রবিবার | রেসিপি | আমরা মেয়েরা | দিনপঞ্জিকা | শেয়ার | রঙ্গভূমি | সিনেমা | নানারকম | টিভি | পাত্র-পাত্রী | জমি-বাড়ি | ম্যাগাজিন


মৌরলা মাছের শুক্তো
উপকরণ: মৌরলা মাছ ৫০ গ্রাম, বেগুন ৩৫০ গ্রাম (ছোট করে কাটা), কাঁচকলা ১ টি, শিম ২০০ গ্রাম, রাঙা আলু ২০০ গ্রাম, সরষের তেল ১০০ গ্রাম, হলুদ ২ চামচ (চা), সরষে বাটা ৩০ গ্রাম, ঘি সামান্য, আদাবাটা ২ চামচ, মেথি ফোড়নের জন্য।
পদ্ধতি: মাছ কেটে খুব ভালো করে ধুয়ে নুন, হলুদ মাখিয়ে রাখুন। সব সবজি ভালো করে ধুয়ে লম্বা করে কেটে নিন। কড়াতে তেলে মাছ ভেজে তুলুন। তেলে মেথি ফোড়ন দিন। সবজি ঢেলে কষিয়ে নিন। সামান্য জল মেশান। সেদ্ধ হলে মাছ দিন। আদাবাটা ও সরষে বাটা জলে গুলিয়ে মেশান। ভালো করে ফোটান। ঘি দিয়ে নামান।
মটর ডালের বড়ার বাহারি শুক্তো
উপকরণ: মটর ডাল বাটা ১০০ গ্রাম, সরষের তেল, আলু ১টি, বেগুন ১টি, পটল ৬-৭টি, থোড় ৭-৮ টুকরো, কাঁচকলা ১টি, শিম ৫-৬টি, সজনে ডাঁটা ১ কাপ, পেঁপে ১০ টুকরো, শুকনো লংকা ২টি, তেজপাতা ১টি, পাঁচফোড়ন সামান্য, সরষে-পোস্তবাটা ২ টেবিল চামচ, নিনি, নুন, সামান্য ঘি, আদাবাটা ১ চামচ।
পদ্ধতি: মটরডাল সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে বেঁটে নুন, হলুদ মিশিয়ে বড়ার আকারে ভাজুন। এবার তেলে মেথি কালোজিরে ফোঁড়ন দিয়ে সব সবজি (লম্বা করে কাটা) ভেজে তুলুন। এখন শুকনোলংকা, তেজপাতা ফোড়ন, এর মধ্যে সরষে পোস্তবাটা, হলুদ, নুন মেশান। সামান্য জল দিন। সবজি দিন, বড়াগুলো মেশান। নামানোর আগে আদাবাটা, ঘি ছড়িয়ে নিন।
নিমপাতার বেগুনি শুক্তো
উপকরণ: নিমপাতা ১০-১২টা, বেগুন হাফ কাপ ছোট করে কাটা, আলু ১টি ছোট করে কাটা, কাঁচকলা ১টি, শিম ৪-৫টি, মুলো ১টি ছোট, সজনে ডাঁটা ১ কাপ (ছোট কাটা), বড়ি ৭-৮ টা, তেজপাতা ১টি, পাঁচফোড়ন ১চা চামচ, নুন সামান্য, তেল হাফ কাপ, সরষেবাটা ১ চা চামচ, হলুদ সামান্য, পেটা জিরে ১ চামচ।
পদ্ধতি: কড়াতে তেল দিয়ে বড়ি ভাজুন। তারপর তেলে সবজি দিন। ভাজা হলে জল, সরষেবাটা, হলুদ, আদাবাটা দিন। ফুটলে ভাজা বড়ি দিন। খানিক পর নামিয়ে নিন। কড়াতে তেলে নিমপাতা ভেজে নিন। ওর মধ্যে তেজপাতা, পাঁচফোড়ন দিন। এর মধ্যে ঝোলসুদ্ধ তরকারি দিন। ফুটে গেলে সবজি সেদ্ধ হলে নামান। এবার হাতায় তেল দিয়ে সিমে দিন। ভাজা হলে ঝোলের মধ্যে দিয়ে ঢেকে রাখুন।
হিংচে পেঁপের শুক্তো
উপকরণ: হিংচে শাক ১ আঁটি, পেঁপে ১টি (ছোট), কাঁচকলা ১টি, থানকুনি পাতা ৪/৫ টি, আদা ১ টুকরো, হলুদ ১ চামচ, সরষে (ফোড়ন), তেল ১ কাপ, নুন আন্দাজমতো, চিনি আন্দাজমতো।
পদ্ধতি: হিংচে শাক, থানকুনি পাতা কেটে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। পেঁপে ও কাঁচকলার খোসা ছাড়িয়ে সরু করে কাটুন। আদা খুব সরু করে কেটে নিন। তেলে সরষে ফোড়ন দিন। এবার আদাকুচি দিয়ে নাড়ুন। কাঁচকলা পেঁপে দিয়ে নাড়ুন। হিংচে শাক, থানকুনি পাতা দিয়ে সামান্য হলুদ, নুন দিন। সামান্য জল দিয়ে ঢাকা দিন। অল্প চিনি দিন। মাখা মাখা হলে নামান।
সজনে ডাঁটা দিয়ে শুক্তো
উপকরণ: আলু ১টি ছোট, বেগুন ৮-১০ টুকরো, শিউলিপাতা ২টি, সজনে ডাঁটা ৫টি, কাঁচকলা ১টি, আদাবাটা হাফ চা চামচ, ধনেবাটা হাফ চা চামচ, সরষেবাটা হাফ চা চামচ, মৌরিবাটা হাফ চা চামচ, বড়ি (ভাজা) ১০-১২ টি, হলুদ সামান্য, ঘি ১ চামচ, তেজপাতা ১/২টি, চিনি সামান্য, নুন সামান্য, সরষে অল্প, পাঁচফোড়ন ভাজাগুঁড়ো (১চামচ), তেল  কাপ।
পদ্ধতি: কড়াতে তেল গরম করে আলু, বেগুন ভাজুন। শিউলি পাতা দিন। ভেজে বাকি সবজি দিন। নাড়াচাড়া করে জল দিন। ফুটলে নুন, হলুদ, আদা, সরষে, মৌরিবাটা, মিষ্টি দিন। তেজপাতা ছাড়ুন। সবজি সেদ্ধ হলে বড়ি দিন। ঘি, সরষে, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো দিয়ে নামান।

অপর্ণা বসাক

শিম পোস্ত
শিম ২০০ গ্রাম, পোস্তবাটা ৫০ গ্রাম, কাঁচালংকা ৫টা, নুন স্বাদমতো, তেল পরিমাণ মতো, বেসন ৪ চা চামচ, চালের গুঁড়ো ২ চামচ, কালোজিরে  চা চামচ।
প্রণালী: শিম ধুয়ে অল্প জলে নুন দিয়ে ভাপিয়ে মাঝখানটা চিরে নিন, তাতে পোস্তবাটা, নুন দিয়ে মেখে পুর ভরুন। একটা পাত্রে বেসন, চালের গুঁড়ো, কালোজিরে, নুন গোটা পোস্তদানা দিয়ে একটা গোলা তৈরি করুন। শিমগুলো গোলায় ডুবিয়ে তেলে ভাজুন। এটা চায়ের সঙ্গেও খেতে ভালো আবার ভাতের পাতে ভাজা হিসাবেও খেতে ভালো লাগবে।
ভেটকি পিয়াজকলি পোস্ত
উপকরণ: ভেটকি ২টো (৫০০ গ্রাম), পিয়াজকলি  বাটি, পিয়াজবাটা ১টা, রশুনবাটা ৪ কোয়া, লাল লংকাবাটা ২টো, টকদই ১ চা চামচ, পোস্তবাটা ১ টেবিল চামচ, নুন স্বাদমতো, হলুদগুঁড়ো  চা চামচ, তেল পরিমাণমতো, লেবুর রস ১টা, ধনেপাতাকুচি ১ চামচ।
প্রণালী: মাছে নুন হলুদ, লেবুর রস মাখিয়ে আধঘন্টা ম্যারিনেট করুন। তেল গরম করে মাছ ভেজে নিন। পিয়াজকলি, রশুনবাটা, লংকাবাটা, পোস্তবাটা, নুন দিয়ে কষিয়ে নিন। টকদই, নুন ভেজে রাখা মাছ ও অল্প জল দিয়ে ফুটিয়ে নিন। মাখা মাখা হলে নামিয়ে নিন।
পনির পোস্ত
উপকরণ: পনির ২৫০ গ্রাম, টকদই ৫০ গ্রাম, পোস্ত ৫০ গ্রাম, মেথি  চা চামচ, শুকনো লংকা ৩টে, নুন, চিনি স্বাদমতো, তেল পরিমাণমতো।
প্রণালী: পনির কেটে গরম জলে ভিজিয়ে রাখুন। তেল গরম করে শুকনো লংকা, মেথি ফোড়ন দিন। পনির দিয়ে টকদই ফেটিয়ে নুন, পোস্তবাটা, চিনি দিয়ে জল দিন। ঝোল মাখা মাখা হলে নামিয়ে নিন।
পোস্ত মুরগি
উপকরণ: মুরগি ৭০০ গ্রাম, পিয়াজকুচি ২টো, রশুনবাটা চা চামচ, আদাবাটা ১ চা চামচ, কাঁচালংকা বাটা ১ চা চামচ, কাঁচালংকা ৩টে, পোস্তবাটা ১ টেবিল চামচ, নুন, চিনি স্বাদমতো, সাজিরেবাটা  চা চামচ, গরমমশলা ১ টেবিল চামচ, তেল পরিমাণমতো, ফ্রেশ ক্রিম ১ টেবিল চামচ, গোলমরিচ  চা চামচ।
প্রণালী: মুরগি ভালো করে ধুয়ে ফ্রেশ ক্রিম, গোলমরিচ গুঁড়ো, আদাবাটা, রশুনবাটা দিয়ে ১ ঘন্টা ম্যারিনেট করুন। কড়াইতে তেল দিয়ে পিয়াজ ভেজে নিন। ওই তেলে গোটা গরমমশলা ফোড়ন দিয়ে ম্যারিনেট করা মুরগি দিন। নুন, চিনি, পোস্তবাটা, সাজিরেবাটা ও অল্প জল দিয়ে ঢিমে আঁচে সেদ্ধ হতে দিন। সেদ্ধ হলে চেরা কাঁচালংকা ও ধনেপাতাকুচি ছড়িয়ে নামিয়ে নিন।

দেবারতি রায়

লাভ রুম রেস্তরাঁয় খাবারের নানা রূপ

রেস্তরাঁর নাম ‘লাভ রুম’। পেট কেয়ার রেস্তরাঁ এটি। কনসেপ্টটা অভিনব। এখানে আপনি পোষ্য নিয়ে খেতে যেতে পারেন অনায়াসে। এখানেই শেষ নয়। পোষ্যদের জন্য আছে নানারকম খাবার। অতএব অাপনার সঙ্গে বসে আপনার পোষ্যটিও দিব্য আহার সারতে পারবে। রেস্তরঁার কর্ণধারের কুকুর প্রীতি থেকেই এমন অভিনব রেস্তরাঁর সূচনা। তাঁর মতে পশু-পাখিদের বড্ড অযত্ন হয় আমাদের দেশে। কুকুর তো রীতিমতো ভীতিপ্রদ। এই ধারণাটাকে বদলানোর জন্য এই ধরনের একটা রেস্তরাঁ খোলার কথা প্রথম ভাবলাম। মূল উদ্দেশ্য ছিল এখানে খেতে এসেও যাতে ক্রেতারা পোষ্যদের নিয়ে মেতে থাকতে পারেন। রেস্তরঁার কনসেপ্টটা হিট করতে খুব একটা সময় লাগেনি। রেস্তরাঁর পরিবেশও তার কনসেপ্টের সঙ্গে মানানসই। খুব ক্যাজুয়াল একটা ডেকর রয়েছে লাভ রুমে। রেস্তরাঁ থেকে তিনটি রেসিপি সংকলনে কমলিনী চক্রবর্তী।

 

হারিসা গ্রিল্ড ফিশ
উপকরণ: বাসা মাছের ফিলে ১৫০ গ্রাম, হারিসা স্যস ২০ গ্রাম, লাল ও হলুদ ক্যাপসিকাম অর্ধেকটা করে, হলুদ জুকিনি অর্ধেকটা, রিচ ক্রিম ৩০ মিলি, মাখন ২০ গ্রাম, সামরিচ গুঁড়ো ১০ গ্রাম, অলিভ অয়েল ৫০ মিলি, নুন স্বাদমতো, আলুসেদ্ধ ১টা।
পদ্ধতি: আলুসেদ্ধটা মাখন, নুন ও সামরিচগুঁড়ো দিয়ে মেখে নিন। তাতে ক্রিম দিয়ে আরও ভালো করে মেশান। মাছে নুন, মরিচ, লেবুর রস, পিয়াজ ও আদার রস মাখিয়ে রেখে দিন। এরপর তা আভেনে দিয়ে গ্রিল করে নিন। দু’পিঠই গ্রিল করবেন। মাছে লালচে রং ধরলে তা আভেন থেকে নামিয়ে নিন। পাত্রে অলিভ অয়েল দিয়ে সবজিগুলো ভেজে নিন। সবজিতে রং ধরা পর্যন্ত ভাজবেন। একটা ডিনার প্লেটে প্রথমে আলুসেদ্ধ মাখাটা সাজান। তার ওপর গ্রিল করা মাছের পিসটা সাজান। তার ওপর ভাজা সবজিগুলো সাজিয়ে ওপর থেকে হারিসা স্যস ঢেলে দিন। খানিকক্ষণ ওই অবস্থায় রেখে তারপর পরিবেশন করুন।

পেট চিকেন স্টেক
উপকরণ: চিকেনের বোনলেস ব্রেস্ট পিস ১টা ফিলে, কড়াউশুঁটি ৩০ গ্রাম, ছোট গাজর ৬টা, বিনস ৬টা, ব্রকোলি ৫০ গ্রাম, চিকেন স্টক ১০০ মিলি, কুচিয়ে কাটা পার্সলে পাতা ৫ গ্রাম, গমের দানা ১০ গ্রাম, অলিভ অয়েল ২৫ মিলি।
পদ্ধতি: চিকেনের বোনলেস পিসটা গ্রিল করে নিন। সব সবজি একসঙ্গে ভাপিয়ে নিন। একটা প্যানে চিকেন স্টক ফোটান। তাতে গমের দানা দিন। পার্সলেও দিন। বেশ ঘন হয়ে উঠলে নামিয়ে নিন। চিকেন ও ভাপানো সবজির সঙ্গে পরিবেশন করুন এই স্যুপ।

মাইক্রো গ্রিন স্যালাড
উপকরণ: তিন ধরনের মাইক্রো গ্রিনস: মুলো শাক ১ আঁটি, বিটের শাক ১ আঁটি, সানফ্লাওয়ারের শাক ১ আঁটি। রোস্ট করা আমন্ড ২০ গ্রাম, চেরি টমেটো ৬-৭টা, পারমেশিয়ান চিজ ১৫ গ্রাম, নুন স্বাদমতো, গোলমরিচ প্রয়োজনমতো, এক্সট্রা ভারজিন অলিভ অয়েল ৫ মিলি, চার ধরনের লেটুস: রকেট লেটুস ১০টা পাতা, রোম্যান লেটুস ৪টে পাতা, লোলো রোসো লেটুস ২টো পাতা, আইসবার্গ লেটুস পাতা  অংশ।
পদ্ধতি: একটা পাত্রে অলিভ অয়েল নিন। এরপর শাকগুলোকে কুচিয়ে কেটে নিন। চাইলে একটু আস্তও রাখতে পারেন। তারপর তা তেলে মিশিয়ে নিন। নুন মেশান। লেটুসের পাতাগুলো আস্ত রাখবেন। এরপর একে একে আমন্ড ও চেরি টমেটো মেশান। সবশেষে চিজ ছড়িয়ে পরিবেশন করুন এই স্যালাড।
 





?Copyright Bartaman Pvt Ltd. All rights reserved
6, J.B.S. Haldane Avenue, Kolkata 700 105
 
Editor: Subha Dutta