে তার আরও একটি বাড়তি কাজ থাকে—ফেলে আসা পাঁচ বছরের কাজকর্ম বা সাফল্য তুলে ধরতে হয় এবং অকাজ ও ব্যর্থতার জন্য জবাবদিহি করতে হয়। ভারতের জনসংখ্যা বিপুল, কমবেশি ১৩০ কোটি। দেশটি এখনও কৃষিপ্রধান। তাই বেশিরভাগ মানুষ কৃষিনির্ভর। কেউ নিজের হাতে চাষ করেন অথবা কৃষিশ্রমিকের জীবিকা বেছে নেন। কৃষিবিজ্ঞানের চমকপ্রদ সাফল্যের যুগেও আমাদের কৃষিতে তার ছোঁয়া পড়েছে সামান্যই। তাই কৃষির যে অর্থকরী বা বাণিজ্যিক সাফল্য কাঙ্ক্ষিত, তা এদেশে অধরাই। অন্যদিকে, জনসংখ্যার ক্রমবর্ধমান চাপের কারণে কৃষিজমি রোজ সঙ্কুচিত হচ্ছে। তার ফলে, পুরনো পদ্ধতিতে চাষ-আবাদে কৃষিজমি অপ্রতুল হয়ে উঠছে; বেকার অথবা ছদ্মবেকার হয়ে পড়ছেন কৃষক পরিবারের বহু সদস্য। নানা ধরনের শিল্প কিংবা বাণিজ্যিক পরিষেবাতে তাঁদের একটি অংশকে সরিয়ে আনাই হল এই সমস্যা মোকাবিলার বিকল্প পথ। তার জন্য সবার আগে দরকার: কৃষিকে যুগোপযোগী করে তোলা; সমস্ত রাজ্যের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নানা ধরনের শিল্প এবং বাণিজ্যিক পরিষেবা বাড়ানো; প্রান্তিক মানুষজনের জন্য ব্যাপক হারে শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা। শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণ ছাড়া কোনোভাবেই আধুনিক অর্থনীতির সঙ্গে যুক্ত হওয়া সম্ভব নয়। জনসংখ্যার একটি অংশ সবসময়ই উৎপাদনশীলতার বাইরে রয়ে যান; তাঁদের জন্য আবার পৃথক ভাবনার দরকার। এই অংশে থাকেন নানা কারণে প্রান্তিক এবং প্রবীণ ও প্রতিবন্ধীরা। তাঁদের জন্য কিছু সামাজিক প্রকল্প চালু রাখতে হয়। আর এই যে ব্যবস্থার কথা বলা হল—এগুলি সরকারের মাধ্যমে গ্রহণ এবং রূপায়ণের দায়িত্ব বস্তুত রাজনৈতিক দলগুলির। কারণ রাজনৈতিক দলগুলির নির্বাচিত প্রতিনিধিদের দ্বারাই নিয়ন্ত্রিত হয় পঞ্চায়েত/পুরসভা থেকে কেন্দ্রীয় সরকার—সবটাই।
জনকল্যাণমূলক নীতি গ্রহণ এবং রূপায়ণের প্রথম ও প্রধান শর্ত হল বাস্তববোধ ও স্বচ্ছতা। আমাদের দেশের রাজনীতিতে এবং সরকারি প্রশাসনে এই দুটি জিনিসই মহার্ঘ। তার ফল যে কী ভয়ানক তা আমরা এখনও প্রত্যক্ষ করছি। মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশের বেশি, অর্থাৎ ২৫-৩০ কোটি মানুষ মনুষ্যেতর জীবনযাপনে বাধ্য হচ্ছেন। এঁরা দু’বেলা পেটভরে খেতে পান না। এঁদের জন্য উপযুক্ত বাসস্থান, ন্যূনতম চিকিৎসা এবং বুনিয়াদি শিক্ষাটুকুরও ব্যবস্থা করা যায়নি। জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক একাধিক সমীক্ষাতেও বার বার ধরা পড়ছে ‘মহান’ ভারতের এই রূঢ় বাস্তবের ছবি। ভারতের জন্য অবশ্যম্ভাবী হয়ে উঠেছে মানব পুঁজির সূচকের নিম্নগতি, বিশ্ব ক্ষুধা সূচকের ঊর্ধ্ব গতি এবং মানব উন্নয়ন সূচকে অতি নিম্নস্থান। ব্যাপারটা একাধিক প্রকোষ্ঠযুক্ত চৌবাচ্ছার জলের মতো। এক দিক জলশূন্য কিংবা সামান্য জল থাকার অর্থ সমপরিমাণ জল অন্যদিকে গিয়ে জমা হওয়া। লোকসভা নির্বাচনে বিজয়ীদের সহায়-সম্পদের যে হিসেব প্রকাশ পাচ্ছে তাতে প্রকারান্তরে যেন চৌবাচ্চায় জলের সামান্য তত্ত্বটাই প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। ৫৪২টি আসনে এবার ভোট নেওয়া হয়েছে। বিজয়ীদের মধ্যে ৪৭৫ জন কোটিপতি। এর মধ্যে বিজেপি, কংগ্রেস, ডিএমকে, ওয়াইএসআর, শিবসেনা, তৃণমূল প্রভৃতি প্রধান দলগুলির কোনোটিই বাদ নেই! অ্যাসোসিয়েশন অফ ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মসের তথ্য অনুযায়ী, এবার সেরা তিন ধনী এমপি হলেন কংগ্রেসি। এক নম্বরে রয়েছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের পুত্র নকুল নাথ। নির্বাচন কমিশনে তাঁর দেওয়া হিসেব অনুযায়ী তিনি মাত্র ৬৬০ কোটি টাকার সম্পত্তির মালিক!
মানুষের সেবা করে ধন্য হওয়ার ব্রত নিয়েই ভোটে নামেন রাজনীতির কারবারিরা। সাধারণ বিবেক বুদ্ধি বলে, রাজনীতির কারবারিরা নিজেদের সুখ-সমৃদ্ধি নিয়ে ভাবুন আর না-ভাবুন দেশবাসীর সমৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। কিন্তু, আয়কর এবং এডিআর সূত্রে পাওয়া তথ্যের তুলনামূলক বিশ্লেষণে উল্টো ছবি বেরিয়ে এসেছে: একজন এমপি এবং তাঁর নির্বাচন ক্ষেত্রের নাগরিকদের আয়ের বৈষম্য বাড়ছে। নানা ধরনের ট্যাক্স গুনে জেরবার নাগরিকদের তুলনায় গড়পড়তা একজন এমপির সম্পত্তি ৩৪৫ গুণ বেশি! ২০১৪ সালেও এই ফারাকটা তিনশো গুণের নীচে ছিল। কেন্দ্রে শুরু হচ্ছে বিজেপি সরকারের প্রত্যাবর্তন। রাজ্যে রাজ্যে চলছে নানা দলের সরকার। ভারতবাসী সত্যিই রোজ প্রতীক্ষা করে—রাজনীতিকরা তাঁদের কথার দাম রাখবেন এবং রাজনৈতিক দলগুলি বাস্তবিক মানুষের জন্য হয়ে উঠবে। মানুষের এই প্রতীক্ষার অন্তেই বসে রয়েছে বৈষম্যহীনতা এবং সব মানুষের সুখ-সমৃদ্ধি।
29th  May, 2019
রাজনীতি কবে সাহসী হবে?  

ভারত বহু ধর্ম সংস্কৃতি ও ভাষার এক মিলন ক্ষেত্র। আমাদের দেশটিকে বস্তুত গোটা পৃথিবীর এক ক্ষুদ্র সংস্করণ বললে অত্যুক্তি হয় না। এটা অবশ্য একদিনে হয়নি। বহু শত বছর ধরে পৃথিবীর নানা প্রান্তের মানুষ ভারতে এসেছে।  
বিশদ

হিন্দি: ঐক্যের সামনে আশঙ্কা  

ভাষার প্রধান কাজ মনের ভাব ব্যক্ত করা। অর্থাৎ ভাষা হল মনের ভাব প্রকাশের প্রধান মাধ্যম। আমাদের মনে কত কী থাকে! ভালোবাসা প্রেম বিরহ স্নেহ আনন্দ দুঃখ আবেগ উচ্ছ্বাস দাবি চাওয়া পাওয়া প্রত্যাখ্যান রাগ অনুরাগ হিংসা অহিংসা শান্তি প্রশান্তি ... বলে শেষ হয় না। মনের এই অবস্থাগুলি আমরা ভাষার মাধ্যমেই কারও কাছে প্রকাশ করে থাকি।
বিশদ

18th  September, 2019
ইমরান খানের বোধোদয়

যতদিন ক্রিকেট মাঠে খেলেছেন, ইমরান খান ছিলেন এক সাহসী পুরুষ। বহু দেশের বিরুদ্ধে বহুবার তিনি তাঁর সাহস এবং বুদ্ধি দিয়ে ম্যাচ বের করে নিয়ে গিয়েছেন। মাঠের বাইরে তিনি ছিলেন আবার অনেকটা ফ্ল্যামবয়েন্ট চরিত্রের মানুষ।
বিশদ

17th  September, 2019
আমাজনের ক্ষত সারার নয় 

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে অক্লান্তভাবে পুড়ে চলেছে আমাজন জঙ্গলের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। যেখান থেকে আসে পৃথিবীর প্রায় ২০ শতাংশ অক্সিজেন। ছ’কোটি বছরের পুরনো পৃথিবীর সেই ফুসফুসে এখন ক্ষয়রোগ। প্রতি মিনিটে প্রায় তিনটি ফুটবল মাঠের সমান জঙ্গল পুড়ে খাক হয়ে যাচ্ছে। এখনও সে আগুন থামেনি। এমন নয় যে অন্য বছর আমাজন অরণ্যে আগুন লাগে না। 
বিশদ

16th  September, 2019
যান জরিমানা এবং কেন্দ্র

মোটর ভেহিকেলস আইনের নয়া সংস্করণ নিয়েও কি এবার পচা শামুকে পা কাটার দশা হতে চলেছে বিজেপির? আর্থিক সংস্কারের নামে আচমকা নোট বাতিল এবং তারপর পুরোপুরি প্রস্তুত না হয়ে জিএসটি চালু করে প্রথম ইনিংসে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়তে হয়েছিল নরেন্দ্র মোদি সরকারকে। বিশদ

15th  September, 2019
মন্দার দুর্গতি নাশ হোক

 বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো হাতে গোনা আর কয়েকটা দিন পরেই। কিন্তু, চারপাশের দিকে তাকালে কোথাও কি তেমন আনন্দ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে? শহুরে মল ও বাজারে সন্ধ্যা নামলে একটু-আধটু ভিড় দেখা গেলেও গ্রামগঞ্জের চেহারাটা একেবারেই ভিন্ন।
বিশদ

14th  September, 2019
পাকিস্তানের মুখেও মানবাধিকার!

 ভারতের শাসনব্যবস্থাকে হেয় করতে গিয়ে ইমরান খান কিছুদিন আগে দাবি করেছিলেন, সংখ্যালঘুদের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করতে হয় তা পাকিস্তান শিখিয়ে দিতে পারে! অবশ্য জবাব দেওয়ার জন্য ভারতকে অপেক্ষা করতে হয়নি। বিশদ

13th  September, 2019
শুধরে যাক পাকিস্তান

পাকিস্তানের রাজনীতি আবর্তিত হয় ভারতকে কেন্দ্র করে। পাকিস্তান নামক রাষ্ট্রটি হল তীব্র ভারত-বিরোধিতার এক নির্মম পরিণাম। সোজা কথায়, ‘হিন্দু-ভারত’-এর বিরোধিতা থেকেই মুসলিম রাষ্ট্র পাকিস্তানের জন্ম। কিন্তু এই প্রতিবেশী মুসলিম রাষ্ট্রটি তাতেও কোনোদিন স্বস্তি পায়নি।
বিশদ

12th  September, 2019
উপভোক্তার সচেতনতা

বাংলার আবাস যোজনা, যা গ্রামবাংলার রূপটাই বদলে দিতে পারে। কাঁচামাটির বাড়িতে বসবাসের ঝুঁকি কাটাতে তৈরি করা হচ্ছে পাকাবাড়ি। বাড়ি তৈরির এই প্রকল্পে কেন্দ্র দেয় ৬০ শতাংশ টাকা আর রাজ্যের টাকা বাকি ৪০ শতাংশ। গত অর্থবর্ষেও বাংলা আবাস যোজনা প্রকল্পে রাজ্যে ৫ লক্ষ ৮৬ হাজার বাড়ি তৈরি হয়েছে।
বিশদ

11th  September, 2019
একশো দিনের কাজ ও নয়া সঙ্কট 

একসময় যে ১০০ দিনের কাজকে ঘিরে গ্রাম বাংলার অর্থনীতিতে লক্ষণীয় পরিবর্তন এসেছিল, সেই প্রকল্পই এখন রাজনীতির আঙিনায় চর্চার মূল বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। লোকসভা ভোটে রাজ্যে বিজেপির অভাবনীয় উত্থানের পর থেকেই বিবদমান দুই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তলে তলে অস্ত্রে শান দিচ্ছে একে অন্যকে ঘায়েল করার জন্য।
বিশদ

10th  September, 2019
অর্থনীতি বড় চ্যালেঞ্জের মুখে

গাড়ি শিল্পে ‘রক্তক্ষরণ’ অব্যাহত। নাগাড়ে গাড়ি বিক্রি কমছে। কোপ পড়ছে কাজে। গাড়ি শিল্পে ইতিমধ্যে ৩.৫ লক্ষ কাজ খুইয়েছে। এই অবস্থায় শিল্প মহলের হুঁশিয়ারি, অবস্থার উন্নতি না-হলে আরও কর্মী চাকরি হারাবেন। দেশে গাড়ি শিল্পের বৃদ্ধির ছবিটা প্রায় মুছে যাওয়ার মুখে। বাধ্য হয়ে উত্তর ভারতে মানেসর ও গুরুগ্রামের কারখানা দুটি দু’দিন বন্ধ রাখার কথা জানিয়েছে মারুতি-সুজুকি।
বিশদ

09th  September, 2019
প্লাস্টিকের বিষ

 মার্চ মাসের ঘটনা। ফিলিপিন্সে একটি তিমির দেহ পাওয়া গিয়েছিল। যার পেটে পাওয়া গিয়েছিল ৮৮ পাউন্ড প্লাস্টিক বর্জ্য। প্রশান্ত মহাসাগরের নীচে মারিয়ানা ট্রেঞ্চ। যার তল পর্যন্ত পৌঁছনোর অনেক আগেই আলোর গতিপথ শেষ হয়ে যায়। যেখানে আস্ত মাউন্ট এভারেস্ট ঢুকে যাওয়ার পরও জায়গা থেকে যাবে।
বিশদ

08th  September, 2019
বাজি: সতর্ক হওয়ার সময়

আমাদের দেশে শারদোৎসবের ঢাকে কাঠি পড়ার আগেই বেআইনি বাজি কারখানা নিয়ে উদ্বেগ আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে। ফের একবার পাঞ্জাবের বাটালায় বাজি তৈরির কারখানায় বিস্ফোরণে প্রায় ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। জখমও হয়েছেন বহু মানুষ। যাঁদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। হয়তো মৃত্যু না হলেও কাউকে হয়তো বাকি জীবনটা পঙ্গু হয়ে থাকতে হতে পারে।
বিশদ

07th  September, 2019
কঠোরতর ইউএপিএ এবং

মোদি সরকার মনে করে, ২৬/১১ মুম্বই হামলার জন্য দায়ী কংগ্রেসের ভোটব্যাঙ্কের সঙ্কীর্ণ রাজনীতি। আনলফুল অ্যাক্টিভিটিজ প্রিভেনশন অ্যাক্ট (ইউএপিএ) সংশোধনী সংসদে পাশ হয়েছে মাসাধিককাল আগে। সংশোধনী বিলটি পেশ করামাত্র কংগ্রেস এবং তার সহযোগী একাধিক দল বিলটির বিরোধিতা করেছিল।
বিশদ

06th  September, 2019
নিরাপদ মেট্রো রেলই ভবিষ্যৎ

কলকাতা পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী। ব্রিটিশ ভারতেরও রাজধানী ছিল কিছুকাল। শতবর্ষ আগেই ঘুচে গিয়েছে সেই কৌলীন্য। তবু আজ পূর্ব ভারতের প্রধান নগরী। শিল্প-বাণিজ্য শিক্ষা-সংস্কৃতির অন্যতম সেরা পীঠস্থান। এসবের টানে সারা দেশের রুচিশীল মানুষের উল্লেখযোগ্য সমাবেশ ঘটেছে কলকাতায়—যা দিল্লি, মুম্বইয়ের সঙ্গেই তুলনীয়। 
বিশদ

05th  September, 2019
  অপুষ্টি নির্মূল করতেই হবে

 অপুষ্টি আর অশিক্ষা দুটোই গুরুতর সমস্যা। দেশের গরিবগুর্বো পরিবারই মূলত এই সমস্যায় ভোগে। কখনও-বা অপুষ্টিজনিত কারণে শিশুমৃত্যুর মতো দুঃখজনক ঘটনাও ঘটে যায়। তা নিয়ে সাময়িক হইচই। তারপর আবার সবই ধামাচাপা পড়ে যায়। তবে, যে-কোনও জনকল্যাণকামী রাষ্ট্রের দায়িত্বই হল—এই দুটি সমস্যা দূর করা।
বিশদ

04th  September, 2019
একনজরে
 ইসলামাবাদ, ১৮ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): কাশ্মীর ইস্যুতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পাকিস্তান। এব্যাপারে কাউকেই পাশে পায়নি ইমরান খানের দেশ। এমনকী আন্তর্জাতিক মঞ্চেও অভিযোগ জানিয়ে কোনও লাভ হয়নি। তাই এবার কাশ্মীর ইস্যুকে গায়ের জোরে আন্তর্জাতিক মঞ্চে পেশ করতে চায় পাকিস্তান। ...

নয়াদিল্লি, ১৮ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): উৎসবের মরশুমে সুখবর। বুধবার রেলকর্মীদের জন্য ৭৮ দিনের উৎপাদনভিত্তিক বোনাস ঘোষণা করল কেন্দ্র। এদিন মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর সাংবাদিক বৈঠক করেন প্রকাশ জাভরেকর ও নির্মলা সীতারামন।  ...

 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

 সংবাদদাতা, উলুবেড়িয়া: নিজের কর্মস্থলে যেসব জিনিস নিয়ে হাতেকলমে কাজ করেন, সেইসব জিনিস দিয়ে বিশ্বকর্মা প্রতিমা বানানোর ইচ্ছা অনেকদিন থেকেই ছিল ফুলেশ্বরের বৈকুণ্ঠপুরের রথতলার বাসিন্দা সুনীল কুণ্ডুর। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ও মানসিক কষ্ট। দূর ভ্রমণের সুযোগ। অর্থপ্রাপ্তির যোগ। যেকোনও শুভকর্মের বাধাবিঘ্ন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯১৯- অভিনেতা জহর রায়ের জন্ম
১৯২১- সাহিত্যিক বিমল করের জন্ম
১৯২৪- গায়িকা সুচিত্রা মিত্রের জন্ম
১৯৬৫- মহাকাশচারী সুনীতা উইলিয়ামসের জন্ম
 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৬৪ টাকা ৭২.৩৪ টাকা
পাউন্ড ৮৭.৭০ টাকা ৯০.৯০ টাকা
ইউরো ৭৭.৬৩ টাকা ৮০.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
18th  September, 2019

দিন পঞ্জিকা

২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পঞ্চমী ৩৪/৫৭ সন্ধ্যা ৭/২৭। ভরণী ৮/১৩ দিবা ৮/৪৫। সূ উ ৫/২৭/৪৭, অ ৫/৩৩/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ১/৩০ গতে ৩/৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/১৯ গতে ৯/৩০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৫২ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ২/৩১ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৩১ গতে ১২/৫৯ মধ্যে। 
১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পঞ্চমী ২৬/১২/৩৯ দিবা ৩/৫৬/৩৩। ভরণী ৩/৩৯/২৫ দিবা ৫/৫৫/১৫, সূ উ ৫/২৭/২৯, অ ৫/৩৫/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৭ মধ্যে ও ১/২২ গতে ২/৫৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৬ গতে ৯/২২ মধ্যে ও ১১/৪৯ গতে ৩/৬ মধ্যে ও ৩/৫৫ গতে ৫/২৮ মধ্যে, বারবেলা ৪/৪/২৯ গতে ৫/৩৫/২৯ মধ্যে, কালবেলা ২/৩৩/২৯ গতে ৪/৪/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৩১/২৯ গতে ১/০/২৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৯ মহরম 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বারুইপুরে পুলিস নিগ্রহের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৮ 

11:56:59 AM

সোনারপুরের কালিকাপুর রামকমল স্কুলে ভাঙচুর এবং চুরির ঘটনায় ধৃত ৬ যুবক 

11:55:00 AM

আলিপুরদুয়ারে পূর্ণবয়স্ক হাতির মৃত্যু 
বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের উত্তর রায়ডাক রেঞ্জের কার্তিকার জঙ্গলে একটি পূর্ণবয়স্ক ...বিশদ

11:52:00 AM

কালনায় খাদির উদ্যোগে মসলিন বস্ত্র উৎপাদন সেন্টার পরিদর্শন করলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ 

11:45:00 AM

দুর্গাপুরে লরির ধাক্কায় জখম ৭
 

দুর্গাপুর ব্যারেজের কাছে লরির ধাক্কায় জখম হলেন সাতজন। দুর্ঘটনার পর ...বিশদ

11:43:00 AM

আজ দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক মমতার
আজ দুপুর দেড়টায় দিল্লির নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দপ্তরে অমিত শাহের ...বিশদ

11:40:49 AM