কলকাতা, মঙ্গলবার ২৮ মার্চ ২০১৭, ১৪ চৈত্র ১৪২৩

রবিবার | রেসিপি | আমরা মেয়েরা | দিনপঞ্জিকা | শেয়ার | রঙ্গভূমি | সিনেমা | নানারকম | টিভি | পাত্র-পাত্রী | জমি-বাড় | ম্যাগাজিন


শ্রীনগরে বসন্ত। -পি টি আই

সময়ে আসছেন অফিসাররা  সরকারি অফিসে আমূল পরিবর্তন উত্তরপ্রদেশে
দেওয়ালে পানের পিক দেখলেই রেগে যাচ্ছেন
যোগী আদিত্যনাথ, পরিষ্কার করাচ্ছেন সঙ্গে সঙ্গেই

লখনউ, ২৭ মার্চ (পিটিআই): কসাইখানা বন্ধ এবং উগ্র হিন্দুত্ব নিয়ে বিতর্ক থাকলেও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের শাসনে পরিস্থিতি পালটেছে উত্তরপ্রদেশে। মাত্র এক সপ্তাহের শাসনকাল। এরইমধ্যে সরকারি দপ্তরের চেহারায় আমূল পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে। সময়মতো অফিসে আসছেন সরকারি অফিসাররা। দ্রুত কাজ শেষ করার চেষ্টাও করছেন। যোগী আদিত্যনাথের নির্দেশ, শিষ্টতা, সুস্বাস্থ্য এবং আইন-শৃঙ্খলা সরকার উপহার দিতে চায়।

মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেওয়ার পর প্রথম দিন থেকেই লাগাম টেনে ধরেছেন তিনি। তাঁর দপ্তর ঘুরে দেখছেন। কোথাও কোনও ময়লা থাকলে সংশ্লিষ্ট অফিসারদের রীতিমতো বকছেন। দপ্তরের এমন সব জায়গায় যাচ্ছেন, যেখানে গত ৪০ বছরে উত্তরপ্রদেশের কোনও মুখ্যমন্ত্রী যাননি। দেওয়ালে পানের পিক দেখলে রেগে উঠছেন। সঙ্গে সঙ্গে সেসব পরিষ্কারও করাচ্ছেন। দেওয়ালে পানের পিক বা থুতু ফেলা রুখতে সর্বত্র সিসিটিভি বসিয়েছেন। এই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ থেকে সরকারি অফিসারদেরই টিবি হতে পারে বলে মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই সরকারি দপ্তর সবার আগে পরিষ্কার করার নির্দেশ দিয়েছেন। যে কোনও দপ্তরে যখন তখন পৌঁছে যাচ্ছেন। আধিকারিকদের টেবিল ফাঁকা দেখলেই রীতিমতো চিৎকার করে উঠছেন। কেন ওই অফিসার সময়ে আসেননি, তার জবাবদিহি করতে হবেও বলে নির্দেশ দিয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ। মুখ্যমন্ত্রীর এই ‘সারপ্রাইজ’ সফরে রীতিমতো আতঙ্কিত অফিসাররা। কখন কার কপালে বিপদ ঝুলছে, তা কেউ বুঝতে পারছেন না। তাই বিপদ এড়াতে সকলেই সময়ে আসতে শুরু করেছেন। দীর্ঘদিনের অচলাবস্থা কাটায় বেশ খুশি সাধারণ মানুষ। শুধু পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকাই নয়, দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতেও সিদ্ধহস্ত যোগী আদিত্যনাথ। রাস্তার রোমিও দমন বাহিনী এবং অবৈধ কসাইখানা রুখতে তিনি বদ্ধপরিকর। শাসনব্যবস্থা নিয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা সঠিক পথে চলছে বলে খবর। সরকারি অফিসার বা মন্ত্রীদের নির্দেশ দিয়েছেন, কোনও কাজ ফেলে রাখা চলবে না। সরকারি ফাইল বাড়িতে নিয়ে যাওয়া যাবে না। সময়ের মধ্যে দপ্তরে বসেই কাজ শেষ করতে হবে। যদি না করা যায়, তাহলে কেন করা গেল না, তা লিখিতভাবে জানাতে হবে। মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, আগামী দু’মাসের মধ্যে পরিবেশ পরিবর্তন করতেই হবে। যাতে রাজ্যের মানুষ বুঝতে পারেন, হ্যাঁ, কিছু পরিবর্তন হয়েছে।

উত্তরপ্রদেশে বেআইনি কসাইখানা বন্ধের প্রতিবাদে
অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করলেন মাংস বিক্রেতারা

লখনউ, ২৭ মার্চ: উত্তরপ্রদেশ সরকারের বেআইনি কসাইখানা বন্ধের প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করলেন মাংস বিক্রেতারা। যদিও যোগী আদিত্যনাথ সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, শুধু মাত্র বেআইনি কসাইখানাগুলি বন্ধ করা হবে। বৈধ লাইসেন্সধারীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে না।

রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্ধার্থনাথ সিং বলেন, সরকারের তরফে মাংস অথবা ডিমের দোকান বন্ধের কোনও নোটিস জারি করা হয়নি। কিছু মানুষ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে গুজব ছড়াচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার বেআইনি কসাইখানাগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। কিন্তু বৈধ লাইসেন্স যাঁদের রয়েছে সেগুলি বন্ধ করা হবে না। ফলে যাঁদের বৈধ লাইসেন্স রয়েছে তাঁদের উচিত দোকান খোলা রাখা। বৈধ ব্যবসায়ীদের এই সিদ্ধান্তে ভয়ের কোনও কারণ নেই। যদিও বিরোধীদের অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ গোটা রাজ্যকে নিরামিষ খাওয়ানোর চেষ্টা করছে।

এদিকে বেআইনি কসাইখানা বন্ধের প্রতিবাদে ধর্মঘটের প্রথম দিন থেকেই মাংসের বাজারে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এদিন এলাহাবাদ, লখনউয়ের মতো শহরে মাংস পাওয়া যায়নি। সব মিলিয়ে মাংস বিক্রেতারা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হতে চলেছেন।

এদিকে মাছের দোকানগুলিতে ক্রেতাদের ভিড় বাড়ছে। মাছের দরও একলাফে অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। ক্রেতাদের ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ টাকা বেশি দিয়ে মাছ কিনতে হচ্ছে। ররিবার চিংড়ির দর প্রতি কেজিতে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকার মধ্যে থাকলেও সোমবার তা বেড়ে হয়েছে এক হাজার টাকার বেশি। লখনউয়ের মাংস বিক্রিতা সংগঠনের নেতা মুবিন কুরেশি বলেন, রাজ্যে আন্দোলন আরও জোরদার করা হবে। সব মাংসের দোকান বন্ধ থাকবে। তিনি দাবি করেন, এবার তাঁদের সঙ্গে মাছ বিক্রেতারাও যোগ দেবেন। সরকারের এই সিদ্ধান্তে রাজ্যে প্রায় কয়েক লক্ষ মানুষ বেকার হয়ে পড়েছেন। এছাড়াও কয়েক হাজার কোটি টাকার ব্যবসায়িক ক্ষতি হচ্ছে। এদিন লখনউয়ের বিখ্যাত কাবাবি ও রহিমের মতো মাংসের দোকানগুলি বন্ধ ছিল। অবৈধ কসাইখানার উপর নিষেধাজ্ঞা নেমে আসায় মহিষের কাবাবও আজ অমিল। এখন থেকে এই দোকানগুলিতে মুরগি ও পাঁঠার মাংস পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে।

ওসমানাবাদে বনধ পালিত হল
গায়কোয়াড়ের উপর থেকে বিমান সংস্থাগুলির নিষেধাজ্ঞা
প্রত্যাহারের দাবি লোকসভায় ইতিবাচক সাড়া পেল না

মুম্বই ও নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানকর্মীকে জুতো পেটার ঘটনায় অভিযুক্ত শিবসেনার এমপি রবীন্দ্র গায়কোয়াড়ের (৫৭) সমর্থকদের ডাকে সোমবার বিকাল চারটে পর্যন্ত বনধ পালিত হল ওসমানাবাদে। জেলায় শিবসেনার সহ-সভাপতি কমলাকর চ্যবন জানিয়েছেন, ‘আমাদের নেতাকে হেনস্তা করার প্রতিবাদে আমরা এই বনধ ডেকেছিলাম। এয়ার ইন্ডিয়া সহ দেশের প্রধান এয়ারলাইন্সগুলি গায়কোয়াড়কে কেন কালো তালিকাভুক্ত করল (প্লেনে চড়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা), তার বিরুদ্ধেই এই প্রতিবাদ। উনি কি জঙ্গি নাকি, যে কোনও বিমান সংস্থাই তাঁকে বিমানে চড়তে দেবে না? সংশ্লিষ্ট বিমানের বিমানসেবিকা তো বলেছেন, এমপি’র কোনও দোষ নেই।’ মঙ্গলবার ‘গুড়ি পারওয়া’ উৎসব থাকায় আজ বিকাল চারটে পর্যন্ত দোকানপাট বন্ধ রাখার জন্য ব্যবসায়ীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।’

কিন্তু, রবীন্দ্র গায়কোয়াড় এখন কোথায়? এমপি এই সম্পর্কে কিছু জানাতে অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমি এখন কোথায়, তা আপনাদের (মিডিয়াকে) বলব না। আমি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রয়েছি। পরিবারের সঙ্গেই গুড়ি পারওয়া উৎসব পালন করব। বুধবার সকালে আমি লোকসভায় যাব।’ সূত্রের খবর, মুম্বই যাওয়ার জন্য শুক্রবার হজরত নিজামুদ্দিন স্টেশন থেকে বিকাল ৪টে ৫০ মিনিটে আগস্ট ক্রান্তি এক্সপ্রেসে উঠেছেন গায়কোয়াড়। কিন্তু তিনি মুম্বই সেন্ট্রাল স্টেশনে নামেননি। শিবসেনা সূত্রে খবর, তিনি গুজরাতের ভাপি স্টেশনে নেমে গিয়েছেন।

এদিকে, গায়কোয়াড়ের উপর থেকে বিমানসংস্থাগুলির নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য লোকসভায় দাবি জানিয়েও সরকারের কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পেল না জোটসঙ্গী শিবসেনা। এই নিয়ে বিপক্ষ কংগ্রেস এমপিদের সঙ্গে বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন শিবসেনার সংসদ সদস্যরা। সংসদে শিবসেনার নেতা আনন্দরাও আদসুল এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য দাবি জানান। কিন্তু, তাতে সাড়া না দিয়ে অসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী পি অশোক গজপতি রাজু গায়কোয়াড়ের আচরণের নিন্দা করেন। গত ২৩ মার্চ ‘অল ইকনমি ক্লাস’-এর বিমানে পুনে থেকে দিল্লি আসেন গায়কোয়াড়। কিন্তু, বিজনেস ক্লাসে আসতে পারেননি বলে বিমান থেকে নামতে অস্বীকার করেন। এরপরই এয়ার ইন্ডিয়ার ডিউটি ম্যানেজারের (৬০) সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু করে দেন। তারপর তাঁকে কুড়ি ঘা জুতো মারেন। এই ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে গোটা দেশে জানাজানি হয়ে যায়। শিবসেনার প্রধান উদ্ধব থ্যাকারের প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় তাঁকে। এদিন লোকসভায় গজপতি রাজু বলেন, ‘কোনও এমপি যে এমন আচরণ করতে পারেন, আমার কল্পনাতেও তা ভাবতে পারি না।’ বিমান সংস্থাগুলি যা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা যাত্রীদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই করেছে। মন্ত্রী জানান, এমপি’রাও তো যাত্রী। তাই নিরাপত্তার বিষয়টি অগ্রাধিকার পাবেই। শিবসেনার এমপি’রা ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ দেখালে স্পিকার সুমিত্রা মহাজন তাঁদের সংযত হতে বলেন। তিনি মনে করিয়ে দেন, তাঁদের এই আচরণে ভুল বার্তা যাচ্ছে। এটা ঠিক হচ্ছে না। শিবসেনার এমপিরা অন্যায়কে সমর্থন করছেন। স্পিকারকে বলতে শোনা যায়, ‘আমাকে বেশি কিছু বলতে বাধ্য করবেন না।’

দিল্লিতে রাস্তায় নেমে বড় আন্দোলন করার ক্ষমতা নেই লাল পার্টির
লোকবল সামান্য, জাতীয় স্তরে তাই বিজেপি’র গেরুয়াকরণের
রাজনীতির বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েই দায় সারতে হচ্ছে সিপিএমকে

দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ: পর্যাপ্ত লোকবল নেই। আর তাই জাতীয় স্তরে বিজেপি’র গেরুয়াকরণের রাজনীতির বিরুদ্ধে যাবতীয় প্রতিবাদ এবং প্রচার-আন্দোলনকে আপাতত সংসদ এবং দলীয় বিবৃতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখতে হচ্ছে সিপিএম’কে। ইচ্ছা থাকলেও এখনই উল্লেখিত এজেন্ডায় জাতীয়স্তরে কোনও কর্মসূচি নিতে পারছেন না সীতারাম ইয়েচুরি-প্রকাশ কারাতেরা। ফলে সংসদের দুই কক্ষের দলীয় এমপি’দেরই একপ্রকার নির্দেশ দিয়ে বলা হয়েছে, আগামী ১২ এপ্রিল পর্যন্ত সংসদে বিজেপি বিরোধিতায় লক্ষ্যণীয়ভাবে সোচ্চার হতে হবে। যাতে লোকবলের অভাবে রাস্তায় সিপিএমের আন্দোলনের খামতি সেভাবে কারও চোখেই না পড়ে। একইসঙ্গে নারদ-কাণ্ডের মতো যেসব ‘আঞ্চলিক’ ইস্যুগুলি রয়েছে, সেগুলি নিয়ে সংশ্লিষ্ট রাজ্যেই প্রচার-আন্দোলনে আরও বেশি জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে দলীয় নেতৃত্বকে।

উল্লেখ্য, নারদ-কাণ্ডে হাইকোর্টের সিবিআই-রায়ের পরেই পশ্চিমবঙ্গে নিজেদের আসল বিরোধী রাজনৈতিক দল প্রমাণে মরিয়া হয়ে ঝাঁপিয়েছিল সিপিএম। শুধু তাই নয়, দলের সংসদীয় কার্যালয়ের এক মিটিংয়ে খোদ সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিই বঙ্গ এমপি’দের নির্দেশ দিয়ে জানিয়েছিলেন, নারদ-ইস্যু যেন তাঁদের কোনওমতেই হাতছাড়া না হয়। দলীয় সূত্রের খবর, রাজ্যে এই ইস্যুতে আন্দোলনের পাশাপাশিই বঙ্গ ব্রিগেড বিষয়টিকে নিয়ে জাতীয়স্তরেও আন্দোলন শুরু করার পক্ষে ছিল। এরই সঙ্গে বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের আঁতাতের মতো বহু পুরানো অভিযোগ এবং বিজেপি’র গেরুয়াকরণের রাজনীতিকেও একসারিতে নিয়ে এসে ওই আন্দোলনের পরিকল্পনা করেছিল রাজ্য নেতৃত্ব। কিন্তু নারদ এবং বিজেপি’র গেরুয়াকরণের প্রতিবাদে দিল্লিতে সড়কের বদলে সংসদেই বেশি সোচ্চার হওয়ার কথা তাদের জানিয়েছে সিপিএমের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। আর তার কারণ হিসেবে জাতীয়স্তরে দলের বেহাল সংগঠনকেই দায়ী করা হয়েছে।

দলের এক পলিটব্যুরো এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বলেন, বিজেপি’র গেরুয়াকরণের রাজনীতির প্রতিবাদই হোক কিংবা নারদা-সারদা-রোজভ্যালি, জাতীয়স্তরে আমরা কোনও আন্দোলনের পথে অন্তত এখনই হাঁটছি না। লোক কোথায় আমাদের? তাছাড়া এখন সংসদ চলছে তো। অধিবেশন চলাকালীন আবার আলাদা করে মিটিং-মিছিল আয়োজনের দরকার পড়ে নাকি? সংসদের দুই কক্ষের দলীয় এমপি’দেরই সরকার-বিরোধিতায় তুমুল সোচ্চার হতে বলা হয়েছে। এছাড়া আমরা নিয়মিতভাবে বিবৃতিও দিয়ে যাচ্ছি। বাস্তবিকই তাই। শুধুমাত্র গত সপ্তাহে বিজেপি’র উগ্র হিন্দুত্ববাদী মুখ যোগী আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে এখনও পর্যন্ত এই গেরুয়াকরণকে কেন্দ্র করে সিপিএম পলিটব্যুরো খান পাঁচেক বিবৃতি জারি করেছে। দলের সর্বভারতীয় মুখপত্রের সাম্প্রতিক সম্পাদকীয় নিবন্ধগুলিও লেখা হচ্ছে এই ইস্যুকে হাতিয়ার করেই। তবে কেবলমাত্র সিপিএম’ই নয়। এক্ষেত্রে কার্যত ইয়েচুরি-কারাতদেরই অনুসরণ করছে আরেক বামপন্থী দল সিপিআই’ও। দলের গত দু’দিনের ন্যাশনাল এগজিকিউটিভ বৈঠকের পর আজ জারি করা বিবৃতিতে বিজেপি’র গেরুয়াকরণের রাজনীতির কড়া সমালোচনা করা হয়েছে। কিন্তু রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার কথা সেভাবে বলাই হয়নি।

দিল্লি পুরসভা ভোটের আগে কেজরিওয়ালের
দলে ভাঙন, বিজেপিতে যোগ আপ বিধায়কের

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): আসন্ন দিল্লি পুরসভা ভোটের আগে বড়সড় ধাক্কা খেল আম আদমি পার্টি (আপ)। অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দলের বিধায়ক বেদ প্রকাশ এবার বিজেপিতে যোগ দিলেন। আপ সরকার বিধানসভা ভোটে যে সমস্ত প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটে এসেছিল তা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে বলে দল ছেড়েছেন বলে জানিয়ে দেন বেদ প্রকাশ। সোমবার তিনি দিল্লির বিজেপির পার্টি অফিসে যোগ দেন। তাঁর হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন দিল্লির বিজেপি সভাপতি মনোজ তেওয়ারি। বেদ প্রকাশ দাবি করেন, দিল্লির ৩০ থেকে ৩৫ জন আপ বিধায়ক দলীয় নেতৃত্বের কাজে খুশি নন। আপে ভাঙন ধরেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এখন শুধু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুৎসা করতেই ব্যস্ত রয়েছেন। অথচ দলীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে যে ক্ষোভ বাড়ছে তা নিয়ে তাঁর কোনও মাথাব্যথা নেই। তিনি বর্তমান আপ দলকে ল্যাপটপের সঙ্গে তুলনা করে বলেন, দলের সঙ্গে এখন আর নিচুস্তরের সম্পর্ক নেই। তখন আমি আপে যোগ দিয়েছিলেন এই কারণে হয়তো কিছু পরিবর্তন হবে। কিন্তু পরে নিজের ভুল বুঝতে পেরে দলত্যাগ করি। তবে তিনি পদের আশায় বিজেপিতে যোগ দেননি বলে দাবি করেন।

রাজ্য বিজেপি সভাপতি মনোজ তেওয়ারি বলেন, দিল্লিবাসী এখন বুঝতে পারছেন আপ সরকার তাঁদের সঙ্গে কীভাবে ‘প্রতারণা’ শুরু করেছে।

রাজস্থানে মহিলাকে পুড়িয়ে খুনের অভিযোগ গ্রামের মোড়লের বিরুদ্ধে

যোধপুর, ২৭ মার্চ: তাঁর খেত লাগোয়া রাস্তা চওড়া করার কাজে বাধা দিয়েছিলেন। সেজন্য ২৭ বছরের এক মহিলাকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল। অভিযোগের তির গ্রামের মোড়ল-সহ একদল গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে। শনিবার সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে যোধপুরের কাছে বোরুন্ডায়। গতকাল হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। তারপর ওই মহিলার ভাই গ্রামের মোড়ল ও তাঁর দলবলের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (যোধপুর গ্রামীণ) নরপত সিং রাঠোর বলেন, গ্রামবাসীরা পুলিশকে জানিয়েছেন, রাস্তা চওড়া করার কাজ চলার সময় ওই মহিলা হাতে কেরোসিনের ক্যান নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন। কেরোসিন ঢেলে তিনি নিজেই গায়ে আগুন দেন। আমরা বিষয়টির তদন্ত করছি। প্রশাসনিক কর্তা ও গ্রামবাসীদের উপস্থিতিতে শনিবার রাস্তা চওড়া করার কাজ চলছিল। সেই সময় তাঁর জমির গাছ কাটা নিয়ে আপত্তি করেন ওই মহিলা। সেই সময় ঘটনাস্থলে ছিলেন তাঁর ভাইও। ঘটনার পরই ওই মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে যোধপুরের সরকারি হাসপাতালে তাঁকে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানে গতকাল তিনি মারা যান। রাঠোর বলেন, বিষয়টির সংবেদনশীলতার কথা মাথায় রেখে আমরা অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছি।

কপিল শর্মাকে সতর্কবার্তা
শিবসেনা এমপি’র বিমানযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারির সম্ভাবনা

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ: বিমানের মধ্যে মদ্যপান করে অশোভন আচরণ রুখতে এবার তৎপর বিমান পরিবহণ সংস্থাগুলি। পরপর দু’টি ঘটনার পর এই সিদ্ধান্ত বাধ্যতামূলক বলে জানা গিয়েছে। বিশেষ করে কৌতুক অভিনেতা কপিল শর্মাকে সতর্ক করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে এয়ার ইন্ডিয়া। গত ১৬ মার্চ অস্ট্রেলিয়া-দিল্লির বিমানে রীতিমতো হুল্লোড় করে ছিলেন কপিল শর্মা। সহকর্মীদের গায়ে হাত তোলা এবং গালিগালাজ করার অভিযোগ উঠেছে কপিলের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে বিতর্কের মধ্যেই এয়ার ইন্ডিয়ার প্রধান অশ্বিনী লোহানি জানিয়েছে, বিস্তারিত রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই বিষয়টি চূড়ান্ত করে ওই অভিনেতাকে সতর্কবার্তা পাঠানো হবে।

কপিল শর্মাকে শুধুমাত্র সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়া হলেও শিবসেনার এমপি রবীন্দ্র গায়কোয়াড় নিয়ে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে এয়ার ইন্ডিয়া। জানা গিয়েছে, কয়েক মাস বা বছরের জন্য শিবসেনা এমপি’র বিমানযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারে কেন্দ্র। এদেশে প্রথম ‘নো-ফ্লাই লিস্ট’ তৈরির পরিকল্পনা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। অর্থাৎ বিমানযাত্রার সময় কোনওরকম বেআইনি কাজে লিপ্ত হলে বিমানযাত্রার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হবে। বিদেশে বিশেষ করে ব্রিটেন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই ধরনের তালিকা হামেশা তৈরি হয়। ৯/১১-র ঘটনার পর এবিষয়ে অত্যন্ত কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। যে সব ব্যক্তি সন্দেহের তালিকায়, তাঁদের বিমানযাত্রা রুখতেই এই পদক্ষেপ। এদেশে অবশ্য জঙ্গি মোকাবিলা নয়, মূলত বিমানের মধ্যে বেআইনি কাজ রুখতেই ‘নো-ফ্লাই লিস্ট’ তৈরির পথে কেন্দ্রীয় সরকার। বিমানযাত্রার সময় মদ্যপান, ধূমপান, পাইলটের নির্দেশ অমান্য, হুমকি দেওয়া, অশোভনীয় আচরণ, মহিলাদের সঙ্গে অশালীন আচারণ, অশ্লীল শব্দ ব্যবহার এবং হাতাহাতিতে জড়ানোর মতো অভিযোগ উঠলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ‘নো-ফ্লাই লিস্টে’ অন্তর্ভুক্ত হবেন। এই নিষেধাজ্ঞা কয়েক মাস বা কয়েক বছরের জন্য লাগু থাকতে পারে। গত সপ্তাহে দিল্লিতে এয়ার ইন্ডিয়ার এক কর্মীকে রীতিমতো জুতোপেটা করেছিলেন শিবসেনার এমপি রবীন্দ্র গায়কোয়াড়। এই ঘটনার পর ‘নো-ফ্লাই লিস্ট’ নিয়ে আরও বেশি নড়েচড়ে বসেছে মোদি সরকার।

শশীন্দ্রনের বিরুদ্ধে বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ কেরল সরকারের

তিরুবনন্তপুরম, ২৬ মার্চ: একদিন আগেই কেরলের পরিবহণমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন এ কে শশীন্দ্রন। এক মহিলাকে ফোনে অশালীন কথা বলার অভিযোগে। সোমবার তাঁর বিরুদ্ধে বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিল রাজ্যের এলডিএফ সরকার। এদিন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয় বলেন, শশীন্দ্রনের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে বিচারবিভাগীয় তদন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। কোন বিচারপতিকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হবে এবং তদন্তের অভিমুখ কী হবে, সেই সিদ্ধান্ত হবে বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে।

মহিলাকে ফোনে অশালীন কথা বলার টেপ টিভি চ্যানেলে ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর চাপ বেড়েছিল ৭২ বছরের এই বাম নেতার উপর। গতকাল তিনি মন্ত্রীপদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দেন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বিজয়ন বলেন, শশীন্দ্রন দায় স্বীকার করে ইস্তফা দেননি। অভিযোগটি ওঠার পর তিনি এবিষয়ে তদন্ত চেয়েছিলেন। তাঁর অবস্থান হল তদন্ত চলার মধ্যে নৈতিকভাবে মন্ত্রীপদে থাকাটা উচিত নয়। সাধারণ অবস্থায় প্রাথমিক তদন্তের পর তাঁর এধরনের একটি অবস্থান নেওয়া উচিত ছিল। কিন্তু নিজের অবস্থানে অনড় থেকে নৈতিকতার জায়গা থেকে ইস্তফা দিয়ে দেন। আমরা কোনও হস্তক্ষেপ করিনি এবং তাঁকে এই সিদ্ধান্ত থেকে নিবৃত্ত করার চেষ্টাও করিনি। শশীন্দ্রনের এই সিদ্ধান্তকে সমাজের সব স্তর থেকে স্বাগত জানানো হচ্ছে। তিনি যে কোনও ধরনের তদন্তের মুখোমুখি হতে রাজি ছিলেন। তাই বিচারবিভাগীয় তদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। এর আগে এদিন সকালে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন শশীন্দ্রন। কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে। বিজয়নকে তিনি বলেন, এই খবরের মধ্যে অস্বাভাবিক কিছু একটা রয়েছে। রাজ্যের ডিজিপি লোকনাথ বেহারা বলেন, এদিন সকালে এবিষয়ে সচিবালয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁরও।

ঘনিষ্ঠ শিল্পপতিদের স্বার্থে কাজ করছে কেন্দ্র, রাজ্যসভায় অভিযোগ বিরোধীদের

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): ঘনিষ্ঠ শিল্পপতিদের স্বার্থে কাজ করছে সরকার। আয়কর দপ্তরের হাতে প্রভূত ক্ষমতা দিয়ে ভীতির সৃষ্টি করছে। অর্থবিলের ধারার মাধ্যমে আধারের ব্যবহার বাড়িয়ে মানুষের জীবনে আড়ি পাতার চেষ্টা চালাচ্ছে। সোমবার সংসদে বিরোধী দলগুলির তরফে সরকারের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনা হল।

এদিন রাজ্যসভায় সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালায় কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি ও বাম দলগুলি। বিরোধীদের অভিযোগ, গ্রামীণ রোজগার নিশ্চয়তা প্রকল্পের মাধ্যমে পর্যাপ্ত কাজের সুযোগ তৈরি করা হচ্ছে না। কৃষকদের ক্রমবর্ধমান আত্মহত্যার ঘটনা ঠেকাতে কৃষিঋণ মকুবের ব্যবস্থা করা হচ্ছে না। ২০১৭ সালের অর্থবিল নিয়ে আলোচনার শুরুতে সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন কংগ্রেস নেতা কপিল সিবাল। কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করার অভিযোগে সরকারের সমালোচনা করেন তিনি। এই কংগ্রেস নেতার অভিযোগ, কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর কোনও উদ্যোগ নেই। ফাঁকা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে সরকার। পাশাপাশি আয়কর রিটার্নের জন্য আধারের ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরকারের উদ্যোগ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

দিল্লি গণধর্ষণ মামলা: রায়দান স্থগিত রাখল সুপ্রিম কোর্ট

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): দক্ষিণ দিল্লিতে ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর রাতে চলন্ত বাসে গণধর্ষণের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চার ফাঁসির আসামীর আবেদনের শুনানির পর সোমবার রায়দান স্থগিত রাখল সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বে তিন সদস্যের বেঞ্চের বাকি দুই সদস্য হলেন বিচারপতি আর ভানুমতী এবং বিচারপতি অশোক ভূষণ। দিল্লি পুলিশের পক্ষে সওয়াল করতে গিয়ে সিনিয়র আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা ২৩ বছরের ডাক্তারি ছাত্রীটির উপর দোষীদের নৃশংসতা এবং পাশবিক আচরণের দিকটি তুলে ধরেন। বলেন, এই অপরাধের একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদণ্ডই। আদালত-বান্ধব আইনজীবী রাজু রামচন্দ্রন প্রস্তাব দেন, দোষীদের আজীবন ফাঁসির সাজা দেওয়ার কথাও বিবেচনা করতে পারে আদালত। চার আসামীর পক্ষে আইনজীবী এ পি সিং এবং বিচারপতি এম এল শর্মা তাঁদের আবেদনে বলেন, এদের পারিবারিক পটভূমি এবং বয়স বিবেচনা করে ফাঁসির আবেদন প্রত্যাহার করে নেওয়া হোক। প্রসঙ্গত, মুকেশ, পবন, বিনয় শর্মা এবং অক্ষয়কুমার সিংয়ের ফাঁসির আদেশ দেয় নিম্ন আদালত। দিল্লি হাইকোর্টে সেই রায় বহাল থাকে। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করেই দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে চার আসামী।

মধ্যপ্রদেশের সরকারি হাসপাতালে কুকুরে খেল বৃদ্ধার দেহ, শুরু তদন্ত

রাজগড় (মধ্যপ্রদেশ), ২৭ মার্চ (পিটিআই): মধ্যপ্রদেশের সরকারি হাসপাতালে কুকুরে খেল বৃদ্ধার দেহ। মাথা ও উপরের দিকের কিছুটা অংশ ছাড়া আর কিছুই অবশিষ্ট রইল না। ক’দিন আগে হাসপাতাল থেকে নিখোঁজ হয়ে যান ৮০ বছরের ওই বৃদ্ধা। দেহাংশের হদিশ মেলার আগে পর্যন্ত তা জানাই ছিল না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। রাজগড় জেলা হাসপাতালের এই ভয়াবহ ঘটনা নিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। শুরু হয়েছে তদন্ত।

সরকারি কর্তারা সোমবার বলেন, বিসমিল্লাদেবী নামে ওই বৃদ্ধার দেহাংশ গতকাল দেখতে পান হাসপাতালের সাফাইকর্মীরা। প্রসূতি বিভাগের কাছে সেটি পড়ে ছিল। গত ১৯ মার্চ থেকে নিখোঁজ ছিলেন ওই বৃদ্ধা। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক এস এস গুপ্তা বলেন, হাসপাতালের ওই অংশ থেকে দুর্গন্ধ আসায় অন্য রোগীরা তা স্টাফেদের জানান। তার জেরেই বৃদ্ধার দেহাংশ উদ্ধার হয়। তার আগে পর্যন্ত হাসপাতালের জানাই ছিল না তাঁর নিখোঁজ হওয়ার কথা। মনে করা হচ্ছে, উপরের অংশ ছাড়া বাকি দেহ কুকুরে খেয়ে ফেলেছে। পরবর্তী তদন্তের পর বিষয়টি স্পষ্ট হবে। পুলিশ জানিয়েছে, গুনা জেলার মধুসূদনগড় থেকে ওই বৃদ্ধা এখানে এসেছিলেন। অসুস্থ অবস্থায় রাস্তার ধারে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশই তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করেছিল। গত ১৯ মার্চ থেকে তিনি নিখোঁজ হয়ে পড়লেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশের কাছে কোনও অভিযোগ জানায়নি। শেষকৃত্যের জন্য তাঁর দেহাংশ পরিজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। তদন্ত চলছে।

কাশ্মীরে গ্রেপ্তার ৭ হিজবুল জঙ্গি

শ্রীনগর ও নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): কাশ্মীরের কুলগাঁও জেলা থেকে সোমবার সাত জন সন্দেহভাজন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। এপ্রিল মাসে অনন্তনাগ ও শ্রীনগরে লোকসভা উপনির্বাচন রয়েছে। পুলিশের দাবি, হিজবুল মুজাহিদিনের এই চক্রটিকে আসন্ন উপনির্বাচন ব্যাহত করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। কুলগাঁওয়ের এসএসপি শ্রীধর পাতিল এদিন সাংবাদিকদের বলেন, সাত জন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করে নিষিদ্ধ হিজবুল মুজাহিদিনের একটি চক্রের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছি আমরা। গত ২১ মার্চ গোয়েন্দা সূত্রে সুনির্দিষ্ট খবর আসে পুলিশের কাছে। ওই জঙ্গি সংগঠনটি নিরাপত্তা বাহিনীর উপর হামলা চালিয়ে উপনির্বাচন ব্যাহত করার চেষ্টা করছে।

এদিকে, কাশ্মীরে বিক্ষোভ ঠেকাতে ছররা বন্দুক ব্যবহারের বিকল্প কোনও কার্যকরী পদক্ষেপ নিয়ে কেন্দ্রকে বিবেচনা করতে বলল সুপ্রিম কোর্ট। উপত্যকায় বিক্ষোভে শামিল নাবালকেরা যেভাবে জখম হচ্ছে, তা নিয়ে এদিন উদ্বেগ প্রকাশ করল প্রধান বিচারপতি জে এস খেহরের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। ওই নাবালকদের অভিভাবকদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে, কেন্দ্রের কাছে তা জানতে চায় শীর্ষ আদালত। মামলার পরবর্তী শুনানি হবে আগামী ১০ এপ্রিল।

ভুয়ো নথি দিয়ে জয়ললিতার ছেলে হওয়ার দাবি, গ্রেপ্তারির নির্দেশ

চেন্নাই, ২৭ মার্চ: আদালতে সম্পত্তি চাইতে গিয়ে এবার গ্রেপ্তারির মুখে তামিলনাড়ুর প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার স্বঘোষিত ‘ছেলে’। আদালত ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে পুলিশকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, জে কৃষ্ণমূর্তি নামের ওই ব্যক্তি আদালতে কয়েকটি দলিল জমা দিয়ে দাবি করেন, তিনি জয়ললিতা এবং তেলুগু অভিনেতা শোভন বাবুর ছেলে। সম্পত্তির দাবির পাশাপাশি আদালতের কাছে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করারও আর্জি জানান তিনি। গত সপ্তাহে পিটিশন জমা দেওয়ার পর দলিলপত্রগুলি ভালো করে পরীক্ষার জন্য চেন্নাই শহরের পুলিশ কমিশনারের কাছে বিচারপতি জমা দিতে বলেন। আদালতের নির্দেশ মতো, সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ দলিলগুলি পরীক্ষা করে। দলিলে জয়ললিতা এবং শোভন বাবুর ছবি ছিল। পাশাপাশি, জয়ললিতার রাজনৈতিক গুরু এম জি রামচন্দ্রনের হস্তাক্ষর। পরে পুলিশ আদালতে মুখবন্ধ খামে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়। জানা গিয়েছে, আদালতে পেশ হওয়া দলিল সম্পূর্ণভাবে জাল। ওই ব্যক্তির আসল বাবা-মা অন্য জেলায় বাস করেন। এরপরই বিচারপতি আর মাধবন নির্দেশ দিয়েছেন, ওই ব্যক্তি শুধুমাত্র আদালতের সঙ্গে প্রতারণা করেননি। তিনি ভুয়ো নথি জমা দিয়েছেন। অবিলম্বে তাঁকে গ্রেপ্তার করতে হবে।

মন্ত্রীদের ‘পার্ট-টাইম’ কাজ নিয়ে প্রশ্ন উঠল রাজ্যসভায়

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): কোনও মন্ত্রী কি কোনও ‘পার্ট-টাইম’ কাজ করতে পারেন? নভজ্যোৎ সিং সিধুর নাম না করেই মঙ্গলবার রাজ্যসভায় এই প্রশ্ন তুলেছেন সমাজবাদী পার্টির সদস্য নরেশ আগরওয়াল। তিনি বলেন, সম্প্রতি পাঞ্জাবে এই নিয়ে মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচনা চলছে। উল্লেখ্য, পাঞ্জাবে অমরিন্দর সিংয়ের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেসি সরকারে মন্ত্রী হিসাবে শপথ নেওয়ার পরও টিভি শো চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ক্রিকেট থেকে রাজনীতিতে আসা নভজ্যোৎ সিং সিধু। নরেশ আগরওয়াল আরও অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি এবং আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ স্বনামধন্য আইনজীবী হিসাবে মোটা অঙ্কের পারিশ্রমিকের বিনিময়ে আইনি পরামর্শ দেন। রাজ্যসভার ডেপুটি স্পিকার পি জে ক্যুরিয়েন, তাঁর এই দাবির পক্ষে কোনও প্রমাণ নেই। তবুও নিজের বক্তব্যে অনড় থাকেন আগরওয়াল। এরপর সংসদ বিষয়ক কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী মুক্তার আব্বাস নকভি বলেন, সমাজবাদী পার্টির এমপি’র দাবিতে তথ্যগত ভুল রয়েছে। কংগ্রেস সদস্য রাজীব শুক্লা প্রশ্ন করেন, অবসরপ্রাপ্ত বিচারকরা কি মতামত বা আরবিট্রেশন দিতে পারেন? আর এক কংগ্রেস এমপি প্রমোদ তেওয়ারি বিদেশের মাটিতে ভারতীয়দের উপর আক্রমণের বিষয়ে প্রশ্ন রাখেন।

উত্তরপ্রদেশে প্রোটেম স্পিকার ফতেবাহাদুর সিং
বিরোধী দলনেতা হিসাবে রামগোবিন্দ চৌধুরিকে বেছে নিলেন অখিলেশ

লখনউ, ২৭ মার্চ (পিটিআই): নবগঠিত উত্তরপ্রদেশ বিধানসভায় সোমবার প্রোটেম স্পিকার হিসাবে শপথ নিলেন বিজেপি’র সিনিয়র বিধায়ক ফতেবাহাদুর সিং (৪৯)। গোরক্ষপুরের কাম্পিয়ারগঞ্জের বিধায়ককে শপথবাক্য পাঠ করান উত্তরপ্রদেশের রাজ্যপাল রাম নায়েক। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বীরবাহাদুর সিংয়ের ছেলে শপথ নেন সংস্কৃতে। তাঁর সঙ্গেই শপথ নেন রাজ্যের চার বিধায়ক। আগামী দু’দিন নতুন বিধায়করা শপথ নেবেন। এদিন রাজভবনে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী সুরেশ খান্না এবং স্পিকার মাতাপ্রসাদ পান্ডে।

অন্যদিকে, বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা হিসাবে অখিলেশ যাদব এদিন বেছে নিলেন সমাজবাদী পার্টির আটবারের বিধায়ক রামগোবিন্দ চৌধুরিকে (৭০)। আজম খান এবং শিবপাল যাদবের মতো হেভিওয়েটরা থাকা সত্ত্বেও রামগোবিন্দকে দলনেতা হিসাবে বেছে নেওয়া নিয়ে রাজনৈতিক মহলে স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে। সমাজবাদী পার্টির মুখপাত্র রাজেন্দ্র চৌধুরি জানান, ‘অখিলেশ যাদব রামগোবিন্দ চৌধুরিকে দলের পরিষদীয় নেতা হিসাবে বেছে নিয়েছেন। বিধানসভায় উনিই হবেন বিরোধী দলনেতা।’

বায়ু দূষণে দেশের প্রথম পাঁচ শহরের মধ্যে দিল্লি

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): দেশের যে পাঁচটি শহরে বায়ু দূষণের মাত্রা সবচেয়ে খারাপ, সেই তালিকায় রয়েছে দিল্লি ও ফরিদাবাদ। সোমবার রাজ্যসভায় এই তথ্য দিল কেন্দ্রীয় সরকার।

কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী অনিলমাধব দাভে একটি লিখিত বিবৃতিতে বায়ু দূষণ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাব দেন। তিনি বলেন, দূষণ সৃষ্টিকারী পদার্থের ভিত্তিতে বিভিন্ন ফলাফলের নিরিখে শহরগুলির ক্রমতালিকা তৈরি করা যায়। ২০১৫ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৬ সালের অক্টোবর পর্যন্ত বায়ু দূষণের মান সংক্রান্ত সূচকে যে পাঁচটি শহর উপরের দিকে রয়েছে, সেগুলি হল দিল্লি, ফরিদাবাদ, বারাণসী, লখনউ ও জয়পুর। দেশের মধ্যে সবচেয়ে দূষিত পাঁচটি শহর কোনগুলি, এই প্রশ্নের জবাবে কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী জবাব দেন।

আত্মঘাতী পরিবারের চার সদস্য

ত্রিচূড় (কেরল), ২৭ মার্চ (পিটিআই): একই পরিবারের চার সদস্যকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করল পুলিশ। পুলিশের সন্দেহ, আত্মঘাতী হয়েছে পরিবারটি। সোমবার সকালে ত্রিচূর জেলার ইরুমাপেট্টি এলাকায় এক দম্পত্তি এবং তাঁদের দুই শিশু কন্যার দেহ উদ্ধার হয়। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত সুরেশ কুমারকে (৩৭) বাড়ির বাইরের একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাঁর স্ত্রী ধন্যা (৩০) এবং দুই মেয়ে ভাগ্য (১০) এবং বৈশালীকে (৭) বাড়ির ভিতরে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। কেন এই ঘটনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে, স্থানীয়দের দাবি, বেশ কিছুদিন ধরে আর্থিক অনটনে ছিল ওই পরিবার।

ত্রিপুরায় কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন

আগরতলা, ২৭ মার্চ (পিটিআই): ত্রিপুরায় এক ১৬ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। ঘটনাটি ঘটেছে রাজধানী আগরতলা থেকে ২২০ কিলোমিটার দূরে উত্তর ত্রিপুরার ধর্মনগরে। এসপি মানিক দাস জানিয়েছেন, নবম শ্রেণির ছাত্রী ওই কিশোরী শনিবার সন্ধ্যায় কোনও এক পরিচিত ব্যক্তির ফোন পায়। তারপরই বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। দু’দিন পর তার ক্ষতবিক্ষত দেহ একটি পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ ইতিমধ্যেই এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত সন্দেহে এক যুবককে আটক করেছে।

মধ্যপ্রদেশে দুর্ঘটনায় মৃত ১১ শ্রমিক

জব্বলপুর, ২৭ মার্চ (পিটিআই): মধ্যপ্রদেশে একটি ট্রাক খাদে পড়ে গেলে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা সবাই শ্রমিক। এদিন সকালে একটি ছোট ট্রাকে করে তাঁরা কাজ করতে যাচ্ছিলেন। মৃতদের মধ্যে ৯ জন মহিলা শ্রমিক। এছাড়াও আহত হয়েছেন ৩৬ জন। পুলিশ জানিয়েছে, ট্রাকটির চালক লালপুর থেকে চারগাঁও যাওয়ার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে এই দুর্ঘটনা ঘটে। মিনি ট্রাকটিতে ৪৮ জন শ্রমিক ছিলেন। মধ্যপ্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী শরদ জৈন বলেন, মালবাহী ট্রাকে যাত্রী বহন করতে না পারে তার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। সরকারের পক্ষ থেকে মৃতদের পরিবারকে এককালীন ১ লক্ষ এবং আহতদের ১০ হাজার টাকা দেওয়া হবে।

মণিপুরে দুর্ঘটনায় মৃত ১৯

ইম্ফল, ২৭ মার্চ (পিটিআই): মণিপুরে পৃথক দুর্ঘটনায় ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া জখম হয়েছেন ৪৪ জন। খনগাসং এবং টেমলং জেলায় পৃথক ঘটনায় দু’টি গাড়ি রাস্তা থেকে খাদে পড়ে গেলে আট জনের মৃত্যু হয়। অন্যদিকে জিরিবাম-ইম্ফল জাতীয় সড়কে অপর এক দুর্ঘটনায় ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিন ভোরে পর্যটকদের একটি বাস রাস্তার পাশে গভীর খাদে পড়ে যায়।

মানসিক রোগীদের আত্মহত্যার চেষ্টা
আর অপরাধ নয়, বিল পাশ সংসদে

নয়াদিল্লি, ২৭ মার্চ (পিটিআই): মানসিক রোগীদের আত্মহত্যার চেষ্টা অপরাধ নয়। উলটে তাঁদের আরও স্বাস্থ্য পরিষেবা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। এমনই বিল পাশ হয়ে গেল সংসদে। এছাড়া মানসিক রোগীদের সম্পত্তির অধিকারও সুরক্ষিত থাকছে সদ্য পাশ হওয়া ‘মানসিক স্বাস্থ্য পরিষেবা বিল’য়ে। ধ্বনি ভোটে লোকসভায় পাশ হওয়ার পর এদিন এমনই জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জে পি নাড্ডা। গত বছর আগস্টে রাজ্যসভায় বিলটি পাশ হয়েছিল ১৩৪টি সরকারি সংশোধনীসহ।

বিদেশি পর্যটকের শ্লীলতাহানি

জয়পুর, ২৭ মার্চ (পিটিআই): রাজস্থানে একটি পার্লারে গিয়ে শ্লীলতাহানির শিকার হলেন এক অস্ট্রিয়ার পর্যটক। পুলিশ জানিয়েছে, ২১ বছরের বছরের ওই বিদেশি পর্যটক একটি পার্লারে যান। এরপর সেখানে তাঁকে শ্লীলতাহানি করা হয় বলে অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে।

 

 



?Copyright Bartaman Pvt Ltd. All rights reserved
6, J.B.S. Haldane Avenue, Kolkata 700 105
 
Editor: Subha Dutta