রবিবার | রেসিপি | আমরা মেয়েরা | দিনপঞ্জিকা | শেয়ার | রঙ্গভূমি | সিনেমা | নানারকম | টিভি | পাত্র-পাত্রী | জমি-বাড়ি | ম্যাগাজিন

জি বাংলায় শুরু হল
অন্য স্বাদের ধারাবাহিক ছদ্মবেশী

মূল চরিত্র হল সুন্দরলাল। তাকে ঘিরেই গল্পে আসবে নানা মোচড়। ‘লার্জার দ্যান লাইফ’
চরিত্র, যা মেগার ক্ষেত্রে আগে দেখা যায়নি। এছাড়া রয়েছে ছোট টুকটুক।

জি বাংলায় শুরু হল অন্য স্বাদের নতুন ধারাবাহিক ‘ছদ্মবেশী’। না, এ ছদ্মবেশী উত্তম-মাধবীর সেই ক্লাসিক ছবি নয়। এই ছদ্মবেশী শোনাবে যমজ ভাইয়ের গল্প। ঘটনার দূর্বিপাকে হারিয়ে যাওয়া দুই ভাই। মানুষ হয় দুই বিপরীত সামাজিক পরিবেশে, দু’টি ভিন্ন শহরে।
অমিতের জন্ম, বেড়ে ওঠা এই শহরে। আর সুন্দরলাল মানুষ হয় লখনউতে। দুই যমজ ভাই, ছোটবেলার হারিয়ে যাওয়া— এ তো পরিচিত প্লট। একে একে চোখের সামনে ভেসে ওঠে ‘রাম অউর শাম’, ‘কিষেণ কানহাইয়া’, ‘গোপী কিষেণ’ ‘রাউডি রাঠোর’-এর নানা দৃশ্য। তাহলে কী এইসব ছবির দ্বারা প্রভাবিত এই মেগা সিরিয়ালের কাহিনি? ‘খানিকটা তো মিল পাওয়া যাবেই। তবে ট্রিটমেন্টের দিক থেকে একদমই আলাদা এই মেগা। এই ধারাবাহিকে প্রচুর অ্যাকশন সিকোয়েন্স থাকছে। এছাড়া সুন্দরলালের ক্যারেক্টারকে কেন্দ্র করে প্রচুর মজাও থাকছে। এককথায় ফ্যামিলি ড্রামার পাশাপাশি থাকছে প্রচুর অ্যাকশন আর দেদার মজা। সবমিলিয়ে টোটাল এন্টারটেনমেন্ট,’ জানালেন কার্যনির্বাহী প্রযোজক পরিচালক সুশান্ত।
শহরের সম্ভ্রান্ত, শিক্ষিত পরিবার হল রায় পরিবার। রায়বাড়ির ছোট ছেলে অমিত পেশায় একজন সৎ পুলিশ অফিসার। কাজের ব্যস্ততায় স্ত্রী লাবণ্য এবং মেয়ে টুকটুককে সময় দিতে পারে না সে। তার জন্য অমিতের কোনও হেলদোল নেই। তার কাছে কর্তব্যই শেষ কথা। কঠোর স্বভাবের এই স্বামীকে নিজের মতো করে মানিয়ে নিয়েছে লাবণ্য। সে এই একান্নবর্তী পরিবারের সমস্ত দায়িত্ব নিজে কাঁধে তুলে নিয়েছে। শ্বশুর-শাশুড়ি তাকে যথেষ্ট স্নেহ করেন। ভাসুর-জা’দের সঙ্গেও তার মধুর সম্পর্ক।
অপরদিকে সুন্দরলাল স্বভাবে বেশ মজাদার। পেশায় সে ট্যুরিস্ট গাইড। লখনউতে অমিত, লাবণ্য আর টুকটুক বেড়াতে যায়। সেখানেই সুন্দরলালের সঙ্গে তাদের পরিচয়। তারপর ঘটে যায় একটা সাংঘাতিক দুর্ঘটনা। যার ফলে রায় পরিবারের বর্তমান-ভবিষ্যৎ, সবকিছুই বদলে যায়।
হঠাৎ করে নায়কের নাম অমিত রায় আর নায়িকার নাম লাবণ্য কেন? ‘শেষের কবিতা’র সঙ্গে কোনও যোগসুত্র? হা-হা করে হেসে ওঠেন পরিচালক পীযুষ। জানালেন,‘আসলে এই নাম দুটোর মধ্যে ভীষণভাবে একটা বাঙালিয়ানা আছে। দর্শকরা অতি সহজেই নামের মধ্যে দিয়ে চরিত্রের কাছাকাছি পৌঁছে যেতে পারবেন। ভীষণই ঘরোয়া নাম, তাই দর্শকরা সহজেই একাত্ম হতে পারবেন।’
ধারাবাহিকটি দেখা যাচ্ছে প্রতি সোম-শনি, রাত সাড়ে ন’টার স্লটে। এতদিন এই স্লটে জি বাংলার দর্শকরা রিয়ালিটি শো দেখতে অভ্যস্ত ছিল। সেই স্লটে ধারাবাহিক দেখানোর মানে আলাদা চাপ বা টেনশন তৈরি হওয়া নয় কী? পীযুষ জানালেন, ‘একটা চাপ থাকলেও এই বিশ্বাসটাও আছে যে এই ধারাবাহিক দেখে দর্শক আনন্দ পাবেন। কারণ এতদিন যা দেখা গেছে, তার বাইরে গিয়ে ছদ্মবেশী অন্যরকম গল্প বলছে। যে কারণে আমরা সবাই আশাবাদী।’
একদিকে লখনউর এক ট্যুরিস্ট গাইড, অন্যদিকে কঠোর পুলিশ অফিসার। ডাবল রোলে অভিনয় করছেন রাজা গোস্বামী। ‘ভালোবাসা ডট কম’ এবং ‘কোজাগোরী’র পর ‘ছদ্মবেশী’তে তিনি একেবারে অন্যরকম দু’টি চরিত্রে। কেমন অভিজ্ঞতা জানতে চাইলে নায়ক জানালেন, ‘আমার কাছে সুন্দরলাল অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং। লখনউয়ে অনেকটা শ্যুটিং হয়েছে। ওখানে থাকার সময় আমি মাঝে মাঝে রাস্তায় বেরিয়ে পড়তাম। ওরা কীভাবে কথা বলে, ওদের বডি ল্যাঙ্গুয়েজ—সবকিছু ভালো করে লক্ষ করতাম। সেগুলোই অভিনয়ের সময় অ্যাপ্লাই করতাম। পাশাপাশি অমিত রায়ও চ্যালেঞ্জিং চরিত্র। একসঙ্গে দু’টি ভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করাটা বেশ পরিশ্রমের। তবে আমার ভালো লাগছে।’
নায়িকা লাবণ্যের চরিত্রে দেখা যাচ্ছে—নতুন মুখ প্রিয়াংকা মিত্রকে। নাচ নিয়ে গ্রাজুয়েশন করছেন। তিনি বললেন,‘আমার পোর্টফোলিও দেখে সুশান্তদা সিলেক্ট করেন। প্রথমেই মূল চরিত্রে সুযোগ পেয়ে আমি খুবই খুশি। এতসব নামীদামি শিল্পীর সঙ্গে প্রথম কাজ করার অভিজ্ঞতাই আলাদা। প্রত্যেকে আমাকে ভীষণ সাহায্য করছেন। অনেক কিছু শিখছি, জানছি। আশা রাখছি দর্শকরা লাবণ্যকে ভালোবাসবেন।’
ধারাবাহিকের মূল চরিত্র হল সুন্দরলাল। তাকে ঘিরেই গল্পে আসবে নানা মোচড়। ‘লার্জার দ্যান লাইফ’ চরিত্র, যা মেগার ক্ষেত্রে আগে দেখা যায়নি। এছাড়া রয়েছে ছোট টুকটুক। যে চরিত্রে অভিনয় করছে নার্সারির ছাত্রী অ্যাঞ্জেলিনা। এছাড়া রয়েছেন কল্যাণী মণ্ডল, জয়ন্ত বন্দ্যোপাধ্যায়, মঞ্জুশ্রী, অনিন্দ্য এবং সৌরভ। এনটি ওয়ান স্টুডিওতে জোর কদমে চলছে শ্যুটিং। সেট কভারেজ এসে যেটা জানা গেল, তাতে মনে হল ‘ছদ্মবেশী’ অনেক কারণেই আলাদা হতে চলেছে। সেই কারণগুলোকেই তুলে ধরা যাক। প্রথমত, এই প্রথম কোনও ধারাবাহিকের অনেকটা পর্ব লখনউতে শ্যুটিং হল। যা দর্শকদের কাছে উপরি পাওনা। দ্বিতীয়ত, দ্বৈত চরিত্রের মজাটাকে ভালোমতো ব্যবহার করা হয়েছে। তৃতীয়ত, শাশুড়ি-বউমা দ্বৈরথ বা ফ্যামিলি ড্রামার পরিবর্তে রয়েছে প্রেম, মজা আর অ্যাকশন। অ্যাকশন দৃশ্যের জন্য মাদ্রাজ থেকে আনা হয়েছে ফাইট মাস্টার। আর শেষে এই ধারাবাহিকের গল্প মহিলাদের পাশাপাশি সম্ভবত পুরুষদেরও আকর্ষণ করবে।

অজয় মুখোপাধ্যায়             
ছবি- দীপেশ মুখোপাধ্যায়    

সিনেমা চ্যানেলে নন-ফিকশন

সিনেমার পাশাপাশি জি বাংলা সিনেমা এবার নন ফিকশন অনুষ্ঠানও আনতে চলেছে। খুব শীঘ্রই ‘ভূতের আড্ডা’ আর ‘অসময়ের গল্প’ নামে দুটি সাপ্তাহিক শো শুরু হবে। এই দুই শো-এর ভাবনা ও পরিকল্পনায় নাট্যপরিচালক ভর্গোনাথ ভট্টাচার্যের। প্রযোজক মনীশ চক্রবর্তী চ্যানেল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে দুটি স্লট নিয়েছেন। একটি শুক্রবার সকালে, অন্যটি রবিবার সকালে। এই দুই স্লটেই নতুন শো-দুটি আসছে।
কলকাতা শহরে বেশ কিছু পুরনো বাড়ি আছে যেগুলি লোকমুখে ভূতের বাড়ি বা ভূতের অঞ্চল বলে পরিচিতি লাভ করেছে। এর মধ্যে উল্লেখ্য ক্লাইভ হাউস, হেস্টিংস হাউস, আকাশবাণী ভবন ইত্যাদি। এমনই বেশ কিছু বাড়ি ও অঞ্চলের নানা গল্প নিয়ে ভূতের আড্ডা। পরিচালক ভর্গোনাথ ভট্টাচার্য জানালেন, একজন গল্পকার এই সব ভূতুড়ে বাড়ি বা অঞ্চলের গল্প বলবেন। এইসব স্থানকে কেন্দ্র করে যেসব ভৌতিক কাহিনি লোকমুখে ফেরে সেসব গল্পের অংশবিশেষ অভিনীত হবে’। আধ ঘণ্টার স্লটের ১৬ মিনিট নন-ফিকশন আর বাকিটা ফিকশন। মূলত টেলিভিশন আর নাট্যজগতের পরিচিত শিল্পীরাই অভিনয়ে অংশ নেবেন। সঞ্চালনা করবেন ভর্গোনাথ নিজেই।
এবার আসা যাক দ্বিতীয়টির প্রসঙ্গে। তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়, বিমল কর, সুবোধ ঘোষ সহ বেশ কিছু সাহিত্যিকের ছোট গল্প নিয়ে তৈরি হচ্ছে অসময়ের গল্প। এখানেও সঞ্চালক গল্পগুলি বলবেন,ফাঁকে ফাঁকে থাকবে অভিনয়ের অংশ। এই শো-এ কথকের ভূমিকায় থাকছেন সৌমিত্র বসু, ঋতাদত্ত চক্রবর্তী, বিজয়লক্ষ্মী বর্মণ প্রমুখ।
দুটি শো-এর প্রচার সময় নির্ধারিত না হলেও ভর্গোনাথ জানালেন ভূতের আড্ডা দেখা যাবে রবিবার আর অসময়ের গল্প শুক্রবার। শো দুটির সুরকার রাণা সরকার। ভূতের আড্ডার টাইটেল ট্র্যাক গেয়েছেন অমিত কালী এবং অসমগের গল্প-র গায়িকা ইরিনা রায়। শো-এর কনসেপ্ট চ্যানেলে বেশ পছন্দ হয়েছে বলে জানালেন ‘যারা রোদ্দুরে ভিজেছিল’ ছবির পরিচালক ভর্গোনাথ।

মানসী নাথ

রাঁধুনি

(আকাশ ৮, ভারতীয় সময়: বিকাল ৫ -০০)

রাঁধুনি রান্নাঘরে বদলের হাওয়া। ফরম্যাট বদলে নতুন সাজে সাজতে চলেছে রাঁধুনি। এই সপ্তাহ থেকে হাতা খুন্তি নিয়ে আসরে হাজির হচ্ছেন সঞ্চালিকা চয়নিকা। ভোজনরসিক বাঙালিদের রসনাতৃপ্তিতে আকাশ আটের পর্দায় রাঁধুনি— বিকেল পাঁচটায় এই রান্নার শোটি বেশ অন্যরকম। থোড় বড়ি খাড়া, আর খাড়া বড়ি থোড়— একঘেয়ে রেসিপির বাইরে একটু ভিন্ন স্বাদের মুখরোচক খাবারের সন্ধান দেয় রাঁধুনি।
রোজের মেনুতে কি রান্না করব ভেবে আকুল হন গিন্নিরা। ছোট থেকে বড়-পরিবারের সবার মন জুগিয়ে রেসিপি নির্বাচন সহজ নয় মটেও। তাই হাতা খুন্তি নিয়ে আসরে হাজির রাঁধুনিরা। আকাশ আটের পর্দায় তাঁরা অন স্ক্রিন শেয়ার করেন নানা রেসিপি। দেশি বা ভিনদেশি, সহজ রান্না হোক বা বেশ কঠিন, পুরনো দিনের হারিয়ে যাওয়া সনাতনী রান্নাগুলিকেও তুলে ধরা হয় এই শো-এ। তবে আধুনিক, কন্টিনেন্টালের দিকে ঝোঁক বেশি এই জেনারেশনের। সময়ের সঙ্গে সঙ্গেই বদলে গিয়েছে খাদ্যাভ্যাস। বাড়ির রান্না মুখে রোচে না, বাইরের চটজলদি খাবারেই মন ভরে তাঁদের। আবার ছোটদের খাবার নিয়েও হাজার ঝক্কি। এতসব চিন্তার ভার নিয়ে রাঁধুনির আসর জমে ওঠে নানা গন্ধে, স্বাদের রান্নায়।
শেফ শর্মিষ্ঠা দে, রঞ্জন নিয়োগী যেমন শেখান দেশ-বিদেশের জিভে জল আনা সুখাদ্য, তেমন গৃহবধূরাও টিভির পর্দায় হাজির হন নিজেদের রান্নার ঝাঁপি থেকে বিশেষ কিছু রান্নার বাহার নিয়ে। সবমিলিয়ে জমে ওঠে রান্না।
সপ্তাহান্তে রাঁধতে এবং অবশ্যই আড্ডা দিতে আসেন সেলেবরা। গল্পে, গানে, আড্ডায় তেল-হলুদের গন্ধে মাখা বিকেলগুলোও সুরভিত হয়ে ওঠে। দর্শকরা দূর থেকেই সেই আঘ্রাণ নেন, প্রিয়জনের মন ভরাতে, কিছুটা চমক দিতে খাতার পাতায় কলমের আঁচড়ে লিখে নেন রেসিপি। গত সপ্তাহে সোমবার রাঁধুনি দিলারা পারভিন রিক্তা শেখান আলুর জিলিপি এবং মাটন কালা ভুনা, মঙ্গলবারের মেনু চিলি কর্ন শেখান সেলিব্রিটি শেফ রঞ্জন নিয়োগী, বুধবার দেবলীনা জানা এবং সাধনা জানা রান্না করেন ছানার ক্রকেট এবং ডিম সর্ষে, বৃহস্পতিবার শেফ শর্মিষ্ঠা দে শেখান রেনবো ফ্রিতাতা এবং চকোলাভা কেক। শুক্রবার রাঁধুনিতে রেসিপি শেয়ার করেন ইতিকা পোদ্দার— তিনি দেখান চিংড়ি পটলের টক ভাজা। শনিবারের সেলেব শোতে অভিনেতা রাজীব বসু দর্শকদের জন্য তাঁর পছন্দের একটি রেসিপি রান্না করে দেখান— পেপার পাস্তা ইন মাশরুমি গ্রেভি। এতদিন এই শো-এর সঞ্চালনা করেছেন রূপসা। তিনিও রন্ধন পটিয়সী। ফলে রাঁধুনিদের সঙ্গে যোগ্য সঙ্গত কয়েছেন।
ভিন্ন স্বাদের রাঁধুনি যেমন রসনাতৃপ্তিদায়ক, স্বাদবাহারি রেসিপি দেখায়, তেমন মাথায় রাখা উচিত এখন মানুষের শরীরের কথা ভেবে বদলাতে হয় ডায়েট চার্ট। সেখানে কমবেশি প্রায় সব রান্নাতেই তেল-ঘি-চিজ-মশলার যথেচ্ছ ব্যবহার রোজের জন্য কতটা স্বাস্থ্যসম্মত? ভালো রান্না মানেই কি কাজু-কিসমিস বাটা আর ফ্লেশ ক্রিম? শেফরাও একটু ভেবে দেখবেন। রান্না শেষে টিপসগুলি যতটা কাজের, ততটাই জরুরি ডায়েট মেনে চলা। সেইদিকেও একটু সজাগ থাকা দরকার।

দিল কেয়া করে- ভ্যালেন্টাইনস ডে স্পেশাল অনুষ্ঠান

(স্টার প্লাস, রবিবার, রাত ৯-০০)

ভ্যালেন্টাইনস ডের ঠিক আগে রবিবার রাতে স্টারপ্লাসের এমন একটি ধামাকাদার অনুষ্ঠান ভালোবাসার দিনটিকে আগাম উদযাপন করল। রাত ৯ টায় ‘দিল কেয়া করে’ সত্যিই নাচ, গানে জমজমাট জলসা উপহার দিল।
স্টার নিয়েই তো স্টারের শো। তাই এমন একটি জমজমাট শো-আর সেখানে স্টারেদের ঝলকানি থাকবে না তা হয়? সস্ত্রীক অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান থেকে সলমন খান, রণবীর সিং, রণবীর কাপুর, বরুণ ধাওয়ান, আলিয়া ভাট, দীপিকা পাড়ুকোন, রেখা, অক্ষয়কুমার, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ, শ্রদ্ধা কাপুর, শাহিদ কাপুর নামের তালিকা বেশ লম্বা। বলিউড স্টারেরা ছাড়াও এই আসর জমাতে উপস্থিত ছিলেন স্টার পরিবারের অনেকেই। স্টার প্লাসের ধারাবাহিকের নামী-দামি খুব যে সব তারকারা, তাঁদেরকেও এই মঞ্চে ধামাকেদার পারফরমেন্স করতে দেখা গেল।
ভ্যালেন্টাইনস ডে-স্পেশাল শো, ফলে নাচে, গানে সবেতেই ভালোবাসার ছোঁয়া। তাই দেখা গেল বেশ কিছু ইলেকট্রিক পারফরমেন্স। এই রেশকে আরও অনেকটাই উসকে দিলেন রণবীর সিং। দীপিকা পাড়ুকোনকে উদ্দেশ্য করে তাঁরা আগাগোড়া বিভিন্ন ইশারা নজর কাড়ে সবার।
ভালোবাসায় ভরা, প্রেমের জোয়ারে ভাসা এমন একটি শো যখন তখন বলাই বাহুল্য অসাধারণ কিছু ডান্স আইটেম এ রাতের সেরা আকর্ষন। শাহরুখ খান, রণবীর সিং, জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ, আলিয়া ভাট, শ্রদ্ধা ভাটের মতই ইয়ে রিস্তা কেয়া কহলাতা হ্যায়— এর কার্তিক-নায়রা (মহসিন-শিবাঙ্গী), সাথ নিভানা সাথিয়া-র গোপী-অহম (দেবলীনা-মহম্মদ নাজিম), ইয়ে হ্যায় মহব্বতে খ্যাত করণ ত্রিপাঠী-দিব্যাষ্কার (রমন-ইশিকা) লাভ ইস আ ভেস্ট অব টাইম, মহব্বত বরষা দেনা তু ইত্যাদি গানের সঙ্গে ডান্স, ইলেকট্রিক পারফরমেন্স অনুষ্ঠানের সুর বেঁধে দেয়।
ভ্যালেন্টাইন্স ডে-র ঠিক আগে এমন অনুষ্টানে স্টাইল-আইকন হয়ে ওঠার সুযোগ ছাড়াতে চান না কেউই। বি টাউনের কিং- কুইনরাও একে অপরকে টেক্কা দিতে হাজির ছিলেন। বি টাউনের নায়িকাদের মধ্যে যেমন এই আসরে উপস্থিত ছিলেন গ্ল্যাম কুইন রেখা, জয়া বচ্চন, তেমনই দীপিকা পাড়ুকোন, সোনম কাপুর, বিপাশা বসু, আলিয়া ভাট, শ্রদ্ধা কাপুর থেকে নায়কদের মধ্যে শাহরুখ, অক্ষয়, শাহিদ কিংবা বরুণ ধাওয়ান-কাকে ছেড়ে কার স্টাইল দেখবেন দর্শক। সব মিলিয়ে স্টারের দিল কেয়া করে— ভ্যালেন্টাইনস স্পেশাল অনুষ্ঠান এককথায় রবিবারের রাতে ফ্যাশন, গ্লামারের ঝলকানিতেই ভালোবাসার দিনটিকে আগাম আবাহন জানাল।

শেরী ঘোষ

 




?Copyright Bartaman Pvt Ltd. All rights reserved
6, J.B.S. Haldane Avenue, Kolkata 700 105
 
Editor: Subha Dutta