কলকাতা, রবিবার ২২ জানুয়ারি ২০১৭, ৮ মাঘ ১৪২৩

রবিবার | রেসিপি | আমরা মেয়েরা | দিনপঞ্জিকা | শেয়ার | রঙ্গভূমি | সিনেমা | নানারকম | টিভি | পাত্র-পাত্রী | জমি-বাড় | ম্যাগাজিন

ট্রাম্প বিরোধী বিক্ষোভ চলছেই,
ওয়াশিংটনের রাস্তায় জ্বলছে গাড়ি

ওয়াশিংটন, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেওয়ার ২৪ ঘণ্টা পরও ওয়াশিংটনের রাস্তায় জ্বলছে একের পর এক বিলাসবহুল গাড়ি। রাস্তার একাদিকে সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী, অন্যপ্রান্তে তখন কয়েক হাজার ট্রাম্প বিরোধী সমর্থক। দফায় দফায় স্লোগান উঠছে: ট্রাম্প তোমাকে চাই না। তোমায় আমরা মানি না। সেই বিক্ষোভে শামিল হয়েছে হলিউডও। এদিন হলিউডের তরফে জানানো হয়েছে, শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভাষণ আসলে ব্যাটম্যান সিনেমার ভিলেন বেনের মতো।

শুধু ওয়াশিংটন নয়, আমেরিকার বিভিন্ন শহরে ছোট-বড় বিক্ষোভ চলছে। এখনও পর্যন্ত ২১৭-রও বেশি বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। আহত হয়েছেন ছয় পুলিশকর্মী। শনিবার সকাল থেকে ট্রাম্প টাওয়ারের সামনে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী ঘিরে রয়েছে। ওয়াশিংটনে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষ হয়। পুলিশের একজন মুখপাত্র কোনও কোনও জায়গার বিক্ষোভকে দাঙ্গার সঙ্গে তুলনা করেছেন। পুলিশ বলছে, বিক্ষোভকারীরা দোকানে ইট-পাথর ছুঁড়ছে। রাস্তায় রাখা ডাস্টবিনগুলিতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। আগুন লাগানো হয়েছে একাধিক গাড়িতেও। তাদের নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ মরিচ, জল স্প্রে করেছে। সিএনএনের খবরে জানা যায়, এ পর্যন্ত ২১৭ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ কর্তা পিটার নিউসাম বলেন, তিনজন পুলিশ সদস্যের মাথায় আঘাত লেগেছে। অন্যদের আঘাত তত গুরুতর নয়। ট্রাম্প অবশ্য নিজে বিক্ষোভের বিষয়ে সরাসরি কোনও মন্তব্য করেননি। তবে তাঁর অনেক রিপাবলিকান সমর্থক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। বিক্ষোভকারীরা বলছে, ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণ অবৈধ। ক্ষমতা গ্রহণের প্রথম দিন থেকেই তারা ট্রাম্পের নাগরিক স্বার্থবিরোধী যে কোনও উদ্যোগের বিরুদ্ধে অবস্থান নেবে। তাদের লক্ষ্য, যে কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে ট্রাম্প যেন মনে রাখেন, দেশের বেশিরভাগ মানুষ তাঁর বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন।

তবে মার্কিন ইতিহাসে ক্ষমতা হস্তান্তরের সময় বিক্ষোভ ও সংঘর্ষের ঘটনা অস্বাভাবিক নয়। ১৮৬১ সালে প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী ওয়াশিংটনে জমায়েত হয়। তাদের অনেকেই সশস্ত্র ছিল। সম্ভাব্য হামলা এড়াতে লিঙ্কনকে গোপনে অভিষেক কেন্দ্রে হাজির করাতে হয়েছিল।

ট্রাম্প ক্ষমতায় বসেই আস্তাকুঁড়ে পাঠালেন ওবামাকেয়ার, শুভেচ্ছা মোদির

ওয়াশিংটন, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): নির্বাচনে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, শপথ নিয়েই তা বাস্তবায়নে তোড়জোড় শুরু করেদিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শপথ নেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই আগের জামানার ওবামাকেয়ারের বিভিন্ন নিয়ম আইনগতভাবে বাতিলের দলিলে সই করে দিলেন নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ট্রাম্প বুঝিয়ে দিলেন ওবামা নয়, মার্কিন প্রেসিডেন্টের নাম ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই ওবামার নীতিও এখন আস্তাকুঁড়ে। শুক্রবার রাতে ওবামাকেয়ার বাতিলের সময় হোয়াইট হাউজের ওভাল অফিসে সাংবাদিকেরাও উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত ছিলেন শীর্ষ উপদেষ্টা জেয়ার্ড কুশনার, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও স্টাফ সেক্রেটারি রব পর্টার। ২০০৯ সালে দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও প্রথম স্বাস্থ্য সংস্কার বিলকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন। এদিন ছিল তার পালটা জবাব। জানা গিয়েছে, ওবামাকেয়ার বাতিল হলে প্রায় দুই কোটি মার্কিন নাগরিক স্বাস্থ্যবিমা হারাতে পারেন। তবে এতকিছুর মধ্যে সৌজন্য দেখাতে ভোলেননি ট্রাম্প। তাঁর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন এবং হিলারি ক্লিনটন উপস্থিত থাকার জন্য তাঁদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। একইসঙ্গে জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি খেলতে নামেননি, প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়নের জন্যই হবে তাঁর যাবতীয় পদক্ষেপ। সেই কাজই শুরু। ট্রাম্পকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এক শুভেচ্ছা বার্তায় মোদি বলেছেন, সামনের দিকে তাকান। আসুন, একসঙ্গে কাজ করি।

গত ১৪ জানুয়ারি মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদ ওবামাকেয়ার বাতিলে প্রথম পদক্ষেপ নেয়। পদক্ষেপটি ২২৭-১৯৮ ভোটে পাশ হয়। হাউজ স্পিকার পল রায়ান এর আগে ওবামার স্বাস্থ্যনীতির বদলে ট্যাক্স ক্রেডিট সিস্টেম আনা যেতে পারে বলে প্রস্তাব দিয়েছেন। ওবামাকেয়ার বাতিলের পাশাপাশি একই সময়ে ভিন্ন বিমা কর্মসূচি চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ট্রাম্প। অবশ্য এমন কোনও কর্মসূচি কংগ্রেসের অনুমোদন ও অর্থ বরাদ্দ ছাড়া সম্ভব নয়। ট্রাম্প ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন, ব্যাপক ক্ষমতার প্রেসিডেন্সিয়াল কলমটি ব্যবহার করতে দেরি করবেন না ট্রাম্প, কংগ্রেসের অনুমোদন ছাড়াই বাস্তবায়ন করা যায় এমন বেশ কয়েকটি বিষয়ে স্বাক্ষর করবেন তিনি।

ভার্জিনিয়ার ল্যাঙলে সিআইএ সদর দপ্তর পরিদর্শনে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছেন ট্রাম্প। আমেরিকার কেন্দ্রীয় এই গোয়েন্দা সংস্থা ও তার বিদায়ী প্রধানের কঠোর সমালোচনা করেছেন ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার চলার সময় রাশিয়া সাইবার হামলা চালিয়েছে, সিআইএ-র এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে প্রথমে প্রশ্ন তোলেন তিনি, পরে আবার অভিযোগটি মেনে নেন। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে নাৎসি জার্মানির সঙ্গেও তুলনা করেন ট্রাম্প।

স্বাস্থ্যসেবা, জলবায়ু নীতি, অভিবাসন, জ্বালানি ও অন্যান্য বহু বিষয়ে দুশোরও বেশি ট্রাম্পের বিবেচনার জন্য প্রস্তুত করে রেখেছেন তার উপদেষ্টারা। তিনি দেখাতে চান, তিনি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন, ওয়াশিংটনের প্যাঁচে আটকা পড়ে থাকবেন না, বলেছেন প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট বিষয়ক ইতিহাসবিদ জুলিয়ান জেলিজার।

ইতালির সেই বরফ-ঢাকা হোটেলের ধ্বংসস্তূপে জীবিত উদ্ধার এক মহিলাসহ তিন শিশু

ফ্যারিন্ডোলা, ২১ জানুয়ারি (এপি): একেই বোধহয় বলে বরাতজোর! কিংবা এটাই ‘রাখে হরি, মারে কে’ প্রবাদের সেরা দৃষ্টান্ত!

টানা প্রায় ৯৬ ঘণ্টা ইতালির সেই বরফ-ঢাকা হোটেলের ধ্বংসস্তূপে চাপা থেকেও শিশুপুত্রসহ বেঁচে ফিরলেন আদ্রিয়ানা নামে এক মহিলা। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে আরও দুই শিশুকেও। তাঁদের এই পুনর্জন্মকে উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা বলছেন, ‘সত্যিই বিস্ময়কর’!

মধ্য ইতালিতে ব্যাপক তুষারপাতের জেরে বুধবার রাতে গ্র্যান সাসো মাউন্টেন রেঞ্জের একটি অভিজাত হোটেল ধসে পড়ে। ছাদের উপর ৫ মিটার পুরু তুষারের স্তর নিয়ে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে সেটি। দুর্ঘটনার সময় রিগোপিয়ানো নামের ওই হোটেলে মহিলা-শিশু মিলিয়ে ৩০ জনের মতো ছিলেন। ধস নামার মুহূর্তে কেউ কেউ হোটেল থেকে বেরিয়ে আসতে পারলেও, বেশ কয়েকজন মহিলা ও শিশু আটকে পড়েন। উদ্ধারকাজের নামে দমকল। প্রথম পর্যায়ে ১১ জনকে উদ্ধার করা হয়। বরফের ধসে চাপা পড়ে বেশ কয়েকজন প্রাণও হারান। বাকিদের বেঁচে থাকার আশা একরকম ছেড়েই দিয়েছিলেন দমকলকর্মীরা। শুক্রবার রাতভর তল্লাশি চালানোর পর শনিবার সকালে বরফের দু’টি চাঁইয়ের মাঝে আদ্রিয়ানাকে দেখতে পায় উদ্ধারকারী দল। তিনি শুধু ‘মাই ডটার, মাই ডটার’ বলে গোঁঙাচ্ছিলেন। এর থেকে সামান্য দূরে উদ্ধারকারীরা দেখেতে পান সাত বছরের জিয়ানফিলিপোকে । উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন, ধসে পড়া বরফের স্তূপের ভিতর একটি ‘এয়ার পকেটে’র মধ্যে ছিল আদ্রিয়ানার ছেলে জিয়ান। গুরুতর জখম হলেও বেঁচে রয়েছে সে। কিন্তু আদ্রিয়ানাকে হারাতে হয়েছে তাঁর ছ’ বছরের মেয়ে লুডোভিকাকে। দুর্ঘটনার রাতেই সে বরফে চাপা পড়ে মারা যায়। পরে তার দেহ উদ্ধার করা হয়।

হোটেলটি ধসে পড়ার ঠিক আগের মুহূর্তেই বেরিয়ে আসতে পেরেছিলেন মাত্র দু’জন। তাঁদের মধ্যে একজন হলেন হোটেলের প্রধান পাচক জিয়ামপিয়েরো। তিনিই প্রথম হোটেলের ঊর্ধ্বতন কর্তাকে ধসের খবর দেন। আদ্রিয়ানা হলেন তাঁর স্ত্রী। বুধবারের অভিশপ্ত রাতে ধস নামার ঠিক আগেই আদ্রিয়ানার ওষুধ কিনতে হোটেলের বাইরে বেরিয়েছিলেন জিয়ামপিয়োরো। এদিন তিনি মেয়েকে হারানোর শোক ভুলেছেন ছেলে ও স্ত্রীকে কাছে পেয়ে। ফিরে পাওয়ার সেই আনন্দ ভাগ করে নিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়ও। ফেসবুকে তিনি জানিয়েছেন, আমার সৌভাগ্য, স্ত্রী, ছেলেকে ফিরে পেয়েছি। তাঁদের উদ্ধারের জন্য সবাইকে আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

আদ্রিয়ানাসহ তিন শিশুকে হোটেলের ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধারের পর আশায় বুক বেঁধেছেন আটকে থাকা পরিবারের লোকজন। এদিন ধ্বংসস্তূপের কাছে অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করতে দেখা গিয়েছে। দমকলের মুখপাত্র আলবার্তো মাইওলো বলেছেন, প্রতিকূল আবহাওয়ার জন্য উদ্ধারকাজে সমস্যা হচ্ছে। তবে উদ্ধারকাজ বন্ধ করা হবে না। এখন পর্যন্ত চার জনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। কিন্তু হোটেলের ধসে এখনও কতজন চাপা পড়ে রয়েছে, তা স্পষ্ট করে বলতে পারেননি আলবার্তো।

বন্দি ভারতীয় জওয়ানকে ফিরিয়ে দিল পাকিস্তান

আটারি, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): পাকিস্তানে বন্দি জওয়ান চান্দু বাবুলাল চ্যবনকে (২২) শনিবার ভারতের হাতে তুলে দিল ইসলামাবাদ। সেপ্টেম্বরে ভারতীয় সেনাবাহিনী পাক জঙ্গি সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে সার্জিকাল স্ট্রাইক চালানোর পরপরই ভুল করে সীমান্তের ওপারে চলে গিয়েছিলেন চান্দু। এদিন আটারি-ওয়াঘা সীমান্তের ল্যান্ড ট্রানজিট রুটে তিনি ফিরে আসেন। এরপর মুক্তি পাওয়া ওই জওয়ানকে বিএসএফ তুলে দেয় সেনাবাহিনীর হাতে।

সার্জিকাল ট্রাইকের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চান্দু ভুলবশত সীমান্তের ওপারে গিয়ে পাক বাহিনীর হাতে ধরা পড়েছিলেন। মুক্তি পাওয়ার পর এদিন তাঁর ভাই ভূষণ চ্যবন বলেন, চান্দুর মুক্তির জন্য সেনাবাহিনী যে তৎপরতা দেখিয়ে, সেজন্য আমি কৃতজ্ঞ। ঘটনাচক্রে ভূষণ নিজেও একজন সেনা। ৩৭ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের সদস্য চান্দুর বাড়ি মহারাষ্ট্রের ধুলে জেলার বোরবিহির গ্রামে। পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে নাতির বন্দির হওয়ার খবরের ধাক্কায় মৃত্যু হয়েছিল এই জওয়ানের ঠাকুরমার।

এদিন আটারি সীমান্তে সেনার এক অফিসার জানান, প্রথমে মেডিকেল পরীক্ষা হবে চান্দুর। সেই পরীক্ষা চালাবে সেনাবাহিনীর একটি চিকিৎসক দল। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী সুভাষ ভামরে বলেন, ওই জওয়ানের মুক্তির জন্য টানা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেই প্রচেষ্টা চালিয়ে গিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক ও ডিজিএমও। তাতে যুক্ত ছিল বিদেশ মন্ত্রকও। সেনাবাহিনীর কিছু প্রক্রিয়াগত কাজ থাকে। তা মিটে গেলেই বাড়ি ফিরতে পারবেন চান্দু।

এই ভারতীয় জওয়ানের মুক্তি নিয়ে এদিন সকালে প্রথমে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। সেখানে দাবি করা হয়, নিজের কমান্ডারদের বিরুদ্ধেই অভিযোগ থাকায় ওই ভারতীয় জওয়ান সেনাঘাঁটি ত্যাগ করে সীমান্ত পেরিয়েছিলেন। পাকিস্তানের মেজর জেনারেল আসিফ গফুর ট্যুইট করেন, শুভেচ্ছা বার্তা হিসাবে এই ভারতীয় জওয়ানকে ফিরিয়ে দিচ্ছে পাক সেনা। পৃথক একটি বিবৃতিতে পাক বিদেশমন্ত্রকের তরফে বলা হয়, মানবিকতার জায়গা থেকেই এই ভারতীয় সেনাকে ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান সরকার। নিয়ন্ত্রণ রেখায় শান্তিরক্ষার বিষয়ে পাকিস্তান দায়বদ্ধ। ভারতের দিক থেকে শত্রুতা সত্ত্বেও প্রতিবেশীদের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ বসবাসে বিশ্বাসী পাকিস্তান। আঞ্চলিক শান্তি বিঘ্নিত হতে পারে, এরকম কোনও কাজকে মান্যতা দেয় না পাকিস্তান।

এশিয়ার দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি চায় ট্রাম্প প্রশাসন

ওয়াশিংটন, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শপথ গ্রহণ পর্ব উৎসবের মেজাজেই পালন করলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনিরা। অনুষ্ঠানের আয়োজক এশিয়ান প্যাসিফিক আমেরিকান অ্যাডভাইসারি কাউন্সিল এবং ন্যাশনাল কমিটি অব এশিয়ান আমেরিকান রিপাবলিকানস। এই অনুষ্ঠানে আমেরিকায় ভারতের রাষ্ট্রদূত নভতাজ সারনা ছাড়াও এশিয়ার একাধিক দেশের দূতরা উপস্থিত ছিলেন। সারনা তাঁর সংক্ষিপ্ত ভাষণে বলেন, ‘এই উৎসব এশিয়ার সাফল্যের। এশীয় সম্প্রদায়ের একটা বড় অংশ যে ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনি, এটা দেখে খুব ভালো লাগছে।’ তাঁর আশা, আমেরিকার সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতিতে এই ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনিরা একটা উল্লেখযোগ্য ভূমিকা গ্রহণ করবেন। এই অনুষ্ঠানে দক্ষিণ কোরিয়া, আফগানিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার কূটনীতিকরাও বক্তব্য রাখেন। বিদেশ নীতি সংক্রান্ত কমিটির চেয়ারম্যান তথা মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি এড রয়েস জানান, ‘নতুন মার্কিন প্রশাসনের লক্ষ্য হল, এশিয়ার দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্ক আরও সুদূঢ় করা।’

নিরাপত্তার কারণে জেট বিমান, ফোন এবং ফোনের নম্বর বদল ট্রাম্পের

ওয়াশিংটন, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): নিরাপত্তার কারণে তাঁর দীর্ঘদিনের সঙ্গী অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি ছাড়তে হল নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। তার বদলে সিক্রেট সার্ভিসের দেওয়া নতুন স্মার্টফোন হাতে পেয়েছেন তিনি। সেই ফোনের নম্বর হাতে গোনা লোকের কাছে রয়েছে। নিরাপত্তার খাতিরে ব্যক্তিগত জেট বিমানের বদলে এবার থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের জন্য বরাদ্দ এয়ার ফোর্স ওয়ান ব্যবহার করবেন ট্রাম্প। ‘নিউ ইয়র্ক টাইমস’ এই খবর ছেপেছে। হোয়াইট হাউজে ঢোকার আগে প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকেও তাঁর ব্যক্তিগত ব্ল্যাকবেরি ফোনটির মায়া ত্যাগ করতে হয়েছিল। তাঁকে সিক্রেট সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, নিরাপত্তার জন্য এটা দারুণ ফোন। তবে এটায় ছবি তোলা যায় না, টেক্সট পাঠানো যায় না, গান শোনা যায় না।

ট্রাম্প সোশ্যাল মিডিয়ায় অত্যন্ত তৎপর। বিশেষত ট্যুইটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেওয়ার পরই চারটি ট্যুইট করে ফেলেছেন তিনি। ট্যুইটারে তার ‘ফলোয়ার’-এর সংখ্যা ১৪ কোটি। মিডিয়ার ‘অপপ্রচার’-এর বিরুদ্ধে লড়তে ট্যুইটারই তাঁর প্রধান অস্ত্র।

ইতালিতে বাস দুর্ঘটনা, মৃত ১৬, জখম ৩৬

রোম, ২১ জানুয়ারি (এএফপি): বাস দুর্ঘটনায় ইতালিতে প্রাণ হারালেন চালকসহ ১৬ জন। জখম হয়েছেন আরও ৩৬ জন। মৃতদের মধ্যে বেশিরভাগই হাঙ্গেরির স্কুলপড়ুয়া। যাঁদের বয়স ১৬-১৮ বছরের মধ্যে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। ইতালির সংবাদসংস্থা ‘অগি’ এখবর জানিয়েছে।

প্রায় ৫০ জন যাত্রী দিয়ে পড়ুয়াবোঝাই বাসটি ফ্রান্সের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল। ইতালির একটি স্কুলের পড়ুয়াদের নিয়ে শিক্ষামূলক ভ্রমণে গিয়েছিল সেটি। শুক্রবার সেটি ভেরোনার কাছে বিদ্যুতের একটি খুঁটিতে ধাক্কা মারলে সঙ্গে সঙ্গে তাতে আগুন ধরে যায়। ঘটনাস্থলেই মারা যান বাসচালক-সহ ১৬ জন। অগি জানিয়েছে, বাসচালক ফ্রান্সের নাগরিক এবং সেই বাসে ছিল তাঁর পরিবারও।

আমেরিকার স্কুলে গুলি, জখম ছাত্র

ওয়েস্ট লিবার্টি, ২১ জানুয়ারি (এপি): আমেরিকার স্কুলে ফের বন্দুকবাজের হামলা। ক্লাস শুরু হবে এমন সময় এক সহপাঠীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় আর এক পড়ুয়া। শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে ওয়েস্ট লিবার্টি উচ্চ বিদ্যালয়ে। মারা না গেলেও সংকটজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভরতি রয়েছেন জখম লোগান কোল (১৬)। স্কুলের শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীরা বন্দুকবাজ ছাত্রকে (১৭) না আটকালে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হত বলে জানিয়েছেন ক্যাম্পেন কাউন্টির শেরিফ ম্যাথু মেলভিন। পরে পুলিশ এসে তাকে নিয়ে যায়। আগামী সোমবার অভিযুক্ত ছাত্রকে আদালতে তোলা হবে। ঘটনাটি সম্পর্কে বলতে গিয়ে স্কুল সুপার রেইগ হিসং বলেছেন, কোল অত্যন্ত ভালো ছাত্র। আমরা ওঁর পরিবারের পাশে রয়েছি। আশা করি ও দ্রুত সেরে উঠবে। কিন্তু, কী কারণে গুলি চালাতে বাধ্য হল ওই বন্দুকবাজ ছাত্র তা এখনও জানা যায়নি। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

মণিপুরে ধৃত ১ উলফা জঙ্গি ও ২ অস্ত্র পাচারকারী, উদ্ধার বহু আগ্নেয়াস্ত্র

ইম্ফল, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): অসম রাইফেলস ও মণিপুর পুলিশের যৌথ অভিযানে গ্রেপ্তার হল দুই মহিলা অস্ত্র পাচারকারী এবং একজন বেআইনি অস্ত্র প্রস্তুতকারক। অন্য একটি ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়েছে এক উলফা জঙ্গি। পাশাপাশি, উদ্ধার হয়েছে ছ’টি নাইন এমএম পিস্তল, পাঁচটি ম্যাগাজিনসহ বিভিন্ন আগ্নেয়াস্ত্র। যে দু’জন অস্ত্রপাচারকারী গ্রেপ্তার হয়েছে, তারা হল ইস্টার হাওকিপ (২২) ও চোংবই হাওকিপ (৪৩)। তাদের চুরাচাঁদপুর জেলার মোলনম থেকে বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদিকে, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশন) ইমোবচার নেতৃত্বে মণিপুর পুলিশের এক কমান্ডো বাহিনী শুক্রবার কেসম্পত থেকে ওই উলফা জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে।

পাক শেয়ার বাজারে লগ্নির পথে চীনা সংস্থা

করাচি, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): পাকিস্তানের শেয়ার বাজারে প্রবেশ করল চীন। এদিন চীনের একটি ফার্মের নেতৃত্বাধীন কনসর্টিয়াম পাক স্টক এক্সচেঞ্জের ৪০ শতাংশ শেয়ার কিনে নিতে সম্মত হয়েছে। পাক অর্থমন্ত্রী ইশাক দারের উপস্থিতিতে গতকাল এ সংক্রান্ত একটি চুক্তিপত্র সই হয়েছে। অনুষ্ঠানে পাক বিদেশমন্ত্রী বলেন, পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য সরকার পাকিস্তান ডেভেলপমেন্ট ফান্ড তৈরি করছে। চীনা ফার্মের পাক স্টক এক্সচেঞ্জে বিনিয়োগের ফলে দু’দেশই উপকৃত হবে বলে আশাপ্রকাশ করেছেন দার।






?Copyright Bartaman Pvt Ltd. All rights reserved
6, J.B.S. Haldane Avenue, Kolkata 700 105
 
Editor: Subha Dutta