কলকাতা, রবিবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৩

 

রবিবার | রেসিপি | আমরা মেয়েরা | দিনপঞ্জিকা | শেয়ার | রঙ্গভূমি | সিনেমা | নানারকম | টিভি | পাত্র-পাত্রী | জমি-বাড়ি | ম্যাগাজিন

সংখ্যাটা ৫ কোটি ছাড়িয়েছে
সারা বিশ্বের মধ্যে ভারতীয়রাই সবচেয়ে বেশি
মানসিক অবসাদের শিকার, রিপোর্ট হু’র


সন্দীপ স্বর্ণকার, নয়াদিল্লি, ২৫ ফেব্রুয়ারি: সারা বিশ্বের মধ্যে ভারতীয়রাই সবচেয়ে বেশি মানসিক অবসাদ আর উদ্বেগের শিকার। এদেশে প্রতি ২০ জনের মধ্যে একজন অবসাদে আক্রান্ত। প্রতি ২৫ জনে একজন অ্যাংজাইটি অর্থাৎ মানসিক উদ্বেগের শিকার। সমীক্ষা চালিয়ে রীতিমতো চিন্তিত হওয়ার মতো এমনই রিপোর্ট প্রকাশ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ‘হু’। কেবল ভারতই নয়। গোটা বিশ্বে গত এক দশকে মানসিক অবসাদ আর উদ্বেগাক্রান্তের হার ১৮ শতাংশ বেড়েছে। গোটা বিশ্বে ৩২ কোটির কিছু বেশি মানুষ মানসিক অবসাদের শিকার। যার মধ্যে স্রেফ ভারতেই রয়েছে সাড়ে ৫ কোটিরও বেশি নাগরিক।

মূলত গরিবি, বেকারত্ব, প্রেমে প্রত্যাখান, দীর্ঘ শারীরিক অসুস্থতা, লাগাতার মদ্যপান এবং মাদক সেবনই মানসিক অবসাদ আর উদ্বেগের অন্যতম প্রধান কারণ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ভারতের জনসংখ্যার সাড়ে ৪ শতাংশ মানুষ অবসাদে ভোগেন বলে রিপোর্টে প্রকাশ পেয়েছে। এর থেকে উদ্ধার পাওয়ার জন্য সমস্যা লুকিয়ে না রেখে অবিলম্বে চিকিৎসকদের পরামর্শ নেওয়ারই পরামর্শ দিয়েছে হু। গবেষণায় জানা গিয়েছে, মানসিক অবসাদের কারণ অন্বেষণ করতে হলে পরিবার বা কাছের মানুষের সঙ্গে আলোচনা করা যেমন প্রয়োজন, একইভাবে যিনি অবসাদ বা উদ্বেগের শিকার তাকে ‘সুস্থ’ জীবনযাপনে ফিরতে নিকটজনের ভূমিকাও কম নয়। মানসিক সংযম এবং শক্তিই অবসাদ এবং উদ্বেগ দূর করতে পারে বলেই বিশেজ্ঞদের মত।

‘ডিপ্রেশন অ্যান্ড আদার কমন মেন্টাল ডিসঅর্ডারস, গ্লোবাল হেলথ এস্টিমেট’ নামে ওই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওই রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, ভারত, বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কাসহ দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বাসিন্দারাই গোটা পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানসিক অবসাদ এবং উদ্বেগের শিকার। এর মধ্যে আবার ভারতের নাগরিকদের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এদেশে ৫ কোটি ৬৬ লক্ষ ৭৫ হাজার ৯৬৯ জন মানসিক অবসাদের শিকার। আর মানসিক উদ্বেগে থাকেন এমন নাগরিকের সংখ্যা ৩ কোটি ৮৪ লক্ষ ২৫ হাজার ৯৩ জন। যা জনসংখ্যার ৩ শতাংশ। ভারতে পুরুষের চেয়ে মহিলারাই অবসাদ এবং মানসিক উদ্বেগে থাকেন বলে রিপোর্টে বলা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কেন্দ্রে ক্ষমতায় বসার পর যোগা এবং ব্যায়ামের ওপর জোর দিলেও আশানুরূপ গরিবি কমেনি। বেকারিত্বের হারও তেমন কম হয়নি। ক্ষমতায় আসার আগে নরেন্দ্র মোদি বছরে দু কোটি কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিলেও তা রাখতে পারেননি। উলটে নোট বাতিলের জেরে বহু ক্ষুদ্র শিল্প কারখানার শ্রমিক কাজ হারিয়েছেন বলেই অভিযোগ। হু তার রিপোর্টে এসব উল্লেখ না করলেও অবসাদ এবং মানসিক উদ্বেগের অন্যতম কারণ হিসেবে বেকারত্বকে বিশেষভাবে উল্লেখ করায় রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠছে।

মানসিক অবসাদ এবং উদ্বেগ মানুষকে ক্রমশ আত্মহত্যাপ্রবণতার দিকে ঠেলে দেয় বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। ভারত, বাংলাদেশসহ দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বাসিন্দাদের মধ্যে প্রতি এক লক্ষে ১৫ জন পুরুষ এবং ১২ জন মহিলা আত্মহত্যা করেন বলে সমীক্ষায় জানিয়েছে হু। কৈশোরে পা দেওয়ার পর থেকে তরুণ বয়সীদের মধ্যেই মূলত আত্মহত্যা বা আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা অত্যধিক বলেই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। নিম্ন এবং মধ্যবিত্ত পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সাধারণত মানসিক অবসাদ হতাশা আর মানসিক উদ্বেগের হার বেশি হলেও উচ্চবিত্তরাও এই ‘রোগ’ থেকে রেহাই পান না বলেই জানিয়েছে হু।

 





?Copyright Bartaman Pvt Ltd. All rights reserved
6, J.B.S. Haldane Avenue, Kolkata 700 105
 
Editor: Subha Dutta